× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

আন্তর্জাতিক
INS Vikrant Indias own warship is joining the Navy
hear-news
player
google_news print-icon
আইএনএস বিক্রান্ত

ভারতের নিজস্ব বিমানবাহী রণতরি যুক্ত হচ্ছে নৌবাহিনীতে

ভারতের-নিজস্ব-বিমানবাহী-রণতরি-যুক্ত-হচ্ছে-নৌবাহিনীতে
ভারতের প্রথম যুদ্ধবিমানবাহী রণতরি ‘আইএনএস বিক্রান্ত’। ছবি: বিবিসি
কেরালা রাজ্যের কোচি বন্দরে দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি স্থানীয় সময় শুক্রবার সকাল সাড়ে ৯টায় যুদ্ধবিমানবাহী রণতরিটিকে ভারতীয় নৌবাহিনীর বহরে যুক্ত করবেন। এতে অন্তত ৩০টি যুদ্ধবিমান ও হেলিকপ্টার উড্ডয়ন করতে পারবে।

সম্পূর্ণ দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি ভারতের প্রথম যুদ্ধবিমানবাহী রণতরি ‘আইএনএস বিক্রান্ত’ আজ যুক্ত হচ্ছে দেশটির নৌবাহিনীতে।

কেরালা রাজ্যের কোচি বন্দরে দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি স্থানীয় সময় শুক্রবার সকাল সাড়ে ৯টায় রণতরিটিকে নৌবাহিনীর বহরে যুক্ত করবেন। এতে অন্তত ৩০টি যুদ্ধবিমান ও হেলিকপ্টর উড্ডয়ন করতে পারবে।

এর আগে, গত বছরের ২৫ জুন সব বাধা পেরিয়ে সমুদ্রে নামে দেশটির প্রথম এয়ারক্রাফট কেরিয়ার ‘আইএনএস বিক্রান্ত’।

পরিকল্পনা শুরু হয়েছিল ৩০ বছর আগে। কাজ শুরু হয় ১৯৯৯ সালে। তারপর নানা কারণে পিছিয়ে যেতে থাকে কয়েক হাজার কোটি টাকার এই প্রকল্প।

ভারতের নিজস্ব বিমানবাহী রণতরি যুক্ত হচ্ছে নৌবাহিনীতে
রণতরি আইএনএস বিক্রান্তের ভেতরে যুদ্ধবিমান মিগ-২৯। ছবি: বিবিসি

তার মধ্যে করোনা মহামারির কারণে ভয়াবহ পরিস্থিতিতে নতুন করে ধাক্কা খায় প্রকল্পের অগ্রগতি।

দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং শুক্রবার জানিয়েছেন, আগামী বছরেই শত্রু মোকাবিলায় সমুদ্রে নামবে এটি।

‘আইএনএস বিক্রান্ত’ ইন্ডিজেনাস এয়ারক্রাফট ক্যারিয়ার ১ বা আইএসি-১ নামেও পরিচিত। কেরালার কোচি শিপইয়ার্ড লিমিটেডে নির্মিত হয়েছে এই যুদ্ধবিমানবাহী রণতরি।

কোচিতে সেই এয়ারক্রাফট কেরিয়ারের নির্মাণকাজ পরিদর্শন করে রাজনাথ সিং জানিয়েছেন, আগামী বছরই সমুদ্রে নামবে এই রণতরি। একই সময়ে ভারতের স্বাধীনতার ৭৫ বছর পূর্ণ হবে। এ উপলক্ষে দেশের নৌবাহিনীতে যুক্ত হতে যাচ্ছে আইএনএস বিক্রান্ত।

ভারতের নিজস্ব বিমানবাহী রণতরি যুক্ত হচ্ছে নৌবাহিনীতে
ভারতের নৌবাহিনীতে যুক্ত হতে যাচ্ছে আইএনএস বিক্রান্ত। ছবি:বিবিসি

২০ হাজার কোটি ভারতীয় রুপির এই প্রকল্প সম্পন্ন করার কথা ছিল ২০১৮ সালে। কিন্তু নানা কারণে তা পিছিয়ে যায়। নৌবাহিনী সূত্রে খবর, ২০২০ সালের নভেম্বরে ট্রায়াল সম্পন্ন হয়। এই রণতরি ৪০ হাজার টন ওজন বহন করতে পারবে।

