× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

আন্তর্জাতিক
Kadyrov hints at stepping down as head of Chechnya
hear-news
player
google_news print-icon

চেচনিয়ার প্রধানের পদ ছাড়ার ইঙ্গিত কাদিরভের

চেচনিয়ার-প্রধানের-পদ-ছাড়ার-ইঙ্গিত-কাদিরভের-
চেচেন যোদ্ধাদের সঙ্গে রমজান কাদিরভ। ছবি: সংগৃহীত
রমজান কাদিরভের পদত্যাগের ইঙ্গিতে তার বিরোধীদের আনন্দিত হওয়ার কিছু নেই। কারণ ২০১৬-এর ফেব্রুয়ারি ও ২০১৭-এর নভেম্বরেও তিনি পদ ছাড়ার ইঙ্গিত দিয়েছিলেন। আর দেখাই যাচ্ছে এখনও তিনি চেচনিয়া প্রজাতন্ত্রের প্রধান হিসেবেই রয়েছেন।   

চেচনিয়ায় ১৫ বছর ধরে শাসন চালানো রমজান কাদিরভ এবার সরে দাঁড়ানোর ইঙ্গিত দিলেন। তার বিরুদ্ধে বিরোধী, ভিন্নমতাবলম্বী, সমকামীদের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেয়ার অভিযোগ রয়েছে।

শনিবার রমজান কাদিরভ নিজস্ব টেলিগ্রাম চ্যানেলে ভিডিও বার্তায় বলেন, দীর্ঘ সময় অবস্থান (প্রজাতন্ত্রের প্রধান) ধরে রাখার পর তিনি ‘অনির্দিষ্টকালের ও দীর্ঘ ছুটি পাওয়ার যোগ্য।’

তিনি বলেছেন, বহিষ্কার করার আগেই পদত্যাগ করার বিষয়টি বিবেচনা করা উচিত।

এই বক্তব্যের মাধ্যমে তিনি মূলত পদ ছাড়ারই ইঙ্গিত দিয়েছেন।

বক্তব্যে কাদিরভ একটি চেচেন প্রবাদ উল্লেখ করে বলেন, ‘ককেশাসে আমাদের একটি প্রবাদ আছে, অতিথি যতই দীর্ঘ প্রতীক্ষিত হোক না কেন, তিনি সময়মতো চলে গেলে তা চমৎকার।

তবে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে অনেকে বলছেন, তার এমন ঘোষণায় কাদিরভ বিরোধীদের আনন্দিত হওয়ার কিছু নেই। কারণ ২০১৬-এর ফেব্রুয়ারি ও ২০১৭-এর নভেম্বরেও তিনি পদ ছাড়ার ইঙ্গিত দিয়েছিলেন। আর দেখাই যাচ্ছে, এখনও তিনি চেচনিয়া প্রজাতন্ত্রের প্রধান হিসেবেই রয়েছেন।

পিতা আখমাত কাদিরভের আততায়ীর হাতে মারা যাওয়ার পর খুব অল্প বয়সেই রমজান কাদিরভ চেচনিয়া প্রজাতন্ত্রের প্রধান হন।

তিনি রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের ঘনিষ্ঠ মিত্র হিসেবে পরিচিত। তার রাজনৈতিক দলের নাম ইউনাইটেড রাশিয়া।

ইউক্রেন যুদ্ধ শুরুর পর কাদিরভ নেতৃত্বাধীন বাহিনীও রাশিয়ার হয়ে যুদ্ধ করছে।

আরও পড়ুন:
জনগণকে ঢাল বানানোয় ইউক্রেনের সমালোচনা অ্যামনেস্টির
যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে বন্দি বিনিময়ে রুশ মন্ত্রীর ইঙ্গিত
খাদ্যশস্যের আরও ৩ জাহাজ ইউক্রেন ছাড়বে আজ
‘নিয়ন্ত্রণের বাইরে ইউরোপের সবচেয়ে বড় পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র’
তুর্কিয়ের ড্রোন প্রকল্পে থাকতে চায় রাশিয়া

মন্তব্য

আরও পড়ুন

আন্তর্জাতিক
Chaos at football field in Indonesia 129 killed in stampede

ইন্দোনেশিয়ায় ফুটবল মাঠে হাঙ্গামা: পদদলিত হয়ে ১২৫ মৃত্যু

ইন্দোনেশিয়ায় ফুটবল মাঠে হাঙ্গামা: পদদলিত হয়ে ১২৫ মৃত্যু ইন্দোনেশিয়ার উত্তর জাভা প্রদেশে মাঠে হাঙ্গামার সময় বিক্ষুব্ধ দর্শকদের সরানোর চেষ্টা করেন আইনশৃঙ্খলা ও নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা। ছবি: এএফপি
ইন্দোনেশিয়ার উত্তর জাভা প্রদেশে শনিবার রাতে আরেমা ফুটবল ক্লাব ও পেরসেবায়া সুরাবায়ার মধ্যে ম্যাচ চলছিল। ম্যাচ শেষে পরাজিত দলের সমর্থকরা মাঠে নেমে হাঙ্গামা শুরু করে। তাদের সরাতে পুলিশ কাঁদানে গ্যাসের শেল ছুড়লে অনেকে পদদলিত হয়। শ্বাসকষ্টও শুরু হয় অনেকের মধ্যে।

