× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ পৌর নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য

আন্তর্জাতিক
Neurallinks on the verge of chipping the human brain
hear-news
player
print-icon

মানব মস্তিষ্কে চিপ লাগানোর দ্বারপ্রান্তে নিউরালিংক

মানব-মস্তিষ্কে-চিপ-লাগানোর-দ্বারপ্রান্তে-নিউরালিংক ব্রেইন কম্পিউটার ইন্টারফেস প্রযুক্তি নিয়ে কাজ করছেন ইলন মাস্ক। ছবি: সংগৃহীত
গত বছরের ডিসেম্বরে ওয়ালস্ট্রিট জার্নালকে ইলন মাস্ক জানিয়েছিলেন, ২০২২ সালের কোনো একসময়ে নিউরালিংক মানবদেহে চিপ স্থাপন করবে।

মানব মস্তিষ্কে চিপ বসানোর জন্য অনেক দিন ধরেই কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের শীর্ষ ধনী ইলন মাস্কের প্রতিষ্ঠান নিউরালিংক।

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের জন্য পরিচালক নিয়োগ দিচ্ছে নিউরালিংক।

যুক্তরাষ্ট্রের বড় প্রতিষ্ঠানগুলো নতুন ডিভাইস ট্রায়ালের আগে সাধারণত ট্রায়াল ডিরেক্টর নিয়োগ করে থাকে।

ধারণা করা হচ্ছে, নিউরালিংক মানব মস্তিষ্কে চিপ স্থাপনের খুব কাছাকাছি চলে গেছে।

ডিরেক্টরের দায়িত্ব সম্পর্কে বলা হয়েছে, নিয়োগ পাওয়া ব্যক্তিকে খুবই আন্তরিকতার সঙ্গে সৃজনশীল একদল ডাক্তার ও উচ্চমানের ইঞ্জিনিয়ারদের সঙ্গে কাজ করতে হবে।

এর আগে গত বছরের ডিসেম্বরে ওয়ালস্ট্রিট জার্নালকে ইলন মাস্ক জানিয়েছিলেন, ২০২২ সালের কোনো একসময়ে নিউরালিংক মানবদেহে চিপ স্থাপন করবে।

যদিও ২০১৯ সাল থেকে প্রতি বছরই ইলন মাস্ক বলে আসছেন মানবদেহে চিপ স্থাপনের কথা। সম্ভবত এ বছরই বাস্তবে রূপ পাচ্ছে মাস্কের স্বপ্নের।

ইতিমধ্যে শূকর ও বানরের মস্তিষ্কে নিউরালিংক ডিভাইস সফলতার সঙ্গে স্থাপন করা হয়েছে। প্রতিষ্ঠানটি দাবি করছে, ডিভাইসটি স্থাপন ও অপসারণ সম্পূর্ণ নিরাপদ।

গত বছরের এপ্রিলে নিউরালিংক পেইজা নামের এক বানরের ভিডিও প্রকাশ করে। যেখানে দেখা যায়, কোনো ধরনের স্পর্শ ছাড়াই মস্তিষ্ককে ব্যবহার করে পেইজা কম্পিউটারে পিংপং গেম খেলছে।

ভিডিওটিতে দেয়া ভয়েসওভারে বলা হয়, ‘নিউরালিংক তার ব্রেইন চিপের মাধ্যমে বানরের মোটর কর্টেক্স অঞ্চলে প্রতিস্থাপন করা দুই হাজারের বেশি সূক্ষ্ম তারের ইলেকট্রোড ব্যবহার করে মস্তিষ্ক থেকে বৈদ্যুতিক সংকেত রেকর্ড ও ডিকোডের কাজ করে, যা সরাসরি কম্পিউটার ডিভাইসে প্রেরণ করে।’

প্রতিষ্ঠানটির দাবি, ডিভাইসটি ভবিষ্যতে মানুষের মস্তিষ্কসংক্রান্ত বহু সমস্যার সমাধান করবে। স্মৃতিশক্তি হারিয়ে ফেলা, ব্রেইন ড্যামেজ, হতাশা, উদ্বেগ ও আসক্তির মতো সমস্যার সমাধান ছাড়াও বিভিন্ন নিউরোসংক্রান্ত সমস্যার সমাধান করতে পারবে।

এ ছাড়া প্যারালাইসিসে আক্রান্ত ব্যক্তিও স্পর্শ ছাড়াই মোবাইল, কম্পিউটারের মতো ডিভাইস ব্যবহার করতে পারবে।

তবে ইলন মাস্কের দাবি আরও বিস্তৃত। ভবিষ্যতে নতুন কোনো ভাষা শেখার ক্ষেত্রে কিংবা কোনো দক্ষতা অর্জনের ক্ষেত্রে নিউরালিংক ডিভাইস মুহূর্তে তা মস্তিষ্কে আপলোড করে দেবে। এমনকি ব্রেইনকে কপি করা সম্ভব হবে বলেও আশাবাদী মাস্ক।

নিউরালিংক ব্রেইন মেশিন ইন্টারফেস (বিএমআই) বা ব্রেইন কম্পিউটার ইন্টারফেস (বিসিআই) প্রযুক্তি নিয়ে কাজ করে। এ ধরনের প্রযুক্তিতে মানব মস্তিষ্কের সঙ্গে সরাসরি কম্পিউটারের সংযোগ করে দেয়া হয়। ফলে শুধু মস্তিষ্ককে কাজে লাগিয়ে কম্পিউটার ব্যবহার করা সম্ভব।

ইতিমধ্যে বানর ও শূকরের মধ্যে ডিভাইসটি স্থাপন করে সফলতা পাওয়া গেছে। পেইজা নামের বানরটি নিউরালিংক ডিভাইসের মাধ্যমে নিজের মনকে কাজে লাগিয়ে পিংপং বল নামের গেম খেলতে সক্ষম হয়।

নিউরালিংক ডিভাইস মূলত ব্রেইন কম্পিউটার ইন্টারফেস প্রযুক্তি। এই প্রযুক্তি মানব মস্তিষ্ককে সরাসরি কম্পিউটারের সঙ্গে সংযোগ করিয়ে দিতে পারে। ফলে কোনো শারীরিক কর্মকাণ্ড ছাড়াই শুধু চিন্তা করে কম্পিউটারের মতো ডিভাইসকে নিয়ন্ত্রণ করা যায়।

