× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

আন্তর্জাতিক
Tamils ​​are the biggest victims of the Sri Lankan crisis
hear-news
player
google_news print-icon

শ্রীলঙ্কা সংকটের ‘বড় বলি’ হচ্ছেন তামিলরা

শ্রীলঙ্কা-সংকটের-বড়-বলি-হচ্ছেন-তামিলরা
চলমান সংকটে মুল্লাইটিভু জেলার প্রায় এক-চতুর্থাংশ বাসিন্দা বেকার হয়ে পড়েছেন। ছবি: সংগৃহীত
শ্রীলঙ্কার তামিল অধ্যুষিত জেলা মুল্লাইটিভু। এখানের ৫৮ শতাংশ পরিবার দারিদ্র্যের মধ্যে বাস করে। সেভ দ্য চিলড্রেনের এক জরিপে দেখা গেছে, এ জেলার প্রায় এক-চতুর্থাংশ বাসিন্দা সংকটের কারণে বেকার হয়েছেন।

শ্রীলঙ্কার তামিল অধ্যুষিত জেলা মুল্লাইটিভু। মাথার ওপর দাউদাউ করছে মধ্য দুপুরের সূর্য। ৪৪ বছরের সিংগারাম সোসাইয়ামুত্তু তার বর্গা নেয়া চিনাবাদাম ক্ষেতে কোদাল চালাচ্ছেন। এই বাদাম বিক্রির টাকায় সংসার চলে সোসাইয়ামুত্তুর।

শ্রীলঙ্কা সরকার এবং লিবারেশন টাইগার্স অফ তামিল ইলামের (এলটিটিই) মধ্যে ২৬ বছরের গৃহযুদ্ধের শেষ দিকের কথা। ২০০৯ সালে একটি বিমান হামলায় দুটি পা হারান সোসাইয়ামুত্তু, একটি হাত ক্ষতিগ্রস্ত হয় ভীষণভাবে। হাতের তালুতে ভর করে চলাফেরা করেন তিনি।

সোসাইয়ামুত্তু বলেন, ‘একজন দৈনিক মজুরের চেয়ে অনেক কঠিন পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে হয় আমার।’

শ্রীলঙ্কা সংকটের ‘বড় বলি’ হচ্ছেন তামিলরা

৪৪ বছরের সিংগারাম সোসাইয়ামুত্তু তার বর্গা নেয়া চিনাবাদাম ক্ষেতে কোদাল চালাচ্ছেন। ছবি: সংগৃহীত

গৃহযুদ্ধের পর বর্তমান অর্থনৈতিক সংকট সোসাইয়ামুত্তুর জীবনে দ্বিতীয় বড় আঘাত। সোসাইয়ামুত্তু বলেন, ‘এখানকার অনেক বাসিন্দা ভাড়ায় অন্যের জমিতে কাজ করেন। পা না থাকায় আমি পারি না।

‘কাজ করতে চাইলেও কেউ আমাকে নেবে না। আমার পক্ষে অন্য দিনমজুরের মতো কাজ করাও সম্ভব না। এটাই বাস্তবতা। ’

অর্থনৈতিক সংকটের আগে মাছ ধরে জীবিকা নির্বাহ করতেন সোসাইয়ামুত্তু। তখন সবকিছু ঠিকঠাকই চলছিল। বিপত্তি বাধে গত বছরের শেষ দিকে। সাত দশকের মধ্যে সবচেয়ে বাজে অর্থনৈতিক মন্দায় পড়ে শ্রীলঙ্কা। মুদ্রাস্ফীতি আর নিত্যপণ্যের আকাশছোঁয়া দাম... তাকে চিনাবাদাম চাষে যেতে বাধ্য করেছে।

সোসাইয়ামুত্তু বলেন, ‘আমরা না হয় কম খেয়ে কিংবা না খেয়েই দিন কাটাতে পারি। কিন্তু বাচ্চারা! ওদের কীভাবে বোঝাব?’

মিত্র দেশ এবং আন্তর্জাতিক বিভিন্ন দাতা সংস্থা থেকে ধার নিয়ে ভালোই চলছিল শ্রীলঙ্কার অর্থনীতি। করোনা মহামারি এসে পাল্টে দেয় পরিস্থিতি। ধস নামে জাতীয় অর্থনীতিতে বড় অবদান রাখা পর্যটনশিল্পে। এসবের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে চরমে পৌঁছায় অর্থনৈতিক অব্যবস্থাপনা। উত্তরণের উপায় না পেয়ে নিজেদের দেউলিয়া ঘোষণা করে শ্রীলঙ্কা সরকার।

সোসাইয়ামুত্তুর পরিবার শ্রীলঙ্কার সেই ৬২ লাখ মানুষের মধ্যে আছে, যাদের জাতিসংঘের ফুড অ্যান্ড এগ্রিকালচার অর্গানাইজেশন (এফএও) ‘খাদ্য নিরাপত্তাহীন’ তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করেছে। ভারত মহাসাগরীয় দেশটিতে গত মাসে খাদ্য মুদ্রাস্ফীতি ৯৩ দশমিক ৭ শতাংশ রেকর্ড হয়।

