× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

আন্তর্জাতিক
Saudi citizens do not need visa to come to Bangladesh
hear-news
player
google_news print-icon

বাংলাদেশে আসতে ভিসা লাগবে না সৌদি নাগরিকদের

বাংলাদেশে-আসতে-ভিসা-লাগবে-না-সৌদি-নাগরিকদের-
ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর। ছবি: এএফপি
ঢাকায় বিমানবন্দরে পৌঁছামাত্র সৌদি নাগরিকদের এন্ট্রি ভিসা দিতে সম্মত হয়েছে বাংলাদেশ কর্তৃপক্ষ। এ বিষয়ে প্রয়োজন হলে ফোনে বা ই-মেইলে নাগরিকদের যোগাযোগ করতে বলেছে সৌদি মিশন।

সৌদি আরবের নাগরিকরা ভিসা ছাড়াই বাংলাদেশে আসতে পারবেন। ঢাকার বিমানবন্দরে পৌঁছামাত্রই তাদের এন্ট্রি ভিসা দেয়া হবে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশের সৌদি দূতাবাস।

সংযুক্ত আরব আমিররাতভিত্তিক সংবাদমাধ্যম গালফ নিউজের প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

সৌদি দূতাবাসের টুইটের বরাত দিয়ে দেশটির সংবাদমাধ্যম ওকাজের প্রতিবেদনে বলা হয়, ঢাকায় বিমানবন্দরে পৌঁছামাত্র সৌদি নাগরিকদের এন্ট্রি ভিসা দিতে সম্মত হয়েছে বাংলাদেশ কর্তৃপক্ষ। এ বিষয়ে প্রয়োজন হলে ফোনে বা ই-মেইলে নাগরিকদের যোগাযোগ করতে বলেছে সৌদি মিশন।

বর্তমানে বাংলাদেশি বৈধ পাসপোর্টধারীরা বিশ্বের মোট ৪১টি দেশে ভিসা ছাড়াই যাতায়াত করতে পারবেন। এর মধ্যে ১৯টি দেশ বাংলাদেশিদের অন-অ্যারাইভাল ভিসা দেয়। অপরদিকে সৌদি আরবের নাগরিকরা বিশ্বের ৭৭টি দেশে ভিসা ছাড়াই যাতায়াত করতে পারেন।

আরও পড়ুন:
ঘরের লিগের খেলোয়াড় নিয়ে মাঠে সৌদি আরব
ভারত সফরে আসছেন সৌদি প্রিন্স সালমান
বাংলাদেশের অগ্রযাত্রা সৌদি আরবের জন্য অত্যন্ত আনন্দের: সৌদি মন্ত্রী
ভাঙবে কি সৌদি-আমেরিকা মিত্রতা
সবার জন্য উন্মুক্ত হচ্ছে হজ

মন্তব্য

আরও পড়ুন

আন্তর্জাতিক
Chile burns 23 dead

পুড়ছে চিলি, ২৩ প্রাণহানি

পুড়ছে চিলি, ২৩ প্রাণহানি চিলির নাসিমিয়েন্তো এলাকায় অগ্নিনির্বাপণে ব্যস্ত ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা। ছবি: এএফপি
রাজধানী সান্তিয়াগোতে এক সংবাদ সম্মেলনে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ক্যারোলিনা তোহা জানান, আবহাওয়া পরিস্থিতির কারণে আগুন নিয়ন্ত্রণ কঠিন হয়ে পড়েছে।

লাতিন আমেরিকার দেশ চিলিজুড়ে দাবানলে কমপক্ষে ২৩ জনের মৃত্যু ও ৯৭৯ জন দগ্ধ বা আহত হয়েছেন।

এমন পরিস্থিতিতে স্থানীয় সময় শনিবার জরুরি অবস্থার আওতা বাড়িয়েছে সরকার।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে জানানো হয়, গ্রীষ্মের খরতাপে আগুনের ব্যাপকতা বেড়েছে, যাতে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা কঠিন হয়ে পড়েছে।

