× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট বাংলা কনভার্টার নামাজের সময়সূচি আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

আন্তর্জাতিক
Israeli army violates human rights US
google_news print-icon

ইসরায়েলি সেনাবাহিনী মানবাধিকার লঙ্ঘন করেছে: যুক্তরাষ্ট্র

ইসরায়েলি-সেনাবাহিনী-মানবাধিকার-লঙ্ঘন-করেছে-যুক্তরাষ্ট্র
মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনাগুলো বর্তমান যুদ্ধের আগে গাজার বাইরে সংঘটিত হয়েছিল। ছবি: বিবিসি
বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, ওয়াশিংটন ইসরায়েলের প্রধান সামরিক সমর্থক। প্রতি বছর দেশটিকে ৩ দশমিক ৮ বিলিয়ন ডলার মূল্যের অস্ত্র এবং প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা সরবরাহ করে থাকে তারা।

ইসরায়েলি সামরিক বাহিনীর পাঁচটি ইউনিট আলাদা ঘটনায় মানবাধিকার লঙ্ঘনের জন্য দায়ী বলে প্রমাণ পেয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের স্টেট ডিপার্টমেন্ট।

ঘটনাগুলো চলমান যুদ্ধের আগে গাজার বাইরে সংঘটিত হয়েছিল, তবে মানবাধিকার লঙ্ঘনের পরও যুক্তরাষ্ট্র ইসরায়েলি সেনাবাহিনীকে দেয়া সামরিক সমর্থন অব্যাহত রাখবে বলে জানিয়েছে।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি তাদের মঙ্গলবারের প্রতিবেদনে এ কথা জানায়।

স্টেট ডিপার্টমেন্টের বরাত দিয়ে প্রতিবেদনে বলা হয়, ইসরায়েল চারটি ইউনিটে সংশোধনমূলক ব্যবস্থা নিয়েছে এবং পঞ্চমটির বিষয়ে ‘অতিরিক্ত তথ্য’ দিয়েছে। অর্থাৎ সব ইউনিটই যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক সহায়তা পাবে।

ওয়াশিংটন ইসরায়েলের প্রধান সামরিক সমর্থক। প্রতি বছর দেশটিকে ৩ দশমিক ৮ বিলিয়ন ডলার মূল্যের অস্ত্র এবং প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা সরবরাহ করে থাকে তারা।

স্টেট ডিপার্টমেন্টের মুখপাত্র বেদান্ত প্যাটেল বলেছেন, ‘নিরাপত্তা বাহিনীর পাঁচটি ইউনিট মানবাধিকারের চরম লঙ্ঘন করেছে। ইউনিটগুলোর মধ্যে চারটি কার্যকরভাবে লঙ্ঘনের প্রতিকার করেছে, যা আমরা অংশীদারদের কাছ থেকে আশা করি।’

তিনি বলেন, ‘বাকি একটি ইউনিটের বিষয়ে আমরা ইসরায়েল সরকারের সঙ্গে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছি।’

সাম্প্রতিক বছরগুলোতে ফিলিস্তিনের পশ্চিম তীর এবং জেরুজালেমে মানবাধিকার লঙ্ঘনের এসব ঘটনা ঘটেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্র বলছে, তারা নির্যাতন, বিচারবহির্ভূত হত্যা, জোরপূর্বক গুম এবং ধর্ষণকে এ ধরনের লঙ্ঘন হিসাবে বিবেচনা করে থাকে।

আরও পড়ুন:
মহাকাশে পরমাণু অস্ত্র নিষিদ্ধের প্রস্তাবে রাশিয়ার ভেটো
‘যুক্তরাষ্ট্রের মানবাধিকার প্রতিবেদনে ভিত্তিহীন তথ্য ব্যবহার হয়েছে’
গোপনে ইউক্রেনে দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র পাঠাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র
গাজার দুই হাসপাতালে গণকবরের সন্ধান
বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ায় যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে গণগ্রেপ্তার