কয়েক মাস ধরে বিদ্যুৎ বিভ্রাট, ব্যাপক মুদ্রাস্ফীতি, রুপির মান কমতে থাকা এবং বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভের ঘাটতির সঙ্গে লড়াই করেছে শ্রীলঙ্কা। ২ কোটি ২০ লাখ জনংখ্যার দ্বীপটিতে খাদ্য, জ্বালানি এবং ওষুধের সংকট প্রকট হয়ে দাঁড়িয়েছে।

শ্রীলঙ্কার দ্বিতীয় দরিদ্র জেলা এই মুল্লাইটিভু। এখানের ৫৮ শতাংশ পরিবার দারিদ্র্যের মধ্যে বাস করে। সেভ দ্য চিলড্রেনের জুনের এক জরিপে দেখা গেছে, এ জেলার প্রায় এক-চতুর্থাংশ বাসিন্দা সংকটের কারণে বেকার হয়েছেন।

শ্রীলঙ্কা সংকটের ‘বড় বলি’ হচ্ছেন তামিলরা

মুল্লাইটিভুর ৫৮ শতাংশ পরিবার দারিদ্র্যের মধ্যে বাস করে। ছবি: সংগৃহীত

দেশজুড়ে চালানো জরিপে ৩১ শতাংশ প্রাপ্তবয়স্ক উত্তরদাতা জানিয়েছেন, সুসাইয়ামুত্তুর মতো তারাও সন্তানদের খাবার নিশ্চিত করার জন্য নিজেদের খাবারের পরিমাণ কমিয়ে দিয়েছেন।

দাতব্য সংস্থা টিয়ার্স অফ ভ্যান্নির প্রতিষ্ঠাতা সোমা সোমানাথন বলেন, ‘অর্থনৈতিক এই সংকট তাদের (মুল্লাইটিভু জেলার বাসিন্দাদের) খারাপ থেকে আরও খারাপ পরিস্থিতির দিকে ঠেলে দিয়েছে। তাদের আসলে সেই মঞ্চে ঠেলে দেয়া হচ্ছে, যেখানে তারা গৃহযুদ্ধের পর পরই ছিল।’

শ্রীলঙ্কার সামাজিক ক্ষমতায়ন মন্ত্রণালয়ের সেক্রেটারি নিল হাপুহিনে বলেন, ‘এই পরিস্থিতি কাটিয়ে ওঠার জন্য কিছু উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। সংকটে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্তদের চিহ্নিত করা হচ্ছে। ছয় লাখ মানুষকে প্রতি মাসে নগদ অর্থ দেয়ার পরিকল্পনাও রয়েছে আমাদের। চলতি বছর ৩২ লাখ পরিবারে ১৪৬ বিলিয়ন ডলার বিতরণ করা হবে।

খাদ্য সংকট দূর করতে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক (এডিবি) থেকে ঋণ নিয়েছে শ্রীলঙ্কা সরকার। ২০০ মিলিয়ন ডলার দিয়ে খাবারের সংকট আপাতত মেটানো যাবে বলে মনে করছে দেশটির সরকার। অন্যান্য সংকট মোকাবিলায় বিশ্বব্যাংকের পাশাপাশি জাতিসংঘের বিভিন্ন দাতাগোষ্ঠীর কাছে হাত পাতছে শ্রীলঙ্কা সরকার।

সন্ধ্যায় কোদাল ফেলে হাত-মুখ পরিষ্কার করতে করতে সোসাইয়ামুত্তু বলেন, ‘আরও দুই মাস পর ফসল বিক্রির উপযুক্ত হবে।

‘নিত্যপ্যণের দাম কমলে আমাদের এতটা কষ্ট করতে হতো না। ১০ ভাগ ভালো থাকতেই সংগ্রাম করতে হচ্ছে।’

আরও পড়ুন:
ভারতের বাঁচা-মরার লড়াই, সামনে শ্রীলঙ্কা
শ্রীলঙ্কায় ফিরলেন পালিয়ে বিদেশ যাওয়া গোতাবায়া
শ্রীলঙ্কার দশা করেছিল বিএনপি, টেনে তুলেছি: প্রধানমন্ত্রী
‘আফগানিস্তানের চেয়ে সহজ প্রতিপক্ষ বাংলাদেশ’
এশিয়া কাপ: উদ্বোধনী ম্যাচে জয় চায় দুই দলই

মন্তব্য

আরও পড়ুন

আন্তর্জাতিক
3 criminals are waiting to kill me Imran Khan

আমাকে হত্যার অপেক্ষায় ওই তিনজন: ইমরান

আমাকে হত্যার অপেক্ষায় ওই তিনজন: ইমরান পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। ছবি: সংগৃহীত
শেষ পর্যন্ত লড়াই চালিয়ে যাওয়ার কথা জানিয়ে ইমরান খান বলেন, ‘দেশের ইতিহাস সাক্ষ্য দেবে ইমরান শেষ বল পর্যন্ত লড়াই চালিয়ে গেছে।’

পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান দাবি করেছেন, তাকে হত্যাচেষ্টায় অভিযুক্ত তিনজন আবারও তার ওপর হামলার অপেক্ষায় রয়েছে।

শনিবার রাওয়ালপিন্ডিতে এক সমাবেশে ইমরান এমনটি জানান। লং মার্চে গুলিবিদ্ধ হওয়ার পর পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের এটি প্রথম সমাবেশে ভাষণ। পাকিস্তানভিত্তিক সংবাদমাধ্যম ডনের প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