দেশটির এক কর্মকর্তা শনিবার ব্রিফিংয়ে জানান, আগুন থেকে বাঁচতে নিরাপদে আশ্রয় নিয়েছেন ১ হাজার এক শর বেশি মানুষ।

সর্বশেষ জরুরি অবস্থার আদেশের আওতায় রয়েছে দক্ষিণাঞ্চলীয় আরাউক্যানিয়া অঞ্চল। এর আগে কাছাকাছি বায়োবিও ও নাবল অঞ্চলেও এ অবস্থা জারি করা হয়।

রাজধানী সান্তিয়াগোতে এক সংবাদ সম্মেলনে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ক্যারোলিনা তোহা জানান, আবহাওয়া পরিস্থিতির কারণে আগুন নিয়ন্ত্রণ কঠিন হয়ে পড়েছে।

তিনি জানান, রোববার নতুন করে ৭৬টি আগুনের ঘটনা ঘটেছে।

দেশটিতে কম বসতিপূর্ণ যে তিন অঞ্চলে জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে, সেগুলো ফল উৎপাদনের জন্য বিখ্যাত। অঞ্চলগুলোতে উৎপাদিত আঙুর, আপেলের মতো ফল বিভিন্ন দেশে রপ্তানি হয়।

আগুন বেড়ে যাওয়ার মধ্যে শনিবার চিলির কর্মকর্তারা সাংবাদিকদের জানান, অগ্নিনির্বাপণে উড়োজাহাজ ও ফায়ার ফাইটার দিয়ে সহায়তার প্রস্তাব দিয়েছে স্পেন, যুক্তরাষ্ট্র, আর্জেন্টিনা, ইকুয়েডর, ব্রাজিল ও ভেনেজুয়েলা।

আরও পড়ুন:
বিশ্ব ফুটছে দাবদাহে
আগ্রাসী হচ্ছে দাবানল
ভয়াবহ দাবানলে পুড়ছে ফ্রান্স স্পেন পর্তুগাল
ক্যালিফোর্নিয়ায় দাবানল: হুমকিতে ৩ হাজার বছর বয়সী গাছ
আগুন থেকে বাঁচতে কম্বল গায়ে বিশ্বের বৃহত্তম গাছ

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
The situation on the battlefield is complicated Zelensky

যুদ্ধক্ষেত্রে পরিস্থিতি জটিল: জেলেনস্কি

যুদ্ধক্ষেত্রে পরিস্থিতি জটিল: জেলেনস্কি দোনবাস অঞ্চলে যুদ্ধক্ষেত্রে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলদিমির জেলেনস্কি। ছবি: রয়টার্স
জেলেনস্কি স্থানীয় সময় শনিবার রাতে দেয়া ভাষণে বলেন, ‘আমাকে প্রায়ই বলতে হয়েছে, যুদ্ধক্ষেত্রে পরিস্থিতি জটিল এবং জটিলতর হচ্ছে এবং সে সময় আবার ফিরেছে…হামলাকারী আমাদের প্রতিরক্ষাব্যবস্থা ভেঙে দিতে একের পর এক বাহিনী মোতায়েন করে যাচ্ছে।’

ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলে যুদ্ধক্ষেত্রে পরিস্থিতি জটিল হচ্ছে জানিয়ে শনিবার দেশটির প্রেসিডেন্ট ভলদিমির জেলেনস্কি বলেছেন, ময়দানি লড়াইয়ে যত সম্ভব সেনা মোতায়েন করে যাচ্ছে রাশিয়া।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে জানানো হয়, কয়েক মাস বেকায়দায় থাকার পর যুদ্ধক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য জয়ের তাগিদ দিয়ে যাচ্ছে ক্রেমলিন। রাশিয়ার সেনারা বাখমুত শহরের পাশাপাশি কাছাকাছি ইউক্রেনীয় বাহিনীর গুরুত্বপূর্ণ একটি সরবরাহ পথের নিয়ন্ত্রণ নিতে চাইছেন।