ইন্দোনেশিয়ার উত্তর জাভা প্রদেশে ফুটবল মাঠে পরাজিত দলের সমর্থকদের হাঙ্গামার সময় পদদলিত হয়ে ১২৫ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে নতুন আপডেটে জানিয়েছে দেশটির সরকার। শুরুতে সংখ্যাটা ১৭৪ বলে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলোকে জানিয়েছিল তারা। সংশোধনীতে পূর্ব জাভার ভাইস গভর্নর এমিল দারদাক জানান, নিহতদের তালিকায় অনেকের নাম দুইবার ওঠায় বিভ্রান্তির সৃষ্টি হয়েছিল।

স্থানীয় সময় শনিবারের ঘটনায় আহত হয়েছেন কমপক্ষে ১৮০ জন।

উত্তর জাভা পুলিশের প্রধান নিকো আফিন্তার বরাতে বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে জানানো হয়, শনিবার রাতে প্রদেশে আরেমা ফুটবল ক্লাব ও পেরসেবায়া সুরাবায়ার মধ্যে ম্যাচ চলছিল। ম্যাচ শেষে পরাজিত দলের সমর্থকরা মাঠে নেমে হাঙ্গামা শুরু করে। তাদের সরাতে পুলিশ কাঁদানে গ্যাসের শেল ছুড়লে অনেকে পদদলিত হয়। শ্বাসকষ্টও শুরু হয় অনেকের মধ্যে।

স্থানীয় টিভি চ্যানেলগুলোর ভিডিও ফুটেজে দেখা যায়, মালাং স্টেডিয়ামের দর্শক সারি থেকে লোকজন ফুটবল পিচের দিকে ছুটে যাচ্ছে। মাঠে মরদেহ বহনের ব্যাগও দেখা গেছে।

ইন্দোনেশিয়ায় ফুটবল ম্যাচকে কেন্দ্র করে দ্বন্দ্ব নতুন নয়। ক্লাবগুলোর মধ্যে তীব্র স্নায়ুযুদ্ধ কখনও কখনও সমর্থকদের সংঘর্ষে রূপ নেয়।

সর্বশেষ প্রাণহানির ঘটনার পর ইন্দোনেশিয়ার ক্রীড়ামন্ত্রী জাইনুদ্দিন আমালি স্থানীয় কম্পাসটিভিকে বলেন, ফুটবল ম্যাচের নিরাপত্তার বিষয়টি পুনর্মূল্যায়ন করবে মন্ত্রণালয়। মাঠে দর্শকদের প্রবেশে অনুমতি না দেয়ার বিষয়টিও পরিকল্পনায় রয়েছে।

ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন অফ ইন্দোনেশিয়া (পিএসএসআই) জানিয়েছে, মাঠে হাঙ্গামা ও প্রাণহানির পরিপ্রেক্ষিতে বিআরআই লিগা ওয়ানের ম্যাচগুলো এক সপ্তাহের জন্য স্থগিত করা হয়েছে। ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে।

লিগের সর্বশেষ ম্যাচে আরেমাকে ৩-২ গোলে হারায় পেরসেবেয়া।

আরও পড়ুন:
রান্নার তেলের চরম সংকট ইন্দোনেশিয়ায়
ইন্দোনেশিয়ার বারে সংঘর্ষ, নিহত ১৯
আবারও সেমেরুতে অগ্ন্যুৎপাত, পালাচ্ছেন উদ্ধারকর্মীরা
ইন্দোনেশিয়ায় অগ্ন্যুৎপাতে মৃত্যু বেড়ে ১৩
ইন্দোনেশিয়ায় অগ্ন্যুৎপাতে প্রাণহানি, এলাকা ছাড়ছে মানুষ

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Russia will not use nuclear weapons

‘পরমাণু অস্ত্র ব্যবহার করবে না রাশিয়া’

‘পরমাণু অস্ত্র ব্যবহার করবে না রাশিয়া’ ইউক্রেন সংঘাত শুরুর পর বিশ্বজুড়ে দেখা দিয়েছে পারমাণবিক যুদ্ধের শঙ্কা। ছবি: সংগৃহীত
পরমাণু অস্ত্র ব্যবহার করে নতুন ভুল রাশিয়া করবে না বলে বিশ্বাস করেন আমেরিকার প্রতিরক্ষামন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘পরমাণু অস্ত্রে সমৃদ্ধ কোনো দেশের কাছ থেকে এমন বক্তব্য কেউ আশা করে না। ইউক্রেনে অভিযানের মতো দায়িত্বজ্ঞানহীন সিদ্ধান্ত যে পুতিন নিয়েছেন, সেই পুতিন পরমাণু অস্ত্রও ব্যবহার করতে পারেন। তবে এই মুহূর্তে আমি এমন কিছু দেখতে পাচ্ছি না।’

