ইহুদিবিদ্বেষও মানবতাবিরোধী অপরাধ: এরদোয়ান

player
এরদোয়ান

প্রেসিডেন্সিয়াল প্যালেসের ইহুদি সম্প্রদায়ের নেতৃস্থানীয় ব্যক্তিদের সঙ্গে বৈঠক করেন এরদোয়ান। ছবি: আনাদোলু

এরদোয়ান বলেন, প্যালেস্টাইন ইস্যুতে ইসরাইলের সঙ্গে তুরস্কের দ্বিমত রয়েছে। এর পরেও অর্থনীতি, ব্যবসা ও পর্যটনে দুই দেশের চলমান সম্পর্ক অব্যাহত থাকবে।

ইহুদিবিদ্বেষকে মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধ আখ্যা দিলেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়েপ এরদোয়ান।

ইসরাইলের সঙ্গে শীতল সম্পর্কের মাঝেই ইহুদি সম্প্রদায়ের নেতৃস্থানীয় ব্যক্তিদের সঙ্গে আলোচনায় বসে মুসলিম বিশ্বের আলোচিত রাষ্ট্রপ্রধান এই উক্তি করলেন।

তুরস্কের ইংরেজি দৈনিক ডেইলি সাবাহর প্রতিবেদনে জানা যায়, বুধবার রাতে প্রেসিডেন্সিয়াল প্যালেসের ইহুদি সম্প্রদায়ের নেতৃস্থানীয় ব্যক্তির সঙ্গে বৈঠক করেন এরদোয়ান।

এ সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন তুরস্কের প্রধান ইহুদি ধর্মযাজক ইসাক হালেভা, রাশিয়ার প্রধান ধর্মযাজক বেরেল লাজার ছাড়াও শীর্ষ পর্যায়ের ইহুদি যাজকরা।

তুরস্কের অন্যান্য ধর্মাবলম্বীদের পাশাপাশি বসবাস করেন ইহুদিরাও। তাদের নাগরিকত্বও আছে দেশটিতে। বিশ্বের একমাত্র ইহুদি রাষ্ট্র ইসরাইলের সঙ্গেও দেশটির সম্পর্ক রয়েছে।

বৈঠকে এরদোয়ান বলেন, ‘আমরা ইসলামভীতিকে মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধ হিসেবে দেখি। মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধ হিসেবে দেখি ইহুদিবিদ্বেষকেও।‘

এরদোয়ান বলেন ‘পশ্চিমা বিশ্বে চলমান ইসলামভীতি, ইহুদিবিদ্বেষ ও জাতিবিদ্বেষের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে আমাদের সংহতি থাকা দরকার।’

তিনি বলেন, ‘তুরস্ক মধ্যপ্রাচ্যের একটি কল্যাণরাষ্ট্র হতে চায়। যেখানে সব ধর্মের, বর্ণের ও ভাষাভাষীর মানুষ শান্তিতে বসবাস করতে পারবে।‘

তুরস্ক-ইসরাইল সম্পর্কের বিষয়েও কথা বলেন এরদোয়ান। জানান, এই সম্পর্ক তিনি চালিয়ে নিতে এবং সহযোগিতা বাড়াতে আগ্রহী।

এরদোয়ান বলেন, ‘যদিও প্যালেস্টাইন ইস্যুতে ইসরাইলের সঙ্গে তুরস্কের দ্বিমত রয়েছে। তা সত্ত্বেও অর্থনীতি, ব্যবসা ও পর্যটনে দুই দেশের চলমান সম্পর্ক অব্যাহত থাকবে।

প্যালেস্টাইন ইস্যুতে ইসরাইলের প্রেসিডেন্ট আইজেক হেরজগ ও প্রধানমন্ত্রী নাফটালি বেনেটের সঙ্গে আলোচনার আগ্রহও প্রকাশ করেন এরদোয়ান। ইসরাইল সরকারের প্রতি তার পরামর্শ, তারা যেন মধ্যপ্রাচ্যে দীর্ঘমেয়াদি শান্তি ও স্থিতিশীলতার দৃষ্টিকোণ থেকে বিষয়গুলো নিশ্চিত করে।