বাখমুত থেকে ১২০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে দোনেৎস্কের পূর্বাঞ্চলীয় কয়লা খনির শহর ভুহলেদারের দখলও নিতে চাইছে রাশিয়া।

এমন বাস্তবতায় জেলেনস্কি স্থানীয় সময় শনিবার রাতে দেয়া ভাষণে বলেন, ‘আমাকে প্রায়ই বলতে হয়েছে, যুদ্ধক্ষেত্রে পরিস্থিতি জটিল এবং জটিলতর হচ্ছে এবং সে সময় আবার ফিরেছে…হামলাকারী আমাদের প্রতিরক্ষাব্যবস্থা ভেঙে দিতে একের পর এক বাহিনী মোতায়েন করে যাচ্ছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘বাখমুত, ভুহলেদার, লিম্যান ও অন্য দিকগুলোতে পরিস্থিতি খুবই জটিল।’

এর আগে শনিবার ইউক্রেনের উপ-প্রতিরক্ষামন্ত্রী হানা মালিয়ার টেলিগ্রামে লেখেন, বাখমুত ও লিম্যানে প্রতিরক্ষাব্যবস্থা ভেঙে দেয়ার রুশ চেষ্টা ব্যর্থ হয়েছে।

বাখমুতের ঠিক উত্তরে অবস্থিত লিম্যানকে গত বছরের অক্টোবরে দখলমুক্ত করেছিল ইউক্রেনীয় বাহিনী।

আরও পড়ুন:
রাশিয়ার জব্দ অর্থ ইউক্রেনকে দেবে যুক্তরাষ্ট্র
ইউক্রেনকে ২০০ কোটি ডলারের বেশি সহায়তার প্রস্তুতি যুক্তরাষ্ট্রের
ইউক্রেনে যুদ্ধবিমান পাঠাবে না যুক্তরাষ্ট্র
দ্রুত আরও অস্ত্র দরকার ইউক্রেনের: জেলেনস্কি
মার্চে লেপার্ড পাচ্ছে ইউক্রেন

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
US destroys Chinas surveillance balloon with supersonic missile

সুপারসনিক ক্ষেপণাস্ত্রে চীনের নজরদারি বেলুন ধ্বংস যুক্তরাষ্ট্রের

সুপারসনিক ক্ষেপণাস্ত্রে চীনের নজরদারি বেলুন ধ্বংস যুক্তরাষ্ট্রের যুক্তরাষ্ট্রের ক্ষেপণাস্ত্রে ধ্বংস হওয়া বেলুনটি সাউথ ক্যারোলিনার সৈকতের কাছে সমুদ্রে পড়ে। ছবি: সংগৃহীত
যুক্তরাষ্ট্রের এক সামরিক কর্মকর্তা জানান, অভিযানে অংশ নেয় বেশ কয়েকটি যুদ্ধবিমান ও রিফুয়েলিং উড়োজাহাজ। এর মধ্যে দেশটির ভার্জিনিয়ার ল্যাংলি বিমান ঘাঁটি থেকে আসা একটি এফ-২২ যুদ্ধবিমান স্থানীয় সময় শনিবার দুপুর ২টা ৩৯ মিনিটে এআইএম-নাইনএক্স সুপারসনিক ক্ষেপণাস্ত্র দিয়ে বেলুনটিকে আঘাত করে।  

সাউথ ক্যারোলিনা সৈকতের কাছে শনিবার ক্ষেপণাস্ত্র দিয়ে চীনের নজরদারি বেলুনটি ধ্বংস করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