হামলার শিকার হলেও ইউক্রেনে রাশিয়া পারমাণবিক অস্ত্র ব্যবহার করবে না বলে মনে করছেন আমেরিকার প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিন। সিএনএনকে দেয়া সাক্ষাৎকারে রোববার এ কথা জানান লয়েড।

ইউক্রেনে পরমাণু অস্ত্রের ব্যবহার হতে পারে, ক্রেমলিনের সাম্প্রতিক আচরণে এমন ইঙ্গিত মিলেছে। কদিন আগে রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিন জানিয়েছিলেন, রাশিয়া ও তার জনগণকে রক্ষায় পরমাণু অস্ত্র ব্যবহারের বিষয়টি গুরুত্বসহকারে দেখা হচ্ছে।

তবে পরমাণু অস্ত্র ব্যবহার করে নতুন ভুল রাশিয়া করবে না বলে বিশ্বাস করেন আমেরিকার প্রতিরক্ষামন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘পরমাণু অস্ত্রে সমৃদ্ধ কোনো দেশের কাছ থেকে এমন বক্তব্য কেউ আশা করে না। ইউক্রেনে অভিযানের মতো দায়িত্বজ্ঞানহীন সিদ্ধান্ত যে পুতিন নিয়েছেন, সেই পুতিন পরমাণু অস্ত্রও ব্যবহার করতে পারেন। তবে এই মুহূর্তে আমি এমন কিছু দেখতে পাচ্ছি না।’

‘পরমাণু অস্ত্র ব্যবহার করবে না রাশিয়া’
আমেরিকার প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিন

রুশ প্রতিরক্ষামন্ত্রী সের্গেই শোইগুর সঙ্গে সম্প্রতিক যোগাযোগ না হলেও আগেই তাকে ভুল পদক্ষেপের বিষয়ে সতর্ক করা হয়েছে বলে জানান আমেরিকার প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিন।

ইউক্রেনে গত মাসে পারমাণবিক অস্ত্র ব্যবহারের গুজন উড়িয়ে দিয়ে লয়েড বলেন, ‘এই খবরের ভিত্তি নেই। একটা দেশ তখনই পরমাণু অস্ত্রের দিকে ঝোঁকে, যখন তার সার্বভৌমত্ব হুমকিতে পড়ে।

রাশিয়ান ফেডারেশনে ঢুকতে পূর্ব ইউক্রেনের দোনেৎস্ক, লুহানস্ক, খেরসন ও জাপোরিজ্জা অঞ্চলের গণভোটকে অবৈধ বলছেন পেন্টাগন প্রধান। এই চার অঞ্চলকে শুক্রবার রাশিয়ায় অন্তর্ভুক্তির আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিয়েছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। এদিন একটি চুক্তি হয় এসব অঞ্চলের নেতাদের সঙ্গে। পার্লামেন্টের আনুষ্ঠানিকতা শেষে এই অঞ্চলগুলো ঢুকে পড়বে রাশিয়ার মানচিত্রে।

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে সামরিক অভিযান শুরু করে রাশিয়া। সেই থেকে পরমাণু অস্ত্রের বিষয়ে মস্কোকে সতর্ক করে আসছে ওয়াশিংটন। তবে ইউক্রেনের জাপোরোজিয়ে পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রে চলা গোলাগুলির কারণে বিশ্ব বড় ধরনের বিপর্যয়ের মুখে আছে বলে সতর্ক করেছেন অনেকেই।

যদি পরমাণু হামলা হয়, তবে ওয়াশিংটন কী প্রতিক্রিয়া দেখাবে তা স্পষ্ট করেনি পেন্টাগন। আমেরিকার প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছেন, পারমাণবিক অস্ত্র ব্যবহার করলে রাশিয়া গোটা বিশ্বের শত্রু হয়ে যাবে। সে সময়ের অবস্থা বিবেচনায় ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

আরও পড়ুন:
ইউক্রেনে ঢুকতে পারে ন্যাটো সেনা: পোল্যান্ডের মন্ত্রী
ইউক্রেন যুদ্ধ বন্ধে আলোচনা চায় ভারত ও চীন  
রুশ নিয়ন্ত্রিত অঞ্চলে ভোট দেয়া যাচ্ছে রাশিয়ার বিপক্ষেও
পারমাণবিক হুমকি মোকাবিলায় আগাম প্রস্তুতি পোল্যান্ডের
রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ থামান: জাতিসংঘে প্রধানমন্ত্রী

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
31 lives lost on road in Uttar Pradesh

উত্তর প্রদেশে সড়কে গেল ৩১ প্রাণ

উত্তর প্রদেশে সড়কে গেল ৩১ প্রাণ উত্তর প্রদেশের কানপুরে শনিবার রাতের দুই দুর্ঘটনায় অনেকে হতাহত হন। ছবি: এনডিটিভি
উত্তর প্রদেশের কানপুরের ঘাতামপুর এলাকার কাছে প্রায় ৫০ জন পুণ্যার্থীবাহী একটি ট্রাক্টর উল্টে পুকুরে পড়ে প্রথম দুর্ঘটনাটি ঘটে। ওই ঘটনায় কমপক্ষে ২৬ পুণ্যার্থী নিহত হয়, যাদের বেশির ভাগ নারী ও শিশু। এতে মারাত্মক আহত হয় ২০ জন।