তুরস্কের ইহুদি সম্প্রদায়ের সদস্যরা বেশিরভাগই সেফার্ডিক ইহুদিদের বংশধর, যারা ১৪৯২ সালে নির্যাতনের মুখে স্পেন থেকে পালিয়ে আসার পর অটোমান সাম্রাজ্যে আশ্রয় নিয়েছিলেন। সাম্প্রতিক সময়ে ইসরাইলে অভিবাসনের কারণে তাদের সংখ্যা অনেক কমে গেছে। বর্তমানে তুরস্কে প্রায় ১৫ হাজার ইহুদির বাস।

আরও পড়ুন:
ফিলিস্তিনিদের ওপর ইহুদি বসতি স্থাপনকারীদের হামলা
প্রথমবার আমিরাত সফরে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী
এরদোয়ানকে হত্যাচেষ্টা ভণ্ডুলের দাবি
বাংলাদেশে বিনিয়োগে আগ্রহী তুরস্কের উদ্যোক্তারা
মুক্তিযুদ্ধের জাদুঘর নির্মাণে পাশে থাকবে তুরস্ক

শেয়ার করুন

মন্তব্য

প্রাচীন প্রবাল প্রাচীরের সন্ধান পেল ইউনেসকো

প্রাচীন প্রবাল প্রাচীরের সন্ধান পেল ইউনেসকো

নতুন আবিষ্কৃত প্রবাল প্রাচীর থেকে নমুনা সংগ্রহ করছেন একজন গবেষক। ছবি: সংগৃহীত

সমুদ্রের উপকূলের কাছে যে গভীরতাটি ‘টোয়ালাইট জোন’ নামে পরিচিত, ফ্রেঞ্চ পলিনেশিয়ার তাহিতি দ্বীপের তেমন একটি এলাকায় ডাইভিং অনুসন্ধানের সময় নভেম্বর মাসে প্রবাল প্রাচীরটির অবস্থান জানা যায়।

প্রবাল প্রাচীর হলো সমুদ্রের তলে সবচেয়ে হুমকিতে থাকা বাস্তুসংস্থান। অথচ সমুদ্রের প্রাণী বৈচিত্র্যের ২৫ শতাংশের বাস এই প্রবাল প্রাচীরে। সমুদের দূষণ ও তাপমাত্রা বৃদ্ধির কারণে কার্বন ডাই-অক্সাইডের ইমিশন ডিসলভিং রসায়নই বদলে দিচ্ছে। তাই বিশ্বের পরিবেশবাদীরা ও জাতিসংঘের বিভিন্ন সংস্থা সমুদ্রের তলদেশের প্রবাল প্রাচীর রক্ষায় সোচ্চার।

এবার বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ফ্রেঞ্চ পলিনেশিয়ার তাহিতি উপকূলে ৩০ মিটার গভীরে এক দীর্ঘ ও প্রাচীন প্রবাল প্রাচীরের সন্ধান পেয়েছে জাতিসংঘের শিক্ষা, বিজ্ঞান ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (ইউনেসকোর) সাগরতলের অনুসন্ধানকারী দল।

সমুদ্রের উপকূলের কাছে যে গভীরতাটি ‘টোয়ালাইট জোন’ নামে পরিচিত, ফ্রেঞ্চ পলিনেশিয়ার তাহিতি দ্বীপের তেমন একটি এলাকায় ডাইভিং অনুসন্ধানের সময় নভেম্বর মাসে প্রবাল প্রাচীরটির অবস্থান জানা যায়। পুরো অভিযানটি ‘সিবেড ২০৩০ প্রজেক্ট’-এর অংশ।

ইউনেসকো ইতিমধ্যে জানিয়েছে, এখন পর্যন্ত সমুদ্রের এত গভীরে খুঁজে পাওয়া সবচেয়ে বড় প্রবাল প্রাচীর এটিই।

