× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট বাংলা কনভার্টার নামাজের সময়সূচি আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

আন্তর্জাতিক
Hadi Matar is surprised that Salman Rushdie survived
google_news print-icon

সালমান রুশদি বেঁচে যাওয়ায় অবাক হাদি মাতার

সালমান রুশদি
সালমান রুশদি (বাঁয়ে) এবং হামলাকারী হাদি মাতার। ছবি কোলাজ: নিউজবাংলা
হামলাকারী হাদি মাতার বলেন, “বইটির ‘পৃষ্ঠা দুয়েক’ পড়েছিলাম। উনাকে আমি পছন্দ করি না। আমার মনে হয় না সে খুব ভালো মানুষ। তিনি এমন একজন যিনি ইসলামকে আক্রমণ করেছেন, তাদের বিশ্বাস এবং মূল্যবোধকে আঘাত করেছেন।”

ঔপন্যাসিক ও প্রাবন্ধিক সালমান রুশদির ওপর হামলা চালানো হাদি মাতার লেখকের বিতর্কিত উপন্যাস দ্য স্যাটানিক ভার্সেসের কেবল দুই পৃষ্ঠা পড়েছিলেন। হামলার পর লেখকের বেঁচে যাওয়ায় তিনি ভীষণ অবাক হয়েছেন। কারাগার থেকে নিউ ইয়র্ক পোস্টকে দেয়া সাক্ষাৎকারে এসব জানান ২৪ বছরের হাদি।

তিনি বলেন, “বইটির ‘পৃষ্ঠা দুয়েক’ পড়েছিলাম। উনাকে আমি পছন্দ করি না। আমার মনে হয় না সে খুব ভালো মানুষ। তিনি এমন একজন যিনি ইসলামকে আক্রমণ করেছেন, তাদের বিশ্বাস এবং মূল্যবোধকে আঘাত করেছেন। হামলা থেকে বেঁচে গেছেন শুনে অবাক হয়েছি।”

নিউ ইয়র্কের শাটোকোয়া ইনস্টিটিউশনে গত সপ্তাহে বক্তব্য রাখার সময় রুশদির ওপর ছুরি হামলা চালান হাদি মাতার। ঘটনাস্থল থেকেই আটক করা হয় হাদিকে। শাটোকোয়া কাউন্টি জেলে বন্দী আছেন তিনি।

১৯৮৮ সালে রুশদির বিখ্যাত এবং বিতর্কিত উপন্যাস দ্য স্যাটানিক ভার্সেস প্রকাশিত হয়। এটির বিষয়বস্তুতে ক্ষুব্ধ হয় মুসলিম বিশ্ব। ইরানের নেতা আয়াতুল্লাহ খোমেনি ১৯৮৯ সালে রুশদির মৃত্যুদণ্ডের জন্য ফতোয়া জারি করেন।

হামলার সঙ্গে আশির দশকে ইরানের জারি করা ফতোয়ার কোনো যোগসূত্র আছে কি না, তা নিশ্চিত করেননি হাদি। তিনি বলেন, ‘আমি আয়াতুল্লাহকে সম্মান করি। আমি মনে করি তিনি একজন মহান ব্যক্তি।’

চলতি সপ্তাহের শুরুতে হাদির মা বলেছিলেন, তিনি ছেলের সঙ্গে সম্পর্ক ছেদ করেছেন।

‘আমি তার সঙ্গে সম্পর্ক শেষ করেছি। তাকে আমার কিছুই বলার নেই।’

হামলায় রুশদির লিভার ক্ষতিগ্রস্ত হয়। পাশাপাশি এক হাত ও চোখের স্নায়ু বিচ্ছিন্ন গেছে। শনিবার তাকে ভেন্টিলেটর থেকে সরিয়ে নেয়া হয়।

রুশদির পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়, প্রাণঘাতী হামলার পরও বুকার পুরস্কার বিজয়ী লেখক তার সহজাত ও অদম্য রসবোধ হারাননি।

