× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

আন্তর্জাতিক
24 killed including 6 Palestinian children in Israeli attack
hear-news
player
print-icon

ইসরায়েলের হামলায় ৬ ফিলিস্তিনি শিশুসহ নিহত ২৪

ইসরায়েলের-হামলায়-৬-ফিলিস্তিনি-শিশুসহ-নিহত-২৪
গাজা উপত্যকায় ইসরায়েলের বিমান হামলার সময় ভীতসন্ত্রস্ত শিশুরা। ছবি: আল-মনিটর
গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, দুই দিনের সংঘর্ষে অন্তত ২০৩ জন আহত হয়েছে। গাজার আশপাশে এক বছরেরও বেশি সময় ধরে অপেক্ষাকৃত শান্তিপূর্ণ অবস্থা শুক্রবার থেকে ফের অস্থিরতায় রূপ নেয়।

গাজা উপত্যকায় দ্বিতীয় দিনের মতো ইসরায়েলের বিমান হামলায় ছয় ফিলিস্তিনি শিশুসহ অন্তত ২৪ জন নিহত হয়েছে।

ফিলিস্তিনি ছিটমহল নিয়ন্ত্রণকারী সংগঠন হামাস জানিয়েছে, জাবালিয়া শরণার্থী শিবিরের কাছে স্থানীয় সময় শনিবার ইসরায়েলের যুদ্ধবিমানের হামলায় নিহত ২৪ জনের মধ্যে ৬ শিশুও রয়েছে। এ ঘটনায় এককভাবে তারা ইসরায়েলকে দায়ী করেছে।

ইসরায়েলি সামরিক বাহিনী অবশ্য এর দায় অস্বীকার করেছে। বাহিনীটি জানিয়েছে, ফিলিস্তিনি গোষ্ঠী ‘ইসলামিক জিহাদ’ এর ছোড়া একটি রকেট লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়ে শরণার্থী শিবিরের কাছে আঘাত হানে।

গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, দুই দিনের সংঘর্ষে অন্তত ২০৩ জন আহত হয়েছে।

গাজার আশপাশে এক বছরেরও বেশি সময় ধরে অপেক্ষাকৃত শান্তিপূর্ণ অবস্থা শুক্রবার থেকে ফের অস্থিরতায় রূপ নেয়। সেদিন সশস্ত্র সংগঠন ইসলামিক জিহাদের একজন সিনিয়র কমান্ডারকে ইসরায়েল সুর্নিদিষ্ট হামলার মাধ্যমে হত্যা করে। এর পর পাল্টা হামলা শুরু করেন সশস্ত্র গোষ্ঠীটির সদস্যরা।

ইসরায়েলি ক্ষেপণাস্ত্র গাজার বাড়িঘর, অ্যাপার্টমেন্ট বিল্ডিং ধ্বংস করা শুরু করে। এ সময় এটি আঘাত হানে শরণার্থী শিবিরের কাছে। ইসরায়েলি সামরিক বাহিনী সতর্ক করেছে, ইসলামিক জিহাদের বিরুদ্ধে তাদের অভিযান এক সপ্তাহ স্থায়ী হতে পারে।

ইসরায়েলি অভিযানে নিহতদের মধ্যে ছিলেন ৭৩ বছর বয়সী উম ওয়ালিদ, যিনি তার ছেলের বিয়ের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। বেইট হ্যানউন শরণার্থী শিবিরে একটি গাড়িতে ইসরায়েলি হামলায় নিহত হন ওই নারী।

ফিলিস্তিনির যোদ্ধারা গত ২৪ ঘণ্টায় ইসরায়েলের স্থাপনা লক্ষ্য করে অন্তত ৪০০ রকেট ছুড়েছে। তবে এদের অধিকাংশ আটকে দিয়েছে ইসরায়েল।

আরও পড়ুন:
গাজায় ইসরায়েলি হামলায় ইসলামিক জিহাদ কমান্ডার নিহত
ভোলায় সংঘর্ষ: নিহত ছাত্রদল নেতার দেহে গুলির চিহ্ন
বাইডেনের সাক্ষাৎ চায় আবু আকলেহর পরিবার
৫ বছর পর ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী ও ফিলিস্তিনি প্রেসিডেন্টের ফোনালাপ
পশুবাহী ট্রাকচাপায় পুলিশ কনস্টেবল নিহত

