× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

আন্তর্জাতিক
Eid in different countries of the world including Saudi
hear-news
player
print-icon

সৌদিসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ঈদ

সৌদিসহ-বিশ্বের-বিভিন্ন-দেশে-ঈদ-
তুরস্কে ঈদের জামাতে অংশ নেন মুসলমানরা। ছবি: আনাদোলু
প্রথম দিনে ঈদ উদযাপিত হয় মধ্যপ্রাচ্য, ইউরোপ, আমেরিকা, আফ্রিকাসহ বিশ্বের বিভিন্ন অঞ্চলে। ঈদের নামাজ আদায় করার পর আত্মত্যাগের মহিমায় পশু কোরবানি করেন মুসলমানরা। অভাবি ও গরিব মানুষের সঙ্গে গোশত ভাগাভাগি করেন কোরবানিদাতারা।

সারা বিশ্বে আনুমানিক ১৮০ কোটি মুসলিম চারদিনের ঈদুল আজহার প্রথমদিন শনিবার ঈদ উদযাপন করেন।

প্রথম দিনে ঈদ উদযাপিত হয় মধ্যপ্রাচ্য, ইউরোপ, আমেরিকা, আফ্রিকাসহ বিশ্বের বিভিন্ন অঞ্চলে। ঈদের নামাজ আদায় করার পর আত্মত্যাগের মহিমায় পশু কোরবানি করেন মুসলমানরা। অভাবি ও গরিব মানুষের সঙ্গে গোশত ভাগাভাগি করেন কোরবানিদাতারা।

হিজরি বর্ষপঞ্জিতে শেষ মাস জিলহজের দশম দিনে বর্ণাঢ্য আয়োজনে হয় মুসলিমদের দ্বিতীয় বৃহৎ উৎসব ঈদুল আজহা।

করোনাভাইরাস মহামারি অনেকটা নিয়ন্ত্রণে আসায় এ বছর বড় পরিসরে ঈদ আনন্দ করতে পারছেন সেসব দেশের নাগরিকরা।

সৌদি আরব

সৌদি আরবের বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ আল সৌদ বিশ্বের সব মুসলিম সম্প্রদায়কে ঈদ শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

শনিবার মুসলিম সম্প্রদায়কে ঈদ শুভেচ্ছার পাশাপাশি হজের বিষয় নিয়েও কথা বলেছেন বাদশাহ সালমান।

সৌদি রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে দেয়া ভাষণে তিনি বলেন, করোনাভাইরাস মহামারি মোকাবিলায় ইতিবাচক প্রচেষ্টার কারণে দেশের ভেতর ও বাইরে থেকে এই বছর হজযাত্রীর সংখ্যা ১০ লাখে উন্নীত করা গেছে।

একই সঙ্গে হজযাত্রীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে এখনও সতর্কতামূলক পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন ঈদ উপলক্ষে দেয়া ভাষণে।

আরাফাতের ময়দানে এক আবেগঘন দিন শেষে নামাজ আদায় ও আল্লাহর কাছে প্রার্থনার পর শনিবার তীর্থযাত্রীরা মিনায় ফিরে গেছেন।

হজযাত্রীরা জামরাত কমপ্লেক্সে শয়তানকে পাথর নিক্ষেপ করেন।

এদিকে, তুরস্কের নর্দার্ন সাইপ্রাসে ঈদের প্রধান জামাত হয় হালা সুলতান মসজিদে। দেশটির প্রেসিডেন্ট ইরসিন তাতার উপকূলীয় শহর জিরনেতে ঈদ জামাতে অংশ নেন।

বাংলাদেশ

সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে দেশের বিভিন্ন জায়গায় উদযাপন করা হচ্ছে ঈদুল আজহা। ঈদের নামাজের পর পশু কোরবানি দিয়েছেন এসব এলাকার মানুষ।

চট্টগ্রামের চন্দনাইশ, সাতকানিয়া, আনোয়ারা, পটিয়া, বাঁশখালী ও বোয়ালখালীর শতাধিক গ্রামে ঈদুল আজহা উদযাপিত হয়।

বরিশালের ছয়টি উপজেলায় ঈদুল আজহা উদযাপিত হয়।

চট্টগ্রামের চন্দনাইশ শাহ সুফি দরবার শরিফ, সাতকানিয়া মির্জাখালী দরবার শরিফ এবং আহমাদিয়া জামাত অনুসারীরা এক দিন আগে শনিবার ঈদ উদযাপন করেন।

