× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

আন্তর্জাতিক
Anti war poem Russian poet raped by riot police
hear-news
player
google_news print-icon

যুদ্ধবিরোধী কবিতা: রুশ কবিকে ‘ধর্ষণ করল দাঙ্গা পুলিশ’

যুদ্ধবিরোধী-কবিতা-রুশ-কবিকে-ধর্ষণ-করল-দাঙ্গা-পুলিশ
রুশ কবি ও মানবাধিকারকর্মী আর্টেম কামারদিন। ছবি: সংগৃহীত
কবির আইনজীবী বলেন, ‘মস্কো পুলিশ আর্টেম কামারদিনের ফ্ল্যাটে অভিযান চালিয়ে তাকে এবং তার বান্ধবীকে মারধর করে। পরে একটি ডাম্বেল দিয়ে তাকে ধর্ষণ করে।'

২৭ সেপ্টেম্বর, মস্কো সময় বেলা ২টা। মস্কোর টভারসকোই জেলা অফিস থেকে বেরিয়ে আসছেন রুশ কবি ও মানবাধিকারকর্মী আর্টেম কামারদিন। তার সঙ্গে চিকিৎসক ও পুলিশ। বাইরে তার জন্য অপেক্ষা করছে অ্যাম্বুলেন্স।

কামারদিনের আইনজীবী বলেন, ‘মারধরের ফলে আহত হয়েছিলেন কামারদিন। এ জন্য পুলিশ অ্যাম্বুলেন্স ডেকেছিল। তবে চিকিৎসকরা তেমন গুরুতর আঘাত পায়নি।’

পরদিন সকালে রাশিয়ার টেলিভিশনে বলা হয়, গুরুতর আঘাত না থাকায় কামারদিনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়নি। তাকে আপাতত আটকে রেখেছে পুলিশ।

কামারদিনকে ২৬ সেপ্টেম্বর চরমপন্থা মামলায় (ফৌজদারি বিধির ২৮২ ধারার অংশ ২) সন্দেহভাজন হিসেবে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল।

এর আগে রুশ দৈনিক নভায়া গেজেটা কোনো উৎসের উদ্ধৃতি ছাড়া জানায়, গ্রেপ্তারের পর আইন প্রয়োগকারীরা কারমারদিনকে ভীষণ মারধর করে। একপর্যায়ে তার মলদ্বারে একটি ডাম্বেল ঢুকিয়ে দিয়েছিল।

কী ঘটেছিল সেদিন

২৬ সেপ্টেম্বর সাব-মেশিনগান হাতে একদল দাঙ্গা পুলিশ কামারদিনের অ্যাপার্টমেন্টে অভিযান চালায়। বাড়িটিতে তখন কামারদিনের সঙ্গে তার বান্ধবী আলেকজান্দ্রা পপোভা ও মানবাধিকারকর্মী আলেকজান্দ্রার মেনিউকভ ছিলেন। কামারদিনের গ্রেপ্তারের ফুটেজ টেলিগ্রাম চ্যানেল ‘১১২’ সম্প্রচার হয়েছিল

রুশ দৈনিক নোভায়া গেজেটা বলছে, অভিযানের সময় কামারদিনকে তার কবিতা পাঠের জন্য ক্যামেরার সামনে ক্ষমা চাইতে বাধ্য করা হয়েছিল।

২৫ সেপ্টেম্বর মস্কোর ট্রাইমফালনায়া স্কোয়ারে ফিউচারিস্ট আন্দোলনের নেতা ও কবি ভ্লাদিমির মায়াকভস্কির স্মৃতিস্তম্ভে যুদ্ধবিরোধী কবিতা সন্ধ্যার আয়োজন করা হয়েছিল। সেখানে উপস্থিত হয়ে কামারদিন বলেছিলেন, ‘গ্লোরি টু কিভান রুশ, নভোরোসিয়া- সাক ইট!’ যার অর্থ, কিভান রুশের জয় হোক, চুলোয় যাক নভোরোসিয়া।

আদি রুশরা পূর্ব স্লাভীয় উপজাতি থেকে এসেছিল, তাদের সাংস্কৃতিক পূর্বপুরুষদের ভিত্তি কিভান রুশে। আর নতুন রাশিয়াকে ডাকা হয় নভোরোসিয়া।

টেলিগ্রাম চ্যানেল ‘১১২’ প্রকাশিত ভিডিওতে দেখা যায়, কামারদিন একটি অ্যাপার্টমেন্টে হাঁটু গেড়ে বসে আছেন, হাত দুটি পেছনে বাঁধা। তার মুখে মারধরের চিহ্ন ছিল।