১৯৯৯ সালে তৎকালীন প্রতিরক্ষামন্ত্রী জর্জ ফার্নান্ডেজের তত্ত্বাবধানে প্রথম এই প্রকল্পের কাজ শুরু হয়। ২০১১ সালে এর নির্মাণকাজ মোটামুটিভাবে শেষ হয়। ২০১৩ সালের ১২ আগস্ট প্রথম জলে নামানো হয় এই রণতরিটিকে।

নৌবাহিনী সূত্রে জানা গিয়েছে, এ পর্যন্ত ভারতে যত রণতরি তৈরি হয়েছে তার মধ্যে এর নকশা সবচেয়ে জটিল। এটি দৈর্ঘ্যে ২৮২ মিটার, প্রস্থে ৬২ মিটার। এই রণতরিতে একসঙ্গে ২৫-৪০টি এয়ারক্রাফট থাকতে পারবে।

এই রণতরিতে যে যুদ্ধাস্ত্র আছে তাতে যেকোনো ধরনের রণকৌশলের সঙ্গে মোকাবিলা করতে পারবে। এতে রয়েছে দুটি ৩২ সেল যুক্ত ভার্টিকাল লঞ্চ সিস্টেম, যেখান থেকে ৬২টি ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়া সম্ভব।

ইসরায়েলের তৈরি ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরোধব্যবস্থা বারাক ওয়ান মিসাইল সিস্টেমও থাকবে আইএনএস বিক্রান্তে।

মন্তব্য

আরও পড়ুন

আন্তর্জাতিক
31 lives lost on road in Uttar Pradesh

উত্তর প্রদেশে সড়কে গেল ৩১ প্রাণ

উত্তর প্রদেশে সড়কে গেল ৩১ প্রাণ উত্তর প্রদেশের কানপুরে শনিবার রাতের দুই দুর্ঘটনায় অনেকে হতাহত হন। ছবি: এনডিটিভি
উত্তর প্রদেশের কানপুরের ঘাতামপুর এলাকার কাছে প্রায় ৫০ জন পুণ্যার্থীবাহী একটি ট্রাক্টর উল্টে পুকুরে পড়ে প্রথম দুর্ঘটনাটি ঘটে। ওই ঘটনায় কমপক্ষে ২৬ পুণ্যার্থী নিহত হয়, যাদের বেশির ভাগ নারী ও শিশু। এতে মারাত্মক আহত হয় ২০ জন।

ভারতের উত্তর প্রদেশের কানপুরে দুটি দুর্ঘটনায় কমপক্ষে ৩১ জন নিহত ও ২৭ জন আহত হয়েছে।

স্থানীয় সময় শনিবার রাতে এ দুটি দুর্ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছেন কর্মকর্তারা।

তাদের বরাত দিয়ে এনডিটিভির প্রতিবেদনে জানানো হয়, ঘাতামপুর এলাকার কাছে প্রায় ৫০ জন পুণ্যার্থীবাহী একটি ট্রাক্টর ট্রলি উল্টে পুকুরে পড়ে প্রথম দুর্ঘটনাটি ঘটে। ওই ঘটনায় কমপক্ষে ২৬ পুণ্যার্থী নিহত হয়, যাদের বেশির ভাগ নারী ও শিশু। এতে মারাত্মক আহত হয় ২০ জন।

রাজ্যের উন্নাও এলাকার চন্দ্রিকা দেবী মন্দির থেকে ফেরার পথে দুর্ঘটনার শিকার হয় ট্রাক্টরটি। আহত যাত্রীদের স্থানীয় একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

পুলিশ জানিয়েছে, দুর্ঘটনার পর দায়িত্বে অবহেলার জন্য সারহ থানার স্টেশন ইনচার্জকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

বার্তা সংস্থা এএনআইয়ের প্রতিবেদনে বলা হয়, দুর্ঘটনাস্থলে দেরিতে যাওয়ায় পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে এ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

ট্রাক্টর দুর্ঘটনার কয়েক ঘণ্টার মধ্যে কানপুরে একই ধরনের দ্বিতীয় ঘটনাটি ঘটে। আহিরওয়ান ফ্লাইওভারের কাছে টেম্পোকে ধাক্কা দেয় দ্রুতগামী একটি ট্রাক, যাতে পাঁচজন নিহত ও সাতজন আহত হয়।