মন্তব্য

আরও পড়ুন

আন্তর্জাতিক
Saudi Arabia deletes 5 million telegram messages

উগ্রবাদী ৫০ লাখ টেলিগ্রাম বার্তা মুছল সৌদি আরব   

উগ্রবাদী ৫০ লাখ টেলিগ্রাম বার্তা মুছল সৌদি আরব    সৌদি আরবের রিয়াদে অবস্থিত এতিদালের সদরদপ্তর। ছবি: এএফপি
দ্য গ্লোবাল সেন্টার ফর কমবেটিং এক্সট্রিমিস্ট আইডিওলজি (এতিদাল) জানিয়েছে, ১৭ জুলাই থেকে ১৩ সেপ্টেম্বরের মধ্যে সন্ত্রাসবাদ এবং সহিংস চরমপন্থা প্রতিরোধ ও মোকাবিলায় টেলিগ্রামের একটি টাস্ক ফোর্সের সঙ্গে মিলে ৫২ লাখ ৬৯ হাজার ৭৮টি কনটেন্ট মুছে ফেলেছে তারা।

সৌদি আরবে দুই মাসে ৫০ লাখের বেশি উগ্রবাদী টেলিগ্রাম বার্তা মুছে দিয়েছে দেশটির সরকার।

দ্য গ্লোবাল সেন্টার ফর কমবেটিং এক্সট্রিমিস্ট আইডিওলজি (এতিদাল) সোমবার এ তথ্য জানিয়েছে। তারা বলেছে, ১৭ জুলাই থেকে ১৩ সেপ্টেম্বরের মধ্যে সন্ত্রাসবাদ এবং সহিংস চরমপন্থা প্রতিরোধ ও মোকাবিলায় টেলিগ্রামের একটি টাস্ক ফোর্সের সঙ্গে মিলে ৫২ লাখ ৬৯ হাজার ৭৮টি কনটেন্ট মুছে ফেলা হয়েছে।

মুছে ফেলা কনটেন্টগুলোর মধ্যে আছে, সিরিয়া গৃহযুদ্ধে জড়িত জঙ্গি গোষ্ঠী তাহরির আল-শাম সম্পর্কিত ৩০ লাখ ১২ হাজার ৪৮৩টি বার্তা, আল-কায়েদা সম্পর্কিত ১১ লাখ ৬৮ হাজার ৪৪৭টি এবং আইএস সম্পর্কিত ১০ লাখ ৮৮ হাজার ১৪২টি বার্তা।

এতিদাল জানায়, উদ্রবাদী কনটেন্ট সরিয়ে নিতে চলতি বছরের ২১ ফেব্রুয়ারি থেকে টেলিগ্রামের সঙ্গে কাজ শুরু করে তারা। মূলত ব্যবহারকারীদের হুমকি এবং নেতিবাচক মতাদর্শ থেকে রক্ষা করতেই এ পদক্ষেপ নেয়া হয়। মুছে ফেলা আরবি বার্তাগুলোর মধ্যে আছে, পিডিএফ, ভিডিও এবং ভিডিওসহ বিভিন্ন ধরনের মিডিয়া ফাইল।

সৌদি লেখক এবং রাজনৈতিক বিশ্লেষক মুবারক আল-আতি মনে করছেন, চরমপন্থি বক্তব্য ও সন্ত্রাসবাদের ধারণা মোকাবিলায় তারা যথেষ্ট... এটা প্রমাণ করতে যাচ্ছে এতিদাল।

তিনি বলেন, ‘স্থানীয়, আঞ্চলিক এবং বৈশ্বিকস্তরে হুমকি মোকাবিলায় সংস্থাটির কাজ সুপরিচিত। টেলিগ্রামের মতো হাই-প্রোফাইল অংশীদারের সঙ্গে কাজ করে সোশ্যাল মিডিয়া এবং অন্যান্য পাবলিক অনলাইনে চরমপন্থী প্রভাব কমাতে পারবে তারা।

‘এটি সমাজে এ ধরনের কনটেন্টের প্রভাব কমিয়ে আনবে। পাশাপাশি প্রাসঙ্গিক সংস্থাগুলোকে সমাজের নিরাপত্তা রক্ষা ও বজায়ে নিজেদের দায়িত্বগুলোকে মনে করিয়ে দেবে।’

উগ্রবাদী ৫০ লাখ টেলিগ্রাম বার্তা মুছল সৌদি আরব
সৌদি লেখক এবং রাজনৈতিক বিশ্লেষক মুবারক আল-আতি

এতিদাল হলো একটি বৈশ্বিক সংস্থা; যার কাজ চরমপন্থা মোকাবিলা এবং এর মূলোৎপাটন করা। সেই সঙ্গে জনগণের মধ্যে সহনশীলতা ও সহাবস্থানের সংস্কৃতি প্রচার করে থাকে সংস্থাটি।