আরও পড়ুন:
রুশদির ওপর হামলার প্রশংসায় আয়াতুল্লাহ খামেনি
রুশদির ওপর হামলায় স্তম্ভিত তসলিমা
সময়ক্রম: স্যাটানিক ভার্সেস থেকে রুশদিকে ছুরিকাঘাত
রুশদির ওপর হামলাকারী কে এই হাদি মাতার
রুশদি ভেন্টিলেশনে, হারাতে পারেন চোখ

মন্তব্য

আরও পড়ুন

আন্তর্জাতিক
The United States will ban more than 500 targets related to Russia

রাশিয়া সংশ্লিষ্ট ৫ শতাধিক লক্ষ্যবস্তুকে নিষেধাজ্ঞা দেবে যুক্তরাষ্ট্র

রাশিয়া সংশ্লিষ্ট ৫ শতাধিক লক্ষ্যবস্তুকে নিষেধাজ্ঞা দেবে যুক্তরাষ্ট্র মস্কোর ক্রেমলিনে ২০ ফেব্রুয়ারি বৈঠকের সময় কৃষিমন্ত্রী দিমিত্রি পাত্রুশেভের বক্তব্য শোনেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। ছবি: রয়টার্স
আদেয়েমো জানান, নিষেধাজ্ঞার আওতায় পড়বে রাশিয়ার সামরিক শিল্প এবং রাশিয়ার প্রত্যাশা অনুযায়ী দেশটিকে পণ্য সরবরাহ করা অন্য দেশের কোম্পানিগুলো।

ইউক্রেনে রুশ হামলার দ্বিতীয় বার্ষিকীর প্রাক্কালে শুক্রবার রাশিয়া সংশ্লিষ্ট পাঁচ শতাধিক লক্ষ্যবস্তুকে যুক্তরাষ্ট্র নিষেধাজ্ঞার আওতায় আনবে বলে জানিয়েছেন আমেরিকার ডেপুটি ট্রেজারি সেক্রেটারি ওয়ালি আদেয়েমো।

স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে দেয়া সাক্ষাৎকারে তিনি এ কথা জানান।

ইউক্রেনে ২০২২ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারি সামরিক অভিযান শুরু করে রাশিয়া, যা শেষ হয়নি দুই বছরেও।

ইউক্রেনে যুদ্ধ ও রুশ কারাগারে বিরোধীদলীয় নেতা অ্যালেক্সেই নাভালনির মৃত্যুর ঘটনায় রাশিয়াকে জবাবদিহির মুখোমুখি করতে বেশ কিছু দেশকে সঙ্গে নিয়ে এ নিষেধাজ্ঞা দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র।

আদেয়েমো জানান, নিষেধাজ্ঞার আওতায় পড়বে রাশিয়ার সামরিক শিল্প এবং রাশিয়ার প্রত্যাশা অনুযায়ী দেশটিকে পণ্য সরবরাহ করা অন্য দেশের কোম্পানিগুলো।

ইউক্রেনে সামরিক অভিযান শুরুর পর যুক্তরাষ্ট্র ও তার মিত্ররা রাশিয়ার ওপর হাজারো নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে। ইউরোপের বৈশ্বিক পরাশক্তিটির ওপর চাপ বাড়াতে নতুন করে নিষেধাজ্ঞা দিচ্ছে আমেরিকা ও মিত্র রাষ্ট্রগুলো। যদিও ইউক্রেনকে আরও নিরাপত্তা সহায়তা দেয়ার বিষয়টি যুক্তরাষ্ট্রের আইনসভা কংগ্রেসে অনুমোদন পাবে কি না, তা নিয়ে রয়েছে সংশয়।