পুলিশ জানিয়েছে, আহতদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

দুর্ঘটনায় ২৬ পুণ্যার্থী নিহতের ঘটনায় শোক প্রকাশ করেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তিনি নিহত প্রত্যেকের পরিবারকে ২ লাখ রুপি ক্ষতিপূরণ দেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন। এ ছাড়া আহত প্রত্যেককে ৫০ হাজার রুপি দেয়ার কথা বলেছেন।

আরও পড়ুন:
‘খেলা হবে’ দিবসের সেই এমপি এবার নেচে ভাইরাল
অবিবাহিতদের গর্ভপাতের অধিকারও সমান: ভারতের সুপ্রিম কোর্ট
বিপিন নিহতের ৯ মাস পর ভারতে নতুন প্রতিরক্ষাপ্রধান
বাংলাদেশের সঙ্গে টাকা-রুপিতে লেনদেনে ভারতের শীর্ষ ব্যাংকের নির্দেশ
‘খেলা হবে’ দিবসে শাড়ি পরে মাঠে নামা সেই এমপি ফের ভাইরাল

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Annu collected the money by giving the bank information to the fraudster

প্রতারককে ব্যাংকের তথ্য জানিয়ে অর্থ খোয়ালেন অন্নু

প্রতারককে ব্যাংকের তথ্য জানিয়ে অর্থ খোয়ালেন অন্নু অন্নু কাপুর
বৃহস্পতিবারের ওই ঘটনার সময় প্রতারক এমনভাবে কথা বলেন যেন অন্নুর মনেও কোনও সন্দেহের উদ্রেক হয়নি। নিজের ব্যাংকের যাবতীয় তথ্য এবং ওটিপি সেই ব্যক্তিকে দিয়ে দেন অভিনেতা।

ব্যাংককর্মী সেজে ফোন করে প্রতারণার মাধ্যমে ভারতীয় অভিনেতা অন্নু কাপুরের অ্যাকাউন্ট থেকে বড় অঙ্কের অর্থ সরিয়ে নেয়া হয়েছে।

সবমিলিয়ে ৪.৩৬ লাখ রুপি স্থানান্তর করা হয়েছে অভিনেতার অ্যাকাউন্ট থেকে। বিষয়টি বুঝতে পেরে পদক্ষেপ নিয়েছে কর্তৃপক্ষ। সব না পেলেও তিনি ফেরত পাবেন ৩.৮ লাখ রুপি।

এনডিটিভি জানিয়েছে, একটি বেসরকারি ব্যাংকের কর্মী পরিচয়ে ফোন দিয়ে প্রতারক এ ঘটনা ঘটিয়েছে। অভিনেতার ব্যক্তিগত তথ্য আপডেট করতে চেয়ে তথ্য চেয়েছিলেন তিনি। তাকে গ্রেপ্তারের জন্য খুঁজছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবারের ওই ঘটনার সময় প্রতারক এমনভাবে কথা বলেন যেন অন্নুর মনেও কোনো সন্দেহের উদ্রেক হয়নি। নিজের ব্যাংকের যাবতীয় তথ্য এবং ওটিপি সেই ব্যক্তিকে দিয়ে দেন অভিনেতা।

প্রতারণার বিষয়টি ব্যাংক থেকে অন্নুকে জানালে তিনি মুম্বাইয়ের ওশিওয়ারা পুলিশ স্টেশনে জানান। পরে অর্থ স্থানান্তর করা প্রতারকের দুটি অ্যাকাউন্টের লেনদেন স্থগিত করা হয়।

এর কয়েক মাস আগে প্যারিসে গিয়ে একই ঘটনার শিকার হয়েছিলেন অন্নু। বিদেশে গিয়ে চুরি হয়েছিল তার ক্রেডিট কার্ড, টাকা ও আইপ্যাড। একটি ভিডিওর মাধ্যমে নিজের তিক্ত অভিজ্ঞতার কথা জানিয়েছিলেন তিনি।

পুলিশের এক কর্মকর্তা বলেন, দুইবারের লেনদেনে দুটি অ্যাকাউন্ট থেকে অর্থ সরিয়েছিল প্রতারক। প্রতারককে খুঁজছে পুলিশ।

