২ ইরানি জেলেকে বাঁচাল আমেরিকার নৌবাহিনী

player
২ ইরানি জেলেকে বাঁচাল আমেরিকার নৌবাহিনী

সমুদ্রের বুকে এভাবেই ভাসছিলেন দুই জেলে। ছবি: দ্য ন্যাশনাল নিউজ

আরব সাগর এতটা বিপদসংকূল না হলেও বর্তমানে এই অঞ্চলটিতে ঘূর্ণিঝড়ের হার বেড়েছে। ফলে ছোট আকারের নৌযানগুলোকে প্রায়ই বিপদের মুখোমুখি হতে হচ্ছে।

টানা ৮ দিন ধরে সমুদ্রের বুকে ভাসছিলেন দুই ইরানি জেলে। পরে উপসাগরীয় জলসীমা থেকে তাদের উদ্ধার করেছে আমেরিকার নৌবাহিনী।

রোববার দ্য ন্যাশনাল নিউজ জানিয়েছে, ৮ দিন ধরে সমুদ্রের বুকে ভেসে বেড়ালেও উদ্ধারের সময় ইরানি জেলেরা বেশ সুস্থ ও সবল ছিলেন। সমুদ্রে ভাসতে দেখে তাদের দিকে খাবার, পানি আর প্রয়োজনীয় ওষুধ নিয়ে এগিয়ে যায় নৌবাহিনীর কার্গো জাহাজ ‘চার্লস ড্রিউ’। উদ্ধারের পর তাদের মাসকাটের কাছাকাছি জলসীমায় ওমানের কোস্ট গার্ডের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

আমেরিকার নৌবাহিনী দাবি করেছে, সমুদ্র থেকে এভাবে বেসামরিক ইরানিদের উদ্ধার করা একটি বার্ষিক ঘটনায় পরিণত হয়েছে। ২০১৮ সাল থেকে এ নিয়ে তিনবার ইরানিদের উদ্ধার করা হয়েছে।

অন্যান্য সাগরের মতো আরব সাগর এতটা বিপদসংকূল না হলেও বর্তমানে এই অঞ্চলটিতে ঘূর্ণিঝড়ের হার বেড়েছে। ফলে ছোট আকারের নৌযানগুলোকে প্রায়ই বিপদের মুখোমুখি হতে হচ্ছে। ছোটোখাটো বিপদে এডেন উপসাগরে এর আগে ইরানি নৌবাহিনীরও সহায়তা পেয়েছে আমেরিকার বাহিনী।

সমুদ্রে উদ্ধার অভিযান পরিচালনা করার জন্য আমেরিকান জাহাজগুলো বেশ স্বয়ংসম্পূর্ণ। এসব জাহাজে শক্তিশালী ইনফ্রারেড ক্যামেরা ছাড়াও দুর্যোগ নজরদারির জন্য সার্বক্ষণিক লোক নিযুক্ত থাকেন।

আরও পড়ুন:
সমুদ্রে বোট বিকল: ৮ দিন ভেসে থাকা ১৪ জেলে উদ্ধার
সেই ২২ জেলেকে ছাড়ল মিয়ানমার
ডিজেলের বাড়তি দামে বিপাকে উপকূলের জেলেরা

শেয়ার করুন

মন্তব্য

কর্ণাটকের কলেজে হিজাবে বিধিনিষেধ

কর্ণাটকের কলেজে হিজাবে বিধিনিষেধ

কর্ণাটকের একটি কলেজে পাঠদানের সময় হিজাব বা নেকাব নিষিদ্ধ করা হয়েছে। ছবি: এনডিটিভি

ভারতের কর্ণাটকের উদুপির জেলার একটি সরকারি কলেজে গত ৩১ ডিসেম্বর পোশাক নিয়ে বিধিনিষেধ আরোপ হয়। এতে মুসলিম ছাত্রীরা ক্লাস চলাকালে হিজাব বা নেকাব পরে থাকতে পারবেন না। তবে ক্লাস শেষে বা শুরুর আগে পর্দা করতে আপত্তি নেই।

ভারতের দক্ষিণ-পশ্চিমের কর্ণাটকের একটি কলেজে ছাত্রীদের হিজাব নিষিদ্ধের প্রতিবাদে বিক্ষোভ বড় হচ্ছে। নতুন করে কলেজের আরও সাত ছাত্রী প্রতিবাদে যোগ দিয়েছেন। গত ৩১ ডিসেম্বর নিষিদ্ধ ঘোষণার পর পরই বিক্ষোভ শুরু করেন ছয় ছাত্রী। হিজাববিষয়ক নীতিমালা তুলে নিয়ে ছাত্রীরা মুসলিম শিক্ষার্থীদের সক্রিয় সংগঠন ক্যাম্পাস ফ্রন্ট অফ ইন্ডিয়ার হস্তক্ষেপ চেয়েছেন।