রিয়াদে ২০১৭ সালের ২১ মে আরব-ইসলামিক-আমেরিকান শীর্ষ সম্মেলনের সময় আঞ্চলিক এবং আন্তর্জাতিক নেটওয়ার্কগুলোর মধ্যে সহযোগিতার লক্ষ্যে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। এটির সদরদপ্তর সৌদি রাজধানী রিয়াদে।

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Saudi launched Nusuk with all the benefits of Hajj

হজের সব সুবিধা নিয়ে ‘নুসুক’ চালু করল সৌদি

হজের সব সুবিধা নিয়ে ‘নুসুক’ চালু করল সৌদি মুসলমানদের পবিত্র কাবাঘর। ছবি: সংগৃহীত
প্ল্যাটফর্মটির অফিসিয়াল টুইটার থেকে এক পোস্টে বলা হয়, ‘নুসুক হজযাত্রী ও ভ্রমণকারীদের অনেক বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য ও সেবা দেবে। এ ছাড়া খুব সহজে ও স্বাচ্ছদ্যে ওমরাহ করার জন্য তথ্য দিয়ে সহায়তা করবে নুসুক।’

নতুন একটি অনলাইন প্ল্যাটফর্ম চালু করেছে সৌদি আরব সরকার। ভিশন-২০৩০ সামনে রেখে দেশটিতে হজযাত্রী এবং মক্কা ও মদিনা শহর ভ্রমণের বিভিন্ন সুবিধা দিতেই প্ল্যাটফর্মটি চালু করা হয়েছে বলে জানায় সৌদি আরবের হজ ও ওমরাহ মন্ত্রণালয়।

যে কোনো বিষয়ের চেয়ে অনন্য প্ল্যাটফর্ম ‘নুসুক’ গতকাল সোমবার উন্মোচন করা হয়। এই প্ল্যাটফমটির মাধ্যমে এখন থেকে মক্কা ও মদিনায় ভ্রমণকারীরা তাদের নিজেদের পরিষেবার জন্য ওমরাহর ভ্রমণপথ নির্দিষ্ট করতে পারবেন।

ওয়েবসাইটটিতে বলা হয়, ‘নুসুকের মাধ্যমে ভ্রমণকারীরা খুব সহজেই সৌদিতে তাদের ভ্রমণকে সংগঠিত করতে পারবেন। এর মাধ্যমেই ই-ভিসায় আবেদন করা, হোটেল বুক করা এবং ফ্ল্যাইট বুক করার মতো সুবিধা পাবেন।’

এ ছাড়া ওয়েবসাইটটি ওমরাহ বা হজযাত্রীদের জন্য বিভিন্ন বিষয়ের বিস্তারিত তথ্য সরবরাহ করবে। উদাহরণ হিসেবে বলা যায়, এটি আবাসন, ল্যান্ডমার্ক এবং পবিত্র সাইটগুলো ভ্রমণের ক্ষেত্রে তারা চাইলে সেগুলো তালিকায় যুক্ত করতে পারবেন।

বুকিং প্রক্রিয়া সহজ করতে ইন্টার‍্যাক্টিভ ম্যাপ ছাড়াও শহরে ভ্রমণের ক্ষেত্রে বিভিন্ন ধরনের পরিবহন সম্পর্কিত তথ্য ও সেবা পাবেন নুসুক থেকেই।

প্ল্যাটফর্মটির অফিসিয়াল টুইটার থেকে এক পোস্টে বলা হয়, ‘নুসুক হজযাত্রী ও ভ্রমণকারীদের অনেক বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য ও সেবা দেবে। এ ছাড়া খুব সহজে ও স্বাচ্ছদ্যে ওমরাহ করার জন্য তথ্য দিয়ে সহায়তা করবে নুসুক।’

বিবৃতিতে জানানো হয়, প্ল্যাটফর্মটি হজ মন্ত্রণালয় দেশটির পর্যটন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যৌথভাবে তৈরি করেছে।

নুসুক ডট এসএ (nusuk.sa) তাদের সার্ভিস প্রোভাইডারদের সঙ্গে এর একটি স্লোগান ঠিক করেছে। ‘ভিজিট সৌদি আরব’ স্লোগান নিয়ে ওমরাহযাত্রী ও সৌদির মক্কা ও মদিনা ভ্রমণকারীদের নানাবিধ সুবিধার প্যাকেজ দেবে।