ওটিটি থেকে বড় পর্দা, সব মাধ্যমেই চুটিয়ে কাজ করছেন অন্নু। শিগগিরই ‘হম দো হোমারে বরা’, ‘সব মোহ মায়া’-র মতো ছবিতে দেখা যাবে তাকে।

আরও পড়ুন:
‘খেলা হবে’ দিবসের সেই এমপি এবার নেচে ভাইরাল
বিপিন নিহতের ৯ মাস পর ভারতে নতুন প্রতিরক্ষাপ্রধান

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
That MP of the day will be played is now viral in dance

‘খেলা হবে’ দিবসের সেই এমপি এবার নেচে ভাইরাল

‘খেলা হবে’ দিবসের সেই এমপি এবার নেচে ভাইরাল মহুয়া মৈত্র
নতুন প্রজন্মকে খেলাধুলায় উৎসাহ দিতে পশ্চিমবঙ্গ সরকার আয়োজিত ‘খেলা হবে’ দিবসে শাড়ি পরে ফুটবল নিয়ে মাঠে নেমে ভাইরাল হয়েছিলেন এই রাজনৈতিক নেত্রী। গত বছরের পর এবারও ভারতের স্বাধীনতা দিবসের পরদিন ১৬ আগস্ট এ দিবসে ফুটবলের মাঠে শাড়ি পরে নামা তার ছবি ছড়িয়ে পড়ে।

মাঝেমধ্যেই আলোচনায় আসেন ভারতের পশ্চিমবঙ্গের তৃণমূল কংগ্রেসের সংসদ সদস্য (এমপি) মহুয়া মৈত্র। তবে সবচেয়ে বেশি মানুষ তাকে বোধহয় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে চিনেছিল ‘খেলা হবে’ দিবসে। শাড়ি পরে ফুটবল নিয়ে মাঠে নেমেছিলেন তিনি।

এবার এই নেত্রী আলোচনায় এলেন দুর্গাপূজা উপলক্ষে নেচে। শুক্রবার মহাপঞ্চমীতে নদীয়ায় এক শোভাযাত্রায় নেচে সেই ভিডিও টুইটারে আপলোড করেছেন মহুয়া। এ নিয়ে ব্যাপক সাড়া পেয়েছেন তিনি।

হিন্দুস্তান টাইমস বলছে, ‘সোহাগ চাঁদ বদনী তুমি নাচো তো দেখি’ গানের তালে তালে কোমর দুলিয়েছেন মহুয়া। আরও অনেক নারীর সঙ্গে গলা মিলিয়ে রাস্তায় নাচতে নাচতে এগিয়ে যান তিনি।

‘খেলা হবে’ দিবসের সেই এমপি এবার নেচে ভাইরাল

এমপি মহুয়ার নাচের ভিডিও শেয়ার করেছেন অনেকেই। প্রশংসায় ভাসছেন তারা। কেউ লিখেছেন, আপনার এই শক্তিটাকে ভালোবাসি। আবার কেউ লিখেছেন, যেভাবে মানুষের সঙ্গে মেশেন এভাবেই থাকুন।

এর আগে নতুন প্রজন্মকে খেলাধুলায় উৎসাহ দিতে পশ্চিমবঙ্গ সরকার আয়োজিত ‘খেলা হবে’ দিবসে শাড়ি পরে ফুটবল নিয়ে মাঠে নেমে ভাইরাল হয়েছিলেন এই রাজনৈতিক নেত্রী। গত বছরের পর এবারও ভারতের স্বাধীনতা দিবসের পরদিন ১৬ আগস্ট এ দিবসে ফুটবলের মাঠে শাড়ি পরে নামা তার ছবি ছড়িয়ে পড়ে।

‘খেলা হবে’ দিবসের সেই এমপি এবার নেচে ভাইরাল

এরপর সর্বশেষ ১৮ সেপ্টেম্বর নদীয়া জেলার কৃষ্ণনগরে এমপি কাপ টুর্নামেন্টে তার শাড়ি পরে ফুটবলে লাথি দেয়ার ছবিও ভাইরাল হয়। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রশংসায় ভাসে তিনি। লালচে কমলা রঙের শাড়ি পরে মাঠে উপস্থিত হয়েছিলেন এমপি মহুয়া। চোখে ছিল সানগ্লাস, পায়ে জুতা।