আগাম নির্বাচনের দাবিতে চলতি মাসের শুরুতে পাঞ্জাব প্রদেশের ওয়াজিরাবাদে আয়োজিত ইসলামাবাদ অভিমুখী লং মার্চে ইমরান খানের ওপর বন্দুক হামলা চালানো হয়। তার পায়ে গুলি লাগে। এই হামলার জন্য তিনজনকে দায়ী করেন ইমরান খান। তারা হলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শেহবাজ শরিফ, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রানা সানাউল্লাহ ও সেনা কর্মকর্তা মেজর জেনারেল ফয়সাল।

রাওয়ালপিন্ডিতে দেয়া ভাষণে ইমরান খান জানান, তিনি মৃত্যুকে খুব কাছ থেকে দেখেছেন। হামলার সময় তার মাথার ওপর দিয়ে বুলেট চলে যায় বলেও জানান পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী।

ইমরান বলেন, ‘যখন আমি পড়ে গেলাম, তখনই বুঝতে পেরেছি আল্লাহ আমাকে বাঁচিয়েছেন।’



সমাবেশে ভাষণে দলের কর্মীদের মৃত্যুভয় কাটানোর আহ্বান জানান পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ দলের প্রধান ইমরান খান।

তিনি বলেন, ‘ভয় পুরো জাতিকে দাস বানিয়ে রাখে।’

কারবালায় হযরত ইমাম হাসান (রা.) শহীদ হওয়ার ঘটনা তুলে ধরে ইমরান বলেন, ‘কর্তৃপক্ষের প্রতিশোধের ভয়ে সেদিন কুফাবাসী তার সাহায্যে এগিয়ে আসেনি।’

পাকিস্তানের কোনো সংসদেই পিটিআইর আর কোনো সদস্য থাকবে না বলেও জানান ইমরান । তিনি বলেন, ‘আমরা এই ব্যবস্থার অংশ হব না। আমরা সবাই এসব দুর্নীতিগ্রস্ত সংসদ থেকে পদত্যাগের সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

পাকিস্তানের সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানগুলো অতীত থেকে শিক্ষা নেয় না বলেও মন্তব্য করেন ইমরান খান। তিনি অভিযোগ করে বলেন, নির্বাচন কমিশন বর্তমান সরকারের সঙ্গে যুক্ত হয়ে তার বিরুদ্ধে দাঁড়িয়েছে। তবে জনগণ দৃঢ়ভাবে জানিয়ে দিয়েছে যে তারা পিটিআইয়ের সঙ্গে আছে।

আরও পড়ুন: শেখ মুজিবের মতো লড়ছি: ইমরান খান

ইমরান খান বলেন, ‘আমার মনে আছে পূর্ব পাকিস্তানে কী ঘটেছিল…আমরা তাদের সঙ্গে বা পাকিস্তানের সবচেয়ে বড় রাজনৈতিক দলের সঙ্গে ন্যায়বিচার করিনি এবং আমরা অতীত থেকেও শিক্ষা নেইনি।’

পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী দাবি করেন, সম্পদের অভাব নয়, বরং শুরু থেকেই আইনের শাসন না থাকার কারণে তার দেশে সমস্যা তৈরি হয়েছে।

শরিফ ও জারদারি পরিবার জাতীয় স্বার্থ উপেক্ষা করে নিজেদের স্বার্থের জন্য গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলেও অভিযোগ করেন ইমরান।

ভাষণে করোনা মহামারিতে নিজ দলের কর্মকাণ্ডের প্রশংসা করেন ইমরান খান। তিনি বলেন, ‘ওই সময় লকডাউন দেয়ার জন্য বিরোধীরা অনবরত বলে আসছিল। তবে দিনমজুর এবং শ্রমিকদের কথা চিন্তা করে তা দেয়া হয়নি।’

পাকিস্তানের ক্ষমতাশালীদের আইনের আওতায় আনতে না পারাকে নিজের ব্যর্থতা বলেও জানান পিটিআই প্রধান। তিনি বলেন, ‘যেসব প্রতিষ্ঠান তাদের আইনের আওতায় আনতে পারত, তারা তা করেনি। বরং তারা অপরাধীদের সঙ্গে চুক্তি করছে।’

ভাষণে শেষ পর্যন্ত লড়াই চালিয়ে যাওয়ার প্রত্যয় জানিয়ে ইমরান বলেন, ‘দেশের ইতিহাস সাক্ষ্য দেবে, ইমরান শেষ বল পর্যন্ত লড়াই চালিয়ে গেছে।’

আরও পড়ুন:
ইমরানের ওপর হামলার নিন্দা ক্রিকেটারদের
গুলিবিদ্ধ ইমরান, পাকিস্তানজুড়ে প্রবল বিক্ষোভ
রাতেও কেন ইমরান খানের চোখে সানগ্লাস
ইমরানের লং মার্চে লাইভ দিতে গিয়ে নারী সাংবাদিক নিহত
গ্রেপ্তারের ভয় ‘আপাতত কাটল’ ইমরানের

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Indias first 3D planetarium is opening on December 2