হজ ও ওমরাহ এবং হজযাত্রীদের এক্সপেরিয়েন্স প্রোগ্রাম কমিটির চেয়ারম্যান ড. তৌফিক বিন ফাউজান আল-রাবিয়াহ বলেন, ‘সবশেষ প্রযুক্তির সমন্বয়ে হজযাত্রী ও পর্যটকদের মানসম্মত পরিষেবা দিতে নুসুক প্ল্যাটফর্মটি আনা হয়েছে।’

পর্যটন মন্ত্রণালয়ের চেয়ারম্যান এবং সৌদি পর্যটন কর্তৃপক্ষের পরিচালক আহমেদ আল-খতিব বলেন, ‘নতুন এই প্ল্যাটফর্ম সৌদি আরবের ভিশন-২০৩০ বাস্তবায়নের মূল চাবিকাঠি। বিশ্বের সব মুসলিমদের সৌদিতে ওমরাহ ও হজের জন্য সুবিধা দিতেই এটির উন্মোচন করা হয়েছে।’

আরও পড়ুন:
দুই ওমরাহর মধ্যে ব্যবধান ১০ দিন
চীনা টিকা নিলে ওমরাহে যেতে বাধা নেই
শিশু-কিশোর ও বৃদ্ধের ওমরাহ পালনে বাধা
ওমরাহ পালনে শর্ত কী, জানাল ধর্ম মন্ত্রণালয়
ওমরাহ পালনে করোনা টিকা নিতে হবে

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
US Canada Sanctions on Irans Morality Police

ইরানের নৈতিকতা পুলিশের ওপর যুক্তরাষ্ট্র কানাডার নিষেধাজ্ঞা

ইরানের নৈতিকতা পুলিশের ওপর যুক্তরাষ্ট্র কানাডার নিষেধাজ্ঞা পুলিশ হেফাজতে কুর্দি তরুণী মাহসা আমিনির মৃত্যুর প্রতিবাদে ইরানের তেহরানে বিক্ষোভ। ছবি: এএফপি
স্থানীয় সময় সোমবার কানাডার অটোয়ায় দেশটি প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘কুর্দি তরুণী মাহসা আমিনির মৃত্যুর প্রতিবাদে দেশজুড়ে বিক্ষোভে ফেটে পড়া আন্দোলনকারীদের ওপর ইসলামিক রিপাবলিকটির সরকারের নজীরবিহীন দমন-পীড়নের কারণে এই নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে। তথাকথিত নৈতিকতা পুলিশ সদস্যরা, প্রজাতন্ত্রের একাধিক শীর্ষ কর্মকর্তা ও সংস্থা এর আওতায় পড়বে।’

ইরানে পুলিশি হেফাজতে কুর্দি তরুণী মাহসা আমিনির মৃত্যুর ঘটনায় দেশটির ‘নৈতিকতা পুলিশ’ ইউনিটের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডা।

স্থানীয় সময় সোমবার কানাডার অটোয়ায় দেশটি প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘কুর্দি তরুণী মাহসা আমিনির মৃত্যুর প্রতিবাদে দেশজুড়ে বিক্ষোভে ফেটে পড়া আন্দোলনকারীদের ওপর ইসলামিক রিপাবলিকটির সরকারের নজীরবিহীন দমন-পীড়নের কারণে এই নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে। তথাকথিত নৈতিকতা পুলিশ সদস্যরা, প্রজাতন্ত্রের একাধিক শীর্ষ কর্মকর্তা ও সংস্থা এর আওতায় পড়বে।’

একই ইস্যুতে স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার দেশটির বিতর্কিত নৈতিকতা পুলিশের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের ট্রেজারি বিভাগ।

বিবৃতিতে যুক্তরাষ্ট্র জানিয়েছে, কুর্দি তরুণীর মৃত্যুর দায় দেশটির নৈতিকতা পুলিশ ইউনিটের। এই মৃত্যুর প্রতিবাদে বিক্ষোভরত নারীদের পুলিশের নির্বিচার দমন-পীড়নের ঘটনায় এমন নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে।

সম্প্রতি ইরানে ‘সঠিকভাবে’ হিজাব না করার অভিযোগে গ্রেপ্তারের পর কুর্দি তরুণী মাহসা আমিনির পুলিশি হেফাজতে মৃত্যুর ঘটনায় দেশজুড়ে ছড়িয়ে পড়ে তুমুল বিক্ষোভ।