আরও পড়ুন:
করোনা সংক্রমণ থামাতে ৫ সুপারিশ
৫ হাজার গ্রাহকের অর্থ ফেরত দিচ্ছেন ইলন মাস্ক
ঘন ঘন সন্তান নেয়ার পরামর্শ ইলন মাস্কের
টাইম ‘বর্ষসেরা’ হলেন ইলন মাস্ক
মানুষ বেশি বাঁচলে সমাজের ক্ষতি: ইলন মাস্ক

মন্তব্য

আরও পড়ুন

আন্তর্জাতিক
Winners of the Apo F21 Pro Selfie Contest

অপো এফ২১ প্রো সেলফি প্রতিযোগিতায় বিজয়ী যারা

অপো এফ২১ প্রো সেলফি প্রতিযোগিতায় বিজয়ী যারা অপো বাংলাদেশের কর্মকর্তার সঙ্গে সেলফি কনটেস্টে বিজয়ী তিন তরুণ।
অপো এফ২১ প্রো ফোনটিতে রয়েছে সনির আইএমএক্স৭০৯ সেলফি সেন্সর ও আরজিবিডব্লিউ প্রযুক্তি। ডিভাইসটি দিয়ে ব্যবহারকারীরা চমৎকার সব সেলফি তুলতে পারবেন।

অপো এফ২১ প্রো ব্যাকলাইট সানসেট সেলফি কনটেস্ট বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করেছে প্রতিষ্ঠানটি। অপো ফ্যানস ও ব্যবহারকারীদের জন্য এ প্রতিযোগিতার আয়োজন করে স্মার্টফোন ব্র্যান্ডটি।

সোমবার প্রতিষ্ঠানটি এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বিজয়ীদের নাম জানিয়েছে। সে সঙ্গে বিজয়ীদের হাতে পুরস্কারও তুলে দিয়েছে অপো।

প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারীদের কাছ থেকে ব্যাপক সাড়া পড়ে, পরে তিনজনকে বিজয়ী নির্বাচিত করা হয়। বিজয়ীরা হলেন- আরিফা শবনম, এএসএম শাহরিয়ার হাবীব ও আনিকা নাওয়ার।

বিজয়ীদের হাতে অপো এনকো ডব্লিউ১১ ডায়নামিক হেডফোন ও অপোর ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর সাকিব আল হাসানের স্বাক্ষর করা এফ২১ প্রো টি-শার্ট তুলে দেয়া হয়।

অপো এফ২১ প্রো ফোনটিতে রয়েছে সনির আইএমএক্স৭০৯ সেলফি সেন্সর ও আরজিবিডব্লিউ প্রযুক্তি। ডিভাইসটি দিয়ে ব্যবহারকারীরা চমৎকার সব সেলফি তুলতে পারবেন।

৬৪ মেগাপিক্সেলের ট্রিপল ক্যামেরার সঙ্গে রয়েছে ৩২ মেগাপিক্সেলের সেলফি ক্যামেরা।

সেলফি ক্যামেরা দিয়ে ছবি তোলার জন্য ব্যবহারকারীদের অনুপ্রাণিত করতে অপো এফ২১ প্রো ব্যাকলাইট সানসেট সেলফি কনটেস্টের আয়োজন করে। প্রতিযোগিতা চলাকালীন ব্যবহারকারীদের সূর্যাস্তের মুহূর্তে ‘পারফেক্ট সেলফি’ তুলে এর মধ্য থেকে সেরা সেলফিগুলো অপো বাংলাদেশের মনোনীত ফেসবুক পেজে জমা দেয়ার আহ্বান জানানো হয়।

অপো বাংলাদেশ অথোরাইজড এক্সক্লুসিভ ডিস্ট্রিবিউটর হেড অফ ব্র্যান্ড লিউ ফেং বলেন, ‘জনপ্রিয় ব্র্যান্ড হিসেবে অপো সব সময় ব্যবহারকারীদের পছন্দের বিষয়গুলোকে অগ্রাধিকার দেয়। তাই ব্যবহারকারীদের উৎসাহ দিতে অপো সেলফি কনটেস্টের আয়োজন করে। অংশগ্রহণকারীদের কাছ থেকে যে সাড়া পেয়েছি তাতে আমরা সত্যিই অভিভূত।’

আরও পড়ুন:
ফ্যাশনপ্রেমীদের জন্য সানসেট অরেঞ্জ অপো এফ২১ প্রো
দেশের বাজারে অপো এফ২১ প্রো
ফাইবারগ্লাস লেদার ডিজাইনের অপো এফ২১ প্রো
দেশে অপোর নতুন স্মার্টফোন এ৭৬
ফোল্ডিং ফোন দেখাল অপো, যুক্ত হলেন সাকিব

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
For fashion lovers Sunset Orange Apo F21 Pro

ফ্যাশনপ্রেমীদের জন্য সানসেট অরেঞ্জ অপো এফ২১ প্রো

ফ্যাশনপ্রেমীদের জন্য সানসেট অরেঞ্জ অপো এফ২১ প্রো সানসেট অরেঞ্জ কালারের স্মার্টফোনে সেলফি তুলছেন জাতীয় ক্রিকেট দলের অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। ছবি: অপো
সেলফ-ডেভেলপড ফাইবারগ্লাস-লেদার ডিজাইনে তৈরি ডিভাইসটি নিশ্চিতভাবে মানুষের চোখকে আটকে দেবে। স্প্লাইসড ক্যামেরা ডিজাইন এবং পাতলা ও হালকা বডির সমন্বয়ে তৈরি স্মার্ট ডিজাইনের ফোনটি বেশ আকর্ষণীয় ও ব্যবহার উপযোগী।

শীর্ষস্থানীয় স্মার্ট ডিভাইস ব্র্যান্ড অপোর এফ সিরিজের ফোনগুলোর বিশেষত্ব হচ্ছে- স্টাইলিশ, ট্রেন্ডি, নির্ভরযোগ্য ও দীর্ঘস্থায়ী।

