× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ পৌর নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য

আন্তর্জাতিক
Hostage in Texas synagogue kills free gunman
hear-news
player
print-icon

টেক্সাস সিনাগগের জিম্মিরা মুক্ত, বন্দুকধারী নিহত

টেক্সাস-সিনাগগের-জিম্মিরা-মুক্ত-বন্দুকধারী-নিহত টেক্সাসের সিনাগগে উদ্ধার অভিযানে জিম্মিকারী নিহত। ছবি: সংগৃহীত
যার মুক্তির দাবিতে জিম্মিকারী এই কাণ্ড ঘটিয়েছেন। সেই আফিয়া সিদ্দিকি আফগানিস্তানে যুক্তরাষ্ট্রের সেনা হত্যাচেষ্টার দায়ে অভিযুক্ত। ২০১০ সালে যুক্তরাষ্ট্রের বিচার বিভাগ তাকে ৮৬ বছরের কারাদণ্ড দেয়।

প্রায় ১০ ঘণ্টা জিম্মিদশার পর মুক্ত হয়েছে টেক্সাসের ইহুদি উপাসনালয়ে (সিনাগগের) জিম্মি হওয়া ৪ ব্যক্তি।

দ্য ন্যাশনাল নিউজের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রাজ্যের গভর্ণর গ্রেগ অ্যাবোট বলেছেন, জিম্মি হওয়া প্রত্যেক ব্যক্তি সুস্থ ও নিরাপদে আছেন।

কলিভেলের পুলিশ প্রধান মাইকেল মিলার জানিয়েছেন, উদ্ধার অভিযানে বন্দুকধারী নিহত হয়েছে।

প্রাথমিকভাবে বন্দুকধারী সিনাগগের রাব্বিসহ চারজনকে জিম্মি করে। জিম্মি করার ৬ ঘণ্টা পর একজনকে ছেড়ে দেয়।

পরে এফবিআইয়ের জিম্মি উদ্ধারকারী দল অভিযান চালিয়ে বাকি ৩ জনকে উদ্ধার করে। এ সময় জিম্মিকারী নিহত হন।

অভিযান চলাকালীন সময় উপস্থিত সাংবাদিকরা বিস্ফোরণ ও গোলাগুলির শব্দ পায়।

জিম্মিকারীর কাছে অস্ত্র ছিল। সে দাবি করেছিল অজানা জায়গায় বোমা পুতে রেখেছে।

এর আগে জিম্মিকারী সিনাগগের ভেতর থেকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে লাইভ স্ট্রিমিং করছিল। তার দাবি ছিল, যুক্তরাষ্ট্রে বন্দি পাকিস্তানি নিউরো বিজ্ঞানী আফিয়া সিদ্দিকিকে মুক্তি দিতে হবে।

যার মুক্তির দাবিতে জিম্মিকারী এই কাণ্ড ঘটিয়েছেন। সেই আফিয়া সিদ্দিকি আফগানিস্তানে যুক্তরাষ্ট্রের সেনা হত্যাচেষ্টার দায়ে অভিযুক্ত। ২০১০ সালে যুক্তরাষ্ট্রের বিচার বিভাগ তাকে ৮৬ বছরের কারাদণ্ড দেয়। সে সময় ঘটনাটি পাকিস্তানে তুমুল আলোচনা ও আফিয়ার মুক্তির দাবিতে ব্যাপক বিক্ষোভ-আন্দোলন হয়। তার সমর্থকদের দাবি, তিনি অবিচারের শিকার।

বর্তমানে টেক্সাসের কারাগারে আফিয়া সিদ্দিকি তার বন্দিজীবন কাটাচ্ছেন।

মন্তব্য

আরও পড়ুন

আন্তর্জাতিক
Imrans 7 day ultimatum to the government in Long March

লং মার্চে সরকারকে ৬ দিনের আলটিমেটাম ইমরানের

লং মার্চে সরকারকে ৬ দিনের আলটিমেটাম ইমরানের খাইবার পাখতুনখাওয়া প্রদেশ থেকে লং মার্চ নিয়ে যাত্রা শুরুর ৩০ ঘণ্টা পর বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানী ইসলামাবাদ পৌঁছেন পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও পিটিআই প্রধান ইমরান খান। ছবি: রয়টার্স
বুধবার শুরু হওয়া পিটিআই-ঘোষিত ‘মুক্তির পদযাত্রা’ (আজাদি মার্চ) নামের লং মার্চের গন্তব্য রাজধানীর গুরুত্বপূর্ণ ডি-চক (ডেমোক্রেসি-চক) চত্বর। দাবি পূরণ না হওয়া পর্যন্ত ডি-চকে ‘অবস্থান কর্মসূচি’ চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন সাবেক এই ক্রিকেট তারকা।

