× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

আন্তর্জাতিক
Russia accuses US of attacking important dams with missiles
hear-news
player
google_news print-icon

গুরুত্বপূর্ণ বাঁধে হিমার্স হামলার অভিযোগ রাশিয়ার

গুরুত্বপূর্ণ-বাঁধে-হিমার্স-হামলার-অভিযোগ-রাশিয়ার
ইউক্রেনের দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর নোভা কাখোভকা। ছবি: সংগৃহীত
হিমার্স মিসাইল আঘাত করা কাখোভকা বাঁধ ইউক্রেন যুদ্ধক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ । কারণ খেরসনের নিপ্রো নদীকে আটকে রেখেছে এই বাঁধ। আর এ এলাকাতেই নিজেদের অবস্থান বেশ শক্তিশালী করে তুলেছে ইউক্রেনীয় বাহিনী।

যুক্তরাষ্ট্রের তৈরি হিমার্স মিসাইল দিয়ে রাশিয়া নিয়ন্ত্রিত ইউক্রেনের দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর নোভা কাখোভকার গুরুত্বপূর্ণ এক বাঁধে হামলা চালিয়েছে ইউক্রেন। রোববার রুশ জরুরি সেবা সংস্থার বরাত দিয়ে এ তথ্য জানিয়েছে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা

প্রতিবেদনে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্রের তৈরি হিমার্স মিসাইল বাঁধের তলায় আঘাত হানে।

রাশিয়ার এই অভিযোগের সত্যতা তাৎক্ষণিকভাবে যাচাই করতে পারেনি রয়টার্স।

এই কাখোভকা বাঁধ ইউক্রেন যুদ্ধক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ । কারণ খেরসনের নিপ্রো নদীকে আটকে রেখেছে এই বাঁধ। আর এ এলাকাতেই নিজেদের অবস্থান বেশ শক্তিশালী করে তুলেছে ইউক্রেনীয় বাহিনী। সম্প্রতি ইউক্রেন অভিযোগ করেছিল, বন্যার জন্য রাশিয়া গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনার ক্ষতি করতে চাইছে।

এদিকে নোভা কাখোভকা শহরের রুশ সমর্থিত কর্মকর্তার বরাত দিয়ে রাশিয়ার সংবাদ সংস্থা আরআইএ নভোস্তি জানিয়েছে, সব কিছু নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। বড় কোনো ক্ষতি হয়নি।

রাশিয়ার বিরুদ্ধে যুদ্ধে ইউক্রেনকে সহযোগিতার অংশ হিসেবে এম-১৪২ হাই মোবিলিটি আর্টিলারি রকেট সিস্টেম বা হিমার্স দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

গাড়িতে স্থাপন করা উচ্চপ্রযুক্তির হালকা রকেট লঞ্চার হলো হিমার্স। ফলে যুদ্ধক্ষেত্রে দ্রুততম সময়ে ও এক স্থান থেকে অন্য স্থানে এটি সহজে মোতায়েন করা যায়।

আরও পড়ুন:
‘৯০ ভাগ সমবায় সমিতি শুধু কাগজে-কলমে’
রাশিয়াকে ড্রোন দেয়ার কথা স্বীকার ইরানের
রাশিয়ায় বারে অগ্নিকাণ্ড, নিহত ১৫
খেরসনের বেসামরিক বাসিন্দাদের সরে যেতে বলেছেন পুতিন
শস্য রপ্তানি চুক্তিতে ফিরল রাশিয়া

মন্তব্য

আরও পড়ুন

আন্তর্জাতিক
People are fleeing the eruption in Indonesia

ইন্দোনেশিয়ায় অগ্ন্যুৎপাত,পালাচ্ছে মানুষ

ইন্দোনেশিয়ায় অগ্ন্যুৎপাত,পালাচ্ছে মানুষ ইন্দোনেশিয়ার জাভা দ্বীপের সেমেরু পর্বতের আগ্নেয়গিরি। ছবি: সংগৃহীত
ক্ষয়ক্ষতি এড়াতে স্থানীয় জনগণ পালাতে শুরু করেছে। তাদের উদ্ধারে কাজ করছে ইন্দোনেশিয়া সরকার।

ইন্দোনেশিয়ার জাভা দ্বীপের সেমেরু পর্বতের আগ্নেয়গিরিতে অগ্ন্যুৎপাত শুরু হয়েছে। এতে করে ওই এলাকা থেকে সাধারণ মানুষকে দূরে থাকার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

ক্ষয়ক্ষতি এড়াতে স্থানীয় জনগণ পালাতে শুরু করেছে। তাদের উদ্ধারে কাজ করছে ইন্দোনেশিয়া সরকার।

জাপানের আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, অগ্ন্যুৎপাতের পর আকাশে ১৫ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে ছাইয়ের কুণ্ডলী তৈরি হয়। আগ্নেয়গিরিতে অগ্ন্যুৎপাতের পর সুনামি হতে পারে বলে আশঙ্কা করেছে জাপান।

ইন্দোনেশিয়ায় অগ্ন্যুৎপাত,পালাচ্ছে মানুষ

অগ্ন্যুৎপাতে এখনো হতাহতের কোনো খবর পাওয়া যায়নি।

ইন্দোনেশিয়ার সেন্টার ফর ভলক্যানোলোজি অ্যান্ড জিওলজিক্যাল হ্যাজার্ড মিটিগেশন (পিভিএমজি) একটি বিবৃতিতে জানায়, অগ্ন্যুৎপাতের সর্বোচ্চ সতর্কতা জারি করা হয়েছে।