রাজধানী তেহরানসহ অন্তত ৮০টি শহর এখন অগ্নিগর্ভ। পোশাকের স্বাধীনতার দাবিতে চলমান বিক্ষোভে সোমবার পর্যন্ত ৭৫ জনের বেশি মানুষ মারা গেছেন, বলে জানিয়েছে ওসলোভিত্তিক মানবাধিকার সংস্থা ইরান হিউম্যান রাইটস। এ সময় আহত হয়েছেন হাজারের বেশি মানুষ।

১৯৭৯ সালে দেশটিতে ইসলামি বিপ্লবের পর থেকে নারীর পোশাক ইস্যুতে সবচেয়ে বড় বিক্ষোভ এটি।

ইরানে ১৯৭৯ সালের ওই বিপ্লবের পরই নারীদের জন্য হিজাব বাধ্যতামূলক করা হয়। দেশটির ধর্মীয় শাসকদের কাছে নারীদের জন্য এটি ‘অতিক্রম-অযোগ্য সীমারেখা’। বাধ্যতামূলক এই পোশাকবিধি মুসলিম নারীসহ ইরানের সব জাতিগোষ্ঠী ও ধর্মের নারীদের জন্য প্রযোজ্য।

ইরানের নৈতিকতা পুলিশের ওপর যুক্তরাষ্ট্র কানাডার নিষেধাজ্ঞা
মাহসা আমিনির মৃত্যুর পর বিক্ষোভে উত্তাল ইরান। ছবি: সংগৃহীত

নারীর জন্য কঠোর পোশাকবিধি দেখভালের দায়িত্বে আছে ইরানের ‘নৈতিকতা পুলিশ’ ইউনিট, ফারসি ভাষায় যার প্রাতিষ্ঠানিক নাম ‘গাস্ত-ই এরশাদ’। নিবর্তনমূলক ভূমিকার কারণে এই ইউনিট দীর্ঘদিন ধরেই অত্যন্ত অজনপ্রিয়। মাহসার মৃত্যুকে কেন্দ্র করে ইরানে ‘নৈতিকতা পুলিশ’-এর বিরুদ্ধে ক্ষোভের বিস্ফোরণ ঘটেছে। পাশাপাশি দেশটির শাসকগোষ্ঠীর প্রতিও বিপুলসংখ্যক মানুষের অনাস্থার প্রকাশ ঘটেছে এবার।

আরও পড়ুন:
ইরানে মাহসার পর এবার বিদ্রোহের প্রতীক হাদিস নাজাফি
পোশাকের স্বাধীনতায় ইরানি ২ বোনের হৃদয়ছোঁয়া ‘বেলা চাও’
বিশ্ববাসীকে বিক্ষোভকারীদের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান ইরানি অস্কারজয়ীর

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Death of Muslim Brotherhood leader Yusuf al Qaradai

মুসলিম ব্রাদারহুডের আধ্যাত্মিক নেতা ইউসুফ আল-কারাদায়ির মৃত্যু

মুসলিম ব্রাদারহুডের আধ্যাত্মিক নেতা ইউসুফ আল-কারাদায়ির মৃত্যু মুসলিম ব্রাদারহুডের আধ্যাত্মিক নেতা ও আন্তর্জাতিক ইউনিয়ন অফ মুসলিম স্কলারের সাবেক চেয়ারম্যান ইউসুফ আল-কারাদায়ি। ছবি: রয়টার্স
সোমবার ৯৬ বছর বয়সে তার মৃত্যু হয়েছে। মৃত্যুর খবরটি তার অফিশিয়াল টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে এক পোস্টে জানানো হয়।

কাতারভিত্তিক মুসলিম ব্রাদারহুডের আধ্যাত্মিক নেতা ও আন্তর্জাতিক ইউনিয়ন অফ মুসলিম স্কলারের সাবেক চেয়ারম্যান ইউসুফ আল-কারাদায়ির মৃত্যু হয়েছে

আল অ্যারাবিয়ার খবরে বলা হয়, সোমবার ৯৬ বছর বয়সে তার মৃত্যু হয়েছে। মৃত্যুর খবরটি তার অফিশিয়াল টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে এক পোস্টে জানানো হয়।

তার পুত্র আবদুল রহমান ইউসুফ আল-কারাদায়ি টুইটার অ্যাকাউন্টে দেয়া খবরটি নিশ্চিত করেছেন।

মিসরীয় ইউসুফ আল-কারাদায়ি ২০১৩ সাল থেকে কাতারে নির্বাসিত ছিলেন। পরে কাতার তাকে নাগরিকত্ব দেয়।

২০১৫ সালে মিসরে তার অনুপস্থিতিতে বিচার করা হয় এবং দেশটি তখন ইউসুফের কারাদণ্ডের রায় দেয়।

