× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

আন্তর্জাতিক
Imran Khans phone sex fake claim team
hear-news
player
google_news print-icon

ইমরানের ‘অন্তরঙ্গ ফোনালাপ ফাঁস’, ভুয়া দাবি পিটিআইয়ের

ইমরানের-অন্তরঙ্গ-ফোনালাপ-ফাঁস-ভুয়া-দাবি-পিটিআইয়ের
পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। ছবি: সংগৃহীত
সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ফোনালাপটি ভাইরাল হয়েছে। যদিও অডিও ক্লিপটি ভুয়া বলে দাবি করেছে ইমরানের দল পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ।

এক নারীর সঙ্গে ফোনে অন্তরঙ্গ কথোপকথনের অভিযোগে ফের বিতর্কের পড়েছেন পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

পাকিস্তানি সাংবাদিক সৈয়দ আলী হায়দার মঙ্গলবার এ সংক্রান্ত একটি ফোনালাপ ইউটিউবে ফাঁস করেছেন।

এরই মধ্যে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এটি ভাইরাল হয়েছে। যদিও অডিও ক্লিপটি ভুয়া বলে দাবি করেছে ইমরানের দল পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই)।

এ নিয়ে পিটিআই নেতা আরসলান খালিদ বলেন, ‘পিটিআই চেয়ারম্যানের রাজনৈতিক বিরোধীরা ভুয়া অডিও ও ভিডিও তৈরির বাইরে কিছু ভাবতে পারে না।’

ফাঁস হওয়া ফোনালাপে শোনা যায়, একজন ব্যক্তি এক নারীকে অশ্লীল প্রস্তাব দিচ্ছেন, তবে ওই নারী ওই প্রস্তাব প্রত্যাখান করেন।

ফোনলাপে আরও শোনা যায়, ওই নারীর সঙ্গে পরের দিন সাক্ষাৎ নিয়ে কথা বলছেন ব্যক্তিটি। একপর্যায়ে ওই ব্যক্তি বলেন, ‘আমি দেখব এটা সম্ভব কি না। কারণ আমার পরিবার ও সন্তানরা আসছে। আমি তাদের আসা পিছিয়ে দেয়ার চেষ্টা করব। আগামীকাল আমি আপনাকে জানাব।’

ফোনালাপটি ইমরান খানের কি না, তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

এ ফোনালাপ নিয়ে পাকিস্তানের সাংবাদিক নাইলা ইনায়াত টুইটে বলেন, ‘ইমরান হাশমি হয়ে গেছেন ইমরান খান।’

আরও পড়ুন:
পিটিআইয়ের ক্ষমতাচ্যুতির পেছনে সাবেক সেনাপ্রধান: ইমরান
পাকিস্তান-তালেবান সম্পর্কে ভাটা
প্রতারক বলেও ইমরানের সঙ্গে আলোচনার ইঙ্গিত শেহবাজের
পাকিস্তানের বিপক্ষে সিরিজ জয় ইংলিশদের
সীমান্তে সংঘর্ষে ৬ পাকিস্তানি, ১ আফগান নিহত

মন্তব্য

আরও পড়ুন

আন্তর্জাতিক
Nepals Deputy Prime Minister lost his ministry in a dispute over citizenship

নাগরিকত্ব নিয়ে ঝামেলায় মন্ত্রিত্ব হারালেন নেপালের উপপ্রধানমন্ত্রী

নাগরিকত্ব নিয়ে ঝামেলায় মন্ত্রিত্ব হারালেন নেপালের উপপ্রধানমন্ত্রী নেপালের উপ-প্রধানমন্ত্রী রবি লামিচানে। ছবি: সংগৃহীত
নেপালের সুপ্রিমকোর্ট জানায়, অন্য দেশের নাগরিকত্ব ছাড়তে রবি যথাযথ প্রক্রিয়া মানেননি। দেশে ফেরার পর তিনি নেপালের নাগরিকত্বের জন্যও পুনরায় আবেদন করেননি। নেপাল দ্বৈত নাগরিকত্ব অনুমোদন করে না।