সেমেরু পর্বত ইন্দোনেশিয়ার রাজধানী জাকার্তা থেকে ৮০০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পূর্বে অবস্থিত। শনিবার দিনগত রাত ২টা ৪৬ মিনিটে এই অগ্ন্যুৎপাত শুরু হয়।

ইন্দোনেশিয়ার দুর্যোগ প্রশমন সংস্থার বরাত দিয়ে রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়, পূর্ব জাভা প্রদেশের আগ্নেয়গিরির কাছে বসবাসকারী শিশু এবং বয়স্কদের সরিয়ে নেওয়ার কাজ চলছে। এখন পর্যন্ত ৯৩ জন বাসিন্দাকে আশ্রয়কেন্দ্রে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।

পিভিএমজির প্রধান হেন্দ্রা গুনাওয়ান বলেন, ‘চলতি বছর ২০২১ ও ২০২০ সালের চেয়েও বেশি ম্যাগমা বের হওয়ার সম্ভাবনা বেশি।’

ইন্দোনেশিয়ার প্রাণকেন্দ্র হলো জাভা। এই প্রদেশেই দেশটির রাজধানী জাকার্তা অবস্থিত। জাভা দ্বীপের সর্বোচ্চ পর্বত হলো সেমেরু। এর উচ্চতা ১২ হাজার ফুট।

গত মাসে ইন্দোনেশিয়ায় ভয়াবহ ভূমিকম্পের পরই অগ্ন্যুৎপাতের ঘটনা ঘটল। ওই ভূমিকম্পে ইন্দোনেশিয়ায় ৩ শতাধিক মানুষ নিহত হন। বিশ্বে যে কয়েকটি দেশে সক্রিয় আগ্নেয়গিরি আছে ইন্দোনেশিয়া তাদের মধ্যে একটি। এগুলোতে প্রায়ই অগ্ন্যুৎপাতের ঘটনা ঘটে।

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
In the face of the movement Irans moral police is abolished

ইরানে নৈতিকতা পুলিশ বিলুপ্ত

ইরানে নৈতিকতা পুলিশ বিলুপ্ত প্রায় আড়াই মাস ধরে ইরানে সরকারবিরোধী বিক্ষোভ চলছে। ছবি:এএফপি
ইরানের অ্যাটর্নি জেনারেল মোহাম্মাদ জাফর মোনতাজেরি বলেন, ‘বিচার বিভাগের সঙ্গে নৈতিকতা পুলিশের কোনো সম্পর্ক নেই। এই বিভাগকে বিলুপ্ত করা হয়েছে।’

নারীর পোশাকের স্বাধীনতার দাবিতে ইরানে চলা বিক্ষোভের মুখে দেশটির নৈতিকতা পুলিশ বিভাগকে বিলুপ্ত ঘোষণা করেছে সরকার। স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের বরাতে রোববার এ তথ্য জানিয়েছে বার্তা সংস্থা এএফপি।

সঠিকভাবে হিজাব না করার অভিযোগে ইরানের নৈতিকতা পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার কুর্দি তরুণী মাহসা আমিনির মৃত্যু হয় গত ১৬ সেপ্টেম্বর। এ ঘটনায় ক্রমান্বয়ে গোটা ইরানে প্রতিবাদ-বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে।

ইরানের অ্যাটর্নি জেনারেল মোহাম্মাদ জাফর মোনতাজেরি বলেন, ‘বিচার বিভাগের সঙ্গে নৈতিকতা পুলিশের কোনো সম্পর্ক নেই। এই বিভাগকে বিলুপ্ত করা হয়েছে।’

একটি ধর্মীয় সম্মেলনে যোগ দিয়ে মোনতাজেরি এমনটি জানান বলে জানিয়েছে ইরানের বার্তা সংস্থা আইএসএনএ। সেখানে একজন অংশগ্রহণকারী ‘কেন নৈতিকতা পুলিশ বাতিল করা হচ্ছে’ জানতে চাইলে ইরানের অ্যাটর্নি জেনারেল ওই মন্তব্য করেন।

ইরানে নৈতিকতা পুলিশ গাশত-এ এরশাদ নামে পরিচিত। দেশটির সাবেক প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আহমাদিনেজাদের সময়ে সঠিকভাবে হিজাব করা এবং ইরানের সংস্কৃতি ছড়িয়ে দেয়ার জন্য দেশটিতে ২০০৬ সালে নৈতিকতাবিষয়ক পুলিশ তাদের কার্যক্রম শুরু করে।

ইরানে নৈতিকতা পুলিশ বিলুপ্ত
ইরানে বিদ্যমান কঠোর পোশাকবিধি অমান্যকারী ব্যক্তিদের আটক করে ব্যবস্থা নেয়ার দায়িত্বে ছিল নৈতিকতা পুলিশ

এর আগে শনিবার ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি ভাষণে বলেন, ‘ইরানের প্রজাতন্ত্র ও ইসলামিক ভিত্তি সাংবিধানিকভাবে প্রতিষ্ঠিত। তবে সংবিধান বাস্তবায়নের পদ্ধতি নমনীয় করা হতে পারে।’

যুক্তরাষ্ট্র-সমর্থিত রাজতন্ত্রকে উৎখাত করার মাধ্যমে ১৯৭৯ সালের ইরানে ইসলামি বিপ্লব ঘটে। এ বিপ্লবের চার বছর পর ইরানে হিজাব বাধ্যতামূলক করা হয়।