লক্ষ্মীপুরের ১১টি গ্রামে ঈদুল আজহার প্রথমদিন উদযাপিত হয়।

চাঁদপুরের ৪০ গ্রামের লক্ষাধিক মানুষ ঈদুল আজহা উদযাপন করেন।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশ ঈদ

ইন্দোনেশিয়ার পশ্চিম জাভা প্রদেশের দীপক শহরের মুসলিমরা কুবাহ ইমাস মসজিদে ঈদের জামাতে অংশ নেন।

ঈদুল আজহার নামাজ আদায়ে টোকিও মসজিদে জড়ো হন রাজধানী ও আশপাশের অঞ্চলের বাসিন্দারা।

দেশটির সিডনির মুসলিমরা অবার্ন গালিপোলি মসজিদে তাদের ঈদের নামাজ আদায় করেন।

আফ্রিকায় সবচেয়ে বেশি মুসলিম অধ্যুষিত দেশ নাইজেরিয়ায় ঈদ উদযাপন হয় আতশবাজি, ড্রাম ও বাঁশি বাজিয়ে।

ফিলিস্তিনের রামাল্লা শহরের বেয়তুনার একটি খোলা ময়দানে নামাজ আদায় করেছেন মুসল্লিরা।

রাজধানী কুয়ালালামপুরের শাহ মসজিদে হয় ঈদুল আজহার জামাত।

ইরাকের কিরকুকের ফাতাহ মসজিদে ঈদের নামাজ আদায় করেন মুসলিমরা।

আরও পড়ুন:
ঈদের নামাজ কখন কোথায়
রাজশাহীতে ঈদের প্রধান জামাত শাহ মখদুমে

মন্তব্য

আরও পড়ুন

আন্তর্জাতিক
Death of Muslim Brotherhood leader Yusuf al Qaradai

মুসলিম ব্রাদারহুডের আধ্যাত্মিক নেতা ইউসুফ আল-কারাদায়ির মৃত্যু

মুসলিম ব্রাদারহুডের আধ্যাত্মিক নেতা ইউসুফ আল-কারাদায়ির মৃত্যু মুসলিম ব্রাদারহুডের আধ্যাত্মিক নেতা ও আন্তর্জাতিক ইউনিয়ন অফ মুসলিম স্কলারের সাবেক চেয়ারম্যান ইউসুফ আল-কারাদায়ি। ছবি: রয়টার্স
সোমবার ৯৬ বছর বয়সে তার মৃত্যু হয়েছে। মৃত্যুর খবরটি তার অফিশিয়াল টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে এক পোস্টে জানানো হয়।

কাতারভিত্তিক মুসলিম ব্রাদারহুডের আধ্যাত্মিক নেতা ও আন্তর্জাতিক ইউনিয়ন অফ মুসলিম স্কলারের সাবেক চেয়ারম্যান ইউসুফ আল-কারাদায়ির মৃত্যু হয়েছে

আল অ্যারাবিয়ার খবরে বলা হয়, সোমবার ৯৬ বছর বয়সে তার মৃত্যু হয়েছে। মৃত্যুর খবরটি তার অফিশিয়াল টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে এক পোস্টে জানানো হয়।

তার পুত্র আবদুল রহমান ইউসুফ আল-কারাদায়ি টুইটার অ্যাকাউন্টে দেয়া খবরটি নিশ্চিত করেছেন।

মিসরীয় ইউসুফ আল-কারাদায়ি ২০১৩ সাল থেকে কাতারে নির্বাসিত ছিলেন। পরে কাতার তাকে নাগরিকত্ব দেয়।

২০১৫ সালে মিসরে তার অনুপস্থিতিতে বিচার করা হয় এবং দেশটি তখন ইউসুফের কারাদণ্ডের রায় দেয়।

২০০৪ সালে প্রতিষ্ঠার পর থেকে ‘আন্তর্জাতিক ইউনিয়ন অফ মুসলিম স্কলার’-এর চেয়ারম্যান ছিলেন ইউসুফ আল-কারাদায়ি। এরপর টানা ১৫ বছর একই পদে ছিলেন তিনি।

মিসরে ১৯২৬ সালের ২৬ সেপ্টেম্বর জন্ম হয় ইউসুফ আল-কারাদায়ির। মিসরের উত্তর নীলনদের তীরবর্তী সাফাত তোরাব গ্রামে তার বেড়ে ওঠা শুরু। দুই বছর বয়সে বাবা মারা যান। পরে চাচা তার লালন-পালন করেন। ১০ বছর বয়সে তিনি সম্পূর্ণ কোরআন হিফজ করেন।