ব্যবহারকারীদের উন্নত জীবনধারা নিশ্চিতে শিগগিরই দেশের বাজারে আসছে দুর্দান্ত ডিজাইনের সানসেট অরেঞ্জ রঙের এফ২১ প্রো ডিভাইসটি। উদ্ভাবনী প্রযুক্তি ও সৃজনশীলতার সমন্বয়ে তৈরি এফ২১ প্রো ডিভাইসের ব্যতিক্রমী ডিজাইন ফ্যাশনপ্রেমীদের স্মার্টফোন ব্যবহারের অভিজ্ঞতাকে বদলে দেবে।

নতুনত্ব আনবে ফাইবারগ্লাস লেদার ডিজাইন

সাধারণত যেকোনো স্মার্ট ডিভাইস কেনার ক্ষেত্রে ক্রেতারা ডিজাইনকে প্রাধান্য দেন। বিশেষ করে, হাতে ধরলে ডিভাইসটি কেমন লাগবে, সে বিষয়টিকেই তারা সর্বাধিক গুরুত্ব দেন। এফ২১ প্রো ডিভাইসটি প্রথম দর্শনেই যে কোন ব্যক্তিরই মনোযোগ আকর্ষণ করবে।

সেলফ-ডেভেলপড ফাইবারগ্লাস-লেদার ডিজাইনে তৈরি ডিভাইসটি নিশ্চিতভাবে মানুষের চোখকে আটকে দেবে। স্প্লাইসড ক্যামেরা ডিজাইন এবং পাতলা ও হালকা বডির সমন্বয়ে তৈরি স্মার্ট ডিজাইনের ফোনটি বেশ আকর্ষণীয় ও ব্যবহার উপযোগী।

অনন্য ম্যাটেরিয়াল ও ফিনিশ–স্টাইলিশ ও নির্ভরযোগ্য ডিজাইন

অপো সিএমএফ (কালার, ম্যাটেরিয়ালস, ফিনিশ) উদ্ভাবনের মাধ্যমে নতুন সব ডিজাইন আনতে সচেষ্ট। অপো এফ২১ প্রো ডিভাইসটি এর ব্যতিক্রম নয়। ব্যবহাকারী ফোনটি হাতে ধরলে এর উজ্জ্বল কমলা রঙ বা সানসেট অরেঞ্জ শেড তৈরির মাধ্যমে ভিন্নতা আনবে। নারী-পুরুষ সবার হাতেই ফোনটি বেশ মানাবে।

ফ্যাশনপ্রেমীদের জন্য সানসেট অরেঞ্জ অপো এফ২১ প্রো
সাকিবের হাতে দুর্দান্ত ডিজাইনের অপো এফ২১ প্রো স্মার্টফোন। ছবি: অপো

অপো এফ২১ প্রো ডিভাইসটির ডিজাইনে রয়েছে সিনথেটিক লেদার ম্যাটেরিয়াল; প্লেট যুক্ত করার মাধ্যমে ফোনটিকে নতুন আকৃতিও দেয়া হয়েছে। ফাইবারগ্লাস-লেদার ডিজাইন ও ‘ফ্রেমলেস ব্যাটারি কাভার’ ব্যবহার করায় ফোনটিতে কোনো প্লাস্টিক মিড-ফ্রেম ব্যবহারের প্রয়োজন হয়নি; যা ডিভাইসটিকে এজলেস ও পাতলা করেছে। এমন ম্যাটেরিয়ালের কারণে ফোনটিও হবে দীর্ঘস্থায়ী।

নজরকাড়া ক্রিয়েটিভ এক্সটেরিয়র ডিজাইন

এফ২১ প্রো ডিভাইসটিতে ক্যামেরায় দেয়া হয়েছে বেশি গুরুত্ব। ফাইবারগ্লাস-লেদার ডিজাইনের মতো এফ২১ প্রোতে আরও একটি নতুন ডিজাইনের উপাদান রয়েছে, যা সিরিজটিতে আগে দেখা যায়নি। ডিভাইসটিতে অরবিট লাইট ডিজাইন দেয়া হয়েছে, যা বেশ কিছু কারণেই গুরুত্বপূর্ণ। প্রথমটি, অত্যাধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে ক্যামেরা মডিউলের আকার আরও ছোট করা হয়েছে। এ সব ছাড়া সম্পূর্ণ নতুন অরবিট লাইট ডিজাইন স্মার্টফোনের উপযোগিতা এবং ভিজ্যুয়াল আবেদন দুটোই নিয়ে আসে।

ফ্যাশনপ্রেমীদের জন্য সানসেট অরেঞ্জ অপো এফ২১ প্রো
ডিজাইনে নতুনত্ব দেখা যাবে অপোর নতুন ফোন এফ২১ প্রো মডেলে। ছবি: অপো

নতুন মাত্রা যোগ করবে সানসেট অরেঞ্জ ডিভাইসটি

ক্লাসিক ফিল্ম ক্যামেরার লেদার ও মেটাল ডিজাইনে অনুপ্রাণিত হয়ে ডিভাইসটি তৈরি করা হয়েছে। ডিভাইসটির পেছনে মেটাল স্ট্রিপের ব্যবহার ফোনটিকে একটি প্রিমিয়াম লুক দেবে। অপো এফ২১ প্রো ব্যবহারকারীদের মিরর সেলফি তুলতে দেবে।

আপনার প্রতিদিনের পথচলায় নতুন মাত্রা যোগ করতে সানসেট অরেঞ্জ রঙের অপো এফ২১ প্রো ডিভাইসটি বেশ সহায়ক হবে। এ ডিভাইসটি আপনার প্রতিদিনের ফোন ব্যবহারে নতুন মাত্রা যোগ করবে। সে দিকটিকে সামনে রেখে শিগগিরই বাংলাদেশে বাজারে উন্মোচিত হতে যাচ্ছে ফোনটি।

