× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট বাংলা কনভার্টার নামাজের সময়সূচি আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

আন্তর্জাতিক
Russia announced the terms of peace talks
google_news print-icon

শান্তি আলোচনার শর্ত জানাল রাশিয়া

শান্তি-আলোচনার-শর্ত-জানাল-রাশিয়া
২৪ নভেম্বর পূর্ব ইউক্রেনের ফ্রন্টলাইন অবস্থানের দিকে এগোচ্ছে ইউক্রেনীয় সেনারা। ছবি: এএফপি
মস্কো এবং কিয়েভের মধ্যে সম্ভাব্য সংলাপ শুরু করার জন্য কোনো পূর্বশর্ত আছে কি না, জানতে চাইলে পেসকভ বলেন, ‘এ জন্য আসলে রাজনৈতিক ইচ্ছা থাকতে হবে। আমরা দীর্ঘদিন ধরে যে দাবিগুলো তুলে আসছি, সেগুলো নিয়ে আলোচনার মানসিকতা রাখতে হবে।’

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট কার্যালয় ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ বলেছেন, রাশিয়া ও ইউক্রেনের মধ্যে শান্তি আলোচনা তখনই শুরু হতে পারে যখন সংলাপের জন্য কিয়েভের প্রকৃত ‘রাজনৈতিক সদিচ্ছা’ দেখতে পাবে মস্কো। চলতি মাসের শুরুর দিকে পেসকভ জানিয়েছিলেন, ইউক্রেনের বর্তমান নেতৃত্বের সঙ্গে আলোচনায় বসতে রাশিয়া নারাজ।

মস্কোয় সংবাদ সম্মেলনে মঙ্গলবার এ কথা জানান পেসকভ। মস্কো এবং কিয়েভের মধ্যে সম্ভাব্য সংলাপ শুরু করার জন্য কোনো পূর্বশর্ত আছে কি না, জানতে চাইলে পেসকভ বলেন, ‘এ জন্য আসলে রাজনৈতিক ইচ্ছা থাকতে হবে। আমরা দীর্ঘদিন ধরে যে দাবিগুলো তুলে আসছি, সেগুলো নিয়ে আলোচনার মানসিকতা রাখতে হবে।’

নভেম্বরের মাঝামাঝি ইন্দোনেশিয়ার বালিতে জি-২০ সম্মেলনে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির জেলেনস্কি জোর গলায় বলেছিলেন, ইউক্রেন এমন কোনো চুক্তি করবে না যেটা কার্যকরের পর রাশিয়া লঙ্ঘন করবে।

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ২০১৪ এবং ২০১৫ সালে যথাক্রমে জার্মানি এবং ফ্রান্সের মধ্যস্থতায় মিনস্ক-১ এবং মিনস্ক-২ চুক্তির কথা উল্লেখ করেন। চুক্তি শর্তের মধ্যে ছিল, ইউক্রেনের দোনেৎস্ক ও লুগানস্ক অঞ্চলকে বিশেষ মর্যাদার দিতে হবে।

চুক্তি বাস্তবায়নে কিয়েভের ব্যর্থতা উল্লেখ করে চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে ইউক্রেনে অভিযান শুরু করেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন।

জি-২০ সম্মেলনে জেলেনস্কির মন্তব্যের বিষয়ে পেসকভ বলেন, ‘ইউক্রেন যে আলোচনায় রাজি না সে বিষয়ে মস্কো পুরোপুরি নিশ্চিত।’

বালিতে বিভিন্ন রাষ্ট্রপ্রধানদের সম্বোধন করে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ১০ দাবি তোলেন। তার মতে এগুলো পূরণ হলে, যুদ্ধ বন্ধ হতে পারে। দাবিগুলোর মধ্যে রয়েছে ইউক্রেনীয় অঞ্চল থেকে রাশিয়ান বাহিনীর সম্পূর্ণ প্রত্যাহার, সোভিয়েত ইউনিয়নের পতনের পর ১৯৯১ সালে যে সীমানা নির্ধারণ করা হয়েছিল, তার প্রতি শ্রদ্ধা দেখাতে হবে।

