× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট বাংলা কনভার্টার নামাজের সময়সূচি আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

আন্তর্জাতিক
Saudi gave the instructions to the pilgrims
google_news print-icon

হজযাত্রীদের যেসব নির্দেশনা দিল সৌদি

হজ
ভারতের কেরালার কোচি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে হজযাত্রীরা। ছবি: গালফ নিউজ
হজ ও ওমরাহ মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, হজব্রত পালনকে নির্বিঘ্ন করতে এসব নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

সৌদি আরবে পৌঁছানোর আগে ও পরে করণীয় বিষয়ে হজযাত্রীদের বেশ কিছু নির্দেশনা দিয়েছে মধ্যপ্রাচ্যের দেশটির হজ ও ওমরাহ মন্ত্রণালয়।

গালফ নিউজ শুক্রবার এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে।

হজ ও ওমরাহ মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, হজব্রত পালনকে নির্বিঘ্ন করতে এসব নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

নিজ দেশের বিমানবন্দরে করণীয়

১. ভ্রমণ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে প্রয়োজনীয় সব নথিপত্র নিয়ে বিমানবন্দরে যেতে হবে।

২. যেকোনো ধরনের ইলেকট্রনিক ডিভাইস লাগেজ বা নির্ধারিত ব্যাগে রাখতে হবে।

৩. প্রতিটি লাগেজ নির্ধারিত আকারের হতে হবে। উড়োজাহাজে তোলার আগে প্রতিটি লাগেজ আলাদাভাবে শনাক্ত করার চিহ্ন থাকতে হবে।

যেসব সামগ্রী বহন করা যাবে না

১. প্লাস্টিক ব্যাগ, পানির বোতল, তরল বস্তু এবং মোড়ানো বা বাঁধা নয় এমন লাগেজ বা ব্যাগ বহন করা যাবে না।

২. কাপড়ে মোড়ানো ও ঢাকা বাক্স বহন করা যাবে না।

সৌদিতে আগমনের পর

১. সৌদিতে পৌঁছার পর কোনো হজযাত্রীর কাছে ৬০ হাজার রিয়ালের বেশি নগদ অর্থ কিংবা এর চেয়ে বেশি মূল্যের সামগ্রী থাকলে, সেটি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে জানাতে হবে। এর মধ্যে রয়েছে বিদেশি মুদ্রা, উপহারসামগ্রী, ইলেকট্রনিক ডিভাইস, অলংকার ও মূল্যবান ধাতু।

২. সৌদি আরবে প্রবেশ কিংবা দেশটি থেকে বের হওয়ার ক্ষেত্রে শুল্ক ঘোষণাপত্র পূরণের ওপর জোর দিয়েছে হজ মন্ত্রণালয়। যেসব হজযাত্রী ৬০ হাজার রিয়ালের বেশি বিদেশি মুদ্রা কিংবা এর চেয়ে বেশি মূল্যের সামগ্রী বহন করবেন, তাদের ক্ষেত্রে শুল্ক ঘোষণা বিশেষভাবে গুরুত্বপূর্ণ।

৩. হজ মন্ত্রণালয় কড়া সতর্কবার্তা দিয়ে বলেছে, যেসব হজযাত্রী শুল্ক ঘোষণাপত্র পূরণে ব্যর্থ হবে, তাদের জবাবদিহির মুখোমুখি হতে হবে।

আরও পড়ুন:
হজ ক্যাম্পে ম্যাট্রেস উপহার দিলো সোনালী ব্যাংক
হজের বিমান ভাড়া কমাতে হাইকোর্টে আবেদন
হজযাত্রীদের উটের কাছে যেতে মানা
বাংলাদেশিদের জন্য ই-ভিসা চালু করল সৌদি
সৌদিতে ২ হাজার বছর পুরোনো রোমান সেনা শিবির আবিষ্কার