আকাশসীমায় প্রবেশের এক সপ্তাহ পর বেলুন নিয়ে দুই দেশের মধ্যে ব্যাপক নাটকীয়তা শেষে বস্তুটিকে সমুদ্রে বিনাশ করে আমেরিকা।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে জানানো হয়, স্থানীয় সময় বুধবার যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বেলুনটিকে ধ্বংসের নির্দেশ দিয়েছিলেন, তবে দেশটির প্রতিরক্ষা সদরদপ্তর পেন্টাগনের কর্মকর্তারা সে সময় বলেছিলেন, হাজার ফুট ওপর থেকে বেলুনের ধ্বংসাবশেষ মাটিতে পড়লে বেসামরিক লোকজনের ক্ষতি হতে পারে। তাই সমুদ্রসীমায় যাওয়ার আগ পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।

চীনের নজরদারি বেলুনটি ধ্বংসের পর যুক্তরাষ্ট্রের বাহিনীকে অভিনন্দন জানিয়ে বাইডেন বলেন, ‘তারা সফলভাবে একে ভূপাতিত করেছে এবং আমি এ জন্য আমাদের বৈমানিকদের অভিনন্দন জানাতে চাই।’

যুক্তরাষ্ট্রের এক সামরিক কর্মকর্তা জানান, অভিযানে অংশ নেয় বেশ কয়েকটি যুদ্ধবিমান ও রিফুয়েলিং উড়োজাহাজ। এর মধ্যে দেশটির ভার্জিনিয়ার ল্যাংলি বিমান ঘাঁটি থেকে আসা একটি এফ-২২ যুদ্ধবিমান স্থানীয় সময় শনিবার দুপুর ২টা ৩৯ মিনিটে এআইএম-নাইনএক্স সুপারসনিক ক্ষেপণাস্ত্র দিয়ে বেলুনটিকে আঘাত করে।

আরও পড়ুন:
নজরদারি বেলুনে যুক্তরাষ্ট্র-চীন সম্পর্কে আরও ফাটলের শঙ্কা
আকাশে ‘চীনা’ বেলুন, গুলি করবে না যুক্তরাষ্ট্র
যুক্তরাষ্ট্রে কৃষ্ণাঙ্গ হত্যার জেরে পুলিশের বিশেষ ইউনিট নিষিদ্ধ
মারছিল পুলিশ, ‘মা, মা’ বলে কাঁদছিলেন নিকোলস
স্টুডেন্ট ভিসায় যুক্তরাষ্ট্রে গিয়ে চীনের হয়ে গুপ্তচরবৃত্তি

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
US to give money seized by Russia to Ukraine

রাশিয়ার জব্দ অর্থ ইউক্রেনকে দেবে যুক্তরাষ্ট্র

রাশিয়ার জব্দ অর্থ ইউক্রেনকে দেবে যুক্তরাষ্ট্র রাশিয়ার হামলায় বিধ্বস্ত ইউক্রেনের একটি ভবন। ছবি: এএফপি
ইউক্রেন যুদ্ধ শুরুর পর নিষেধাজ্ঞার দিয়ে গত বছরের এপ্রিলে রুশ ব্যবসায়ী কনস্ত্যান্তিন মালোফেয়েভের সম্পদ বাজেয়াপ্ত করে যুক্তরাষ্ট্র। সেই সম্পদ থেকেই ইউক্রেনকে অর্থ দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন দেশটির অ্যাটর্নি জেনারেল।

আমেরিকায় জব্দ হওয়া রুশ ব্যবসায়ীর অর্থ ইউক্রেনকে দিয়ে দেয়ার বিষয়ে অনুমোদন দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের অ্যাটর্নি জেনারেল মেরিক গারল্যান্ড।

সিএনএনের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা এএফপির প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়, ওয়াশিংটনে ইউক্রেনের আইনজীবী অ্যান্ড্রি কোস্টিনের সঙ্গে বৈঠকে গারল্যান্ড এমনটি জানান।