ভারতের প্রথম থ্রিডি তারামণ্ডল উন্মুক্ত হচ্ছে ২ ডিসেম্বর

ভারতের প্রথম থ্রিডি তারামণ্ডল উন্মুক্ত হচ্ছে ২ ডিসেম্বর হাওড়া পৌরসভার উদ্যোগে তৈরি দেশটির প্রথম থ্রিডি তারামণ্ডল
প্রায় ১৪ কোটি টাকা ব্যয়ে হাওড়া শরৎ সদনের কাছে তৈরি এই অ্যাস্ট্রোনমিক্যাল রিসার্চ সেন্টারটি গত অক্টোবরে উদ্বোধন করেছিলেন কলকাতার মেয়র ও রাজ্যের পৌর ও নগরোন্নয়ন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। কিন্তু কিছু যান্ত্রিক ত্রুটির জন্য এটি সেসময় খুলে দেয়া যায়নি।

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের হাওড়া পৌরসভার উদ্যোগে তৈরি দেশটির প্রথম থ্রিডি তারামণ্ডল সবার জন্য উন্মুক্ত করা হবে আগামী ২ ডিসেম্বর।

প্রায় ১৪ কোটি রূপি ব্যয়ে হাওড়া শরৎ সদনের কাছে তৈরি এই অ্যাস্ট্রোনমিক্যাল রিসার্চ সেন্টারটি গত অক্টোবরে উদ্বোধন করেছিলেন কলকাতার মেয়র ও রাজ্যের পৌর ও নগরোন্নয়ন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। কিন্তু কিছু যান্ত্রিক ত্রুটির জন্য সেসময় সাধারণের জন্য খুলে দেয়া যায়নি এ তারামণ্ডল।

হাওড়া পৌরসভা কর্তৃপক্ষ জানায়, এখন দর্শকদের জন্য প্রস্তুত এই থ্রিডি তারামণ্ডল। থ্রিডি অ্যানিমেশন ও অন্যান্য প্রযুক্তিগত দিকগুলো ঠিক করতে দেশি-বিদেশি বিভিন্ন সংস্থা একসঙ্গে কাজ করেছে। কলকাতার বিড়লা তারামণ্ডলের মতো এখানেও প্রদর্শনীর বিভিন্ন সময় থাকছে। বেলা তিনটা, বিকেল চারটা এবং বিকেল পাঁচটা, আপাতত এই তিনটি শো চলবে। প্রবেশ মূল্য ছোটদের জন্য ৭০ রুপি এবং বড়দের জন্য ১২০ রুপি। উন্নত থ্রিডি অ্যানিমেশনের মাধ্যমে মহাকাশের বিভিন্ন বস্তু সম্পর্কে জানা যাবে এখানে।

হাওড়া পৌরসভার প্রশাসক বোর্ডের চেয়ারম্যান সুজয় চক্রবর্তী বলেন, ‘উদ্বোধন হয়ে গিয়েছিল। প্রযুক্তিগত কিছু কাজ বাকি ছিল। ১০০ টির মতো আসন রয়েছে এখানে। বিরতির সময় নিয়ে প্রত্যেকটি শো হবে ৪৫ মিনিটের। অডিটোরিয়ামের বেশ কিছু কঠোর নিয়ম মানতে হবে দর্শকদের। এটা দেশের প্রথম থ্রিডি প্ল্যানেটোরিয়াম। আশা করি শীতের ছুটিতে প্রচুর মানুষ এখানে আসবেন। আমরা চাই, স্কুল পড়ুয়ারা এখানে আসুক। তাদের ভালো লাগবে।’

হাওড়ার বাসিন্দা অনিল মাঝি বলেন, ‘আমাদের হাওড়ার জন্য এটা গর্বের বিষয়। ছেলেমেয়েকে নিয়ে অবশ্যই প্রথম দিন, প্রথম শো দেখতে যাব।’

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
The remains found in the suitcase are the polices idea of ​​Shraddha

স্যুটকেসে দেহাবশেষ, পুলিশের ধারণা শ্রদ্ধার

স্যুটকেসে দেহাবশেষ, পুলিশের ধারণা শ্রদ্ধার শ্রদ্ধা ওয়াকার। ছবি: সংগৃহীত
পুলিশ জানায়, মরদেহটি কয়েক মাস আগের। তবে এটি পুরুষ না নারীর তা এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

ভারতের হরিয়ানার ফরিদাবাদে একটি স্যুটকেসে পাওয়া গেছে দেহাবশেষ। স্থানীয় পুলিশ ধারণা করছে, এটি ভারতের ফুড ব্লগার ও সোশ্যাল মিডিয়া ইনফ্লুয়েন্সার আফতাব আমিন পুনাওয়ালার বান্ধবী শ্রদ্ধা ওয়াকারের। এনডিটিভির প্রতিবেদনে শুক্রবার এ তথ্য জানানো হয়।

মুম্বাইয়ের বাসিন্দা ২৮ বছরের যুবক আফতাব পুনাওয়ালা তার লিভ ইন পার্টনার ২৬ বছরের শ্রদ্ধা ওয়াকারের সঙ্গে দিল্লির ছাতারপুর এলাকার একটি ভাড়া বাসায় থাকতেন। চলতি বছরের ১৮ মে তাদের মধ্যে তুমুল ঝগড়া হয়। এক পর্যায়ে সেদিন শ্রদ্ধাকে শ্বাসরোধে হত্যা করেন আফতাব। তারপর মরদেহ ৩৫ টুকরো করে সেগুলোকে রাখার জন্য ৩০০ লিটারের একটি ফ্রিজ কেনেন তিনি। পরের ১৮ দিনে মেহরাউলি জঙ্গলের বিভিন্ন এলাকায় টুকরোগুলো ফেলে আসেন আফতাব।