ভারতের উত্তর প্রদেশের কানপুরে দুটি দুর্ঘটনায় কমপক্ষে ৩১ জন নিহত ও ২৭ জন আহত হয়েছে।

স্থানীয় সময় শনিবার রাতে এ দুটি দুর্ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছেন কর্মকর্তারা।

তাদের বরাত দিয়ে এনডিটিভির প্রতিবেদনে জানানো হয়, ঘাতামপুর এলাকার কাছে প্রায় ৫০ জন পুণ্যার্থীবাহী একটি ট্রাক্টর ট্রলি উল্টে পুকুরে পড়ে প্রথম দুর্ঘটনাটি ঘটে। ওই ঘটনায় কমপক্ষে ২৬ পুণ্যার্থী নিহত হয়, যাদের বেশির ভাগ নারী ও শিশু। এতে মারাত্মক আহত হয় ২০ জন।

রাজ্যের উন্নাও এলাকার চন্দ্রিকা দেবী মন্দির থেকে ফেরার পথে দুর্ঘটনার শিকার হয় ট্রাক্টরটি। আহত যাত্রীদের স্থানীয় একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

পুলিশ জানিয়েছে, দুর্ঘটনার পর দায়িত্বে অবহেলার জন্য সারহ থানার স্টেশন ইনচার্জকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

বার্তা সংস্থা এএনআইয়ের প্রতিবেদনে বলা হয়, দুর্ঘটনাস্থলে দেরিতে যাওয়ায় পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে এ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

ট্রাক্টর দুর্ঘটনার কয়েক ঘণ্টার মধ্যে কানপুরে একই ধরনের দ্বিতীয় ঘটনাটি ঘটে। আহিরওয়ান ফ্লাইওভারের কাছে টেম্পোকে ধাক্কা দেয় দ্রুতগামী একটি ট্রাক, যাতে পাঁচজন নিহত ও সাতজন আহত হয়।

পুলিশ জানিয়েছে, আহতদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

দুর্ঘটনায় ২৬ পুণ্যার্থী নিহতের ঘটনায় শোক প্রকাশ করেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তিনি নিহত প্রত্যেকের পরিবারকে ২ লাখ রুপি ক্ষতিপূরণ দেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন। এ ছাড়া আহত প্রত্যেককে ৫০ হাজার রুপি দেয়ার কথা বলেছেন।

আরও পড়ুন:
‘খেলা হবে’ দিবসের সেই এমপি এবার নেচে ভাইরাল
অবিবাহিতদের গর্ভপাতের অধিকারও সমান: ভারতের সুপ্রিম কোর্ট
বিপিন নিহতের ৯ মাস পর ভারতে নতুন প্রতিরক্ষাপ্রধান
বাংলাদেশের সঙ্গে টাকা-রুপিতে লেনদেনে ভারতের শীর্ষ ব্যাংকের নির্দেশ
‘খেলা হবে’ দিবসে শাড়ি পরে মাঠে নামা সেই এমপি ফের ভাইরাল

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
China India did not vote against Russia in the United Nations

জাতিসংঘে রাশিয়ার বিপক্ষে ভোট দেয়নি চীন-ভারত

জাতিসংঘে রাশিয়ার বিপক্ষে ভোট দেয়নি চীন-ভারত আফ্রিকার দেশ গ্যাবনও রাশিয়ার বিপক্ষে ভোটদানে বিরত থাকে। ছবি: সংগৃহীত
ইউক্রেনীয় অঞ্চল রাশিয়ায় যুক্ত করার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে জাতিসংঘে নিন্দা প্রস্তাব উত্থাপন করেছিল যুক্তরাষ্ট্র ও আলবেনিয়া। রাশিয়ার ভেটোতে প্রস্তাব পাস হয়নি। ক্রেমলিনের জন্য স্বস্তি এই যে, ইউক্রেনীয় অঞ্চল সংযুক্তির পরেও চীন ও ভারত তাদের বিপক্ষে ভোটদানে বিরত ছিল।

দোনেৎস্ক, লুহানস্ক, জাপোরিজ্জা ও খেরসনকে রাশিয়ার ভূখণ্ডে যুক্ত করার নিন্দা জানিয়ে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে প্রস্তাব উত্থাপন করেছিল আমেরিকা ও আলবেনিয়া।

তবে রাশিয়ার ভেটোর কারণে প্রস্তাব পাস হয়নি। একই সঙ্গে নিরাপত্তা পরিষদের স্থায়ী সদস্য চীন ভোটদানে বিরত থাকে।

নিরাপত্তা পরিষদের অস্থায়ী দেশ ভারত, ব্রাজিল ও গ্যাবন রাশিয়ার বিপক্ষে ভোট না দিয়ে ভোটদানে বিরত থাকে।

তবে প্রস্তাবের পক্ষে ভোট দিয়েছে আমেরিকা, আলবেনিয়া, যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স, ঘানা, আয়ারল্যান্ড, কেনিয়া, মেক্সিকো, নরওয়ে।