আরও পড়ুন:
পোল্যান্ড বা লাটভিয়ায় হামলার পরিকল্পনা নেই: পুতিন
ভিসা নীতির পরিবর্তন হয়নি, ড. ইউনূসকে ভয় দেখানো হচ্ছে: যুক্তরাষ্ট্র
হুতিদের ওপর ফের হামলা যুক্তরাষ্ট্রের
এবার হুতিদের ওপর হামলা যুক্তরাষ্ট্র যুক্তরাজ্যের
ইরাক ও সিরিয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের বিমান হামলায় নিহত ৩৯

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
US spacecraft on the moon after half a century

অর্ধশতাব্দী পর চাঁদে যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশযান

অর্ধশতাব্দী পর চাঁদে যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশযান প্রায় ৫০ বছর পর চাঁদে অবতরণ করল যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশযান। ছবি: দ্য গার্ডিয়ান
নাসার জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা জোয়েল কার্নস জানান, বর্তমান মিশনটি চাঁদের দক্ষিণ মেরুর পরিবেশগত অবস্থা পর্যবেক্ষণ করবে, যেখানে তারা মহাকাশচারী পাঠাতে যাচ্ছেন।

প্রায় ৫০ বছর পর আবারও চাঁদে অবতরণ করল যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশযান।

চাঁদের দক্ষিণ মেরুর কাছে স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার বিকেলে মহাকাশযানটি সফলভাবে অবতরণ করে বলে দ্য গার্ডিয়ানের প্রতিবেদনে জানানো হয়।

তবে যানটির অবতরণের পরবর্তী অবস্থা সম্পর্কে তাৎক্ষণিক কোনো তথ্য দেয়নি যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণা প্রতিষ্ঠান নাসা। টেক্সাসভিত্তিক প্রতিষ্ঠান ‘ইনটুইটিভ মেশিন’ ব্যক্তিমালিকানাধীন পর্যায়ে মহাকাশযানটি তৈরি করেছে এবং চন্দ্রাভিযানে অর্থায়ন করেছে নাসা।

কোম্পানির প্রতিষ্ঠাতা স্টিভ আলটেমাস বৃহস্পতিবার বিকেল ৫টা ২৩ মিনিটে (স্থানীয় সময়) ষড়ভুজ আকৃতির ‘অডিসিয়াস’ চন্দ্রযানটির সফল অবতরণের কথা জানিয়ে বলেন, ‘চাঁদে স্বাগতম’।

অর্ধশতাব্দী পর চাঁদে যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশযান
‘অডিসিয়াস’ চন্দ্রযান। ছবি: এপি

নাসার জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা জোয়েল কার্নস জানান, বর্তমান মিশনটি চাঁদের দক্ষিণ মেরুর পরিবেশগত অবস্থা পর্যবেক্ষণ করবে, যেখানে তারা মহাকাশচারী পাঠাতে যাচ্ছেন।

তিনি বলেন, ‘সেখানে কী ধরনের ধুলো বা ময়লা আছে, পরিবেশ কতটা গরম বা ঠান্ডা হয়, বিকিরণ পরিবেশ কী? এসব মূলত মানব অভিযাত্রী পাঠানোর আগে জানতে হয়।’

১৯৭২ সালের ডিসেম্বরে নাসা সর্বশেষ চাঁদে অ্যাপোলো ১৭ মিশন পাঠায়। অ্যাপোলো মহাকাশ অভিযান কর্মসূচি নাসা পরিচালিত একাধিক মহাকাশ অভিযানবিশিষ্ট একটি কর্মসূচির নাম।

যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট জন এফ কেনেডির পরিকল্পনায় ১৯৬১ সালের ২৫ মে থেকে এ অভিযান কর্মসূচির শুরু হয়। এ প্রকল্পের পাঁচটি মহাকাশযান চাঁদে সফলভাবে অবতরণ করে। এই কর্মসূচি থেকেই চাঁদে ১২ জন মানুষের পা পড়েছে।