মন্তব্য

আরও পড়ুন

আন্তর্জাতিক
US aircraft drop food supplies into Gaza for the first time

যুক্তরাষ্ট্রের বিমান থেকে প্রথমবারের মতো খাদ্যসামগ্রী ছোড়া হলো গাজায়

যুক্তরাষ্ট্রের বিমান থেকে প্রথমবারের মতো খাদ্যসামগ্রী ছোড়া হলো গাজায় গাজায় প্রথমবারের মতো উড়োজাহাজ থেকে খাদ্যসামগ্রী ফেলেছে যুক্তরাষ্ট্র। ছবি: বিবিস
ইসরায়েল কর্তৃক গাজার প্রবেশমুখগুলো অবরোধ করে রাখা ও নির্বিচার বোমা হামলার কারণে উপত্যকায় মানবিক সহায়তা পাঠানোর কার্যক্রম বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। এর মধ্যে গাজা উপত্যকায় প্রায় পাঁচ মাস ধরে ইসরায়েলের হামলায় নিহত ফিলিস্তিনির সংখ্যা দাঁড়িয়েছে প্রায় ৩০ হাজারে।

ইসরায়েলের অব্যাহত হামলার মধ্যে অবরুদ্ধ ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যকার বাসিন্দাদের জন্য প্রথমবারের মতো উড়োজাহাজ থেকে খাদ্যসামগ্রী ফেলেছে যুক্তরাষ্ট্র।

যুক্তরাষ্ট্রের সেন্ট্রাল কমান্ড এক বিবৃতে জানায়, শনিবার গাজার উপকূলীয় এলাকায় পণ্যবাহী সি-১৩০ উড়োজাহাজ থেকে ৩৮ হাজার খাবারের প্যাকেট ফেলা হয়েছে। প্রায় পাঁচ মাস ধরে চলা যুদ্ধে গাজা উপত্যকা মানবিক সংকটের মুখোমুখি হয়েছে।

যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স, মিশর এবং জর্ডানসহ অন্য দেশ ইতোমধ্যে উড়োজাহাজের মাধ্যমে খাদ্য ও প্রয়োজনীয় অন্যান্য সামগ্রী ফেলে গাজায় ত্রাণ পাঠিয়েছে, তবে যুক্তরাষ্ট্র থেকে এটি প্রথম বলে জানিয়েছে বিবিসি।

এর আগে গাজা উপত্যকায় যুক্তরাষ্ট্র বিমান থেকে খাদ্য ও প্রয়োজনীয় অন্যান্য সামগ্রী ছুড়বে বলে জানান দেশটির প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। ত্রাণসামগ্রীর জন্য অপেক্ষমাণ ফিলিস্তিনিদের ওপর ইসরায়েলের প্রাণঘাতী হামলার এক দিন পর শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রের এ পরিকল্পনার কথা জানান প্রেসিডেন্ট।

হোয়াইট হাউসের জাতীয় নিরাপত্তা যোগাযোগ উপদেষ্টা জন কিরবি জোর দিয়ে বলেন, আকাশ থেকে প্রয়োজনীয় সামগ্রী ছোড়ার বিষয়টি হবে টেকসই প্রচেষ্টা। এ প্রচেষ্টার প্রথম ধাপে ছোড়া হবে প্রস্তুতকৃত খাবার, যা কোনো প্রক্রিয়া ছাড়াই খাওয়া যাবে।

গাজায় স্থানীয় সময় শনিবার দুপুরে যুক্তরাষ্ট্রের তিনটি বিমান থেকে ৬৬টি প্যাকেজে ৩০ হাজারেরও বেশি খাবারের প্যাকেট ফেলা হয়।

ইসরায়েল কর্তৃক গাজার প্রবেশমুখগুলো অবরোধ করে রাখা ও নির্বিচার বোমা হামলার কারণে উপত্যকায় মানবিক সহায়তা পাঠানোর কার্যক্রম বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। এর মধ্যে গাজা উপত্যকায় প্রায় পাঁচ মাস ধরে ইসরায়েলের হামলায় নিহত ফিলিস্তিনির সংখ্যা দাঁড়িয়েছে প্রায় ৩০ হাজারে।

