× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট বাংলা কনভার্টার নামাজের সময়সূচি আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

আন্তর্জাতিক
Europe is burning and people are dying
google_news print-icon

দাবদাহে পুড়ছে ইউরোপ, মরছে মানুষ

ইউরোপে তাপপ্রবাহ
তীব্র তাপপ্রবাহে ইউরোপে হাজার হাজার মানুষের মৃত্যুর আশঙ্কা করা হচ্ছে।
বিশেষজ্ঞরা বলছেন, জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে তাপপ্রবাহ ঘন ঘন, তীব্র এবং দীর্ঘস্থায়ী হচ্ছে। শিল্প যুগ শুরু হওয়ার পর থেকে পৃথিবী ইতোমধ্যেই প্রায় ১ দশমিক ১ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় উষ্ণ হয়েছে। কার্বন নিঃসরণ কমানো না গেলে তাপমাত্রা বাড়তে থাকবে।

তাপপ্রবাহে নাকাল ইউরোপ। ইতিহাসের তীব্র তাপমাত্রার রেকর্ড টপকে যেতে পারে ফ্রান্স ও যুক্তরাজ্যে। ধারণ করা হচ্ছে, অসহনীয় এই গরমে হাজার হাজার মানুষের মৃত্যু হতে পারে। স্পেন ও পর্তুগালের পর দাবালন উত্তরে আরও ঝুঁকিপূর্ণ অঞ্চলের দিকে যাচ্ছে। দেশ দুটিতে ইতোমধ্যে তাপজনিত কারণে মৃত্যু হয়েছে এক হাজারের বেশি মানুষের।

যুক্তরাজ্যে সম্প্রতি প্রথমবারের মতো তাপমাত্রা ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস (১০৪ ডিগ্রি ফারেনহাইট) রেকর্ড হয়েছে। সোমবার রেকর্ড হয়েছে ৩৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস (৯৭ ডিগ্রি ফারেনহাইট)। ২০১৯ সালে রেকর্ড হয়েছিল ৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস (১০১.৬৬ ডিগ্রি ফারেনহাইট)।

ফ্রান্সের দক্ষিণ-পশ্চিমের ১৫ অঞ্চলে তাপমাত্রা রেকর্ড মাত্রায় পৌঁছতে পারে বলে সতর্ক করেছে আবহাওয়া অফিস। দমকলকর্মীরা দাবানলের সঙ্গে লড়াইয়ের পাশাপাশি হাজার হাজার লোককে নিরাপদে সরিয়ে নিয়েছেন।

ফ্রান্স সরকার বলছে, দক্ষিণ-পশ্চিমের একটি জনপ্রিয় পর্যটন অঞ্চল গিরোন্ডে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। গত মঙ্গলবার থেকে আগুনে পুড়ে গেছে প্রায় ১৪ হাজার ৩৪ হাজার একর জমি।

পুড়ছে স্পেনের জামোরার প্রদেশ। সিয়েরা দে লা কুলেব্রা পর্বতশ্রেণিতে এক মেষপালকের মরদেহ পাওয়া গেছে। এর আগে রোববার ৬২ বছরের এক ফায়ার ফাইটার নিহত হন।

কাতালোনিয়ার উত্তর-পূর্বাঞ্চলে, পন্ট দে ভিলোমারার কাছে মার্সিডিজ পিনোর বাড়িতে আগুন লেগেছিল। তিনি বলেন, ‘বিছানায় ছিলাম। জানালা দিয়ে খুব লাল আলো দেখলাম। যত দ্রুত সম্ভব দরজার দিকে দৌড়ে গেলাম। দেখি বাড়ির সামনে আগুন জ্বলছে।’

মালাগার কাছে মিজাস পাহাড়ের পাশাপাশি ক্যাস্টিলা ওয়াই লিওন, গ্যালিসিয়া এবং এক্সট্রিমাদুরায়ও দাবানল ছড়িয়ে পড়েছে। স্পেনের প্রধানমন্ত্রী পেদ্রো সানচেজের অঞ্চলটি পরিদর্শন করার কথা রয়েছে।