পাকিস্তানের পার্লামেন্ট ভেঙে দিয়ে নতুন নির্বাচনের তারিখ ঘোষণার জন্য শাহবাজ শরিফের সরকারকে ছয় দিনের আলটিমেটাম দিয়েছেন সদ্য ক্ষমতাচ্যুত প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

খাইবার পাখতুনখাওয়া প্রদেশ থেকে লং মার্চ নিয়ে যাত্রা শুরুর ৩০ ঘণ্টা পর বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানী ইসলামাবাদে ঢুকে এই হুঁশিয়ারি দেন পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই) প্রধান ইমরান খান।

বুধবার শুরু হওয়া পিটিআই-ঘোষিত ‘মুক্তির পদযাত্রা’ (আজাদি মার্চ) নামের লং মার্চের গন্তব্য রাজধানীর গুরুত্বপূর্ণ ডি-চক (ডেমোক্রেসি-চক) চত্বর।

দাবি পূরণ না হওয়া পর্যন্ত ডি-চকে ‘অবস্থান কর্মসূচি’ চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন সাবেক এই ক্রিকেট তারকা।

কমপক্ষে ২০ হাজার নেতা-কর্মী নিয়ে ইমরানের গাড়িবহর রাজধানীর জিন্নাহ এ্যাভিনিউতে পৌঁছে বৃহস্পতিবার সকালে। সেখানে এক পদসভায় নতুন প্রধানমন্ত্রীকে হুঁশিয়ারি দেন ইমরান খান।

লং মার্চে সরকারকে ৬ দিনের আলটিমেটাম ইমরানের
কমপক্ষে ২০ হাজার নেতা-কর্মী নিয়ে ইমরানের গাড়িবহর রাজধানীর জিন্নাহ এ্যাভিনিউতে পৌঁছে বৃহস্পতিবার সকালে। ছবি: পিটিআই

লং মার্চ ডি-চকে পৌঁছানো বাধা দিতে পথে পথে কনটেনারবাহী ট্রাক আড়াআড়ি করে ফেলে রাখে আইনশৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনী। পাশাপাশি গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা সুপ্রিম কোর্ট, পার্লামেন্ট ভবন, প্রধানমন্ত্রী এবং প্রেসিডেন্টের বাসভবন, সচিবালয় এবং কূটনৈতিক এলাকার নিরাপত্তা জোরদারে সেনা মোতায়েনের নির্দেশ দিয়েছে শাহবাজ শরিফের সরকার।

দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রানা সানাউল্লাহ জানান, লং মার্চ ঘিরে নৈরাজ্য ঠেকাতে ও ঘোষিত রেড জোনগুলোর নিরাপত্তা নিশ্চিতে সংবিধানের ২৪৫ নম্বর অনুচ্ছেদ অনুযায়ী সেনা মোতায়েনের আদেশ দেয়া হয়েছে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, ‘সোমবার থেকে পিটিআইয়ের সমর্থকদের নিয়ন্ত্রণে চালানো পুলিশের অভিযানে বুধবার পর্যন্ত গ্রেপ্তার হয়েছে ১ হাজার ৭০০-র বেশি। লং মার্চে অস্ত্র আনা ঠেকাতে এই অভিযান চালানো হয়।’

দেশটিতে ইসলামবাদমুখী লং মার্চকে রাজনৈতিক অঙ্গনে গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা হিসেবে ধরা হয়। দেশটির সাম্প্রতিক ইতিহাসে ইমরানের বিশাল ও দীর্ঘতম এই লং মার্চের আগে ২০১৪ সালে তখনকার বিরোধীনেতা বেনজীর ভুট্টো ও নওয়াজ শরিফের রাজধানীমুখী লং মার্চ হয়েছিল।

পাকিস্তানে রাজনৈতিক সংকট আরও তীব্রতর হচ্ছে। সদ্য ক্ষমতাচ্যুত ইমরান খানের পিটিআইয়ের দলের কর্মীদের ওপর পুলিশের হামলার জেরে বুধবার পাঞ্জাবে পিটিআই ঘোষিত লং মার্চে উত্তেজনা বাড়ে।

এর আগে লাহোরের বাটি ও ভাট্টিচৌকে পাকিস্তান তেহরিক-ই ইনসাফের মিছিলে পুলিশের গুলি চালানোর ভিডিও ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরালের কারণে এ উত্তেজনা বাড়ে।

