× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট বাংলা কনভার্টার নামাজের সময়সূচি আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

আন্তর্জাতিক
US urges China to remain silent during joint exercises
google_news print-icon

ভারতের সঙ্গে যৌথ মহড়ায় চীনকে চুপ থাকার আহ্বান যুক্তরাষ্ট্রের

ভারতের-সঙ্গে-যৌথ-মহড়ায়-চীনকে-চুপ-থাকার-আহ্বান-যুক্তরাষ্ট্রের
ভারত-যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক মহড়া। ছবি: সংগৃহীত
ভারতে নিযুক্ত মার্কিন দূত এলিজাবেথ জোনস সাংবাদিকদের সঙ্গে এক গোলটেবিল বৈঠকে বলেছেন, ‘এ মহড়া নিয়ে চীনের নাক গলানোর দরকার নেই।’

ভারতের উত্তরাখন্ডের সীমান্ত এলাকায় যৌথ সেনা মহড়া চালাচ্ছে দিল্লি-ওয়াশিংটন। এ নিয়ে চীনের আপত্তির সমালোচনা করেছে যুক্তরাষ্ট্র। পাশাপাশি বেইজিংকে এ সামরিক মহড়া নিয়ে মাথা না ঘামানোর আহ্বান জানিয়েছে দেশটি।

শুক্রবার ভারতে নিযুক্ত মার্কিন দূত এলিজাবেথ জোনস সাংবাদিকদের সঙ্গে এক গোলটেবিল বৈঠকে বলেছেন, ‘এ মহড়া নিয়ে চীনের নাক গলানোর দরকার নেই।’

এ সময় ভারতের সঙ্গে বাণিজ্যকেও সর্বাধিক গুরুত্ব দেয়া হবে বলে জানান মার্কিন রাষ্ট্রদূত।

জোনস বলেন, ‘বিগত ৭ বছরে ভারতের সঙ্গে বাণিজ্য দ্বিগুণ হয়ে ১৫৭ বিলিয়ন ডলারে পৌঁছেছে। এরপর আলাদাভাবে আর ভারত-যুক্তরাষ্ট্রর মধ্যে বাণিজ্যচুক্তির কোনও প্রয়োজন নেই।’

উত্তরাখন্ড সীমান্তবর্তী আউলিতে যুদ্ধ অভ্যাস নামে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ১৮তম যৌথ সামরিক মহড়া চালাচ্ছে ভারত। যে জায়গায় মহড়া হচ্ছে সেটির অবস্থান চীন সীমান্ত থেকে প্রায় ১০০ কিলোমিটার দূরত্বে।

এ নিয়ে বৃহস্পতিবার আপত্তি জানিয়েছে বেইজিং। চীন বলছে, এই মহড়া বেইজিং ও দিল্লির মধ্যে দুটি সীমান্ত চুক্তির মূল নীতির লঙ্ঘন।

ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র অরিন্দম বাগচী জানিয়েছেন, ১৯৯৩ এবং ১৯৯৬ সালে চীনের সমঝোতা চুক্তির সঙ্গে এ যৌথ সামরিক মহড়ার সম্পর্ক নেই। উল্টো চীন এ চুক্তিগুলোর লঙ্ঘন করছে কি-না, তা নিয়ে ভাবার জন্য দেশটির প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

১৯৯৩ সালে সমঝোতা চুক্তি অনুযায়ী, প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা এবং সংলগ্ন এলাকায় শান্তি বজায় রাখার কথা বলা হয়েছে।

ভারত-চীনের সীমানা নিয়ে বিরোধ বেশ পুরোনো। ১৯৬২-র যুদ্ধের পর, ভারতের প্রায় ৩৮ হাজার বর্গকিলোমিটার অংশ জুড়ে বিস্তৃত এই অঞ্চলটি দখল করেছে চীন। সবশেষ ২০২০ সালে লাদাখে চীন ও ভারতের সেনাদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এতে উভয় পক্ষেরই বেশ কয়েকজন সেনা হতাহত হন।

