× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

আন্তর্জাতিক
19 killed in Indonesian bar clashes
hear-news
player
google_news print-icon

ইন্দোনেশিয়ার বারে সংঘর্ষ, নিহত ১৯

ইন্দোনেশিয়ার-বারে-সংঘর্ষ-নিহত-১৯
সংঘর্ষে জড়ানো প্রতিদ্বন্দ্বী গ্যাংগুলো পার্শ্ববর্তী দ্বীপ মালুকো থেকে এসেছিল। ছবি: সংগৃহীত
পুলিশের মুখপাত্র অ্যাডাম ইরউয়িনি বলেন, বিভিন্ন শহরে তরুণদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা প্রায়ই হয়। তবে সংঘর্ষকে কেন্দ্র করে এত প্রাণহানির ঘটনা এবারই প্রথম।

ইন্দোনেশিয়ার একটি বারে দুই প্রতিদ্বন্দ্বী গ্যাং-এর সংঘর্ষে ১৯ জন প্রাণ হারিয়েছেন।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মঙ্গলবার দেশটির ওয়েস্ট পাপুয়াতে একটি কারাওকে বারে দুই প্রতিদ্বন্দ্বী গ্রুপের সংঘাত চলার সময় এক ব্যক্তিকে ছুরি দিয়ে আঘাত করলে তার মৃত্যু হয়। এরপর বারটিতে আগুন ধরিয়ে দিলে ভেতরে আটকা পড়ে ১৮ জন মারা যান।

ওয়েস্ট পাপুয়ার সোরং পুলিশ, বারে নিহত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

পুলিশের মুখপাত্র অ্যাডাম ইরউয়িনি বলেন, বিভিন্ন শহরে তরুণদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা প্রায়ই হয়। তবে সংঘর্ষকে কেন্দ্র করে এত প্রাণহানির ঘটনা এবারই প্রথম।

অ্যাডাম আরও জানিয়েছেন, ঘটনাটির এখনও তদন্ত চলছে।

এদিকে ইন্দোনেশিয়ার জাতীয় পুলিশের মুখপাত্র দেদি প্রেসতিও জানিয়েছেন, আজ সংঘর্ষে জড়ানো প্রতিদ্বন্দ্বী গ্যাংগুলো পার্শ্ববর্তী দ্বীপ মালুকো থেকে এসেছিল।

আরও পড়ুন:
আবারও সেমেরুতে অগ্ন্যুৎপাত, পালাচ্ছেন উদ্ধারকর্মীরা
ইন্দোনেশিয়ায় অগ্ন্যুৎপাতে মৃত্যু বেড়ে ১৩
ইন্দোনেশিয়ায় অগ্ন্যুৎপাতে প্রাণহানি, এলাকা ছাড়ছে মানুষ
রাইস কুকারকে ‘বিয়ে’
ইন্দোনেশিয়ার কারাগারে আগুন, ৪১ মৃত্যু

মন্তব্য

আরও পড়ুন

আন্তর্জাতিক
Iran US match is an opportunity to strengthen relations

সম্পর্ক জোরদারের সুযোগ ইরান-যুক্তরাষ্ট্র ম্যাচ!

সম্পর্ক জোরদারের সুযোগ ইরান-যুক্তরাষ্ট্র ম্যাচ! একই ফ্রেমে ইরান ও যুক্তরাষ্ট্রের সমর্থকরা। ছবি: সংগৃহীত
কানাডিয়ান-যুক্তরাষ্ট্র বংশোদ্ভূত ভিগনেশ রাম বলেন, ’আন্তর্জাতিক ভ্রমণের মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্রের ফুটবল সমর্থকরা বিভিন্ন অভিজ্ঞতা অর্জন করতে পারে। এটি মানুষকে এমনভাবে একত্রিত করে যা সত্যিই অর্থপূর্ণ। যুক্তরাষ্ট্র দলটি কখনই দুর্দান্ত ছিল না, তাই হারানোর মতো কিছু নেই। আমার মনে হয় এই খেলার মাধ্যমে দুই দেশের সমর্থকদের সম্পর্ক আরও দৃঢ় হবে।’

নারীর পোশাকের স্বাধীনতা নিয়ে ইরানে চলা বিক্ষোভের জন্য আমেরিকাসহ পশ্চিমাদের দায়ী করছে তেহরান। অন্যদিকে ওয়াশিংটনও বিক্ষোভকারীদের সমর্থন দিয়ে যাচ্ছে। এমন প্রেক্ষাপটে আর কিছু সময় পর বিশ্বকাপে মাঠে গড়াতে যাচ্হছে ইরান-যুক্তরাষ্ট্রের ফুটবল ম্যাচ। স্বাভাবিকভাবেই এই ম্যাচ ঘিরে রাজনৈতিক উত্তেজনা এখন তুঙ্গে।