অ্যাপোলো ১৭ মহাকাশযানটি চাঁদে অবতরণ করা সর্বশেষ মনুষ্যবাহী মহাকাশযান।

আরও পড়ুন:
সাংবাদিককে মামলায় ফাঁসানোর হুমকি ‘কুত্তা মাসুদের’
সাংবাদিক পরিচয়ে চাঁদাবাজি মামলায় নাটোরে কারাগারে ৪
নির্বাচনে জিতেই সিএনজি স্ট্যান্ডের চাঁদা বন্ধ করলেন এমপি আজাদ
ঢামেকে রোগীকে জিম্মি করে টাকা দাবির অভিযোগ
বৈধ অস্ত্র ভাড়া নিয়ে চলছিল অপহরণ-দখল

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Government Formation Pakistan Internal Affairs United States

সরকার গঠন পাকিস্তানের অভ্যন্তরীণ বিষয়: যুক্তরাষ্ট্র

সরকার গঠন পাকিস্তানের অভ্যন্তরীণ বিষয়: যুক্তরাষ্ট্র ওয়াশিংটন ডিসিতে নিয়মিত ব্রিফিংয়ে স্টেট ডিপার্টমেন্টের মুখপাত্র ম্যাথু মিলার। ফাইল ছবি
মিলার বলেন, যেকোনো দেশে জোটভিত্তিক রাজনীতি ওই দেশের নিজস্ব বিষয়। এ সংক্রান্ত আলোচনায় জড়াতে চায় না যুক্তরাষ্ট্র।

পাকিস্তানে সরকার গঠন নিয়ে হস্তক্ষেপ না করার বিষয়ে অটল রয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের নেতৃত্বাধীন প্রশাসন।

দক্ষিণ এশিয়ার দেশটিতে গত ৮ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত নির্বাচনের ফলকে স্বীকৃতি না দিতে আইনপ্রণেতাসহ বিভিন্ন মহলের দাবিকে নাকচ করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

পাকিস্তানভিত্তিক সংবাদমাধ্যম ডনের প্রতিবেদনে জানানো হয়, ওয়াশিংটন ডিসিতে স্থানীয় সময় বুধবার অনুষ্ঠিত ব্রিফিংয়ে যুক্তরাষ্ট্রের স্টেট ডিপার্টমেন্টের মুখপাত্র ম্যাথু মিলার পাকিস্তানে সরকার গঠন নিয়ে আমেরিকার অবস্থান ব্যক্ত করেন।

পাকিস্তানে জোট সরকার প্রতিনিধিত্বমূলক কি না, এমন এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘গঠন হওয়ার আগে আমি সরকার নিয়ে কোনো মন্তব্য করতে চাই না।’

মিলার আরও বলেন, যেকোনো দেশে জোটভিত্তিক রাজনীতি ওই দেশের নিজস্ব বিষয়। এ সংক্রান্ত আলোচনায় জড়াতে চায় না যুক্তরাষ্ট্র।

এর আগে মঙ্গলবার ব্রিফিংয়ে স্টেট ডিপার্টমেন্টের মুখপাত্র পাকিস্তানে জোট সরকার গঠনের চেষ্টাকে অভ্যন্তরীণ বিষয় হিসেবে আখ্যা দেন।

ওই দিন তিনি বলেন, ‘আমি পাকিস্তানের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে জড়াতে চাই না।’

পাকিস্তানে সরকার গঠন নিয়ে কথা না বললেও দেশটিতে সম্প্রতি অনুষ্ঠিত নির্বাচনে হস্তক্ষেপ, অনিয়ম কিংবা ভোটারদের ভয়ভীতি দেখানোর বিষয়ে পুঙ্খানুপুঙ্খ তদন্ত করতে যুক্তরাষ্ট্রের সমর্থনের কথা বিভিন্ন ব্রিফিংয়ে তুলে ধরেন মিলার।