আরও পড়ুন:
সাত বছর পর ঢাকায় রোহিত-কোহলিরা
বিয়ের আসর থেকে ভোটকেন্দ্রে
মোদির রাজ্যে শুরু প্রথম দফার ভোট
বৃষ্টির বাধাতেও সিরিজ নিউজিল্যান্ডের
পশ্চিমবঙ্গের নতুন জেলা সুন্দরবন

মন্তব্য

আরও পড়ুন

আন্তর্জাতিক
Door to door distribution of contraceptives in election campaign

ভোটের প্রচারে বাড়ি বাড়ি গিয়ে গর্ভনিরোধক বিতরণ

ভোটের প্রচারে বাড়ি বাড়ি গিয়ে গর্ভনিরোধক বিতরণ
লোকসভা নির্বাচনের আগে দক্ষিণের এক রাজ্য দেখছে এমনই কাণ্ড! অন্ধ্রপ্রদেশের দুই রাজনৈতিক দল এই মুহূর্তে গর্ভনিরোধক বা কন্ডোমের মোড়ককে কাজে লাগিয়ে ভোটের প্রচারে নেমেছে, এমনটাই অভিযোগ।

পৃথিবীর সর্বাধিক জনবহুল দেশ ভারত। সেই সুবাদে পরিবার পরিকল্পনা ও জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণের জন্য দেশীয় রাজনীতিতে আলোচনা ও তর্ক-বিতর্ক লেগেই থাকে। তবে গর্ভনিরোধকের মাধ্যমে ভোটের প্রচার!

লোকসভা নির্বাচনের আগে দক্ষিণের এক রাজ্য দেখছে এমনই কাণ্ড! অন্ধ্রপ্রদেশের দুই রাজনৈতিক দল এই মুহূর্তে গর্ভনিরোধক বা কন্ডোমের মোড়ককে কাজে লাগিয়ে ভোটের প্রচারে নেমেছে, এমনটাই অভিযোগ।

আনন্দবাজার পত্রিকা বলছে, ঘটনার কেন্দ্রে রয়েছে রাজ্যের শাসকদল ওয়াইএসআর কংগ্রেস এবং বিরোধী দল তেলুগু দেশম পার্টি (টিডিপি)।
সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সেই ঘটনার ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। যদিও ভিডিওটির সত্যতা যাচাই করা যায়নি।

অভিযোগ, ভোটের প্রচারের জন্য দুই দল দুই রঙের গর্ভনিরোধকের প্যাকেট ব্যবহার করছে। প্রকাশিত ভিডিও এবং ছবি অনুযায়ী, প্রচারের জন্য নীল রঙের প্যাকেট বেছেছে ওয়াইএসআর কংগ্রেস।সেই প্যাকেটের ওপর দলীয় প্রতীক এবং দলের নাম ছেপে ভোটারদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে বিলি করা হচ্ছে বলে স্থানীয় সূত্রের দাবি।

তবে আরও উল্লেখযোগ্য বিষয় হলো, শাসক এবং বিরোধী দুই দলই পরস্পরের বিরুদ্ধে এই প্রচার কৌশল নিয়ে অভিযোগের আঙুল তুলেছে।
ওয়াইএসআর কংগ্রেস এই প্রচার কৌশল নিয়ে টিডিপি নেতৃত্বকে আক্রমণ করে বলেছে, “আর কত নীচে নামবেন আপনারা?”

খানেই থামেনি শাসকদল। আরও এক ধাপ সুর চড়িয়ে তারা বলেছে, “কন্ডোম বিলিতেই কি প্রচার শেষ করবেন আপনারা, নাকি এবার জনসাধারণের মধ্যে ভায়াগ্রাও বিলি করা শুরু করবেন?”

এই বক্তব্যের বিরুদ্ধে সরব হয়ে টিডিপিও পাল্টা আক্রমণে নেমেছে। ওয়াইএসআর কংগ্রেসের দলীয় প্রতীক এবং নাম লেখা একটি গর্ভনিরোধকের প্যাকেট পাল্টা পোস্ট করে টিডিপির দাবি, তা হলে তারাও কি এভাবেই ভোটে লড়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে?