মন্তব্য

আরও পড়ুন

আন্তর্জাতিক
Trumps attacker identified

ট্রাম্পের ওপর হামলাকারীর পরিচয় শনাক্ত

ট্রাম্পের ওপর হামলাকারীর পরিচয় শনাক্ত পেনসিলভানিয়া অঙ্গরাজ্যের বাটলারে শনিবার প্রচার সমাবেশে হামলার শিকার হন ডনাল্ড ট্রাম্প। ছবি: এনডিটিভি
২০ বছর বয়সী ওই হামলাকারীর নাম টমাস ম্যাথু ক্রুকস, যিনি নিরাপত্তা কর্মকর্তাদের গুলিতে নিহত হয়েছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের পেনসিলভানিয়া অঙ্গরাজ্যের বাটলারে শনিবার রিপাবলিকান পার্টির প্রেসিডেন্ট প্রার্থী ডনাল্ড ট্রাম্পের ওপর হামলাকারীকে শনাক্ত করেছে ফেডারেল ব্যুরো অফ ইনভেস্টিগেশন (এফবিআই)।

এক বিবৃতিতে এফবিআই বিষয়টি জানিয়েছে বলে এনডিটিভির প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

২০ বছর বয়সী ওই হামলাকারীর নাম টমাস ম্যাথু ক্রুকস, যিনি নিরাপত্তা কর্মকর্তাদের গুলিতে নিহত হয়েছেন।

নির্বাচনি প্রচার সভায় ট্রাম্পকে লক্ষ্য করে গুলি চালান ক্রুকস। গুলি কানে বিদ্ধ হয়ে রক্ত ছড়িয়ে পড়ে ৭৮ বছর বয়সী ট্রাম্পের মুখের বিভিন্ন জায়গায়।

পেনসিলভানিয়া অঙ্গরাজ্যের ভোটার রেকর্ড অনুযায়ী, রিপাবলিকান হিসেবে নিবন্ধন করেন ক্রুকস।

এফবিআইয়ের বিবৃতি উদ্ধৃত করে এনবিসি ও সিবিএসের প্রতিবেদনে বলা হয়, ‘পেনসিলভানিয়ার বাটলারে ১৩ জুলাই সাবেক প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পকে হত্যাচেষ্টায় জড়িত ব্যক্তি হিসেবে পেনসিলভানিয়ার বেথেল পার্কের ২০ বছর বয়সী টমাস ম্যাথু ক্রুকসকে শনাক্ত করেছে এফবিআই।’

এর আগে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তারা জানিয়েছিলেন, তারা প্রাথমিকভাবে বন্দুক হামলাকারীকে শনাক্ত করেছেন, তবে তার পরিচয় জনসমক্ষে প্রকাশ করতে প্রস্তুত নন তারা।

কর্মকর্তারা আরও জানিয়েছিলেন, তারা হামলার উদ্দেশ্য জানতে পারেননি।

হামলার তদন্তের দায়িত্বে থাকা এফবিআই জানায়, বন্দুক হামলাকে ‘আত্মহত্যার চেষ্টা’ হিসেবে দেখা হচ্ছে।

আরও পড়ুন:
সুপ্রিম কোর্টে ট্রাম্পের দায়মুক্তি বিপজ্জনক নজির: বাইডেন
বাইডেনকে সরে দাঁড়াতে বলল নিউ ইয়র্ক টাইমস সম্পাদকীয় পরিষদ
বিতর্কে বাজে পারফরম্যান্স স্বীকার করে ট্রাম্পকে হারানোর প্রতিজ্ঞা বাইডেনের
বিতর্কে বাইডেনকে ‘খুব খারাপ ফিলিস্তিনি’ বললেন ট্রাম্প
যুক্তরাষ্ট্রে এবারের প্রেসিডেন্সিয়াল বিতর্ক যে পাঁচ কারণে গুরুত্বপূর্ণ

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Trump is safe Secret Service

ট্রাম্প নিরাপদ আছেন: সিক্রেট সার্ভিস

ট্রাম্প নিরাপদ আছেন: সিক্রেট সার্ভিস যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প। ফাইল ছবি
সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম এক্সে দেয়া পোস্টে সিক্রেট সার্ভিসের পক্ষ থেকে বলা হয়, ‘সাবেক প্রেসিডেন্ট (ট্রাম্প) নিরাপদ আছেন।’

যুক্তরাষ্ট্রের পেনসিলভানিয়া অঙ্গরাজ্যে শনিবার প্রচার সমাবেশে কানে গুলিবিদ্ধ সাবেক প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প নিরাপদ আছেন বলে জানিয়েছে ফেডারেল আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সিক্রেট সার্ভিস।