১৬ সেপ্টেম্বর নৈতিকতা পুলিশের হেফাজতে ২২ বছর বয়সী মাহসা আমিনীর মৃত্যুর প্রতিবাদে শুরু হওয়া আন্দোলনে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীসহ তরুণ-তরুণীরা। ২০০৯ সালের প্রতিবাদ আন্দোলনের পর ইরানের শাসনের জন্য সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে উঠেছে চলমান বিক্ষোভ।

ইরানে নৈতিকতা পুলিশ বিলুপ্ত
হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১৬ সেপ্টেম্বর মারা যান মাহসা আমিনি

মাহসার মৃত্যুর পর থেকেই উত্তাল ইরান। ফেসবুক ও টুইটারে #mahsaamini এবং #Mahsa_Amini হ্যাশট্যাগ ব্যবহার করে চলছে প্রতিবাদ। দেশটির বিভিন্ন জায়গায় নারীর পোশাকের স্বাধীনতার পক্ষে আন্দোলনকারীদের সঙ্গে সংঘর্ষ চলছে নিরাপত্তা বাহিনীর।

আরও পড়ুন:
চীনের গুয়াংজুতে বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ
সম্পর্ক জোরদারের সুযোগ ইরান-যুক্তরাষ্ট্র ম্যাচ!
কথা না শুনলে ইরানি ফুটবলারদের পরিবার পড়বে বিপদে
ইরান-আমেরিকা ‘মহারণ’ কাতারে
ইরান ম্যাচের আগে ক্ষমা চাইলেন আমেরিকার কোচ

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Argentinians have the upper hand in the knockout tiebreak

বিশ্বকাপের টাইব্রেকে পাল্লা ভারী আর্জেন্টিনার

বিশ্বকাপের টাইব্রেকে পাল্লা ভারী আর্জেন্টিনার ২০১৪ বিশ্বকাপে নেদারল্যান্ডসের সঙ্গে টাইব্রেকে জয়ের পর আর্জেন্টাইন ফুটবলারদের উচ্ছ্বাস। ছবি: ইন্টেলিজেন্সার
পরিসংখ্যান বলছে, নকআউট ম্যাচগুলোতে টাইব্রেকে আর্জেন্টিনার জেতার রেকর্ডই বেশি। নকআউট পর্বে এ পর্যন্ত পাঁচবারের টাইব্রেকে চারবারই জিতেছে লা আলবিসেলেস্তেরা।

কাতার বিশ্বকাপের দ্বিতীয় রাউন্ডে মুখোমুখি হতে যাচ্ছে আর্জেন্টিনা-অস্ট্রেলিয়া।

টুর্নামেন্টের প্রথম রাউন্ডে বেশ কয়েকটি ম্যাচ ড্র হলেও নকআউট পর্বে সে সুযোগ নেই। গোল সংখ্যা সমান হলে কিংবা নির্ধারিত সময়ে কোনো গোল না হলে টাইব্রেকারে হবে নিষ্পত্তি।

পরিসংখ্যান বলছে, নকআউট ম্যাচগুলোর টাইব্রেকে আর্জেন্টিনার জেতার রেকর্ডই বেশি।

নকআউট পর্বে এ পর্যন্ত পাঁচবারের টাইব্রেকে চারবারই জিতেছে দেশটি।

১৯৯০ সালের বিশ্বকাপে কোয়ার্টার ফাইনালে ইউগোস্লাভিয়ার মুখোমুখি হয়েছিল আর্জেন্টিনা। ম্যাচের ১২০ মিনিট গোলশূন্য থাকার পর টাইব্রেকারে ইউগোস্লাভিয়াকে ৩-২ গোলের ব্যবধানে হারায় মেসির পূর্বসূরীরা।

বিশ্বকাপের টাইব্রেকে পাল্লা ভারী আর্জেন্টিনার

ওই বিশ্বকাপেই সেমিফাইনাল ম্যাচ ইতালির সঙ্গে ১-১ ড্র হলে টাইব্রেকে ৪-৩ গোলের ব্যবধানে জেতে আর্জেন্টিনা।

১৯৯৮ সালে আবারও দ্বিতীয় রাউন্ডে টাইব্রেকারে ইংল্যান্ডের মুখোমুখি হয় আর্জেন্টিনা। এর আগে ২-২ গোলে তাদের নির্ধারিত সময়ের খেলা শেষ হয। টাইব্রেকারে হার্নান ক্রেসপো আর্জেন্টিনার হয়ে দ্বিতীয় কিকটি মিস করেন। ডেভিড ব্যাটি এবং পল ইনসের কিক ঠেকিয়ে দেন আর্জেন্টাইন গোল কিপার কার্লোস রোয়া। এতে ওই টুর্নামেন্টে এগিয়ে যায় দক্ষিণ আমেরিকার দলটি। এ ম্যাচে ৪-৩ গোলে টাইব্রেকে জেতে লা আলবিসেলেস্তেরা।

আর্জেন্টিনা পরবর্তী টাইব্রেকের মুখোমুখি হয় ২০০৬ সালের বিশ্বকাপে। কোয়ার্টার ফাইনালে জার্মানির কাছে টাইব্রেকে ৪-২ গোলে হারে তারা। এটি ছিল আর্জেন্টাইন সুপারস্টার লিওনেল মেসির প্রথম বিশ্বকাপ। জার্মান গোলকিপার ইয়েনস লেহমান রবার্তো আয়ালা এবং এস্তেবান কাম্বিয়াসোর কিক ঠেকিয়ে দেন। এতেই নিশ্চিত হয়ে যায় জার্মানির সেমিফাইনাল।