গত বৃহস্পতিবার পর্তুগালে তাপমাত্রা ৪৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড হয়েছে। দেশটির আবহাওয়া অফিস বলছে, মূল ভূখণ্ডের এক-তৃতীয়াংশ এখনও চরম ঝুঁকিতে রয়েছে।

বিবিসির পর্তুগাল সংবাদদাতা অ্যালিসন রবার্টস বলেন, ‘পরিস্থিতি ভয়াবহ। চরম খরার কারণে এমনটি হয়েছে।

‘জরুরি এবং সিভিল ডিফেন্স কমান্ডারদের সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার, প্রাণহানি ঠেকাতে দ্রুত কাজ করা। উত্তর ও দক্ষিণাঞ্চল থেকে ইতোমধ্যে ৮৬০ জনেরও বেশি মানুষকে সরিয়ে নেয়া হয়েছে।’

দাবদাহে পুড়ছে ইউরোপ, মরছে মানুষ

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে তাপপ্রবাহ ঘন ঘন, তীব্র এবং দীর্ঘস্থায়ী হচ্ছে। শিল্প যুগ শুরু হওয়ার পর থেকে পৃথিবী ইতোমধ্যেই প্রায় ১ দশমিক ১ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় উষ্ণ হয়েছে। কার্বন নিঃসরণ কমানো না গেলে তাপমাত্রা বাড়তে থাকবে।

স্পেনের ক্যাস্টিলা-লা মাঞ্চা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফ্যাকাল্টি এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্সেস অ্যান্ড বায়োকেমিস্ট্রির ডিন এনরিক সানচেজ জানিয়েছেন, তাপপ্রবাহ শিগগিরই স্বাভাবিক হয়ে উঠবে।

‘আমি বলতে চাচ্ছি যে সামনের বছরগুলোতে তাপমাত্রা যে বাড়বে না, তা বলা যাচ্ছে না। মানে তাপ তরঙ্গের ঘটনাগুলো আরও বেশি স্বাভাবিক হয়ে উঠবে... ইউরোপজুড়ে।’

আর্কটিক সার্কেলের উত্তরে সবচেয়ে শীতল জনবসতিপূর্ণ স্থান হিসেবে বিখ্যাত ছিল সাইবেরিয়ার গ্রাম ভারখোয়ানস্ক, যেখানে রেকর্ড সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ৬৭ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

চলতি বছরের জুনে এ গ্রামটি আর্কটিক সার্কেলের উত্তরে উষ্ণতম স্থানে পরিণত হয়েছে। গ্রামটির সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড হয়েছে ৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। যেখানে সাধারণ গ্রীষ্মে তাপমাত্রা থাকত ২০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের আশপাশে।

ওয়ার্ল্ড ওয়েদার অ্যাট্রিবিউশন প্রজেক্ট বলছে, মানবসৃষ্ট জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে পৃথিবীর তাপমাত্রা ৬০০ গুণ বেড়েছে।

ল্যানসেটের একটি প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বায়ুমণ্ডলে গ্রিনহাউস গ্যাস ব্যাপক মাত্রায় বেড়েছে। এই উষ্ণায়ন বন্যা, দূষণ, রোগের বিস্তারসহ নানা বিপদ ডেকে আনবে। তবে গবেষকরা এসবের মধ্যে তাপপ্রবাহকে সবচেয়ে গুরুত্ব দিচ্ছেন।

চলতি সপ্তাহে বিশ্ব আবহাওয়া সংস্থার একটি প্রতিবেদনে বলা হয়, রেকর্ডের তিনটি উষ্ণতম বছরের মধ্যে একটি ২০২০ সাল; তখন গড় বৈশ্বিক তাপমাত্রা প্রাক-শিল্প স্তর থেকে ১ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস বেশি রেকর্ড হয়েছিল। ২০২৪ সালের মধ্যে এটি ১ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসে বৃদ্ধি পাবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন:
ভারতে হিটস্ট্রোকে আক্রান্ত হচ্ছে পাখিরা
৪১ ডিগ্রি সেলসিয়াসে চুয়াডাঙ্গায় হাসফাঁস
দাবদাহ ও প্রকৃতির প্রতি দায়
তাপপ্রবাহে পুড়ছে পাঁচ বিভাগ