আরও পড়ুন:
পাকিস্তানে সরকার গঠনে ঐকমত্য, প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ-প্রেসিডেন্ট জারদারি
ক্ষমতায় এলে রাজনৈতিক প্রতিশোধ নেব না: ইমরান
প্রতারণা মামলায় ট্রাম্পকে সাড়ে ৩৫ কোটি ডলার জরিমানা
ইসলামাবাদ হাইকোর্টে তিন মামলায় আপিল করবেন ইমরান
কানসাস সিটিতে বন্দুক হামলায় একজন নিহত, আহত ২১

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Trump fined 350 million dollars in fraud case

প্রতারণা মামলায় ট্রাম্পকে সাড়ে ৩৫ কোটি ডলার জরিমানা

প্রতারণা মামলায় ট্রাম্পকে সাড়ে ৩৫ কোটি ডলার জরিমানা ডনাল্ড ট্রাম্প। ছবি: ডেডলাইন
রায়ে ট্রাম্পের দুই ছেলে ডনাল্ড ট্রাম্প জুনিয়র ও এরিক ট্রাম্পকে ৪০ লাখ ডলার করে জরিমানা দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়। ট্রাম্প তিন বছর নিউ ইয়র্কে কোনো ব্যবসা করতে পারবেন না আর তার দুই ছেলে দুই বছরের জন্য এ নিষেধাজ্ঞার আওতায় থাকবেন।

ঋণদাতার কাছে নিজের সম্পদের মূল্য বেশি দেখিয়ে প্রতারণার দায়ে যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পকে ৩৫ কোটি ৪৯ লাখ ডলার জরিমানার আদেশ দিয়েছে নিউ ইয়র্কের এক আদালত।

বিচারক আর্থার এনগোরন শুক্রবার জালিয়াতির অভিযোগে করা এ মামলার রায় দেন বলে জানায় রয়টার্স। এ ছাড়া ট্রাম্প তিন বছর নিউ ইয়র্কে কোনো ব্যবসা করতে পারবেনা না।

প্রতিবেদনে বলা হয়, এ রায়ে ট্রাম্পের বিশাল আবাসন ব্যবসা ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

জরিমানা ছাড়াও তিন মাস ধরে চলা এ মামলার রায়ে ট্রাম্পকে তিন বছরের জন্য নিউ ইয়র্কে যেকোনো কর্পোরেশনের পরিচালক বা কর্মকর্তা হওয়ার বিষয়েও নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে।

এ রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করার কথা জানান ট্রাম্পের আইনজীবী আলিনা হাবা।

নিউইয়র্কের অ্যাটর্নি জেনারেল লেটিটিয়া জেমসের করা এ মামলায় বলা হয়, ট্রাম্প ঋণ সুবিধা নেয়ার জন্য প্রায় এক দশক ধরে ব্যাংকারদের বোকা বানিয়ে তার মোট সম্পদের মূল্য প্রায় ৩৬০ কোটি ডলার বেশি দেখিয়েছেন। প্রেসিডেন্ট ও তার কোম্পানি ব্যাংক, বিমাকারী ও অন্যান্যদের সঙ্গে প্রতারণা করেছেন। অর্থায়ন নিশ্চিত করতে ট্রাম্প তার সম্পদ ও নেট মূল্যকে কাগজপত্রে অতিরঞ্জিত করে উপস্থাপন করেছেন।

ট্রাম্পের নামে আরও চারটি ফৌজদারি মামলা চলমান আছে, তবে সাবেক এ প্রেসিডেন্টের দাবি, ডেমোক্র্যাট জেমস রাজনৈতিক প্রতিহিংসা থেকে এসব করছেন।

রায়ে ট্রাম্পের দুই ছেলে ডনাল্ড ট্রাম্প জুনিয়র ও এরিক ট্রাম্পকে ৪০ লাখ ডলার করে জরিমানা দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়। ট্রাম্প তিন বছর নিউ ইয়র্কে কোনো ব্যবসা করতে পারবেন না আর তার দুই ছেলে দুই বছরের জন্য এ নিষেধাজ্ঞার আওতায় থাকবেন।