নাগরিকত্বের আইন ভঙ্গ করে নির্বাচনে অংশ নেয়ায় মন্ত্রিত্ব ও সংসদ সদস্যের পদ হারালেন নেপালের উপ-প্রধানমন্ত্রী রবি লামিচানে।

দেশটির সুপ্রিম কোর্ট তাকে এসব পদ থেকে শুক্রবার অব্যাহতি দেন।

আল–জাজিরার প্রতিবেদনে বলা হয়, গত ২৬ ডিসেম্বর নেপালের উপপ্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নিয়েছিলেন রবি। এ ঘটনার মাসখানেক পরই তার বিরুদ্ধে এমন রায় দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্ট।

নেপালের সুপ্রিমকোর্ট জানায়, অন্য দেশের নাগরিকত্ব ছাড়তে রবি যথাযথ প্রক্রিয়া মানেননি। দেশে ফেরার পর তিনি নেপালের নাগরিকত্বের জন্যও পুনরায় আবেদন করেননি। নেপাল দ্বৈত নাগরিকত্ব অনুমোদন করে না। এ পরিস্থিতিতে তার নির্বাচনে অংশ নেয়া, গুরুত্বপূর্ণ সরকারি পদে বসা বৈধ নয়।

নেপালের একসময়ের জনপ্রিয় টিভি উপস্থাপক রবি লামিচানে একসময় দেশ ছেড়ে স্থায়ী বসবাসের জন্য যুক্তরাষ্ট্রে পাড়ি জমান। সেখানে নাগরিকত্ব নিয়েছিলেন তিনি, তবে ২০১৮ সালে তিনি আমেরিকার নাগরিকত্ব ছেড়েছেন। পরবর্তী সময়ে দেশে ফিরে রাজনীতিতে যোগ দিয়ে সফল হন লামিচানে।

আরও পড়ুন:
নেপালি বিমানবালার ভাইরাল ভিডিওটি দুর্ঘটনার আগের নয়
বিধ্বস্ত উড়োজাহাজের বাকি দুই আরোহীর খোঁজে চলছে অভিযান
ইয়েতির মালিকেরও প্রাণ যায় আকাশ পথের দুর্ঘটনায়
৬৮ মরদেহ উদ্ধার, মিলল ব্ল্যাকবক্স
নেপালে বিমান বিধ্বস্ত: জীবিত কাউকে পাননি উদ্ধারকারীরা

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Adani is not even among the top five richest people in the world

বিশ্বের শীর্ষ ধনীর পাঁচেও নেই আদানি

বিশ্বের শীর্ষ ধনীর পাঁচেও নেই আদানি এশিয়ার শীর্ষ ধনী গৌতম আদানি। ছবি: ফোর্বস
হিন্ডেনবার্গ রিসার্চ ফার্ম নামের আমেরিকান প্রতিষ্ঠান আদানি গ্রুপের বিরুদ্ধে শেয়ার দরে কারচুপি’র অভিযোগ আনার পর তিন দিন ধরে দরপতনে কোম্পানির শেয়ারদর প্রায় ২০ শতাংশ কমে গেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের একটি গবেষণা প্রতিষ্ঠান ভারতের আদানি গ্রুপের বিরুদ্ধে পুঁজিবাজারে ধোঁকাবাজির অভিযোগ নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশের পর এশিয়ার শীর্ষ ধনী গৌতম আদানির সম্পত্তির পরিমাণ অব্যাহতভাবে কমছে। তিনি ফোর্বসের তালিকায় বিশ্বের তৃতীয় শীর্ষ ধনী থেকে সপ্তমস্থানে নেমে গেছেন।