৮ নভেম্বর শ্রদ্ধার বাবা বিকাশ মদন ওয়াকার মেয়ের খোঁজে মেহরাউলি পুলিশের কাছে অপহরণের অভিযোগ করেন। তার ভিত্তিতে ১২ নভেম্বর আফতাবকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। জেরার মুখে তিনি হত্যার করা স্বীকার করেন। জানান, শ্রদ্ধা তাকে বিয়ে করতে চেয়েছিল। এ নিয়ে ঝগড়ার এক পর্যায়ে শ্রদ্ধাকে তিনি খুন করেন।

ফরিদাবাদ পুলিশ এই দেহাবশেষ উদ্ধারের পর দিল্লি পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করেছে। পুলিশ জানায়, দেহাবশেষ প্লাস্টিকের ব্যাগ এবং বস্তায় মোড়ানো ছিল। ওই স্যুটকেসের পাশ থেকে কিছু কাপড় ও একটি বেল্ট পাওয়া গেছে।

বিবৃতিতে ফরিদাবাদ পুলিশ জানায়, মরদেহ যেন শনাক্ত করা না যায়, সে কারণে অন্য কোথাও খুনের পর মরদেহ এখানে ফেলে দেয়া হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

দিল্লি পুলিশের ধারণা, এই মরদেহ শ্রদ্ধা ওয়াকার হত্যামামলার সঙ্গে সম্পর্কিত।

পুলিশ জানায়, মরদেহটি কয়েক মাস আগের। তবে এটি পুরুষ না নারীর তা এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

একটি সূত্র বার্তা সংস্থা এএনআইকে জানায়, ফরিদাবাদ পুলিশ ফরেনসিক পরীক্ষার জন্য নমুনা সংগ্রহ করেছে। দিল্লি পুলিশও ডিএনএ টেস্ট করবে।

এদিকে শুক্রবার পুলিশ জানায়, দিল্লির বাসায় বান্ধবী শ্রদ্ধা ওয়াকারকে হত্যার পর আফতাব আমিন পুনাওয়ালা পাঁচটি ছুরি দিয়ে দেহ টুকরা করেন । দিল্লি পুলিশ পাঁচ থেকে ছয় ইঞ্চি লম্বা পাঁচটি ছুরি উদ্ধার করেছে, যেগুলোকে ফরেনসিক পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে।

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Kolkata Film Festival begins on December 15

কলকাতা চলচ্চিত্র উৎসব শুরু ১৫ ডিসেম্বর

কলকাতা চলচ্চিত্র উৎসব শুরু ১৫ ডিসেম্বর ফাইল ছবি
মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে হবে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। উপস্থিত থাকতে পারেন, পশ্চিমবঙ্গের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসাডর, বলিউড অভিনেতা শাহরুখ খান। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকতে পারেন অমিতাভ বচ্চন ও জয়া বচ্চন । রাজ্যপাল সিভি আনন্দ বোসকেও আমন্ত্রণ জানানো হবে।’

২৮তম আন্তর্জাতিক কলকাতা চলচ্চিত্র উৎসব শুরু হচ্ছে আগামী ১৫ ডিসেম্বর। চলবে ২২ ডিসেম্বর পর্যন্ত।

বৃহস্পতিবার রাজ্য বিধানসভার শীতকালীন অধিবেশনে যোগ দেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। সেখান থেকে বেরিয়ে যাওয়ার সময় সাংবাদিকদের প্রশ্নে ওই তথ্য জানান তিনি।

মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে হবে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। উপস্থিত থাকতে পারেন, পশ্চিমবঙ্গের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসাডর, বলিউড অভিনেতা শাহরুখ খান। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকতে পারেন অমিতাভ বচ্চন ও জয়া বচ্চন । রাজ্যপাল সিভি আনন্দ বোসকেও আমন্ত্রণ জানানো হবে।’

তিনি জানান, তবে ওইদিন কোন কোন বিশিষ্ট ব্যক্তি উপস্থিত থাকবেন তা এখনো নিশ্চিত নয়। অনেকেই প্রাথমিকভাবে উপস্থিত থাকার জন্য সম্মতি জানিয়েছেন।

কলকাতা চলচ্চিত্র উৎসবের ওয়েবসাইটে ১৫ ডিসেম্বর উৎসব শুরু এবং ২২ ডিসেম্বর সমাপ্তি বলে ঘোষণা করা হয়েছে। ৭ দিন ধরে কলকাতা শহরের বিভিন্ন হলে দেখানো হবে দেশি-বিদেশি বিভিন্ন চলচ্চিত্র। এজন্য প্রতিবছরের মতো সব বিভাগের জন্য চলচ্চিত্র জমা নেয়ার কাজ শুরু হয়েছে। জমা নেয়ার শেষ দিন ১৫ ডিসেম্বর।