মনোমুগ্ধকর লেদার ডিজাইন

ফোনের ফাইবারগ্লাস-লেদার ডিজাইন অনেক বেশি মনোমুগ্ধকর এবং দেখতে চমৎকার। উন্নত উৎপাদন প্রক্রিয়া এফ২১ প্রো’কে আরও টেকসই করে তুলেছে। লিচি গ্রেইন লেদার ম্যাটেরিয়ালের ডিভাইসটি পানি প্রতিরোধী ও ওয়্যার রেজিস্ট্যান্ট। এটি অপোর ল্যাব পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছে, যেখানে একটি অ্যালকোহল-ভেজা প্যাড, একটি রাবার ইরেজার এবং একটি ডেনিম সোয়াচ দিয়ে যথাক্রমে পাঁচ হাজার, দশ হাজার ও দুই লাখ বার ম্যাটেরিয়ালকে ঘঁষে দেখা হয়েছে।

এ ছাড়া সানসেট অরেঞ্জ শেডেড অংশে একটি চকচকে ম্যাট টেক্সচার্ড রিয়ার কাভার ব্যবহার করা হয়েছে, যা ডিভাইসটিকে ফিঙ্গারপ্রিন্ট-প্রতিরোধী করে তুলেছে। লেদার ম্যাটেরিয়ালের তাপমাত্রা প্রতিরোধ ক্ষমতা শক্তিশালী করে ডিভাইসটি তৈরি করা হয়েছে, যাতে এটি খুব সহজেই হাতে ধরে রাখা যায়। ডিভাইসটি আইএসও সার্টিফায়েড হওয়ায় ফোনের গুণগত মানও উন্নত।

আরও পড়ুন:
দেশের বাজারে অপো এফ২১ প্রো
ফাইবারগ্লাস লেদার ডিজাইনের অপো এফ২১ প্রো
দেশে অপোর নতুন স্মার্টফোন এ৭৬
ফোল্ডিং ফোন দেখাল অপো, যুক্ত হলেন সাকিব
তিন দিন ছাড় পাবেন অপো গ্রাহকরা

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Realm of 106 megapixel camera in 9 countries

১০৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরার রিয়েলমি ৯ দেশে

১০৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরার রিয়েলমি ৯ দেশে
১০৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরার রিয়েলমি ৯ ফোনটি পাওয়া যাবে ৮ জিবি র‌্যাম ও ১২৮ জিবি স্টোরেজে সানবার্স্ট গোল্ড, স্টারগেজ হোয়াইট এবং মিটিওর ব্ল্যাক রঙে। ডিভাইসটির দাম ২৬ হাজার ৯৯০ টাকা।

দেশে নতুন দুটি স্মার্টফোন উন্মোচন করল রিয়েলমি। ভার্চুয়ালি উন্মোচন অনুষ্ঠানে নম্বর সিরিজ ও সি সিরিজের রিয়েলমি ৯ ফোরজি এবং সি৩৫ বিক্রির ঘোষণা দিয়েছে।

১০৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরার রিয়েলমি ৯ ফোনটি পাওয়া যাবে ৮ জিবি র‌্যাম ও ১২৮ জিবি স্টোরেজে সানবার্স্ট গোল্ড, স্টারগেজ হোয়াইট এবং মিটিওর ব্ল্যাক রঙে। ডিভাইসটির দাম ২৬ হাজার ৯৯০ টাকা।

অন্যদিকে এন্ট্রি লেভেল সেগমেন্টের স্টাইলিশ এবং সুন্দর ডিজাইনের ফোন রিয়েলমি সি৩৫। ৪ জিবি র‌্যাম ও ১২৮ জিবি স্টোরেজের গ্লোয়িং গ্রিন ও গ্লোয়িং ব্ল্যাক রঙে রিয়েলমি সি৩৫ বাজারে ১৬ হাজার ৯৯০ টাকায় পাওয়া যাবে।

স্মার্টফোন দুটিতে দারাজের ফ্ল্যাশ সেল চলাকালীন বিশেষ অফারে পাওয়া যাবে সোমবার দুপুর ২টায়। ফ্ল্যাশসেলে রিয়েলমি সি৩৫ ডিভাইসটি ১৫ হাজার ৯৯০ টাকায় এবং মঙ্গলবার দুপুর ২টায় দারাজের ফ্ল্যাশসেলে রিয়েলমি ৯ ডিভাইসটি ২৫ হাজার ৯০ টাকায় কেনা যাবে।

রিয়েলমি ৯ ফোরজি ডিভাইসটিতে রয়েছে ১০৮ মেগাপিক্সেল প্রোলাইট হাই-কোয়ালিটি ক্যামেরা। এর মাধ্যমে ব্যবহারকারীরা ‘মিনিমাম’ লাইটে চমৎকার সব ছবি তুলতে পারবেন। ৯০ হার্টজ রিফ্রেশ রেটসহ অসাধারণ সুপার অ্যামোলেড ডিসপ্লের ডিভাইসটিতে আছে ৬ ন্যানোমিটার কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৬৮০- প্রসেসর।

ডিভাইসটি ৭.৯৯ মিলিমিটার পাতলা ও ডিভাইসটির ওজন ১৭৮ গ্রাম। ৫০০০ এমএএইচ শক্তিশালী ব্যাটারি ও ৩৩ ওয়াট ডার্ট চার্জ।

অন্যদিকে নান্দনিক ডিজাইনের রিয়েলমি সি৩৫ ডিভাইসটিতে আছে স্টাইলিশ ডিজাইন, ৮.১ মিমি আল্ট্রা স্লিম ডায়নামিক গ্লোয়িং ইউনিসক টি৬১৬ শক্তিশালী প্রসেসর।

৫০ মেগাপিক্সেল এআই ট্রিপল ক্যামেরা ও ৮ মেগাপিক্সেল সেলফি ক্যামেরা রয়েছে ফোনটিকে। স্মার্টফোনটি টিইউভি রাইনল্যান্ড রিল্যায়াবিলিটি সার্টিফিকেশন প্রাপ্ত। যা ফোনের স্থায়িত্ব ও গুণমান নিশ্চিত করে।