ট্রাম্প তার কোম্পানি বা এই কোম্পানির অধিভুক্ত কোনো প্রতিষ্ঠান তিন বছরের জন্য কোনো ঋণের আবেদন করতে পারবেন না।

আরও পড়ুন:
হামলার কথা ইরাককে জানিয়েছিল যুক্তরাষ্ট্র: হোয়াইট হাউস
ইরাক সিরিয়ায় ইরান সংশ্লিষ্ট লক্ষ্যবস্তুতে হামলা শুরু যুক্তরাষ্ট্রের
ইরানের সেনাদের ওপর সিরিজ হামলা পরিকল্পনায় অনুমোদন যুক্তরাষ্ট্রের
বাংলাদেশে গ্রেপ্তার বিরোধীদের স্বচ্ছ আইনি প্রক্রিয়া নিশ্চিতের তাগিদ যুক্তরাষ্ট্রের
যুক্তরাষ্ট্রের প্রত্যন্ত এলাকায় গুলিবিদ্ধ ৬ মরদেহ উদ্ধার

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Putin Monster Trudeau

পুতিন দানব: ট্রুডো

পুতিন দানব: ট্রুডো রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ও কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। ছবি: উইকিমিডিয়া কমন্স
কানাডার একদল ব্যবসায়ী নেতার সঙ্গে আলাপকালে ট্রুডো ‘মৌলিক স্বাধীনতা ও গণতন্ত্রের’ পক্ষে দাঁড়ানোর ক্ষেত্রে নাভালনির ‘অপরিসীম সাহসের’ প্রশংসা করেন।

ক্রেমলিন সমালোচক অ্যালেক্সেই নাভালনির মৃত্যুকে ‘ট্র্যাজেডি’ আখ্যা দিয়ে কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো শুক্রবার বলেছেন, এর মধ্য দিয়ে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের দানব রূপটি প্রকাশ পেয়েছে।

বার্তা সংস্থা এএফপির প্রতিবেদনে জানানো হয়, রাষ্ট্রীয় সম্প্রচারমাধ্যম সিবিসিকে নাভালনির মৃত্যুর বিষয়ে ট্রুডো বলেন, ‘এটি ট্র্যাজেডি।’

তিনি বলেন, ‘এর মধ্য দিয়ে আসলে প্রমাণ হয় যে, রাশিয়ার জনগণের মুক্তির জন্য লড়াই করা যে কারও ওপর কতটা চড়াও হতে পারেন পুতিন। একই সঙ্গে এটি পুরো বিশ্বকে মনে করিয়ে দিয়েছে যে, পুতিন কেমন দানব।’

রাশিয়ার সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ শুক্রবার জানায়, উত্তর মেরুর কারাগারে বন্দি ৪৭ বছর বয়সী নাভালনির আকস্মিক মৃত্যু হয়।

চলতি বছরের মার্চে অনুষ্ঠেয় নির্বাচনের মধ্য দিয়ে দুই দশকের ক্ষমতাকে দীর্ঘায়িত করতে পুতিনের চেষ্টার মধ্যে তার বিরোধী নাভালনির মৃত্যুর খবরটি প্রকাশ হয়।

কারিশম্যাটিক আইনজীবী নাভালনিকে রাশিয়ার শীর্ষ বিরোধীদলীয় নেতা হিসেবে অনেকে বিবেচনা করতেন। তাকেই বিরোধী একমাত্র রাজনীতিক মনে করা হতো যিনি বিপুল লোকসমাগমের পাশাপাশি ৭১ বছর বয়সী পুতিনকে টেক্কা দিতে পারতেন।

এদিকে কানাডার একদল ব্যবসায়ী নেতার সঙ্গে আলাপকালে ট্রুডো ‘মৌলিক স্বাধীনতা ও গণতন্ত্রের’ পক্ষে দাঁড়ানোর ক্ষেত্রে নাভালনির ‘অপরিসীম সাহসের’ প্রশংসা করেন।