স্বাভাবিকভাবেই এই কন্ডোম-রাজনীতি তোলপাড় ফেলে দিয়েছে দক্ষিণের এই রাজ্যে।

আরও পড়ুন:
ঐশ্বরিয়াকে নিয়ে রাহুলের মন্তব্যের নিন্দা সংগীতশিল্পীর
যেভাবে ভারতে পাঠানো হলো বন্য দুই হাতিকে
নিজস্ব মুদ্রায় ভারতের সঙ্গে বাণিজ্যে আগ্রহ প্রধানমন্ত্রীর

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Musician condemns Rahuls comments on Aishwarya

ঐশ্বরিয়াকে নিয়ে রাহুলের মন্তব্যের নিন্দা সংগীতশিল্পীর

ঐশ্বরিয়াকে নিয়ে রাহুলের মন্তব্যের নিন্দা সংগীতশিল্পীর কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধীর মন্তব্যের নিন্দা জানিয়েছেন সংগীতশিল্পী সোনা মহাপাত্র। ছবি: এনডিটিভি
সম্প্রতি একটি সভায় রাহুল গান্ধী বলেন, ‘আপনারা কি রাম মন্দিরের ‘প্রাণ প্রতিষ্ঠা’ অনুষ্ঠান দেখেছেন? সেখানে আপনি কি কোনো তপসিলি, উপজাতি কিংবা ওবিসি মানুষজনের মুখ দেখেছেন? সেখানে অমিতাভ বচ্চন, ঐশ্বরিয়া রায় বচ্চন ও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী উপস্থিত ছিলেন, তবে সত্যিই দেশ চালান এমন কাউকে সেই অনুষ্ঠানে দেখা যায়নি।’

গত মাসে ভারতের অযোধ্যায় রাম মন্দিরের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও বলিউড অভিনেত্রী ঐশ্বরিয়া রায়কে নিয়ে ‘অপমানজনক’ মন্তব্য করায় কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধীর প্রতি নিন্দা জানিয়েছেন সংগীতশিল্পী সোনা মহাপাত্র।

এ বিষয়ে সোনা তার নিজের এক্সে (আগের টুইটার) রাহুল গান্ধীকে ট্যাগ করে পোস্ট করেছেন বলে এনডিটিভির বৃহস্পতিবারের প্রতিবেদনে জানানো হয়।

তিনি বলেন, রাজনীতিবিদরা রাজনৈতিক উদ্দেশ্য হাসিলের জন্য নারীদের শোষণ করছে।

সোনা মহাপাত্র এক্সে লিখেন, ‘রাজনীতিবিদরা নিজেদের বক্তৃতায় নারীদের অবমাননা করেন, এতে কি তারা নিজেদের পুরুষ প্রমাণ করতে চাইছেন? প্রিয় রাহুল গান্ধী, নিশ্চয়ই কেউ অতীতে একইভাবে আপনার নিজের মা (সোনিয়া গান্ধী), বোনকে (প্রিয়াঙ্কা গান্ধী) অবজ্ঞা করেছেন।’

এর আগে সম্প্রতি একটি সভায় রাহুল গান্ধী বলেছিলেন, ‘আপনারা কি রাম মন্দিরের ‘প্রাণ প্রতিষ্ঠা’ অনুষ্ঠান দেখেছেন? সেখানে আপনি কি কোনো তপসিলি, উপজাতি কিংবা ওবিসি মানুষজনের মুখ দেখেছেন? সেখানে অমিতাভ বচ্চন, ঐশ্বরিয়া রায় বচ্চন ও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি উপস্থিত ছিলেন, তবে সত্যিই দেশ চালান এমন কাউকে সেই অনুষ্ঠানে দেখা যায়নি।’

তিনি বলেন, ‘টেলিভিশন চ্যানেলগুলো শুধু ঐশ্বরিয়া রায়ের নাচ দেখায়। তারা দরিদ্র মানুষ সম্পর্কে কিছুই দেখায় না।’