ওই বৈঠকে যুক্তরাষ্ট্রের অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, ‘ইউক্রেনে ব্যবহারের জন্য বাজেয়াপ্ত করা রুশ সম্পদ দেয়ার বিষয়ে অনুমোদন দিয়েছি। ’

ইউক্রেন যুদ্ধ শুরুর পর নিষেধাজ্ঞার দিয়ে গত বছরের এপ্রিলে রুশ ব্যবসায়ী কনস্ত্যান্তিন মালোফেয়েভের সম্পদ বাজেয়াপ্ত করে যুক্তরাষ্ট্র। সেই সম্পদ থেকেই ইউক্রেনকে অর্থ দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন দেশটির অ্যাটর্নি জেনারেল।

সিএনএনের প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় হয়ে অর্থগুলো ইউক্রেনে যাবে।

যুক্তরাষ্ট্রের এমন সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন ইউক্রেনের আইনজীবী কোস্টিন। তার মতে, রুশ ব্যবসায়ীর জব্দ হওয়া ৫৪ লাখ ডলার ইউক্রেন পুনর্গঠনে সহায়তা করবে।

ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলে বিচ্ছিন্নতাবাদীদের অর্থায়নের অন্যতম উৎস হিসেবে দেখা হয় রুশ ব্যবসায়ী মালোফেয়েভেকে।

আরও পড়ুন:
মার্চে লেপার্ড পাচ্ছে ইউক্রেন
ট্যাংকের পর যুদ্ধবিমানে নজর ইউক্রেনের
ইউক্রেনে ট্যাংক পাঠাতে সম্মত জার্মানি, যুক্তরাষ্ট্র
‘শিশুদের আবদারে দেশ চলবে না’
রুশ ভাড়াটে সেনা গোষ্ঠীকে অপরাধী সংগঠন ঘোষণা যুক্তরাষ্ট্রের

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Israeli forces killed an unarmed Palestinian man

নিরস্ত্র ফিলিস্তিনিকে হত্যা ইসরায়েলি বাহিনীর

নিরস্ত্র ফিলিস্তিনিকে হত্যা ইসরায়েলি বাহিনীর দখলকৃত পশ্চিম তীরে ইসরায়েলি বাহিনীর সদস্যরা। ছবি: সংগৃহীত
ওয়াফার তথ্য অনুযায়ী, কালালওয়েহের মৃত্যুতে এ বছর এখন পর্যন্ত ইসরায়েলি বাহিনীর হাতে আট শিশু ও বয়স্ক এক নারীসহ ৩৬ ফিলিস্তিনি প্রাণ হারিয়েছে। এ সময়ে দখলকৃত ফিলিস্তিনি ভূখণ্ডে এক শিশুসহ  ইসরায়েলি ছয় বেসামরিক এবং ইউক্রেনের এক বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছেন।

দখলকৃত পশ্চিম তীরে শুক্রবার ইসরায়েলি বাহিনীর গুলিতে নিরস্ত্র এক ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে ফিলিস্তিনের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

ফিলিস্তিনের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বিবৃতির বরাত দিয়ে আল জাজিরার প্রতিবেদনে জানানো হয়, নাবলুসের দক্ষিণে হুওয়ারা শহরের কাছে শুক্রবার সন্ধ্যায় ইসরায়েলি দখলদার বাহিনীর গুলিতে ২৬ বছর বয়সী আবদুল্লাহ সামি কালালওয়েহ নিহত হন।

ফিলিস্তিনি রেড ক্রিসেন্টের মুখপাত্র আহমাদ জিব্রিল স্থানীয় বার্তা সংস্থা ওয়াফাকে জানায়, ইসরায়েলি বাহিনীর হাতে গুরুতর আহত হওয়ার কয়েক মিনিটের মধ্যেই কালালওয়েহর মৃত্যু হয়।