নভেম্বরের শুরুর দিকে ওয়াশিংটন পোস্টের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ও তার প্রশাসন ব্যক্তিগতভাবে চাইছে যে কিয়েভ যেন রাশিয়ার সঙ্গে আলোচনায় বসে। তারপরই ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি এই বক্তব্য রাখেন।

যুক্তরাষ্ট্রের এই কারণে উদ্বিগ্ন ছিল যে ‘অসংলগ্ন’ অবস্থানের কারণে পশ্চিমা সমর্থন হারাতে পারে কিয়েভ। বিষয়টাকে হোয়াইট হাউসের কর্মকর্তারা ক্রমবর্ধমান ‘ইউক্রেন ক্লান্তি’ বলে বর্ণনা করেছেন।

প্রতিবেদনে দাবি করা হয়, কিয়েভকে আলোচনায় আনার বিষয়ে ওয়াশিংটন সিরিয়াস ছিল না। বাইডেন প্রশাসন কেবল ইউক্রেনে অস্ত্র ও অন্যান্য সহায়তা নিশ্চিতের চেষ্টা মনোযোগী ছিল।

আরও পড়ুন:
সেনা হত্যায় কড়া প্রতিশোধের হুঁশিয়ারি রাশিয়ার
শিডিউল জটিলতায় রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সফর বাতিল: মোমেন
জেলেনস্কির সঙ্গে দেখা করলেন ঋষি সুনাক
এবার ইউক্রেনের গ্যাস প্ল্যান্টে রুশ হামলা  
রুশ ক্ষেপণাস্ত্রে পোল্যান্ডে প্রাণহানি: বসছেন ন্যাটো নেতারা

মন্তব্য

আরও পড়ুন

আন্তর্জাতিক
NATO will not send troops to Ukraine

ইউক্রেনে সেনা পাঠাবে না ন্যাটো

ইউক্রেনে সেনা পাঠাবে না ন্যাটো
ন্যাটো মহাসচিব জেন্স স্টলেনবার্গ বলেন, ন্যাটো জোট ইউক্রেনকে নজিরবিহীন সমর্থন দিয়ে যাচ্ছে। ন্যাটো ২০১৪ সাল থেকেই তা করছে। ইউক্রেনে হামলার পর থেকে এ সহযোগিতা আরও জোরদার হয়েছে। তবে ইউক্রেনের মাটিতে ন্যাটোর কোনো সৈন্য পাঠানোর পরিকল্পনা নেই।

ইউক্রেনে সেনা পাঠানোর কেনো পরিকল্পনা নেই উত্তর আটলান্টিক নিরাপত্তা জোট বা ন্যাটোর।

ন্যাটো মহাসচিব জেন্স স্টলেনবার্গ এপিকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে মঙ্গলবার এ কথা বলেছেন।

তিনি বলেন, ন্যাটো জোট ইউক্রেনকে নজিরবিহীন সমর্থন দিয়ে যাচ্ছে। ন্যাটো ২০১৪ সাল থেকেই তা করছে। ইউক্রেনে হামলার পর থেকে এ সহযোগিতা আরও জোরদার হয়েছে। তবে ইউক্রেনের মাটিতে ন্যাটোর কোনো সৈন্য পাঠানোর পরিকল্পনা নেই।

গত ২৬ ফেব্রুয়ারি স্লোভাক প্রধানমন্ত্রী রবার্ট ফিকো বলেছেন, কিয়েভের সাথে করা দ্বিপাক্ষিক চুক্তির ভিত্তিতে ইইউ ও ন্যাটোভুক্ত কিছু দেশ ইউক্রেনে সেনা সদস্য পাঠানোর বিষয়টি বিবেচনা করছে।

তার মন্তব্যের পর চেক প্রধানমন্ত্রী পেত্র ফিয়ালা এবং পোলিশ প্রধানমন্ত্রী ডোনাল্ড টাস্ক বলেছেন, এ ধরনের কোনো ইচ্ছে তাদের নেই।