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি থেকে ইউক্রেনে চলছে রাশিয়ার সামরিক অভিযান। পশ্চিমারা রাশিয়ার ওপর একের পর এক নিষেধাজ্ঞা দিলেও চীন ও ভারত রাশিয়ার বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেয়নি। এর বদলে রাশিয়া থেকে রেকর্ড পরিমাণ জ্বালানি তেল কিনেছে দুই দেশই।

একই অবস্থা ব্রাজিলেরও। রাশিয়ার বিরুদ্ধে শক্ত অবস্থানে যেতে নারাজ দেশটি। উল্টো আসন্ন বৈশ্বিক অর্থনৈতিক মন্দা মোকাবিলায় রাশিয়ার সার, খাদ্যশস্য ও জ্বালানি ব্যবহার করতে চায় দেশটি।

এর আগে শুক্রবার ইউক্রেনের অঞ্চল দোনেৎস্ক, লুহানস্ক, খেরসন ও জাপোরিজ্জাকে রাশিয়ায় অন্তর্ভুক্তির আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন।

জাতিসংঘে রাশিয়ার বিপক্ষে ভোট দেয়নি চীন-ভারত
রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন

ক্রেমলিনে চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে দেয়া এক ভাষণে এই চার অঞ্চল রাশিয়ার সঙ্গে যুক্ত হওয়ার বিষয়ে পুতিন বলেছেন, এর মাধ্যমে এই অঞ্চলগুলোর বাসিন্দাদের স্বাধীন ইচ্ছাকে স্বীকৃতি দেয়া হয়েছে এবং তারাও তাদের ইতিহাস ও সংস্কৃতির অংশীদারদের সঙ্গে মিলিত হয়েছে।

ভাষণে পুতিন দাবি করেন, সোভিয়েত ইউনিয়ন ভাঙনের ফলে যে অন্যায় হয়েছে এই ৪ অঞ্চলের যুক্ত হওয়া কিছুটা হলেও সেই অন্যায় মেরামত করেছে।

পশ্চিমাদের আধিপত্যবাদী উল্লেখ করে পুতিন বলেছেন, তারা তাদের ইচ্ছাকে পুরো বিশ্বের ওপর চাপিয়ে দিতে চায় এবং তারা রাশিয়াকে উপনিবেশে পরিণত করতে চায়।

একই সঙ্গে তিনি নিশ্চয়তা দিয়েছেন নতুন যুক্ত হওয়া এই অঞ্চলের বাসিন্দারা রাশিয়ার নাগরিকত্ব পাবেন এবং রাশিয়া কখনোই এই সংযুক্তির বিষয়ে আপস করবে না।

তবে কিয়েভ বলছে, এই সংযুক্তি যুদ্ধক্ষেত্রে কোনো পরিবর্তন আনবে না। তারা রাশিয়ার দখলকৃত অঞ্চল ফিরিয়ে নিতে লড়াই চালিয়ে যাবে।

এর আগে এই চার অঞ্চলে ৫ দিনব্যাপী গণভোট অনুষ্ঠিত হয়। যদিও ইউক্রেন ও পশ্চিমারা বলে আসছিল, এই গণভোট ও গণভোটের ভিত্তিতে ইউক্রেনের ভূখণ্ড রাশিয়ায় সংযুক্তি কোনোভাবেই বৈধ নয়।

তবে পশ্চিমা বিধিনিষেধ তোয়াক্কা না করে এর আগেও ২০১৪ সালে ক্রিমিয়াকে নিজ ভূখণ্ডের সঙ্গে যুক্ত করে রাশিয়া।

ক্রেমলিনের মতে, ইউক্রেনের নব্য নাৎসিদের হাতে রুশভাষী নাগরিকরা নিরাপদ নয় এবং এই রুশভাষীদের রক্ষা করা রাশিয়ার দায়িত্ব।

এদিকে এই সংযুক্তিকে স্বীকৃতি দেয়া হবে না বলে জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমা বিশ্বের অনেক দেশ।

জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস নিউ ইয়র্ক সিটিতে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের বলেছেন, এর (চার অঞ্চলের রাশিয়ার সঙ্গে সংযুক্তি) কোনো আইনি ভিত্তি নেই।

এ ছাড়া ইউক্রেনের অঞ্চল রাশিয়ায় সংযুক্তির ঘটনা, যুদ্ধের গতিপ্রকৃতি নাটকীয়ভাবে পরিবর্তন করে দিতে পারে এবং সেই বিষয়টি জানেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন।

তাই মূল ভূখণ্ডে সংযুক্তির আগে তিনি আংশিক সেনা সমাবেশের ঘোষণা দিয়েছেন। ফলে ৩ লাখ নতুন সেনাকে এসব অঞ্চলে মোতায়েন করা হবে। প্রয়োজনে পারমাণবিক অস্ত্র ব্যবহারের প্রচ্ছন্ন ইংগিতও দিয়েছেন পুতিন।

এই চার অঞ্চল ইউক্রেনের মোট ভূখণ্ডের প্রায় ১৫ শতাংশ, আয়তন প্রায় ১ লাখ বর্গ কিলোমিটারের ওপর এবং কৃষি উৎপাদনের ১৩-১৫ শতাংশ এই অঞ্চলগুলোতেই উৎপন্ন হয়।

