× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

আন্তর্জাতিক
Israel may attack Iran
hear-news
player
print-icon

‘ইরানে হামলা চালাতে পারে ইসরায়েল’

ইরানে-হামলা-চালাতে-পারে-ইসরায়েল
ইসরায়েলি বিমান বাহিনীর এফ-৩৫ যুদ্ধবিমান। ছবি: সংগৃহীত
ইসরায়েলের প্রতিরক্ষামন্ত্রী বেনি গান্টসের আগে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের সম্প্রতি মধ্যপ্রাচ্য সফরে ইরানের পরমাণু অস্ত্র বানানো ঠেকাতে সামরিক অভিযানের বিষয়টি থাকারও ইঙ্গিত দিয়েছিলেন।

পরমাণু কর্মসূচি নিয়ে পশ্চিমা শক্তির সঙ্গে কোনো স্থায়ী চুক্তিতে আসতে পারেনি ইরান। যুক্তরাষ্ট্রের অবরোধ চালু থাকায় ইরানও সমানতালে পরমাণু কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছে। এমন পরিস্থিতিতে ইসরায়েলের প্রতিরক্ষামন্ত্রী বেনি গান্টস বলেছেন, তার দেশ ইরানের পরমাণু কর্মসূচিতে হামলা চালাতে পারে।

রাশিয়া টুডের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মঙ্গলবার ইসরায়েলের চ্যানেল থার্টিনে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এমনটাই বলেছেন দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী।

তিনি দাবি করেছেন, ইরানের পরমাণু কর্মসূচি কেবল ইসরায়েলের সমস্যা নয়, বরং এটি বৈশ্বিক সমস্যা।

গান্টস আরো বলেন, 'আমরা ইরানের পারমাণবিক প্রকল্প গুরুতরভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করতে সক্ষম।'

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের সম্প্রতি মধ্যপ্রাচ্য সফরে ইরানের পরমাণু অস্ত্র বানানো ঠেকাতে সামরিক অভিযানের বিষয়টি থাকারও ইঙ্গিত দিয়েছিলেন।

‘ইরানে হামলা চালাতে পারে ইসরায়েল’
ইসরায়েলের প্রতিরক্ষামন্ত্রী বেনি গান্টস

বাইডেনের শক্তি প্রয়োগের ইঙ্গিতের জবাবে ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্র ও মিত্ররা কোনো ধরনের ভুল করলে কঠোর ও অনুতাপ সৃষ্টিকারী জবাব দেয়া হবে।

রাইসি সে সময় আরো বলেন, ‘এ অঞ্চলে কোনো ধরনের নিরাপত্তাহীনতা কিংবা সংকটকে মেনে নেবে না মহান রাষ্ট্র ইরান। একই সঙ্গে ওয়াশিংটন ও তার মিত্রদের জানা উচিত, যেকোনো ধরনের ভুলের কঠোর ও অনুতাপ সৃষ্টিকারী জবাব দেবে ইরান।’

তার এ বক্তব্যের আগে যুক্তরাষ্ট্র ও ইসরায়েলের যৌথ অঙ্গীকারনামায় বলা হয়, ইরানকে কখনও পরমাণু অস্ত্র তৈরি করতে দেয়া হবে না।

এ লক্ষ্য অর্জনে জাতীয় সর্বশক্তি প্রয়োগের প্রস্তুতির কথাও তুলে ধরা হয় এতে।

ইরানের পরমাণু সক্ষমতা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে উদ্বেগ জানিয়ে আসছে যুক্তরাষ্ট্র ও ইসরায়েল।

আরও পড়ুন:
ইসরায়েলে ক্ষমতায় ফের নেতানিয়াহু!
ফিলিস্তিন-ইসরায়েল সংঘাত বাড়ছেই
সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট প্রাসাদে ‘হামলার হুমকি’ ইসরায়েলের
ইসরায়েলের দখলকৃত ভূখণ্ড ‘২৫ বছরের কম সময়ে স্বাধীন’
সাংবাদিক শিরিনের মৃত্যু কার গুলিতে?