মন্তব্য

আরও পড়ুন

আন্তর্জাতিক
Xi wants to nurture the hard earned relationship between China and Russia

চীন-রাশিয়ার ‘কষ্টার্জিত’ সম্পর্কের লালনপালন চান শি

চীন-রাশিয়ার ‘কষ্টার্জিত’ সম্পর্কের লালনপালন চান শি চীনের বেইজিংয়ে বৃহস্পতিবার দুই দিনের সফরে আসা রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে কুশল বিনিময় করেন পূর্ব এশিয়ার দেশটির প্রেসিডেন্ট শি চিনপিং। ছবি: রয়টার্স
‘চীন-রাশিয়ার বর্তমান সম্পর্ক কষ্টার্জিত এবং দুই পক্ষেরই দরকার এর যত্ন ও লালনপালন’, পুতিনকে বলেন শি।

চীন ও রাশিয়ার সম্পর্ক কষ্টে অর্জিত উল্লেখ করে পূর্ব এশিয়ার দেশটির প্রেসিডেন্ট শি চিনপিং বৃহস্পতিবার বলেছেন, উভয় পক্ষেরই উচিত সম্পর্কের লালনপালন করা।

দুই দিনের রাষ্ট্রীয় সফরে আজ চীনে আসা রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের উদ্দেশে এ কথা বলেন তিনি।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, সফরে ইউক্রেন সংকট, এশিয়া, জ্বালানি ও বাণিজ্যের মতো বিষয় নিয়ে শির সঙ্গে বিশদ আলোচনার কথা আছে পুতিনের। প্রথম দিনের শুরুতে দুই নেতা মিলিত হন বেইজিংয়ের গ্রেট হল অফ দ্য পিপলে।

‘চীন-রাশিয়ার বর্তমান সম্পর্ক কষ্টার্জিত এবং দুই পক্ষেরই দরকার এর যত্ন ও লালনপালন’, পুতিনকে বলেন শি।

‘যৌথভাবে দুই দেশের উন্নয়ন ও পুনরুজ্জীবনের পাশাপাশি বিশ্বে ন্যায্যতা ও সুবিচার সমুন্নত রাখতে একসঙ্গে কাজ করতে ইচ্ছুক চীন’, যোগ করেন তিনি।

ইউক্রেনে ২০২২ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারি বিশেষ সামরিক অভিযান শুরুর কয়েক দিন আগে বেইজিংয়ে সফরে যান পুতিন। ওই সময় চীন ও রাশিয়া ‘সীমাহীন’ অংশীদারত্বের ঘোষণা দেয়।

সম্প্রতি ছয় বছরের জন্য প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব নেয়ার পর প্রথম বিদেশ সফরে চীনে এলেন পুতিন। এর মধ্য দিয়ে নিজের অগ্রাধিকার ও শির সঙ্গে জোরালো সম্পর্কের বিষয়ে বিশ্বকে বার্তা দিলেন রুশ প্রেসিডেন্ট।

আরও পড়ুন:
ইউক্রেন সংকট নিরসনে চীনের পরিকল্পনায় সমর্থন পুতিনের
অর্থনীতিবিদ বেলাউসভকে প্রতিরক্ষামন্ত্রী বানাচ্ছেন পুতিন
মহাকাশে পরমাণু অস্ত্র নিষিদ্ধের প্রস্তাবে রাশিয়ার ভেটো
নিরাপত্তা সহযোগিতা জোরদারে ইরান-রাশিয়া সমঝোতা
ইউক্রেন যুদ্ধে ৫০ হাজারের বেশি রুশ সেনা নিহত

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
There is no fear of loss of life of the injured Slovak Prime Minister
মন্ত্রীর ভাষ্য