আরও পড়ুন:
আইনজীবী ইউসুফের ‘ফি’ ১৬ কোটি টাকা
নারী ও শিশুনির্ভর কন্টেন্ট নির্মাণে মালালার সঙ্গে অ্যাপল
করোনায় বিএনপি নেতা কামাল ইবনে ইউসুফের মৃত্যু
করোনায় আক্রান্ত নাসির উদ্দীন ইউসুফ

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Saudi women in leadership of top organization of space researchers

মহাকাশ গবেষকদের শীর্ষ সংগঠনে নেতৃত্বের সারিতে সৌদি নারী

মহাকাশ গবেষকদের শীর্ষ সংগঠনে নেতৃত্বের সারিতে সৌদি নারী আইএএফ-এর ভাইস প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়েছেন সৌদি নারী মিশাল আশেমিমরি। ছবি: সংগৃহীত
মহাকাশ প্রকৌশলী আশেমিমরি প্রথম সৌদি নারী, যিনি আইএএফ-এর মতো প্রভাবশালী সংস্থায় মর্যাদাপূর্ণ এই দায়িত্ব পেলেন।

মহাকাশ গবেষকদের আন্তর্জাতিক সংগঠন ইন্টারন্যশনাল অ্যাস্ট্রোনটিকাল ফেডারেশনের (আইএএফ) ভাইস প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়েছেন সৌদি নারী মিশাল আশেমিমরি

মহাকাশ প্রকৌশলী আশেমিমরি প্রথম সৌদি নারী, যিনি আইএএফ-এর মতো প্রভাবশালী সংস্থায় মর্যাদাপূর্ণ এই দায়িত্ব পেলেন।

সৌদি স্পেস কমিশনের (এসএসসি) রোববার এ তথ্য জানায়

এসএসসির এক টুইটে বলা হয়, আশেমিমরি আইএএফে সৌদি আরবের প্রতিনিধি হিসেবে ছিলেন। তার দায়িত্ব ছিল, বিশ্বব্যাপী মহাকাশ গবেষণা খাতের উন্নয়নে ভূমিকা রাখা, আইএএফ-এর কৌশলগত দিকনির্দেশনা উন্নয়নে অবদান রাখা এবং ফেডারেশনে সৌদি আরবের অবস্থানকে সুসংহত করা।

আইএএফ- এর গুরুত্বপূর্ণ পদে নির্বাচিত হওয়ার পর আশেমিমরি এক টুইটে লেখেন, ‘আইএএফ-এর অন্যতম ভাইস প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়ে আমি অত্যন্ত গর্বিত ও কৃতজ্ঞ। মহাকাশ গবেষণা জোরদারের জন্য অন্য ভাইস প্রেসিডেন্টদের সঙ্গে একযোগে কাজ করতে আমি উন্মুখ।’

সৌদি সংবাদ সংস্থা এসপিএ জানায়, আইএএফএ মোট ১২ জন ভাইস প্রেসিডেন্ট আছেন। তারা ফেডারেশনের জন্য বিভিন্ন সুপারিশ তৈরি, সভা তদারকি এবং সংগঠনের সাধারণ অধিবেশনের জন্য এজেন্ডা নির্ধারণ করেন।

এই ফেডারেশনে সারা বিশ্বের চারশরও বেশি সদস্য আছেন, যাদের অনেকেই শীর্ষস্থানীয় স্পেস এজেন্সি এবং প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধি।

আরও পড়ুন:
সাফজয়ীদের চুরির ক্ষতিপূরণ দিল বাফুফে
সাফজয়ীদের সংবর্ধনা, কোটি টাকা দেবে সেনাবাহিনী
ট্রফি উঁচিয়ে নিজ শহরে সাবিনা
খেলোয়াড়দের বাড়ির ছাদ তৈরির আহ্বান শিরিনের
সাফজয়ী আঁখির বাড়িতে পুলিশ: এসআই-কনস্টেবল প্রত্যাহার

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Journalist Shireen was deliberately murdered Investigation report

সাংবাদিক শিরিনকে জেনেবুঝেই খুন করা হয়: তদন্ত

সাংবাদিক শিরিনকে জেনেবুঝেই খুন করা হয়: তদন্ত চলতি বছরের ১১ মে পশ্চিম তীরে ইসরায়েলি স্নাইপারের গুলিতে নিহত হন শিরিন আবু আকলেহ। ছবি: সংগৃহীত
যৌথ তদন্ত প্রতিবেদন বলছে, স্নাইপার তিন দফায় গুলি চালায় শিরিনকে লক্ষ্য করে। প্রথমবার ৬টি, আট সেকেন্ড পর আরও ৭টি। এই ১৩টি গুলির একটি শিরিনের হেলমেটের ঠিক নিচে আঘাত হানে। দুই মিনিট পর, তাকে উদ্ধারের প্রচেষ্টা বন্ধ করতে আরও ৩টি গুলি ছোড়ে স্নাইপার।