বার্তা সংস্থা এএফপির প্রতিবেদনে জানানো হয়, সমাবেশে গুলিবিদ্ধ হওয়ার পর ডান কানে হাত দিতে দেখা যায় রিপাবলিকান পার্টির প্রেসিডেন্ট প্রার্থীকে। এর পরপরই তার মুখজুড়ে ছড়িয়ে পড়ে রক্ত।

এ ঘটনার পরপরই মঞ্চে ছুটে এসে ট্রাম্পকে ঘিরে ধরেন সিক্রেট সার্ভিস এজেন্টরা। তারা ট্রাম্পকে মঞ্চ থেকে নিরাপদে সরিয়ে নেন। এর মধ্যেই সমর্থকদের উদ্দেশে মুষ্টিবদ্ধ হাত উঁচিয়ে ধরেন সাবেক প্রেসিডেন্ট।

যুক্তরাষ্ট্রের সংবাদমাধ্যমগুলোর খবর অনুযায়ী, সন্দেহভাজন হামলাকারী নিহত হয়েছেন। প্রাণ হারিয়েছেন সমাবেশে অংশগ্রহণকারী একজনও।

এমন বাস্তবতায় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম এক্সে দেয়া পোস্টে সিক্রেট সার্ভিসের পক্ষ থেকে বলা হয়, ‘সাবেক প্রেসিডেন্ট (ট্রাম্প) নিরাপদ আছেন।’

ট্রাম্পের নির্বাচনি প্রচার দল জানিয়েছে, রিপাবলিকান পার্টির প্রেসিডেন্ট প্রার্থী সুস্থ আছেন। একটা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে তার পরীক্ষা-নিরীক্ষা চলছে।

প্রচার দলের মুখপাত্র স্টিভেন চিউং এক বিবৃতিতে বলেন, ‘ন্যক্কারজনক এ কাণ্ডের সময় দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার জন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও প্রাথমিক সাড়া দেয়া ব্যক্তিদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। তিনি নিরাপদ আছেন এবং স্থানীয় একটি চিকিৎসাকেন্দ্রে তাকে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হচ্ছে।’

আরও পড়ুন:
চাপ সত্ত্বেও প্রেসিডেন্ট পদে লড়াইয়ে থাকার প্রতিশ্রুতি বাইডেনের
সুপ্রিম কোর্টে ট্রাম্পের দায়মুক্তি বিপজ্জনক নজির: বাইডেন
বাইডেনকে সরে দাঁড়াতে বলল নিউ ইয়র্ক টাইমস সম্পাদকীয় পরিষদ
বিতর্কে বাজে পারফরম্যান্স স্বীকার করে ট্রাম্পকে হারানোর প্রতিজ্ঞা বাইডেনের
বিতর্কে বাইডেনকে ‘খুব খারাপ ফিলিস্তিনি’ বললেন ট্রাম্প

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Bidens call for unity condemns the attack on Trump

ট্রাম্পের ওপর হামলার নিন্দা, ঐক্যের ডাক বাইডেনের

ট্রাম্পের ওপর হামলার নিন্দা, ঐক্যের ডাক বাইডেনের যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প ও বর্তমান প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। কোলাজ: নিউজবাংলা
বাইডেনের আশা, শিগগিরই ট্রাম্পের সঙ্গে কথা বলবেন তিনি।

যুক্তরাষ্ট্রে চলতি বছরের নভেম্বরে অনুষ্ঠেয় নির্বাচনে রিপাবলিকান পার্টির প্রার্থী ডনাল্ড ট্রাম্পের ওপর শনিবার হামলার ঘটনার নিন্দা জানিয়ে জাতীয় ঐক্যের ডাক দিয়েছেন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

পেনসিলভানিয়া অঙ্গরাজ্যে প্রচার সমাবেশে কানে গুলিবিদ্ধ হন ট্রাম্প। এ ঘটনায় সমাবেশে অংশগ্রহণকারী কমপক্ষে একজন নিহত হয়েছেন। প্রাণ হারিয়েছেন সন্দেহভাজন হামলাকারীও।