২০০৪ সালে প্রতিষ্ঠার পর থেকে ‘আন্তর্জাতিক ইউনিয়ন অফ মুসলিম স্কলার’-এর চেয়ারম্যান ছিলেন ইউসুফ আল-কারাদায়ি। এরপর টানা ১৫ বছর একই পদে ছিলেন তিনি।

মিসরে ১৯২৬ সালের ২৬ সেপ্টেম্বর জন্ম হয় ইউসুফ আল-কারাদায়ির। মিসরের উত্তর নীলনদের তীরবর্তী সাফাত তোরাব গ্রামে তার বেড়ে ওঠা শুরু। দুই বছর বয়সে বাবা মারা যান। পরে চাচা তার লালন-পালন করেন। ১০ বছর বয়সে তিনি সম্পূর্ণ কোরআন হিফজ করেন।

আরও পড়ুন:
আইনজীবী ইউসুফের ‘ফি’ ১৬ কোটি টাকা
নারী ও শিশুনির্ভর কন্টেন্ট নির্মাণে মালালার সঙ্গে অ্যাপল
করোনায় বিএনপি নেতা কামাল ইবনে ইউসুফের মৃত্যু
করোনায় আক্রান্ত নাসির উদ্দীন ইউসুফ

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Saudi women in leadership of top organization of space researchers

মহাকাশ গবেষকদের শীর্ষ সংগঠনে নেতৃত্বের সারিতে সৌদি নারী

মহাকাশ গবেষকদের শীর্ষ সংগঠনে নেতৃত্বের সারিতে সৌদি নারী আইএএফ-এর ভাইস প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়েছেন সৌদি নারী মিশাল আশেমিমরি। ছবি: সংগৃহীত
মহাকাশ প্রকৌশলী আশেমিমরি প্রথম সৌদি নারী, যিনি আইএএফ-এর মতো প্রভাবশালী সংস্থায় মর্যাদাপূর্ণ এই দায়িত্ব পেলেন।

মহাকাশ গবেষকদের আন্তর্জাতিক সংগঠন ইন্টারন্যশনাল অ্যাস্ট্রোনটিকাল ফেডারেশনের (আইএএফ) ভাইস প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়েছেন সৌদি নারী মিশাল আশেমিমরি

মহাকাশ প্রকৌশলী আশেমিমরি প্রথম সৌদি নারী, যিনি আইএএফ-এর মতো প্রভাবশালী সংস্থায় মর্যাদাপূর্ণ এই দায়িত্ব পেলেন।

সৌদি স্পেস কমিশনের (এসএসসি) রোববার এ তথ্য জানায়

এসএসসির এক টুইটে বলা হয়, আশেমিমরি আইএএফে সৌদি আরবের প্রতিনিধি হিসেবে ছিলেন। তার দায়িত্ব ছিল, বিশ্বব্যাপী মহাকাশ গবেষণা খাতের উন্নয়নে ভূমিকা রাখা, আইএএফ-এর কৌশলগত দিকনির্দেশনা উন্নয়নে অবদান রাখা এবং ফেডারেশনে সৌদি আরবের অবস্থানকে সুসংহত করা।

আইএএফ- এর গুরুত্বপূর্ণ পদে নির্বাচিত হওয়ার পর আশেমিমরি এক টুইটে লেখেন, ‘আইএএফ-এর অন্যতম ভাইস প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়ে আমি অত্যন্ত গর্বিত ও কৃতজ্ঞ। মহাকাশ গবেষণা জোরদারের জন্য অন্য ভাইস প্রেসিডেন্টদের সঙ্গে একযোগে কাজ করতে আমি উন্মুখ।’

সৌদি সংবাদ সংস্থা এসপিএ জানায়, আইএএফএ মোট ১২ জন ভাইস প্রেসিডেন্ট আছেন। তারা ফেডারেশনের জন্য বিভিন্ন সুপারিশ তৈরি, সভা তদারকি এবং সংগঠনের সাধারণ অধিবেশনের জন্য এজেন্ডা নির্ধারণ করেন।

এই ফেডারেশনে সারা বিশ্বের চারশরও বেশি সদস্য আছেন, যাদের অনেকেই শীর্ষস্থানীয় স্পেস এজেন্সি এবং প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধি।