মন্তব্য

আরও পড়ুন

আন্তর্জাতিক
There is an attempt to brand us as corrupt the grassroots

আমাদের দুর্নীতিগ্রস্ত বলে দাগ লাগানোর চেষ্টা চলছে: তৃণমূল

আমাদের দুর্নীতিগ্রস্ত বলে দাগ লাগানোর চেষ্টা চলছে: তৃণমূল ছবি: সংগৃহীত
পশ্চিমবঙ্গের শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু সাংবাদিকদের বলেন, ‘গত দুদিন ধরে রাজ্যে সবচেয়ে আলোচনার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে তৃণমূলের ১৯ নেতা মন্ত্রীর সম্পত্তি বৃদ্ধি এবং জনস্বার্থ মামলা। আদালতের রায় নিয়ে কিছু বলার নেই। আইন আইনের মতো চলবে।’

সম্পত্তি বৃদ্ধি মামলায় বিরোধীদের বিরুদ্ধে পাল্টা দুর্নীতিগ্রস্ত বলে অভিযোগ তুলেছেন শাসক দল তৃণমূলের নেতা ও মন্ত্রীরা।

তৃণমূল বলছে, ‘আমাদের কোন লুকোচাপা নেই। তবু দুর্নীতিগ্রস্ত বলে দাগ লাগানোর চেষ্টা করছে বিরোধীরা।’

বুধবার বিধানসভায় ডাকা তৃণমূলের সংবাদ সম্মেলনে ব্রাত্য বসু, ফিরহাদ হাকিম, মলয় ঘটক, অরূপ রায়, শিউলি সাহা, জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক ও অন্যান্য নেতৃবৃন্দ সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে বিরোধীদের বিরুদ্ধে পাল্টা অভিযোগ করেন।

এ দিন পশ্চিমবঙ্গের শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু সাংবাদিকদের বলেন, ‘গত দুদিন ধরে রাজ্যে সবচেয়ে আলোচনার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে তৃণমূলের ১৯ নেতা মন্ত্রীর সম্পত্তি বৃদ্ধি এবং জনস্বার্থ মামলা। আদালতের রায় নিয়ে কিছু বলার নেই। আইন আইনের মতো চলবে।’

এ দিন ব্রাত্য বলেন, 'সম্পত্তি বৃদ্ধি পেয়েছে অধীর রঞ্জন চৌধুরী, সূর্যকান্ত মিশ্র, অশোক ভট্টাচার্য, আবু হেনা, কান্তি গঙ্গোপাধ্যায়, নেপাল মাহাতো, ধীরেন বাগদি সহ একাধিক ব্যক্তির। তালিকায় তাদের নামও রয়েছে। সেগুলো নিয়ে কোন চর্চা হচ্ছে না কেন ? একটা ধারণা তৈরি করার চেষ্টা করা হচ্ছে, তৃণমূলই কেবল দুর্নীতিগ্রস্ত।’

অন্যদিকে ফিরহাদ হাকিম বলেন, 'নির্বাচনী হলফনামায় আয়-ব্যয়ের সমস্ত হিসাব দিয়েছি । আয়কর দপ্তর কোন পদক্ষেপ করেনি। রোজগার করা, সম্পত্তি বাড়ানো কোন অন্যায় নয়। এটা জনস্বার্থ মামলা নয়, রাজনৈতিক স্বার্থে করা মামলা।'

২০১১ সাল থেকে তৃণমূলের নেতা মন্ত্রীদের নির্বাচন কমিশনের হলফনামায় দেয়া সম্পত্তির পরিমাণ বহুগুণ বেড়েছে। ২০১৭ সালে এ বিষয়ে বিপ্লব কুমার চৌধুরী ও অনিন্দ্য সুন্দর দাস নামে দুই ব্যক্তি কলকাতা হাইকোর্টে একটি জনস্বার্থ মামলা করেন। এই মামলায় ফিরহাদ হাকিম, মলয় ঘটক, জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক, অরূপ রায়, ব্রাত্য বসু, জাভেদ খান, শিউলি সাহা ও অন্যান্য নেতা মন্ত্রীদের নাম রয়েছে।

আরও পড়ুন:
বোরোলিন নিয়ে চলি: কুনাল ঘোষ
জেল হেফাজতে পার্থ-অর্পিতা
আগামী লোকসভা নির্বাচনে ভেসে যাবে বিজেপি: মমতা
ভারতের উপরাষ্ট্রপতি নির্বাচনে ভোট দেবে না তৃণমূল
ত্রিপুরায় তৃণমূলের নতুন কমিটি

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
The Supreme Court heard the request of Nupur