তবে এই ম্যাচ ঘিরে ইতিবাচক কিছুই ভাবছেন ইরান ও যুক্তরাষ্ট্রের অনেক সমর্থক।

ইংল্যান্ডের কাছে নিজেদের প্রথম ম্যাচ হেরেছে ইরান। পরের ম্যাচ ওয়েলসের সঙ্গে ২-০ গোলে জয় পায় তারা। অন্যদিকে ইংল্যান্ডের সঙ্গে গোল শূন্য ড্র করেছে যুক্তরাষ্ট্র। তাই কাতার বিশ্বকাপে টিকে থাকতে মঙ্গলবারের ম্যাচটি দুই দলের কাছেই গুরুত্বপূর্ণ।

সঠিকভাবে হিজাব না করার অভিযোগে ইরানের নৈতিকতা পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার কুর্দি তরুণী মাহসা আমিনির মৃত্যু ঘিরে শুরু হওয়া বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে গোটা ইরানে। এই আন্দোলনকে সমর্থন জানিয়ে রোববার যুক্তরাষ্ট্র ফুটবল ফেডারেশন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ইরানের একটি পতাকা পোস্ট করে; যেখানে ইরানের পতাকার মাঝে থাকা ইসলামি প্রজাতন্ত্রের প্রতীক বাদ দেয়া হয়।

এ ঘটনায় পতাকা বিকৃতির অভিযোগ তুলে যুক্তরাষ্ট্রকে বিশ্বকাপ থেকে বের করে দেয়ার আহ্বান জানায় তেহরান। পতাকা বিকৃতির ঘটনায় অবশ্য ইতোমধ্যে ক্ষমা চেয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের হেড কোচ গ্রেগ বেরহাল্টার।

তবে এসব কিছু ছাপিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও ইরানের সমর্থকরা এই ম্যাচকে সম্পর্ক জোরদারের সুযোগ হিসেবেই দেখছেন।

ফ্রান্সে ১৯৯৮ বিশ্বকাপে শেষবার মুখোমুখি হয়েছিল দুই দল। ইরানের ১৯৭৯ সালের ইসলামি বিপ্লবের পর তেহরান-ওয়াশিংটন সম্পর্ক ছিন্ন হয়। তারপর সেই ম্যাচেই হয়েছিল দু'দলের প্রথম দেখা।

সম্পর্ক জোরদারের সুযোগ ইরান-যুক্তরাষ্ট্র ম্যাচ!

সে ম্যাচের আগে অভূতপূর্ব এক ঘটনা ঘটেছিল। উত্তেজনায় পানি ঢেলে ইরানি খেলোয়াড়রা প্রতিপক্ষের হাতে তুলে দিয়েছিলেন সাদা গোলাপ। তোলা হয়েছিল গ্রুপ ছবিও।

ইরান-যুক্তরাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচকে নিয়ে আমেরিকা-ইরান বংশোদ্ভূত বাসিন্দা ৩১ বছরের শেরভিন শরিফি জানান, তার কাছে জাতীয় দল ও বিভিন্ন ক্লাবের ১০৭টি জার্সি রয়েছে। যার মধ্যে ইরানের ফুটবল দলেরই ৪০ থেকে ৪৫টি।

শরিফি বলেন, ‘আমি একরকম আসক্ত। এটিই আমার জীবন। আমি এ জন্যই বাঁচি।’

আমেরিকার টেক্সাস থেকে ইরানকে সমর্থন দিতে কাতারে এসেছেন শরিফি এবং তার বন্ধু।

সম্পর্ক জোরদারের সুযোগ ইরান-যুক্তরাষ্ট্র ম্যাচ!
আমেরিকান-ইরান বংশোদ্ভূত শেরভিন শরিফি। ছবি: সংগৃহীত

দোহার একটি মার্কেটে দাঁড়িয়ে শরিফি বলেন, ‘আমি আপনাকে নিশ্চিতভাবে বলতে পারি যে ইরানি খেলোয়াড়দের এই খেলাটির প্রতি আরও বেশি আবেগ রয়েছে। কারণ তারা কেবল নিজেদের সাফল্যের জন্য খেলছে না। তাদের দিকে তাকিয়ে আছে ৮ কোটি মানুষ।’