সংস্থাটির গবেষক ড. জুলিয়ান বারবাইরির মতে, হয়তো এমন বাসস্থান আরও অনেক আছে, যার সম্পর্কে আমরা এখনও জানি না। তবে বিশ্বব্যাপী প্রবাল প্রাচীরগুলোকে রক্ষার জন্য তাদের মানচিত্রের আওতায় আনতে হবে।

ইউনেসকোর ডিরেক্টর জেনারেল অউদ্রে আজউলেয় এই আবিষ্কারকে অবিশ্বাস্য বলছেন।

ফরাসী সমুদ্রতলের আলোকচিত্রী আলেক্সিস রোসেনফেল্ড বলেছেন, যতদূর চোখ যায় এই গোলাপের আকৃতির জাদুকরী এ প্রবাল প্রাচীর ততদূরই দেখা যায়। এটি অনেকটা শিল্পকলার মতো।

প্রফেসর মারি রবার্টস, এডেনবার্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের লিডিং মেরিন সায়েন্টিস্ট বলেছেন, ‌‘এই আবিষ্কারেই স্পষ্ট হয়, আমরা সমুদ্রের বিষয়ে কত কম জানি।

‘এত দিন ধরে আমরা ভেবেছিলাম এই প্রবাল প্রাচীরগুলো গ্রীষ্মমণ্ডলীয় এলাকার অগভীর সমুদ্র উপকূলে হয়ে থাকে। কারণ গভীর জলের চেয়ে অগভীর জল দ্রুত উষ্ণ হয়। এ ছাড়া প্রবালের গায়ে লেগে থাকা শৈবালের আলো প্রয়োজন। কিন্তু সমুদ্রের পানির তাপমাত্রা বৃদ্ধির ফলে গভীর সমুদ্রই ভবিষ্যৎ প্রবালের আশ্রয়স্থল। তাই এই স্থানগুলোর ম্যাপিং করতে, তাদের পরিবেশগত ভূমিকা বুঝতে এবং ভবিষ্যতে প্রবালগুলো রক্ষায় আমাদের কাজ করতে হবে।’

তবে অতিরিক্ত গভীরতায় থাকায় প্রবাল প্রাচীরটি বেশ অক্ষতই আছে বলে মনে করা হচ্ছে। আগামী মাসে সেখানে আরও অনুসন্ধান করা হবে।

আরও পড়ুন:
ফিলিস্তিনিদের ওপর ইহুদি বসতি স্থাপনকারীদের হামলা
প্রথমবার আমিরাত সফরে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী
এরদোয়ানকে হত্যাচেষ্টা ভণ্ডুলের দাবি
বাংলাদেশে বিনিয়োগে আগ্রহী তুরস্কের উদ্যোক্তারা
মুক্তিযুদ্ধের জাদুঘর নির্মাণে পাশে থাকবে তুরস্ক

শেয়ার করুন

সৌদি জোটের হামলায় ইয়েমেনে নিহত কমপক্ষে ৭০

সৌদি জোটের হামলায় ইয়েমেনে নিহত কমপক্ষে ৭০

ডক্টরস উইদাউট বর্ডারস (এমএসএফ) বার্তা সংস্থা এএফপিকে হতাহতের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। ছবি: সংগৃহীত

শুক্রবার হুতিদের প্রকাশিত ফুটেজে দেখা গেছে, উদ্ধারকর্মীরা উত্তর ইয়েমেনের সা’দাহতে একটি অস্থায়ী আটক কেন্দ্রে বিমান হামলার পর ধ্বংসস্তূপ থেকে মরদেহ বের করে আনছেন।

দীর্ঘদিন ধরেই ইয়েমেনের হুতি বিদ্রোহীদের সঙ্গে লড়াই চলে আসছে সৌদি নেতৃত্বাধীন সামরিক জোটের। সৌদি সামরিক জোটের হামলার জবাবে প্রায়ই সৌদির বিভিন্ন শহরে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়ে আসছে হুতিরা। সর্বশেষ সংযুক্ত আরব আমিরাতেও ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালালে দেশটিতে ৩ জন নিহত হয়।

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এবার সৌদি জোটের বিমান হামলায় ইয়েমেনের একটি কারাগারে কমপক্ষে ৭০ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও অনেকে।