এ সময়ে ইসরায়েলি বাহিনীর হাতে আহত হয়েছেন কমপক্ষে ৭০ হাজার ৩২৫ ফিলিস্তিনি।

গাজায় ফিলিস্তিনের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে আল জাজিরা বৃহস্পতিবার জানায়, গাজায় ইসরায়েলি হামলায় নিহতের সংখ্যা কমপক্ষে ২৯ হাজার ৯৫৪।

ইসরায়েলের হামলায় গুঁড়িয়ে গেছে গাজার বিপুলসংখ্যক স্থাপনা। দীর্ঘ সময় ধরে যুদ্ধ চলায় উপত্যকায় সৃষ্টি হয়েছে ভয়াবহ মানবিক বিপর্যয়।

আরও পড়ুন:
ঢাকার বাতাস ‘খুবই অস্বাস্থ্যকর’, নিম্ন মানে শীর্ষে
মস্কোতে ঐক্যের ঘোষণা হামাসসহ ফিলিস্তিনের সব গোষ্ঠীর
গাজায় বিমান থেকে খাদ্যসামগ্রী ছুড়বে যুক্তরাষ্ট্র
গাজার প্রতি ৭৫ জনে একজন নিহত
গাজায় ইসরায়েলি হামলায় নিহত ৩০ হাজার ছুঁইছুঁই

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
The air in Dhaka is very unhealthy at lows and highs

ঢাকার বাতাস ‘খুবই অস্বাস্থ্যকর’, নিম্ন মানে শীর্ষে

ঢাকার বাতাস ‘খুবই অস্বাস্থ্যকর’, নিম্ন মানে শীর্ষে রাজধানীতে ধুলায় আচ্ছন্ন সড়ক ধরে গন্তব্যে যাচ্ছেন যাত্রীরা। ছবি: গ্রিন ল্যাব
আইকিউএয়ার জানিয়েছে, আজ সকাল ১০টা ২ মিনিটে ঢাকার বাতাসে মানবস্বাস্থ্যের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ অতি ক্ষুদ্র কণা পিএম২.৫-এর উপস্থিতি ছিল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) আদর্শ মাত্রার চেয়ে ৩৩ দশমিক ৫ গুণ বেশি।

বাতাসের নিম্ন মানে নিয়মিত প্রথম দশে থাকা ঢাকা ফের শীর্ষে উঠে এসেছে।

সুইজারল্যান্ডভিত্তিক বাতাসের মানবিষয়ক প্রযুক্তি কোম্পানিটির র‌্যাঙ্কিংয়ে বাংলাদেশ সময় সকাল ১০টা ২ মিনিটে ২১৮ স্কোর নিয়ে ১০০টি শহরের মধ্যে বায়ুর নিম্ন মানে প্রথম ছিল ঢাকা।

একই সময়ে দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানে ছিল ভারতের কলকাতা ও ইরাকের বাগদাদ।

আইকিউএয়ার জানিয়েছে, আজ সকালের ওই সময়ে ঢাকার বাতাসে মানবস্বাস্থ্যের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ অতি ক্ষুদ্র কণা পিএম২.৫-এর উপস্থিতি ছিল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) আদর্শ মাত্রার চেয়ে ৩৩ দশমিক ৫ গুণ বেশি।

নির্দিষ্ট স্কোরের ভিত্তিতে কোনো শহরের বাতাসের ক্যাটাগরি নির্ধারণের পাশাপাশি সেটি জনস্বাস্থ্যের জন্য ভালো নাকি ক্ষতিকর, তা জানায় আইকিউএয়ার।

কোম্পানিটি শূন্য থেকে ৫০ স্কোরে থাকা শহরগুলোর বাতাসকে ‘ভালো’ ক্যাটাগরিতে রাখে। অর্থাৎ এ ক্যাটাগরিতে থাকা শহরের বাতাস জনস্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর নয়।

৫১ থেকে ১০০ স্কোরে থাকা শহরগুলোর বাতাসকে ‘মধ্যম মানের বা সহনীয়’ হিসেবে বিবেচনা করে কোম্পানিটি।