শরিফি জানান, ১৯৯৮ সালের যুক্তরাষ্ট্র-ইরানের ম্যাচ দেখেই তিনি ফুটবলকে ভালোবেসেছেন। সেই ম্যাচে যুক্তরাষ্ট্রকে ২-১ গোলে হারিয়েছিল ইরান। সাত বছর বয়সে মায়ের সঙ্গে সেই ম্যাচ দেখেছিলেন শরিফি।

ওই ম্যাচের আগে ইরানের সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা আয়াতুল্লাহ খামেনিও ইরানের খেলোয়াড়দের মাঠ থেকে তুলে নেয়ার হুমকি দিয়েছিলেন। তিনি চাননি যে ইরানের ফুটবলাররা আমেরিকারন ফুটবলারদের সঙ্গে করমর্দন করুক।

যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া থেকে কাতার বিশ্বকাপ দেখতে এসেছেন কানাডিয়ান-যুক্তরাষ্ট্র বংশোদ্ভূত ৩৭ বছরের ভিগনেশ রাম।

সম্পর্ক জোরদারের সুযোগ ইরান-যুক্তরাষ্ট্র ম্যাচ!
বাবাকে নিয়ে কাতার বিশ্বকাপ দেখতে এসেছেন ভিগনেশ রাম। ছবি: সংগৃহীত

তিনি বলেন, ’আন্তর্জাতিক ভ্রমণের মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্রের ফুটবল সমর্থকরা বিভিন্ন অভিজ্ঞতা অর্জন করতে পারে। এটি মানুষকে এমনভাবে একত্রিত করে যা সত্যিই অর্থপূর্ণ। যুক্তরাষ্ট্র দলটি কখনই দুর্দান্ত ছিল না, তাই হারানোর মতো কিছু নেই। আমার মনে হয় এই খেলার মাধ্যমে দুই দেশের সমর্থকদের সম্পর্ক আরও দৃঢ় হবে।’

শরিফি মনে করেন ফুটবল মানুষের সহানুভূতিকে জাগিয়ে তুলতে পারে। তবে তিনি স্বীকার করেন যে জাতীয় দলকে রাজনীতির বাইরে রাখা কঠিন।

তিনি বলেন, ‘মানুষ এখন শুধু ফুটবলের জন্য আসছে না। এর সঙ্গে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যও রয়েছে। আশার কথা হলো, আমেরিকান ভক্তরা ইরানি জনগণের প্রতি সহানুভূতিশীল হচ্ছে। কারণ সরকার থেকে ইরানের জনগণ আলাদা।’

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Iranian government threatens families of national football team

কথা না শুনলে ইরানি ফুটবলারদের পরিবার পড়বে বিপদে

কথা না শুনলে ইরানি ফুটবলারদের পরিবার পড়বে বিপদে ইরানের জাতীয় ফুটবল দল। ছবি: সংগৃহীত
২১ নভেম্বর ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচের আগে জাতীয় সংগীত গায়নি ইরানের ফুটবলাররা। এ ঘটনার পর ইরানের খেলোয়াড়দের সঙ্গে বৈঠক করে ইরানের রেভল্যুশনারি গার্ড কর্পসের (আইআরজিসি)। 

যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে ম্যাচের আগে নিজেদের ফুটবলারদের সতর্ক করেছে ইরান সরকার। তারা বলেছে, ‘ভদ্র আচরণ’ না করলে খেলোয়াড়দের পরিবারের সদস্যদের কারাদণ্ড দেয়া হতে পারে। একটি সূত্রের বরাতে সিএনএন এ খবর ছেপেছে।

সূত্র জানায়, ২১ নভেম্বর ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচের আগে জাতীয় সংগীত গায়নি ইরানের ফুটবলাররা। এ ঘটনার পর ইরানের খেলোয়াড়দের সঙ্গে বৈঠক করে ইরানের রেভল্যুশনারি গার্ড কর্পসের (আইআরজিসি)।

সেখানে ইরানের খেলোয়াড়দের বলা হয়, তারা জাতীয় সংগীত না গাইলে বা কোনো রাজনৈতিক আন্দোলনে অংশ নিলে তাদের পরিবার সহিংসতা এমনকি নির্যাতনের মুখে পড়তে হবে। এই সতর্কতায় হয়ত কাজ হয়েছে। শুক্রবার ওয়েলসের বিপক্ষে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচের আগে জাতীয় সংগীতে কণ্ঠ মেলাতে দেখা যায় ইরানের ফুটবলারদের। ম্যাচে ২-০ গোলে জয় পায় ইরান।