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহারকারীদের একাংশ ভালো চোখে দেখেননি রাহুলের এ মন্তব্য। ঐশ্বর্য, অমিতাভকে টেনে আনা অনেকেরই পছন্দ হয়নি।

রাহুল গান্ধী আরও বলেছিলেন, ‘আমি সেখানে একজন কৃষককে দেখিনি। একজন শ্রমিককে দেখা যায়নি এবং একজন ছোট দোকানদারকেও দেখা যায়নি। কিন্তু সব বিলিয়নিয়ারকে দেখা গেছে, যারা মিডিয়ার সামনে দীর্ঘ বক্তৃতা দিয়েছেন।’

ওড়িশার সংগীতশিল্পী সোনা মহাপাত্রকে প্রায়ই সমাজ, নারী, লিঙ্গবৈষম্য, রাজনীতির পাশাপাশি বিনোদন জগতসহ নানান বিষয়ে মতামত তুলে ধরতে দেখা যায়।

আরও পড়ুন:
ভারতে সাজাভোগ শেষে দেশে ফিরল ২৫ নারী-পুরুষ ও শিশু
পররাষ্ট্রমন্ত্রী নয়াদিল্লিতে, জয়শঙ্করের সঙ্গে বৈঠক বুধবার
ঝাড়খণ্ডের মুখ্যমন্ত্রীর পদ ছাড়ার পরই গ্রেপ্তার হেমন্ত
জরুরি আমদানিতে ভারতকে নিত্যপণ্যের তালিকা দেবে বাংলাদেশ
ভারতের বিপক্ষে বোলিংয়ে বাংলাদেশ

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Government Formation Pakistan Internal Affairs United States

সরকার গঠন পাকিস্তানের অভ্যন্তরীণ বিষয়: যুক্তরাষ্ট্র

সরকার গঠন পাকিস্তানের অভ্যন্তরীণ বিষয়: যুক্তরাষ্ট্র ওয়াশিংটন ডিসিতে নিয়মিত ব্রিফিংয়ে স্টেট ডিপার্টমেন্টের মুখপাত্র ম্যাথু মিলার। ফাইল ছবি
মিলার বলেন, যেকোনো দেশে জোটভিত্তিক রাজনীতি ওই দেশের নিজস্ব বিষয়। এ সংক্রান্ত আলোচনায় জড়াতে চায় না যুক্তরাষ্ট্র।

পাকিস্তানে সরকার গঠন নিয়ে হস্তক্ষেপ না করার বিষয়ে অটল রয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের নেতৃত্বাধীন প্রশাসন।

দক্ষিণ এশিয়ার দেশটিতে গত ৮ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত নির্বাচনের ফলকে স্বীকৃতি না দিতে আইনপ্রণেতাসহ বিভিন্ন মহলের দাবিকে নাকচ করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

পাকিস্তানভিত্তিক সংবাদমাধ্যম ডনের প্রতিবেদনে জানানো হয়, ওয়াশিংটন ডিসিতে স্থানীয় সময় বুধবার অনুষ্ঠিত ব্রিফিংয়ে যুক্তরাষ্ট্রের স্টেট ডিপার্টমেন্টের মুখপাত্র ম্যাথু মিলার পাকিস্তানে সরকার গঠন নিয়ে আমেরিকার অবস্থান ব্যক্ত করেন।

পাকিস্তানে জোট সরকার প্রতিনিধিত্বমূলক কি না, এমন এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘গঠন হওয়ার আগে আমি সরকার নিয়ে কোনো মন্তব্য করতে চাই না।’

মিলার আরও বলেন, যেকোনো দেশে জোটভিত্তিক রাজনীতি ওই দেশের নিজস্ব বিষয়। এ সংক্রান্ত আলোচনায় জড়াতে চায় না যুক্তরাষ্ট্র।

এর আগে মঙ্গলবার ব্রিফিংয়ে স্টেট ডিপার্টমেন্টের মুখপাত্র পাকিস্তানে জোট সরকার গঠনের চেষ্টাকে অভ্যন্তরীণ বিষয় হিসেবে আখ্যা দেন।