ওয়াফার তথ্য অনুযায়ী, কালালওয়েহের মৃত্যুতে এ বছর এখন পর্যন্ত ইসরায়েলি বাহিনীর হাতে আট শিশু ও বয়স্ক এক নারীসহ ৩৬ ফিলিস্তিনি প্রাণ হারিয়েছে। এ সময়ে দখলকৃত ফিলিস্তিনি ভূখণ্ডে এক শিশুসহ ইসরায়েলি ছয় বেসামরিক এবং ইউক্রেনের এক বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছেন।

ইসরায়েলি সেনাবাহিনী জানায়, সন্দেহভাজন একজন হুওয়ারা এলাকায় সেনা ঘাঁটি সংলগ্ন সামরিক ফাঁড়ির দিকে হেঁটে যাওয়ার পর বাহিনীর সদস্যরা ফাঁকা গুলি ছোড়ে।

সেনাবাহিনী আরও জানায়, কালালওয়েহ এক সেনাকে আক্রমণের চেষ্টা করেছিলেন। ওই স্থানে থাকা আরেক সেনা তাকে লক্ষ্য করে গুলি চালান।

ফিলিস্তিনি ওই যুবক নিরস্ত্র ছিলেন বলে স্বীকার করেছে ইসরায়েলের সেনাবাহিনী।

এর আগে শুক্রবার জাতিসংঘের মানবাধিকারবিষয়ক হাইকমিশনার ভলকার তুর্ক পূর্ব জেরুজালেমসহ দখলকৃত পশ্চিম তীরে নিরাপত্তা বাহিনীর সব কার্যক্রম আন্তর্জাতিক মানবাধিকার আইনের প্রতি পূর্ণ শ্রদ্ধা রেখে পরিচালনা করতে ইসরায়েলের প্রতি আহ্বান জানান।

তিনি এক বিবৃতিতে আইন প্রয়োগকারী সংস্থার অভিযানগুলোতে নিয়ম মেনে বলপ্রয়োগের ওপর জোর দেন।

আরও পড়ুন:
আল-আকসায় ইসরায়েলি মন্ত্রী, ফুঁসে উঠল আরব বিশ্ব   
ইসরায়েলে নতুন সরকার গঠনের ঘোষণা নেতানিয়াহুর
মোসাদকে সহায়তা, ইরানে ৪ মৃত্যুদণ্ড কার্যকর
রকেটের জবাবে গাজায় বোমা হামলা, ইইউর উদ্বেগ
ইসরায়েলের নির্বাচনে নেতানিয়াহুর জয়

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Fears of further rift in US China ties over surveillance balloons

নজরদারি বেলুনে যুক্তরাষ্ট্র-চীন সম্পর্কে আরও ফাটলের শঙ্কা

নজরদারি বেলুনে যুক্তরাষ্ট্র-চীন সম্পর্কে আরও ফাটলের শঙ্কা আকাশসীমায় চীনের নজরদারি বেলুন শনাক্তের কথা বৃহস্পতিবার সাংবাদিকদের জানান যুক্তরাষ্ট্রের একাধিক কর্মকর্তা। ছবি: রয়টার্স
গুপ্তচরবৃত্তির উদ্দেশ্যে বেলুন পাঠানোর ঘটনাকে যুক্তরাষ্ট্রের সার্বভৌমত্বের ‘অগ্রহণযোগ্য লঙ্ঘন’ হিসেবে আখ্যা দিয়েছেন আমেরিকার কর্মকর্তারা। দেশটির কিছু আইনপ্রণেতা চীনকে জবাবদিহির মুখোমুখি করতে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের কাছে দাবি জানিয়েছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের আকাশে চীনের নজরদারি বেলুন ওড়ার খবরে যে রাজনৈতিক শোরগোল শুরু হয়েছে, তাতে আমেরিকার পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেনের ঘোষিত বেইজিং সফরই শুধু বাতিল হয়নি, দুই দেশের ক্রমাবনতিশীল সম্পর্ক মেরামতের চেষ্টা ব্যাহত হওয়ার শঙ্কাও তৈরি হয়েছে।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়, গুপ্তচরবৃত্তির উদ্দেশ্যে বেলুন পাঠানোর ঘটনাকে যুক্তরাষ্ট্রের সার্বভৌমত্বের ‘অগ্রহণযোগ্য লঙ্ঘন’ হিসেবে আখ্যা দিয়েছেন আমেরিকার কর্মকর্তারা। দেশটির কিছু আইনপ্রণেতা চীনকে জবাবদিহির মুখোমুখি করতে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের কাছে দাবি জানিয়েছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বিক্লেন শুক্রবার থেকে শুরু হতে যাওয়া সফর আপাতত বাতিলের ঘোষণা দিয়ে জানিয়েছেন, পরিস্থিতি অনুকূলে এলে তিনি বেইজিং সফরের প্রস্তুতি নেবেন, তবে নীতি বিশ্লেষকদের ভাষ্য, চীনের পক্ষ থেকে যথেষ্ট সদিচ্ছা দেখানো না হলে খুব দ্রুত দেশটিতে যাওয়ার সম্ভাবনা নেই ব্লিঙ্কেনের।