হিন্ডেনবার্গ রিসার্চ ফার্ম নামের ওই প্রতিষ্ঠান আদানি গ্রুপের বিরুদ্ধে শেয়ার দরে কারচুপি’র অভিযোগ আনার পর তিন দিন ধরে দরপতনে কোম্পানির শেয়ারদর প্রায় ২০ শতাংশ কমে গেছে।

ফোর্বস জানায়, আদানির সম্পদের মূল্য কমে বর্তমান দাঁড়িয়েছে আনুমানিক ৯ হাজার কোটি ডলারে। তিন দিনের ব্যবধানে তার ২২ দশমিক ৬ বিলিয়ন ডলারের সম্পদ কমেছে।

তবে এখনও এ সম্পদ নিয়ে এখন ও এশিয়ার শীর্ষ ধনী আদানি রয়েছেন। এশিয়ার দ্বিতীয় শীর্ষ ধনী হলেন মুকেশ আম্বানি, যার সম্পদের পরিমাণ প্রায় ৮ হাজার ৩০০ কোটি ডলার। আম্বানি বিশ্বের শীর্ষ ধনীদের তালিকায় দশম স্থানে রয়েছেন। বর্তমানে এ তালিকায় শীর্ষে রয়েছেন ফরাসি ধনকুবের বার্নার্ড আর্নল্ট

গৌতম আদানির মালিকানাধীন আদানি গ্রুপ ভারতের সবচেয়ে বড় বন্দর পরিচালনাকারী ও তাপ কয়লা উৎপাদন কোম্পানি। এছাড়া অবকাঠামো নির্মাণ, পণ্যদ্রব্য উৎপাদন, বিদ্যুৎ উৎপাদন, আবাসন ব্যবসায়ও বিনিয়োগ রয়েছে তারা।

আরও পড়ুন:
পুঁজিবাজারে কয়েক ঘণ্টায় ২ লাখ কোটি রুপি উধাও আদানির
ভারতের আদানি এখন বিশ্বের তৃতীয় ধনী

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Imran accuses Zardari of a new assassination plot

জারদারির বিরুদ্ধে হত্যার নতুন চক্রান্তের অভিযোগ ইমরানের

জারদারির বিরুদ্ধে হত্যার নতুন চক্রান্তের অভিযোগ ইমরানের পিপিপির কো-চেয়ারম্যান আসিফ আলি জারদারি ও পিটিআই চেয়ারম্যান ইমরান খান। ছবি কোলাজ: নিউজবাংলা
ইমরান খান বলেন, “বর্তমানে তারা ‘প্ল্যান সি’ নিয়েছে এবং এর নেপথ্যে আসিফ জারদারি। তার হাতে দুর্নীতির বিপুল পরিমাণ অর্থ, যেগুলো তিনি সিন্ধু রাজ্য সরকার থেকে লুট করে নির্বাচনে জয়ের পেছনে ব্যয় করেছেন।”

পাকিস্তান পিপলস পার্টির (পিপিপি) কো-চেয়ারম্যান আসিফ আলি জারদারি গুপ্তহত্যার নতুন চক্রান্ত করছেন বলে অভিযোগ করেছেন দেশটির সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই) চেয়ারম্যান ইমরান খান।

স্থানীয় সময় শুক্রবার সরাসরি সম্প্রচারিত এক বক্তব্যে ইমরান এ অভিযোগ করেন বলে দি এক্সপ্রেস ট্রিবিউনের প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে।

পিটিআই চেয়ারম্যানের ভাষ্য, তাকে গুপ্তহত্যা করতে একটি সন্ত্রাসী গোষ্ঠীকে অর্থ দিয়েছেন সাবেক প্রেসিডেন্ট জারদারি।

“বর্তমানে তারা ‘প্ল্যান সি’ নিয়েছে এবং এর নেপথ্যে আসিফ জারদারি। তার হাতে দুর্নীতির বিপুল পরিমাণ অর্থ, যেগুলো তিনি সিন্ধু রাজ্য সরকার থেকে লুট করে নির্বাচনে জয়ের পেছনে ব্যয় করেছেন”, বলেন ইমরান।