২০০৮ সালে বিশ্বের অন্যতম শক্তিশালী ব্যাংকিং সংস্থা জেপি মরগানের ভাইস প্রেসিডেন্ট পদ ছেড়ে রাজনীতিতে নাম লেখান এই নারী। তিনি করিমপুর আসন থেকে বিধানসভা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে জয়ী হন।

‘খেলা হবে’ দিবসের সেই এমপি এবার নেচে ভাইরাল

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস জানিয়েছে, ‘খেলা হবে’ শব্দ দুটি গত বছরের হাইভোল্টেজ বিধানসভা নির্বাচনের সময় তৃণমূল কংগ্রেসের নির্বাচনী ‘ক্যাচলাইন’ ছিল। বিজেপিকে হারিয়ে টানা তৃতীয় মেয়াদে ক্ষমতায় ফিরে আসার মূলে তৃণমূলের রণহুঙ্কার হিসেবে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে এই ‘খেলা হবে’।

পরে গত বছরের ২২ জুলাই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ১৬ অগাস্ট ‘খেলা হবে’ দিবস পালনের ঘোষণা দেন। মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশেই রাজ্যজুড়ে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনায় পালিত হয় ‘খেলা হবে’ দিবস।

‘খেলা হবে’ দিবসের সেই এমপি এবার নেচে ভাইরাল

‘খেলা হবে’ দিবস পালনের উদ্দেশ্য নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা জানান, স্বাধীনতার পর দিন যেন মানুষের স্বাধীনতা অক্ষুণ্ন থাকে, স্বাধীনতার ভাষা, কণ্ঠরোধ না হয় তার জন্য খেলাধুলার মাধ্যমে মানুষকে ঐক্যবদ্ধ রাখা হবে। নতুন প্রজন্ম যেন খেলাধুলায় এগিয়ে যেতে পারে সে জন্য ‘খেলা হবে’ দিবস পালন করছে রাজ্য সরকার।

আরও পড়ুন:
‘খেলা হবে’ দিবসে শাড়ি পরে মাঠে নামা সেই এমপি ফের ভাইরাল

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Who is the Congress President?

কে হচ্ছেন কংগ্রেস সভাপতি

কে হচ্ছেন কংগ্রেস সভাপতি কংগ্রেসের সভাপতি পদে প্রার্থী শশী থারুর ও মল্লিকার্জুন খারগে। ছবি: সংগৃহীত
ভারতের অন্যতম বৃহত্তম রাজনৈতিক দল ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস নতুন সভাপতি পেতে যাচ্ছে। আর সভাপতি পদের নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতার জন্য লড়ছেন শশী থারুর ও মল্লিকার্জুন খারগে। গান্ধী পরিবারের নিরপেক্ষ ভূমিকায় থাকার কথা থাকলেও ইঙ্গিত মিলেছে মল্লিকার্জুনকেই সমর্থন করতে যাচ্ছেন তারা।

মনোনয়ন জমা দেয়ার শেষ মুহূর্তে জমে উঠেছে ভারতের প্রাচীনতম রাজনৈতিক দল কংগ্রেসের সভাপতি নির্বাচন। এবারে সভাপতি পদে গান্ধী পরিবারের কেউ মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেনি। ২০ বছরের ইতিহাসে এমন ঘটনা প্রথমবারের মতো ঘটলো।

এদিকে সভাপতি নির্বাচনে গান্ধী পরিবারের নিরপেক্ষ ভূমিকা পালনের কথা থাকলেও শেষ মুহুর্তে মল্লিকার্জুন খারগের প্রতি সমর্থন দেয়ার ইঙ্গিত মিলেছে।

আজই সভাপতি পদে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন জ্যেষ্ঠ রাজনীতিবিদ শশী থারুর। মল্লিকার্জুনেরও তিনটার আগেই কাগজপত্র জমা দেয়ার কথা।

এর আগে গতকালই মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন দিগ্বিজয়ী সিং। কিন্তু মল্লিকার্জুন খারগের সঙ্গে আলোচনার পর তিনি সভাপতি পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা থেকে সরে দাঁড়ান।