ওয়েবসাইট অনুযায়ী, আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতামূলক বিভাগে থাকছে মুভিং ইমেজে উদ্ভাবনী দৃষ্টান্ত। ভারতীয় ভাষায় তৈরি ছবির প্রতিযোগিতা, তথ্যচিত্র ও স্বল্পদৈর্ঘ্যের ছবির প্রতিযোগিতা ছাড়াও শুধু চলচ্চিত্র প্রদর্শনের জন্য বিভাগ থাকছে।

আরও পড়ুন:
কলকাতায় বাংলাদেশ বইমেলা ২ ডিসেম্বর
হেমন্তে কলকাতায় শীতের আমেজ
কলকাতায় শুরু চতুর্থ বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উৎসব

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Aftabs girlfriend cut with 5 knives Police

৫ ছুরি দিয়ে বান্ধবীকে টুকরা আফতাবের: পুলিশ

৫ ছুরি দিয়ে বান্ধবীকে টুকরা আফতাবের: পুলিশ আফতাব পুনাওয়ালা ও তার বান্ধবী শ্রদ্ধা ওয়াকার। ছবি: সংগৃহীত
পুলিশের বরাত দিয়ে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, চলতি বছরের শুরুতে দক্ষিণ দিল্লির মেহরুলি এলাকার বাসায় শ্রদ্ধাকে শ্বাসরোধে হত্যা করেন ফুড ব্লগার ও সোশ্যাল মিডিয়া ইনফ্লুয়েন্সার আফতাব। পরে মরদেহ ৩৫ টুকরা করে ৩০০ লিটার ধারণক্ষমতার ফ্রিজে প্রায় তিন সপ্তাহ রাখেন। ফ্রিজ থেকে টুকরাগুলো কয়েক দিন ধরে শহরের বিভিন্ন জায়গায় ফেলেন তিনি।

ভারতের দিল্লির বাসায় বান্ধবী শ্রদ্ধা ওয়াকারকে হত্যার পর আফতাব আমিন পুনাওয়ালা পাঁচটি ছুরি দিয়ে দেহ টুকরা করেন বলে জানিয়েছে পুলিশ।

এনডিটিভির শুক্রবারের প্রতিবেদনে বলা হয়, দিল্লি পুলিশ পাঁচ থেকে ছয় ইঞ্চি লম্বা পাঁচটি ছুরি উদ্ধার করেছে, যেগুলোকে ফরেনসিক পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে।

পুলিশের বরাত দিয়ে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, চলতি বছরের শুরুতে দক্ষিণ দিল্লির মেহরুলি এলাকার বাসায় শ্রদ্ধাকে শ্বাসরোধে হত্যা করেন ফুড ব্লগার ও সোশ্যাল মিডিয়া ইনফ্লুয়েন্সার আফতাব। পরে মরদেহ ৩৫ টুকরা করে ৩০০ লিটার ধারণক্ষমতার ফ্রিজে প্রায় তিন সপ্তাহ রাখেন। ফ্রিজ থেকে টুকরাগুলো কয়েক দিন ধরে শহরের বিভিন্ন জায়গায় ফেলেন তিনি।

এ হত্যাকাণ্ড নিয়ে বৃহস্পতিবার প্রথমবারের মতো মন্তব্য করেন ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। তিনি যত দ্রুত সম্ভব দোষীকে কঠোর সাজার আওতায় আনার আশ্বাস দেন।

এদিকে বিরোধী দল কমিউনিস্ট পার্টি অফ ইন্ডিয়া-মার্ক্সবাদী (সিপিআই-এম) অভিযোগ করেছে, শ্রদ্ধার হত্যাকে ‘সাম্প্রদায়িক প্রপাগান্ডা’ তৈরিতে কাজে লাগানো হচ্ছে।

বার্তা সংস্থা প্রেস ট্রাস্ট অফ ইন্ডিয়ার (পিটিআই) খবরে জানানো হয়, বৃহস্পতিবার দ্বিতীয়বারের মতো পলিগ্রাফ পরীক্ষা করা হয় আফতাব পুনাওয়ালার। দিল্লির ফরেনসিক ল্যাবে পরীক্ষাটি দুপুর ১২টায় শুরু হয়ে প্রায় ৮ ঘণ্টা ধরে চলে।

একটি সূত্রের বরাত দিয়ে সংবাদমাধ্যমটি জানায়, পুরো পরীক্ষার সময় হত্যাকাণ্ডের খুঁটিনাটি বিষয়ে আফতাবকে জিজ্ঞাসা করা হয়। বান্ধবীকে কেন হত্যা করলেন, এটা পরিকল্পিত ছিল কি না কিংবা ক্ষোভ থেকে তিনি এটা করেছেন কি না, সে বিষয়গুলো জানতে চাওয়া হয় তার কাছে।

আরও পড়ুন:
বুলবুল হত্যা, শাবিতে ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটি
যৌনকর্মী নিয়ে ব্যবসার জেরে হত্যা
নূর হোসেনকে আদালতে না নেয়ায় জেল সুপারকে শোকজ
চাঁদাবাজি মামলায় খালাস পেলেন নূর হোসেন
‘চাচাতো ভাইয়ের’ ছুরিকাঘাতে যুবক খুন

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
In another caste marriage is the result of life