এ সময় তাকে বলতে শোনা যায়, ‘আমার ভুল হয়েছে, ক্ষমা চাই। আমি যা করেছি তার জন্য অনুতপ্ত।

কিল মি, মিলিশিয়াম্যান!- কবিতাটি আর কখনো পড়ব না, কথা দিলাম।’

কামারদিনের বান্ধবী আলেকজান্দ্রা পপোভা বলেন, ‘অভিযানের সময় আমিও নিপীড়নের শিকার হয়েছি। আমার চুল কেটে দিয়েছিল ওরা। চেহারা, মুখ স্কচটেপ এবং সুপারগ্লু দিয়ে আটকে দিয়েছিল।

‘আমাকেও মারধর করা হয়। একপর্যায়ে তারা আমাকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের হুমকিও দেয়। পরে কামারদিনকে মারধর করার ভিডিও আমাকে দেখায়। অ্যাপার্টমেন্ট থেকে ৬০০ ডলার খোয়া গেছে।’

গ্রেপ্তারের পর কামারদিন এবং পপোভাকে অ্যাপার্টমেন্ট থেকে হাতকড়া পরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। মানবাধিকারকর্মী আলেকজান্দ্রার মেনিউকভকে ছেড়ে দেয় পুলিশ।

রাশিয়ান সেনাবাহিনীকে ‘অসম্মান’ করার বিষয়ে একটি প্রশাসনিক প্রতিবেদন পপোভার বিরুদ্ধে তৈরি করা হয়েছিল। পরে অবশ্য তাকে ছেড়ে দেয়া হয়। তিনিই এখন চরমপন্থা সংক্রান্ত ফৌজদারি মামলার সাক্ষী।

চিকিৎসকরা পপোভার শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন পেয়েছেন। অভিযানের সময় মারধরের শিকার আলেকজান্দ্রার মেনিউকভও ফৌজদারি মামলার সাক্ষী। তার ডান কান, বাম হাতের কবজি ও পিঠে একাধিক আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে।

ওই আয়োজনে অংশ নেয়া অন্য দুজনকেও চরমপন্থার ফৌজদারি মামলায় সন্দেহভাজন হিসেবে গ্রেপ্তার করা হয়। তারা হলেন ২৬ বছর বয়সী নিকোলাই ডেনেকো এবং ২১ বছর বয়সী ইয়েগর শেটাভবা। তারাও ক্যামেরার সামনে সেদিনের ঘটনায় ক্ষমা চেয়েছেন।

ভ্লাদিমির ভ্লাদিমিরোভিচ মায়াকভস্কি ছিলেন রুশ এবং সোভিয়েত কবি, নাট্যকার, শিল্পী এবং মঞ্চ ও চলচ্চিত্র অভিনেতা। বিশ শতকের প্রথম দিকের রুশ ফিউচারিজমের প্রতিনিধিদের একজন তিনি।

আরও পড়ুন:
রুশ সার্বভৌমত্ব রক্ষায় ৩ লাখ রিজার্ভ সেনা তলব করছেন পুতিন
পারমাণবিক অস্ত্র ব্যবহার নিয়ে পুতিনকে হুঁশিয়ারি বাইডেনের
রাশিয়াকে নিয়ে পশ্চিমাদের বিরুদ্ধে মহাশক্তি বানাতে চায় চীন
জার্মানি চূড়ান্ত সীমা লঙ্ঘন করেছে: রাশিয়া
খারকিভ পুনরুদ্ধার, কিয়েভের বড় সাফল্য

মন্তব্য

আরও পড়ুন

আন্তর্জাতিক
100 companies in the UK set a 4 day working week

যুক্তরাজ্যের ১০০ কোম্পানিতে সাপ্তাহিক ছুটি ৩ দিন

যুক্তরাজ্যের ১০০ কোম্পানিতে সাপ্তাহিক ছুটি ৩ দিন ছবি: সংগৃহীত
কর্মীরা জানান, সপ্তাহে পাঁচ দিন কাজ করার কারণে কাজের প্রতি তাদের বিরক্তি চলে আসতো। কাজ ঠিকভাবে সম্পন্ন করতে পারতেন না। মানসিক চাপ অনুভব করতেন। সপ্তাহে চার দিন কাজের সময় নির্ধারণ করার সিদ্ধান্তকে তারা সাধুবাদ জানান।

যুক্তরাজ্যের ১০০টি প্রতিষ্ঠান সপ্তাহে পাঁচ দিনের পরিবর্তে চার দিন কাজ করবে বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এর ফলে প্রতিষ্ঠানগুলোতে সাপ্তাহিক ছুটি এখন থেকে দুই দিনের পরিবর্তে তিন দিন হচ্ছে।