ওই দিন তিনি বলেন, ‘আমি পাকিস্তানের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে জড়াতে চাই না।’

পাকিস্তানে সরকার গঠন নিয়ে কথা না বললেও দেশটিতে সম্প্রতি অনুষ্ঠিত নির্বাচনে হস্তক্ষেপ, অনিয়ম কিংবা ভোটারদের ভয়ভীতি দেখানোর বিষয়ে পুঙ্খানুপুঙ্খ তদন্ত করতে যুক্তরাষ্ট্রের সমর্থনের কথা বিভিন্ন ব্রিফিংয়ে তুলে ধরেন মিলার।

আরও পড়ুন:
পাকিস্তানে সরকার গঠনে ঐকমত্য, প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ-প্রেসিডেন্ট জারদারি
ক্ষমতায় এলে রাজনৈতিক প্রতিশোধ নেব না: ইমরান
প্রতারণা মামলায় ট্রাম্পকে সাড়ে ৩৫ কোটি ডলার জরিমানা
ইসলামাবাদ হাইকোর্টে তিন মামলায় আপিল করবেন ইমরান
কানসাস সিটিতে বন্দুক হামলায় একজন নিহত, আহত ২১

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Consensus to form the government in Pakistan Prime Minister Shahbaz President Zardari

পাকিস্তানে সরকার গঠনে ঐকমত্য, প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ-প্রেসিডেন্ট জারদারি

পাকিস্তানে সরকার গঠনে ঐকমত্য, প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ-প্রেসিডেন্ট জারদারি শাহবাজ শরিফ (বাঁয়ে) ও আসিফ আলী জারদারি। ছবি: সংগৃহীত
উভয় দলের শীর্ষ নেতারা জানিয়েছেন, তারা ‘জাতির স্বার্থে’ আবারও জোট সরকার গঠন করছেন।

পাকিস্তানে অবশেষে জোট সরকার গঠনে ঐকমত্যে পৌঁছেছে নওয়াজ-শাহবাজের পিএমএল-এন এবং বিলাওয়াল ভুট্টো জারদারির পিপিপি। দীর্ঘ আলোচনার পরে মঙ্গলবার গভীর রাতে এ বিষয়ে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিয়েছেন তারা। উভয় দলের শীর্ষ নেতারা জানিয়েছেন, তারা ‘জাতির স্বার্থে’ আবারও জোট সরকার গঠন করছেন।

পিপিপি চেয়ারম্যান বিলাওয়াল ভুট্টো-জারদারি উভয় দলের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে ইসলামাবাদে এক সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, পাকিস্তান পিপলস পার্টি (পিপিপি) এবং পাকিস্তান মুসলিম লীগ-নওয়াজের (পিএমএল-এন) এখন সম্পূর্ণ সংখ্যাগরিষ্ঠতা রয়েছে এবং আমরা পরবর্তী সরকার গঠনের অবস্থানে রয়েছি।

কে পাচ্ছেন কোন পদ

বিলাওয়াল জানিয়েছেন, জোট সরকারের প্রধানমন্ত্রী হবেন শাহবাজ শরিফ এবং উভয় দলের পক্ষ থেকে প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হবেন তার বাবা আসিফ আলী জারদারি। সিনেটের চেয়ারম্যান হিসেবে পিএমএল-এন নেতা ইসহাক দারের মনোনয়ন সংক্রান্ত এক প্রশ্নের জবাবে বিলাওয়াল বলেন, এ বিষয়ে বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তবে প্রতিটি দল আলাদাভাবে এর ঘোষণা দেবে।

তিনি বলেন, যদি অতীতের দিকে তাকাই, তাহলে আমরা আগের মেয়াদের তুলনায় অনেক দ্রুত ঐকমত্যে পৌঁছেছি এবং জোটের ঘোষণা দিয়েছি।