গভীর রাতে হওয়া এক বৈঠকে কংগ্রেসের বর্ষীয়ান নেতা কেসি ভেনুগোপাল মল্লিকার্জুনকে জানান, নেতৃত্ব (গান্ধী পরিবার) চাইছে যে তিনি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। ভেনুগোপাল নিজেও মল্লিকার্জুনকে সমর্থন করছেন।

কংগ্রেসের ‘এক ব্যক্তি, এক পদ’ পলিসির কারণে রাজ্যসভার বিরোধী দলের নেতার পদ থেকে পদত্যাগ করতে হতে পারে মল্লিকার্জুনকে।

আরও পড়ুন:
পাঁচ রাজ্য কংগ্রেস সভাপতিকে বহিষ্কার করলেন সোনিয়া
গান্ধী পরিবারের নেতৃত্ব চান না কংগ্রেসের প্রবীণ নেতা
কংগ্রেসে নেতৃত্ব পরিবর্তনের দাবি বাড়ছে
কংগ্রেসের নেতৃত্ব হারাচ্ছে গান্ধী পরিবার?
জয়প্রকাশ যোগ দিলেন তৃণমূলে

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
19 killed in an explosion at an educational center in Kabul

কাবুলে শিক্ষা কেন্দ্রে বিস্ফোরণে নিহত ১৯

কাবুলে শিক্ষা কেন্দ্রে বিস্ফোরণে নিহত ১৯ কাবুল শহরের বিভিন্ন ভবন। ছবি: সংগৃহীত
হামলাস্থল দাশত-ই-বারচি এলাকার বাসিন্দাদের অনেকে সংখ্যালঘু হাজারা সম্প্রদায়ের। অতীতে অনেক হামলার শিকার হয়েছে এ সম্প্রদায়ের লোকজন। সর্বশেষ হামলার পর তাৎক্ষণিকভাবে দায় স্বীকার করেনি কোনো পক্ষ।

আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে শুক্রবার একটি শিক্ষা কেন্দ্রে বিস্ফোরণে কমপক্ষে ১৯ জন নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছে আরও অনেকে।

শহরের পশ্চিমে দাশত-ই-বারচি এলাকায় ‘কাজ’ নামের শিক্ষা কেন্দ্রে এ হামলা হয় বলে জানিয়েছে পুলিশ।

শিক্ষা কেন্দ্রের কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে বিবিসির প্রতিবেদনে জানানো হয়, হামলার সময় সেখানে পরীক্ষা চলছিল।

দাশত-ই-বারচি এলাকার বাসিন্দাদের অনেকে সংখ্যালঘু হাজারা সম্প্রদায়ের। অতীতে অনেক হামলার শিকার হয়েছে এ সম্প্রদায়ের লোকজন।

হামলার পর তাৎক্ষণিকভাবে দায় স্বীকার করেনি কোনো পক্ষ।

আফগানিস্তানে তালেবান নেতৃত্বাধীন সরকারের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র আবদুল নাফি টাকোর হামলার নিন্দা জানিয়ে বলেন, ঘটনাস্থলে গেছে নিরাপত্তা দল।

তিনি বলেন, বেসামরিক লক্ষ্যবস্তুতে আঘাতের মধ্য দিয়ে শত্রুরা তাদের নিষ্ঠুরতা ও নৈতিকতাহীনতার পরিচয় দিয়েছে।

গত বছরের আগস্টে ক্ষমতায় আসে তালেবান। দলটির ভাষ্য, তারা আফগানিস্তানে স্থিতিশীলতা ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করছে, তবে দক্ষিণ এশিয়ার দেশটিতে নিয়মিত হামলা চালিয়ে যাচ্ছে জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেট (আইএস)।

দাশত-ই-বারচি এলাকায় বেশ কিছু হামলা হয়েছে। এসব হামলার শিকার হয়েছে স্কুল ও হাসপাতাল।

তালেবান ক্ষমতায় ফেরার আগে গত বছর একটি গার্লস স্কুলে হামলায় কমপক্ষে ৮৫ জন নিহত হয়। এ হামলায় আহত হয় অনেকে।