বার্তা সংস্থা এএফপির প্রতিবেদনে জানানো হয়, যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সিক্রেট সার্ভিস ট্রাম্পকে মঞ্চ থেকে নিরাপদে সরিয়ে নেয়ার পরপরই এ ঘটনার নিন্দা জানান ডেমোক্রেটিক ও রিপাবলিকান পার্টির রাজনীতিকরা।

সাবেক প্রেসিডেন্টের ওপর হামলার ঘটনায় যুক্তরাষ্ট্রের ডেলাওয়্যারের রিহোবোথ বিচ এলাকায় জরুরি ব্রিফিংয়ে প্রেসিডেন্ট বাইডেন বলেন, ‘আমেরিকায় এ ধরনের সহিংসতার কোনো স্থান নেই। এটি ন্যক্কারজনক। এটি ন্যক্কারজনক। এটি অন্যতম কারণ, যার ফলে আমাদের দেশকে ঐক্যবদ্ধ করতে হবে...আমরা এমনটা হতে পারি না, আমরা এটি গ্রহণ করতে পারি না।’

ডেমোক্রেটিক পার্টির প্রেসিডেন্ট প্রার্থীর আশা, শিগগিরই ট্রাম্পের সঙ্গে কথা বলবেন তিনি।

যুক্তরাষ্ট্রের ভাইস প্রেসিডেন্ট কমলা হ্যারিস সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম এক্সে লিখেন, ‘আমরা তার (ট্রাম্প), তার পরিবার এবং এই কাণ্ডজ্ঞানহীন বন্দুক হামলায় আহত ও আক্রান্ত সবার জন্য প্রার্থনা করছি।’

আরও পড়ুন:
বাইডেনকে নিয়ে ওবামার শঙ্কা
ইসরায়েল-হামাস যুদ্ধ বন্ধের সময় এসেছে: বাইডেন
চাপ সত্ত্বেও প্রেসিডেন্ট পদে লড়াইয়ে থাকার প্রতিশ্রুতি বাইডেনের
সুপ্রিম কোর্টে ট্রাম্পের দায়মুক্তি বিপজ্জনক নজির: বাইডেন
তহবিল সংগ্রহ অনুষ্ঠানে বাইডেনের কণ্ঠে জয়ের প্রত্যয়

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Attacker shot in Trumps ear at rally killed

সমাবেশে ট্রাম্পের কানে গুলি, হামলাকারী নিহত

সমাবেশে ট্রাম্পের কানে গুলি, হামলাকারী নিহত গুলিবিদ্ধ হওয়ার পর কান থেকে রক্ত ছড়িয়ে পড়ে ট্রাম্পের মুখে। ওই সময় তার নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা লোকজন তাকে ঘিরে ধরেন। ছবি: এপি
গুলিবিদ্ধ অবস্থাতেই মুষ্টিবদ্ধ ট্রাম্পকে ‘লড়াই! লড়াই! লড়াই!’ বলতে শোনা যায়।

যুক্তরাষ্ট্রের পেনসিলভানিয়া অঙ্গরাজ্যের বাটলারে শনিবার প্রচার সমাবেশে কানে গুলিবিদ্ধ হয়েছেন চলতি বছরের নভেম্বরে অনুষ্ঠেয় প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রিপাবলিকান পার্টির প্রার্থী ডনাল্ড ট্রাম্প।

রয়টার্স জানায়, গুলিবিদ্ধ হওয়ার পর কান থেকে রক্ত ছড়িয়ে পড়ে ট্রাম্পের মুখে। ওই সময় তার নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা লোকজন তাকে ঘিরে ধরেন।

বার্তা সংস্থাটির প্রতিবেদনে জানানো হয়, গুলিবিদ্ধ অবস্থাতেই মুষ্টিবদ্ধ ট্রাম্পকে ‘লড়াই! লড়াই! লড়াই!’ বলতে শোনা যায়।

যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সিক্রেট সার্ভিস এক বিবৃতিতে জানায়, ট্রাম্পকে হামলা করা ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। সাবেক প্রেসিডেন্টের সমাবেশে যোগ দেয়া একজন নিহত ও দুই দর্শক আহত হয়েছেন। ঘটনাটিকে হত্যাচেষ্টা হিসেবে তদন্ত করা হচ্ছে।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তারা সাংবাদিকদের জানান, তারা প্রাথমিকভাবে সন্দেহভাজন হত্যাকারীকে শনাক্ত করেছেন, তবে বিষয়টি জনসমক্ষে এখনই প্রকাশ করতে প্রস্তুত নন।