আল জাজিরার সিনিয়র সাংবাদিক শিরিন আবু আকলেহকে ‘জেনেবুঝেই’ খুন করার তথ্য উঠে এসেছে যৌথ এক তদন্ত প্রতিবেদনে। লন্ডনভিত্তিক বহুবিষয়ক গবেষণা সংস্থা ফরেনসিক আর্কিটেকচার এবং ফিলিস্তিনি অধিকার গোষ্ঠী আল হক অনুসন্ধানটি চালায়।

পশ্চিম তীরের শহর জেনিনে ১১ মে ইসরায়েলি সামরিক অভিযানের খবর সংগ্রহের সময় গুলিতে নিহত হন ৫১ বছরের শিরিন। প্রত্যক্ষদর্শী এবং তার সহকর্মীরা দাবি করে আসছেন, ইসরায়েলি স্নাইপারের গুলিতে প্রাণ হারিয়েছেন তিনি।

তবে শুরু থেকেই এ অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করে আসছে ইসরায়েল। তেল আবিবের দাবি, শিরিনের গায়ে গুলি ভুলক্রমে লেগেছে।

শিরিন আবু আকলেহ ২৫ বছর ধরে আল জাজিরার হয়ে কাজ করছিলেন। ইসরায়েলি দখলদারিত্বের প্রতিবাদে সরব ছিলেন তিনি। এ কারণে তিনি ‘ফিলিস্তিনের কণ্ঠস্বর’ নামেও পরিচিত ছিলেন

যৌথ তদন্ত প্রতিবেদন বলছে, স্নাইপার তিন দফায় গুলি চালায় শিরিনকে লক্ষ্য করে। প্রথমবার ৬টি, আট সেকেন্ড পর আরও ৭টি। এই ১৩টি গুলির একটি শিরিনের হেলমেটের ঠিক নিচে আঘাত হানে। দুই মিনিট পর, তাকে উদ্ধারের প্রচেষ্টা বন্ধ করতে আরও ৩টি গুলি ছোড়ে স্নাইপার।

এ ছাড়া ঘটনার পরিস্থিতি বিবেচনায় এই সিদ্ধান্তে উপনীত হওয়া যায় যে, ওই এলাকায় সাংবাদিক ছিলেন, এটা স্নাইপার জানতেন। এ সময় জেনিনে ইসরায়েলি বাহিনী এবং ফিলিস্তিনিদের মধ্যে সংঘর্ষের আশঙ্কাও নাকচ করে দিয়েছেন তদন্ত কর্মকর্তারা।

আইসিসিতে অভিযোগ

শিরিনের পরিবার বিচারের দাবিতে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতে (আইসিসি) একটি অভিযোগ জমা দেয়ার দিনই এই অনুসন্ধানগুলো আসে।

শিরিনের ভাই অ্যান্টন বলেন, ‘হত্যার জবাবদিহিতা নিশ্চিতে পরিবারের যা যা করা দরকার তা-ই করবে।

‘শিরিন ও তার সহকর্মীদের লক্ষ্য করে ১৬টি গুলি ছোড়া হয়। এমনকি আহত অবস্থায় যে ব্যক্তি তাকে নিরাপদে টেনে নেয়ার চেষ্টা করে তাকেও তারা টার্গেট করেছিল।’

অভিযোগটি ফিলিস্তিনের প্রেস সিন্ডিকেট এবং ইন্টারন্যাশনাল ফেডারেশন অফ জার্নালিস্ট (আইএফজে) দ্বারা সমর্থিত।

চলতি মাসের শুরুতে ইসরায়েল জানায়, শিরিনকে হত্যা করা হয়েছে এমন দাবি উড়িয়ে দেয়া যায় না। তবে তারা অপরাধমূলক তদন্ত শুরু করবে না।

আরও পড়ুন:
ইসরায়েলের হামলায় ৬ ফিলিস্তিনি শিশুসহ নিহত ২৪
গাজায় ইসরায়েলি হামলায় ইসলামিক জিহাদ কমান্ডার নিহত
ইসরায়েলের গ্যাসক্ষেত্রে হামলার হুমকি হিজবুল্লাহর
‘ইরানে হামলা চালাতে পারে ইসরায়েল’
ইসরায়েলের বিমানের জন্য উন্মুক্ত সৌদির আকাশ