বিশ্বকাপে কাতারে কাজ করা ইরানের নিরাপত্তা সংস্থাগুলোকে ঘনিষ্ঠভাবে পর্যবেক্ষণ করা সূত্রটি আরও জানায়, খেলোয়াড়রা যেন বিদেশি কারও সঙ্গে দেখা না করতে পারে এবং তারা যেন স্কোয়াডের বাইরে কারও সঙ্গে না মিশতে পারে সে জন্য আইআরজিসির কয়েক ডজন সদস্যকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। কাতারে ইরানের নিরাপত্তা বাহিনীর অনেক সদস্য আছেন যারা খেলোয়াড়দের তথ্য নিচ্ছে এবং পর্যবেক্ষণ করছেন।

সঠিকভাবে হিজাব না করার অভিযোগে ইরানের নৈতিকতা পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার কুর্দি তরুণী মাহসা আমিনির মৃত্যু হয় গত ১৬ সেপ্টেম্বর। সেদিন থেকেই প্রতিবাদ ছড়িয়ে পড়ে গোটা ইরানে। আন্দোলনে এখন পর্যন্ত তিন শতাধিক মানুষ নিহত হয়েছেন বলে জানান ইরানের বিপ্লবী গার্ড বাহিনীর জেনারেল আমিরালি হাজিজাদেহ

এ আন্দোলনকে সমর্থন জানিয়ে যুক্তরাষ্ট্র সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ইরানের একটি পতাকা পোস্ট করে। যেখানে ইরানের পতাকার মাঝে থাকা ইসলামি প্রজাতন্ত্রের প্রতীক বাদ দেয়া হয়। এ ঘটনায় পতাকা বিকৃতির অভিযোগ তুলে যুক্তরাষ্ট্রকে বিশ্বকাপ থেকে বের করে দেয়ার আহ্বান জানিয়েছে তেহরান। পতাকা বিকৃতির ঘটনায় ইতোমধ্যে ক্ষমা চেয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের হেড কোচ গ্রেগ বেরহাল্টার।

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Sundarbans is the new district of West Bengal

পশ্চিমবঙ্গের নতুন জেলা সুন্দরবন

পশ্চিমবঙ্গের নতুন জেলা সুন্দরবন প্রতীকী ছবি
উত্তর ও দক্ষিণ চব্বিশ পরগনার মোট ১৯টি ব্লক রয়েছে সুন্দরবনে। দক্ষিণ চব্বিশ পরগনার ১৩টি ব্লক নিয়ে সুন্দরবন জেলা এবং উত্তর ২৪ পরগনার ৬টি ব্লক নিয়ে হবে বসিরহাট জেলা।

ভারতের দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা জেলার ১৩টি ব্লক নিয়ে তৈরি হলো পশ্চিমবঙ্গের নতুন জেলা-সুন্দরবন। মঙ্গলবার আনুষ্ঠানিকভাবে সুন্দরবনকে জেলা হিসেবে ঘোষণা করেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

উত্তর ২৪ পরগনার হিঙ্গলগঞ্জ ব্লকের হেমনগর কোস্টাল থানার বনবিবির মাঠের একটি জনসভায় অংশ নিয়ে মমতা বলেন, 'আমি সুন্দরবন জেলা করছি। এ জন্য করছি যে আপনাদের অনেক দূরে যেতে হয়। আমি সেখানে অনেক স্বাস্থ্য কেন্দ্র করছি। এতে মানুষ বাড়ির কাছেই চিকিৎসা পাবে।'

নভেম্বরের শুরুতে নদিয়া জেলা সফরে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘোষণা দেন, প্রশাসনিক স্তরে কাজের সুবিধার জন্য বসিরহাট ও সুন্দরবন নামে দুটি আলাদা জেলা করা হবে।

উত্তর ও দক্ষিণ চব্বিশ পরগনার মোট ১৯টি ব্লক রয়েছে সুন্দরবনে। দক্ষিণ চব্বিশ পরগনার ১৩টি ব্লক নিয়ে সুন্দরবন জেলা এবং উত্তর ২৪ পরগনার ৬টি ব্লক নিয়ে হবে বসিরহাট জেলা।

পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের উত্তর ও দক্ষিণ চব্বিশ পরগনার সুন্দরবন লাগোয়া ব্লকের বাসিন্দাদের এতদিন প্রশাসনিক কাজের জন্য বারাসত যেতে হতো। সুন্দরবনকে আলাদা জেলা ঘোষণা করায় তাদের সমস্যার সুরাহা হবে বলে মনে করছেন স্থানীয়রা।