আরও পড়ুন:
নাম্বার ও সি সিরিজের ফোন আনছে রিয়েলমি
সারা দেশে পাওয়া যাচ্ছে রিয়েলমি নারজো ৫০ ও সি৩১
ঈদে রিয়েলমি ফোন কিনে বালি ভ্রমণ, বাইক জেতার সুযোগ
ঈদের আগে এলো রিয়েলমি সি৩১
দারাজে নববর্ষ ক্যাম্পেইনে মূল্য ছাড়ে রিয়েলমি নারজো ৫০আই

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Realm C35 This years best designed entry level smartphone

রিয়েলমি সি৩৫: এ বছরের সেরা ডিজাইনের এন্ট্রি লেভেল স্মার্টফোন

রিয়েলমি সি৩৫: এ বছরের সেরা ডিজাইনের এন্ট্রি লেভেল স্মার্টফোন রিয়েলমির নতুন স্মার্টফোন সি ৩৫। ছবি: সংগৃহীত
উদ্ভাবনী ফিচার, নজরকাড়া ডিজাইন ও ফ্ল্যাগশিপ লেভেল ক্যামেরা সম্বলিত ডিভাইসটি বাজারে পাওয়া যাবে ১৬ হাজার ৯৯০ টাকায়।

স্মার্টফোনের ক্ষেত্রে ডিজাইন তরুণদের কাছে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। বর্তমান বাজারে এন্ট্রি লেভেলের স্মার্টফোনে উদ্ভাবনী ডিজাইনে এখন যেকোনো স্মার্টফোনকে পেছনে ফেলে এগিয়ে রয়েছে রিয়েলমি সি৩৫।

দুর্দান্ত ফিচারের পাশাপাশি গ্রাহকেরা এখন নান্দনিক ডিজাইনের স্মার্টফোন কিনতে বেশি আগ্রহী। সে কারণে এমন বাজেটে রিয়েলমি গ্রাহকদের জন্য একটি প্রিমিয়াম ডিজাইন নিয়ে এসেছে। ডিভাইসটি গ্রাহকদের একটি প্রিমিয়াম ফোন ব্যবহার করার অভিজ্ঞতা দেবে, যা ট্রেন্ডি এবং স্লিম, এখন তরুণদের প্রথম পছন্দ। চলুন দেখে নেয়া যাক রিয়েলমি সি৩৫ ফোনের ফিচারগুলো

আলট্রা স্লিম ডায়নামিক গ্লোয়িং ডিজাইন

রিয়েলমি সি৩৫ ডিভাইসের বৈশিষ্ট্য এর নজরকাড়া ডিজাইন। মাত্র ৮.১-মিলিমিটার পুরুত্ব ও রাইট–অ্যাঙ্গেল বেজেল ডিজাইনের এই ফোন দেখতে দুর্দান্ত। স্মার্টফোনটির ওজন মাত্র ১৮৯ গ্রাম, ফলে ব্যবহারকারীরা অনায়াসেই ফোনটি হাতে ধরে রাখতে পারবেন।

এ ছাড়া রিয়েলমি প্রথমবারের মত নিয়ে এসেছে টু-ডি চমৎকার গ্লোয়িং ডিজাইন, যা ডিভাইসটিকে করেছে দুর্দান্ত। আলট্রা স্লিম ও আলট্রা লাইট ফোনটি দেখতে যেমন আকর্ষণীয়, ধরতেও তেমন আরামদায়ক। ফোনটি গ্লোয়িং গ্রিন এবং গ্লোয়িং ব্ল্যাক এই দুই রঙে পাওয়া যাচ্ছে।

ডিজাইন ও রঙের দারুণ মিশ্রণে তৈরি ডিজাইনের স্মার্টফোন রিয়েলমি সি৩৫। এই দামে সেরা ডিজাইনের ফোন।

রিয়েলমি সি৩৫: এ বছরের সেরা ডিজাইনের এন্ট্রি লেভেল স্মার্টফোন

৫০ মেগাপিক্সেল এআই ট্রিপল ক্যামেরা

ক্যামেরাপ্রেমীদের জন্য রিয়েলমি সি৩৫ ফোনে রয়েছে ৫০ মেগাপিক্সেল এআই ট্রিপল ক্যামেরা, যা দিয়ে খুব সহজেই দারুণ সব ছবি তোলা যাবে। ফোনে আছে ৫০ মেগাপিক্সেল ও এফ/১.৮ অ্যাপারচারসহ প্রাইমারি সেন্সর, যা যথেষ্ট আলোর সঞ্চার করে ঝকঝকে ও উজ্জ্বল ছবি তুলতে সহায়তা করে। সাথে আছে ৪এক্স ম্যাক্স ডিজিটাল জুম, যার মাধ্যমে দূরের স্পষ্ট ছবি তোলা যায় সহজেই। আছে ২ মেগাপিক্সেলের (এফ/২.৪ অ্যাপারচার) ম্যাক্রো লেন্স ও ২ (এফ/২.৮ অ্যাপারচার) মেগাপিক্সেলের ব্ল্যাক অ্যান্ড হোয়াইট লেন্স, যা ব্যবহারকারীদের হাই এক্সপোজারের চমৎকার পোর্ট্রেট তুলতে দেবে।

তা ছাড়া রেটরো ফিল্ম স্টাইল ব্যবহার করে ব্যবহারকারীরা ডিভাইসটি দিয়ে ক্যামেরাবন্দী করতে পারবেন শৈল্পিক সব ছবি।

সেলফি ও ভিডিও কল করার জন্য এফ/২.০ অ্যাপারচার ও এআই বিউটিসহ ৮ মেগাপিক্সেলের ফ্রন্ট ক্যামেরা রয়েছে ফোনটিতে। বিভিন্ন রকমের ফিল্টার ও এইচডিআর ফাংশন, যা আপনাকে প্রাণবন্ত ছবি তুলতে সাহায্যে করবে।

দুর্দান্ত ছবি তোলার পাশাপাশি, ডিভাইসটির ভিডিও ধারণেও দেবে অসাধারণ পিক্সেল ফ্রেম। ফোনটি দিয়ে ৪৮০, ৭২০ অথবা ১০৮০ পিক্সেলের ভিডিও করা যাবে।