ডক্টরস উইদাউট বর্ডারস (এমএসএফ) বার্তা সংস্থা এএফপিকে হতাহতের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। সংস্থাটির মুখপাত্র বলেন, স্থানীয় হাসপাতাল থেকেই তথ্যগুলো এসেছে।

সেইভ দ্য চিলড্রেনও জানিয়েছে, নিহতদের মধ্যে তিনজন শিশুও রয়েছে।

শুক্রবার হুতিদের প্রকাশিত ফুটেজে দেখা গেছে, উদ্ধারকর্মীরা উত্তর ইয়েমেনের সা’দাহতে একটি অস্থায়ী আটক কেন্দ্রে বিমান হামলার পর ধ্বংসস্তূপ থেকে মরদেহ বের করে আনছেন।

এদিকে সৌদি নেতৃত্বাধীন সামরিক জোটের হামলার নিন্দা জানিয়েছেন জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস।

বিবৃতিতে জাতিসংঘ জানিয়েছে, অ্যান্তোনিও গুতেরেস সব পক্ষকে মনে করিয়ে দিচ্ছেন যে বেসামরিক নাগরিক এবং বেসামরিক অবকাঠামোতে হামলা আন্তর্জাতিক মানবাধিকার আইনের লঙ্ঘন।

আরও পড়ুন:
ফিলিস্তিনিদের ওপর ইহুদি বসতি স্থাপনকারীদের হামলা
প্রথমবার আমিরাত সফরে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী
এরদোয়ানকে হত্যাচেষ্টা ভণ্ডুলের দাবি
বাংলাদেশে বিনিয়োগে আগ্রহী তুরস্কের উদ্যোক্তারা
মুক্তিযুদ্ধের জাদুঘর নির্মাণে পাশে থাকবে তুরস্ক

শেয়ার করুন

মেয়ের ‘আত্মহত্যা’, মেটা-স্ন্যাপচ্যাটের বিরুদ্ধে মায়ের মামলা

মেয়ের ‘আত্মহত্যা’, মেটা-স্ন্যাপচ্যাটের বিরুদ্ধে মায়ের মামলা

সেলিনার মা দীর্ঘদিন থেকেই তার মেয়েকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম থেকে দূরে রাখতে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে তার হাতে ডিভাইস দিতেন না বলে বিবৃতিতে দাবি করা হয়েছে।

সেলিনা রদ্রিগেজ। বয়স মাত্র ১১ বছর। এই বয়সে সেলিনা ইনস্টাগ্রাম ও স্ন্যাপচ্যাটে প্রচণ্ড রকম আসক্ত হয়ে পড়ে। প্ল্যাটফর্ম দুটির কিছু ‘ভয়ংকর’ ফিচারে আসক্ত হয়ে গত বছরের জুলাইয়ে ‘আত্মহত্যা’ করে সেলিনা।

সেলিনাকে আত্মহত্যার দিকে ঠেলে দেয়ার অভিযোগে ইনস্টাগ্রামের মূল কোম্পানি মেটা এবং স্ন্যাপচ্যাটের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন তার মা।

যুক্তরাষ্ট্রের কানেক্টিকাট রাজ্যে ঘটেছে মামলার এ ঘটনা।

শিশুদের ওপর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের ক্রমবর্ধমান ভয়ের মধ্যেই মামলার খবরটি সামনে এসেছে।

স্যোশাল মিডিয়া ভিক্টিম ল সেন্টারের এক বিবৃতিতে বলা হয়, সেলিনার মা ট্যামি তার শিশুসন্তানের আত্মহত্যার জন্য প্ল্যাটফর্ম দুটিতে ‘চরম’ আসক্তির কথা বলেছেন।

বিবিসির সংবাদে বলা হয়, সেলিনার মা দীর্ঘদিন থেকেই তার মেয়েকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম থেকে দূরে রাখতে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে তার হাতে ডিভাইস দিতেন না বলে বিবৃতিতে দাবি করা হয়েছে।