নূপুরের আকুতি শুনল সুপ্রিম কোর্ট

নূপুরের আকুতি শুনল সুপ্রিম কোর্ট
বিচারকরা জানান, তারা নূপুরের হত্যার হুমকি বিবেচনা করেছেন। তাই তার বিরুদ্ধে মামলা বাতিলের জন্য দিল্লি হাইকোর্টে যাওয়ার অনুমতি দেয়া হয়েছে। এতে বিভিন্ন জায়গায় গিয়ে তাকে আর হাজিরা দিতে হবে না।

মহানবী (সা.)-কে নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্যের জেরে বিজেপি নেতা নূপুর শর্মাকে জুনে বরখাস্ত করে তার দল। ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে মামলা হয় নূপুরের নামে। নানান সময়ে তাকে ডাকা হয় বিভিন্ন থানায়। আছে প্রাণনাশের হুমকিও। এ অবস্থায় ভীষণ বিপাকে পড়েছেন নূপুর। মুক্তি পেতে তাই তিনি আকুতি জানিয়েছিলেন সুপ্রিম কোর্টের কাছে। হতাশ করেননি বিচারক

নূপুর শর্মার অনুরোধে তার বিরুদ্ধে সব মামলা একত্রিত করার নির্দেশ দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট, এতে বিভিন্ন রাজ্যে তাকে আর হাজিরা দিতে হবে না।

বিচারকরা জানান, তারা নূপুরের হত্যার হুমকি বিবেচনা করেছেন। তাই তার বিরুদ্ধে এফআইআর বাতিলের জন্য দিল্লি হাইকোর্টে যাওয়ার অনুমতি দেয়া হয়েছে।

এর আগে ১ জুলাই এ ইস্যুতে শুনানি হয় সুপ্রিম কোর্টে। মহানবীকে নিয়ে মন্তব্যের জেরে ভারতজুড়ে ছড়িয়ে পড়া সহিংসতার জন্য আদালতের বিচারক সে সময় নূপুরকে এককভাবে দায়ী করেন। এদিন নূপুর তার বিরুদ্ধে মামলাগুলোকে একত্রিত করতে সুপ্রিম কোর্টকে অনুরোধ করেছিলেন। জানিয়েছিলেন, সেগুলো যেন দিল্লিতে স্থানান্তর করা হয়।

১৯ জুলাই সুপ্রিম কোর্ট জানায়, নয়টি মামলায় গ্রেপ্তার করা যাবে না নূপুরকে। এদিন নূপুর আদালতকে জানিয়েছিলেন, ১ জুলাইয়ের আদেশের পর আজমির দরগাহের এক কর্মচারী তাকে গলা কেটে হত্যার হুমকি দিয়েছেন, শিরোশ্ছেদের হুমকি পেয়েছেন উত্তর প্রদেশের আরেক বাসিন্দার কাছ থেকেও।

নূপুরের বিরুদ্ধে দিল্লি, মহারাষ্ট্র, তেলেঙ্গানা, পশ্চিমবঙ্গ, কর্ণাটক, উত্তরপ্রদেশ, কাশ্মীর এবং আসামে মামলা রয়েছে।

আরও পড়ুন:
রাজস্থানে দর্জি হত্যার পেছনে পাকিস্তানের জঙ্গিরা?
নূপুর শর্মাকে দেশবাসীর কাছে ক্ষমা চাইতে বলল আদালত
ভারতে ‘তালেবানি মানসিকতা’ চলবে না: আজমির শরিফ প্রধান
সেই নূপুরের পক্ষ নেয়ায় রাজস্থানে দর্জি খুন, ১৪৪ ধারা
জবিতে শিক্ষার্থীদের ভারতীয় পণ্য বয়কটের ডাক

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
50 missing after boat sinks in Greece

গ্রিসে নৌকা ডুবে নিখোঁজ ৫০

গ্রিসে নৌকা ডুবে নিখোঁজ ৫০ গ্রিসে নৌকা ডুবে ৫০ জন নিখোঁজ। ছবি: এএফপি
কোস্ট গার্ডের এক কর্মকর্তা বলেন, ‘নৌকাটিতে অন্তত ৮০ জন ছিলেন বলে উদ্ধার হওয়া ২৯ জনের অনেকেই জানিয়েছেন। সে হিসাবে এখনও আরও ৫০ জনের মতো নিখোঁজ।’

গ্রিসের এজিয়ান সাগরে কারপাথোস দ্বীপের কাছে একটি নৌকা ডুবে অন্তত ৫০ অভিবাসনপ্রত্যাশী নিখোঁজ হয়েছে।