সম্প্রতি এ প্রতিষ্ঠানগুলোর কর্তৃপক্ষ এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে এনডিটিভির এক প্রতিবেদন জানিয়েছে।

এই প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে এটম ব্যাংক ও গ্লোবাল মার্কেটিং কোম্পানি অ্যাউইনের মতো প্রতিষ্ঠান রয়েছে। ওই দুই প্রতিষ্ঠানে প্রায় ৯০০ জন কর্মী কাজ করেন।

কর্তৃপক্ষ বলছে, কাজের দিন কমলেও কর্মীদের বেতন কমানো হবে না।

যে ১০০ প্রতিষ্ঠানে কর্মঘণ্টা কমানোর সিদ্ধান্ত হয়েছে সেই প্রতিষ্ঠানগুলোতে প্রায় ২৬০০ কর্মী কাজ করছেন। সপ্তাহে চারদিন কাজ করলে কর্মীদের মধ্যে কাজের আগ্রহ বাড়বে বলে মনে করে মালিকপক্ষ।

কর্মীরা জানান, সপ্তাহে পাঁচ দিন কাজ করার কারণে কাজের প্রতি তাদের বিরক্তি চলে আসতো। কাজ ঠিকভাবে সম্পন্ন করতে পারতেন না। মানসিক চাপ অনুভব করতেন। সপ্তাহে চার দিন কাজের সময় নির্ধারণ করার সিদ্ধান্তকে তারা সাধুবাদ জানান।

তারা আরও জানান, এতে তারা কাজ আরও সুন্দরভাবে করতে পারবেন কোনো চাপ ছাড়াই।

দ্য গার্ডিয়ান এই সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানিয়েছে। প্রতিষ্ঠানটির মতে, এই পদ্ধতিতে কর্মীদের দক্ষতা বাড়বে।

কর্তৃপক্ষ মনে করছে, পাঁচ দিনের পরিবর্তে চারদিন কাজ করলেও কর্মীরা কাজ কম করবেন না। সময় কমলেও কাজের ক্ষেত্রে কোনো নেতিবাচক প্রভাব পড়বে না। বরং আগের চেয়ে কাজে আরও বেশি মনযোগ দিতে পারবেন কর্মীরা। ফলে কর্মীদের মানসিক ও শারীরিক স্বাস্থ্য ভালো থাকবে।

আরও পড়ুন:
ঋষি আসলে কতটা ভারতীয়  
গীতায় হাত রেখেই শপথ নেবেন ঋষি
ঋষিকে নিয়ে ভারতের গণমাধ্যমে উচ্ছ্বাস  
ঐক্যবদ্ধ যুক্তরাজ্য গড়তে কাজ করব: ঋষি সুনাক
আধুনিক ব্রিটেনের সর্বকনিষ্ঠ প্রধানমন্ত্রী ঋষি

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Lava is coming out of the worlds largest volcano

বিশ্বের সবচেয়ে বড় আগ্নেয়গিরিতে বের হচ্ছে লাভা

বিশ্বের সবচেয়ে বড় আগ্নেয়গিরিতে বের হচ্ছে লাভা সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ১৩ হাজার ৬৭৯ ফুট উপরে মাউনা লোয়া শৃঙ্গ থেকে লাভা বের হওয়া শুরু হয়েছে। ছবি: ইউএসজিএস
আগ্নেয়গিরিবিষয়ক ব্রিটিশ বিশেষজ্ঞ ও হাওয়াই ভলকানো অবজারভেটরিতে কর্মরত ড. জেসিকা জনসন বলেন, ‘লাভার স্রোত হিলো ও কোনা শহরের বাসিন্দাদের জীবনকে ভয়াবহ হুমকিতে ফেলে দিয়েছে। এমন উত্তপ্ত লাভা শহরের অবকাঠামো ও প্রকৃতি পুরোপুরি ধ্বংস করে দিতে পারে। সেই সঙ্গে উদগিরিত বিষাক্ত গ্যাস ও ছাইয়ের কারণে শ্বাসকষ্টে মানুষের মৃত্যুও হতে পারে।’

৩৮ বছর পর যুক্তরাষ্ট্রে বিশ্বের সবচেয়ে বড় সক্রিয় আগ্নেয়গিরি মাউনা লোয়া থেকে লাভা বের হওয়া শুরু হয়েছে।

দেশটির পশ্চিমাঞ্চলীয় দ্বীপ রাজ্য হাওয়াইতে স্থানীয় সময় রোববার রাত সাড়ে ১১টায় আগ্নেয়গিরিটি থেকে লাভার উদগিরণ শুরু হয়। এরই মধ্যে স্থানীয়দের জন্য সতর্কবার্তার মাত্রা বাড়িয়েছে প্রশাসন। এ খবর প্রকাশ করেছে সংবাদমাধ্যম বিবিসি