. ইঞ্চির ফুল এইচডি প্লাস ডিসপ্লে

রিয়েলমি সি সিরিজের ডিভাইসগুলোর মধ্যে প্রথমবারের মতো সি৩৫ ফোনে থাকছে ৬.৬-ইঞ্চির ফুল এইচডি প্লাস ডিসপ্লে, যা এই প্রাইস রেঞ্জে অনেকটাই বিরল। এর স্ক্রিন বড় হওয়ায় ৯০.৭ শতাংশ স্ক্রিন রেশিওতে অনায়াসে ভিডিও দেখা যায়। যা দামের হিসেবে অসাধারণ ডিসপ্লে।

শক্তিশালী পারফরমেন্স, দুর্দান্ত কোয়ালিটি

নজরকাড়া ডিজাইন ও ক্যামেরার পাশাপাশি ফোনটিতে ব্যবহার করা হয়েছে শক্তিশালী ইউনিসক টাইগার টি৬১৬ অক্টা-কোর ১২এনএম প্রসেসর। আনটুটু বেঞ্চমার্কে ২৩১,৬৯৯ স্কোর অর্জন করা চিপসেটটি এই সেগমেন্টের মধ্যে সেরা। চিপসেটটির ২.০ গিগাহার্জ ক্লকস্পিড ও কর্টেক্স এ৭৫ কাঠামো ফোনটিকে করেছে আরও শক্তিশালী।

রিয়েলমি সি সিরিজের সব স্মার্টফোনের সাথে থাকবে টিইউভি রাইনল্যান্ড হাই রিলায়াবিলিটি সার্টিফিকেশন। রিয়েলমি সি৩৫ -এর গুণমান নিশ্চিত করতে এই ফোনের উপর ৩০০-টিরও বেশি টেস্ট করা হয়েছে। এই ফোনের গুণমান বৈশ্বিক স্মার্টফোনের বাজারেও বেশ সমাদৃত। উনিসকের টাইগার সিরিজের প্রসেসর বেশ শক্তিশালী এবং টি৬১৬ প্রসেসরটি তার আগের জেনেরেশনের প্রসেসরের থেকে ভালো পারফরমেন্স দেবে।

৫০০০ এমএএইচ ব্যাটারি, ১৮ ওয়াটের ফাস্ট চার্জার

ব্যবহারকারীদের জন্য আরও বেশি সময় ধরে স্মার্টফোন ব্যবহারের অভিজ্ঞতা নিশ্চিতে রয়েছে ৫০০০ এমএএইচ বিশাল ব্যাটারি। এই ব্যাটারি দিয়ে ৭১.৫৬ ঘণ্টা পর্যন্ত বিরামহীন অডিও শোনা যাবে। এ ছাড়া রিয়েলমি সি৩৫ টানা ৩৯ দিন পর্যন্ত স্ট্যান্ডবাই এ থাকতে পারে।

ফোনটিতে আছে ৪ জিবি র‍্যাম ও ১২৮ জিবি পর্যন্ত ইন্টারনাল স্টোরেজ সুবিধা এবং চাইলে মাইক্রো এসডি কার্ডের মাধ্যমে ২৫৬ জিবি পর্যন্ত স্টোরেজ বাড়ানো যাবে।

ফোনটিতে আছে অ্যান্ড্রয়েড ১১ ভিত্তিক রিয়েলমি ইউআই, যা ব্যবহারকারীদের স্মার্টফোন ব্যবহারের অভিজ্ঞতায় নতুন মাত্রা যোগ করবে। এর ইনস্ট্যান্ট ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সরে দ্রুত ফোন আনলক করা ও ব্যক্তিগত তথ্য সুরক্ষিত রাখা যাবে।

এ ছাড়া রয়েছে ম্যাগনেটিক ইনডাকশন সেন্সর, লাইট সেন্সর, প্রক্সিমিটি সেন্সর, আক্সেলারেশন সেন্সর ও হল সেন্সর। উদ্ভাবনী ফিচার, নজরকাড়া ডিজাইন ও ফ্ল্যাগশিপ লেভেল ক্যামেরা সম্বলিত ডিভাইসটি বাজারে পাওয়া যাবে ১৬ হাজার ৯৯০ টাকায়।

আরও পড়ুন:
সারা দেশে পাওয়া যাচ্ছে রিয়েলমি নারজো ৫০ ও সি৩১
ঈদে রিয়েলমি ফোন কিনে বালি ভ্রমণ, বাইক জেতার সুযোগ
ঈদের আগে এলো রিয়েলমি সি৩১
দারাজে নববর্ষ ক্যাম্পেইনে মূল্য ছাড়ে রিয়েলমি নারজো ৫০আই
স্বল্প বাজেটে গেইমিং স্মার্টফোন আনল রিয়েলমি

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Vivo is bringing the flagship X60 smartphone for photography

ফটোগ্রাফির জন্য ফ্ল্যাগশিপ এক্স৮০ স্মার্টফোন আনছে ভিভো

ফটোগ্রাফির জন্য ফ্ল্যাগশিপ এক্স৮০ স্মার্টফোন আনছে ভিভো
ভিভো এক্স৮০ ফাইভজি ফোনে রয়েছে পেশাদার সিনেমাটোগ্রাফির ক্যামেরা। ফোনটিতে রয়েছে ৫০ মেগাপিক্সেলের ট্রিপল ক্যামেরা, ৩২ মেগাপিক্সেলের সেলফি ক্যামেরা। যা দিয়ে রেকর্ড করা যাবে ফোর-কে ভিডিও।

ভিভো এক্স৬০ প্রো ও এক্স৭০ প্রো অনেকটাই জনপ্রিয় হয়েছে দেশে। এবার ক্যামেরা প্রযুক্তিকে জোর দিয়ে এক্স সিরিজের আরেকটি স্মার্টফোন আনছে চীনা প্রতিষ্ঠান ভিভো।

নতুন স্মার্টফোন হবে ভিভো এক্স৮০ ফাইভজি।

৬.৭৮ ইঞ্চির অ্যামোলেড ডিসপ্লের ভিভো এক্স৮০ ফাইভজি ফোনটিতে দেয়া হয়েছে ১২০ হার্জের রিফ্রেশ রেট। ফোনটির ডিসপ্লে রেজ্যুলেশন ১০৮০*২৪০০ পিক্সেল, রেশিও ২০:৯।