আরও পড়ুন:
সাফজয়ীদের চুরির ক্ষতিপূরণ দিল বাফুফে
সাফজয়ীদের সংবর্ধনা, কোটি টাকা দেবে সেনাবাহিনী
ট্রফি উঁচিয়ে নিজ শহরে সাবিনা
খেলোয়াড়দের বাড়ির ছাদ তৈরির আহ্বান শিরিনের
সাফজয়ী আঁখির বাড়িতে পুলিশ: এসআই-কনস্টেবল প্রত্যাহার

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Journalist Shireen was deliberately murdered Investigation report

সাংবাদিক শিরিনকে জেনেবুঝেই খুন করা হয়: তদন্ত

সাংবাদিক শিরিনকে জেনেবুঝেই খুন করা হয়: তদন্ত চলতি বছরের ১১ মে পশ্চিম তীরে ইসরায়েলি স্নাইপারের গুলিতে নিহত হন শিরিন আবু আকলেহ। ছবি: সংগৃহীত
যৌথ তদন্ত প্রতিবেদন বলছে, স্নাইপার তিন দফায় গুলি চালায় শিরিনকে লক্ষ্য করে। প্রথমবার ৬টি, আট সেকেন্ড পর আরও ৭টি। এই ১৩টি গুলির একটি শিরিনের হেলমেটের ঠিক নিচে আঘাত হানে। দুই মিনিট পর, তাকে উদ্ধারের প্রচেষ্টা বন্ধ করতে আরও ৩টি গুলি ছোড়ে স্নাইপার।

আল জাজিরার সিনিয়র সাংবাদিক শিরিন আবু আকলেহকে ‘জেনেবুঝেই’ খুন করার তথ্য উঠে এসেছে যৌথ এক তদন্ত প্রতিবেদনে। লন্ডনভিত্তিক বহুবিষয়ক গবেষণা সংস্থা ফরেনসিক আর্কিটেকচার এবং ফিলিস্তিনি অধিকার গোষ্ঠী আল হক অনুসন্ধানটি চালায়।

পশ্চিম তীরের শহর জেনিনে ১১ মে ইসরায়েলি সামরিক অভিযানের খবর সংগ্রহের সময় গুলিতে নিহত হন ৫১ বছরের শিরিন। প্রত্যক্ষদর্শী এবং তার সহকর্মীরা দাবি করে আসছেন, ইসরায়েলি স্নাইপারের গুলিতে প্রাণ হারিয়েছেন তিনি।

তবে শুরু থেকেই এ অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করে আসছে ইসরায়েল। তেল আবিবের দাবি, শিরিনের গায়ে গুলি ভুলক্রমে লেগেছে।

শিরিন আবু আকলেহ ২৫ বছর ধরে আল জাজিরার হয়ে কাজ করছিলেন। ইসরায়েলি দখলদারিত্বের প্রতিবাদে সরব ছিলেন তিনি। এ কারণে তিনি ‘ফিলিস্তিনের কণ্ঠস্বর’ নামেও পরিচিত ছিলেন

যৌথ তদন্ত প্রতিবেদন বলছে, স্নাইপার তিন দফায় গুলি চালায় শিরিনকে লক্ষ্য করে। প্রথমবার ৬টি, আট সেকেন্ড পর আরও ৭টি। এই ১৩টি গুলির একটি শিরিনের হেলমেটের ঠিক নিচে আঘাত হানে। দুই মিনিট পর, তাকে উদ্ধারের প্রচেষ্টা বন্ধ করতে আরও ৩টি গুলি ছোড়ে স্নাইপার।

এ ছাড়া ঘটনার পরিস্থিতি বিবেচনায় এই সিদ্ধান্তে উপনীত হওয়া যায় যে, ওই এলাকায় সাংবাদিক ছিলেন, এটা স্নাইপার জানতেন। এ সময় জেনিনে ইসরায়েলি বাহিনী এবং ফিলিস্তিনিদের মধ্যে সংঘর্ষের আশঙ্কাও নাকচ করে দিয়েছেন তদন্ত কর্মকর্তারা।

আইসিসিতে অভিযোগ

শিরিনের পরিবার বিচারের দাবিতে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতে (আইসিসি) একটি অভিযোগ জমা দেয়ার দিনই এই অনুসন্ধানগুলো আসে।

শিরিনের ভাই অ্যান্টন বলেন, ‘হত্যার জবাবদিহিতা নিশ্চিতে পরিবারের যা যা করা দরকার তা-ই করবে।

‘শিরিন ও তার সহকর্মীদের লক্ষ্য করে ১৬টি গুলি ছোড়া হয়। এমনকি আহত অবস্থায় যে ব্যক্তি তাকে নিরাপদে টেনে নেয়ার চেষ্টা করে তাকেও তারা টার্গেট করেছিল।’