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Monks arrested for dope test temple empty

ডোপ টেস্টে ধরা ভিক্ষুরা, মন্দির খালি

ডোপ টেস্টে ধরা ভিক্ষুরা, মন্দির খালি  প্রতীকী ছবি
বুনলার্ট থিন্তাপথাই নামে এক কর্মকর্তা জানান, উত্তরাঞ্চলীয় প্রদেশ ফেচাবুনের বাং স্যাম ফান জেলার একটি ছোট বৌদ্ধ মন্দিরে ডোপ টেস্টে পজিটিভ হওয়ায় প্রধান ভিক্ষুসহ চারজনকে বরখাস্ত করা হয়েছে। ওই চারজনই মেথামফেটিন মাদক নিয়েছেন।

ডোপ টেস্ট উৎরাতে না পারায় বরখাস্ত হলেন একটি বৌদ্ধ মন্দিরের সব ভিক্ষু। আর এতে খালি হয়ে পড়েছে মন্দিরটি। ঘটনাটি ঘটেছে থাইল্যান্ডে।

বুনলার্ট থিন্তাপথাই নামে এক কর্মকর্তা জানান, উত্তরাঞ্চলীয় প্রদেশ ফেচাবুনের বাং স্যাম ফান জেলার একটি ছোট বৌদ্ধ মন্দিরে ডোপ টেস্টে পজিটিভ হওয়ায় প্রধান ভিক্ষুসহ চারজনকে বরখাস্ত করা হয়েছে। ওই চারজনই মেথামফেটিন মাদক নিয়েছেন। মেথামফেটিন একটি স্নায়ুতন্ত্র উত্তেজক ওষুধ; অনেক সময় যা আনন্দদায়ক হিসেবে ব্যবহৃত হয়।

ওই কর্মকর্তা আরও জানান, ডোপ টেস্টে পজিটিভ হওয়ার পর চার ভিক্ষুকে মাদক পুনর্বাসন কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে। থাইল্যান্ডজুড়ে মাদকবিরোধী অভিযানের অংশ হিসেবে এই পরীক্ষা চালানো হয়।

পুলিশ জানায়, সোমবার ভিক্ষুদের প্রস্রাব পরীক্ষার পর তাদের বরখাস্ত করা হয়। তবে কী কারণে মন্দিরের ভিক্ষুদের ডোপ টেস্ট করানো হয়েছিল, তা নিয়ে পুলিশের পক্ষ থেকে কিছু জানানো হয়নি।

থিন্তাপথাই বলেন, ‘মন্দিরটি এখন ভিক্ষুশূন্য। আর এ কারণে ধর্মীয় কর্মকাণ্ড না করতে পারার শঙ্কায় আছেন আশপাশের গ্রামের মানুষ।

‘স্থানীয় ভিক্ষু প্রধানের কাছে এ বিষয়ে পরামর্শ চাওয়া হয়েছে। তিনি মন্দিরে কিছু ভিক্ষু দেয়ার প্রতিজ্ঞা করেছেন।’

জাতিসংঘের মাদক ও অপরাধবিষয়ক অফিস জানায়, গত বছর থাইল্যান্ডে এ যাবতকালের সবচেয়ে বেশি মেথামফেটামিন মাদক জব্দ করা হয়।

মেথামফেটামিন পাচারের অন্যতম ট্রানজিট পয়েন্ট থাইল্যান্ড। মিয়ানমার হয়ে প্রচুর মেথামফেটামিন ঢোকে দেশটিতে।

থাইল্যান্ডের একটি চাইল্ড কেয়ার সেন্টারে গত মাসে সাবেক এক পুলিশ সদস্যের গুলিতে ৩৭ জন নিহত হয়। মেথামফেটামিন রাখার দায়ে ওই পুলিশ অফিসার পরে বরখাস্ত হন। এ ঘটনার পর দেশজুড়ে মাদকবিরোধী অভিযানের নির্দেশ দেন থাই প্রধানমন্ত্রী প্রয়ুথ চ্যান-ওচা ।

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
100 companies in the UK set a 4 day working week