জীবনঝুঁকি নেই গুলিতে আহত স্লোভাকিয়ার প্রধানমন্ত্রীর

জীবনঝুঁকি নেই গুলিতে আহত স্লোভাকিয়ার প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বৈঠকের পর বুধবার গুলিতে আহত হওয়া স্লোভাকিয়ার প্রধানমন্ত্রী রবার্ট ফিকোকে একটি গাড়িতে করে নিরাপদে সরিয়ে নেন নিরাপত্তা কর্মকর্তারা। ছবি: রয়টার্স
‘আমি খুবই মর্মাহত…সৌভাগ্যবশত আমি যতদূর জেনেছি, অস্ত্রোপচার সফলভাবে সম্পন্ন হয়েছে এবং আমার ধারণা শেষ পর্যন্ত তিনি বেঁচে যাবেন…এ মুহূর্তে জীবনঝুঁকি নেই তার’, বিবিসির নিউজআওয়ারকে বলেন স্লোভাকিয়ার উপপ্রধানমন্ত্রী ও পরিবেশমন্ত্রী টমাস তারাবা।

বন্দুকধারীর গুলিতে আহত স্লোভাকিয়ার প্রধানমন্ত্রী রবার্ট ফিকোর জীবনঝুঁকি নেই বলে দাবি করেছেন দেশটির এক মন্ত্রী।

স্থানীয় সময় বুধবার সরকারি এক বৈঠকের পর গুলিতে গুরুতর আহত হন ফিকো, যেটি ছিল গুপ্তহত্যার চেষ্টা।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে জানানো হয়, ৫৯ বছর বয়সী ফিকোকে পাঁচবার গুলি করে গুরুতর আহত করেন বন্দুকধারী। বুধবার সন্ধ্যায় অস্ত্রোপচার হয় স্লোভাকিয়ার প্রধানমন্ত্রীর।

‘আমি খুবই মর্মাহত…সৌভাগ্যবশত আমি যতদূর জেনেছি, অস্ত্রোপচার সফলভাবে সম্পন্ন হয়েছে এবং আমার ধারণা শেষ পর্যন্ত তিনি বেঁচে যাবেন…এ মুহূর্তে জীবনঝুঁকি নেই তার’, বিবিসির নিউজআওয়ারকে বলেন স্লোভাকিয়ার উপপ্রধানমন্ত্রী ও পরিবেশমন্ত্রী টমাস তারাবা।

তিনি জানান, বন্দুকধারীর একটি গুলি ফিকোর পাকস্থলি ভেদ করে। আরেকটি গুলি তার গ্রন্থিতে আঘাত হানে।

অ্যাকচুয়ালিটি ডট এসকে নামের একটি সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়, ফিকোর অস্ত্রোপচার সম্পন্ন হয়েছে এবং তার অবস্থা স্থিতিশীল।

এর আগে স্লোভাকিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রী রবার্ট কালিনাক এক ব্রিফিংয়ে বলেন, কয়েকটি গুলির আঘাতে মারাত্মক আহত হন ফিকো।

তারও আগে দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মাতুস সুতাজ এস্তক জানান, প্রাণহানির শঙ্কায় আছেন ফিকো, যিনি অপারেশন থিয়েটারে রয়েছেন।

আরও পড়ুন:
স্লোভাকিয়ার প্রধানমন্ত্রী গুলিবিদ্ধ, অবস্থা আশঙ্কাজনক

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Putin supports Chinas plan to resolve the Ukraine crisis

ইউক্রেন সংকট নিরসনে চীনের পরিকল্পনায় সমর্থন পুতিনের

ইউক্রেন সংকট নিরসনে চীনের পরিকল্পনায় সমর্থন পুতিনের চীনের বেইজিংয়ে ২০২৩ সালের ১৭ অক্টোবর বেইজিং ফোরামে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে স্বাগত জানান চীনা প্রেসিডেন্ট শি চিনপিং। ছবি: স্পুৎনিক
চীনের পরিকল্পনায় রাশিয়ার সমর্থনের বিষয়ে দেশটির প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘ইউক্রেন সংকট নিরসনে চীনের দৃষ্টিভঙ্গির বিষয়ে আমাদের মূল্যায়ন ইতিবাচক।’

ইউক্রেন সংকটের শান্তিপূর্ণ সমাধানে চীনের পরিকল্পনায় রাশিয়ার সমর্থন আছে জানিয়ে দেশটির প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বলেছেন, সমস্যার নেপথ্যের কারণ নিয়ে পরিপূর্ণ বোঝাপড়া আছে বেইজিংয়ের।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, এক সাক্ষাৎকারে পুতিন তার এ অবস্থানের কথা জানান, যেটি প্রকাশ হয় বুধবারের প্রথম প্রহরে।