অগ্ন্যুৎপাত শুরুর কয়েক ঘণ্টার মধ্যে এই অঞ্চলে রিখটার স্কেল প্রায় তিন মাত্রার ১০টির বেশি ভূকম্পন আঘাত হেনেছে। তবে সবচেয়ে বেশি মাত্রার ভূকম্পনটি ছিল ৪ দশমিক ২ মাত্রার।

যুক্তরাষ্ট্রের ভূতাত্ত্বিক জরিপ সংস্থা ইউএসজিএসের তথ্য অনুযায়ী, এই মুহূর্তে উদগিরিত গলিত লাভা পবর্তের সুউচ্চ শৃঙ্গ কলডেরাসে সীমাবদ্ধ রয়েছে। পাদদেশের বাসিন্দাদের জন্য এটি তেমন বিপজ্জনক নাও হতে পারে। তবে আগের ভয়াবহ উদগিরণের কথা বিবেচনায় রেখে স্থানীয়দের জন্য সতর্কবার্তা বাড়িয়ে দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। তারা জানিয়েছে, লাভার পরিমাণ যেকোনো সময় বাড়তে পারে এবং তা গড়িয়ে পাদদেশে নেমে এসে জনবহুল দুটি শহর হিলো ও কোনাতে ধ্বংসলীলা চালাতে পারে।

আগ্নেয়গিরিবিষয়ক ব্রিটিশ বিশেষজ্ঞ ও হাওয়াই ভলকানো অবজারভেটরিতে কর্মরত ড. জেসিকা জনসন বলেন, ‘লাভার স্রোত হিলো ও কোনা শহরের বাসিন্দাদের জীবনকে ভয়াবহ হুমকিতে ফেলে দিয়েছে। এমন উত্তপ্ত লাভা শহরের অবকাঠামো ও প্রকৃতি পুরোপুরি ধ্বংস করে দিতে পারে। সেই সঙ্গে উদগিরিত বিষাক্ত গ্যাস ও ছাইয়ের কারণে শ্বাসকষ্টে মানুষের মৃত্যুও হতে পারে।’

ইউএসজিএস জানিয়েছে, অগ্ন্যুৎপাতের ঘটনা গভীরভাবে পর্যবেক্ষণে রাখা হচ্ছে। প্রয়োজনে সতর্কতার মাত্রা আরও বাড়ানো হবে এবং স্থানীয়দের নিরাপত্তায় জরুরি ব্যবস্থা নেয়ার পরামর্শ দেয়া হবে।

হাওয়া ভলকানোস ন্যাশনাল পার্কের মধ্যে অবস্থিত মাউনা লোয়া পর্বতটি হাওয়াইয়ের ‘বিগ আইল্যান্ড’-এ অর্ধেকেরও বেশি জায়গা দখল করে রেখেছে। মাউনা লোয়া পবর্তটি ২,০০০ বর্গমাইল এলাকাজুড়ে বিস্তৃত।

আগ্নেয়গিরির চূড়াটি সমুদ্রের উপরিভাগ থেকে ১৩ হাজার ৬৭৯ ফুট ওপরে।

এর আগে ১৯৮৪ সালের অগ্ন্যুৎপাত হয়েছিল মাউনা লোয়াতে। সে সময় ওই দ্বীপের সবচেয়ে জনবহুল শহর হিলোর পাঁচ মাইল ভেতরেও লাভা চলে গিয়েছিল।

চার দশকে এই বিগ আইল্যান্ডের জনসংখ্যা দ্বিগুণ বেড়ে হয়েছে দুই লাখের বেশি।

১৮৪৩ সাল থেকে মাউনা লোয়ায় অন্তত ৩৩টি অগ্ন্যুৎপাতের ঘটনা ঘটে।

আরও পড়ুন:
যুক্তরাষ্ট্র ও জাপানে সুনামি সতর্কতা
সাগরতলে অগ্ন্যুৎপাত, টোঙ্গায় সুনামি
আবার জেগেছে নিরাগঙ্গো, আতঙ্কে ডিআর কঙ্গো
ভাঙল ৮০০ বছরের ঘুম

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Sword attack on police van carrying Aftab
শ্রদ্ধা হত্যা