যুক্তরাজ্যের ১০০ কোম্পানিতে সাপ্তাহিক ছুটি ৩ দিন

যুক্তরাজ্যের ১০০ কোম্পানিতে সাপ্তাহিক ছুটি ৩ দিন ছবি: সংগৃহীত
কর্মীরা জানান, সপ্তাহে পাঁচ দিন কাজ করার কারণে কাজের প্রতি তাদের বিরক্তি চলে আসতো। কাজ ঠিকভাবে সম্পন্ন করতে পারতেন না। মানসিক চাপ অনুভব করতেন। সপ্তাহে চার দিন কাজের সময় নির্ধারণ করার সিদ্ধান্তকে তারা সাধুবাদ জানান।

যুক্তরাজ্যের ১০০টি প্রতিষ্ঠান সপ্তাহে পাঁচ দিনের পরিবর্তে চার দিন কাজ করবে বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এর ফলে প্রতিষ্ঠানগুলোতে সাপ্তাহিক ছুটি এখন থেকে দুই দিনের পরিবর্তে তিন দিন হচ্ছে।

সম্প্রতি এ প্রতিষ্ঠানগুলোর কর্তৃপক্ষ এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে এনডিটিভির এক প্রতিবেদন জানিয়েছে।

এই প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে এটম ব্যাংক ও গ্লোবাল মার্কেটিং কোম্পানি অ্যাউইনের মতো প্রতিষ্ঠান রয়েছে। ওই দুই প্রতিষ্ঠানে প্রায় ৯০০ জন কর্মী কাজ করেন।

কর্তৃপক্ষ বলছে, কাজের দিন কমলেও কর্মীদের বেতন কমানো হবে না।

যে ১০০ প্রতিষ্ঠানে কর্মঘণ্টা কমানোর সিদ্ধান্ত হয়েছে সেই প্রতিষ্ঠানগুলোতে প্রায় ২৬০০ কর্মী কাজ করছেন। সপ্তাহে চারদিন কাজ করলে কর্মীদের মধ্যে কাজের আগ্রহ বাড়বে বলে মনে করে মালিকপক্ষ।

কর্মীরা জানান, সপ্তাহে পাঁচ দিন কাজ করার কারণে কাজের প্রতি তাদের বিরক্তি চলে আসতো। কাজ ঠিকভাবে সম্পন্ন করতে পারতেন না। মানসিক চাপ অনুভব করতেন। সপ্তাহে চার দিন কাজের সময় নির্ধারণ করার সিদ্ধান্তকে তারা সাধুবাদ জানান।

তারা আরও জানান, এতে তারা কাজ আরও সুন্দরভাবে করতে পারবেন কোনো চাপ ছাড়াই।

দ্য গার্ডিয়ান এই সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানিয়েছে। প্রতিষ্ঠানটির মতে, এই পদ্ধতিতে কর্মীদের দক্ষতা বাড়বে।

কর্তৃপক্ষ মনে করছে, পাঁচ দিনের পরিবর্তে চারদিন কাজ করলেও কর্মীরা কাজ কম করবেন না। সময় কমলেও কাজের ক্ষেত্রে কোনো নেতিবাচক প্রভাব পড়বে না। বরং আগের চেয়ে কাজে আরও বেশি মনযোগ দিতে পারবেন কর্মীরা। ফলে কর্মীদের মানসিক ও শারীরিক স্বাস্থ্য ভালো থাকবে।

আরও পড়ুন:
ঋষি আসলে কতটা ভারতীয়  
গীতায় হাত রেখেই শপথ নেবেন ঋষি
ঋষিকে নিয়ে ভারতের গণমাধ্যমে উচ্ছ্বাস  
ঐক্যবদ্ধ যুক্তরাজ্য গড়তে কাজ করব: ঋষি সুনাক
আধুনিক ব্রিটেনের সর্বকনিষ্ঠ প্রধানমন্ত্রী ঋষি

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Lava is coming out of the worlds largest volcano

বিশ্বের সবচেয়ে বড় আগ্নেয়গিরিতে বের হচ্ছে লাভা

বিশ্বের সবচেয়ে বড় আগ্নেয়গিরিতে বের হচ্ছে লাভা সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ১৩ হাজার ৬৭৯ ফুট উপরে মাউনা লোয়া শৃঙ্গ থেকে লাভা বের হওয়া শুরু হয়েছে। ছবি: ইউএসজিএস
আগ্নেয়গিরিবিষয়ক ব্রিটিশ বিশেষজ্ঞ ও হাওয়াই ভলকানো অবজারভেটরিতে কর্মরত ড. জেসিকা জনসন বলেন, ‘লাভার স্রোত হিলো ও কোনা শহরের বাসিন্দাদের জীবনকে ভয়াবহ হুমকিতে ফেলে দিয়েছে। এমন উত্তপ্ত লাভা শহরের অবকাঠামো ও প্রকৃতি পুরোপুরি ধ্বংস করে দিতে পারে। সেই সঙ্গে উদগিরিত বিষাক্ত গ্যাস ও ছাইয়ের কারণে শ্বাসকষ্টে মানুষের মৃত্যুও হতে পারে।’