‘তিনি (জারদারি) সন্ত্রাসী একটি গোষ্ঠীকে অর্থ দিয়েছেন এবং শক্তিশালী সংস্থার লোকজন তাকে সহায়তা করছে। এটা তিন দিক থেকেই ঠিক করা হয়েছে এবং তারা দ্রুতই পরিকল্পনা বাস্তবায়ন শুরু করবে’, যোগ করেন তিনি।

ক্রিকেটার থেকে পুরোদস্তুর রাজনীতিক ইমরানের অভিযোগ, জারদারির সঙ্গে আরও তিনজন রয়েছেন যারা এ চক্রান্তে জড়িত, তবে ওই তিনজন কারা, সেটি প্রকাশ করেননি সাবেক প্রধানমন্ত্রী।

গুপ্তহত্যা চক্রান্তের বিষয়টি প্রকাশ্য আনার বিষয়ে পিটিআই চেয়ারম্যান বলেন, ‘আপনাদের কাছে বিষয়টি এ কারণে জানাচ্ছি যে, যদি আমার সঙ্গে কিছু ঘটে, তাহলে জাতির উচিত এর নেপথ্যের লোকজনকে চিনে রাখা, যাতে করে কখনোই জাতির কাছ থেকে ক্ষমা না পায় তারা।’

আরও পড়ুন:
১৬ ঘণ্টায়ও বিদ্যুৎ ফেরেনি পাকিস্তানে
আফ্রিদির চেয়ারে হারুন
ভিক্ষার থালা নিয়ে ঘুরছে পাকিস্তান: ইমরান
জাতীয় গ্রিডে বিপর্যয়, অন্ধকারে পাকিস্তান
পাকিস্তানে সিরিজ জয় নিউজিল্যান্ডের

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Clashes at Delhi University over screening of Modis documentary

মোদির ডকুমেন্টারি দেখানো নিয়ে দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ে সংঘর্ষ

মোদির ডকুমেন্টারি দেখানো নিয়ে দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ে সংঘর্ষ ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ডকুমেন্টারি দেখানোকে কেন্দ্র করে দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ে সংঘর্ষ। ছবি: এনডিটিভি
মোদিকে নিয়ে তৈরি করা বিবিসির ডকুমেন্টারিটি দেখানো বন্ধ করতে দিল্লির জওহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয়ে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয়া হয়েছে। এছাড়া দিল্লি ও আম্বেদকর বিশ্ববিদ্যালয়ও একই রকম পরিস্থিতি তৈরি করা হয়েছে । দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা অনুষদের বাইরে বড় জমায়েত নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

ভারতের গুজরাটে ২০০২ সালের দাঙ্গা ও দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে নিয়ে বিবিসির বিতর্কিত ডকুমেন্টারি সিরিজ দেখানোকে কেন্দ্র করে দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনার পর সেখানে পুলিশ ধরপাকড় চালিয়েছে বলে এনডিটিভির প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে।

এতে আরও বলা হয়, মোদিকে নিয়ে তৈরি করা বিবিসির ডকুমেন্টারিটি দেখানো বন্ধ করতে দিল্লির জওহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয়ে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয়া হয়েছে। এছাড়া দিল্লি ও আম্বেদকর বিশ্ববিদ্যালয়ও একই রকম পরিস্থিতি তৈরি করা হয়েছে । দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা অনুষদের বাইরে বড় জমায়েত নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

এ বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর কর্তৃপক্ষ প্রকাশ্যে মোদির ডকুমেন্টারি দেখাতে না দিলেও শিক্ষার্থীদের কাছে এর লিংক ছড়িয়ে পড়ছে।