আইকিউএয়ারের র‌্যাঙ্কিংয়ে ১০১ থেকে ১৫০ স্কোরে থাকা শহরগুলোর বাতাসকে ‘সংবেদনশীল জনগোষ্ঠীর জন্য অস্বাস্থ্যকর’ ক্যাটাগরিতে ধরা হয়।

১৫১ থেকে ২০০ স্কোরে থাকা শহরের বাতাসকে ‘অস্বাস্থ্যকর’ ক্যাটাগরির বিবেচনা করা হয়।

র‌্যাঙ্কিংয়ে ২০১ থেকে ৩০০ স্কোরে থাকা শহরগুলোর বাতাসকে ‘খুবই অস্বাস্থ্যকর’ ধরা হয়।

তিন শর বেশি স্কোর পাওয়া শহরের বাতাসকে ‘বিপজ্জনক’ হিসেবে বিবেচনা করে আইকিউএয়ার।

আজ সকাল ১০টা ২ মিনিটে ঢাকার বাতাসের স্কোর ছিল ২১৮। এর মানে হলো ওই সময়টাতে নিঃশ্বাসের সঙ্গে ‘খুবই অস্বাস্থ্যকর’ বাতাস নিতে হয় রাজধানীবাসীকে।

আরও পড়ুন:
মস্কোতে ঐক্যের ঘোষণা হামাসসহ ফিলিস্তিনের সব গোষ্ঠীর
গাজায় বিমান থেকে খাদ্যসামগ্রী ছুড়বে যুক্তরাষ্ট্র
গাজার প্রতি ৭৫ জনে একজন নিহত
গাজায় ইসরায়েলি হামলায় নিহত ৩০ হাজার ছুঁইছুঁই
রমজানে আল আকসায় নামাজের অনুমতির আহ্বান যুক্তরাষ্ট্রের

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
US to airdrop food supplies to Gaza

গাজায় বিমান থেকে খাদ্যসামগ্রী ছুড়বে যুক্তরাষ্ট্র

গাজায় বিমান থেকে খাদ্যসামগ্রী ছুড়বে যুক্তরাষ্ট্র গাজার দক্ষিণাঞ্চলীয় রাফাহতে গত ২৬ ফেব্রুয়ারি ত্রাণসামগ্রী ফেলে জর্ডানের বিমান। ছবি: রয়টার্স
বার্তা সংস্থা রয়টার্সের খবরে বলা হয়, আগামী দিনগুলোতে যুক্তরাষ্ট্র বিমান থেকে ত্রাণসামগ্রী ছুড়বে বলে জানান বাইডেন, তবে ঠিক কবে থেকে সেটি শুরু হবে, তা জানাননি তিনি।

ইসরায়েলের অব্যাহত বিমান ও স্থল হামলার মধ্যে অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় যুক্তরাষ্ট্র বিমান থেকে খাদ্য ও প্রয়োজনীয় অন্যান্য সামগ্রী ছুড়বে বলে জানিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

ত্রাণসামগ্রীর জন্য অপেক্ষমাণ ফিলিস্তিনিদের ওপর ইসরায়েলের প্রাণঘাতী হামলার এক দিন পর শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রের এ পরিকল্পনার কথা জানান প্রেসিডেন্ট।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের খবরে বলা হয়, আগামী দিনগুলোতে যুক্তরাষ্ট্র বিমান থেকে ত্রাণসামগ্রী ছুড়বে বলে জানান বাইডেন, তবে ঠিক কবে থেকে সেটি শুরু হবে, তা জানাননি তিনি।

গাজায় বিভিন্ন সময়ে বিমান থেকে সহায়তার সামগ্রী ছুড়েছে জর্ডান, ফ্রান্সসহ বিভিন্ন দেশ।

‘আমাদের আরও বেশি কিছু করা দরকার এবং যুক্তরাষ্ট্র বেশি কিছু করবে’, প্রতিবেদকদের বলেন বাইডেন।

তিনি আরও বলেন, ‘গাজায় যে পরিমাণ সহায়তা যাচ্ছে, তা যথেষ্ট নয়।’