দেশটির কোস্ট গার্ডের এক কর্মকর্তা এ তথ্য জানিয়েছেন বলে এক প্রতিবেদনে বলেছে সংবাদ সংস্থা এএফপি।

তিনি বলেন, ‘নৌকাটিতে অন্তত ৮০ জন ছিলেন বলে উদ্ধার হওয়া ২৯ জনের অনেকেই জানিয়েছেন। সে হিসাবে এখনও আরও ৫০ জনের মতো নিখোঁজ।’

গ্রিসের কোস্ট গার্ড বলছে, মঙ্গলবার নৌকাটি তুরস্ক থেকে ইতালির উদ্দেশে ছেড়ে যায়। নিখোঁজদের সন্ধানে তারা তল্লাশি অভিযান শুরু করেছে।

কোস্ট গার্ডের ওই কর্মকর্তা বলেন, ‘উদ্ধার অভিযানে আমাদের চারটি যান অংশ নিয়েছে। এসবের মধ্যে উদ্ধারকারী জাহাজ এরইমধ্যে এজিয়ান সাগরের দক্ষিণে তল্লাশি শুরু করেছে।’

কোস্ট গার্ডের একটি টহল নৌকা এবং বিমান বাহিনীর একটি হেলিকপ্টারও উদ্ধার অভিযানে অংশ নিয়েছে বলে জানান তিনি।

দেশটির সাকি রেডিওতে দেয়া এক বক্তব্যে কোস্ট গার্ডের মুখপাত্র নিকোস কোকালাস বলেন, ‘সাগরে বাতাসের গতিবেগ ৫০ কিলোমিটারের বেশি হওয়ায় উদ্ধার কাজ পরিচালনা বাধাগ্রস্ত হচ্ছে।’

দারিদ্রপীড়িত আফ্রিকা এবং যুদ্ধবিধ্বস্ত মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশ থেকে পালিয়ে উন্নত জীবনের আশায় প্রায়ই অভিবাসীরা গ্রিস উপকূল হয়ে ইউরোপে পাড়ি জমায়। এই উপকূল দিয়ে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক বাংলাদেশিও ইউরোপে যাওয়ার চেষ্টা করেন। এই চ্যানেল পাড়ি দেয়ার সময় শত শত অভিবাসনপ্রত্যাশীর মৃত্যু হয়েছে ডুবে।

আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা (আইওএম) বলছে, চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে এখন পর্যন্ত পূর্ব ভূমধ্যসাগরে ডুবে অন্তত ৬৪ জন অভিবাসনপ্রত্যাশীর মৃত্যু হয়েছে।

জাতিসংঘের এই অভিবাসন সংস্থার তথ্য অনুযায়ী, গত ১৯ জুন গ্রিসের মাইকোনোস দ্বীপের কাছে নৌকা ডুবে অন্তত ৮ জন মারা যান।

এ ছাড়া ডুবে যাওয়া নৌকা থেকে আরও ১০৮ জনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়।

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
After Corona now Langaya virus in China

করোনার পর চীনে এবার ‘ল্যাংগায়া’ ভাইরাস

করোনার পর চীনে এবার ‘ল্যাংগায়া’ ভাইরাস
২০১৯ সালে মানুষের মধ্যে প্রথম দেখা এই ‘ল্যাংগায়া’ । তবে এ বছর এই ভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ল। ‘ল্যাংগায়া’ ভাইরাস মূলত নিপাহ ভাইরাস পরিবারের সদস্য।

করোনাভাইরাসের উৎসভূমি চীনে এবার আরেক ভাইরাসের সন্ধান মিলেছে। এরই মধ্যে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন অন্তত ৩৫ জন।

দেশটির হেনান এবং শানডং প্রদেশে নভেল ল্যাংগায়া হেনিপাভাইরাস (লেভি) নামের এ ভাইরাসের সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে সংবাদমাধ্যম বিবিসি

জ্বর, ক্লান্তি ও কাশির মতো উপসর্গ দেখা দেয় এই ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর শরীরে। প্রাণী থেকে মানুষের শরীরে আসা লেভি মানুষ থেকে মানুষে ছড়িয়ে পড়তে পারে কি না তা অবশ্য এখনও নিশ্চিত নয়।

চলতি মাসে নিউ ইংল্যান্ড জার্নালে চীন, সিঙ্গাপুর এবং অস্ট্রেলিয়ার গবেষকদের লেখা চিঠিতে এই ভাইরাস নিয়ে তথ্য দেয়া হয়েছে।