এ সপ্তাহেই রাষ্ট্রীয় সফরে বেইজিংয়ে যাচ্ছেন পুতিন। এর আগে চীনের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা শিনহুয়াকে দেয়া ওই সাক্ষাৎকারে রুশ প্রেসিডেন্ট বলেন, ইউক্রেনে দুই বছরের বেশি সময় ধরে চলা যুদ্ধ বন্ধে সংলাপ ও আলোচনার বিষয়ে উন্মুক্ত অবস্থানে আছে রাশিয়া।

তিনি বলেন, গত মাসে চীনের প্রেসিডেন্ট শি চিনপিং প্রকাশিত চীনা পরিকল্পনা ও পরবর্তী নীতিমালাগুলোতে সংঘাতের পেছনের বিষয়গুলোকে আমলে নেয়া হয়েছে।

চীনের পরিকল্পনায় রাশিয়ার সমর্থনের বিষয়ে দেশটির প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘ইউক্রেন সংকট নিরসনে চীনের দৃষ্টিভঙ্গির বিষয়ে আমাদের মূল্যায়ন ইতিবাচক।

‘বেইজিংয়ে তারা প্রকৃত অর্থে এর (সংঘাত) মূল কারণ এবং বৈশ্বিক ভূরাজনৈতিক অর্থ বোঝেন।’

রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের নির্দেশে ২০২২ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে বিশেষ সামরিক অভিযান শুরু করে রাশিয়া। সেই থেকে দুই বছর পেরিয়ে গেলেও যুদ্ধ বন্ধে কোনো মতৈক্যে পৌঁছাতে পারেনি দুই পক্ষ।

আরও পড়ুন:
রাশিয়ায় বন্যা, জরুরি অবস্থা জারি
ন্যাটো দেশে হামলা নয়, ইউক্রেনকে যুদ্ধবিমান দিলে ধ্বংস করা হবে
মস্কোতে আইএসের হামলার সামর্থ্যে বিশ্বাস নেই রাশিয়ার
স্বাধীনতা দিবসে রাশিয়ার প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছা
রাশিয়ায় কনসার্ট হলে বন্দুক হামলায় চারজন অভিযুক্ত

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Putin replaces Shoigu with economist Belousov as defense minister

অর্থনীতিবিদ বেলাউসভকে প্রতিরক্ষামন্ত্রী বানাচ্ছেন পুতিন

অর্থনীতিবিদ বেলাউসভকে প্রতিরক্ষামন্ত্রী বানাচ্ছেন পুতিন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ও প্রতিরক্ষামন্ত্রী সের্গেই শোইগু। ছবি: এপি
প্রতিরক্ষামন্ত্রী পদে দায়িত্ব গ্রহণ করতে হলে রাশিয়ার পার্লামেন্টের উচ্চকক্ষ ফেডারেশন কাউন্সিলের অনুমোদন পেতে হবে বেলাউসভকে।

মন্ত্রিসভায় রদবদলের অংশ হিসেবে দীর্ঘদিনের প্রতিরক্ষামন্ত্রী সের্গেই শোইগুকে সরিয়ে তার জায়গায় অর্থনীতিবিদ আন্দ্রেই বেলাউসভকে নিয়োগের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন।

আল জাজিরার প্রতিবেদনে জানানো হয়, প্রতিরক্ষামন্ত্রীর পদ থেকে সরে গিয়ে শোইগু নিরাপত্তা পরিষদের সেক্রেটারি হবেন বলে রোববার জানায় ক্রেমলিন।

পঞ্চম মেয়াদে পুতিনের ক্ষমতা গ্রহণের পর মন্ত্রিসভায় এ রদবদলের সিদ্ধান্ত হলো।

রাশিয়ার আইনের সঙ্গে সঙ্গতি রেখে ক্রেমলিনে পুতিনের দায়িত্বভার গ্রহণের পর পুরো মন্ত্রিসভা গত মঙ্গলবার পদত্যাগ করে।

প্রতিরক্ষামন্ত্রী পদে দায়িত্ব গ্রহণ করতে হলে রাশিয়ার পার্লামেন্টের উচ্চকক্ষ ফেডারেশন কাউন্সিলের অনুমোদন পেতে হবে বেলাউসভকে।