এদিকে হোয়াইট হাউসের জাতীয় নিরাপত্তা যোগাযোগ উপদেষ্টা জন কিরবি জোর দিয়ে বলেন, আকাশ থেকে প্রয়োজনীয় সামগ্রী ছোড়ার বিষয়টি হবে টেকসই প্রচেষ্টা।

তিনি বলেন, এ প্রচেষ্টার প্রথম ধাপে ছোড়া হবে প্রস্তুতকৃত খাবার, যা কোনো প্রক্রিয়া ছাড়াই খাওয়া যাবে।

এ প্রক্রিয়া অব্যাহত রাখার ইঙ্গিত দিয়ে কিরবি বলেন, এটা শুধু একবারের জন্যই করা হবে না।

আরও পড়ুন:
গাজায় শিগগিরই যুদ্ধবিরতির আশা বাইডেনের
গাজায় ‘গণহত্যার’ ঘটনায় পদত্যাগ ফিলিস্তিনের প্রধানমন্ত্রীর
ইসরায়েলি দূতাবাসের সামনে গায়ে ‍আগুন যুক্তরাষ্ট্রের বিমান বাহিনী সদস্যের
গাজায় মানবিক সহায়তা পৌঁছে দেয়ার মিশরকে ধন্যবাদ জানাল বাংলাদেশ
ইসরায়েলি হামলায় গাজায় নিহত বেড়ে ২৯ হাজার ৪১০

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
One for every 75 people in Gaza is killed

গাজার প্রতি ৭৫ জনে একজন নিহত

গাজার প্রতি ৭৫ জনে একজন নিহত গাজা উপত্যকার মধ্যাঞ্চলীয় দেইর এল-বালাহ এলাকায় গত ১৮ ফেব্রুয়ারি ইসরায়েলি বিমান হামলার পর ধ্বংসস্তূপের নিচে হতাহত লোকজনের সন্ধানে স্থানীয়রা। ছবি: এএফপি
ওসিএইচএর ডেটা অনুযায়ী, প্রায় ২৩ লাখ মানুষের উপত্যকা গাজায় প্রতি ৭৫ জনের মধ্যে একজনের প্রাণ গেছে ইসরায়েলের হামলায়।

ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যকায় প্রায় পাঁচ মাস ধরে ইসরায়েলের হামলায় ৩০ হাজার ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে আল জাজিরা।

জাতিসংঘের মানবিক বিষয়াবলী সমন্বয় দপ্তর ওসিএইচএর ২৯ ফেব্রুয়ারির ডেটার বরাত দিয়ে সংবাদমাধ্যমটির খবরে বলা হয়, গাজায় কমপক্ষে ৩০ হাজার মানুষের প্রাণহানি হয়েছে, যাদের মধ্যে প্রায় সাড়ে ১২ হাজার শিশু।

ওসিএইচএর ডেটা অনুযায়ী, প্রায় ২৩ লাখ মানুষের উপত্যকা গাজায় প্রতি ৭৫ জনের মধ্যে একজনের প্রাণ গেছে ইসরায়েলের হামলায়।

সংস্থাটি আরও জানায়, গাজার আট হাজারের বেশি মানুষ নিখোঁজ রয়েছে, যাদের অনেকে ধ্বংসস্তূপের নিচে চাপা পড়ে আছে।

ইসরায়েলে ঢুকে গত বছরের ৭ অক্টোবর হামলা চালায় গাজার শাসক দল হামাস। ওই হামলায় ১ হাজার ১৩৯ ইসরায়েলি নিহত ও কমপক্ষে ৮ হাজার ৭৩০ জন আহত হয়।

হামাসের হামলার জবাবে ওই দিন থেকেই গাজায় বোমাবর্ষণ শুরু করে ইসরায়েল, যার সঙ্গে পরবর্তী সময়ে যোগ হয় স্থল হামলাও। সে হামলার পাঁচ মাস হতে চললেও সংঘাত বন্ধে এখন পর্যন্ত কোনো চুক্তি করতে পারেনি হামাস ও ইসরায়েল।