বেশ কিছুদিন ধরে সীমান্তে অবস্থান নেয়ার পর ২০২২ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে হামলা করে রাশিয়া। পাল্টা জবাব দিচ্ছে ইউক্রেনও। তবে নানা তৎপরতার মধ্যেও এ যুদ্ধ থামেনি এখনও। শুরু থেকেই পশ্চিমা দেশগুলো ইউক্রেনকে সমর্থন দিয়ে আসছে।

আরও পড়ুন:
রাশিয়ার সঙ্গে যুদ্ধে ইউক্রেনের ৩১ হাজার সেনা নিহত: জেলেনস্কি
রাশিয়ার বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের নতুন নিষেধাজ্ঞা
রাশিয়া সংশ্লিষ্ট ৫ শতাধিক লক্ষ্যবস্তুকে নিষেধাজ্ঞা দেবে যুক্তরাষ্ট্র

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Trapped Indians fighting for Russia
বিবিসির প্রতিবেদন

ফাঁদে পড়ে রাশিয়ার হয়ে যুদ্ধে ভারতীয়রা

ফাঁদে পড়ে রাশিয়ার হয়ে যুদ্ধে ভারতীয়রা রাশিয়ার হয়ে যুদ্ধ করা ভারতীয় এক যুবক। ছবি: বিবিসি
রাশিয়ায় যাওয়া ভারতীয়দের পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, প্রতারণার শিকার হওয়া এসব যুবকের বয়স ২২ থেকে ৩১ বছর। রাশিয়ার সামরিক বাহিনীর সদস্যদের সহায়তা করার জন্য তাদের রাশিয়ায় নেন এজেন্টরা। পরবর্তী সময়ে প্রশিক্ষণের অজুহাতে তাদের যুদ্ধক্ষেত্রে পাঠানো হয়।

এজেন্টদের প্রতারণার ফাঁদে পড়ে কমপক্ষে ১২ জন ভারতীয় নাগরিক রাশিয়ার হয়ে ইউক্রেনের বিপক্ষে যুদ্ধ করছেন বলে জানিয়েছে বিবিসি।

সংবাদমাধ্যমটির প্রতিবেদনে জানানো হয়, রাশিয়ার হয়ে লড়া এসব ভারতীয় নাগরিকের একজন ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় নিহত হয়েছেন বলে খবর পাওয়া গেছে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম দ্য হিন্দুর বরাতে বিবিসির খবরে বলা হয়, গত সপ্তাহে ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় নিহত হন ভারতের গুজরাট রাজ্য থেকে রাশিয়ায় যাওয়া হেমল অশ্বিনভাই।

হেমলের বাবা গত ২৩ ফেব্রুয়ারি বিবিসিকে জানান, তিন দিন আগে তিনি ছেলের সঙ্গে কথা বলেছিলেন।

ওই ব্যক্তি জানান, রাশিয়া সীমান্ত থেকে ২০ থেকে ২২ কিলোমিটার দূরে ইউক্রেনের অভ্যন্তরে মোতায়েন করা হয় তার ছেলেকে। মোবাইল নেটওয়ার্ক পেলে কয়েক দিন পরপরই কল দিতেন হেমল।

এমন পরিস্থিতিতে গভীর উদ্বেগে থাকা ভারতীয় পরিবারগুলো তাদের সন্তানকে দেশে ফিরিয়ে আনতে সহযোগিতা চেয়েছে কেন্দ্রীয় সরকারের।

রাশিয়ায় যাওয়া ভারতীয়দের পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, প্রতারণার শিকার হওয়া এসব যুবকের বয়স ২২ থেকে ৩১ বছর। রাশিয়ার সামরিক বাহিনীর সদস্যদের সহায়তা করার জন্য তাদের রাশিয়ায় নেন এজেন্টরা। পরবর্তী সময়ে প্রশিক্ষণের অজুহাতে তাদের যুদ্ধক্ষেত্রে পাঠানো হয়।