বিশ্বকাপের টাইব্রেকে পাল্লা ভারী আর্জেন্টিনার

আর্জেন্টিনা নকআউট পর্বে শেষ টাইব্রেকের মুখোমুখি হয় ২০১৪ সালে। ওই বছর নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে সেমিফাইনালে ৪-২ গোলের ব্যবধানে জয় পায় আর্জেন্টিনা। আর্জেন্টাইন গোলকিপার সার্জিও রোমেরো এ জয়ের নায়ক ছিলেন। তিনি রন ভ্লার এবং ওয়েসলি স্নাইডারের পেনাল্টি কিক ঠেকিয়ে দিলে ফাইনালে জায়গা করে নেয় আর্জেন্টিনা।

আরও পড়ুন:
বাংলাদেশের পতাকা হাতে মেসির ছবি কীভাবে?
জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে বিশ্বকাপ গ্রাফিতি
‘বিচ্ছকাপ আইসা পড়ছে’
বিশ্বকাপের ঢেউ আছড়ে পড়েছে দেশে
ডিআরইউ ফুটবলের শিরোপা জিতল চ্যানেল আই

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
If you get a legend at the end

অন্তিমক্ষণে পেলে!

অন্তিমক্ষণে পেলে! ব্রাজিলের কিংবদন্তি ফুটবলার পেলে। ছবি: সংগৃহীত
হৃদযন্ত্রের সমস্যা ও শরীর ফুলে যাওয়ায় ৮২ বছর বয়সী পেলেকে সাও পাওলোর অ্যালবার্ট আইনস্টাইন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এমন একসময় এই কিংবদন্তি হাসপাতালে ভর্তি হলেন, যখন কাতারে বিশ্বকাপে লড়ছেন তার উত্তরসূরীরা।

শারীরিক অবস্থা আরও সঙ্কটজনক হয়েছে ব্রাজিলের কিংবদন্তি ফুটবলার পেলের। কেমোথেরাপি কাজ করছে না তার শরীরে। ব্রাজিলের সংবাদপত্র ‘ফোলহা ডে সাও পাওলো’ এ তথ্য জানিয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, পেলেকে রাখা হয়েছে ‘প্যালিয়াটিভ কেয়ার’-এ।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানায়, প্যালিয়াটিভ কেয়ার একটি বিশেষ ব্যবস্থা। মুমূর্ষু রোগীদের এই ব্যবস্থায় নেয়া হয়। যখন রোগীর শরীরে কোনও চিকিৎসা কাজ করে না, তখনই তাকে প্যালিয়াটিভ কেয়ারে রাখা হয়।

গত মঙ্গলবার হৃদযন্ত্রের সমস্যা ও শরীর ফুলে যাওয়ায় ৮২ বছর বয়সী পেলেকে সাও পাওলোর অ্যালবার্ট আইনস্টাইন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এমন একসময় এই কিংবদন্তি হাসপাতালে ভর্তি হলেন, যখন কাতারে বিশ্বকাপে লড়ছেন তার উত্তরসূরীরা।

১৯৫৮, ১৯৬২ ও ১৯৭০ বিশ্বকাপজয়ী কিংবদন্তি অ্যাডসন অ্যারানটিস দো নাসিমেন্তো বিশ্বজুড়ে পরিচিত পেলে নামেই। তাকে বলা হয় সর্বকালের সেরা ফুটবলার।

কয়েক বছর ধরেই ক্যানসারের চিকিৎসা নিচ্ছেন পেলে। গত বছর তার কোলন টিউমারও ধরা পড়ে। শারীরিক অবস্থা আগের চেয়ে খারাপ হওয়ায় তাকে আর সেভাবে প্রকাশ্যে দেখা যায় না এখন।

একদিন আগেই পেলের অসুস্থতার খবর ছড়িয়ে পড়লে ভক্তদের আশ্বস্ত করেছিলেন তার মেয়ে কেলি নাসিমেন্তো। গত শুক্রবার ইনস্টাগ্রামে এক পোস্টে তিনি লিখেছিলেন, ‘বাবার শরীর নিয়ে গণমাধ্যমে বেশ উদ্বেগ। তবে জরুরি বা ভয়ের কিছু নেই।’

এদিকে শনিবার ফোলহা ডে সাও পাওলো জানায়, পেলে অন্ত্রের ক্যান্সার মোকাবিলা করার জন্য কয়েক মাস ধরে কেমোথেরাপি নিচ্ছেন। তবে এখন চিকিৎসা আর কাজ করছে না।

আরও পড়ুন:
শিরোপা জয়ের লক্ষ্যে আবার নেপালের মুখোমুখি বাংলাদেশ
ভুটানকে ৮-০ গোলে হারাল বাংলাদেশের মেয়েরা
তারা খালি টাকা চায়: সালাউদ্দিন
অস্ত্রোপচারের পর সুস্থ আছেন মান্ডা
পুরস্কার আর সংবর্ধনায় ভাসলেন সাফজয়ী পাহাড়ি কন্যারা

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
For the first time Iran released the number of people killed in the movement