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Gold mines in Medina

মদিনায় স্বর্ণের খনি

মদিনায় স্বর্ণের খনি রিয়াদের আল আমার সোনার খনি। ছবি: সংগৃহীত
মদিনায় নতুন সন্ধান পাওয়া এই সোনা ও আকরিকের মজুত স্থানীয় ও আন্তর্জাতিক বিনিয়োগ আকৃষ্ট করবে বলে আশা করছে সৌদি কর্তৃপক্ষ। এই বিনিয়োগের পরিমাণ ৫৩ কোটি ডলার ছাড়াতে পারে, ফলে প্রায় ৪ হাজার কর্মসংস্থান সৃষ্টি হবে।

মধ্যপ্রাচ্যের প্রভাবশালী দেশ সৌদি আরবের মদিনা অঞ্চলে স্বর্ণ ও তামার আকরিকের নতুন মজুতের সন্ধান পাওয়া গেছে।

মিডল ইস্ট মনিটরের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সৌদি প্রেস এজেন্সি (এসপিএ) বৃহস্পতিবার জানিয়েছে, সৌদি ভূতাত্ত্বিক জরিপ (এসজিএস), জরিপ ও খনিজ অনুসন্ধান কেন্দ্র জানিয়েছে, স্বর্ণের মজুত মদিনা অঞ্চলের আল-রাহা সীমানার মধ্যে।

একই সঙ্গে এসজিএস জানিয়েছে, একই অঞ্চলের আল-মাদিক এলাকায় ৪টি সাইটে তামার আকরিকের সন্ধানও পাওয়া গেছে।

নতুন সন্ধান পাওয়া এই সোনা ও আকরিকের মজুত স্থানীয় ও আন্তর্জাতিক বিনিয়োগ আকৃষ্ট করবে বলে আশা করছে দেশটির কর্তৃপক্ষ। এই বিনিয়োগের পরিমাণ ৫৩ কোটি ডলার ছাড়াতে পারে, ফলে প্রায় ৪ হাজার কর্মসংস্থান সৃষ্টি হবে।

জুলাই মাসে সৌদি শিল্প ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রী খালিদ আল-মুদাইফা বলেছিলেন, দেশটিতে গত বছর খনি শিল্পে বিদেশি বিনিয়োগ হয়েছে ৮ বিলিয়ন ডলারের।

২০২২ সালের শুরুতে সৌদি কর্তৃপক্ষ বলেছিল, চলতি দশকের শেষ নাগাদ খনি খাতে ১৭০ বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ আকৃষ্ট করতে চাইছে।

সৌদি ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমানের ভিশন ২০৩০-এর আলোকে অর্থনীতিতে জ্বালানি তেল নির্ভরতা কমাতে খনি শিল্প বড় ভূমিকা রাখবে বলে আশা করছে সৌদি আরব।

আরও পড়ুন:
সৌদির ৪৮ শতাংশ নাগরিক সপ্তাহে খেলাধুলা করেন ৩০ মিনিট
বাইডেনের মুখের ওপর পাল্টা জবাব সৌদি যুবরাজের
সৌদি যুবরাজের সঙ্গে বৈঠকে খাশোগজি হত্যা প্রসঙ্গ: বাইডেন
ইসরায়েলের বিমানের জন্য উন্মুক্ত সৌদির আকাশ
সমালোচনা সত্ত্বেও সৌদি যুবরাজের সঙ্গে বসছেন বাইডেন

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
6 killed in building collapse in Amman many buried

আম্মানে ভবনধসে নিহত ৬, চাপা পড়েছেন অনেকে

আম্মানে ভবনধসে নিহত ৬, চাপা পড়েছেন অনেকে ধ্বংসস্তূপে চলছে জোর উদ্ধার তৎপরতা। ছবি:এএফপি
সিভিল ডিফেন্স চিফ হাতেম জাবের বলেন, ‘ধরে নিচ্ছি আটকে পড়ারা বেঁচে আছেন। তাদের উদ্ধারে ৩৫০ জনের বেশি উদ্ধারকারী কাজ করছেন। ড্রোন, কুকুর নিয়ে পুলিশ উদ্ধার তৎপরতায় যোগ দিয়েছে।

জর্ডানের রাজধানী আম্মানে ধসে পড়া চারতলা ভবনের ধ্বংসস্তূপ থেকে এ পর্যন্ত ৬ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে ১২ জনকে।ধ্বংসস্তূপের নিচে এখনও অনেকে জীবিত চাপা পড়ে আছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। তাদের উদ্ধারে টানা কাজ করে যাচ্ছে ফায়ার সার্ভিস কর্তৃপক্ষ।