পিটিআই চেয়ারম্যান ইমরান খান গতকাল তার সমর্থকদের সত্যিকার স্বাধীনতার জন্য ইসলামাবাদের দিকে পদযাত্রার আহ্বান জানিয়েছিলেন। যদিও সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল পদযাত্রার অনুমতি দেয়া হবে না। এর জবাবে ইমরান খান তরুণদের প্রতিবন্ধকতা দূর করার আহ্বান জানিয়েছেন।

পাকিস্তানের গুজরানওয়ালা, ফয়সালাবাদে পুলিশের সঙ্গে পিটিআই কর্মীদের সংঘর্ষ হয়। বেশ কয়েকজন পিটিআই নেতাকে আটকের খবর পাওয়া গেছে।

নানা ঘটনার পর বিরোধীদের উত্থাপন করা অনাস্থা ভোটে গত ৯ এপ্রিল মধ্যরাতে পদচ্যুত হন পিটিআই নেতা ও প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

পরে ইমরানবিরোধী রাজনৈতিক জোটের প্রার্থী হিসেবে পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ জাতীয় পরিষদে ভোটে প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হন শাহবাজ শরিফ। পাকিস্তানের ২৩তম প্রধানমন্ত্রী তিনি।

আরও পড়ুন:
মরিয়মকে নিয়ে ইঙ্গিতপূর্ণ বক্তব্য, বিপাকে ইমরান
ইমরান খানের নিরাপত্তায় ১৯৯ কর্মী
আমার চরিত্রহননের চেষ্টা চলছে: ইমরান
এবার ইমরান খানকে গ্রেপ্তারের হুমকি
সিইসির বিরুদ্ধে বিক্ষোভ করবে ইমরানের দল

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
A series of bomb blasts in Afghanistan has killed at least 11 people

আফগানিস্তানে সিরিজ বিস্ফোরণে নিহত ১১

আফগানিস্তানে সিরিজ বিস্ফোরণে নিহত ১১ আফগানিস্তানের বালখ প্রদেশের রাজধানী মাজার-ই-শরিফে বিস্ফোরণে ক্ষতিগ্রস্ত একটি যানবাহন। ছবি: টোলো নিউজ
আফগানিস্তানের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, কাবুলে বুধবার রাতে মসজিদে বোমা বিস্ফোরণে কমপক্ষে দুজন নিহত ও ১০ জন আহত হন। মাজার-ই-শরিফে বিস্ফোরণে ৯ জন নিহত ও ১৫ জন আহত হন বলে জানিয়েছেন বালখ প্রদেশে তালেবান নিযুক্ত মুখপাত্র মোহাম্মদ আসিফ ওয়াজিরি।

আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুল ও উত্তরাঞ্চলীয় শহর মাজার-ই-শরিফে সিরিজ বিস্ফোরণে কমপক্ষে ১১ জন নিহত হয়েছেন।

স্থানীয় কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে আল জাজিরার প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

কাবুল

আফগানিস্তানের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, কাবুলে বুধবার রাতে মসজিদে বোমা বিস্ফোরণে কমপক্ষে দুজন নিহত ও ১০ জন আহত হয়েছেন, তবে রাজধানী শহরের একটি হাসপাতালের টুইটে বলা হয়েছে, মসজিদে বিস্ফোরণে পাঁচজন নিহত ও ২২ জন আহত হন।

হতাহতের এ সংখ্যা স্বতন্ত্রভাবে যাচাই করতে পারেনি আল জাজিরা।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, বিস্ফোরণের পর আহত ব্যক্তিদের উদ্ধারে মসজিদে ছুটে যায় কয়েকটি অ্যাম্বুলেন্স।

কাবুলে তালেবান পুলিশের মুখপাত্র খালিদ জাদরান বলেন, হজরত জাকারিয়া (আ.) মসজিদে ‘মাগরিবের নামাজের জন্য লোকজন জড়ো হলে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে।’

মাজার-ই-শরিফ

বালখ প্রদেশের রাজধানী মাজার-ই-শরিফে মিনিবাসগুলো হামলার শিকার হয় বলে জানিয়েছেন তালেবান নিযুক্ত প্রাদেশিক মুখপাত্র মোহাম্মদ আসিফ ওয়াজিরি।

তিনি বলেন, শহরের বিভিন্ন এলাকায় তিনটি মিনিবাসে বিস্ফোরক ডিভাইস রাখা হয়েছিল।

আসিফ আরও জানান, বিস্ফোরণে ৯ জন নিহত ও ১৫ জন আহত হন।

আরও পড়ুন:
কাবুলে আবারও বোমা হামলা
কাবুলে মসজিদে বিস্ফোরণ: নিহত কমপক্ষে ৫০
আফগানিস্তানে মসজিদে বিস্ফোরণে নিহত ৩৩
কাবুলের শিয়া স্কুলে বোমা হামলায় নিহত ৬
পাকিস্তানের হামলায় নিহত ৪৭: আফগানিস্তান