২০১৯ সালে মানুষের মধ্যে প্রথম দেখা এই ‘ল্যাংগায়া’ । তবে এ বছর এই ভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ল। ‘ল্যাংগায়া’ ভাইরাস মূলত নিপাহ ভাইরাস পরিবারের সদস্য।

গবেষণায় অংশ নেয়া সিঙ্গাপুরের ডিউক-এনইউএস মেডিকেল স্কুলের ইমার্জিং ইনফেকসাস ডিজিজ প্রোগ্রামের অধ্যাপক ওয়াং লিনফা বলেন, এখন পর্যন্ত এ ভাইরাস মারাত্মক বা খুব গুরুতর কিছু নয়। তাই আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই।

তবে ভাইরাসের ব্যাপারে সতর্ক হতে পরামর্শ দিয়েছেন তিনি।

আরও পড়ুন:
দ্বিতীয় ডোজ আর পাওয়া যাবে না, দ্রুত নিয়ে নিন: স্বাস্থ্যমন্ত্রী
করোনায় ২ মৃত্যু, শনাক্ত ২৫৩
সেপ্টেম্বরে দুয়ার খুলবে যুক্তরাষ্ট্র

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
University teacher went to work wearing a bikini

বিকিনি পরায় চাকরি খোয়ালেন বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষিকা

বিকিনি পরায় চাকরি খোয়ালেন বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষিকা ছবি: সংগৃহীত
বিকিনি পরা বেশ কিছু ছবি সেই শিক্ষিকা তার ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করেছিলেন এবং সেই ছবি স্নাতক প্রথম বর্ষের এক ছাত্রের চোখে পড়ে। পরে সেই ছাত্রের বাবার অভিযোগের ভিত্তিতে সেই শিক্ষিকাকে চাকরি ছাড়তে বাধ্য করা হয়।

বিকিনি পরার কারণে প্রতিষ্ঠানের ঐতিহ্যে আঘাত লেগেছে- এমন অভিযোগ এনে এক বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষিকাকে চাকরি ছাড়তে বাধ্য করেছে কর্তৃপক্ষ।

ভারতের কলকাতার সেন্ট জেভিয়ার্স ইউনিভার্সিটির এক সাবেক সহকারী অধ্যাপক কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে এমনই অভিযোগ আনলেন।

বিকিনি পরা বেশ কিছু ছবি সেই শিক্ষিকা তার ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করেছিলেন এবং সেই ছবি স্নাতক প্রথম বর্ষের এক ছাত্রের চোখে পড়ে। পরে সেই ছাত্রের বাবার অভিযোগের ভিত্তিতে সেই শিক্ষিকাকে চাকরি ছাড়তে বাধ্য করা হয়।

কর্তৃপক্ষের কাছে অভিযোগ জানানো এক চিঠিতে সেই ছাত্রের বাবা লেখেন, ‘শিক্ষিকার অন্তর্বাস পরা ছবি দেখছে আমার ছেলে, বাবা হিসেবে তা আমার জন্য লজ্জার।’

পরে সেই চিঠি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে।

২০২১ সালের ২৪ অক্টোবরের সেই ঘটনায় ইউরোপীয় ইউনিভার্সিটি থেকে পিএইচডি করা সেই শিক্ষিকা যাদবপুর থানায় প্রোফাইল হ্যাকের অভিযোগ জানান।

সেন্ট জেভিয়ার্স ইউনিভার্সিটি কর্তৃপক্ষ এই বিষয়টি আমলে নেয়নি বলে দাবি করেন সেই শিক্ষিকা।

তবে ইউনিভার্সিটি কর্তৃপক্ষ তাকে চাকরি ছাড়তে বাধ্য করার বিষয়টি অস্বীকার করেছে এবং তারা বলছে, শিক্ষিকাই স্বেচ্ছায় চাকরি ছেড়েছেন।

আরও পড়ুন:
সেই অর্পিতার আরেক ফ্ল্যাটে ২৯ কোটি রুপি
কে এই অর্পিতা
পশ্চিমবঙ্গে মন্ত্রীর ঘনিষ্ঠ মডেলের ঘর থেকে ২০ কোটি রুপি জব্দ
ধর্ষণ থেকে বাঁচতে স্কুলের ছাদ থেকে লাফ, আটক ৫
পশ্চিমবঙ্গের নতুন রাজ্যপাল হিসেবে গণেশনের শপথ