৪ ন্যানোমিটার প্রযুক্তির মিডিয়াটেক অক্টা-কোর ৯০০০ ডাইমেনসিটির প্রসেসর, অ্যান্ড্রয়েড ১২ অপারেটিং সিস্টেমের সঙ্গে ফানটাচ ১২ ইউআই।

ভিভোর ক্যামেরা প্রযুক্তি বাংলাদেশের তরুণদের কাছে ব্যাপক জনপ্রিয় হয়েছে। এই জনপ্রিয়তা আরও বাড়াতে ক্যামেরা লেন্স নির্মাতা প্রতিষ্ঠান কার্ল জেইসের সঙ্গে পার্টনারশিপে যুক্ত হয়েছে ভিভো। লেন্স তৈরিতে জেইসের ১৭৫ বছরের ইতিহাস রয়েছে। এক্স৮০ ফাইভজি স্মার্টফোন বাজারে চলে আসলে, জেইসের ক্যামেরা লেন্সযুক্ত ভিভোর তৃতীয় স্মার্টফোন হবে এটি।

ভিভো এক্স৮০ ফাইভজি ফোনে রয়েছে পেশাদার সিনেমাটোগ্রাফির ক্যামেরা। ফোনটিতে রয়েছে ৫০ মেগাপিক্সেলের ট্রিপল ক্যামেরা, ৩২ মেগাপিক্সেলের সেলফি ক্যামেরা। যা দিয়ে রেকর্ড করা যাবে ফোর-কে ভিডিও।

৮ ও ১২ জিবি র‍্যামের সঙ্গে এতে থাকছে কয়েকটি রম ভ্যারিয়েন্ট, যার মধ্যে ১২৮, ২৫৬ জিবি রম।

ফোনটিতে দেয়া হয়েছে দীর্ঘস্থায়ী ও ৮০ ওয়াট ফার্স্ট চার্জিংয়ের ৪৫০০ এমএএইচের ব্যাটারি। যা ৫০ শতাংশ চার্জ হবে ১১ মিনিটে।

ফ্ল্যাগশিপটির দাম বাংলাদেশের বাজারে কত হবে সে বিষয়ে কিছু বলেনি ভিভো।

আরও পড়ুন:
দেশে ৫০ মেগাপিক্সেল ক্যামেরার ভিভো ওয়াই৩৩এস
৫০ মেগাপিক্সেল ক্যামেরার ভিভো ওয়াই৩৩এস ফোনের প্রিবুক শুরু
ভিভো ওয়াই৩৩এস: মিডরেঞ্জের ফোনে ৫০ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা
ভিভো ভি২৩ সিরিজ: স্মার্টফোন ক্যামেরায় বেঞ্চমার্ক
নতুন ভিভো ওয়াই২১টি স্মার্টফোনে যা আছে

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Realm 9 with holographic design is coming to the market on Sunday

হলোগ্রাফিক ডিজাইনের রিয়েলমি ৯ বাজারে আসছে রোববার

হলোগ্রাফিক ডিজাইনের রিয়েলমি ৯ বাজারে আসছে রোববার
রিয়েলমি ৯ ডিভাইসে ব্যবহার করা হয়েছে ‘গ্রেডিয়েন্ট যোগ স্টারলাইট’ ডিজাইন, যা অনেক নামি ব্র্যান্ডের প্যাকেজিং কৌশলের সঙ্গে সাদৃশ্যপূর্ণ।

দেশে প্রথম রিপল হলোগ্রাফিক ডিজাইনের মোবাইল ফোন আনছে রিয়েলমি। রিয়েলমি ৯ ফোরজি ফোনটি বাংলাদেশের বাজারে ছাড়া হবে রোববার।

এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, প্রতিষ্ঠানটির হিরো প্রোডাক্ট লাইন নম্বর সিরিজের এ ডিভাইসটির ক্যামেরা পারফরম্যান্স ও ডিজাইন গোটা বিশ্বে তরুণদের মাঝে সাড়া ফেলেছে।

রিয়েলমি ৯ ফোরজি ডিভাইসে বিশ্বের প্রথম রিপল হলোগ্রাফিক ডিজাইন সল্যুশন নিয়ে আসা হয়েছে। বলা হচ্ছে, এর মধ্য দিয়ে ডিজাইন টেকনোলজিতে যোগ হয়েছে নতুন মাত্রা।

রিয়েলমি ৯ ডিভাইসে ব্যবহার করা হয়েছে ‘গ্রেডিয়েন্ট যোগ স্টারলাইট’ ডিজাইন। যা অনেক নামি ব্র্যান্ডের প্যাকেজিং কৌশলের সঙ্গে সাদৃশ্যপূর্ণ।

এ বছরের ফেব্রুয়ারিতে উন্মোচিত হওয়া কোকাকোলা স্টারলাইট, লুইস ভ্যুইটনের স্টারলাইট অ্যাক্সেসরিজ কালেকশন ও মেইসন মারজিয়েলা এবং স্টোন আইল্যান্ডের ডিজাইনে একই রকম টুইঙ্কলিং স্টার ইফেক্ট ব্যবহার করা হয়েছে এতে।

রিয়েলমি ৯-এর টেক্সচার মরুভূমির বালির পরিবর্তন দ্বারা অনুপ্রাণিত। এই ডায়নামিক ডেজার্ট রিপল ইফেক্ট তৈরির জন্য রিয়েলমি স্বাধীনভাবে ইন্ডাস্ট্রির প্রথম ‘রিপল হলোগ্রাফিক গ্রেডিয়েন্ট কোটিং প্রসেস’ তৈরি করেছে এবং উদ্ভাবনী উপায়ে ‘সুপার কোটিং প্রসেস’ প্রয়োগ করেছে।

এই প্রক্রিয়ার মাধ্যমে টেক্সচারযুক্ত পণ্য তৈরি করার সময় স্যাচুরেটেড ও প্রাণবন্ত রং ফুটিয়ে তোলা সম্ভব।