অন্য বর্ণে বিয়ের খেসারত জীবন দিয়ে

অন্য বর্ণে বিয়ের খেসারত জীবন দিয়ে গত সপ্তাহে আয়ুশি চৌধুরীর মৃতদেহ উদ্ধার হয়। ছবি: সংগৃহীত
প্লাস্টিকে মোড়ানো আয়ুশির দেহটি একটি লাল স্যুটকেসে বন্দি অবস্থায় শুক্রবার উত্তর ভারতের মথুরা শহরের কাছে পাওয়া যায়। এ ঘটনায় গ্রেপ্তার করা হয়েছে আয়ুশির বাবা নীতেশ কুমার যাদব এবং মা ব্রজবালাকে। পুলিশের ধারণা, অনার-কিলিংয়ের শিকার হয়েছেন মেয়েটি।   

আয়ুশি চৌধুরীর ২২তম জন্মদিন আগামী ১ ডিসেম্বর। দিনটা আর উদযাপন করা হবে না তার। কারণ ৯ দিন আগে পুলিশের সামনেই আয়ুশির মরদেহ দাহ করা হয়েছে।

প্লাস্টিকে মোড়ানো আয়ুশির দেহটি একটি লাল স্যুটকেসে বন্দি অবস্থায় শুক্রবার উত্তর ভারতের মথুরা শহরের কাছে পাওয়া যায়। এ ঘটনায় গ্রেপ্তার করা হয়েছে আয়ুশির বাবা নীতেশ কুমার যাদব এবং মা ব্রজবালাকে। পুলিশের ধারণা, অনার-কিলিংয়ের শিকার হয়েছেন মেয়েটি।

সম্মান রক্ষার্থে হত্যা বা অনার-কিলিং হলো কাউকে নিজের পরিবার বা গোত্রের সম্মানহানির দায়ে ওই পরিবার বা গোত্রের অপর ব্যক্তি কর্তৃক হত্যা করা। এর মাধ্যমে এই সম্মানহানির উপযুক্ত প্রতিকার হয় বলে মনে করা হয়। পৃথিবীর বিভিন্ন জায়গায় অনার কিলিং সংঘটিত হলেও, ভারতে এই প্রবণতা সবচেয়ে বেশি। এই অনার কিলিংয়ের প্রধান শিকার নারীরা।

পুলিশের অভিযোগ, রাজধানী দিল্লির কাছে নিজ বাড়িতে ১৭ নভেম্বর বাবার গুলিতে নিহত হন আয়ুশি। অন্য জাতের এক পুরুষকে বিয়ে করা নিয়ে সেদিন পরিবারের সঙ্গে তর্কাতর্কি হয়েছিল আয়ুশির। খুনের পর তার বাবা-মা মরদেহ যমুনা এক্সপ্রেসওয়ের কাছে ফেলে এসেছিলেন।

দম্পতি এখন পুলিশ হেফাজতে। তবে তারা এখন পর্যন্ত কিছু শিকার করেননি। পুলিশ মামলাটি তদন্ত করছে।

নৃশংস এই হত্যাকাণ্ড গোটা ভারতকে নাড়িয়ে দিয়েছে। দক্ষিণ এশিয়ার দেশটিতে বছরে নারীর প্রতি সহিংসতার লাখ লাখ অভিযোগ জমা পড়ে।

অন্য বর্ণে বিয়ের খেসারত জীবন দিয়ে
ঘরের তাকে সুন্দর করে সাজানো আয়ুশির বইগুলো

বিবিসি হিন্দি যখন দক্ষিণ-পূর্ব দিল্লির বদরপুরে আয়ুশির বাড়িতে যায়, তখন স্বাভাবিকভাবে ব্যস্ত পাড়াটি হতাশায় আচ্ছন্ন ছিল। এক প্রতিবেশী জানান, আয়ুশির কী হয়েছে শুনে দুদিন ধরে তিনি ঠিকমতো খাননি।

‘সে পড়াশোনায় খুব ভালো ছিল, হাই স্কুলের পরীক্ষায় অনেক ভালো নম্বর পেয়েছিল’... তিনি স্মরণ করেন।

আয়ুশি একটি বেসরকারি কলেজ থেকে কম্পিউটার অ্যাপ্লিকেশনে স্নাতক করছিলেন। সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার হওয়ার স্বপ্নে বিভোর ছিলেন।

বাড়ির প্রথম তলায় ছিল আয়ুশি ঘর। এখানে তার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনার ছাপ পাওয়া যায়। প্রতিটি আসবাবে ছড়িয়ে আছে আয়ুশির দৈনন্দিন জীবনের ছোট ছোট আনন্দ... জাগতিকতা।

অন্য বর্ণে বিয়ের খেসারত জীবন দিয়ে
এই লাল স্যুটকেসটিতে পাওয়া যায় আয়ুশির মরদেহ

এখনও আয়ুশির বইগুলো তার পড়ার টেবিলের তাকে সুন্দর করে সাজানো রয়েছে। দেয়ালে ঝুলছে বাবা-মা, ছোট ভাই আর দাদির সঙ্গে আয়ুশির হাস্যোজ্জ্বল একটি ছবি।

ছোট্ট আলমারিটাতে থাকা নেইলপলিশ, লিপস্টিকসহ সাজসজ্জার জিনিসগুলো আর ব্যবহার করা হবে না আয়ুশির। তার বিছানার কাছে ঝুলে থাকা ডোরেমন পুতুলটি যেন এখনও খুঁজছে আয়ুশিকে।