অভিযোগটি ফিলিস্তিনের প্রেস সিন্ডিকেট এবং ইন্টারন্যাশনাল ফেডারেশন অফ জার্নালিস্ট (আইএফজে) দ্বারা সমর্থিত।

চলতি মাসের শুরুতে ইসরায়েল জানায়, শিরিনকে হত্যা করা হয়েছে এমন দাবি উড়িয়ে দেয়া যায় না। তবে তারা অপরাধমূলক তদন্ত শুরু করবে না।

আরও পড়ুন:
ইসরায়েলের হামলায় ৬ ফিলিস্তিনি শিশুসহ নিহত ২৪
গাজায় ইসরায়েলি হামলায় ইসলামিক জিহাদ কমান্ডার নিহত
ইসরায়েলের গ্যাসক্ষেত্রে হামলার হুমকি হিজবুল্লাহর
‘ইরানে হামলা চালাতে পারে ইসরায়েল’
ইসরায়েলের বিমানের জন্য উন্মুক্ত সৌদির আকাশ

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Gold mines in Medina

মদিনায় স্বর্ণের খনি

মদিনায় স্বর্ণের খনি রিয়াদের আল আমার সোনার খনি। ছবি: সংগৃহীত
মদিনায় নতুন সন্ধান পাওয়া এই সোনা ও আকরিকের মজুত স্থানীয় ও আন্তর্জাতিক বিনিয়োগ আকৃষ্ট করবে বলে আশা করছে সৌদি কর্তৃপক্ষ। এই বিনিয়োগের পরিমাণ ৫৩ কোটি ডলার ছাড়াতে পারে, ফলে প্রায় ৪ হাজার কর্মসংস্থান সৃষ্টি হবে।

মধ্যপ্রাচ্যের প্রভাবশালী দেশ সৌদি আরবের মদিনা অঞ্চলে স্বর্ণ ও তামার আকরিকের নতুন মজুতের সন্ধান পাওয়া গেছে।

মিডল ইস্ট মনিটরের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সৌদি প্রেস এজেন্সি (এসপিএ) বৃহস্পতিবার জানিয়েছে, সৌদি ভূতাত্ত্বিক জরিপ (এসজিএস), জরিপ ও খনিজ অনুসন্ধান কেন্দ্র জানিয়েছে, স্বর্ণের মজুত মদিনা অঞ্চলের আল-রাহা সীমানার মধ্যে।

একই সঙ্গে এসজিএস জানিয়েছে, একই অঞ্চলের আল-মাদিক এলাকায় ৪টি সাইটে তামার আকরিকের সন্ধানও পাওয়া গেছে।

নতুন সন্ধান পাওয়া এই সোনা ও আকরিকের মজুত স্থানীয় ও আন্তর্জাতিক বিনিয়োগ আকৃষ্ট করবে বলে আশা করছে দেশটির কর্তৃপক্ষ। এই বিনিয়োগের পরিমাণ ৫৩ কোটি ডলার ছাড়াতে পারে, ফলে প্রায় ৪ হাজার কর্মসংস্থান সৃষ্টি হবে।

জুলাই মাসে সৌদি শিল্প ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রী খালিদ আল-মুদাইফা বলেছিলেন, দেশটিতে গত বছর খনি শিল্পে বিদেশি বিনিয়োগ হয়েছে ৮ বিলিয়ন ডলারের।

২০২২ সালের শুরুতে সৌদি কর্তৃপক্ষ বলেছিল, চলতি দশকের শেষ নাগাদ খনি খাতে ১৭০ বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ আকৃষ্ট করতে চাইছে।

সৌদি ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমানের ভিশন ২০৩০-এর আলোকে অর্থনীতিতে জ্বালানি তেল নির্ভরতা কমাতে খনি শিল্প বড় ভূমিকা রাখবে বলে আশা করছে সৌদি আরব।

আরও পড়ুন:
সৌদির ৪৮ শতাংশ নাগরিক সপ্তাহে খেলাধুলা করেন ৩০ মিনিট
বাইডেনের মুখের ওপর পাল্টা জবাব সৌদি যুবরাজের
সৌদি যুবরাজের সঙ্গে বৈঠকে খাশোগজি হত্যা প্রসঙ্গ: বাইডেন
ইসরায়েলের বিমানের জন্য উন্মুক্ত সৌদির আকাশ
সমালোচনা সত্ত্বেও সৌদি যুবরাজের সঙ্গে বসছেন বাইডেন

মন্তব্য

p
উপরে