জাবাল আল-ওয়েইবদেহ জেলার জরাজীর্ণ আবাসিক ভবনটি স্থানীয় সময় মঙ্গলবার ধসে পড়ে। সে সময় ভবনটিতে ২৫ জন অবস্থান করছিলেন।

জর্ডান সরকারের মুখপাত্র ফয়সাল শাবুল বুধবার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। তিনি জানান, ধ্বংসস্তূপের নিচে অন্তত ১০ জন জীবিত আছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

স্থানীয় হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, উদ্ধারকারীরা ধসে পড়া কংক্রিটের ছাদ সরিয়ে জীবিতদের উদ্ধারে মরিয়া অনুসন্ধান চালাচ্ছেন। এখন পর্যন্ত অন্তত ১২ জনকে নিরাপদে সরিয়ে নেয়া হয়েছে। তাদের মধ্যে বেশ কয়েকজন গুরুতর আহত হয়েছেন।

সিভিল ডিফেন্স চিফ হাতেম জাবের বলেন, ‘ধরে নিচ্ছি আটকে পড়ারা বেঁচে আছেন। তাদের উদ্ধারে ৩৫০ জনের বেশি উদ্ধারকারী কাজ করছেন। ড্রোন, কুকুর নিয়ে পুলিশ উদ্ধার তৎপরতায় যোগ দিয়েছে।

‘ধ্বংসাবশেষ থেকে উদ্ধার হওয়া সর্বশেষ জীবিত ব্যক্তিটি পাঁচ মাস বয়সী এক শিশু। তার অবস্থা স্থিতিশীল।’

ভবনধসের কারণ এখনও স্পষ্ট না। ধসের জন্য ভবনটির বেহাল অবস্থাকে দায়ী করছেন কর্মকর্তারা। প্রধানমন্ত্রী বিশার আল-খাসাওনেহ ঘটনাটি তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন।

এ ঘটনায় তিনজনকে অভিযুক্ত করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন আম্মানের পাবলিক প্রসিকিউটর হাসান আল-আবদলাত।

তিনি বলেন, ‘ধসের কারণ নির্ধারণ এবং দায়ীদের চিহ্নিত করতে একটি কারিগরি কমিটি গঠন করা হবে দ্রুত।’

রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যমগুলো বলছে, সন্দেহভাজনরা ভবন মালিক, ঠিকাদার এবং রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্বে থাকা তিন ব্যক্তি।

জাবাল আল-ওয়েইবদেহ আম্মানের একটি পুরোনো জেলা। এটি ধনী ও প্রবাসীদের কাছে জনপ্রিয়। যদিও কিছু দরিদ্র এলাকাও অন্তর্ভুক্ত আছে এখানে।

আরও পড়ুন:
জর্ডানের বন্দরে ছিদ্র ক্লোরিনভর্তি পাত্র, ১১ প্রাণহানি
এক জার্সির দাম ১১ কোটি টাকা
জর্ডানের বাদশাহর প্রতি আনুগত্য ঘোষণা প্রিন্স হামজাহর
জর্ডানকে অস্থিতিশীল করার ষড়যন্ত্রে প্রিন্স হামজা: সাফাদি
জর্ডানের সাবেক যুবরাজ গৃহবন্দি  

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Iran nuclear deal wont stop operations Mossad

ইরানের পরমাণু চুক্তিতে ‘অভিযান’ বন্ধ হবে না: মোসাদ

ইরানের পরমাণু চুক্তিতে ‘অভিযান’ বন্ধ হবে না: মোসাদ ইরানের সঙ্গে দীর্ঘদিন ছায়াযুদ্ধে জড়িত থাকার অভিযোগ রয়েছে ইসরায়েলের বিরুদ্ধে। ছবি: এএফপি
যদিও ইসরায়েল কখনই কোনো হামলার কথা স্বীকার করেনি, তবে ইরানের সঙ্গে বছরের পর বছর ধরে ছায়াযুদ্ধে জড়িত থাকার অভিযোগ রয়েছে তেল আবিবের বিরুদ্ধে।

পরাশক্তিদের সঙ্গে পরমাণু চুক্তি হলেও ইরানকে কোনো ছাড় দেয়া হবে না বলে সাফ জানিয়েছে মোসাদ। ইসরায়েলি গোয়েন্দা সংস্থাটির প্রধান ডেভিড বার্নিয়া বলেছেন, ‘পরমাণু চুক্তির পুনরুজ্জীবন ইরানকে ইসরায়েলি তৎপরতা থেকে রক্ষা করতে পারবে না।’