পুলিশ জানিয়েছে, বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুমতি না নিয়ে বড় ধরনের জমায়েত করে ডকুমেন্টারিটি দেখানো হলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর রজনী আব্বি জানিয়েছেন, এ নিয়ে তিনি পুলিশের কাছে অভিযোগ করেছেন।

এদিকে মোদিকে নিয়ে বিবিসির ডকুমেন্টারি সিরিজ ফের ক্যাম্পাসে প্রদর্শন করেছেন হায়দরাবাদ ইউনিভার্সিটির (ইউওএইচ বা এইচসিইউ) শিক্ষার্থীরা।

স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার স্টুডেন্টস ফেডারেশন অফ ইন্ডিয়া (এসএফআই) ডকুমেন্টারিটি প্রদর্শন করে, যার প্রতিবাদে ক্যাম্পাসে বিতর্কিত চলচ্চিত্র ‘দ্য কাশ্মীর ফাইলস’ প্রদর্শন করে রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘের (আরএসএস) ছাত্র সংগঠন অখিল ভারতীয় বিদ্যার্থী পরিষদ (এবিভিপি)।

দিল্লির জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে মোদির ডকুমেন্টাররি দেখানোর পর সেখানে কয়েকজন শিক্ষার্থীকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় প্রতিষ্ঠানটিতে শুক্রবারও ক্লাস হয়নি।

ভারত সরকার ইতোমধ্যেই মোদিকে নিয়ে করা বিবিসির ডকুমেন্টারিকে ‘প্রপাগান্ডা’ হিসেবে আখ্যা দিয়েছে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এর ছড়িয়ে পড়া ঠেকাতে টুইটার ও ইউটিউবে ব্লক করার নির্দেশ দিয়েছে দেশটির কেন্দ্রীয় সরকার।

আরও পড়ুন:
মোদিকে নিয়ে ডকুমেন্টারি ফের প্রদর্শন হায়দরাবাদ ইউনিভার্সিটিতে
গণিত শিক্ষক চাওয়া এই বিজ্ঞাপনই যেন এক জটিল প্রশ্নপত্র
নদীতে পরিবারের ৭ সদস্যের লাশ
গোহত্যা বন্ধ হলেই পৃথিবীর সমস্যা শেষ: ভারতের আদালত
মোদির ডকুমেন্টারি টুইটার-ইউটিউবে ব্লকের নির্দেশ

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
2 lakh crores of Adani disappeared in the capital market in a few hours

পুঁজিবাজারে কয়েক ঘণ্টায় ২ লাখ কোটি রুপি উধাও আদানির

পুঁজিবাজারে কয়েক ঘণ্টায় ২ লাখ কোটি রুপি উধাও আদানির আদানি গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান গৌতম আদানি। ছবি: সংগৃহীত
যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্ক সিটিভিত্তিক বিনিয়োগ গবেষণা প্রতিষ্ঠান হিন্ডেনবার্গ রিসার্চের এক প্রতিবেদনের পর শেয়ারদর ৮ শতাংশ হারিয়েছিল আদানির কোম্পানিগুলো। এর দুই দিন পর শুক্রবার লেনদেন শুরুর কয়েক ঘণ্টায় প্রায় ২ লাখ কোটি রুপি কমে যায় কোম্পানিগুলোর শেয়ারদর।

ভারতের পুঁজিবাজারে শুক্রবার ব্যাপক দরপতন হয়েছে বিশ্বের অন্যতম ও এশিয়ার শীর্ষ ধনী গৌতম শান্তিলাল আদানির মালিকানাধীন কোম্পানিগুলোর শেয়ারের।