প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছে, এই ইফেক্ট অর্জনে কঠিন প্রযুক্তিগত চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হয়েছে তারা। ফোনটির বিভিন্ন জায়গায় বিভিন্ন পুরুত্ব আছে, সবচেয়ে পুরু এলাকাটি ৪২০ ন্যানোমিটার সাধারণ কালো আবরণের ১০ গুণ পুরুত্বে পৌঁছেছে।

ফিল্মটি যত পুরু হবে তত বেশি বাস্তবসম্মত হবে এবং এর ফলাফলও তত স্বাভাবিক হবে এবং সবশেষ যেটি তৈরি হবে তা হবে আরও টেক্সচারযুক্ত।

ফোনটি সম্পর্কে আরও বিস্তারিত জানতে রিয়েলমির ওয়েবসাইট (https://www.realme.com/bd/realme-9) ভিজিটের পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন:
ঈদে রিয়েলমি ফোন কিনে বালি ভ্রমণ, বাইক জেতার সুযোগ
ঈদের আগে এলো রিয়েলমি সি৩১
দারাজে নববর্ষ ক্যাম্পেইনে মূল্য ছাড়ে রিয়েলমি নারজো ৫০আই
স্বল্প বাজেটে গেইমিং স্মার্টফোন আনল রিয়েলমি
শক্তিশালী গেইমিং প্রসেসরে আসছে নারজো ৫০

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
YouTubers 26 million dollars is now 1 thousand

ইউটিউবারের ২৮ লাখ ডলার এখন ১ হাজার

ইউটিউবারের ২৮ লাখ ডলার এখন ১ হাজার লুনা ধসে আর্থিক ক্ষতি হয়েছে ব্রিটিশ র‍্যাপার কেএসআইয়ের। ছবি: সংগৃহীত
ভবিষ্যতে দাম বাড়বে- এই আশায় যারা লুনা আঁকড়ে ধরেছিলেন, তারা ব্যাপক মাত্রায় আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়েছেন। বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ায় লুনা হোল্ডারদের হতাশা ব্যক্ত করতে দেখা যায়। এ তালিকায় রয়েছেন ব্রিটিশ র‍্যাপার কেএসআই। তিনি প্রায় ২৮ লাখ ডলার হারিয়েছেন।

ব্রিটিশ ইউটিউবার ও র‍্যাপার জেজে ওলাটুনজি, অনলাইনে যিনি কেএসআই নামে পরিচিত। দুটি ইউটিউব চ্যানেলে তার মোট ৪০ মিলিয়ন সাবস্ক্রাইবার রয়েছে। যেসব সেলিব্রেটি ক্রিপ্টোকারেন্সি টেরা (লুনা) হোল্ড করতেন, তার মধ্যে তিনিও একজন।

টুইটার পোস্টে গত ১২ মে কেএসআই নিজেই জানিয়েছিলেন, তার ২৮ লাখ ডলার সমমূল্যের লুনা এক দিনের মধ্যেই ১ হাজার ডলার হয়ে গেছে। তার টুইটার অনুসারীদের কয়েকজন বিষয়টি নিয়ে মজা করলেও দুঃখ প্রকাশ করেছেন অনেকেই। তবে তিনি নিজেও টুইটের মধ্যে হাসির ইমোজি যুক্ত করে দিয়েছেন।

এদিকে বিটকয়েনের দাম কমে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ক্রিপ্টোকারেন্সির অন্যান্য মুদ্রাতেও এর ব্যাপক প্রভাব পড়েছে। এরই মধ্যে দেউলিয়া হওয়ার আশঙ্কায় রয়েছে বিশ্বের সবচেয়ে বড় ও আমেরিকার ওয়ালস্ট্রিটের তালিকাভুক্ত ক্রিপ্টো মুদ্রার কেনাবেচার অনলাইন প্ল্যাটফর্ম কয়েনবেজ।

বিটকয়েন, ইথারিয়ামের মতো দাম হারিয়েছে অন্যান্য অল্টা কয়েনেরও। তবে সবচেয়ে বেশি দাম হারিয়েছে ক্রিপ্টো মুদ্রা টেরা (লুনা)। প্রতিশ্রুত মুদ্রা হিসেবে পরিচিতি পাওয়া লুনা ৯৯ শতাংশ দাম হারিয়েছে মুহূর্তেই। গত মাসে ক্রিপ্টোকারেন্সির তালিকায় শীর্ষ ১০-এ থাকা ১২০ ডলার দামের লুনা গত ১২ মে এক দিনের মধ্যেই ১ ডলারের নিচে নেমে আসে।

ভবিষ্যতে দাম বাড়বে এই আশায় যারা লুনা আঁকড়ে ধরেছিলেন, তারা ব্যাপক মাত্রায় আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়েছেন। বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ায় লুনা হোল্ডারদের হতাশা ব্যক্ত করতে দেখা যায়। এর মধ্যে একজন ব্রিটিশ ইউটিউবার কেএসআই।

কেএসআই বলছেন, তিনি লুনা ধরে রাখবেন। যদিও বিশেষজ্ঞদের মতে, সহসা লুনার দাম বাড়ার সম্ভাবনা নেই।

ইউক্রেনে রাশিয়ার সামরিক অভিযান প্রভাব ফেলেছে ক্রিপ্টোমুদ্রাতেও। ভার্চুয়াল সম্পদে আস্থা হারাচ্ছে মানুষ, এর বদলে দৃশ্যমান সম্পদ কিনতে চাইছে সবাই। ফলে দাম বাড়ছে সোনা ও ডলারের মতো মুদ্রার।

আরও পড়ুন:
ভিয়েতনাম কোম্পানির ইথারিয়াম চুরিতে দায়ী উত্তর কোরিয়া: যুক্তরাষ্ট্র
ক্রিপ্টোগেম এক্সি ইনফিনিটির ৬০০ মিলিয়ন ডলার চুরি
ক্রিপ্টো বিধিবিধান হালনাগাদ করছে রোমানিয়া-লাটভিয়া
ডিজিটাল মুদ্রা আনছে মেক্সিকো
ক্রিপ্টোকারেন্সি নিয়ে মোদির উদ্বেগ

মন্তব্য

p
উপরে