আফতাবকে বহনকারী পুলিশ ভ্যানে তরবারি হামলা

আফতাবকে বহনকারী পুলিশ ভ্যানে তরবারি হামলা আফতাব পুনাওয়ালাকে বহনকারী পুলিশভ্যানে হামলা ঠেকাচ্ছে পুলিশ। ছবি: সংগৃহীত
দিল্লির রোহিনির ফরেনসিক সায়েন্স ল্যাবরেটরিতে পলিগ্রাফ টেস্ট শেষে আফতাবকে জেলে নেয়ার সময় এ হামলার ঘটনা ঘটে। প্রায় ১৫ জন হামলাকারী তরবারি হাতে এ হামলা চালায়। এ সময় কয়েকজন হামলাকারী আহত হয়েছেন। তবে নিরাপদে আছেন আফতাব। 

ভারতের শ্রদ্ধা ওয়াকার হত্যা মামলার অভিযুক্ত আফতাব পুনাওয়ালাকে বহনকারী পুলিশভ্যানে তরবারি নিয়ে হামলা চালানো হয়েছে। সোমবার দিল্লিতে এ হামলা হয়।

সূত্রের বরাতে এনডিটিভি জানায়, দিল্লির রোহিনির ফরেনসিক সায়েন্স ল্যাবরেটরিতে পলিগ্রাফ টেস্ট শেষে আফতাবকে জেলে নেয়ার সময় এ হামলার ঘটনা ঘটে। প্রায় ১৫ জন হামলাকারী তরবারি হাতে এ হামলা চালায়। এ সময় কয়েকজন হামলাকারী আহত হয়েছেন। তবে নিরাপদে আছেন আফতাব।

এদিকে শ্রদ্ধা ওয়াকারের মরদেহ টুকরো টুকরো করায় ব্যবহৃত অস্ত্রের একটি উদ্ধার করা হয়েছে। এর আগে গত সপ্তাহে পুলিশ আফতাবের দেয়া তথ্যে আরও পাঁচটি ছুরি উদ্ধার হয়। তবে শ্রদ্ধার খুলি ও মরদেহের কিছু অংশ পাওয়া যায়নি।

সূত্রের বরাতে এনডিটিভি জানায় , শ্রদ্ধাকে হত্যার পর তার কানের দুল এক নারী চিকিৎসককে দিয়েছিলেন আফতাব। ওই নারী চিকিৎসকের সঙ্গে শ্রদ্ধাকে হত্যার পর ডেটিং করেন আফতাব পুনাওয়ালা।

মুম্বাইয়ের বাসিন্দা ২৮ বছরের যুবক আফতাব পুনাওয়ালা তার লিভ ইন পার্টনার ২৬ বছরের শ্রদ্ধা ওয়াকারের সঙ্গে দিল্লির ছাতারপুর এলাকার একটি ভাড়া বাসায় থাকতেন। চলতি বছরের ১৮ মে তাদের মধ্যে তুমুল ঝগড়া হয়। একপর্যায়ে সেদিন শ্রদ্ধাকে শ্বাসরোধে হত্যা করেন আফতাব।

পরে মরদেহ ৩৫ টুকরা করে ৩০০ লিটার ধারণক্ষমতার ফ্রিজে প্রায় তিন সপ্তাহ রাখেন। ফ্রিজ থেকে টুকরাগুলো কয়েক দিন ধরে শহরের বিভিন্ন জায়গায় ফেলেন তিনি। ৮ নভেম্বর শ্রদ্ধার বাবা বিকাশ মদন ওয়াকার মেয়ের খোঁজে মেহরাউলি পুলিশের কাছে অপহরণের অভিযোগ করেন। তার ভিত্তিতে ১২ নভেম্বর আফতাবকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Do not listen to the UNs warning on Irans movement
ইরান বিক্ষোভ

বিক্ষোভ নিয়ে জাতিসংঘের তদন্ত চায় না ইরান

বিক্ষোভ নিয়ে জাতিসংঘের তদন্ত চায় না ইরান ইরানে তীব্র সরকারবিরোধী আন্দোলন চলছে। ছবি: সংগৃহীত
ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র নাসের কানানি বলেন, ‘জাতিসংঘের অধিকার পরিষদ কর্তৃক গঠিত রাজনৈতিক কমিটির সঙ্গে ইরানের কোনো সহযোগিতা থাকবে না। আমেরিকা ও তার কয়েকটি মিত্র দেশের এই বিক্ষোভে সংশ্লিষ্টতা রয়েছে; যার সুনির্দিষ্ট প্রমাণ আমাদের কাছে আছে।’

চলমান বিক্ষোভে সহিংসতা নিয়ে জাতিসংঘের তদন্তের আহ্বানকে নাকচ করে দিয়েছে ইরান। দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সোমবার সাফ জানিয়ে দিয়েছে যে জাতিসংঘকে এ ঘটনায় কোনো তদন্ত করতে দেয়া হবে না। জাতিসংঘের মানবাধিকার কাউন্সিলে বৃহস্পতিবার ভোটের পর ইরানের আন্দোলন ইস্যুতে তদন্ত কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত হয়।