একই সংবাদ সম্মেলনে পিএমএল-এন নেতা শাহবাজ শরিফ জানান, তিনি পিটিআই সমর্থিত প্রার্থীদের সংখ্যাগরিষ্ঠতার প্রমাণ দিয়ে সরকার গঠন করতে আহ্বান জানিয়েছিলেন। কিন্তু তারা যথেষ্ট আসন দেখাতে পারেনি। তিনি বলেন, পরবর্তী সরকার গঠনের জন্য আমাদের কাছে পর্যাপ্ত সংখ্যাগরিষ্ঠতা রয়েছে।

এ সময় বিলাওয়াল এবং আসিফ আলী জারদারিকে তাদের সহযোগিতার জন্য ধন্যবাদ জানান পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী। শাহবাজ বলেন, উভয় দল সিদ্ধান্ত নিয়েছে, প্রেসিডেন্ট পদে জারদারিকে যৌথ প্রার্থী হিসেবে মাঠে নামানো হবে।

পিপিপি মন্ত্রিসভায় যোগ দেবে কি না এমন এক প্রশ্নের জবাবে পিএমএল-এন নেতা বলেন, প্রথম দিন থেকেই মন্ত্রিত্ব চায়নি বিলাওয়ালের দল।
তিনি বলেন, দুই পক্ষের মধ্যে আলোচনা হয় এবং পারস্পরিক পরামর্শের মাধ্যমে সমস্যাগুলোর সমাধান করা হয়। তবে এর মানে এই নয়, আমরা তাদের দাবি মেনে নিচ্ছি বা তারা আমাদের দাবি মেনে নিচ্ছে। তাদের নিজস্ব মতামত রয়েছে; কিন্তু মধ্যবিন্দুতে পৌঁছানোই আসল রাজনৈতিক সাফল্য।

সাবেক প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, পিএমএল-এন সুপ্রিমো নওয়াজ শরিফ এবং পিপিপির শীর্ষ নেতৃত্বের নির্দেশনার ভিত্তিতে পরে মন্ত্রিত্ব সম্পর্কিত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

এ সময় নতুন জোট সরকারের অংশীদার হওয়ায় মুত্তাহিদা কওমি মুভমেন্ট-পাকিস্তান, ইস্তেহকাম-ই-পাকিস্তান পার্টি এবং পাকিস্তান মুসলিম লীগ-কায়েদকেও ধন্যবাদ জানান শাহবাজ শরিফ।

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
I will not take political revenge if I come to power Imran

ক্ষমতায় এলে রাজনৈতিক প্রতিশোধ নেব না: ইমরান

ক্ষমতায় এলে রাজনৈতিক প্রতিশোধ নেব না: ইমরান পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। ছবি: রয়টার্স
কারাবন্দি সাবেক প্রধানমন্ত্রীকে উদ্ধৃত করে পিটিআই নেতা আলি মুহাম্মদ আরও বলেন, ‘আমাদের অবশ্যই সত্য ও ক্ষমার দিকে ধাবিত হতে হবে। তেহরিক-ই-ইনসাফ ক্ষমতায় আসার পর পাকিস্তানকে রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা ও উন্নয়নের পথে নেবে, প্রতিশোধের দিকে নয়।’

রাজনীতিতে ক্ষমার প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরে পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফের (পিটিআই) প্রতিষ্ঠাতা ইমরান খান শুক্রবার বলেছেন, তার দল কোনো রাজনৈতিক প্রতিশোধ না নিয়ে দেশের উন্নয়নের দিকে ধাবিত হবে।

রাওয়ালপিন্ডির আদিয়ালা কারাগারে সাবেক প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাতের পর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে দেয়া পোস্টে এ কথা জানান পিটিআইয়ের জ্যেষ্ঠ নেতা আলি মুহাম্মদ খান।

তিনি জানান, দেশকে এগিয়ে নিতে ট্রুথ অ্যান্ড রিকনসিলিয়েশন কমিশন গঠনের গুরুত্বের ওপর জোর দিয়েছেন পিটিআইয়ের প্রতিষ্ঠাতা।

ইমরানকে উদ্ধৃত করে আলি মুহাম্মদ খান বলেন, ‘ক্ষমতায় আসার পর আমরা কোনো রাজনৈতিক প্রতিশোধ নেব না, তবে দেশ ও জাতির স্বার্থে আমরা দেশ ও জাতিকে এগিয়ে নিয়ে যাব।’