আল জাজিরার প্রতিবেদনে জানানো হয়, ইসরায়েলের হামলায় প্রাণ হারিয়েছেন গাজার আট হাজার ৪০০ নারী। দেশটির বিমান ও স্থল হামলায় আহত হয় উপত্যকার ৭০ হাজার ৪৫৭ জনের বেশি বাসিন্দা, যাদের মধ্যে আট হাজার ৬৬৩ শিশু ও ছয় হাজার ৩২৭ জন নারী।

আরও পড়ুন:
গাজায় ‘গণহত্যার’ ঘটনায় পদত্যাগ ফিলিস্তিনের প্রধানমন্ত্রীর
ইসরায়েলি দূতাবাসের সামনে গায়ে ‍আগুন যুক্তরাষ্ট্রের বিমান বাহিনী সদস্যের
গাজায় মানবিক সহায়তা পৌঁছে দেয়ার মিশরকে ধন্যবাদ জানাল বাংলাদেশ
ইসরায়েলি হামলায় গাজায় নিহত বেড়ে ২৯ হাজার ৪১০
ইসরায়েলের দখলের বিরুদ্ধে জাতিসংঘ শীর্ষ আদালতে শুনানি শুরু

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
30000 killed in Israeli attack on Gaza

গাজায় ইসরায়েলি হামলায় নিহত ৩০ হাজার ছুঁইছুঁই

গাজায় ইসরায়েলি হামলায় নিহত ৩০ হাজার ছুঁইছুঁই গাজায় ইসরায়েলি হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত ভবন ও ধ্বংসাবশেষ। ছবি: এপি
ইসরায়েলের হামলায় গুঁড়িয়ে গেছে গাজার বিপুলসংখ্যক স্থাপনা। দীর্ঘ সময় ধরে যুদ্ধ চলায় উপত্যকায় সৃষ্টি হয়েছে ভয়াবহ মানবিক বিপর্যয়।

গাজা উপত্যকায় প্রায় পাঁচ মাস ধরে ইসরায়েলের হামলায় নিহত ফিলিস্তিনির সংখ্যা দাঁড়িয়েছে প্রায় ৩০ হাজারে।

এ সময়ে ইসরায়েলি বাহিনীর হাতে আহত হয়েছেন কমপক্ষে ৭০ হাজার ৩২৫ ফিলিস্তিনি।

গাজায় ফিলিস্তিনের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে আল জাজিরা বৃহস্পতিবার এসব তথ্য জানায়।

সংবাদমাধ্যমটির খবরে বলা হয়, গাজায় ইসরায়েলি হামলায় নিহতের সংখ্যা কমপক্ষে ২৯ হাজার ৯৫৪।

গত বছরের ৭ অক্টোবর ইসরায়েলের দক্ষিণাঞ্চলে ঢুকে হামলা চালায় গাজার শাসক দল হামাস। ওই হামলায় নিহত হন ১ হাজার ১৩৯ ইসরায়েলি।

হামাসের হামলার জবাবে ৭ অক্টোবর থেকেই গাজায় বিমান হামলা শুরু করে ইসরায়েল। পরবর্তী সময়ে স্থল অভিযানও শুরু করে দেশটি।

ইসরায়েলের হামলায় গুঁড়িয়ে গেছে গাজার বিপুলসংখ্যক স্থাপনা। দীর্ঘ সময় ধরে যুদ্ধ চলায় উপত্যকায় সৃষ্টি হয়েছে ভয়াবহ মানবিক বিপর্যয়।

গাজায় আল জাজিরার এক প্রতিবেদক জানান, উপত্যকায় খাদ্য সহায়তার জন্য অপেক্ষারত ফিলিস্তিনিদের ওপর গুলি চালিয়েছে ইসরায়েল, যাতে অনেকেই হতাহত হয়েছেন।

সংবাদমাধ্যমটির সর্বশেষ খবরে বলা হয়, নুসেইরাত, বুরেইজ ও খান ইউনিস শরণার্থী শিবিরে ইসরায়েলি বিমান হামলা ও গোলায় কমপক্ষে ৩০ জন নিহত হন।

এমন বাস্তবতায় আন্তর্জাতিক বেসরকারি সংস্থা সেভ দ্য চিল্ড্রেন বলেছে, গাজায় ধীরগতিতে গণহারে শিশুদের হত্যা দেখছে বিশ্ব।