সঠিকভাবে হিজাব না করার অভিযোগে ইরানের নৈতিকতা পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার কুর্দি তরুণী মাহসা আমিনির মৃত্যু হয় গত ১৬ সেপ্টেম্বর। সেদিন থেকেই প্রতিবাদ ছড়িয়ে পড়ে গোটা ইরানে। এই আন্দোলন এখনো চলছে।

ইরান এই বিক্ষোভের জন্য বিদেশি শত্রুদের দায়ী করছে। ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র জানান, এই বিক্ষোভে পশ্চিমাদের সংশ্লিষ্টতার প্রমাণ তেহরানের কাছে আছে।

ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র নাসের কানানি বলেন, ‘জাতিসংঘের অধিকার পরিষদ কর্তৃক গঠিত রাজনৈতিক কমিটির সঙ্গে ইরানের কোনো সহযোগিতা থাকবে না।

‘আমেরিকা ও তার কয়েকটি মিত্র দেশের এই বিক্ষোভে সংশ্লিষ্টতা রয়েছে। যার সুনির্দিষ্ট প্রমাণ আমাদের কাছে আছে।’

এর আগে ইরান সরকারকে আন্দোলনকারীদের ওপর অযৌক্তিক নির্যাতন বন্ধের আহ্বান জানান জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক হাইকমিশনার ভলকার তুর্ক।

যুক্তরাষ্ট্র-সমর্থিত রাজতন্ত্রকে উৎখাত করার মাধ্যমে ১৯৭৯ সালের ইরানে ইসলামি বিপ্লব ঘটে। এ বিপ্লবের চার বছর পর ইরানে হিজাব বাধ্যতামূলক করা হয়।

মানবাধিকারবিষয়ক বার্তা সংস্থা এইচআরএনএ জানায়, ইরানে চলমান বিক্ষোভে ২৬ নভেম্বর পর্যন্ত ৪৫০ আন্দোলনকারী নিহত হয়েছেন। এদের মধ্যে ৬৩ শিশু রয়েছে। এ ছাড়া নিরাপত্তা বাহিনীর ৬০ জন সদস্যও প্রাণ হারিয়েছেন নিহত হয়েছেন। এখন পর্যন্ত আটক আছেন ১৮ হাজার ১৭৩ জন।



ইরান সরকার আন্দোলনে হতাহতের কোনো তথ্য আনুষ্ঠানিকভাবে জানায়নি। তবে দেশটির উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী আলী বাগেরি কানি বলেছেন, বিক্ষোভে ৫০ পুলিশ নিহত ও শতাধিক আহত হয়েছেন।

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
30 surgeries in a 4 week coma from one mosquito bite

মশার কামড়ে ৪ সপ্তাহ কোমায়, ৩০ সার্জারি!

মশার কামড়ে ৪ সপ্তাহ কোমায়, ৩০ সার্জারি! এশিয়ান টাইগার মশা। ছবি: সংগৃহীত
অভিজ্ঞতা জানাতে গিয়ে রটস্কে বলেন, ‘আমি দেশের বাইরে যাইনি। জার্মানিতেই ওই মশা আমাকে কামড়িয়েছে। এরপরই ধকল শুরু । আমি শয্যাশায়ী হলাম, বাথরুমেও যেতে পারতাম না। জ্বর ছিল। কিছুই খেতে পারতাম না। মনে হচ্ছিল, সব শেষ হয়ে যাচ্ছে। পরে চিকিৎসকরা ধারণা করে, এশিয়ান টাইগার মশা আমাকে কামড়িয়েছে। তারা বিশেষজ্ঞকে ডাকেন।’

মশার কামড় সবসময় বিরক্তিকর। অনেক সময় এটির কামড় জটিল রোগের কারণ। দেশে প্রতি বছরই বহু মানুষের প্রাণহানি ঘটে ডেঙ্গুতে। অন্যান্য বছরের তুলনায় এ বছর এটি আরও ভয়াবহ রূপ ধারণ করেছে। এডিসবাহী মশার মতোই একটি মশার কামড় ভুগিয়েছে ২৭ বছর বয়সী জার্মান যুবক সেবাস্তিয়ান রটস্কেকে। ৩০টি অস্ত্রোপচার এবং ৪ সপ্তাহ কোমায় থাকার পর বেঁচে ফিরেছেন তিনি।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম ডেইলি স্টারের প্রতিবেদনে বলা হয়, সেবাস্তিয়ান রটস্কে জার্মানির রোডারমার্ক শহরের বাসিন্দা। গত বছরের গ্রীষ্মে ‘এশিয়ান টাইগার’ নামে এক ধরনের মশা তাকে কামড়েছিল। এরপর তার সর্দি–জ্বরের উপসর্গ দেখা দেয়।