রাশিয়ায় থাকা ভারতীয় সূত্রগুলো জানায়, রুশ সেনাবাহিনীতে যোগ দিয়েছেন বিপুলসংখ্যক ভারতীয় নাগরিক।

রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের একটি সূত্র দ্য হিন্দুকে বলেছে, গত বছর রুশ সেনাবাহিনীতে নিয়োগকৃত ভারতীয়র প্রকৃত সংখ্যা প্রায় ১০০।

এ বিষয়ে জানতে দিল্লিতে রুশ দূতাবাসের সঙ্গে যোগাযোগ করেছে বিবিসি, তবে তাদের পক্ষ থেকে কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলেছে, রাশিয়ার সেনাবাহিনীতে সহায়কের ভূমিকায় যুক্ত করা হয়েছে ভারতীয় কিছু নাগরিককে।

আরও পড়ুন:
দুর্ঘটনার ১০ দিন না যেতে সড়কেই প্রাণ গেল তেলেঙ্গানার বিধায়কের
ক্যানসারের উপাদান পাওয়ায় তামিলনাড়ুতে নিষিদ্ধ হাওয়াই মিঠাই
রাশিয়া সংশ্লিষ্ট ৫ শতাধিক লক্ষ্যবস্তুকে নিষেধাজ্ঞা দেবে যুক্তরাষ্ট্র
ভোটের প্রচারে বাড়ি বাড়ি গিয়ে গর্ভনিরোধক বিতরণ
ঐশ্বরিয়াকে নিয়ে রাহুলের মন্তব্যের নিন্দা সংগীতশিল্পীর

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
31000 Ukrainian soldiers killed in war with Russia Zelensky

রাশিয়ার সঙ্গে যুদ্ধে ইউক্রেনের ৩১ হাজার সেনা নিহত: জেলেনস্কি

রাশিয়ার সঙ্গে যুদ্ধে ইউক্রেনের ৩১ হাজার সেনা নিহত: জেলেনস্কি রুশ হামলায় নিহত ইউক্রেনীয় কবি ও সেনা ম্যাকসিম ক্রিভৎসভের কফিন কাঁধে সেনারা। ছবিটি ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভের সেন্ট মাইকেল’স আশ্রম থেকে ২০২৪ সালের ১১ জানুয়ারি তোলা। ছবি: রয়টার্স
ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট বলেন, রাশিয়ার দখলকৃত ভূখণ্ডগুলোতে হাজারো বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছেন। যুদ্ধ শেষ হওয়ার আগ পর্যন্ত এ সংক্রান্ত সুনির্দিষ্ট কোনো সংখ্যা পাওয়া যাবে না।

রাশিয়ার সঙ্গে গত দুই বছর ধরে চলা যুদ্ধে ইউক্রেনের ৩১ হাজার সেনা নিহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে দেশটির প্রেসিডেন্ট ভলদিমির জেলেনস্কি।

ইউক্রেনে রাশিয়ার হামলার দ্বিতীয় বার্ষিকীর পরের দিন রোববার কিয়েভে ‘ইউক্রেন. ইয়ার ২০২৪’ ফোরামে দেয়া বক্তব্যে তিনি এ কথা জানান বলে আল জাজিরার প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের নির্দেশে ২০২২ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে বিশেষ সামরিক অভিযান শুরু করেন রুশ সেনারা। এ যুদ্ধে উভয় পক্ষেরই অনেক প্রাণহানিসহ ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

জেলেনস্কি বলেন, প্রতিটি মৃত্যুই ইউক্রেনের জন্য মহান আত্মত্যাগ।

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট বলেন, রাশিয়ার দখলকৃত ভূখণ্ডগুলোতে হাজারো বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছেন। যুদ্ধ শেষ হওয়ার আগ পর্যন্ত এ সংক্রান্ত সুনির্দিষ্ট কোনো সংখ্যা পাওয়া যাবে না।