আরও পড়ুন:
গাজায় দ্রুত যুদ্ধবিরতি চান পুতিন
রূপপুর পরমাণু বিদ্যুৎকেন্দ্র দৃঢ় সম্পর্কের প্রতীক: পুতিন
কিমের বাসায় দাওয়াত পেলেন ‘বন্ধু’ পুতিন
ঠিক হয়েছে বিমান, কানাডার পথে ট্রুডো
‘প্লেনের অভাবে’ ভারত থেকে বাড়ি যেতে পারছেন না ট্রুডো

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
One dead 21 injured in Kansas City shooting

কানসাস সিটিতে বন্দুক হামলায় একজন নিহত, আহত ২১

কানসাস সিটিতে বন্দুক হামলায় একজন নিহত, আহত ২১ যুক্তরাষ্ট্রের মিজৌরি অঙ্গরাজ্যের কানসাস সিটিতে বুধবার বন্দুক হামলার পর নিরাপদে ছুটছেন সুপার বোলে জয়ী দলের সমর্থকরা। ছবি: ইউএসএ টুডে
কানসাস সিটি পুলিশের প্রধান স্ট্যাসি গ্রেভসের বরাত দিয়ে এবিসি নিউজের প্রতিবেদনে জানানো হয়, বন্দুক হামলার ঘটনায় তদন্তের প্রয়োজনে তিনজনকে আটক করা হয়েছে। তিনি এ হামলাকে ‘ট্র্যাজেডি’ আখ্যা দিয়েছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের মিজৌরি অঙ্গরাজ্যের কানসাস সিটিতে বুধবার বন্দুক হামলায় একজন নিহত ও কমপক্ষে ২১ জন আহত হয়েছেন।

দেশটির ন্যাশনাল ফুটবল লিগের ফাইনাল সুপার বোলে কানসাস সিটি চিফসের জয় উপলক্ষে প্যারেড ও র‌্যালির পর এ হামলা হয় বলে জানিয়েছেন স্থানীয় কর্মকর্তারা।

কানসাস সিটি পুলিশের প্রধান স্ট্যাসি গ্রেভসের বরাত দিয়ে এবিসি নিউজের প্রতিবেদনে জানানো হয়, বন্দুক হামলার ঘটনায় তদন্তের প্রয়োজনে তিনজনকে আটক করা হয়েছে। তিনি এ হামলাকে ‘ট্র্যাজেডি’ আখ্যা দিয়েছেন।

কানসাস সিটি ফায়ার সার্ভিসের অন্তর্বর্তীকালীন প্রধান রস গ্রুন্ডিসন জানান, বন্দুক হামলায় আহত ব্যক্তিদের স্থানীয় বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে, যাদের মধ্যে ১৫ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

চিল্ড্রেন’স মার্সি কানসাস সিটি হাসপাতালের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট ও চিফ নার্সিং অফিসার স্টেফানি মেয়ার বুধবার সাংবাদিকদের জানান, স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠানটিতে ১২ জন রোগীকে চিকিৎসা দেয়া হয়, যাদের মধ্যে ১১ জনের বয়স ৬ থেকে ১৫ বছর।

তিনি জানান, হাসপাতালে আসা রোগীদের মধ্যে ৯ জন গুলিতে আহত। অপর তিনজন পরিস্থিতির শিকার হয়ে আহত হন।

হামলায় হতাহত ব্যক্তির সংখ্যা নিরূপণে এখনও কাজ করছে সংশ্লিষ্ট দপ্তরগুলো।

আরও পড়ুন:
ইরাক সিরিয়ায় ইরান সংশ্লিষ্ট লক্ষ্যবস্তুতে হামলা শুরু যুক্তরাষ্ট্রের
ইরানের সেনাদের ওপর সিরিজ হামলা পরিকল্পনায় অনুমোদন যুক্তরাষ্ট্রের
বাংলাদেশে গ্রেপ্তার বিরোধীদের স্বচ্ছ আইনি প্রক্রিয়া নিশ্চিতের তাগিদ যুক্তরাষ্ট্রের
যুক্তরাষ্ট্রের প্রত্যন্ত এলাকায় গুলিবিদ্ধ ৬ মরদেহ উদ্ধার
যুক্তরাষ্ট্রের সেনাদের ওপর হামলা বাড়বে: হারাকাত হিজবুল্লাহ