আয়ুশির দাদি জামবন্তি জানান, শান্ত স্বভাবের মেয়ে ছিল আয়ুশি। বেশির ভাগ সময় তার ঘরে পড়াশোনায় মগ্ন থাকত তার নাতনি।

মামলার বিষয়ে জানতে চাইলে জামবন্তি বলেন, ‘গত ১৫ হাসপাতালে ছিলাম। যখন আমি ফিরে আসি, তখন পুলিশ এসে আমার ছেলে ও পুত্রবধূকে ধরে নিয়ে যায়।’

অন্য বর্ণে বিয়ের খেসারত জীবন দিয়ে
আয়ুশির ঘরের দেয়ালে ঝুলছে তার খেলনাগুলো

পুলিশের বরাতে ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের খবরে বলা হয়, আয়ুশি গত বছর তার বাবা-মায়ের ইচ্ছার বিরুদ্ধে অন্য বর্ণের এক পুরুষকে বিয়ে করেছিলেন।

পুলিশ কর্মকর্তারা বিবিসি হিন্দিকে বলেন, ‘এ বিষয়টি নিয়ে আয়ুশির সঙ্গে তার বাবা-মায়ের দূরত্ব সৃষ্টি হয়েছিল। যার ফলে প্রায়শই ঝগড়া হতো।’

পরিবারের দাবি, খুনের দিন আয়ুশি বাড়িতে কাউকে কিছু না জানিয়ে বাইরে চলে গিয়েছিলেন। ফিরে আসার পর তার বাবা ভীষণ খেপে যান।

ময়নাতদন্তে আয়ুশির মাথা, মুখ এবং শরীরের বিভিন্ন অংশে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। পুলিশ জানায়, বুকে দুবার গুলি করা হয়েছে আয়ুশিকে। এতেই তার মৃত্যু হয়।

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Police seized 200 kg of cannabis in the stomach of rats

থানার ২০০ কেজি গাঁজা ইঁদুরের পেটে!

থানার ২০০ কেজি গাঁজা ইঁদুরের পেটে!
আদালত জানায়, ইঁদুর ছোট প্রাণী এবং তাদের পুলিশের ভয় নেই। তাই তাদের কাছে থেকে মাদক রক্ষা করা কঠিন।

জব্দকৃত ২০০ কেজি গাঁজা ইঁদুর খেয়ে ফেলেছে বলে দাবি করেছে ভারতের উত্তর প্রদেশের পুলিশ। রাজ্যটির আদালতের বরাতে এ তথ্য জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি

আদালত জানায়, ইঁদুর ছোট প্রাণী এবং তাদের পুলিশের ভয় নেই। তাই তাদের কাছে থেকে মাদক রক্ষা করা কঠিন।

বিচারক সঞ্জয় চৌধুরী বলেন, ‘এক নির্দেশে পুলিশকে জব্দকৃত মাদকের প্রমাণ আদালতে জমা দেয়ার কথা বলা হয়েছিল। পরে পুলিশ জানায় প্রায় ১৯৫ কেজি গাঁজা ইঁদুর খেয়ে ফেলেছে।’

এর আগে গত মে মাসে উত্তর প্রদেশ থেকে ৩৮৬ কেজি গাঁজা জব্দ করে পুলিশ। তাও ইঁদুরের পেটেই গেছে বলে আদালতকে জানানো হয়েছিল। এ ঘটনায় আটকরা জেলে আছেন।

বিচারক সঞ্জয় চৌধুরী জানান, জব্দ করা প্রায় ৭০০ কেজি গাঁজা মথুরা জেলার থানায় পড়ে আছে। এগুলোও ইঁদুরের হুমকিতে রয়েছে।

ইঁদুরগুলো খুব ছোট হওয়ায়, তাদের ঠেকানোর দক্ষতা পুলিশের নেই বলেও জানায় আদালত।

উত্তর প্রদেশের মথুরা জেলার একজন জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা এমপি সিং অবশ্য বলছেন, ‘কিছু পুলিশ স্টেশনে জব্দকৃত গাঁজা বৃষ্টির কারণে নষ্ট হয়েছে। ইঁদুরের জন্য নয়।’

২০১৮ সালে ৫০০ কেজি গাঁজা লাপাত্তা হওয়ার ঘটনায় ইঁদুরকে দায়ী করে বরখাস্ত হন আর্জেন্টিনার ৮ পুলিশ। তবে বিশেষজ্ঞরা এই দাবির বিরোধিতা করে বলেছিলেন, যদি ইঁদুর এগুলো খেয়ে ফেলত তবে গুদামে সেগুলো মরে পড়ে থাকত।

২০১৯ সালে প্রকাশিত একটি গবেষণায় দেখা গেছে, ইঁদুর যখন গাঁজা খায় তখন সেগুলোর সক্রিয়তা কমে যায়; শরীরের তাপমাত্রাও নেমে যায়।

২০১৭ সালে ভারতের বিহার রাজ্যের পুলিশ দাবি করে, তাদের জব্দকৃত হাজার হাজার লিটার মদ খেয়ে ফেলেছে ইঁদুর।

মন্তব্য

p
উপরে