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
The Russians are fleeing Crimea due to the terrible explosion

ভয়াবহ বিস্ফোরণের জেরে ক্রিমিয়া ছেড়ে পালাচ্ছে রুশরা

ভয়াবহ বিস্ফোরণের জেরে ক্রিমিয়া ছেড়ে পালাচ্ছে রুশরা বিস্ফোরণস্থল থেকে পর্যটকদের অবস্থান দূরে নয়। ছবি: সংগৃহীত
ভয়াবহ বিস্ফোরণ হয়েছে ক্রিমিয়ায় অবস্থিত রাশিয়ার একটি বিমান ঘাঁটিতে। তবে কিয়েভ এই হামলার দায় স্বীকার না করলেও ঘটনার পরই ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলদিমির জেলেনস্কি বলেছেন, ক্রিমিয়া দিয়ে যুদ্ধ শুরু হয়েছে, ক্রিমিয়ার মুক্তি দিয়ে যুদ্ধ শেষ হবে।

রাশিয়ার মূল ভূখণ্ডের সঙ্গে ক্রিমিয়া যুক্ত হওয়ার পর রুশদের প্রধান অবকাশ যাপনের কেন্দ্র হয়ে উঠেছে স্থানটি। ইউক্রেনে রাশিয়ার সামরিক অভিযান শুরুর পর ইউক্রেনের ভেতর সেনা পাঠাতে ট্রানজিট হিসেবে ক্রিমিয়াকে ব্যবহার করে রুশ সেনারা। এরপরেও ক্রিমিয়ার ভেতরে সেই অর্থে কখনও হামলা চালায়নি ইউক্রেনীয় সেনারা।

এবার ডেইলি মেইলের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ক্রিমিয়ার নভোফেদোরিভকাতে ধারাবাহিকভাবে ভয়াবহ বিস্ফোরণের ঘটনায় অঞ্চলটি ছেড়ে পালাতে শুরু করেছে রুশ পর্যটকরা।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এরই মধ্যে পালাতে থাকা রুশদের গাড়ির যানজটে থাকার ছবি প্রকাশ পেয়েছে

প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছেন, ক্রিমিয়ার নভোফেদোরিভকাতে কমপক্ষে ১৫ বার আলাদা বিস্ফোরণের শব্দ শুনতে পেয়েছে।

বিস্ফোরণগুলো হয়েছে ক্রিমিয়ায় অবস্থিত রাশিয়ার একটি বিমান ঘাঁটিতে। যেই বিমান ঘাঁটি থেকে ইউক্রেনের অভ্যন্তরেও হামলা পরিচালনা করা হতো। সেই বিমান ঘাঁটিতে বিভিন্ন ধরনের যুদ্ধবিমান, ফ্রিগেট বিমান রয়েছে।

ভয়াবহ বিস্ফোরণের জেরে ক্রিমিয়া ছেড়ে পালাচ্ছে রুশরা
ক্রিমিয়া থেকে পালানো রুশদের গাড়ির দীর্ঘ সারি

ঘাঁটিটির অবস্থান ইউক্রেন সীমান্ত থেকে ১৩০ মাইল দূরে।

কিয়েভ এই ঘটনার কোনো দায়ভার স্বীকার না করলেও ঘটনার পরপরই ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলদিমির জেলেনস্কি বলেছেন, ইউক্রেন যুদ্ধের সুত্রপাত ক্রিমিয়া থেকে এবং ক্রিমিয়া স্বাধীনের মাধ্যমেই এই যুদ্ধের সমাপ্তি হবে।

এদিকে ইউক্রেনের একজন সিনিয়র সামরিক কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে নিউ ইয়র্ক টাইমসকে বলেছেন, ইউক্রেনের হামলার কারণেই এই বিস্ফোরণ।

তবে রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলছে, বিস্ফোরক ধ্বংস করার কারণেই এই বিস্ফোরণ। যদিও ক্রিমিয়ার রুশ কর্মকর্তারাই বলছেন, বিস্ফোরণে ১ জন মারা গেছেন এবং শিশুসহ আহত হয়েছেন ৫ জন।

ধারণা করা হচ্ছে, এই বিস্ফোরণ হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের নির্মিত আটাকমস ক্ষেপণাস্ত্রের আঘাতে। তবে বাইডেন প্রশাসন আনুষ্ঠানিকভাবে ইউক্রেনকে এই ধরনের কোনো অস্ত্র সরবরাহের বিষয়ে জানায়নি।