৩৮ বছর পর যুক্তরাষ্ট্রে বিশ্বের সবচেয়ে বড় সক্রিয় আগ্নেয়গিরি মাউনা লোয়া থেকে লাভা বের হওয়া শুরু হয়েছে।

দেশটির পশ্চিমাঞ্চলীয় দ্বীপ রাজ্য হাওয়াইতে স্থানীয় সময় রোববার রাত সাড়ে ১১টায় আগ্নেয়গিরিটি থেকে লাভার উদগিরণ শুরু হয়। এরই মধ্যে স্থানীয়দের জন্য সতর্কবার্তার মাত্রা বাড়িয়েছে প্রশাসন। এ খবর প্রকাশ করেছে সংবাদমাধ্যম বিবিসি

অগ্ন্যুৎপাত শুরুর কয়েক ঘণ্টার মধ্যে এই অঞ্চলে রিখটার স্কেল প্রায় তিন মাত্রার ১০টির বেশি ভূকম্পন আঘাত হেনেছে। তবে সবচেয়ে বেশি মাত্রার ভূকম্পনটি ছিল ৪ দশমিক ২ মাত্রার।

যুক্তরাষ্ট্রের ভূতাত্ত্বিক জরিপ সংস্থা ইউএসজিএসের তথ্য অনুযায়ী, এই মুহূর্তে উদগিরিত গলিত লাভা পবর্তের সুউচ্চ শৃঙ্গ কলডেরাসে সীমাবদ্ধ রয়েছে। পাদদেশের বাসিন্দাদের জন্য এটি তেমন বিপজ্জনক নাও হতে পারে। তবে আগের ভয়াবহ উদগিরণের কথা বিবেচনায় রেখে স্থানীয়দের জন্য সতর্কবার্তা বাড়িয়ে দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। তারা জানিয়েছে, লাভার পরিমাণ যেকোনো সময় বাড়তে পারে এবং তা গড়িয়ে পাদদেশে নেমে এসে জনবহুল দুটি শহর হিলো ও কোনাতে ধ্বংসলীলা চালাতে পারে।

আগ্নেয়গিরিবিষয়ক ব্রিটিশ বিশেষজ্ঞ ও হাওয়াই ভলকানো অবজারভেটরিতে কর্মরত ড. জেসিকা জনসন বলেন, ‘লাভার স্রোত হিলো ও কোনা শহরের বাসিন্দাদের জীবনকে ভয়াবহ হুমকিতে ফেলে দিয়েছে। এমন উত্তপ্ত লাভা শহরের অবকাঠামো ও প্রকৃতি পুরোপুরি ধ্বংস করে দিতে পারে। সেই সঙ্গে উদগিরিত বিষাক্ত গ্যাস ও ছাইয়ের কারণে শ্বাসকষ্টে মানুষের মৃত্যুও হতে পারে।’

ইউএসজিএস জানিয়েছে, অগ্ন্যুৎপাতের ঘটনা গভীরভাবে পর্যবেক্ষণে রাখা হচ্ছে। প্রয়োজনে সতর্কতার মাত্রা আরও বাড়ানো হবে এবং স্থানীয়দের নিরাপত্তায় জরুরি ব্যবস্থা নেয়ার পরামর্শ দেয়া হবে।

হাওয়া ভলকানোস ন্যাশনাল পার্কের মধ্যে অবস্থিত মাউনা লোয়া পর্বতটি হাওয়াইয়ের ‘বিগ আইল্যান্ড’-এ অর্ধেকেরও বেশি জায়গা দখল করে রেখেছে। মাউনা লোয়া পবর্তটি ২,০০০ বর্গমাইল এলাকাজুড়ে বিস্তৃত।

আগ্নেয়গিরির চূড়াটি সমুদ্রের উপরিভাগ থেকে ১৩ হাজার ৬৭৯ ফুট ওপরে।

এর আগে ১৯৮৪ সালের অগ্ন্যুৎপাত হয়েছিল মাউনা লোয়াতে। সে সময় ওই দ্বীপের সবচেয়ে জনবহুল শহর হিলোর পাঁচ মাইল ভেতরেও লাভা চলে গিয়েছিল।