এ ছাড়া বিভিন্ন সময় সেলিনা তার মানসিক স্বাস্থ্যের জন্য চিকিৎসা পেয়েছেন।

সেলিনার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম আসক্তি থেকে ফিরিয়ে আনতে তাকে থেরাপি দিচ্ছিলেন যে চিকিৎসক, তিনি এর আগে কাউকে তিনি মাধ্যমে এত আসক্ত দেখেননি বলে দাবি করেন।

২০২১ সালের ২১ জুলাই সেলিনা আত্মহত্যা করার আগে ঘুমের অভাব ও বিষণ্ণতায় ভুগছিল।

তার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহার আসক্তি মূলত বিশ্বে করোনাভাইরাস মহামারি শুরুর পর থেকে।

মামলার অভিযোগের মধ্যে ছিল, সেলিনাকে যৌন শোষণমূলক সামগ্রীর অনুরোধ করা হয়েছিল, যা শেষ পর্যন্ত সে শেয়ার করেছিল।

স্ন্যাপচ্যাটের মুখপাত্র সেলিনার মৃত্যুর বিষয়টিকে ‘বিধ্বস্ত’ হিসেবে বর্ণনা করলেও মামলা নিয়ে কোনো মন্তব্য করতে চাননি।

তিনি বলেন, ‘আমাদের কাছে কমিউনিটির মানুষের সুস্থতার চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কিছু নেই।’

অন্যদিকে ইনস্টাগ্রামের মূল প্রতিষ্ঠান মেটা বিষয়টি নিয়ে বিবিসির প্রশ্নে কোনো মন্তব্য করবে না বলে জানিয়েছে।

আরও পড়ুন:
ফিলিস্তিনিদের ওপর ইহুদি বসতি স্থাপনকারীদের হামলা
প্রথমবার আমিরাত সফরে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী
এরদোয়ানকে হত্যাচেষ্টা ভণ্ডুলের দাবি
বাংলাদেশে বিনিয়োগে আগ্রহী তুরস্কের উদ্যোক্তারা
মুক্তিযুদ্ধের জাদুঘর নির্মাণে পাশে থাকবে তুরস্ক

শেয়ার করুন

৩৫টি ‘পাকিস্তানভিত্তিক’ ইউটিউব চ্যানেল ব্লক করল ভারত

৩৫টি ‘পাকিস্তানভিত্তিক’ ইউটিউব চ্যানেল ব্লক করল ভারত

ভারতের তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের সচিব অপূর্ব চন্দ্র বলেন, ‘এই অ্যাকাউন্টগুলো পাকিস্তান থেকে চালানো হতো। তারা ভারতের বিরুদ্ধে ভুয়া খবর প্রচার করছিল।’

ভুয়া খবর প্রচারের অভিযোগ তুলে ৩৫টি ‘পাকিস্তানভিত্তিক’ ইউটিউব চ্যানেল ও একাধিক সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্ট ব্লক করেছে ভারত।

দেশটির তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের সচিব অপূর্ব চন্দ্র শুক্রবার সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, ‘আমরা ৩৫টি ইউটিউব চ্যানেল, দুটি টুইটার অ্যাকাউন্ট, দুটি ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট, দুটি ওয়েবসাইট ও একটি ফেসবুক অ্যাকাউন্ট ব্লক করেছি।’

তিনি অভিযোগ করেন, ‘এই অ্যাকাউন্টগুলো পাকিস্তান থেকে চালানো হতো। তারা ভারতের বিরুদ্ধে ভুয়া খবর প্রচার করছিল।’

অপূর্ব চন্দ্র আরও বলেন, ‘আমরা সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মগুলোর কাছে চিঠি লিখেছিলাম। তারা ২৪ ঘণ্টা সময় চেয়েছিল। এখন পর্যন্ত প্রায় সব অ্যাকাউন্ট ব্লক করা হয়েছে।’

তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব বিক্রম সহায় বলেন, ‘তথ্যপ্রযুক্তি আইন অনুসারে এসব ইউটিউব চ্যানেল ও সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্টের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।’