এ ছাড়া জাপোরিজ্জাতে রয়েছে ইউরোপের সবচেয়ে বড় পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র।

আরও পড়ুন:
ইউক্রেন যুদ্ধ বন্ধে আলোচনা চায় ভারত ও চীন  
রুশ নিয়ন্ত্রিত অঞ্চলে ভোট দেয়া যাচ্ছে রাশিয়ার বিপক্ষেও
পারমাণবিক হুমকি মোকাবিলায় আগাম প্রস্তুতি পোল্যান্ডের
রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ থামান: জাতিসংঘে প্রধানমন্ত্রী
অধিকৃত ইউক্রেনের ভোট থেকে যা চায় রাশিয়া

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Foreigners were also arrested in connection with protests in Iran

ইরানে বিক্ষোভের ঘটনায় বিদেশিদেরও গ্রেপ্তার

ইরানে বিক্ষোভের ঘটনায় বিদেশিদেরও গ্রেপ্তার মাহসা আমিনিকে নিয়ে চলমান বিক্ষোভে বিদেশি ইন্ধনের দাবি তুলেছে ইরানের কর্তৃপক্ষ। ছবি: সংগৃহীত
ইরানে চলমান বিক্ষোভের জন্য বিদেশি ইন্ধনকে দায়ী করেছে দেশটির কর্তৃপক্ষ। এরই মধ্যে অস্থিরতা সৃষ্টিতে জড়িত থাকার অভিযোগে দেশটিতে আটক করা হয়েছে ৯ ইউরোপীয় নাগরিককে। ইরানের গোয়েন্দা মন্ত্রণালয় বিদেশি আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

নৈতিকতা পুলিশের হেফাজতে কুর্দি তরুণী মাহসা আমিনির মৃত্যুর ঘটনায় ও পোশাকের স্বাধীনতার দাবিতে ছড়িয়ে পড়া বিক্ষোভে ব্যাপক ধরপাকড়ে এবার বিদেশিদের গ্রেপ্তার শুরু করেছে ইরানের আইনশৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনী।

এরই মধ্যে ৯ জন ইউরোপীয় নাগরিককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

ইরানের কর্তৃপক্ষের অভিযোগ, গ্রেপ্তার হওয়া ব্যক্তিদের চলমান অস্থিরতায় ভূমিকা পালনের কারণে আটক করা হয়েছে।

চলমান বিক্ষোভের জন্য ইরানি কর্তৃপক্ষ বিদেশি শত্রুদের দায়ী করছে।

আটক হওয়া ব্যক্তিরা জার্মানি, পোল্যান্ড, ইতালি, ফ্রান্স, নেদারল্যান্ডস, সুইডেন ও অন্যান্য দেশের নাগরিক।

তাদের গ্রেপ্তারের ঘটনা পশ্চিমা দেশগুলোর সঙ্গে ইরানের উত্তেজনা আরও বৃদ্ধি করতে পারে।

দেশটির গোয়েন্দা মন্ত্রণালয়ও ৯ জন আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

এদিকে ইরানের বিভিন্ন শহরে বিক্ষোভ চলছেই। পুলিশি ধরপাকড়েও থামছে না প্রতিবাদ। এরই মধ্যে ৮৩ জনের মৃত্যুর বিষয়টি জানা গেছে।

মানবাধিকার সংগঠন অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল ইরানের বর্তমান পরিস্থিতিতে আন্তর্জাতিক হস্তক্ষেপ কামনা করেছে।

মানবাধিকার গোষ্ঠী হেনগাও একটি ভিডিও পোস্ট করেছে, যাতে বলা হয়েছে যে শুক্রবার গভীর রাতে আমিনির নিজ শহর সাকেজে বিক্ষোভ দেখানো হয়েছে।

ইরানের হিজাব নিয়মের বিরুদ্ধে প্রতিবাদে যুবতী নারীদের মাথার স্কার্ফ খুলে ফেলার সময় উল্লাস করতে দেখা গেছে।

আরও পড়ুন:
যুক্তরাষ্ট্রে পোশাক রপ্তানিতে চীন-ভিয়েতনামকে ছাড়িয়ে বাংলাদেশ
ইরান বিক্ষোভে ভাইরাল সেই তরুণী কি গুলিতে নিহত?
বিক্ষোভ দমনে সীমান্ত পেরিয়েও ইরানি হামলা, ৯ কুর্দি নিহত
মাস্কের স্টারলিংক ইরানে কেন কাজ করবে না?
ইরান বিক্ষোভের পরিণতি কী?