দি ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের প্রতিবেদনে জানানো হয়, সকালে লেনদেন শুরু হওয়ার কয়েক ঘণ্টার মধ্যে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত আদানি গ্রুপের ৯ কোম্পানির সবগুলোর শেয়ারের দরপতন হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্ক সিটিভিত্তিক বিনিয়োগ গবেষণা প্রতিষ্ঠান হিন্ডেনবার্গ রিসার্চের এক প্রতিবেদনের পর শেয়ারদর ৮ শতাংশ হারিয়েছিল আদানির কোম্পানিগুলো। এর দুই দিন পর শুক্রবার লেনদেন শুরুর কয়েক ঘণ্টায় প্রায় ২ লাখ কোটি রুপি কমে যায় কোম্পানিগুলোর বাজার মূলধন।

সবশেষ দরপতনের মধ্য দিয়ে মঙ্গলবারের পর পুঁজিবাজারে বাজার মূলধন ২ লাখ ৭৫ হাজার কোটি রুপি হারিয়েছে বহুজাতিক কোম্পানি আদানি গ্রুপ।

কোম্পানিটির মালিকানাধীন আদানি টোটাল গ্যাসের শেয়ারদর কমেছে ১৯.৬৫ শতাংশ। এ ছাড়া আদানি ট্রান্সমিশনের ১৯ শতাংশের বেশি এবং আদানি গ্রিন এনার্জির শেয়ারদর কমেছে সাড়ে ১৫ শতাংশ।

এগুলোর বাইরে আদানি পোর্টসের শেয়ারগুলোর দর কমে ৫.৩১ শতাংশ, যেখানে আদানি পাওয়ার ও আদানি উইলমারের শেয়ারদর কমে ৫ শতাংশ করে। গ্রুপের হোল্ডিং কোম্পানি আদানি এন্টারপ্রাইজেসের শেয়ারদর কমে ৬.১৯ শতাংশ।

আদানি গ্রুপের বিরুদ্ধে সম্প্রতি শেয়ার নিয়ে কারসাজির অভিযোগ করে প্রতিবেদন প্রকাশ করে হিন্ডেনবার্গ রিসার্চ। এর পরিপ্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার গ্রুপের পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল, যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে মামলা করা হবে, কিন্তু ওই বার্তার পরও পতন ঠেকানো যায়নি পুঁজিবাজারে।

আরও পড়ুন:
সিএসইতে লেনদেন বাড়লেও ডিএসইতে কমেছে
পুঁজিবাজারে ৫ কোম্পানিতে বেড়েছে বিদেশি বিনিয়োগ
গ্যাসের দাম বৃদ্ধিতে নেতিবাচক পুঁজিবাজার
‘পুঁজিবাজারে জেনে-বুঝে বিনিয়োগ করলে ঝুঁকি কমবে’
স্বচ্ছ পুঁজিবাজারের প্রতিশ্রুতি বিএসইসি চেয়ারম্যানের

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Documentary on Modi again screened at Hyderabad University

মোদিকে নিয়ে ডকুমেন্টারি ফের প্রদর্শন হায়দরাবাদ ইউনিভার্সিটিতে

মোদিকে নিয়ে ডকুমেন্টারি ফের প্রদর্শন হায়দরাবাদ ইউনিভার্সিটিতে হায়দরাবাদ ইউনিভার্সিটি ক্যাম্পাসে বৃহস্পতিবার মোদিকে নিয়ে বিবিসির করা ডকুমেন্টারি প্রদর্শনীতে আসা দর্শকদের একাংশ। ছবি: টুইটার
স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার স্টুডেন্টস ফেডারেশন অফ ইন্ডিয়া (এসএফআই) ডকুমেন্টারিটি প্রদর্শন করে, যার প্রতিবাদে ক্যাম্পাসে বিতর্কিত চলচ্চিত্র ‘দ্য কাশ্মীর ফাইলস’ প্রদর্শন করে রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘের (আরএসএস) ছাত্র সংগঠন অখিল ভারতীয় বিদ্যার্থী পরিষদ (এবিভিপি)।