ইউটিউব চ্যানেলগুলোর মোট সাবস্ক্রাইবার ১ কোটি ২০ লাখেরও বেশি। এসব চ্যানেলে প্রকাশিত ভিডিও ১৩০ কোটি বারেরও বেশি দেখা হয়েছে বলে জানানো হয়েছে।

এর আগে ডিসেম্বরে ভারতবিরোধী তথ্য সম্প্রচারের অভিযোগ তুলে ২০টি ইউটিউব চ্যানেল ব্লক করা হয়।

আরও পড়ুন:
ফিলিস্তিনিদের ওপর ইহুদি বসতি স্থাপনকারীদের হামলা
প্রথমবার আমিরাত সফরে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী
এরদোয়ানকে হত্যাচেষ্টা ভণ্ডুলের দাবি
বাংলাদেশে বিনিয়োগে আগ্রহী তুরস্কের উদ্যোক্তারা
মুক্তিযুদ্ধের জাদুঘর নির্মাণে পাশে থাকবে তুরস্ক

শেয়ার করুন

দিল্লিতে গায়ে আগুন দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা

দিল্লিতে গায়ে আগুন দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা

ঘটনার পর পুরো এলাকা ঘিরে ফেলে পুলিশ। ছবি: ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস

ওই ব্যক্তির নাম রাজভর গুপ্তা। তার বয়স ৫০। তিনি উত্তর প্রদেশের নয়দা শহরের বাসিন্দা। আত্মহত্যার চেষ্টার কারণ জানা যায়নি।

দিল্লিতে সুপ্রিম কোর্টের সামনে গায়ে আগুন ধরিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন এক ব্যক্তি। স্থানীয় সময় শুক্রবার বেলা ২টার দিকে আদালতের নতুন ভবনের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

টাইমস অফ ইন্ডিয়ার খবরে বলা হয়েছে, ওই ব্যক্তির নাম রাজভর গুপ্তা। তার বয়স ৫০। তিনি উত্তর প্রদেশের নয়দা শহরের বাসিন্দা। আত্মহত্যার চেষ্টার কারণ জানা যায়নি।

এ সময় সেখানে উপস্থিত পুলিশ সদস্যরা তাকে উদ্ধার করেন। লোক নায়েক জয় প্রকাশ নারায়ণ হাসপাতালে তিনি ভর্তি আছেন।

চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, তার অবস্থা স্থিতিশীল। কেবল চুল এবং কাপড় পুড়েছে। তাকে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে।

ঘটনাস্থল থেকে আলামত জব্দ করে বিষয়টি খতিয়ে দেখছে দিল্লি পুলিশ।

আরও পড়ুন:
ফিলিস্তিনিদের ওপর ইহুদি বসতি স্থাপনকারীদের হামলা
প্রথমবার আমিরাত সফরে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী
এরদোয়ানকে হত্যাচেষ্টা ভণ্ডুলের দাবি
বাংলাদেশে বিনিয়োগে আগ্রহী তুরস্কের উদ্যোক্তারা
মুক্তিযুদ্ধের জাদুঘর নির্মাণে পাশে থাকবে তুরস্ক

শেয়ার করুন

বছরে ৪ লাখ কর্মী নেবে জার্মানি

বছরে ৪ লাখ কর্মী নেবে জার্মানি

কর্মী নেয়ার ঘোষণা দিয়েছে জার্মানি।

জার্মানিতে চলতি বছর তিন লাখের বেশি কর্মী সংকট হবে। এই মুহূর্তে যে সংখ্যক তরুণ কর্মী শ্রমবাজারে প্রবেশ করছেন তার তুলনায় অবসরে যাচ্ছেন অনেক বয়স্ক কর্মী।

জনসংখ্যার ভারসাম্য রক্ষা ও শ্রমিক সংকট কাটাতে প্রতি বছর বাইরের দেশ থেকে চার লাখ কর্মী নেবে জার্মানির নতুন জোট সরকার।

দেশটির ক্ষমতাসীন জোটের শরীক দল ফ্রি ডেমোক্র্যাটসের (এফডিপি) পার্লামেন্টারি নেতা ক্রিস্টিয়ান ডুয়ের এ ঘোষণা দিয়েছেন বলে শুক্রবার এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স