প্রথমবারের মতো আন্দোলনে নিহতের সংখ্যা প্রকাশ ইরানের

প্রথমবারের মতো আন্দোলনে নিহতের সংখ্যা প্রকাশ ইরানের ইরানে তীব্র সরকারবিরোধী আন্দোলন চলছে। ছবি: সংগৃহীত
তেহরানের নিরাপত্তা সংস্থার বিবৃতিতে আরও বলা হয়, ‘সন্ত্রাসীদের মিডিয়া গ্রুপ দ্বারা পরিচালিত একটি হাইব্রিড যুদ্ধ মোকাবিলা করছে ইরান।’

নারীর পোশাকের স্বাধীনতার দাবিতে ইরানজুড়ে চলা বিক্ষোভে ২ শতাধিক মানুষ নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে ইরানের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। ইরান সরকার এই প্রথমবারের মতো আন্দোলনে নিহতের সংখ্যা প্রকাশ করল।

শনিবার এক বিবৃতিতে ইরানের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা পরিষদ সংস্থার পক্ষ থেকে এই নিহতের সংখ্যা প্রকাশ করা হয়। এতে বিক্ষোভকে দাঙ্গা হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়েছে।

বিবৃতিতে জানানো হয়, সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড, বিদেশি মদদপুষ্ট দলের দাঙ্গা এবং বিপ্লববিরোধী বিচ্ছিন্নতাবাদী গোষ্ঠীর হামলায় নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যসহ ২ শতাধিক মানুষের মৃত্যু হয়েছে। নিরপরাধ ব্যক্তিরা নিরাপত্তা পরিস্থিতির অবনতি হওয়ায় মারা গেছে।

তবে কীভাবে তারা নিহত হয়েছে তা প্রকাশ করা হয়নি।

কয়েকদিন আগেই ইরানের ইসলামি বিপ্লবী গার্ড কোরের (আইআরজিসি) কমান্ডার আমির আলি হাজিজাদেহ জানান, ইরানে বিক্ষোভ ঘিরে অস্থিরতায় তিন শতাধিক মানুষ নিহত হয়েছেন।

তবে বিদেশি মানবাধিকার সংস্থাগুলো বলছে, এই আন্দোলনে চার শতাধিক মানুষের মৃত্যু হয়েছে।

সঠিকভাবে হিজাব না করার অভিযোগে ইরানের নৈতিকতা পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার কুর্দি তরুণী মাহসা আমিনির মৃত্যু হয় ১৬ সেপ্টেম্বর। এ ঘটনায় ক্রমান্বয়ে গোটা ইরানে প্রতিবাদ-বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে।

ইরানের অভিযোগ, যুক্তরাষ্ট্র, ইসরায়েল, যুক্তরাজ্য ও সৌদি আরবের মদদে এই অরাজক পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে।

তেহরানের নিরাপত্তা সংস্থার বিবৃতিতে আরও বলা হয়, ‘সন্ত্রাসীদের মিডিয়া গ্রুপ দ্বারা পরিচালিত একটি হাইব্রিড যুদ্ধ মোকাবিলা করছে ইরান।’

জাতিসংঘ ইরান সরকারকে বিক্ষোভকারীদের ওপর অসম শক্তি ব্যবহার না করার আহ্বান জানিয়েছে। পাশাপাশি মৃত্যুদণ্ডের বিরোধিতা করে বেশ কয়েকজন রাজনৈতিক বন্দিকে মুক্তি দেয়ার আহ্বান জানানো হয়েছে।

গত মাসে জাতিসংঘের মানবাধিকার কাউন্সিলে ভোটের পর ইরানের আন্দোলন ইস্যুতে তদন্ত কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত হয়। তবে তেহরান জানিয়ে দিয়েছে, তারা তদন্তে সহায়তা করবে না।

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Pakistans foreign minister called the defeat of 1971 a military failure

একাত্তরের পরাজয়কে ‘সামরিক ব্যর্থতা’ বললেন পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী

একাত্তরের পরাজয়কে ‘সামরিক ব্যর্থতা’ বললেন পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বিলাওয়াল ভুট্টো জারদারি (বাঁয়ে); ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর ঢাকার রেসকোর্স ময়দানে ভারতীয় জেনারেল জে এস অরোরার কাছে পাকিস্তানি জেনারেল নিয়াজীর আত্মসমর্পণ; পাকিস্তানের সাবেক সেনাপ্রধান জেনারেল কামার জাভেদ বাজওয়া। ছবি কোলাজ: নিউজবাংলা
পাকিস্তান পিপলস পার্টির প্রতিষ্ঠাতা জুলফিকার আলী ভুট্টোর নাতি বিলাওয়াল ভুট্টো বলেন, ‘সেই বিপর্যস্ত সময়ে যখন জুলফিকার আলী ভুট্টো দেশের দায়িত্ব নিয়েছিলেন তখন গোটা জাতি মানসিকভাবে অনেক ভেঙে পড়েছিল, সব আশা হারিয়ে ফেলেছিল। সেই সব চ্যালেঞ্জ সফলতার সঙ্গে মোকাবিলা করেছেন জুলফিকার আলী ভুট্টো।’