ইউক্রেনের ক্রিমিয়া উপদ্বীপে রাশিয়ার হামলা ও সম্প্রসারণের দুই বছর আগে ২০১২ সালে রুশ প্রতিরক্ষামন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নেন শোইগু।

গত মাসে ঘুষ নেয়ার অভিযোগে শোইগুর অন্যতম সহকারী তিমুর ইভানভকে গ্রেপ্তার করে কারাগারে রাখার নির্দেশ দেয়া হয়। এ গ্রেপ্তারকে ব্যাপকভাবে শোইগুর ওপর আক্রমণ হিসেবে ব্যাখ্যা করা হয়েছে।

পুতিনের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক থাকার পরও প্রতিরক্ষামন্ত্রীর পদ থেকে শোইগুকে সরিয়ে দেয়ার আগের ঘটনা হিসেবেও দেখা হচ্ছে ইভানভের গ্রেপ্তারের বিষয়টিকে।

আরও পড়ুন:
ইউক্রেন যুদ্ধে ৫০ হাজারের বেশি রুশ সেনা নিহত
রাশিয়ায় বন্যা, জরুরি অবস্থা জারি
ন্যাটো দেশে হামলা নয়, ইউক্রেনকে যুদ্ধবিমান দিলে ধ্বংস করা হবে
মস্কোতে আইএসের হামলার সামর্থ্যে বিশ্বাস নেই রাশিয়ার
মস্কোতে হামলায় উগ্র ইসলামপন্থিদের হাত রয়েছে: পুতিন

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Qatar will give 3 million dollars to the human rights organization of Ukraine

ইউক্রেনের মানবাধিকার সংস্থাকে ৩০ লাখ ডলার দেবে কাতার

ইউক্রেনের মানবাধিকার সংস্থাকে ৩০ লাখ ডলার দেবে কাতার কাতারের আন্তর্জাতিক সহযোগিতাবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ললওয়াহ আল-খাতের গত ২৪ এপ্রিল দোহায় ইউক্রেনের শিশু ও তাদের পরিবারের সদস্যদের স্বাগত জানান। ছবি: এএফপি
শিশু, সহিংসতায় আক্রান্ত নাগরিকসহ ইউক্রেনের সর্বসাধারণের জীবনমান উন্নয়নের উদ্যোগে সহায়তার অংশ হিসেবে কাতার এ অর্থ দিচ্ছে বলে শুক্রবার জানিয়েছে দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

ইউক্রেনের পার্লামেন্টের মানবাধিকারবিষয়ক কমিশনারের কার্যালয়কে ৩০ ডলার দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে কাতার।

রাশিয়ার সঙ্গে যুদ্ধে বিধ্বস্ত দেশটির ‘কল্যাণ ও সুরক্ষা’য় সহায়তার জন্য এ অর্থ দেয়া হচ্ছে বলে মধ্যপ্রাচ্যের দেশটির পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে।

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা এক প্রতিবেদনে জানায়, শিশু, সহিংসতায় আক্রান্ত নাগরিকসহ ইউক্রেনের সর্বসাধারণের জীবনমান উন্নয়নের উদ্যোগে সহায়তার অংশ হিসেবে কাতার এ অর্থ দিচ্ছে বলে শুক্রবার জানিয়েছে দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

মন্ত্রণালয়টির এক বিবৃতিতে বলা হয়, ইউক্রেনে সংঘাতপীড়িত পরিবারগুলোকে সাহায্যের জন্য ক্রমবর্ধমান আইনি সহায়তা ও প্রয়োজনীয় অবকাঠামোর উন্নয়নে ভূমিকা রাখবে এ অর্থ।

কাতারের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় আরও জানায়, মানুষের মর্যাদাকে সম্মান করা হয় এবং প্রত্যেক ব্যক্তির অধিকারের সুরক্ষা দেয়া হয়, এমন বিশ্ব গড়ে তোলার প্রয়াসের বিষয়টি পুনর্ব্যক্ত করেছে ইউক্রেনের মানবাধিকার সংস্থাটি।