কর্মকর্তারা আরও জানান, গুলির উদ্দেশ্য এখনও জানতে পারেননি তারা।

সমাবেশে ৭৮ বছর বয়সী ট্রাম্প বক্তব্য শুরুর পরপরই গুলির আওয়াজ পাওয়া যায়। গুলিবিদ্ধ হয়ে ডান হাত দিয়ে ডান করে ধরেন সাবেক প্রেসিডেন্ট। ওই সময় দ্রুত তাকে ঘিরে ধরেন সিক্রেট সার্ভিস এজেন্টরা।

তার প্রায় এক মিনিট পর ট্রাম্পকে বলতে শোনা যায় ‘অপেক্ষা করেন, অপেক্ষা করেন।’

আরও পড়ুন:
চাপ সত্ত্বেও প্রেসিডেন্ট পদে লড়াইয়ে থাকার প্রতিশ্রুতি বাইডেনের
সুপ্রিম কোর্টে ট্রাম্পের দায়মুক্তি বিপজ্জনক নজির: বাইডেন
বাইডেনকে সরে দাঁড়াতে বলল নিউ ইয়র্ক টাইমস সম্পাদকীয় পরিষদ
বিতর্কে বাজে পারফরম্যান্স স্বীকার করে ট্রাম্পকে হারানোর প্রতিজ্ঞা বাইডেনের
বিতর্কে বাইডেনকে ‘খুব খারাপ ফিলিস্তিনি’ বললেন ট্রাম্প

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Running for president and going to win Biden

প্রেসিডেন্ট পদে লড়ছি, জিততে যাচ্ছি: বাইডেন

প্রেসিডেন্ট পদে লড়ছি, জিততে যাচ্ছি: বাইডেন যুক্তরাষ্ট্রের ডেট্রয়টে শুক্রবার এক সমাবেশে বক্তব্য দেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। ছবি: রয়টার্স
গত ২৭ জুন ট্রাম্পের সঙ্গে বিতর্কে দুর্বল পারফরম্যান্সের পর মানসিক দৃঢ়তাকেন্দ্রিক আলোচনা থেকে বের হয়ে আসতে চাইছেন ৮১ বছর বয়সী বাইডেন। তিনি সমর্থকদের উদ্দেশে বলেন, ‘আমি প্রতিযোগিতায় আছি এবং আমরা জিততে যাচ্ছি।’

চলতি বছরের নভেম্বরে অনুষ্ঠেয় প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রার্থিতা থেকে সরে দাঁড়াচ্ছেন না বলে সমর্থকদের আশ্বস্ত করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

স্থানীয় সময় শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রের ডেট্রয়টে এক সমাবেশে তিনি এমন আশ্বাস দেন বলে জানায় রয়টার্স।

বার্তা সংস্থাটির প্রতিবেদনে বলা হয়, সমাবেশে উচ্ছ্বসিত জনতার উদ্দেশে বাইডেন তার রিপাবলিকান পার্টির প্রতিদ্বন্দ্বী ডনাল্ড ট্রাম্প যে ‍যুক্তরাষ্ট্রের সামনে মারাত্মক হুমকি, সে বিষয়টি তুলে ধরেন।

গত ২৭ জুন ট্রাম্পের সঙ্গে বিতর্কে দুর্বল পারফরম্যান্সের পর মানসিক দৃঢ়তাকেন্দ্রিক আলোচনা থেকে বের হয়ে আসতে চাইছেন ৮১ বছর বয়সী বাইডেন।

তিনি সমর্থকদের উদ্দেশে বলেন, ‘আমি প্রতিযোগিতায় আছি এবং আমরা জিততে যাচ্ছি।’

ওই সময় বাইডেন সমর্থকদের কাউকে কাউকে ‘আপনি সরে যাবেন না’ বলতে শোনা যায়।

বাইডেন আরও বলেন, ‘আমি (প্রেসিডেন্ট পদে) মনোনীত ব্যক্তি। আমি থাকছি।’