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Kashmir leader Yasin Maliks life

ইয়াসিন মালিকের যাবজ্জীবন, উত্তাপ কাশ্মীরে

ইয়াসিন মালিকের যাবজ্জীবন, উত্তাপ কাশ্মীরে নিরাপত্তা হেফাজতে জেকেএলএফ নেতা ইয়াসিন মালিক। ছবি: সংগৃহীত
জম্মু কাশ্মীর লিবারেশন ফ্রন্টের (জেকেএলএফ) নেতা ইয়াসিন মালিকের বিরুদ্ধে অভিযোগ রয়েছে বিচ্ছিন্নতাবাদী কাজকর্ম পরিচালনা ও প্রচারণার। তার সংগঠনকে আগেই নিষিদ্ধ করেছে ভারত সরকার।

কাশ্মীরের স্বাধীনতাকামী নেতা ইয়াসিন মালিকের আজীবন সশ্রম কারাবাসের রায় দিয়েছে ভারতের একটি আদালত। রায়ের পর উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়েছে তার অনুসারীদের মধ্যে। বিচ্ছিন্ন কিছু হামলার ঘটনাও ঘটেছে।

দিল্লির বিশেষ আদালতের বিচারপতি প্রবীণ সিং বুধবার এ রায় ঘোষণা করেন।

আদালত সূত্রে জানা যায়, জম্মু কাশ্মীর লিবারেশন ফ্রন্টের (জেকেএলএফ) নেতা ইয়াসিন মালিকের বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল বিচ্ছিন্নতাবাদী কাজকর্ম পরিচালনা ও প্রচারণার। তার সংগঠনকে আগেই নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে ভারত সরকার। বিভিন্ন সময় ইয়াসিন মালিককে গৃহবন্দি করে রাখা হলেও তার প্রভাববলয় কমেনি। জঙ্গিদের মদত দেয়ার অভিযোগে দুই বছর আগে তাকে গ্রেপ্তার করে ভারতের জাতীয় তদন্ত সংস্থা (এনআইএ)। তার পর থেকে তিনি জেলে আছেন।

বিচার চলাকালে এনআইএ ইয়াসিন মালিকের মৃত্যুদণ্ড দাবি করে। বিচারকের কাছে ইয়াসিনের আইনজীবী যাবজ্জীবন জেল দেয়ার ব্যাপারে আর্জি জানান।

ইয়াসিন আদালতকে জানান, তিনি ১৯৯৪ সালে অস্ত্র ছেড়েছেন। তার পর থেকে অহিংস পথেই চলেছেন। এরপর তিনি আর রাজনীতি করবেন না। তাই আদালত যদি তাকে মৃত্যুদণ্ড দেয়, তাতে তিনি আপত্তি করবেন না। নতুন আবেদন জানাবেন না।

দিল্লির এনআইএ আদালত গত ১৯ মে তাকে দোষী সাব্যস্ত করে রায় দিলেও বিচারক শাস্তির সিদ্ধান্ত রিজার্ভ রাখেন। তা বুধবার বেলা সাড়ে ৩টায় ঘোষণা করা হয়। দুটি মামলায় ইয়াসিনকে যাবজ্জীবন সাজার পাশাপাশি, ১০ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

২০১৯ সালে পুলওয়ামা হামলার পর উপত্যকায় জোর ধরপাকড় শুরু করে ভারতীয় সেনা। তখনই ইয়াসিন মালিকসহ বেশ কিছু নেতার জঙ্গিসংশ্লিষ্টতার অভিযোগ আসে। সে সময় গ্রেপ্তার করা হয় স্থানীয়ভাবে প্রভাবশালী ইয়াসিন মালিককে।

উগ্রপন্থিদের আর্থিক ও অন্যান্য সুবিধা দেয়ার অভিযোগ তদন্তের পর ইয়াসিনকে চলতি মাসেই দোষী সাব্যস্ত করা হয়। একই মামলায় লস্কর-ই-তাইয়েবার হাফিজ শাহিদ এবং হিজবুল মুজাহিদিনের সৈয়দ সালাউদ্দিনসহ বেশ কয়েকজনকে দোষী সাব্যস্ত করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে ইউএপিএ ধারা ছাড়াও ফৌজদারি দণ্ডবিধির ষড়যন্ত্র এবং রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগ রয়েছে।