ইউরোপের দ্বিতীয় বৃহত্তম দেশটিতে পূর্ণমাত্রায় রুশ হামলা শুরুর পর প্রথমবারের মতো নিহত সেনার সংখ্যা জানাল ইউক্রেন।

যুদ্ধে নিহত সেনার সংখ্যা নিয়ে রাশিয়াও আনুষ্ঠানিকভাবে খুব কম তথ্য দিয়েছে।

দেশটির স্বাধীন সংবাদমাধ্যম মিডিয়াজোনা শনিবার জানায়, ২০২২ ও ২০২৩ সালে ইউক্রেনের সঙ্গে যুদ্ধে নিহত হন ৭৫ হাজার রুশ নাগরিক।

আরও পড়ুন:
গয়েশ্বরের অভিযোগ নাকচ করলেন রুশ রাষ্ট্রদূত
‘ইউক্রেনের ৬৫ যুদ্ধবন্দি’ নিয়ে রাশিয়ার সামরিক বিমান বিধ্বস্ত
বাংলাদেশের নির্বাচনের ফল প্রভাবিত করতে বহিরাগত চেষ্টা ছিল: রাশিয়া
বাংলাদেশে ‘আরব বসন্তের উসকানি’ নিয়ে রাশিয়ার মন্তব্যে নীরব যুক্তরাষ্ট্র
পাঁচ লাখ নতুন সেনার প্রয়োজন: জেলেনস্কি

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
The United States will ban more than 500 targets related to Russia

রাশিয়া সংশ্লিষ্ট ৫ শতাধিক লক্ষ্যবস্তুকে নিষেধাজ্ঞা দেবে যুক্তরাষ্ট্র

রাশিয়া সংশ্লিষ্ট ৫ শতাধিক লক্ষ্যবস্তুকে নিষেধাজ্ঞা দেবে যুক্তরাষ্ট্র মস্কোর ক্রেমলিনে ২০ ফেব্রুয়ারি বৈঠকের সময় কৃষিমন্ত্রী দিমিত্রি পাত্রুশেভের বক্তব্য শোনেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। ছবি: রয়টার্স
আদেয়েমো জানান, নিষেধাজ্ঞার আওতায় পড়বে রাশিয়ার সামরিক শিল্প এবং রাশিয়ার প্রত্যাশা অনুযায়ী দেশটিকে পণ্য সরবরাহ করা অন্য দেশের কোম্পানিগুলো।

ইউক্রেনে রুশ হামলার দ্বিতীয় বার্ষিকীর প্রাক্কালে শুক্রবার রাশিয়া সংশ্লিষ্ট পাঁচ শতাধিক লক্ষ্যবস্তুকে যুক্তরাষ্ট্র নিষেধাজ্ঞার আওতায় আনবে বলে জানিয়েছেন আমেরিকার ডেপুটি ট্রেজারি সেক্রেটারি ওয়ালি আদেয়েমো।

স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে দেয়া সাক্ষাৎকারে তিনি এ কথা জানান।

ইউক্রেনে ২০২২ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারি সামরিক অভিযান শুরু করে রাশিয়া, যা শেষ হয়নি দুই বছরেও।

ইউক্রেনে যুদ্ধ ও রুশ কারাগারে বিরোধীদলীয় নেতা অ্যালেক্সেই নাভালনির মৃত্যুর ঘটনায় রাশিয়াকে জবাবদিহির মুখোমুখি করতে বেশ কিছু দেশকে সঙ্গে নিয়ে এ নিষেধাজ্ঞা দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র।

আদেয়েমো জানান, নিষেধাজ্ঞার আওতায় পড়বে রাশিয়ার সামরিক শিল্প এবং রাশিয়ার প্রত্যাশা অনুযায়ী দেশটিকে পণ্য সরবরাহ করা অন্য দেশের কোম্পানিগুলো।