১৯৭১ সালে গ্লানিকর পরাজয়ের মধ্য দিয়ে পাকিস্তান ভেঙে বাংলাদেশ নামের নতুন রাষ্ট্রের জন্ম হওয়াকে ‘সামরিক ব্যর্থতা’ হিসেবে অভিহিত করেছেন পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বিলাওয়াল ভুট্টো জারদারি। দেশটির সাবেক সেনাপ্রধান জেনারেল কামার জাভেদ বাজওয়া পাকিস্তান ভেঙে যাওয়ার জন্য রাজনৈতিক ব্যর্থতাকে দায়ী করার এক সপ্তাহ পর এমন মন্তব্য করেন পাকিস্তান পিপলস পার্টির (পিপিপি) প্রতিষ্ঠাতা জুলফিকার আলী ভুট্টোর নাতি বিলাওয়াল ভুট্টো।

স্থানীয় সময় বুধবার করাচির নিশতার পার্কে পিপিপির ৫৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত সমাবেশে এই মন্তব্য করেন দলটির বর্তমান চেয়ারম্যান বিলাওয়াল।

তিনি বলেন, ‘সেই বিপর্যস্ত সময়ে যখন জুলফিকার আলী ভুট্টো দেশের দায়িত্ব নিয়েছিলেন তখন গোটা জাতি মানসিকভাবে অনেক ভেঙে পড়েছিল, সব আশা হারিয়ে ফেলেছিল। সেই সব চ্যালেঞ্জ সফলতার সঙ্গে মোকাবিলা করেছেন জুলফিকার আলী ভুট্টো।’

বিলাওয়াল আরও বলেন, ‘তিনি (জুলফিকার আলী ভুট্টো) পাকিস্তান জাতিকে পুনর্গঠন করেছেন, জনগণের মধ্যে সাহস ফিরিয়ে এনেছিলেন। অবশেষে, আমাদের ৯০ হাজার সেনাকে দেশে ফিরিয়ে আনেন। ‘সামরিক ব্যর্থতার’ কারণে যে ৯০ হাজার সেনা সদস্য যুদ্ধবন্দি হয়েছিলেন তারা পরিবারের সঙ্গে পুনরায় মিলিত হতে পেরেছিলেন। আর এসবই সম্ভব হয়েছিল রাজনীতিতে আশা ছড়িয়ে দিয়ে ঐক্য আর অন্তর্ভুক্তির সমন্বয়ে।’

পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী জুলফিকার আলী ভুট্টোর কন্যা ও দেশটির প্রথম নারী প্রধানমন্ত্রী বেনজির ভুট্টোর ছেলে বিলাওয়াল ভুট্টো দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রীর দায়িত্বে রয়েছেন।

দেশটির অন্যতম সংবাদমাধ্যম ডনের বরাত দিয়ে এ খবর প্রকাশ করেছে দ্য হিন্দু।

অবসর নেয়ার ৬ দিন আগে দেশটির সেনাপ্রধান জেনারেল কামার জাভেদ বাজওয়া পশ্চিম পাকিস্তান ও পূর্ব পাকিস্তান আলাদা হয়ে যাওয়ার জন্য তখনকার রাজনৈতিক নেতাদের ব্যর্থতাকে দায়ী করেন। সেই সঙ্গে তিনি সেই বিপর্যয়ে সেনাবাহিনীর ত্যাগ ও অবদানকে হেয় করারও তীব্র সমালোচনা করেন।

১৯৬৫ সালে ভারত-পাকিস্তান যুদ্ধে নিহত সেনাদের আত্মত্যাগ স্মরণে গত ২৩ নভেম্বর রাওয়ালপিন্ডিতে জেনারেল হেডকোয়ার্টার্সে আয়োজিত প্রতিরক্ষা ও শহীদ দিবস অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেয়ার সময় জেনারেল বাজওয়া এমন মন্তব্য করেন। সেই সময় সেনাপ্রধান তার বক্তব্যে ১৯৭১ সালের ‘গৃহযুদ্ধে’ সেনাবাহিনীর অবস্থান নিয়েও কথা বলেন।

জেনারেল বাজওয়া বলেন, ‘আমি কিছু তথ্য সংশোধন করতে চাই। প্রথমত, সাবেক পূর্ব পাকিস্তানে (বর্তমান বাংলাদেশ) ছিল ইসলামাবাদের রাজনৈতিক ব্যর্থতা, সামরিক ব্যর্থতা নয়।

‘যুদ্ধরত সেনার সংখ্যা ৯২ হাজার ছিল না। যুদ্ধ করেছেন ৩৪ হাজার সেনা। বাকিরা ছিল বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের লোকজন। এই ৩৪ হাজার সেনা ভারতীয় সেনাবাহিনীর ২ লাখ ৫০ হাজার সেনা সদস্য এবং মুক্তিবাহিনীর ২ লাখ যোদ্ধার মুখোমুখি হয়েছিল।

‘এই কঠিন প্রতিকূলতার বিরুদ্ধে আমাদের সেনাবাহিনী সাহসিকতার সঙ্গে লড়াই করেছে। ত্যাগ স্বীকার করেছে, যা ভারতের তৎকালীন সেনাপ্রধান ফিল্ড মার্শাল মানেকশ স্বীকার করেছিলেন।’

জাতি এখনও এই ত্যাগকে যথেষ্ট সম্মান জানাতে পারেনি দাবি করে পাকিস্তানের সেনাপ্রধান বাজওয়া বলেন, ‘এটা অবিচার। আজকের আয়োজনে বক্তব্য রাখার সুযোগ কাজে লাগিয়ে আমি এই শহীদদের অভিবাদন জানাই। এটা অব্যাহত থাকবে। তারা আমাদের নায়ক। তাদের নিয়ে জাতির গর্ব করা উচিত।’