এর আগে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলদিমির জেলেনস্কি জানান, কাতারে স্বাভাবিক জীবনে ফিরছে ইউক্রেনে ২০২২ সালে রুশ হামলার পর জোর করে রাশিয়ায় পাঠানো ইউক্রেনীয় ১৬ শিশু।

জেলেনস্কি বুধবার জানান, কাতারের মধ্যস্থতা প্রচেষ্টার সুবাদে শিশুরা মুক্ত হয়ে তাদের পরিবারের কাছে ফিরতে পেরেছে।

আরও পড়ুন:
ইউক্রেন যুদ্ধে ৫০ হাজারের বেশি রুশ সেনা নিহত
ন্যাটো দেশে হামলা নয়, ইউক্রেনকে যুদ্ধবিমান দিলে ধ্বংস করা হবে
কাতারের আমিরের বাংলাদেশ সফরে গুরুত্ব পাবে যেসব বিষয়
ইউক্রেনে পশ্চিমা সেনা এলেই পারমাণবিক যুদ্ধ: পুতিন
ইউক্রেনে সেনা পাঠাবে না ন্যাটো

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Iran and Russia agree to strengthen security cooperation

নিরাপত্তা সহযোগিতা জোরদারে ইরান-রাশিয়া সমঝোতা

নিরাপত্তা সহযোগিতা জোরদারে ইরান-রাশিয়া সমঝোতা রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ও ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি। ছবি: এপি
ইরানের রাষ্ট্রীয় সম্প্রচারমাধ্যম প্রেস টিভি অনলাইনের প্রতিবেদনে জানানো হয়, ইরানের সুপ্রিম ন্যাশনাল সিকিউরিটি কাউন্সিলের (এসএনএসসি) সচিব আলি আকবর আহমেদিয়ান ও তার রাশিয়ার সমকক্ষ নিকোলাই পাত্রুশেভ এমওইউতে সই করেন।

নিরাপত্তা খাতে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক উন্নয়নে একটি সমঝোতা স্মারকে (এমওইউ) সই করেছে রাশিয়া ও ইরান।

রাশিয়ার সেন্ট পিটার্সবার্গে বুধবার নিরাপত্তা বিষয়ে উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধিদের আন্তর্জাতিক বৈঠকের ফাঁকে এমওইউটি সই করে দুই দেশ।

ইরানের রাষ্ট্রীয় সম্প্রচারমাধ্যম প্রেস টিভি অনলাইনের প্রতিবেদনে জানানো হয়, ইরানের সুপ্রিম ন্যাশনাল সিকিউরিটি কাউন্সিলের (এসএনএসসি) সচিব আলি আকবর আহমেদিয়ান ও তার রাশিয়ার সমকক্ষ নিকোলাই পাত্রুশেভ এমওইউতে সই করেন।

সমঝোতা স্মারক অনুযায়ী, কৌশলগত বিভিন্ন ক্ষেত্রে সহযোগিতা বাড়াতে কাজ করবে তেহরান ও মস্কো।

যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমা দেশগুলোর নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও নিরাপত্তা ও প্রতিরক্ষাসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে সম্পর্ক গভীরতর করেছে ঘনিষ্ঠ ও কৌশলগত দুই মিত্র ইরান ও রাশিয়া।

সেন্ট পিটার্সবার্গে গত ২৩ এপ্রিল থেকে নিরাপত্তা বিষয়ে ১২তম আন্তর্জাতিক উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধিদের বৈঠক শুরু হয়, যা শেষ হবে ২৫ এপ্রিল। এতে অংশ নেন ১০৬টি দেশের প্রতিনিধিরা।

বৈঠকে দেয়া ভাষণে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বলেছেন, বৈশ্বিক ও আঞ্চলিক নিরাপত্তা নিশ্চিতে আগ্রহী যেকোনো অংশীদারের সঙ্গে নিবিড় সহযোগিতায় প্রস্তুত মস্কো।

আরও পড়ুন:
ইরানে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা ইসরায়েলের
ইরানের ওপর পশ্চিমাদের নতুন নিষেধাজ্ঞা
বড় হামলা করলে ইসরাইলের কিছুই অবশিষ্ট থাকত না
ইউক্রেন যুদ্ধে ৫০ হাজারের বেশি রুশ সেনা নিহত
ইরানের তেল বাণিজ্যে লাগাম টানতে পারে যুক্তরাষ্ট্র