তবে সেটা ছিল কেবল শুরু। এরপর ভয়াবহ সব শারীরিক জটিলতায় ভোগতে হয় রটস্কেকে।

গত দেড় বছরে রক্তদূষণ, যকৃৎ, কিডনি, হৃৎপিণ্ড ও ফুসফুস অকার্যকর হয়ে যাওয়ার মতো অভিজ্ঞতার মধ্য দিয়ে যেতে হয়েছে তাকে। এসব শারীরিক জটিলতার কারণে চার সপ্তাহ কোমায় ছিলেন রটস্কে। অস্ত্রের নিচে নিজেকে সঁপে দিয়েছেন ৩০ বার।

ঊরুতেও অস্ত্রোপচার হয়েছে রটস্কের। সেখানে মারাত্মক একটি ফোড়া ছিল। এ কারণে ঊরুর একটা অংশে পচন ধরেছিল। তখন রটস্কের মনে হয়েছিল, তার বাঁচার সম্ভাবনা খুব কম।

মশার কামড়ে ৪ সপ্তাহ কোমায়, ৩০ সার্জারি!
এশিয়ান টাইগার মশার কামড়ে শয্যাশায়ী সেবাস্তিয়ান রটস্কে

অভিজ্ঞতা জানাতে গিয়ে রটস্কে বলেন, ‘আমি দেশের বাইরে যাইনি। জার্মানিতেই ওই মশা আমাকে কামড়িয়েছে। এরপরই ধকল শুরু । আমি শয্যাশায়ী হলাম, বাথরুমেও যেতে পারতাম না। জ্বর ছিল। কিছুই খেতে পারতাম না। মনে হচ্ছিল, সব শেষ হয়ে যাচ্ছে। পরে চিকিৎসকরা ধারণা করে, এশিয়ান টাইগার মশা আমাকে কামড়িয়েছে। তারা বিশেষজ্ঞকে ডাকেন।’

‘এশিয়ান টাইগার মশা’ জংলি মশা নামেও পরিচিত। এই মশাগুলো দিনের বেলায় কামড়ায়। জিকা ভাইরাস, ওয়েস্ট নিল ভাইরাস, চিকুনগুনিয়া ও ডেঙ্গুর মতো মারাত্মক সব রোগের জীবাণু বহন করে এই মশা।

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Lover jumps into the sea to retrieve the ring during the proposal

প্রপোজের সময় সমুদ্রে আংটি, প্রেমিকের ঝাঁপ

প্রপোজের সময় সমুদ্রে আংটি, প্রেমিকের ঝাঁপ আংটি উদ্ধারের জন্য ক্লাইনের সমুদ্রে ঝাঁপ দেয়ার মুহূর্তটি। ছবি: সংগৃহীত
আংটি উদ্ধারের পরই আবারও প্রেমিকাকে বিয়ের প্রস্তাব দেন ক্লাইন। এতে রাজিও হয়ে যান তার প্রেমিকা।

প্রেমিকাকে বিয়ের প্রস্তাব দেয়ার সময় সমুদ্রে পড়ে যায় বাগদানের আংটি! হতবিহ্বল প্রেমিক আংটিটি উদ্ধারে সঙ্গে সঙ্গেই ঝাঁপ দেন সমুদ্রে! এমন ঘটনাই ঘটলো যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডাতে। আর এ ঘটনার একটি ভিডিও ফেসবুকে পোস্ট করেছে স্কট ক্লাইন নামের ওই প্রেমিক নিজেই।

ভিডিওতে দেখা যায়, প্রেমিকা সুজি টাকারকে নিয়ে একটি নৌকায় দাঁড়িয়ে আছেন ক্লাইন। সূর্যাস্তের সময় এই যুগল একটি রোমান্টিক ভঙ্গিতে একে-অপরের হাত ধরে রেখেছিলেন। এ সময় হাঁটু গেড়ে প্রেমিকাকে আংটি পরানোর প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন ক্লাইন।

তিনি যখন তার প্যান্টের পকেট থেকে আংটির বক্সটি বের করতে যান তখনই সেটি পড়ে যায় সমুদ্রে। আর এরপরই সাত-পাঁচ না ভেবে সমুদ্রে ঝাঁপ দেন ক্লাইন।