করোনাভাইরাস পরিস্থিতি বিশ্বজুড়ে অর্থনৈতিক ব্যবস্থাপনায় প্রভাব ফেলেছে। সংকটের মুখোমুখি হয়েছে জার্মানিও। এমন প্রেক্ষাপটে শিল্পকারখানাসহ নানা ক্ষেত্রে উন্নয়নে বিদেশ থেকে কর্মী নেয়ার পদক্ষেপ নিচ্ছে কর্তৃপক্ষ।

ক্রিস্টিয়ান ডুয়ের বলেন, ‘দক্ষ কর্মীর সংকট এতটাই মারাত্মক যে, আমাদের অর্থনৈতিক অবস্থার নাটকীয়ভাবে অবনতি হচ্ছে।’

‘যতদ্রুত সম্ভব আমরা বিদেশ থেকে চার লাখ কর্মী আনার ব্যবস্থা নেব।’

কর্মীবান্ধব জার্মান ইকোনোমিক ইনস্টিটিউটের ধারণা, দেশে চলতি বছর তিন লাখের বেশি কর্মী সংকট হবে। এই মুহূর্তে যে সংখ্যক তরুণ কর্মী শ্রমবাজারে প্রবেশ করছেন তার তুলনায় অবসরে যাচ্ছেন অনেক বয়স্ক কর্মী।

কর্মী সংকটের এই ব্যবধান সাড়ে ছয় লাখ ছাড়িয়ে যাবে ২০২৯ সালে। ২০৩০ সালে ঘাটতি হবে প্রায় ৫০ লাখ মানুষের।

জার্মানিতে করোনা মহামারির মধ্যেও গত বছর কাজের সুযোগ তৈরি হয়েছে চার কোটি ৫০ লাখ মানুষের। কয়েক দশক ধরে কম জন্মহার এবং অসম অভিবাসন প্রক্রিয়া একানে কর্মী সংকটে নতুন মাত্রা যোগ করেছে।

আরও পড়ুন:
ফিলিস্তিনিদের ওপর ইহুদি বসতি স্থাপনকারীদের হামলা
প্রথমবার আমিরাত সফরে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী
এরদোয়ানকে হত্যাচেষ্টা ভণ্ডুলের দাবি
বাংলাদেশে বিনিয়োগে আগ্রহী তুরস্কের উদ্যোক্তারা
মুক্তিযুদ্ধের জাদুঘর নির্মাণে পাশে থাকবে তুরস্ক

শেয়ার করুন

মাস্ক না পরায় ৫০০ মাইল পাড়ির পর ফেরত গেল ফ্লাইট

মাস্ক না পরায় ৫০০ মাইল পাড়ির পর ফেরত গেল ফ্লাইট

আমেরিকান এয়ারলাইন্সের বোয়িং ৭৮৭-৯ ড্রিমলাইনার মিয়ামি বিমানবন্দরে অবতরণ করছে। ছবি: সংগৃহীত

যুক্তরাষ্ট্রের মিয়ামি থেকে ১২৯ যাত্রী নিয়ে আমেরিকান এয়ারলাইনসের এএএলথ্রিএইট ফ্লাইটটি যাচ্ছিল লন্ডনে। প্রায় ৫০০ মাইল পাড়ি দেয়ার পর নর্থ ক্যারোলাইনা উপকূল থেকে ফিরে যেতে হয়েছে ফ্লাইটটিকে। কারণ, এয়ারলাইনসের নিয়ম অনুযায়ী মাস্ক পরতে রাজি ছিলেন না এক যাত্রী।   

করোনা মহামারির মধ্যে ভালোই বিপাকে আছেন উড়োজাহাজকর্মীরা। প্রায়ই শোনা যায়, স্বাস্থ্যবিধি মানাতে যাত্রীদের খারাপ আচরণের মুখে পড়ছেন তারা। এমনকি যাত্রীদের হাতে ফ্লাইট অ্যাটেনডেন্টদের ঘুষি খাওয়ার ঘটনা পর্যন্ত ঘটেছে।