এদিকে ইয়াসিনের সাজা ঘোষণার সংবাদে শ্রীনগরের পরিস্থিতি থমথমে হয়ে উঠেছে। বন্ধ হয়ে গেছে অনেক দোকান-বাজার। আলোচিত এ উপত্যকার নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে। কয়েকটি স্থানে ইয়াসিনের সমর্থকদের হামলার শিকার হয়েছেন নিরাপত্তা রক্ষীরা।

আরও পড়ুন:
কাশ্মীরের জামিয়ায় জামাতে বাধা, ক্ষুব্ধ পাকিস্তান
তুমুল আলোচিত ‘দ্য কাশ্মীর ফাইলস’ এবার ওটিটিতে
কাশ্মীর সংকট সমাধানে জোর শাহবাজের

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Punishment if you commit a crime on the moon

চাঁদে অপরাধ করলে শাস্তি

চাঁদে অপরাধ করলে শাস্তি চাঁদে অপরাধের শাস্তির বিধান রেখে কানাডার খসড়া প্রস্তাব। ছবি: সংগৃহীত
গত ২৯ এপ্রিল এ সংক্রান্ত আইনের একটি প্রাথমিক খসড়া প্রস্তাব করেছে কানাডার হাউজ অব কমন্স।

চাঁদে অপরাধ করলে পেতে হবে শাস্তি। এ নিয়ম চালু করতে যাচ্ছে কানাডা সরকার। গত ২৯ এপ্রিল এ সংক্রান্ত আইনের একটি প্রাথমিক খসড়া প্রস্তাব করেছে দেশটির হাউজ অব কমন্স।

চাঁদের জন্য আমেরিকান মহাকাশ সংস্থা-নাসা একটি মহাকাশ স্টেশনের প্রস্তাব দেয় যা লুনার গেইটওয়ে নামে পরিচিত। সেখান থেকে চাঁদে বা চাঁদ থেকে স্টেশনে ভ্রমণের সময় কোনো নভোচারী অপরাধ করলেও এ আইনের আওতায় তা শাস্তিযোগ্য অপরাধ হিসেবে গণ্য হবে।

এ আইনের আওতায় কানাডিয়ান নভোচারীরা চাঁদ-সংক্রান্ত কোনো অপরাধ করলে তিন ক্ষেত্রে এ শাস্তি পাবেন। তা হলো- চাঁদে যাওয়ার পথে, কোনো অপরাধ করলে, চাঁদে অবস্থান করে, এবং চাঁদ থেকে ফেরত আসার পথে অপরাধ করলে।

একটি প্রতিবেদনে বলা হয়, বিল সি-১৯ নামের ওই খসড়ায় বলা হয়েছে, কোনো ব্যক্তি যদি মহাকাশ ভ্রমণের সময় এমন কোনো কাজ করেন যা কানাডায় অপরাধ হিসেবে বিবেচিত হয়, তবে সেটি সেভাবেই অপরাধ হিসেবেই গণ্য হবে।

যদিও এর আগেই কানাডার ফৌজদারি দণ্ডবিধিতে আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনে কোনো অপরাধ সংঘটনের জন্য শাস্তির বিধান ছিল। এবার নির্দিষ্ট করে চাঁদের জন্য এ ধরনের দণ্ডবিধি রাখার প্রস্তাব করা হয়েছে।

প্রথম দেশ হিসেবে কানাডা ২০১৯ সালে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে আর্টেমিস চুক্তি করে। এই চুক্তিতে দেশটি তার মহাকাশে প্রবেশাধিকার দেয়ার জন্য প্রস্তুত।

চাঁদ নিয়ে মানুষের আগ্রহের এখানেই শেষ নয়। বিখ্যাতদের পাশাপাশি অনেক সাধারণ মানুষও চাঁদে জমি কিনছেন। আর এ জন্য যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কের লুনা সোসাইটি ইন্টারন্যাশনালের সঙ্গে যোগাযোগ করতে হয় আগ্রহীকে।

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
39 crore guns in the hands of 32 crore citizens of the United States

যুক্তরাষ্ট্রের ৩২ কোটি নাগরিকের হাতে ৩৯ কোটি বন্দুক

যুক্তরাষ্ট্রের ৩২ কোটি নাগরিকের হাতে ৩৯ কোটি বন্দুক আইনিভাবে আগ্নেয়াস্ত্র রাখার সুযোগ প্রায় অবাধ বলে এসব ঘটনা ঘটেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। ছবি: এএফপি
সাম্প্রতিক বছরগুলোতে তরুণ আমেরিকানদের মৃত্যুর প্রধান কারণ সড়ক দুর্ঘটনা। তার পরেই আছে বন্দুক হামলায় মৃত্যু। সময়ের সঙ্গে সড়ক দুর্ঘটনায় মৃত্যু কমলেও, আগ্নেয়াস্ত্রের ওপর নিয়ন্ত্রণের অভাবে বন্দুকের ব্যবহার বাড়ছে।  

যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসের একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বন্দুকধারীর হামলার ঘটনায় ফের আলোচনায় উঠে এসেছে দেশটির অস্ত্র নিয়ন্ত্রণ আইন। স্থানীয় সময় মঙ্গলাবার বেলা ১১টার দিকে চালানো হামলায় প্রাণ হারান ১৯ শিক্ষার্থী, আহত হয়েছেন আরও ২১ জন।

বন্দুকধারীর নাম সালভাদর রামোস। ১৮ বছর বয়সী এই তরুণ পুলিশের গুলিতে নিহত হয়েছেন। বাড়ি থেকে বের হওয়ার আগে সে তার দাদিকেও গুলি করে। আশঙ্কাজনক অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি আছেন তিনি।

যুক্তরাষ্ট্রের মাটিতে এমন বন্ধুক হামলা প্রায়ই ঘটে। তবে অস্ত্র আইনে বড় পরিবর্তন আনেনি রিপাবলিকান বা ডেমোক্র্যাট... কোনো সরকারই।

যুক্তরাষ্ট্রের সেন্টারস ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন (সিডিসি) বলছে, যুক্তরাষ্ট্রের ৩২ কোটি নাগরিকের হাতে ৩৯ বন্দুক কোটি আছে। এ ঘটনায় উদ্বেগ জানিয়ে একটি প্রতিবেদনও ছেপেছে সিডিসি।

যুক্তরাষ্ট্রের ৩২ কোটি নাগরিকের হাতে ৩৯ কোটি বন্দুক

সিডিসির হিসাবে, ২০২০ সালে গুলিতে প্রান হারিয়েছে চার হাজার ৩০০ শিশু। তাদের বয়স ১-১৯ বছরের মধ্যে। ২০১৯ সালের চেয়ে যা ৩৩.৪ শতাংশ বেশি।

সিডিসি বলছে, দেশে ২৯.৫ শতাংশ শিশু, কিশোররা আগ্নেয়াস্ত্র ব্যবহার করে। গুলিতে মৃত্যুর ঘটনাগুলোর মধ্যে আছে খুন, আত্মহত্যা, অনিচ্ছাকৃত হত্যাকাণ্ড। এ সময়ে যুক্তরাষ্ট্রে আত্মহত্যার হার বাড়ে ১ দশমিক ১ শতাংশ।

আইনিভাবে আগ্নেয়াস্ত্র রাখার সুযোগ প্রায় অবাধ বলে এসব ঘটনা ঘটেছে বলে ধারণা করছেন অনেক বিশ্লেষকরা।

তারা বলছেন, এসব ঘটনার মূল কারণ বিনামূল্যে আগ্নেয়াস্ত্র পাওয়ার সুবিধা। যুক্তরাষ্ট্রে আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ন্ত্রণের দাবি বিভিন্ন সময়ে উত্থাপিত হলেও, প্রস্তুতকারকদের কারণে তা আলোর মুখ দেখেনি।

সাম্প্রতিক বছরগুলোতে তরুণ আমেরিকানদের মৃত্যুর প্রধান কারণ সড়ক দুর্ঘটনা। তার পরেই আছে বন্দুক হামলায় মৃত্যু। সময়ের সঙ্গে সড়ক দুর্ঘটনায় মৃত্যু কমলেও, আগ্নেয়াস্ত্রের ওপর নিয়ন্ত্রণের অভাবে বন্দুকের ব্যবহার বাড়ছে।

‘আমরা আমাদের শিশুদের মৃত্যু থেকে রক্ষা করতে ব্যর্থ হচ্ছি; অথচ এটা প্রতিরোধ সম্ভব।’

আরও পড়ুন:
নিউ ইয়র্কে ‘বর্ণবিদ্বেষী’ হামলায় নিহত ১০, শ্বেতাঙ্গ আটক
ভাসানচরে আর রোহিঙ্গা নয়, অনুরোধ যুক্তরাষ্ট্রের
উন্নয়ন মেগা প্রকল্পে, যুক্তরাষ্ট্রের জন্য আলাদা অর্থনৈতিক অঞ্চল: প্রধানমন্ত্রী
সাউথ ক্যারোলাইনায় শপিং সেন্টারে গুলি, আহত অন্তত ১৪
যুক্তরাষ্ট্রে সর্বোচ্চ সুবিধাপ্রাপ্ত দেশের মর্যাদা হারাল রাশিয়া

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
The assailant shot his grandmother and left for school
টেক্সাসে হামলা