আমেরিকার আকাশে উড়তে থাকা বেলুনটি আবহাওয়াসংক্রান্ত কাজের জন্য মোতায়েন করা হয় দাবি করে চীনের পক্ষ থেকে বলা হয়, সেটি ভুলবশত যুক্তরাষ্ট্রের আকাশসীমায় ঢুকে পড়ে।

এ নিয়ে সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার সময়ে এশিয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ কূটনীতিক হিসেবে দায়িত্ব পালন করা ড্যানিয়েল রাসেল বলেন, চীনের এ ‘হাস্যকর অজুহাত’ কাজে আসবে না।

তার মতে, গত বছরের নভেম্বরে ইন্দোনেশিয়ার বালিতে চীনের প্রেসিডেন্ট শি চিনপিংয়ের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের বৈঠকে দ্বিপক্ষীয় যোগাযোগ বাড়ানোর বিষয়ে যে ঐকমত্য সৃষ্টি হয়েছিল, সে অবস্থায় ফেরা কঠিন হয়ে যাবে।

বৈশ্বিক দুই পরাশক্তির মধ্যে গত কয়েক বছর ধরে ধারাবাহিকভাবে সম্পর্কের অবনতি হচ্ছিল। গত বছরের আগস্টে যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসের নিম্নকক্ষ হাউস অফ রিপ্রেজেন্টেটিভসের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি তাইওয়ান সফরে যাওয়ার পর সে সম্পর্ক তলানিতে নেমে যায়। পেলোসির সফরের প্রতিক্রিয়ায় তাইওয়ান ঘিরে সামরিক মহড়া চালায় চীন।

এমন বাস্তবতায় বাইডেন প্রশাসনের আশা ছিল, সম্পর্ক মেরামতের একটি রাস্তা তৈরি হবে, যাতে করে সংঘাত ঠেকানো যাবে, কিন্তু সে আশায় গুড়েবালি হয়ে দেখা দিল বেলুন ওড়ানোর ঘটনা।

আরও পড়ুন:
আকাশে ‘চীনা’ বেলুন, গুলি করবে না যুক্তরাষ্ট্র
যুক্তরাষ্ট্রে কৃষ্ণাঙ্গ হত্যার জেরে পুলিশের বিশেষ ইউনিট নিষিদ্ধ
মারছিল পুলিশ, ‘মা, মা’ বলে কাঁদছিলেন নিকোলস
স্টুডেন্ট ভিসায় যুক্তরাষ্ট্রে গিয়ে চীনের হয়ে গুপ্তচরবৃত্তি
ক্যালিফোর্নিয়ায় আবারও গুলি, নিহত ৭

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Child dies after being stabbed by a hot iron rod