ছয় বছর ধরে পাকিস্তান সেনাবাহিনীর নেতৃত্ব দিয়েছেন জেনারেল বাজওয়া। ২৯ নভেম্বর অবসরে যান তিনি।

২০১৬ সালে তিন বছরের জন্য সেনাপ্রধান নিযুক্ত হন বাজওয়া। পরে সুপ্রিম কোর্টের হস্তক্ষেপে তার মেয়াদ আরও তিন বছর বাড়ে।

সেনাপ্রধান হিসেবে জনগণের উদ্দেশে নিজের শেষ ভাষণের একটি বড় অংশে ছিল রাজনৈতিক ইস্যু।

১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর ঢাকার রেসকোর্স ময়দানে ভারতীয় জেনারেল জে এস অরোরার নেতৃত্বে যৌথ বাহিনীর কাছে আত্মসমর্পণ করেন পাকিস্তানি জেনারেল নিয়াজী।

আরও পড়ুন:
রাজনৈতিক ব্যর্থতায় পাকিস্তান ভেঙেছে: সেনাপ্রধান বাজওয়া
রাজাপুর পাকহানাদার মুক্ত দিবস
‘সেনাপ্রধান নিয়োগের পর ইমরানকে দেখে নেব’

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Rashid lives for hair

হেয়ার ট্রান্সপ্লান্ট করে জীবন খোয়ালেন রশিদ

হেয়ার ট্রান্সপ্লান্ট করে জীবন খোয়ালেন রশিদ প্রতীকী ছবি
যুগ যুগ ধরে নারীর সৌন্দর্য্য বিচার করা হয়েছে তার চেহারা দেখে। ক্রমবর্ধমান বস্তুবাদী ভারতীয় সমাজে পুরুষরাও এখন একই চাপ অনুভব করেন। সামাজিক অবস্থান হারানোর ভয়ে তারা নিজেদের তরুণ এবং প্রফুল্ল দেখাতে ব্যস্ত হয়ে উঠছেন।

ভারতের একটি টেলিভিশন চ্যানেলের নির্বাহী আতহার রশিদ চেয়েছিলেন তাকে যেন সুদর্শন দেখায়। কারণ শিগগিরই বিয়ে করবেন তিনি। তবে ৩০ বছরের রশিদ চুল প্রতিস্থাপনের (হেয়ার ট্রান্সপ্লান্ট) সিদ্ধান্ত আপাতদৃষ্টিতে মারাত্মক ভুল প্রমাণিত হয়েছে।

যুগ যুগ ধরে নারীর সৌন্দর্য্য বিচার করা হয়েছে তার চেহারা দেখে। ক্রমবর্ধমান বস্তুবাদী ভারতীয় সমাজে পুরুষরাও এখন একই চাপ অনুভব করেন। সামাজিক অবস্থান হারানোর ভয়ে তারা নিজেদের তরুণ এবং প্রফুল্ল দেখাতে ব্যস্ত হয়ে উঠছেন।

অকালে টাক পড়া পুরুষরা চুল প্রতিস্থাপনে ঝুঁকছেন। আয় মোটামুটি বেড়ে যাওয়ায় পুরুষরা নিজেদের চেহারা আরও আকর্ষনীয় করতে টাকা খরচ করতে দ্বিধা করেন না।

চুল প্রতিস্থাপন (হেয়ার ট্রান্সপ্লান্ট) দুর্বলভাবে নিয়ন্ত্রিত একটি সেক্টর। কখনো কখনো ইউটিউব দেখে স্ব-প্রশিক্ষিত অপেশাদাররা এ কাজটি করে থাকেন; যার ফলাফল হতে পারে মারাত্মক।

রশিদ তার পরিবারের একমাত্র উপার্জনকারী ছিলেন। একটি দারুণ জীবনের আকাঙ্ক্ষায় বিভোর ছিলেন তিনি। চাকরি করে নিজে বাড়ি কিনেছেন; দুই বোনকে বিয়েও দিয়েছেন রশিদ।

রশিদের মা আছিয়া বেগম বলেন, ‘সবকিছু ওর পরিকল্পনা অনুযায়ী হচ্ছিল। বিপত্তি বাধে গত বছর। দিল্লির একটি ক্লিনিকে হেয়ার ট্রান্সপ্লান্ট করার পর সে সেপসিস রোগে আক্রান্ত হয়। তার মাথা ফুলে ওঠে। ভয়ানক যন্ত্রণা ভোগ করেছিল আমার ছেলে।

‘আমার ছেলের খুব কষ্টের মৃত্যু হয়েছে। তার কিডনি কাজ করা বন্ধ করে দিয়েছিল। এক সময় তার অন্যান্য অঙ্গগুলো অকার্যকর হতে শুরু করে।’

রশিদের ফুলে যাওয়া মুখ এবং তার মৃত্যুর আগে সারা শরীরে কালো ফুসকুড়ি দেখা দিয়েছিল। সেসব ছবি দেখিয়ে রশিদের পরিবার পুলিশে অভিযোগ করে। তার ভিত্তিতে অস্ত্রোপচারকারী দুই ব্যক্তি সহচারজনকে গ্রেপ্তার করা করেছে পুলিশ। তারা এখন বিচারের অপেক্ষায় দিন গুনছে।

দিল্লির একটি পাড়ায় তার এক রুমের ভাড়া করা ফ্ল্যাটে বসে রশিদের মা আছিয়া বেগম বলেন, ‘প্রতিদিনই ছেলের কথা মনে করে তিলে তিলে মরছি।