ইউক্রেনে সামরিক অভিযান শুরুর পর যুক্তরাষ্ট্র ও তার মিত্ররা রাশিয়ার ওপর হাজারো নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে। ইউরোপের বৈশ্বিক পরাশক্তিটির ওপর চাপ বাড়াতে নতুন করে নিষেধাজ্ঞা দিচ্ছে আমেরিকা ও মিত্র রাষ্ট্রগুলো। যদিও ইউক্রেনকে আরও নিরাপত্তা সহায়তা দেয়ার বিষয়টি যুক্তরাষ্ট্রের আইনসভা কংগ্রেসে অনুমোদন পাবে কি না, তা নিয়ে রয়েছে সংশয়।

আরও পড়ুন:
পোল্যান্ড বা লাটভিয়ায় হামলার পরিকল্পনা নেই: পুতিন
ভিসা নীতির পরিবর্তন হয়নি, ড. ইউনূসকে ভয় দেখানো হচ্ছে: যুক্তরাষ্ট্র
হুতিদের ওপর ফের হামলা যুক্তরাষ্ট্রের
এবার হুতিদের ওপর হামলা যুক্তরাষ্ট্র যুক্তরাজ্যের
ইরাক ও সিরিয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের বিমান হামলায় নিহত ৩৯

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Dani Alvez jailed for 4 and a half years for sexual harassment

যৌন হেনস্তায় সাড়ে ৪ বছরের জেল দানি আলভেজের

যৌন হেনস্তায় সাড়ে ৪ বছরের জেল দানি আলভেজের বার্সার জার্সিতে স্প্যানিশ ক্লাব ও ব্রাজিল জাতীয় দলের সাবেক ফুটবলার দানি আলভেজ। ছবি: গোল ডটকম
বার্সেলোনার একটি নাইট ক্লাবের বাথরুমে ২০২২ সালের ৩১ ডিসেম্বর ভোরে নারীকে যৌন হেনস্তার অভিযোগ ছিল আলভেজের বিরুদ্ধে, যার প্রমাণ পায় আদালত। ওই নারীর অভিযোগ, আলভেজ তাকে ধর্ষণ করেছেন।

স্পেনের স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চল কাতালোনিয়ার রাজধানী বার্সেলোনায় এক নারীকে যৌন হেনস্তার মামলায় ব্রাজিল জাতীয় দল ও বার্সেলোনার সাবেক ফুটবলার দানি আলভেজকে সাড়ে চার বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত।

বার্সেলোনার একটি আদালতের তিন বিচারকের প্যানেল বৃহস্পতিবার এ রায় বলে দ্য গার্ডিয়ানের প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে।

সংবাদমাধ্যমটির খবরে বলা হয়, মামলার বিচারের সময় ৪০ বছর বয়সী আলভেজ কোনো ধরনের অপরাধ করেননি বলে দাবি করেছেন। এ রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করতে পারবেন তিনি।

বার্সেলোনার একটি নাইট ক্লাবের বাথরুমে ২০২২ সালের ৩১ ডিসেম্বর ভোরে নারীকে যৌন হেনস্তার অভিযোগ ছিল আলভেজের বিরুদ্ধে, যার প্রমাণ পায় আদালত। ওই নারীর অভিযোগ, আলভেজ তাকে ধর্ষণ করেছেন।

মামলায় রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলিরা আলভেজের ৯ বছর কারাদণ্ড চান, যেখানে মামলার বাদীর আইনজীবীরা ফুটবলারের ১২ বছরের কারাদণ্ডের আর্জি জানান। অন্যদিকে আসামিপক্ষের আইনজীবীরা আলভেজের খালাস অথবা দোষী সাব্যস্ত হলে তাকে যেন এক বছরের কারাদণ্ড ও ৫০ হাজার ইউরো জরিমানা করা হয়, সেই আবেদন করেছিলেন।

গত ২০ জানুয়ারি গ্রেপ্তারের পর থেকে কারাগারে রয়েছেন আলভেজ। তার জামিন আবেদন নাকচ করা হয়।