আরও পড়ুন:
কাবুলে রুশ দূতাবাসের সামনে আত্মঘাতী হামলা, নিহত ৮
আফগানিস্তানে ভূমিকম্পে ৬ মৃত্যু
শততম ম্যাচে জয়ের জন্য আফগানদের লক্ষ্য ১০৬ রান
নারী বিষয়ে তালেবানকে চ্যালেঞ্জ করুক মুসলিম বিশ্ব: আমেরিকার দূত
এশিয়া কাপ: উদ্বোধনী ম্যাচে জয় চায় দুই দলই

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Abortion of unmarried persons also legal Supreme Court of India

অবিবাহিতদের গর্ভপাতের অধিকারও সমান: ভারতের সুপ্রিম কোর্ট

অবিবাহিতদের গর্ভপাতের অধিকারও সমান: ভারতের সুপ্রিম কোর্ট ভারতের সুপ্রিম কোর্ট ভবন। ছবি: টেলিগ্রাফ ইন্ডিয়া
রায়ে ভারতের সুপ্রিম কোর্ট বলেছে, ১৯৭১ সালে প্রণীত মেডিক্যাল টার্মিনেশন অফ প্রেগন্যান্সি অ্যাক্টে বিবাহিত নারীদের গর্ভপাতের যে অধিকার দেয়া হয়েছে, তা পাবেন অবিবাহিত নারীরাও।

বিবাহিতদের পাশাপাশি অবিবাহিত নারীদের নিরাপদ ও বৈধ গর্ভপাতের অধিকার সমান বলে রায় দিয়েছে ভারতের সুপ্রিম কোর্ট।

স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার বিচারপতি ডি ওয়াই চন্দ্রচুড়ের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ ঐতিহাসিক এ রায় দেয় বলে দি ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে।

রায়ে সুপ্রিম কোর্ট বলেছে, ১৯৭১ সালে প্রণীত মেডিক্যাল টার্মিনেশন অফ প্রেগন্যান্সি অ্যাক্টে বিবাহিত নারীদের গর্ভপাতের যে অধিকার দেয়া হয়েছে, তা পাবেন অবিবাহিত নারীরাও।

সর্বোচ্চ আদালত আরও বলেছে, ২০২১ সালে ওই আইনে যে সংশোধনী আনা হয়েছে, তাতে গর্ভপাতের ক্ষেত্রে বিবাহিত ও অবিবাহিতদের মধ্যে কোনো ফাঁক রাখা হয়নি। এর ফলে নিরাপদ ও বৈধ গর্ভপাতের অধিকার পাবেন সব নারী।

বিচারপতি চন্দ্রচুড়ের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চের পক্ষ থেকে বলা হয়, বিবাহিত ও অবিবাহিত নারীদের মধ্যে কৃত্রিম ফারাক থাকতে পারে না। নারীদের অবশ্যই এ ধরনের (গর্ভপাত) অধিকার চর্চার স্বাধীনতা থাকতে হবে।

জন্মদানের ক্ষেত্রে স্বাধীনতা শরীরের স্বাধীনতার সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িত জানিয়ে রায়ে সুপ্রিম কোর্ট বলেছে, জন্মনিয়ন্ত্রণ পদ্ধতি বেছে নেয়া, সন্তানের সংখ্যা এবং গর্ভপাত করা কিংবা না করার সিদ্ধান্ত সামাজিক বাধাবিপত্তি ছাড়াই নেয়ার ক্ষমতা থাকতে হবে।

ভারতের সুপ্রিম কোর্টের মন্তব্য, কোনো নারীর অনাকাঙ্ক্ষিত গর্ভধারণের পরিণতিকে খাটো করে দেখা যাবে না। ভ্রুণের স্বাস্থ্য নির্ভর করে মায়ের মানসিক স্বাস্থ্যের ওপর।

আরও পড়ুন:
‘খেলা হবে’ দিবসে শাড়ি পরে মাঠে নামা সেই এমপি ফের ভাইরাল
ট্যুরিস্ট ভিসায় ভারতে গিয়ে ধর্ম প্রচারের অভিযোগে ১৭ বাংলাদেশি গ্রেপ্তার
ভারতে ভারি বৃষ্টিতে দেয়াল ধসে ৯ মৃত্যু
ভারতে পোশাক রপ্তানি বেড়ে দ্বিগুণ, কমছে চীনে
বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে ধর্ষণ-হত্যা দলিত ২ বোনকে

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Indias new defense chief after 9 months of Bipins death