আরও পড়ুন:
ইসরায়েলি দূতাবাসের সামনে গায়ে ‍আগুন যুক্তরাষ্ট্রের বিমান বাহিনী সদস্যের
গাজায় মানবিক সহায়তা পৌঁছে দেয়ার মিশরকে ধন্যবাদ জানাল বাংলাদেশ
ইসরায়েলি হামলায় গাজায় নিহত বেড়ে ২৯ হাজার ৪১০
ইসরায়েলের দখলের বিরুদ্ধে জাতিসংঘ শীর্ষ আদালতে শুনানি শুরু
ইসরায়েলের হামলায় নিহতের সংখ্যা ২৯ হাজার ছাড়িয়ে গেছে

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Canada plans to airlift aid to Gaza

গাজায় বিমান থেকে ত্রাণসামগ্রী ফেলার চিন্তা কানাডার

গাজায় বিমান থেকে ত্রাণসামগ্রী ফেলার চিন্তা কানাডার গাজার দক্ষিণাঞ্চলীয় রাফাহতে গত ২৬ ফেব্রুয়ারি ত্রাণসামগ্রী ফেলে জর্ডানের বিমান। ছবি: রয়টার্স
গাজায় ইসরায়েলের স্থল অভিযান শুরুর পর উপত্যকার জনগণের সহায়তায় ১০ কোটি কানাডিয়ান ডলার দিয়েছে অটোয়া। দেশটি শুধু জানুয়ারিতেই দিয়েছে চার কোটি ডলার।

ইসরায়েলের সঙ্গে গাজার শাসক দল হামাসের যুদ্ধে অবরুদ্ধ উপত্যকাটিতে বিমান থেকে মানবিক সহায়তার সামগ্রী ফেলার পরিকল্পনার কথা জানিয়েছেন কানাডার আন্তর্জাতিক উন্নয়ন মন্ত্রী আহমেদ হুসেন।

মন্ত্রীর বরাত দিয়ে আল জাজিরা বৃহস্পতিবার জানায়, জর্ডানের মতো সমমনা দেশকে সঙ্গে নিয়ে গাজায় আকাশ থেকে ত্রাণসামগ্রী ছুড়তে চায় উত্তর আমেরিকার দেশটি।

সংবাদমাধ্যমটির খবরে জানানো হয়, গত সপ্তাহে মিসর ও জর্ডান সফর করা হুসেন বলেন, মিসরের রাফাহ সীমান্তে ত্রাণসামগ্রীবাহী ট্রাককে প্রয়োজনের বেশি সময় ধরে আটকে রাখছে ইসরায়েল, যার অর্থ হলো গাজায় প্রয়োজনের ধারেকাছেও সহায়তা প্রবেশ করছে না।

গাজায় ইসরায়েলের স্থল অভিযান শুরুর পর উপত্যকার জনগণের সহায়তায় ১০ কোটি কানাডিয়ান ডলার দিয়েছে অটোয়া। দেশটি শুধু জানুয়ারিতেই দিয়েছে চার কোটি ডলার।

কানাডার আন্তর্জাতিক উন্নয়ন মন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমি মাত্র ওই অঞ্চল (মধ্যপ্রাচ্য) থেকে ফিরে এসেছি এবং কানাডার সহায়তা ব্যবধান গড়ছে।’

আরও পড়ুন:
ইসরায়েলি হামলায় গাজায় নিহত বেড়ে ২৯ হাজার ৪১০
ইসরায়েলের দখলের বিরুদ্ধে জাতিসংঘ শীর্ষ আদালতে শুনানি শুরু
ইসরায়েলের হামলায় নিহতের সংখ্যা ২৯ হাজার ছাড়িয়ে গেছে
রাফাহতে ইসরায়েলের আসন্ন অভিযানকে ‘আমাদের’ বললেন বাইডেন
গাজায় নিহত বেড়ে ২৮ হাজার ৩৪০

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Famine imminent in northern Gaza UN