তিনি বলেন, দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক নেতা নেলসন ম্যান্ডেলার উদ্যোগে ট্রুথ অ্যান্ড রিকনসিলিয়েশন কমিশনের কথা উল্লেখ করেন ইমরান খান।

কারাবন্দি সাবেক প্রধানমন্ত্রীকে উদ্ধৃত করে পিটিআই নেতা আলি মুহাম্মদ আরও বলেন, ‘আমাদের অবশ্যই সত্য ও ক্ষমার দিকে ধাবিত হতে হবে। তেহরিক-ই-ইনসাফ ক্ষমতায় আসার পর পাকিস্তানকে রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা ও উন্নয়নের পথে নেবে, প্রতিশোধের দিকে নয়।’

আরও পড়ুন:
ইমরানের পিটিআই সমর্থিত স্বতন্ত্রদের সামনে বিকল্প কী?
ইমরানের স্বতন্ত্ররা ৯৭ আসনে জয়ী, পিএমএল-এন ৭৬
ভোট চুরির অভিযোগে দেশজুড়ে বিক্ষোভের ঘোষণা পিটিআইয়ের
ব্যাট ছাড়াই সেঞ্চুরি ইমরান-সমর্থিতদের
ফল চ্যালেঞ্জ করে আদালতে ডজনের বেশি আবেদন ইমরানপন্থিদের

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Priyanka is in the hospital

প্রিয়াঙ্কা গান্ধী হাসপাতালে

প্রিয়াঙ্কা গান্ধী হাসপাতালে
প্রিয়াঙ্কা জানিয়েছেন, এ জন্য ইচ্ছা থাকলেও রাহুল গান্ধীর নেতৃত্বে ‘ভারত জোড়ো ন্যায় যাত্রা’য় এখনই যোগ দিতে পারবেন না তিনি।

অসুস্থতার কারণে হাসপাতালে ভর্তি হলেন ভারতীয় কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক প্রিয়াঙ্কা গান্ধী।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে শুক্রবার তিনি এ কথা নিজেই জানিয়েছেন বলে আনন্দবাজার পত্রিকার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

প্রিয়াঙ্কা জানিয়েছেন, এ জন্য ইচ্ছা থাকলেও রাহুল গান্ধীর নেতৃত্বে ‘ভারত জোড়ো ন্যায় যাত্রা’য় এখনই যোগ দিতে পারবেন না তিনি।

এক মাস আগে ‘ভারত জোড়ো ন্যায় যাত্রা’ শুরু হলেও রাহুল গান্ধীর পাশে একবারও প্রিয়াঙ্কাকে দেখা যায়নি। কংগ্রেস সূত্রে জানা গিয়েছিল, বিহার থেকে উত্তরপ্রদেশের চন্দৌলিতে ওই যাত্রা প্রবেশের সময় রাহুলের সঙ্গে যোগ দেবেন প্রিয়াঙ্কা। কিন্তু, তার মধ্যেই অসুস্থ হয়ে পড়েছেন তিনি।

শুক্রবার নিজের এক্স অ্যাকাউন্টে প্রিয়াঙ্কা লেখেন, ‘‘আমি সত্যিই আজ ‘ভারত জোড়ো ন্যায় যাত্রা’য় যোগ দেয়ার জন্য উন্মুখ ছিলাম। কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত আমায় হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়েছে আজই। একটু ভাল হলেই আমি ভারত জোড়ো ন্যায় যাত্রায় যোগ দেব।’’ এর পর যাত্রার সাফল্য কামনা করে কর্মীদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন তিনি।

ভারত জোড়ো ন্যায় যাত্রার শুরু হয়েছে মণিপুর থেকে। শেষ হবে মুম্বাইয়ে গিয়ে। এখন বিহার ছাড়িয়ে উত্তরপ্রদেশে প্রবেশ করছে ওই যাত্রা।