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
What America said about Ukraines NATO membership

ইউক্রেনের ন্যাটোভুক্তির বিষয়ে যা জানাল আমেরিকা

ইউক্রেনের ন্যাটোভুক্তির বিষয়ে যা জানাল আমেরিকা ন্যাটোর সামরিক মহড়া। ছবি: সংগৃহীত
রাশিয়ার সঙ্গে চলমান সংঘাতের মধ্যেই ন্যাটোতে যোগদানের আবেদন করেছে ইউক্রেন। প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কির মতে, কিয়েভ কার্যত ন্যাটোর মিত্র, সে হিসেবে জোটটিতে দ্রুত যোগদান পদ্ধতির দাবিদার ইউক্রেন। তবে আমেরিকা মনে করে, ইউক্রেনে ন্যাটোতে যোগদানের এটি সঠিক সময় নয়।

পশ্চিমা সামরিক জোটে কোনো দেশের যুক্ত হওয়ার বিষয়ে ‘খোলা দরজা’ নীতিতে সব সময়ই প্রতিশ্রুতিবদ্ধ আমেরিকা। তবে বর্তমান পরিস্থিতিতে ইউক্রেনের সদস্যপদ আবেদন বিবেচনার এখন ভুল সময়।

শুক্রবার এক সংবাদ সম্মেলনে এমনটাই বলেছেন হোয়াইট হাউসের নিরাপত্তা উপদেষ্টা জ্যাক সুলিভান।

হোয়াইট হাউসে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, এই মুহূর্তে আমরা মনে করি, ইউক্রেনকে সমর্থন করার সবচেয়ে ভালো উপায় হলো দেশটিকে গ্রাউন্ড সাপোর্ট (অস্ত্র দিয়ে সহায়তা) করা, ব্রাসেলসের প্রক্রিয়াটি (ন্যাটোতে যুক্ত হওয়া) অন্য সময়ে নেয়া উচিত।

এদিকে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলদিমির জেলেনস্কি ন্যাটোতে যোগদানের আবেদন করেছেন।

তিনি দাবি করেছেন, কিয়েভ এরই মধ্যে কার্যত ন্যাটোর মিত্র, তাই এটি (ইউক্রেন) দ্রুত যোগদান পদ্ধতির দাবি করেছে।

ইউক্রেনের ন্যাটোভুক্তির বিষয়ে যা জানাল আমেরিকা
হোয়াইট হাউসের নিরাপত্তা উপদেষ্টা জ্যাক সুলিভান

ইউক্রেন বর্তমানে রাশিয়ার সঙ্গে যুদ্ধে লিপ্ত। এমন অবস্থায় দেশটির ন্যাটোতে যোগদান মানে রাশিয়ার সঙ্গে সরাসরি যুদ্ধে জড়িয়ে যাবে ন্যাটো। এমনটা চাইছে না পশ্চিমা এই সামরিক জোটটি।

এ ছাড়া ন্যাটোভুক্ত দেশ তুরস্কের সঙ্গে রাশিয়ার বেশ উষ্ণ সম্পর্ক রয়েছে। ইউক্রেন ও রাশিয়ার বিভিন্ন মধ্যস্ততায় দেশটিকে ভূমিকা পালন করতে দেখা গেছে।

সে ক্ষেত্রে আঙ্কারার পক্ষে ইউক্রেনকে ন্যাটোতে যোগদানের বিষয়ে সমর্থন দেয়াটা বেশ জটিল। যদিও ইউক্রেনের সঙ্গে তুরস্কের সামরিক খাতেও সম্পর্ক রয়েছে।

এমন পরিপ্রেক্ষিতে ইউক্রেনের ন্যাটোতে যোগদান এই মুহূর্তে সম্ভব নয় ইঙ্গিত দিয়ে ন্যাটোর মহাসচিব জেনস স্টলটেনবার্গ বলেছেন, ইউক্রেনকে ন্যাটোর সদস্য করতে হলে ন্যাটোভুক্ত ৩০ দেশেরই ঐকমত্য প্রয়োজন।

যদিও একই সঙ্গে স্টলটেনবার্গ ইউক্রেনের প্রতি অটল ও দৃঢ় সমর্থনের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

আরও পড়ুন:
রুশ নিয়ন্ত্রিত অঞ্চলে ভোট দেয়া যাচ্ছে রাশিয়ার বিপক্ষেও
পারমাণবিক হুমকি মোকাবিলায় আগাম প্রস্তুতি পোল্যান্ডের
রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ থামান: জাতিসংঘে প্রধানমন্ত্রী
অধিকৃত ইউক্রেনের ভোট থেকে যা চায় রাশিয়া
দোনবাস রক্ষায় রুশ পরমাণু অস্ত্র, ইউএস কমান্ডারের মতে পরমাণু যুদ্ধ সম্ভব

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
That MP of the day will be played is now viral in dance

‘খেলা হবে’ দিবসের সেই এমপি এবার নেচে ভাইরাল

‘খেলা হবে’ দিবসের সেই এমপি এবার নেচে ভাইরাল মহুয়া মৈত্র
নতুন প্রজন্মকে খেলাধুলায় উৎসাহ দিতে পশ্চিমবঙ্গ সরকার আয়োজিত ‘খেলা হবে’ দিবসে শাড়ি পরে ফুটবল নিয়ে মাঠে নেমে ভাইরাল হয়েছিলেন এই রাজনৈতিক নেত্রী। গত বছরের পর এবারও ভারতের স্বাধীনতা দিবসের পরদিন ১৬ আগস্ট এ দিবসে ফুটবলের মাঠে শাড়ি পরে নামা তার ছবি ছড়িয়ে পড়ে।