সমুদ্রে ঝাঁপ দেয়ার কিছু মুহূর্তের মধ্যেই ক্লাইন ওই আংটির বক্সটি উদ্ধার করেও নিয়ে আসেন।

ক্লাইন তার ফেসবুক পোস্টে বলেন, ‘এটি ১০০ ভাগ সত্য। আমি কখনও এটি ভুলবো না।’

এ ঘটনাটি পুরোটা ভিডিও করেন ক্লাইনের এক বন্ধু। আংটি উদ্ধারের পরই আবারও প্রেমিকাকে বিয়ের প্রস্তাব দেন ক্লাইন। এতে রাজিও হয়ে যান তার প্রেমিকা।

ক্লাইন নিউ ইয়র্ক পোস্টকে বলেন, ‘আমার প্যান্টের পেছনের পকেটে আংটির বক্সটি ছিল। আমি যখন এটি বের করতে গেলাম তখন এটি হাত থেকে ফসকে যায়। আমি ঝাঁপ দিতে দ্বিধা করিনি। কারণ আমার মনে হচ্ছিল, এটি দ্রুত ডুবে যাবে। পরে আমি দেখলাম এটি নৌকার সঙ্গে বাড়ি খেয়ে পানিতে পড়ে ভাসছে। আমি আতঙ্কিত হয়ে পড়েছিলাম এবং আমি পানিতে পড়তে দ্বিধা করিনি। ভাগ্যক্রমে, আমি আংটিটি উদ্ধার করতে পেরেছি!’

আরও পড়ুন:
বন্ধুর প্রাক্তন প্রেমিকার সঙ্গে প্রেমের জেরে খুন
প্রেমের টানে আসা ফরাসি তরুণীর ফ্লাইং কিস
হঠাৎ ব্রেকআপ? সামলাবেন কীভাবে?
এবার ‘প্রেমের টানে’ বরিশালে আসা ভারতীয় যুবকের গেল প্রাণ
কিউবায় বৈধতা পেল সমলিঙ্গের বিয়ে

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Winter mood in West Bengal

পশ্চিমবঙ্গে শীতের আমেজ

পশ্চিমবঙ্গে শীতের আমেজ
আলিপুর আবহাওয়া দপ্তর জানায়, আগামী চার-পাঁচ দিন জেলাগুলোর তাপমাত্রা স্বাভাবিকের চেয়ে কয়েক ডিগ্রি নিচে থাকবে। তবে তীব্র শীত নামতে কিছুদিন লাগবে।

পশ্চিমবঙ্গে জেঁকে বসছে শীত। গত শুক্রবার থেকে টানা তিনদিন ১৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড হয়েছে কলকাতায়। সোমবার ১ ডিগ্রি সেলসিয়াস বেড়ে তা হয়েছে ১৭।

আবহাওয়া অফিস বলছে, সামনের কয়েকদিন কলকাতা ও পার্শ্ববর্তী এলাকার সর্বনিম্ন তাপমাত্রার সামান্য ওঠানামা করলেও, শীতের আমেজ বজায় থাকবে। সোমবার কলকাতার দিনের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা থাকতে পারে ২৯ ডিগ্রি সেলসিয়াসের কাছাকাছি।

পশ্চিমবঙ্গের জেলাগুলোতে অবশ্য উত্তরের শুষ্ক হাওয়ার দাপটে ভালোই ঠান্ডা পড়েছে। কোথাও কোথাও সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৩ ডিগ্রি সেলসিয়াসে নেমে গেছে।

আলিপুর আবহাওয়া দপ্তর জানায়, আগামী চার-পাঁচ দিন জেলাগুলোর তাপমাত্রা স্বাভাবিকের চেয়ে কয়েক ডিগ্রি নিচে থাকবে। তবে তীব্র শীত নামতে কিছুদিন লাগবে।

আলিপুর আবহাওয়া দপ্তরের দেয়া তথ্য অনুযায়ী, বীরভূম শ্রীনিকেতনের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রোববার ছিল ১৩ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস; পুরুলিয়ায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৩ দশমিক ১ ডিগ্রি সেলসিয়াস; মুর্শিদাবাদে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং উত্তর চব্বিশ পরগনার ব্যারাকপুরের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৪ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

আগামী ৪-৫ দিন রাজ্যে বৃষ্টির কোনো সম্ভাবনা নেই। বাধাহীনভাবে রাজ্যে প্রবেশ করছে শুষ্ক হওয়া। কমছে বাতাসে জলীয় বাষ্পের পরিমাণ। ফলে জাঁকিয়ে শীত পড়ার আগে, আগামী কয়েক দিন এই আমেজ বজায় থাকবে।

মন্তব্য

p
উপরে