দাদিকে গুলি করে স্কুলে রওনা হন হামলাকারী

দাদিকে গুলি করে স্কুলে রওনা হন হামলাকারী
স্কুলে গাড়ি চালিয়ে যাওয়ার পথে তল্লাশি চৌকিতে নিরাপত্তারক্ষীদের লক্ষ্য করে গুলি ছোড়েন হামলাকারী। এতে একজন গুলিবিদ্ধ হন।

যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসের রব এলিমেন্টারি স্কুলে হামলা করার আগে নিজের দাদিকে গুলি করেন বন্দুকধারী। এরপর গাড়ি নিয়ে স্কুলের উদ্দেশে রওনা হন তিনি।

রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বন্দুকধারীর দাদিকে আহত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

স্কুলে গাড়ি চালিয়ে যাওয়ার পথে তল্লাশি চৌকিতে নিরাপত্তারক্ষীদের লক্ষ্য করে গুলি ছোড়েন তিনি। এতে একজন গুলিবিদ্ধ হন।

বন্দুকধারীর গুলিতে ১৯ শিক্ষার্থীসহ বিদ্যালয়টির দুই শিক্ষক নিহত হয়েছেন।

স্থানীয় সময় মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টায় এ ঘটনা ঘটে।

বন্দুকধারীর নাম সালভাদর রামোস। ১৮ বছর বয়সী এই তরুণ পুলিশের গুলিতে নিহত হয়েছেন।

অঙ্গরাজ্যের ডিপার্টমেন্ট ফর পাবলিক সেফটি এ তথ্য জানিয়েছে।

ধারণা করা হচ্ছে, ওই বন্দুকধারী একাই হামলা চালিয়েছে। তবে হামলার কারণ এখনও জানা যায়নি।

টেক্সাসের উভালদে শহরের স্কুলটিতে বন্দুক হামলার ঘটনায় হতাহতদের পাশের উইলি ডি লিউন সিভিক সেন্টারে নিয়ে যাওয়া হয়।

হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। সেই সঙ্গে অস্ত্র ব্যবসায়ীদের পক্ষ নেয়া বন্ধের পাশাপাশি এই ধরনের বন্দুক হামলার ঘটনা যাতে ফের না হতে পারে, সে বিষয়ে হুঁশিয়ারিও দেন তিনি।

টেক্সাসের গভর্নর গ্রেগ অ্যাবোট মঙ্গলবার বিকেলে বলেন, ‘বন্দুকধারী গাড়ি নিয়ে ওই স্কুলে ঢুকেছিল। তার হাতে একটি পিস্তল আর গাড়িতে একটি সেমি অটোমেটেড রাইফেল ছিল, যা সে হত্যাযজ্ঞে ব্যবহার করে।’

অ্যাবোট বলেন, ‘সালভাদর রামোসের গুলিতে নিহত শিক্ষিকার নাম ইভা মিরেলেস। চতুর্থ শ্রেণির দায়িত্বে থাকা ৪৪ বছর বয়সী ইভা মিরেলেস শিক্ষকতা পেশায় ছিলেন ১৭ বছর।

তিনি একজন পুলিশ কর্মকর্তাকে বিয়ে করেছিলেন, যিনি স্কুলটিতে শুটিং প্রশিক্ষক হিসেবে কর্মরত।

গুলিতে নিহত আরেক শিক্ষকের নাম ইরমা গারসিয়া। ৪৬ বছর বয়সী ইরমা ২৩ বছর ধরে স্কুলটিতে শিক্ষকতা করছেন। তার চার সন্তান রয়েছে।

নর্থ ডাকোটায় জন্ম নেয়া রামোস থাকত উভালদে শহরে। রব এলিমেন্টারি স্কুলে গুলি চালানোর সময় আইনপ্রয়োগকারী কর্মকর্তার গুলিতে তিনি নিহত হন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

বন্দুকের সহজপ্রাপ্যতাসহ বিভিন্ন কারণে যুক্তরাষ্ট্রে বন্দুক হামলার ঘটনা প্রায় ঘটে থাকে। বার্তা সংস্থা সিএনএনের তথ্যমতে, দেশটির শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে চালানো এই বন্দুক হামলাটি চলতি বছরের ৩০তম হামলা।

মঙ্গলবারের হামলায় হতাহতের সংখ্যা বাদ দিলে চলতি বছরের ২৯টি বন্দুক হামলায় বিভিন্ন স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে নিহত হয় কমপক্ষে ১০ জন। আহত হন ৫১ জন।

২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারিতে ফ্লোরিডার পার্কল্যান্ডের স্টোনম্যান ডগলাস হাই স্কুলে বন্দুকধারীর হামলায় নিহত হন ১৭ জন।