নিউমোনিয়ার চিকিৎসায় উত্তপ্ত রডের খোঁচা, হাসপাতালে মৃত্যু শিশুর

নিউমোনিয়ার চিকিৎসায় উত্তপ্ত রডের খোঁচা, হাসপাতালে মৃত্যু শিশুর ভারতের মধ্যপ্রদেশের একটি জেলায় উত্তপ্ত রডের খোঁচায় ৩ মাস বয়সী শিশুর মৃত্যু হয়। ছবি: সংগৃহীত
স্থানীয় চিকিৎসক ও যুব কংগ্রেসের সভাপতি বিক্রান্ত ভুরিয়া জানান, রড দিয়ে খোঁচা দিলে মৃত্যু হতে পারে, এটি ব্যথা কমানোর একটি উপায়, কিন্তু সমস্যা হলো সংক্রমণটি ছড়িয়ে মৃত্যু হতে পারে।

ভারতের মধ্যপ্রদেশে প্রচলিত চিকিৎসার অংশ হিসেবে উত্তপ্ত রড দিয়ে ৫১ বার খোঁচা দেয়া হয়েছে নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত এক শিশুকে।

এ ঘটনার দুই সপ্তাহ পর হাসপাতালে মৃত্যু হয়েছে ৩ মাস বয়সী মেয়েটির।

রাজ্যের শাহদোল জেলার আদিবাসী অধ্যুষিত এলাকায় এ ঘটনা ঘটেছে বলে এনডিটিভির শনিবারের প্রতিবেদনে জানানো হয়।

স্থানীয় কর্মকর্তারা জানান, সমাধিস্থ করার পর শিশুটির মরদেহ আবার তোলা হয়েছে। শনিবার শিশুটির ময়নাতদন্ত হবে।

শাহদোল জেলা প্রশাসক বন্দনা বৈধ জানান, নারী ও শিশু উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ হাসপাতালে পৌঁছার পর দেখতে পায়, অন্ধ বিশ্বাস থেকে ১৫ দিন আগে এমন ঘটনা ঘটানো হয়। নিউমোনিয়ার চিকিৎসা না করানোয় শিশুটির অবস্থার অবনতি হয়।

তিনি আরও জানান, স্থানীয় এক স্বাস্থ্যকর্মী শিশুটিকে গরম রড দিয়ে খোঁচা না দিতে তার মাকে অনুরোধ করেছিলেন।

মধ্যপ্রদেশের অনেক আদিবাসী-অধ্যুষিত এলাকায় নিউমোনিয়ার চিকিৎসা করার জন্য উত্তপ্ত রড দিয়ে খোঁচা দেয়ার রীতি প্রচলিত।

স্থানীয় চিকিৎসক ও যুব কংগ্রেসের সভাপতি বিক্রান্ত ভুরিয়া জানান, রড দিয়ে খোঁচা দিলে মৃত্যু হতে পারে, এটি ব্যথা কমানোর একটি উপায়, কিন্তু সমস্যা হলো সংক্রমণটি ছড়িয়ে মৃত্যু হতে পারে।

বিজেপির মুখপাত্র ডা. হিতেশ বাজপেয়ি বলেন, ‘এই ধরনের রীতি এখনও প্রচলিত এবং আমি এলাকার প্রধান মেডিক্যাল অফিসারকে একটি অভিযোগ নথিভুক্ত করে কঠোর ব্যবস্থা নেয়ার অনুরোধ করছি।’

আরও পড়ুন:
বাসায় যেতে চাওয়া রেজাকে মর্গে পাঠাল মধ্যরাতের ট্রাক
নাতির মরদেহ দেখতে গিয়ে দাদির মৃত্যু
খেলার সময় ছাদ থেকে পড়ে মারা গেল দুই শিশু
সংবাদকর্মী টুটুল মারা গেছেন
বল আনতে গিয়ে ছয়তলা থেকে পড়ে শিশুর মৃত্যু

মন্তব্য

p
উপরে