চার দশকে এই বিগ আইল্যান্ডের জনসংখ্যা দ্বিগুণ বেড়ে হয়েছে দুই লাখের বেশি।

১৮৪৩ সাল থেকে মাউনা লোয়ায় অন্তত ৩৩টি অগ্ন্যুৎপাতের ঘটনা ঘটে।

আরও পড়ুন:
যুক্তরাষ্ট্র ও জাপানে সুনামি সতর্কতা
সাগরতলে অগ্ন্যুৎপাত, টোঙ্গায় সুনামি
আবার জেগেছে নিরাগঙ্গো, আতঙ্কে ডিআর কঙ্গো
ভাঙল ৮০০ বছরের ঘুম

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Sword attack on police van carrying Aftab
শ্রদ্ধা হত্যা

আফতাবকে বহনকারী পুলিশ ভ্যানে তরবারি হামলা

আফতাবকে বহনকারী পুলিশ ভ্যানে তরবারি হামলা আফতাব পুনাওয়ালাকে বহনকারী পুলিশভ্যানে হামলা ঠেকাচ্ছে পুলিশ। ছবি: সংগৃহীত
দিল্লির রোহিনির ফরেনসিক সায়েন্স ল্যাবরেটরিতে পলিগ্রাফ টেস্ট শেষে আফতাবকে জেলে নেয়ার সময় এ হামলার ঘটনা ঘটে। প্রায় ১৫ জন হামলাকারী তরবারি হাতে এ হামলা চালায়। এ সময় কয়েকজন হামলাকারী আহত হয়েছেন। তবে নিরাপদে আছেন আফতাব। 

ভারতের শ্রদ্ধা ওয়াকার হত্যা মামলার অভিযুক্ত আফতাব পুনাওয়ালাকে বহনকারী পুলিশভ্যানে তরবারি নিয়ে হামলা চালানো হয়েছে। সোমবার দিল্লিতে এ হামলা হয়।

সূত্রের বরাতে এনডিটিভি জানায়, দিল্লির রোহিনির ফরেনসিক সায়েন্স ল্যাবরেটরিতে পলিগ্রাফ টেস্ট শেষে আফতাবকে জেলে নেয়ার সময় এ হামলার ঘটনা ঘটে। প্রায় ১৫ জন হামলাকারী তরবারি হাতে এ হামলা চালায়। এ সময় কয়েকজন হামলাকারী আহত হয়েছেন। তবে নিরাপদে আছেন আফতাব।

এদিকে শ্রদ্ধা ওয়াকারের মরদেহ টুকরো টুকরো করায় ব্যবহৃত অস্ত্রের একটি উদ্ধার করা হয়েছে। এর আগে গত সপ্তাহে পুলিশ আফতাবের দেয়া তথ্যে আরও পাঁচটি ছুরি উদ্ধার হয়। তবে শ্রদ্ধার খুলি ও মরদেহের কিছু অংশ পাওয়া যায়নি।

সূত্রের বরাতে এনডিটিভি জানায় , শ্রদ্ধাকে হত্যার পর তার কানের দুল এক নারী চিকিৎসককে দিয়েছিলেন আফতাব। ওই নারী চিকিৎসকের সঙ্গে শ্রদ্ধাকে হত্যার পর ডেটিং করেন আফতাব পুনাওয়ালা।

মুম্বাইয়ের বাসিন্দা ২৮ বছরের যুবক আফতাব পুনাওয়ালা তার লিভ ইন পার্টনার ২৬ বছরের শ্রদ্ধা ওয়াকারের সঙ্গে দিল্লির ছাতারপুর এলাকার একটি ভাড়া বাসায় থাকতেন। চলতি বছরের ১৮ মে তাদের মধ্যে তুমুল ঝগড়া হয়। একপর্যায়ে সেদিন শ্রদ্ধাকে শ্বাসরোধে হত্যা করেন আফতাব।

পরে মরদেহ ৩৫ টুকরা করে ৩০০ লিটার ধারণক্ষমতার ফ্রিজে প্রায় তিন সপ্তাহ রাখেন। ফ্রিজ থেকে টুকরাগুলো কয়েক দিন ধরে শহরের বিভিন্ন জায়গায় ফেলেন তিনি। ৮ নভেম্বর শ্রদ্ধার বাবা বিকাশ মদন ওয়াকার মেয়ের খোঁজে মেহরাউলি পুলিশের কাছে অপহরণের অভিযোগ করেন। তার ভিত্তিতে ১২ নভেম্বর আফতাবকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

মন্তব্য

p
উপরে