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Biden told us about Israels upcoming operation in Rafah

রাফাহতে ইসরায়েলের আসন্ন অভিযানকে ‘আমাদের’ বললেন বাইডেন

রাফাহতে ইসরায়েলের আসন্ন অভিযানকে ‘আমাদের’ বললেন বাইডেন হোয়াইট হাউসে স্থানীয় সময় সোমবার জর্ডানের বাদশাহ দ্বিতীয় আবদুল্লাহর সঙ্গে বৈঠক করেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। ছবি: এএফপি
অনুলিপি অনুযায়ী, যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট শুরুতে বলেন, ‘রাফাহতে আমাদের সামরিক অভিযান।’ তারপর তিনি বলেন, ‘সেখানে (রাফাহ) আশ্রয় নেয়া ১০ লাখের বেশি মানুষের সুরক্ষা ও সহায়তার বিশ্বাসযোগ্য পরিকল্পনা নিশ্চিত না করে রাফাহতে তাদের (ইসরায়েল) বড় ধরনের সামরিক অভিযান চালানো উচিত হবে না।’

ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যকার দক্ষিণাঞ্চলীয় রাফাহতে ইসরায়েলের আসন্ন সামরিক অভিযানকে মুখ ফসকে ‘আমাদের সামরিক অভিযান’ বলে ফেলেছেন কথায় তালগোল পাকানো নিয়ে সম্প্রতি আলোচনায় আসা যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

স্থানীয় সময় সোমবার যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের দপ্তর হোয়াইট হাউসে দেয়া এক বক্তব্যের সময় উল্লিখিত কথা বলেন তিনি।

আল জাজিরা মঙ্গলবার এক প্রতিবেদনে জানায়, বাইডেনের বক্তব্যের হোয়াইট হাউস প্রকাশিত অনুলিপিতে দেখা যায়, বাক্যের মাঝখানে দৃশ্যত শব্দ পরিবর্তন করছেন বাইডেন।

অনুলিপি অনুযায়ী, যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট শুরুতে বলেন, ‘রাফাহতে আমাদের সামরিক অভিযান।’ তারপর তিনি বলেন, ‘সেখানে (রাফাহ) আশ্রয় নেয়া ১০ লাখের বেশি মানুষের সুরক্ষা ও সহায়তার বিশ্বাসযোগ্য পরিকল্পনা নিশ্চিত না করে রাফাহতে তাদের (ইসরায়েল) বড় ধরনের সামরিক অভিযান চালানো উচিত হবে না।’

গাজার শাসক দল হামাসের সঙ্গে যুদ্ধরত ইসরায়েলকে শত শত কোটি ডলার সামরিক সহায়তা দিয়ে আসছে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটি কূটনৈতিক ফোরামগুলোতেও ইসরায়েলকে সমর্থন দেয়, তবে ওয়াশিংটন জোর দিয়ে বলেছে, তারা গাজায় যুদ্ধে সরাসরি জড়িত নয়।

আরও পড়ুন:
গাজায় ১৩৫ দিনের যুদ্ধবিরতি, ইসরায়েলি সেনা প্রত্যাহারের প্রস্তাব হামাসের
গাজায় যুদ্ধবিরতির প্রস্তাবে সাড়া হামাসের: কাতার
যুদ্ধে পরিবারহারা গাজার ১৭ হাজার শিশু: জাতিসংঘ
ইসরায়েলি ৪ বসতি স্থাপনকারীর ওপর যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা
ইসরায়েলি হামলায় গাজায় নিহত প্রায় ২৭ হাজার

মন্তব্য

p
উপরে