২০১২ সালের ডিসেম্বরে কানেকটিকাটের একটি এলিমেন্টারি স্কুলে বন্দুকধারীর হামলায় নিহত হন ২৬ জন।

আরও পড়ুন:
নিউ ইয়র্কে ‘বর্ণবিদ্বেষী’ হামলায় নিহত ১০, শ্বেতাঙ্গ আটক
সাউথ ক্যারোলাইনায় শপিং সেন্টারে গুলি, আহত অন্তত ১৪
বন্দুক হামলার ‘প্রতিবাদে’ অস্ত্রসহ সপরিবারে কংগ্রেসম্যান
যুক্তরাষ্ট্রে স্টেডিয়ামের বাইরে গুলিতে নিহত ৪
গার্লফ্রেন্ডের বাড়িতে জন্মদিনের অনুষ্ঠানে গুলি, নিহত ৭

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Police clash with Imrans staff in Pakistan

পাকিস্তানে ইমরানের কর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ

পাকিস্তানে ইমরানের কর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ পিটিআইয়ের গাড়ি ভাংচুর করছে পুলিশ। ছবি: ডন নিউজ টিভি
এর আগে পিটিআই চেয়ারম্যান ইমরান খান গতকাল তার সমর্থকদের সত্যিকার স্বাধীনতার জন্য ইসলামাবাদের দিকে পদযাত্রার আহ্বান জানিয়েছিলেন। যদিও সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল পদযাত্রার অনুমতি দেয়া হবে না। এর জবাবে ইমরান খান তরুণদের প্রতিবন্ধকতা দূর করার আহ্বান জানিয়েছেন।

পাকিস্তানে রাজনৈতিক সংকট কাটছেই না। সদ্য ক্ষমতাচ্যুত ইমরান খানের পিটিআইয়ের দলের কর্মীদের ওপর পুলিশের হামলার জেরে বুধবার পাঞ্জাবে পিটিআই ঘোষিত মুক্তির পদযাত্রায় উত্তেজনা বৃদ্ধি পেয়েছে।

ডনের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এর আগে লাহোরের বাটি ও ভাট্টিচৌকে পাকিস্তান তেহরিক-ই ইনসাফের মিছিলে পুলিশের গুলি চালানোর ভিডিও ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরালের কারণে এ উত্তেজনা বৃদ্ধি পায়।

এর আগে পিটিআই চেয়ারম্যান ইমরান খান গতকাল তার সমর্থকদের সত্যিকার স্বাধীনতার জন্য ইসলামাবাদের দিকে পদযাত্রার আহ্বান জানিয়েছিলেন। যদিও সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল পদযাত্রার অনুমতি দেয়া হবে না। এর জবাবে ইমরান খান তরুণদের প্রতিবন্ধকতা দূর করার আহ্বান জানিয়েছেন।

পাকিস্তানে ইমরানের কর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ
লাহোরে পিটিআই সমর্থকদের ওপর হামলা করেছে পুলিশ

পাকিস্তানের গুজরানওয়ালা, ফয়সালাবাদে পুলিশের সঙ্গে পিটিআই কর্মীদের সংঘর্ষ হয়েছে। বেশ কয়েকজন পিটিআই নেতাকে আটকের খবর পাওয়া গেছে।

এদিকে ইমরান খান পেশোয়ার ছেড়েছেন। খবরে বলা হয়েছে, পেশোয়ার থেকে হেলিকপ্টারে করে খাইবার পাখতুনে চলে গেছেন। তিনি খাইবার পাখতুনে তার সমর্থকদের উদ্দেশ্যে ভাষণ দেবেন।

একটি ভিডিও ফুটেজে দেখা যায়, খাইবার পাখতুনে ইমরান খানের সমর্থকরা তার হেলিকপ্টার ঘিরে রেখেছে। পরে পিটিআইয়ের টুইটার পেজে একটি ছবি টুইট করা হয়, যেখানে ইমরান খানকে গাড়ি থেকে তার সমর্থকদের উদ্দেশ্যে হাত নাড়তে দেখা গেছে।

আরও পড়ুন:
ইমরান পাকিস্তানে যুদ্ধ বাধাতে চান: শাহবাজ
পাকিস্তানে ৩৮ বিলাস পণ্য আমদানিতে নিষেধাজ্ঞা
টানা ৬ দিন দর হারাল পাকিস্তানি রুপি
মাঠেই মারা গেলেন পাকিস্তানি ক্রিকেটার
পাকিস্তানে আত্মঘাতী বোমা হামলায় শিশু, সেনাসহ নিহত ৬

মন্তব্য

p
উপরে