আরও পড়ুন:
ব্রাজিলে ভারি বর্ষণ, বন্যায় ৩৬ প্রাণহানি
ব্রাজিলে ভবন ধসে নিহত ১৪
ব্রাজিলে বছরের প্রথমার্ধে আমাজন উজাড়করণ কমেছে ৩৪%
সেনেগালের কাছে ৪-২ গোলে হারল ব্রাজিল
খেলায় হেরে যাওয়ায় হাসাহাসি, ৭ জনকে গুলি করে হত্যা

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Putin Monster Trudeau

পুতিন দানব: ট্রুডো

পুতিন দানব: ট্রুডো রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ও কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। ছবি: উইকিমিডিয়া কমন্স
কানাডার একদল ব্যবসায়ী নেতার সঙ্গে আলাপকালে ট্রুডো ‘মৌলিক স্বাধীনতা ও গণতন্ত্রের’ পক্ষে দাঁড়ানোর ক্ষেত্রে নাভালনির ‘অপরিসীম সাহসের’ প্রশংসা করেন।

ক্রেমলিন সমালোচক অ্যালেক্সেই নাভালনির মৃত্যুকে ‘ট্র্যাজেডি’ আখ্যা দিয়ে কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো শুক্রবার বলেছেন, এর মধ্য দিয়ে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের দানব রূপটি প্রকাশ পেয়েছে।

বার্তা সংস্থা এএফপির প্রতিবেদনে জানানো হয়, রাষ্ট্রীয় সম্প্রচারমাধ্যম সিবিসিকে নাভালনির মৃত্যুর বিষয়ে ট্রুডো বলেন, ‘এটি ট্র্যাজেডি।’

তিনি বলেন, ‘এর মধ্য দিয়ে আসলে প্রমাণ হয় যে, রাশিয়ার জনগণের মুক্তির জন্য লড়াই করা যে কারও ওপর কতটা চড়াও হতে পারেন পুতিন। একই সঙ্গে এটি পুরো বিশ্বকে মনে করিয়ে দিয়েছে যে, পুতিন কেমন দানব।’

রাশিয়ার সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ শুক্রবার জানায়, উত্তর মেরুর কারাগারে বন্দি ৪৭ বছর বয়সী নাভালনির আকস্মিক মৃত্যু হয়।

চলতি বছরের মার্চে অনুষ্ঠেয় নির্বাচনের মধ্য দিয়ে দুই দশকের ক্ষমতাকে দীর্ঘায়িত করতে পুতিনের চেষ্টার মধ্যে তার বিরোধী নাভালনির মৃত্যুর খবরটি প্রকাশ হয়।

কারিশম্যাটিক আইনজীবী নাভালনিকে রাশিয়ার শীর্ষ বিরোধীদলীয় নেতা হিসেবে অনেকে বিবেচনা করতেন। তাকেই বিরোধী একমাত্র রাজনীতিক মনে করা হতো যিনি বিপুল লোকসমাগমের পাশাপাশি ৭১ বছর বয়সী পুতিনকে টেক্কা দিতে পারতেন।

এদিকে কানাডার একদল ব্যবসায়ী নেতার সঙ্গে আলাপকালে ট্রুডো ‘মৌলিক স্বাধীনতা ও গণতন্ত্রের’ পক্ষে দাঁড়ানোর ক্ষেত্রে নাভালনির ‘অপরিসীম সাহসের’ প্রশংসা করেন।

আরও পড়ুন:
গাজায় দ্রুত যুদ্ধবিরতি চান পুতিন
রূপপুর পরমাণু বিদ্যুৎকেন্দ্র দৃঢ় সম্পর্কের প্রতীক: পুতিন
কিমের বাসায় দাওয়াত পেলেন ‘বন্ধু’ পুতিন
ঠিক হয়েছে বিমান, কানাডার পথে ট্রুডো
‘প্লেনের অভাবে’ ভারত থেকে বাড়ি যেতে পারছেন না ট্রুডো

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
No plans to attack Poland or Latvia Putin