উত্তর গাজায় দুর্ভিক্ষ আসন্ন: জাতিসংঘ

উত্তর গাজায় দুর্ভিক্ষ আসন্ন: জাতিসংঘ যুদ্ধবিধ্বস্ত গাজায় দুর্ভিক্ষ আসন্ন বলে সতর্ক করেছে জাতিসংঘ। ছবি: রয়টার্স
ডাব্লিউএফপির ডেপুটি এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর কার্ল স্কাউ বলেছেন, যদি কিছুই পরিবর্তন না হয়, উত্তর গাজায় একটি দুর্ভিক্ষ আসন্ন।

যুদ্ধবিধ্বস্ত গাজায় পাঁচ লাখের বেশি মানুষ দুর্ভিক্ষ থেকে ‘এক ধাপ দূরে’ রয়েছে বলে সতর্ক করেছে জাতিসংঘ।

উত্তর গাজায় ২৩ জানুয়ারি থেকে কোনো প্রকার মানবিক সহায়তা পাঠানো সম্ভব হয়নি। এমন অবস্থায় গাজায় ইসরায়েলি হামলা চলমান থাকলে খুব দ্রুতই দুর্ভিক্ষ দেখা দেবে।

বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচির (ডাব্লিউএফপি) বরাত দিয়ে এনডিটিভির বুধবারের প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

ডাব্লিউএফপির ডেপুটি এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর কার্ল স্কাউ জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদকে বলেছেন, যদি কিছুই পরিবর্তন না হয়, উত্তর গাজায় একটি দুর্ভিক্ষ আসন্ন।

জাতিসংঘের অফিস ফর দ্য কোঅর্ডিনেশন অফ হিউম্যানিটারিয়ান অ্যাফেয়ার্সের (ইউএনওসিএইচএ) কোঅর্ডিনেশন ডিরেক্টর রমেশ রাজাসিংহাম বলেন, ‘আমরা এখন ফেব্রুয়ারির শেষে। গাজায় অন্তত পাঁচ লাখ ৭৬ হাজার লোক যা জনসংখ্যার এক-চতুর্থাংশ হবে- দুর্ভিক্ষ থেকে এক ধাপ দূরে আছে। এদিকে উত্তর গাজার দুই বছরের কম বয়সী ছয়জন শিশুর মধ্যে একজন তীব্র অপুষ্টিতে ভুগছে।’

জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি সংস্থার (এফএও) ডেপুটি মহাপরিচালক মৌরিজিও মার্টিনা সতর্ক করেছেন, গাজার প্রায় ৯৭ শতাংশ ভূগর্ভস্থ পানি মানুষের ব্যবহারের জন্য অনুপযুক্ত এবং সেখানে কৃষি উৎপাদন ধসে পড়তে শুরু করেছে।’

তবে জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেসের একজন মুখপাত্র মঙ্গলবার বলেছেন, সীমান্তে সাহায্য প্রস্তুত আছে এবং গাজায় প্রবেশের জন্য অপেক্ষা করছে।

ডব্লিউএফপির কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, গাজার সীমান্তে তাদের যে পরিমাণ খাদ্য রয়েছে তা কিছু শর্ত মেনে তারা উপত্যকাজুড়ে ২২ লাখ মানুষকে সরবরাহ করতে পারবে।

ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যকায় গত বছরের ৭ অক্টোবর থেকে ইসরায়েলের হামলায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ২৯ হাজার ছাড়িয়েছে।

আরও পড়ুন:
ইসরায়েলের দখলের বিরুদ্ধে জাতিসংঘ শীর্ষ আদালতে শুনানি শুরু
ইসরায়েলের হামলায় নিহতের সংখ্যা ২৯ হাজার ছাড়িয়ে গেছে
রাফাহতে ইসরায়েলের আসন্ন অভিযানকে ‘আমাদের’ বললেন বাইডেন
গাজায় নিহত বেড়ে ২৮ হাজার ৩৪০
রাফাহতে ইসরায়েলি হামলায় নিহত ৩৭, দুই বন্দিকে মুক্ত করার দাবি

মন্তব্য

p
উপরে