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
The US is secretly sending long range missiles to Ukraine

গোপনে ইউক্রেনে দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র পাঠাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

গোপনে ইউক্রেনে দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র পাঠাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র যুক্তরাষ্ট্রের দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র এটিএসিএমএস পরীক্ষা। ছবি: যুক্তরাষ্ট্রের সেনাবাহিনী
দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র দেয়ার বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের স্টেট ডিপার্টমেন্টের মুখপাত্র ভেদান্ত প্যাটেল সাংবাদিকদের বলেন, ‘প্রেসিডেন্টের প্রত্যক্ষ নির্দেশনায় যুক্তরাষ্ট্র ইউক্রেনকে দূরপাল্লার এটিএসিএমএস সরবরাহ করেছে বলে আমি নিশ্চিত করতে পারি।’

রাশিয়ার বিরুদ্ধে যুদ্ধে দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্রের ব্যবহার শুরু করেছে ইউক্রেন, যেগুলো যুক্তরাষ্ট্র গোপনে সরবরাহ করেছে বলে নিশ্চিত করেছেন দেশটির কর্মকর্তারা।

বিবিসি বৃহস্পতিবার জানায়, ক্ষেপণাস্ত্রগুলো ইউক্রেনের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন অনুমোদিত ৩০ কোটি ডলার সামরিক সহায়তা প্যাকেজের অংশ। চলতি বছরের মার্চে সহায়তার অনুমোদন দেয়া হয়। এপ্রিলে অস্ত্রগুলো ইউক্রেনে পাঠানো হয়।

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক সংবাদমাধ্যমের বরাতে বিবিসির খবরে বলা হয়, ক্রিমিয়ায় রাশিয়ার লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানার জন্য অন্তত একবার দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবহার করা হয়েছে।

এদিকে ইউক্রেনের জন্য নতুন করে ছয় হাজার ১০০ কোটি ডলার সহায়তার প্যাকেজে সই করেছেন বাইডেন।

ইউক্রেনে ২০২২ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারি রাশিয়ার সামরিক অভিযান শুরুর পর দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র সরবরাহ করতে বিভিন্ন সময়ে ওয়াশিংটনকে তাগিদ দিয়ে আসছিল কিয়েভ, তবে যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে এর আগে ইউক্রেনকে মধ্যমপাল্লার আর্মি ট্যাকটিক্যাল মিসাইল সিস্টেমস তথা এটিএসিএমএস ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা দেয়া হয়েছিল।

ইউরোপের দেশটিকে দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র দিতে রাজি হচ্ছিল না বৈশ্বিক পরাশক্তিটি।

বিবিসির খবরে বলা হয়, দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা দিতে বাইডেন ফেব্রুয়ারিতে সবুজ সংকেত দেন। এসব ক্ষেপণাস্ত্র ৩০০ কিলোমিটার দূরের লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানতে সক্ষম।

দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র দেয়ার বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের স্টেট ডিপার্টমেন্টের মুখপাত্র ভেদান্ত প্যাটেল সাংবাদিকদের বলেন, ‘প্রেসিডেন্টের প্রত্যক্ষ নির্দেশনায় যুক্তরাষ্ট্র ইউক্রেনকে দূরপাল্লার এটিএসিএমএস সরবরাহ করেছে বলে আমি নিশ্চিত করতে পারি।’

আরও পড়ুন:
বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ায় যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে গণগ্রেপ্তার
বাংলাদেশে মানবাধিকার পরিস্থিতির উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন নেই: যুক্তরাষ্ট্র
ইসরায়েলের জন্য ২৬ বিলিয়ন ডলার সহায়তার বিল পাস প্রতিনিধি পরিষদে
ট্রাম্পের বিচার চলাকালে আদালতের বাইরে গায়ে আগুন যুবকের
ইরানের ওপর পশ্চিমাদের নতুন নিষেধাজ্ঞা

মন্তব্য

p
উপরে