মাঝেমধ্যেই আলোচনায় আসেন ভারতের পশ্চিমবঙ্গের তৃণমূল কংগ্রেসের সংসদ সদস্য (এমপি) মহুয়া মৈত্র। তবে সবচেয়ে বেশি মানুষ তাকে বোধহয় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে চিনেছিল ‘খেলা হবে’ দিবসে। শাড়ি পরে ফুটবল নিয়ে মাঠে নেমেছিলেন তিনি।

এবার এই নেত্রী আলোচনায় এলেন দুর্গাপূজা উপলক্ষে নেচে। শুক্রবার মহাপঞ্চমীতে নদীয়ায় এক শোভাযাত্রায় নেচে সেই ভিডিও টুইটারে আপলোড করেছেন মহুয়া। এ নিয়ে ব্যাপক সাড়া পেয়েছেন তিনি।

হিন্দুস্তান টাইমস বলছে, ‘সোহাগ চাঁদ বদনী তুমি নাচো তো দেখি’ গানের তালে তালে কোমর দুলিয়েছেন মহুয়া। আরও অনেক নারীর সঙ্গে গলা মিলিয়ে রাস্তায় নাচতে নাচতে এগিয়ে যান তিনি।

‘খেলা হবে’ দিবসের সেই এমপি এবার নেচে ভাইরাল

এমপি মহুয়ার নাচের ভিডিও শেয়ার করেছেন অনেকেই। প্রশংসায় ভাসছেন তারা। কেউ লিখেছেন, আপনার এই শক্তিটাকে ভালোবাসি। আবার কেউ লিখেছেন, যেভাবে মানুষের সঙ্গে মেশেন এভাবেই থাকুন।

এর আগে নতুন প্রজন্মকে খেলাধুলায় উৎসাহ দিতে পশ্চিমবঙ্গ সরকার আয়োজিত ‘খেলা হবে’ দিবসে শাড়ি পরে ফুটবল নিয়ে মাঠে নেমে ভাইরাল হয়েছিলেন এই রাজনৈতিক নেত্রী। গত বছরের পর এবারও ভারতের স্বাধীনতা দিবসের পরদিন ১৬ আগস্ট এ দিবসে ফুটবলের মাঠে শাড়ি পরে নামা তার ছবি ছড়িয়ে পড়ে।

‘খেলা হবে’ দিবসের সেই এমপি এবার নেচে ভাইরাল

এরপর সর্বশেষ ১৮ সেপ্টেম্বর নদীয়া জেলার কৃষ্ণনগরে এমপি কাপ টুর্নামেন্টে তার শাড়ি পরে ফুটবলে লাথি দেয়ার ছবিও ভাইরাল হয়। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রশংসায় ভাসে তিনি। লালচে কমলা রঙের শাড়ি পরে মাঠে উপস্থিত হয়েছিলেন এমপি মহুয়া। চোখে ছিল সানগ্লাস, পায়ে জুতা।

২০০৮ সালে বিশ্বের অন্যতম শক্তিশালী ব্যাংকিং সংস্থা জেপি মরগানের ভাইস প্রেসিডেন্ট পদ ছেড়ে রাজনীতিতে নাম লেখান এই নারী। তিনি করিমপুর আসন থেকে বিধানসভা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে জয়ী হন।

‘খেলা হবে’ দিবসের সেই এমপি এবার নেচে ভাইরাল

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস জানিয়েছে, ‘খেলা হবে’ শব্দ দুটি গত বছরের হাইভোল্টেজ বিধানসভা নির্বাচনের সময় তৃণমূল কংগ্রেসের নির্বাচনী ‘ক্যাচলাইন’ ছিল। বিজেপিকে হারিয়ে টানা তৃতীয় মেয়াদে ক্ষমতায় ফিরে আসার মূলে তৃণমূলের রণহুঙ্কার হিসেবে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে এই ‘খেলা হবে’।

পরে গত বছরের ২২ জুলাই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ১৬ অগাস্ট ‘খেলা হবে’ দিবস পালনের ঘোষণা দেন। মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশেই রাজ্যজুড়ে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনায় পালিত হয় ‘খেলা হবে’ দিবস।

‘খেলা হবে’ দিবসের সেই এমপি এবার নেচে ভাইরাল

‘খেলা হবে’ দিবস পালনের উদ্দেশ্য নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা জানান, স্বাধীনতার পর দিন যেন মানুষের স্বাধীনতা অক্ষুণ্ন থাকে, স্বাধীনতার ভাষা, কণ্ঠরোধ না হয় তার জন্য খেলাধুলার মাধ্যমে মানুষকে ঐক্যবদ্ধ রাখা হবে। নতুন প্রজন্ম যেন খেলাধুলায় এগিয়ে যেতে পারে সে জন্য ‘খেলা হবে’ দিবস পালন করছে রাজ্য সরকার।

আরও পড়ুন:
‘খেলা হবে’ দিবসে শাড়ি পরে মাঠে নামা সেই এমপি ফের ভাইরাল

মন্তব্য

p
উপরে