দীর্ঘদিন ধরে ইরানের ২০১৫ সালের পরমাণু চুক্তির বিরোধিতা করে আসছে ইসরায়েল। তেল আবিবের দাবি, এই চুক্তিতে তেহরানের পরমাণু কর্মসূচি বন্ধ হবে না। এতে মধ্যপ্রাচ্যজুড়ে ইরানের সামরিক হস্তক্ষেপ আরও বাড়বে।

ডেভিড বার্নিয়া গত জুনে বিশ্বের অন্যতম শক্তিশালী গোয়েন্দা নেটওয়ার্ক মোসাদের দায়িত্ব নেন। সোমবার প্রথম জনসমক্ষে বক্তব্য রাখেন বার্নিয়া।

মোসাদপ্রধান বলেন, ‘আমরা এই চুক্তিতে নেই। এমনকি যদি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়, তবুও মোসাদের কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।’

বিশ্বজুড়ে ইরানের মদদপুষ্ট হামলা প্রতিহত করেছেন বলেও দাবি করেন মোসাদপ্রধান।

‘আমরা ইরানের অনেকগুলো সন্ত্রাসী হামলা নসাৎ করে দিয়েছি। এটি আসলে ইরানের ইসলামিক প্রজাতন্ত্র নয়, সন্ত্রাসী প্রজাতন্ত্র।’

বার্নিয়া বলেন, ‘ইরানে সন্দেহভাজন গোপন পারমাণবিক কার্যকলাপের বিষয়ে আন্তর্জাতিক পরমাণু শক্তি সংস্থার (আইএইএ) খোলা তদন্ত বন্ধ করা উচিত নয়। কারণ তারা পরমাণু কার্যক্রম বাড়াতে পারে। একবার চুক্তি সই হলে ইরানি সন্ত্রাসের ওপর কোনো নিয়ন্ত্রণ থাকবে না।’

চুক্তি হলে ইরানের ওপর আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞাগুলো প্রত্যাহার হবে জানিয়ে বার্নিয়া বলেন, ‘এমনটা ঘটলে রাজস্বের প্রবাহ ফিরে পাবে ইরান।’

ইসরায়েল যদিও কখনই কোনো হামলার কথা স্বীকার করেনি, তবে ইরানের পরমাণু কর্মসূচিকে ধীর করার জন্য বছরের পর বছর ধরে ইরানের সঙ্গে ছায়াযুদ্ধে জড়িত থাকার অভিযোগ রয়েছে তেল আবিবের বিরুদ্ধে।

ইরানের পারমাণবিক পদার্থবিদ মোহসেন ফাখরিজাদেহকে ২০২০ সালে হত্যা করা হয়েছিল। সাম্প্রতিক মাসগুলোতে একজন প্রকৌশলী, একজন সামরিক কর্মকর্তা, একজন বৈমানিক বিজ্ঞানীসহ অনেকেই নিহত হয়েছেন। বলা হচ্ছে, এসব খুনের পেছনে ইসরায়েল জড়িত।

বার্নিয়ার মন্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র নাসের কানানি তেহরান টাইমসকে বলেন, ‘আমরা ইসরায়েলের কাছ থেকে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড ছাড়া অন্য কিছু আশা করি না।’

যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প ২০১৮ সালে চুক্তি থেকে সরে আসেন। নতুন নিষেধাজ্ঞা দেন ইরানের ওপর।

২০২১ সালে চুক্তিটি পুনরুজ্জীবিত করার জন্য আলোচনা শুরু করেছিল পশ্চিমা দেশগুলো। পুনরুজ্জীবিত পারমাণবিক চুক্তির মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্র এবং চুক্তির অন্যান্য স্বাক্ষরকারী দেশ চীন, ফ্রান্স, জার্মানি, রাশিয়া এবং যুক্তরাজ্য (সম্মিলিতভাবে পি ফাইভ+ওয়ান নামে পরিচিত) ইরানকে পারমাণবিক বোমা তৈরি করা থেকে বিরত রাখতে চাইছে।

আরও পড়ুন:
আরও কাছাকাছি তুরস্ক-ইসরায়েল
রাশিয়া-আমেরিকা পরমাণু যুদ্ধে না খেয়ে মরবে ৫০০ কোটি
কুমারীত্ব পরীক্ষা নিয়ে যা হয় ইরানে
ভারতের সঙ্গে সেপা চুক্তির বিষয়ে আলোচনা
দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য বাড়াতে সৌদির সঙ্গে চুক্তি প্রস্তাব অনুমোদন