দ্বিতীয় মেয়াদে ক্ষমতায় এলে প্রথম ১০০ দিন কী করবেন, তাও সমর্থকদের সামনে তুলে ধরেন বাইডেন। এর মধ্যে রয়েছে গর্ভপাতের অধিকারের আইনি স্বীকৃতি, জন লুইস ভোটাধিকার আইনে সই, চিকিৎসা ঋণ মওকুফ, ন্যূনতম মজুরি বৃদ্ধি ও অ্যাসল্ট অস্ত্র নিষিদ্ধ করা।

আরও পড়ুন:
সুপ্রিম কোর্টে ট্রাম্পের দায়মুক্তি বিপজ্জনক নজির: বাইডেন
তহবিল সংগ্রহ অনুষ্ঠানে বাইডেনের কণ্ঠে জয়ের প্রত্যয়
বাইডেনকে সরে দাঁড়াতে বলল নিউ ইয়র্ক টাইমস সম্পাদকীয় পরিষদ
বিতর্কে বাজে পারফরম্যান্স স্বীকার করে ট্রাম্পকে হারানোর প্রতিজ্ঞা বাইডেনের
বিতর্কে বাইডেনকে ‘খুব খারাপ ফিলিস্তিনি’ বললেন ট্রাম্প

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Biden has vowed to fight for the presidency despite the pressure

চাপ সত্ত্বেও প্রেসিডেন্ট পদে লড়াইয়ে থাকার প্রতিশ্রুতি বাইডেনের

চাপ সত্ত্বেও প্রেসিডেন্ট পদে লড়াইয়ে থাকার প্রতিশ্রুতি বাইডেনের যুক্তরাষ্ট্রের নর্থ ক্যারোলিনার র‌্যালেইতে গত ২৮ জুন নির্বাচনি প্রচার সমাবেশে বক্তব্য দেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। ছবি: রয়টার্স
প্রচার দলের উদ্বিগ্ন সদস্যদের সঙ্গে ফোনালাপ করে বাইডেন জানান, তিনি নির্বাচনি লড়াই থেকে সরে দাঁড়াচ্ছেন না।

প্রতিদ্বন্দ্বী ডনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে বিতর্কে বাজে পারফরম্যান্সের পর প্রতিদ্বন্দ্বিতা থেকে সরে আসার চাপ বাড়া সত্ত্বেও প্রেসিডেন্ট পদে লড়াইয়ে শেষ নাগাদ থাকার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রপ্রধান জো বাইডেন।

স্থানীয় সময় বুধবার নির্বাচনি প্রচার দলের কর্মীদের সঙ্গে কল এবং ডেমোক্রেটিক পার্টির আইনপ্রণেতা ও গভর্নরদের সঙ্গে বৈঠকের পর বাইডেন এ অবস্থানের কথা জানান বলে উল্লেখ করে রয়টার্স।

ঘনিষ্ঠ দুটি সূত্রের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থাটির খবরে বলা হয়, প্রচার দলের উদ্বিগ্ন সদস্যদের সঙ্গে ফোনালাপ করে বাইডেন জানান, তিনি নির্বাচনি লড়াই থেকে সরে দাঁড়াচ্ছেন না।

অন্যদিকে প্রচার দলের মাধ্যমে এক ইমেইল বার্তায় সমর্থকদের উদ্দেশে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘কেউ আমাকে বের করে দিচ্ছে না। আমি যাচ্ছি না। আমি শেষ নাগাদ (প্রেসিডেন্ট পদে লড়াইয়ের) দৌড়ে আছি।’

বার্তায় আগামী ৫ নভেম্বর অনুষ্ঠেয় প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ট্রাম্পকে হারাতে সমর্থকদের সহায়তা চান বাইডেন।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট বুধবার সন্ধ্যায় ডেমোক্রেটিক পার্টির ২৪ গভর্নর ও ওয়াশিংটন ডিসির মেয়রের সঙ্গে ভার্চুয়ালি ও সশরীরে সাক্ষাৎ করে প্রেসিডেন্ট পদে লড়াইয়ে থাকার বিষয়ে আশ্বস্ত করেন।

বাইডেনের সঙ্গে আলাপ শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন নিউ ইয়র্ক, মিনেসোটা ও ম্যারিল্যান্ডের গভর্নর।