বৃহস্পতিবার অওরঙ্গবাদে কংগ্রেস সভাপতি মল্লিকার্জুন খড়্গের সঙ্গে সভা করেছেন রাহুল। রাহুলের নেতৃত্বাধীন যাত্রা শুক্রবার উত্তরপ্রদেশে ঢোকার আগে নিজের অসুস্থতার কথা জানালেন প্রিয়াাঙ্কা।

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
11 people died in a factory fire in Delhi

দিল্লিতে কারখানায় আগুনে প্রাণ গেল ১১ জনের

দিল্লিতে কারখানায় আগুনে প্রাণ গেল ১১ জনের ভারতের দিল্লির আলিপুরে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় একটি পেইন্ট কারখানা থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়, যা ছড়িয়ে পড়ে দুটি গুদাম ও একটি মাদকাসক্তি পুনর্বাসন কেন্দ্রে। ছবি: পিটিআই
আগুন ধরার আগে কারখানায় বিস্ফোরণের শব্দ শোনা যায়, যা থেকে কর্মকর্তারা ধারণা করছেন, সেখানে মজুতকৃত রাসায়নিকের কারণে এমন বিস্ফোরণ হতে পারে।

ভারতের দিল্লির আলিপুরে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় একটি কারখানায় আগুনে কমপক্ষে ১১ জনের প্রাণহানি হয়েছে বলে জানিয়েছে এনডিটিভি।

ফায়ার সার্ভিস কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে সংবাদমাধ্যমটি জানায়, একটি পেইন্ট কারখানা থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়, যা ছড়িয়ে পড়ে দুটি গুদাম ও একটি মাদকাসক্তি পুনর্বাসন কেন্দ্রে।

সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানান, আলিপুরের দয়ালপুর মার্কেটের ওই কারখানা থেকে পুড়ে মৃত্যু হওয়া ১১ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

আগুনে এক পুলিশ সদস্যসহ চারজন আহত হন, যাদের চিকিৎসা চলছে। এ ঘটনায় দুজন আটকা পড়েছেন বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

স্থানীয় ফায়ার সার্ভিস জানায়, তাদের কাছে বৃহস্পতিবার বিকেল পাঁচটা ২৫ মিনিটে আগুন ধরার খবর আসে। তৎক্ষণাৎ ছয়টি ইঞ্জিন আগুন নেভাতে যায়, যা নিয়ন্ত্রণে আসে চার ঘণ্টার মধ্যে।

আগুন ধরার আগে কারখানায় বিস্ফোরণের শব্দ শোনা যায়, যা থেকে কর্মকর্তারা ধারণা করছেন, সেখানে মজুতকৃত রাসায়নিকের কারণে এমন বিস্ফোরণ হতে পারে।

দিল্লি ফায়ার সার্ভিসের পরিচালক অতুল গর্গ বলেন, ‘আগুন পাশের বাড়ি ও নেশা মুক্তি কেন্দ্রে ছড়িয়ে পড়ে। সেখানে বিস্ফোরণ হয়, যে কারণে ভবন ধসে পড়ে ১১ শ্রমিকের প্রাণহানি হয়।

‘মরদেহগুলো ছিল সম্পূর্ণ পোড়া, যা তাদের শনাক্তকরণ কঠিন করে দেয়।’

আগুনের কারণ এখনও জানা যায়নি জানিয়ে এ কর্মকর্তা বলেন, নিখোঁজ ব্যক্তিদের সন্ধানে চলছে অভিযান।

আরও পড়ুন:
৪০ দিন পর ট্রেনে দগ্ধ চারজনের মরদেহ হস্তান্তর
গভীর রাতে গ্রামটিতে বাইকের শব্দ, কিছুক্ষণ পরই লাগছে আগুন
৭ ঘণ্টা পর বিআইডব্লিউটিএ গুদামের আগুন নিয়ন্ত্রণে
বিআইডব্লিউটিএ গুদামের আগুন সাড়ে ৫ ঘণ্টায়ও নেভেনি
নারায়ণগঞ্জে বিআইডব্লিউটিএর গুদামে ফের ভয়াবহ আগুন

মন্তব্য

p
উপরে