পোল্যান্ড বা লাটভিয়ায় হামলার পরিকল্পনা নেই: পুতিন

পোল্যান্ড বা লাটভিয়ায় হামলার পরিকল্পনা নেই: পুতিন যুক্তরাষ্ট্রের রক্ষণশীল সাংবাদিক টাকার কার্লসনকে দেয়া সাক্ষাৎকারের একটি মুহূর্তে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। ছবি: রয়টার্স
সামরিক জোট ন্যাটোভুক্ত দেশ পোল্যান্ডে রুশ সেনা পাঠানোর কোনো পরিকল্পনা আছে কি না জানতে চাইলে পুতিন বলেন, পোল্যান্ড যদি রাশিয়ায় হামলা চালায়, তাহলে দেশটিতে সেনা পাঠানো হবে। এ ছাড়া পোল্যান্ড, লাটভিয়া কিংবা অন্য কোথাও হামলার পরিকল্পনা নেই রাশিয়ার।

রাশিয়া তার স্বার্থে লড়ে যাবে মন্তব্য করে দেশটির প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বলেছেন, ইউক্রেন যুদ্ধকে পোল্যান্ড কিংবা লাটভিয়া পর্যন্ত টেনে নেয়ার কোনো ইচ্ছা নেই তার।

যুক্তরাষ্ট্রের রক্ষণশীল সাংবাদিক টাকার কার্লসনকে দেয়া সাক্ষাৎকারে পুতিন এ কথা বলেন, যেটি প্রকাশ হয় বৃহস্পতিবার।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে জানানো হয়, ২০২২ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে রুশ হামলা শুরুর পর প্রথম কোনো আমেরিকান সাংবাদিককে সাক্ষাৎকার দেন পুতিন। এতে রুশ প্রেসিডেন্ট বলেন, পশ্চিমা নেতারা বুঝতে পেরেছেন যে, রাশিয়ার কৌশলগত পরাজয় অসম্ভব। পরবর্তী করণীয় নিয়ে দ্বিধাদ্বন্দ্বে রয়েছেন তারা।

টাকার কার্লসনের সঙ্গে মঙ্গলবার দুই ঘণ্টা ধরে প্রশ্নোত্তরে অংশ নেন পুতিন, যা দুই দিন পর প্রকাশ হয় টাকারকার্লসন ডটকমে।

রুশ প্রেসিডেন্ট বলেন, রাশিয়ায় বন্দি যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক সংবাদমাধ্যম ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের সাংবাদিক ইভান গেরশকোভিচের মুক্তির জন্য একটি চুক্তিতে পৌঁছা সম্ভব বলে মনে করেন তিনি। রাশিয়ায় প্রায় এক বছর ধরে বন্দি গেরশকোভিচ, যিনি গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগের বিচার ‍শুরুর প্রতীক্ষায় আছেন।

সামরিক জোট ন্যাটোভুক্ত দেশ পোল্যান্ডে রুশ সেনা পাঠানোর কোনো পরিকল্পনা আছে কি না জানতে চাইলে পুতিন বলেন, পোল্যান্ড যদি রাশিয়ায় হামলা চালায়, তাহলে দেশটিতে সেনা পাঠানো হবে। এ ছাড়া পোল্যান্ড, লাটভিয়া কিংবা অন্য কোথাও হামলার পরিকল্পনা নেই রাশিয়ার।

আরও পড়ুন:
বাংলাদেশে ‘আরব বসন্তের উসকানি’ নিয়ে রাশিয়ার মন্তব্যে নীরব যুক্তরাষ্ট্র
পাঁচ লাখ নতুন সেনার প্রয়োজন: জেলেনস্কি
‘বাংলাদেশ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে প্রতিযোগিতা করছে না রাশিয়া’
যুক্তরাষ্ট্র জনগণের ইচ্ছায় সন্তুষ্ট না হলে বাংলাদেশে ‘আরব বসন্ত’র পরিস্থিতি হতে পারে: রাশিয়া
বাংলাদেশে যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে রাশিয়া সবকিছু করবে: রাষ্ট্রদূত

মন্তব্য

p
উপরে