তারা জানান, গত সপ্তাহের বিতর্কে বাজে পারফরম্যান্সের বিষয়ে সৎ আলোচনা করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট।

আরও পড়ুন:
বিতর্কে বাজে পারফরম্যান্স স্বীকার করে ট্রাম্পকে হারানোর প্রতিজ্ঞা বাইডেনের
বিতর্কে বাইডেনকে ‘খুব খারাপ ফিলিস্তিনি’ বললেন ট্রাম্প
যুক্তরাষ্ট্রে এবারের প্রেসিডেন্সিয়াল বিতর্ক যে পাঁচ কারণে গুরুত্বপূর্ণ
বাইডেনের স্টুডেন্ট লোন প্রোগ্রাম আংশিক স্থগিত
যুক্তরাষ্ট্রের স্বপ্নযাত্রা থামিয়ে সেমিতে ইংল্যান্ড

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Biden vows to beat Trump after admitting poor performance in debates

বিতর্কে বাজে পারফরম্যান্স স্বীকার করে ট্রাম্পকে হারানোর প্রতিজ্ঞা বাইডেনের

বিতর্কে বাজে পারফরম্যান্স স্বীকার করে ট্রাম্পকে হারানোর প্রতিজ্ঞা বাইডেনের ট্রাম্পের সঙ্গে বিতর্কের এক দিন পর শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রের নর্থ ক্যারোলিনাতে সমাবেশে দেশটির প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। ছবি: রয়টার্স
বাইডেন বলেন, ‘আমি যতটা স্বাচ্ছন্দ্যের সঙ্গে হাঁটতাম, সেভাবে হাঁটতে পারছি না; যতটা মসৃণভাবে কথা বলতাম, সেভাবে বলতে পারছি না। আমি যতটা ভালোভাবে বিতর্ক করতাম, সেভাবে করতে পারছি না।’

চলতি বছরের ৫ নভেম্বর অনুষ্ঠেয় নির্বাচনের আগে প্রথম বিতর্কে বাজে পারফরম্যান্সের কথা শুক্রবার স্বীকার করে প্রতিদ্বন্দ্বী ডনাল্ড ট্রাম্পকে হারানোর প্রতিজ্ঞা করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

ডেমোক্র্যাটদের হতাশ করা এ পারফরম্যান্সের পর প্রেসিডেন্ট পদে প্রার্থিতা থেকে সরে আসার কোনো ইঙ্গিতও দেননি ৮১ বছর বয়সী এ রাজনীতিক।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার ট্রাম্পের সঙ্গে বিতর্কে বাইডেনের পরাজয় হয়েছে বলে মনে করছেন অনেকে। এমন বাস্তবতায় বাগ্‌যুদ্ধের এক দিন পর নর্থ ক্যারোলিনাতে সমাবেশে অংশ নিয়ে বাইডেন বলেন, ‘আমি জানি আমি তরুণ ব্যক্তি নই, যেমনটা সবার জ্ঞাত।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমি যতটা স্বাচ্ছন্দ্যের সঙ্গে হাঁটতাম, সেভাবে হাঁটতে পারছি না; যতটা মসৃণভাবে কথা বলতাম, সেভাবে বলতে পারছি না। আমি যতটা ভালোভাবে বিতর্ক করতাম, সেভাবে করতে পারছি না।’

ওই সময় সমাবেশে উপস্থিত লোকজন ‘আরও চার বছর’ স্লোগান দেন।

বাইডেন আরও বলেন, ‘মনে-প্রাণে এ কাজ করতে পারব বিশ্বাস না করলে আমি ফের (প্রেসিডেন্ট পদে) লড়তাম না।’

আরও পড়ুন:
বাইডেনের যুদ্ধবিরতির প্রস্তাব মানবেন না নেতানিয়াহু
দাঙ্গা বাধাতে চান রায়ে ক্ষুব্ধ ট্রাম্প সমর্থকরা
দোষী সাব্যস্ত ট্রাম্প কি লড়তে পারবেন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে
যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম প্রেসিডেন্ট হিসেবে অপরাধে দোষী ট্রাম্প
‘ট্রাম্পের কিছু একটা ছিঁড়ে গেছে’

মন্তব্য

p
উপরে