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Amphetamine drugs seized in Saudi

সৌদিতে জব্দ অ্যামফিটামিন মাদক

সৌদিতে জব্দ অ্যামফিটামিন মাদক ড্রিলিং-এর সরঞ্জামে লুকানো এফফিটামিন বড়ি। ছবি: সংগৃহীত
জেদ্দায় আড়াই লাখ অ্যামফিটামিন বড়ি আটকের আগে চলতি মাসেই সৌদিতে সবচেয়ে মাদকের চালান ধরা পড়ে। যে চালানে ছিল ৪৭ লাখ পিস বড়ি। সৌদি গণমাধ্যমগুলোও ইদানীং দেশটিতে মাদক বৃদ্ধির বিষয়ে শঙ্কা প্রকাশ করছে।

সৌদি আরবের জেদ্দা ইসলামিক পোর্ট দিয়ে পাচার করা ২ লাখ ৪৯ হাজার ৭৭৯ পিস অ্যামফিটামিন বড়ি আটক করেছে দেশটির মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর।

সৌদি প্রেস এজেন্সির (এসপিএ) বরাতে এক প্রতিবেদনে রোববার এমনটাই জানিয়েছে আরব নিউজ।

অ্যামফিটামিনের বড়িগুলো ড্রিলিংয়ের সরঞ্জামের মধ্যে লুকানো ছিল।

এ ঘটনায় রিয়াদের একজন বাসিন্দাকে আটক করে বিচার বিভাগীয় কর্তৃপক্ষের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

এদিকে দেশটির নাজরান এলাকায়, সৌদি সীমান্তরক্ষীরা ২৫ কিলোগ্রাম হাশিশ পাচারের চেষ্টার সময় একজনকে আটক করেছে।

সৌদি কর্তৃপক্ষ বলেছে যে তারা জনসাধারণের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে এবং অপরাধ রোধ করতে দেশটিতে মাদক চোরাচালান দমন অব্যাহত রাখবে।

সৌদি গণমাধ্যমগুলো ইদানীং দেশটিতে মাদক বৃদ্ধির বিষয়ে শঙ্কা প্রকাশ করছে।

এক সৌদি কলামিস্ট দেশটির ভেতরে মাদকের চালানের বিষয়টিকে দেখছেন সৌদির বিরুদ্ধে এক উন্মুক্ত যুদ্ধ হিসেবে, যা যেকোনো যুদ্ধের চেয়েও বিপজ্জনক।

এর আগে চলতি মাসেই সৌদি কর্তৃপক্ষ ৪৭ লাখ পিস অ্যামফিটামিন বড়ির (ইয়াবা বানানোর উপাদান) একটি চালান আটক করেছে। দেশটির ইতিহাসে এটিই ছিল সবচেয়ে বড় মাদক উদ্ধারের ঘটনা।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এই মাদক উদ্ধারের ঘটনা দেখায় যে মাদকের রাজধানী হিসেবে সৌদি আরবে বাড়তে থাকা চাহিদার কারণে সিরিয়া ও লেবানন থেকে চোরাচালানকারীদের প্রাথমিক গন্তব্য হয়ে উঠছে।

সৌদি আরবের রক্ষণশীল সমাজব্যবস্থার কারণে মাদকাসক্তের সংখ্যা বাড়ছে। ফলে বর্তমানে দেশটির কার্যত শাসক ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান যে অপেক্ষাকৃত মুক্তসমাজ তৈরি করতে চাচ্ছেন, তা মাদক সেবন কমিয়ে আনতে পারে।

এরই মধ্যে মাদকাসক্তের সংখ্যা বাড়ায় দেশটিতে বেসরকারি মাদক নিরাময় কেন্দ্রের অনুমোদন দেয়া হয়েছে।

সিরিয়ায় চলমান যুদ্ধের কারণে দেশটির রাসায়নিক কারখানাগুলোতে মাদক তৈরি করা হচ্ছে এবং তা বিক্রি করে তোলা হচ্ছে যুদ্ধের খরচ। এই মাদকগুলোর প্রধান গন্তব্যস্থলও হয়ে উঠছে সৌদি। এ ছাড়া বাইরে থেকেও আসছে মাদক।

সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের কোস্ট গার্ড ওমান উপসাগরে একটি মাছ ধরার নৌকা থেকে ৩২০ কিলোগ্রাম অ্যামফিটামিন বড়ি এবং তিন হাজার কিলোগ্রাম হাশিশ আটক করেছে।

মন্তব্য

p
উপরে