২০১৪ সালে ইউক্রেনে এক অভ্যুত্থানে মস্কোপন্থি সরকারের পতন হলে রুশ সেনারা দেশটিতে আক্রমণ করে ক্রিমিয়া দখল করে নেয়। পরে এক গণভোটে ক্রিমিয়ার জনগণ রাশিয়ার সঙ্গে যোগদানের পক্ষে ভোট দেয়। ক্রিমিয়াতে মূলত রুশভাষীদেরই বসবাস।

ভয়াবহ বিস্ফোরণের জেরে ক্রিমিয়া ছেড়ে পালাচ্ছে রুশরা
প্রত্যক্ষদর্শীরা প্রায় ১৫টি আলাদা বিস্ফোরণের শব্দ শুনেছেন

যদিও ইউক্রেন এই গণভোটের ফলাফল প্রত্যাখ্যান করে এবং ক্রিমিয়া উপদ্বীপকে রাশিয়া-দখলকৃত অঞ্চল হিসেবে বিবেচনা করে।

সম্প্রতি ইউক্রেনীয় সেনাদের ভারী অস্ত্র সরবরাহ শুরু করেছে যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমা দেশগুলো। তবে শর্ত এই যে এসব ভারী অস্ত্র দিয়ে রুশ ভূখণ্ডে আঘাত করা যাবে না। শুধু ইউক্রেনে অনুপ্রবেশ করা রুশ সেনাদের ওপর হামলার ক্ষেত্রে এসব অস্ত্র ব্যবহার করা যাবে।

ইউক্রেন দাবি করে আসছে, ক্রিমিয়া হলো রাশিয়ার দখলকৃত অঞ্চল। রুশ ভূখণ্ডে পশ্চিমা অস্ত্র ব্যবহার না করার প্রতিশ্রুতি ক্রিমিয়ার ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে না।

আরও পড়ুন:
খাদ্যশস্যের আরও ৩ জাহাজ ইউক্রেন ছাড়বে আজ
‘নিয়ন্ত্রণের বাইরে ইউরোপের সবচেয়ে বড় পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র’
অবশেষে ইউক্রেনের খাদ্যশস্য পাচ্ছে বিশ্ব
ড্রোন হামলায় ক্রিমিয়ায় রুশ নৌ দিবস বাতিল
ইউক্রেনের শীর্ষ শস্য ব্যবসায়ী নিহত

মন্তব্য

आज ही के दिन भारत छोड़ो आंदोलन की हुंकार के साथ एकजुट होकर भारतीयों ने क्रूर अंग्रेजी हुकूमत के खिलाफ आर-पार का संघर्ष शुरू किया था। एकजुटता हमारी सबसे बड़ी ताकत है।

आइए विविधता में एकता के झंडे को बुलंद करते हुए 'भारत जोड़ो' व भारत में विकास के नए आयाम जोड़ने का संकल्प लें। pic.twitter.com/HPcFN0lhrC

— Priyanka Gandhi Vadra (@priyankagandhi) August 9, 2022 " data-image_src="https://www.newsbangla24.com/assets/news_images/2022/08/10/prianka-gandhi.jpg" data-nid="202400" data-amp-href="https://www.newsbangla24.com/amp/international/202400/Congress-Bharat-Joro-Yatra-from-September-7" data-keywords="ভারত">
আন্তর্জাতিক
Congress Bharat Joro Yatra from September 7

কংগ্রেসের ‘ভারত জোড়ো যাত্রা’ ৭ সেপ্টেম্বর থেকে

কংগ্রেসের ‘ভারত জোড়ো যাত্রা’ ৭ সেপ্টেম্বর থেকে ভারত জোড়ো যাত্রায় উপস্থিত থাকবেন প্রিয়াঙ্কা গান্ধী ও রাহুল গান্ধী। ছবি: সংগৃহীত

ভারতের আসন্ন ২০২৪ সালের লোকসভা নির্বাচনের আগে সংগঠনকে মজবুত করতে ‘ভারত ছাড়ো আন্দোলনের’ ৮০ বছর পূর্তি উপলক্ষে কংগ্রেসের ‘ভারত জোড়ো আন্দোলন’ শুরুর ঘোষণা দিয়েছে।

আন্দোলনের অন্যতম কর্মসূচি হিসেবে ভারতের জাতীয় কংগ্রেস ‘কাশ্মীর থেকে কনাকুমারী পর্যন্ত ভারত জোড়ো যাত্রা’ বের করতে চলেছে।