তবে আমেরিকান এয়ারলাইনসে বুধবার যা ঘটল, তা আগের সবকিছুকে ছাপিয়ে গেছে।

দ্য গার্ডিয়ানের খবরে বলা হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের মিয়ামি থেকে ১২৯ যাত্রী নিয়ে আমেরিকান এয়ারলাইনসের এএএলথ্রিএইট ফ্লাইটটি যাচ্ছিল লন্ডনে। প্রায় ৫০০ মাইল পাড়ি দেয়ার পর নর্থ ক্যারোলাইনা উপকূল থেকে ফিরে যেতে হয়েছে ফ্লাইটটিকে। কারণ, এয়ারলাইনসের নিয়ম অনুযায়ী মাস্ক পরতে রাজি ছিলেন না এক যাত্রী।

আমেরিকান এয়ারলাইনস কর্তৃপক্ষ বলছে, ৪০ বছরের ওই যাত্রীকে কোনোভাবেই মাস্ক পরাতে রাজি করানো যায়নি। এই কারণে বাধ্য হয়ে আবারও ৫০০ মাইল পাড়ি দিয়ে ফিরে যেতে হয়েছে তাদের।

এক গোয়েন্দা পুলিশের বরাতে সিএনএন বলছে, ফ্লাইটটি ফিরে আসার পর উড়োজাহাজের কর্মীরা ওই নারীকে নামিয়ে দেন। পরে এয়ারলাইনস কর্মকর্তারা বিষয়টি সামলান।

মাস্ক না পরায় ৫০০ মাইল পাড়ির পর ফেরত গেল ফ্লাইট

করোনায় এ ধরনের ঘটনা নিয়মিত হয়ে দাঁড়িয়েছে। ন্যাশনাল ফ্লাইট অ্যাটেনডেন্টস ইউনিয়নের সভাপতি সারা নেলসন গার্ডিয়ানকে বলেন, ‘অক্টোবরে এক যাত্রীকে চলন্ত ফ্লাইটে ফোনে কথা বলা বন্ধ করে মাস্ক পরার অনুরোধ করায় তিনি অ্যাটেনডেন্টকে ঘাড় মটকে দেয়ার হুমকি পর্যন্ত দিয়েছিলেন।’

ফেডারেল এভিয়েশন অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (এফএএ) রেকর্ড বলছে, ২০২১ সালে উড়োজাহাজে নিয়ম না মানার ঘটনা ঘটেছে পাঁচ হাজার ৯৮১ বার, দিনে গড়ে ১৬টি। এসবের মধ্যে চার হাজার ২৯০টি মাস্ক সংক্রান্ত ঘটনা। আর চলতি বছরের এ পর্যন্ত নিয়ম ভাঙার ঘটনা ১৫১টি; ৯০টি মাস্ক সংক্রান্ত।

কদিন আগে, ছুটি কাটাতে প্রেমিক ও বোনকে নিয়ে মেক্সিকো যাত্রা করেছিলেন সাবেক মিস ইউনিভার্স ও মডেল অলিভিয়া কালপো। কালো সাইকেল শর্টস, ব্র্যালেট এবং লম্বা ঢিলেঢালা কালো সোয়েটারে দারুণ দেখাচ্ছিল ২৯ বছরের এই মডেলকে।

তবে আমেরিকান এয়ারলাইনসের নিয়ম অনুযায়ী, এই পোশাকে ফ্লাইটে চড়া সম্পূর্ণ নিষেধ। বাধ্য হয়ে, প্রেমিকের হুডি পরে উড়োজাহাজে চড়তে হয়েছিল অলিভিয়াকে।

আরও পড়ুন:
ফিলিস্তিনিদের ওপর ইহুদি বসতি স্থাপনকারীদের হামলা
প্রথমবার আমিরাত সফরে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী
এরদোয়ানকে হত্যাচেষ্টা ভণ্ডুলের দাবি
বাংলাদেশে বিনিয়োগে আগ্রহী তুরস্কের উদ্যোক্তারা
মুক্তিযুদ্ধের জাদুঘর নির্মাণে পাশে থাকবে তুরস্ক

শেয়ার করুন