ভারতের গুজরাটে ২০০২ সালের দাঙ্গা ও দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে নিয়ে বিবিসির বিতর্কিত ডকুমেন্টারি সিরিজ ফের ক্যাম্পাসে প্রদর্শন করেছেন হায়দরাবাদ ইউনিভার্সিটির (ইউওএইচ বা এইচসিইউ) শিক্ষার্থীরা।

স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার স্টুডেন্টস ফেডারেশন অফ ইন্ডিয়া (এসএফআই) ডকুমেন্টারিটি প্রদর্শন করে, যার প্রতিবাদে ক্যাম্পাসে বিতর্কিত চলচ্চিত্র ‘দ্য কাশ্মীর ফাইলস’ প্রদর্শন করে রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘের (আরএসএস) ছাত্র সংগঠন অখিল ভারতীয় বিদ্যার্থী পরিষদ (এবিভিপি)।

এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়, গত ২১ জানুয়ারি ইউওএইচ শিক্ষার্থীদের সংগঠন ফ্রেটারনিটি মুভমেন্ট অনুমতি না নিয়ে ক্যাম্পাসে ‘ইন্ডিয়া: দ্য মোদি কোয়েশ্চেন’ শিরোনামের ডকুমেন্টারিটি প্রদর্শন করে। বিষয়টি তদন্তের সিদ্ধান্ত নেয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

পক্ষপাতদুষ্ট আখ্যা দিয়ে ভারত সরকার গত সপ্তাহে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ও ভিডিও শেয়ারিং ওয়েবসাইটে ডকুমেন্টারিটি ব্লক করে দেয়। এটি বৃহস্পতিবার প্রদর্শন করা হবে বলে পূর্বঘোষণা দেয় এসএফআই।

ছাত্র সংগঠনটির হায়দরাবাদ ইউনিভার্সিটি শাখার টুইটার অ্যাকাউন্টে পোস্টে বলা হয়, এসএফআই কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির আহ্বানে ডকুমেন্টারির সফল প্রদর্শন হয়েছে। এবিভিপির কর্মীদের নৈরাজ্য সৃষ্টির চেষ্টা ও প্রশাসনের বাধাকে পাশ কাটিয়ে চার শতাধিক শিক্ষার্থী প্রজাতন্ত্র দিবসে ডকুমেন্টারিটি দেখতে আসেন।

এতে আরও বলা হয়, মতপ্রকাশের স্বাধীনতা ও ক্যাম্পাসে গণতন্ত্রের পক্ষে দাঁড়ানো শিক্ষার্থীদের স্যালুট জানায় এসএফআই হায়দরাবাদ বিশ্ববিদ্যালয় শাখা।

আরও পড়ুন:
রোহিত-কোহলিকে ছাড়াই কিউইদের বিপক্ষে দল ঘোষণা ভারতের
দলীয় রান ৭১৪, একাই ৫০৮ স্কুলছাত্রের
প্রেমিকের সামনেই সংঘবদ্ধ ধর্ষণ
ফুল বিক্রেতার বাড়িতে ১০০ কোটির প্রত্নসামগ্রী
পৌষ সংক্রান্তিতে উধাও পশ্চিমবঙ্গের শীত

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Pakistans Economy on the Verge of Collapse Report

পতনের দ্বারপ্রান্তে পাকিস্তানের অর্থনীতি: প্রতিবেদন

পতনের দ্বারপ্রান্তে পাকিস্তানের অর্থনীতি: প্রতিবেদন প্রতীকী ছবি
দক্ষিণ এশিয়ার দেশটির পরিস্থিতি নিয়ে জানতে চাইলে বিশ্বব্যাংকের সাবেক উপদেষ্টা আবিদ হাসান এফটিকে বলেন, এখন প্রতিটি দিনই গুরুত্বপূর্ণ। এ অবস্থা থেকে পরিত্রাণের উপায় কী, তা স্পষ্ট নয়।