আগামী ৭ সেপ্টেম্বর থেকে এই যাত্রা শুরু হবে। কংগ্রেসের উদ্দেশ্য, এই ধরনের কর্মসূচির মাধ্যমে তারা সাধারণ ভারতীয়দের কাছে পৌঁছানোর চেষ্টা করবে।

এই যাত্রা দলের নেতারা ১৫০ দিনে ৩ হাজার ৫০০ কিলোমিটার দূরত্ব অতিক্রম করবে এবং ভারতের ১২টি রাজ্য ও দুটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের মধ্য দিয়ে যাবে ভারত জোড়ো যাত্রা।

এই যাত্রায় দলের শীর্ষ নেতা ও সাবেক সভাপতি রাহুল গান্ধী যোগ দেবেন।

সর্বভারতীয় কংগ্রেস কমিটির সাধারণ সম্পাদক জয়রাম রমেশ বলেছেন, ‘কংগ্রেস ৮০ বছর আগে শুরু হওয়া ভারত ছাড়ো আন্দোলনের সঙ্গে দলের যাত্রাকে সংযুক্ত করেছে।’

১৯৪২ সালের ৯ আগস্ট মহাত্মা গান্ধীর নেতৃত্বে ‘ব্রিটিশ ভারত ছাড়ো’ আন্দোলন শুরু হয়। এর ঠিক পাঁচ বছর ব্রিটিশরা ভারত ছেড়ে চলে যাওয়ার ফলে স্বাধীন ভারতের জন্ম হয়।

জয়রাম বলেন, ‘ভয়, ধর্মান্ধতা, কুসংস্কারের রাজনীতি, জীবিকা ধ্বংসের রাজনীতি, বাড়তে থাকা বেকারত্ব এবং বৈষম্যের রাজনীতির বিকল্প প্রদানের জন্য ভারত জোড়ো যাত্রায় অংশ নেয়ার জন্য সবার কাছে আবেদন করেছে কংগ্রেস।’

এই কর্মসূচি নিয়ে কংগ্রেসের অন্যতম সাধারণ সম্পাদক প্রিয়াঙ্কা গান্ধী এক টুইট বার্তায় বলেছেন, ‘আজকের দিনেই ভারত ছাড়ো আন্দোলনের হুঙ্কারের সঙ্গে একজোট হয়ে ভারতবাসী নিষ্ঠুর ব্রিটিশ শাসনের বিরুদ্ধে আন্দোলন শুরু করেছিল। এই এক জোট হওয়ার ক্ষমতাই আমাদের বড় শক্তি। বিভেদের মধ্যে একতার পতাকা তুলে ধরে ভারত জোড়ো নতুন উন্নয়নের সংকল্প তৈরি করবে।’

কংগ্রেসের দলীয় সূত্রে জানা গেছে, এই যাত্রা ৬৮টি সংসদীয় কেন্দ্র ও ২০৩টি বিধানসভা কেন্দ্রতে যাবে। যে রাজ্যগুলোতে এই যাত্রা যাবে, তার মধ্যে রয়েছে তামিলনাড়ু, কেরালা, কর্ণাটক, তেলেঙ্গানা, অন্ধ্রপ্রদেশ্ম মহারাষ্ট্র, রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশ, উত্তর প্রদেশ, হরিয়ানা, দিল্লি, পাঞ্জাব, চণ্ডীগড় ও জম্মু-কাশ্মীর।

গুজরাট ও হিমাচল প্রদেশে চলতি বছর নির্বাচনের কথা থাকলেও ভারত জোড়ো যাত্রার আওতায় এই দুই প্রদেশ নেই।

কংগ্রেসের এই ভারত জোড়ো যাত্রা শেষ হবে ৩০ জানুয়ারি।

৩০ জানুয়ারিতেই নাথুরাম গডসের হাতে ১৯৪৮ সালে নিহত হন মহাত্মা গান্ধী।

আরও পড়ুন:
জেলে চপ-বেগুনি খাচ্ছেন পার্থ, শুয়ে-বসে কাটছে অর্পিতার
তামিলনাড়ুর ‘পার্বতীর’ সন্ধান সুদূর নিউ ইয়র্কে
ভারতের সঙ্গে সম্পর্ক রক্তের, প্রভাব পড়বে না: তথ্যমন্ত্রী

মন্তব্য

p
উপরে