‘আমি আমার ছেলেকে হারিয়েছি। কিছু মানুষের এমন প্রতারণার কারণে যেন আর কারও বুক খালি না হয়।’

আত্মবিশ্বাস বৃদ্ধিকারী

একজন দক্ষ সার্জন যদি চুল প্রতিস্থাপন করেন তবে এটি হতে পারে জীবন-পরিবর্তনকারী। এতে আপনার আত্মবিশ্বাস বাড়বে।

হরিশ আইয়ার একজন সমঅধিকার কর্মী। তিনি বলেন, ‘জীবনধারা পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে পুরুষরা তাদের সাজসজ্জার দিকে আরও বেশি মনোযোগ দিতে শুরু করেছে। তারুণ্য এবং প্রাণশক্তি প্রদর্শনের প্রয়োজনীয়তা আসলে সব লিঙ্গের মধ্যেই থাকে।

‘আগে এটা কেবল নারীদের ওপর ছিল। কিন্তু সময় বদলেছে। এখন নারীর পাশাপাশি পুরুষরাও সেই চাপ অনুভব করেন।’

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, অলস জীবনযাপন, ধূমপান, অনুপযুক্ত খাদ্য এবং মানসিক চাপের ফলে চুল পড়ে যেতে পারে।

চুল প্রতিস্থাপনের পদ্ধতিতে মাথার পেছনের চুলের ঘন জায়গা থেকে ফলিকল নিয়ে তা মাথার যে অংশের চুল পড়ে গেছে সে অংশে লাগানো হয়। এটা অনেকটা চারাগাছ রোপনের মতো।

ডাক্তার মায়াঙ্ক সিং এক মাসে ১৫টি পর্যন্ত অস্ত্রোপচার করেন। নয়া দিল্লিতে তার ক্লিনিক।

মায়াঙ্কের বেশিরভাগ রোগীর বয়স ২৫-৩৫ বছর। হয় তারা বিয়ে করতে কিংবা পেশাগত জীবনে আরও উন্নতি করতে চাইছেন।

ভারতের কোটি কোটি মানুষ যেখানে দিনে ২০০ টাকারও কম আয় করেন, সেখানে এই সার্জারির জন্য গুনতে হয় আনুমানিক চার লাখ ৪০ হাজার টাকা (৪ হাজার ৩০০ ডলার)। এ কারণে অলিগলিতে গজিয়ে ওঠা বিভিন্ন ক্লিনিকে অল্প টাকায় চুল প্রতিস্থাপনে আগ্রহী হয়ে থাকেন মানুষ।

ইউটিউব কর্মশালা

মায়াঙ্ক সিং অ্যাসোসিয়েশন অফ হেয়ার রিস্টোরেশন সার্জনস অফ ইন্ডিয়ার সেক্রেটারিও। তিনি বলেন, ‘কিছু মানুষের কারণে এই সেক্টরটির বদনাম হচ্ছে।

‘অনেকের এই পৌরাণিক ধারণা আছে যে এটি খুবই নিরাপদ এবং অল্প সময়ের প্রক্রিয়া। অথচ অস্ত্রোপচারের সময়কাল বেশ দীর্ঘ। প্রায় ৬ থেকে ৮ ঘন্টা লাগে।

‘এতে প্রচুর লোকাল অ্যানেস্থেসিয়া ব্যবহার হয়; যা ধাপে ধাপে প্রয়োগ করা হয়। যদি কারও সে সম্পর্কে জ্ঞান না থাকে, তবে পরিণতি ভয়াবহ হতে পারে।’

ভারতের চুল প্রতিস্থাপনের ক্লিনিকের সংখ্যা হু হু করে বাড়ছে। গ্রাহক টানতে প্রায়ই তাদের নানা অফার বা ছাড় দিতে দেখা যায়। এ অবস্থা বিবেচনায় দেশটির ন্যাশনাল মেডিক্যাল কমিশন সেপ্টেম্বরে একটি সতর্কতা জারি করেছে৷

এতে বলা হয়, চুল প্রতিস্থাপনের মতো নান্দনিক প্রক্রিয়ার জন্য ওয়ার্কশপ বা ইউটিউব বা অনুরূপ প্ল্যাটফর্মে প্রশিক্ষণ পর্যাপ্ত নয়। কেবল প্রশিক্ষিত চিকিৎসকের মাধ্যমে এসব করা উচিত।

প্লাস্টিক সার্জন মায়াঙ্ক সিং বলেন, ‘নির্দেশিকাগুলো কঠোরভাবে মেনে চলা অপরিহার্য ছিল।’

মায়াঙ্কের কাছে প্রতিস্থাপন করে নতুন চুল গজানোর তালিকা দীর্ঘ; যারা বছরের পর বছর ধরে টাকের কারণে সামাজিক অনুষ্ঠান এড়িয়ে চলেছেন। তাদের একজন ডাক্তার লক্ষ্মী নারায়ণন।

২৯ বছরের নায়রায়ণ বলেন, ‘১৮ বছর বয়স থেকে আমার চুল ঝরতে শুরু করে। আমি নিজের ছবি তোলা বা এমনকি আয়নায় তাকাতেও ভয় পেতাম।

‘সে অবস্থা এখন আর নেই। এখন আমি মানুষের সঙ্গে আত্মবিশ্বাসের সাথে যোগাযোগ করতে পারি।’

মন্তব্য

p
উপরে