পাকিস্তানে ডলারের তীব্র সংকটে পণ্যবাহী হাজারো কন্টেইনার সমুদ্রবন্দরগুলোতে আটকে আছে জানিয়ে দ্য ফিন্যান্সিয়াল টাইমস (এফটি) বলেছে, পতনের দ্বারপ্রান্তে রয়েছে দেশটির অর্থনীতি।

স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার প্রকাশিত প্রতিবেদনে যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যমটি এ শঙ্কার কথা জানিয়েছে বলে পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যম দি এক্সপ্রেস ট্রিবিউনের প্রতিবেদনে তুলে ধরা হয়েছে।

বিশেষজ্ঞদের বরাত দিয়ে এফটির খবরে বলা হয়, পাকিস্তানের অর্থনৈতিক পরিস্থিতি নিশ্চল হয়ে পড়ছে, যা শ্রীলঙ্কার মতো হওয়ার ঝুঁকিতে রয়েছে।

বৈদেশিক মুদ্রার পর্যাপ্ত রিজার্ভ না থাকায় শ্রীলঙ্কা নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য কেনার সামর্থ্য হারায়, যা গত বছরের মে মাসে দেশটিকে খেলাপিতে পরিণত করে।

বস্ত্র কারখানার মালিকদের বরাত দিয়ে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যমটির প্রতিবেদনে বলা হয়, বিদ্যুৎ ও সম্পদ ব্যবহারে মিতব্যয়িতার অংশ হিসেবে কারখানাগুলো বন্ধ কিংবা কম সময় ধরে চালু রাখা হচ্ছে।

বিদ্যুৎ সংকটে ভুগতে থাকা কারখানাগুলোর সংকট আরও ঘনীভূত হয় সোমবার, যেদিন ১২ ঘণ্টার বেশি সময় অন্ধকারে ছিল গোটা পাকিস্তান।

ইসলামাবাদভিত্তিক মার্কো ইকনোমিক ইনসাইটসের প্রতিষ্ঠাতা সাকিব শেরানি এফটিকে বলেন, এরই মধ্যে বেশ কিছু শিল্পকারখানা বন্ধ হয়ে গেছে। এসব কারখানা ফের চালু না হলে বেশ কিছু ক্ষতি হবে, যা অপূরণীয়।

তীব্র অর্থনৈতিক সংকটে থাকা পাকিস্তানের কেন্দ্রীয় ব্যাংকে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ কমে ৫০০ কোটি ডলারের নিচে নেমেছে। এ দিয়ে এক মাসের গোটা আমদানি ব্যয়ও মেটানো যাবে না।

এমন পরিস্থিতি থেকে অর্থনীতিকে টেনে তুলতে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের কাছ থেকে ৭০০ কোটি ডলার অর্থনৈতিক সহায়তা প্যাকেজ নিয়েও অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়েছে।

দক্ষিণ এশিয়ার দেশটির পরিস্থিতি নিয়ে জানতে চাইলে বিশ্বব্যাংকের সাবেক উপদেষ্টা আবিদ হাসান এফটিকে বলেন, এখন প্রতিটি দিনই গুরুত্বপূর্ণ। এ অবস্থা থেকে পরিত্রাণের উপায় কী, তা স্পষ্ট নয়।

পাকিস্তানের পরিকল্পনামন্ত্রী আহসান ইকবাল বলেন, বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ বাঁচাতে দেশটি ব্যাপক হারে আমদানি কমিয়ে দিয়েছে।

আরও পড়ুন:
পাকিস্তানে ২৫৫ রুপিতে মিলছে এক ডলার
আলো ফিরেছে পাকিস্তানে
২৪ ঘণ্টা পরও বিদ্যুৎ ফেরেনি পাকিস্তানের অনেক এলাকায়
১৬ ঘণ্টায়ও বিদ্যুৎ ফেরেনি পাকিস্তানে
আফ্রিদির চেয়ারে হারুন

মন্তব্য

p
উপরে