বিপিন নিহতের ৯ মাস পর ভারতে নতুন প্রতিরক্ষাপ্রধান

বিপিন নিহতের ৯ মাস পর ভারতে নতুন প্রতিরক্ষাপ্রধান ভারতের নতুন সিডিএস অনিল চৌহান। ছবি: এএনআই
ভারতের নতুন প্রতিরক্ষাপ্রধান অনিল চৌহান ২০২১ সালের মে মাসে ইস্টার্ন কমান্ডের প্রধান হিসেবে অবসরে যান। তিনি জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদে সামরিক উপদেষ্টা হিসেবে কাজ করছিলেন।

হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় জেনারেল বিপিন রাওয়াত নিহত হওয়ার ৯ মাস পর নতুন চিফ অফ ডিফেন্স স্টাফ (সিডিএস) পেয়েছে ভারত।

অবসরপ্রাপ্ত লেফটেন্যান্ট জেনারেল অনিল চৌহানকে বুধবার সিডিএস হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে দেশটি।

২০২১ সালের ৮ ডিসেম্বর ভারতের বিমানবাহিনীর হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় সস্ত্রীক নিহত হন চার তারকা জেনারেল বিপিন রাওয়াত।

এনডিটিভির প্রতিবেদনে জানানো হয়, ভারতের নতুন প্রতিরক্ষাপ্রধান ৬১ বছর বয়সী অনিল ২০২১ সালের মে মাসে ইস্টার্ন কমান্ডের প্রধান হিসেবে অবসরে যান। তিনি জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদে সামরিক উপদেষ্টা হিসেবে কাজ করছিলেন।

প্রায় ৪০ বছরের ক্যারিয়ারে বেশ কিছু গুরুদায়িত্ব সামলেছেন অনিল চৌহান। ভারত নিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মীর ও দেশটির উত্তর-পূর্বাঞ্চলে বিদ্রোহী তৎপরতা দমন অভিযানে ব্যাপক অভিজ্ঞতা আছে তার।

সিডিএস পদে প্রথমবারের মতো অবসরপ্রাপ্ত কোনো সামরিক কর্মকর্তাকে নিয়োগ দেয়ার আগে নিয়মে কিছু পরিবর্তন এনেছে ভারত। নিয়োগের নিয়মে এ পরিবর্তনের বিষয়টি গেজেটে জানিয়েছে সরকার।

নতুন সিডিএস অনিল চৌহানের জন্ম ১৯৬১ সালের ১৮ মে। ১৯৮১ সালে ভারতীয় সেনাবাহিনীর ১১ গোর্খা রাইফেলসে ক্যারিয়ার শুরু করেন তিনি।

ভারতের মহারাষ্ট্রের খারাকওয়াসলার ন্যাশনাল ডিফেন্স অ্যাকাডেমি, উত্তরাখণ্ডের দেরাদুনের ইন্ডিয়ান মিলিটারি অ্যাকাডেমিতে পাঠ নিয়েছেন অনিল।

মেজর জেনারেল হিসেবে নর্দান কমান্ডের বারামুল্লা সেক্টরের পদাতিক ডিভিশনের কমান্ডার ছিলেন সিডিএস অনিল। লেফটেন্যান্ট জেনারেল পদে উন্নীত হওয়ার পর উত্তর-পূর্ব ভারতের একটি কোরের কমান্ডার ছিলেন তিনি।

২০১৯ সালের সেপ্টেম্বর থেকে ২০২১ সালের মে মাসে অবসরে যাওয়ার আগ পর্যন্ত ইস্টার্ন কমান্ডের জেনারেল অফিসার কমান্ডিং-ইন-চিফ ছিলেন অনিল চৌহান।

আরও পড়ুন:
কোনো ব্যক্তি নয়, বাংলাদেশের পাশে ভারত: দোরাইস্বামী
ভারতে ভারি বৃষ্টিতে দেয়াল ধসে ৯ মৃত্যু
ভারতে পোশাক রপ্তানি বেড়ে দ্বিগুণ, কমছে চীনে
বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে ধর্ষণ-হত্যা দলিত ২ বোনকে
‘তত্ত্বাবধায়ক চান, ওয়ান-ইলেভেন ভুলে গেছেন?’

মন্তব্য

p
উপরে