তবে কলেজের নীতিমালা মেনে চলতে আন্দোলনরতদের পরামর্শ দিয়েছেন রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী বি সি নাগেশ। এই ঘটনাকে নিয়ে বিরোধীরা রাজনীতি করছে বলে অভিযোগ তুলেছেন তিনি।

উদুপির জেলার একটি সরকারি কলেজে গত ৩১ ডিসেম্বর পোশাক নিয়ে বিধিনিষেধ আরোপ হয়। এতে মুসলিম ছাত্রীরা ক্লাস চলাকালে হিজাব বা নেকাব পরে থাকতে পারবেন না। তবে ক্লাস শেষে বা শুরুর আগে পর্দা করতে আপত্তি নেই।

এনডিটিভির খবরে বলা হয়েছে, গত ৩১ ডিসেম্বর কলেজের অধ্যক্ষ শিক্ষার্থীদের কলেজ নির্ধারিত ড্রেস কোড মেনে চলতে কড়াকড়ি আরোপ করেন। ১৯৮৫ সাল থেকে এই কলেজছাত্রীদের ড্রেস কোড- চুড়িদার কিংবা দুপাট্টা। কিন্তু অনেক মুসলিম ছাত্রী এসবের ওপর হিজাব বা নেকাব পরে আসতেন।

কলেজ থেকে ঘোষণার পর পরই ছয় ছাত্রী এর বিরোধিতা করেন। শুরু করেন বিক্ষোভ। বুধবার তাদের সঙ্গে সংহতি জানান আরও সাত ছাত্রী।

এদিন সকালে উদিপুরের অ্যাসিস্ট্যান্ট কমিশনারের নেতৃত্বে জেলা কর্তৃপক্ষ বিক্ষোভরত ছাত্রী ও তাদের অভিভাবকদের সঙ্গে বৈঠক করেন। পরামর্শ দেন, ড্রেস কোড মেনে চলার।

কর্ণাটকের শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘৯৪ ছাত্রীর বিষয়টি মানতে সমস্যা নেই। তাই দয়া করে সবাই কলেজ কোড মেনে চলেন। বিরোধীরা এই ইস্যুকে রাজনীতিকরণের চেষ্টা করছে।

‘আসলে আগামী বছরের বিধানসভা নির্বাচন ঘিরে বিরোধীরা এসব করাচ্ছে। তারা কোনো ইস্যু পাচ্ছিল না। ভোটার টানতে তাই এই ঘটনাকে বড় করে তুলতে চাইছে তারা। কলেজের পোশাক নিয়ে সরকারের নির্ধারিত কোনো কোড নেই, তা সত্য। তবে ১৯৮৫ সালে সাউথ দিল্লি মিউনিসিপাল করপোরেশন (এসডিএমসি) কলেজ কোড বাধ্যতামূলক করে। সেই ধারায় অব্যাহত রাখতে চাইছে কলেজ কর্তৃপক্ষ।’

মন্ত্রী আরও বলেন, ‘৩৬ বছর ধরে এই নিয়ম চলে আসছে। বেশির ভাগ মুসলিম ছাত্রীর এতে আপত্তি নেই। কেবল কয়েকজনের সমস্যা। তাদের অনুরোধ করব, ড্রেস কোড মেনে চলেন।’

এর আগে রোববার উগ্র ইসলামপন্থি সংগঠন পপুলার ফ্রন্ট অফ ইন্ডিয়ার কর্ণাটক ইউনিটের সাধারণ সম্পাদক নাসির পাসা জানান, হিজাব ইস্যুতে কলেজ কর্তৃপক্ষ মুসলিম ছাত্রীদের ব্যক্তিস্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করছে।

চলতি মাসের শুরুতে পোশাক নিয়ে বিতর্ক শুরুর পর কোপ্পা জেলার একটি কলেজের ছাত্ররা জাফরান রঙের স্কার্ফ পরে ক্লাসে এসে হিজাব পরার প্রতিবাদ করেন।

আরও পড়ুন:
সমুদ্রে বোট বিকল: ৮ দিন ভেসে থাকা ১৪ জেলে উদ্ধার
সেই ২২ জেলেকে ছাড়ল মিয়ানমার
ডিজেলের বাড়তি দামে বিপাকে উপকূলের জেলেরা

শেয়ার করুন

প্রেমিকার মাকে কিডনি দিয়েও টিকল না সম্পর্ক

প্রেমিকার মাকে কিডনি দিয়েও টিকল না সম্পর্ক

উজেইল মার্টিনেজ। ছবি: সংগৃহীত

টিকটকে কয়েকটি ভিডিও আপলোড করে নিজের অভিজ্ঞতা শেয়ার করেন মার্টিনেজ। বলেন, ‘সম্পর্কে আমার মতো ভুল যেন কেউ না করেন। মানুষের দুইটা কিডনি থাকে, আমার এখন একটা। বিষয়টা সবসময় অনুভব করি।’

প্রচন্ড ভালোবাসতেন প্রেমিকাকে। তার কষ্ট মেনে নিতে পারতেন না মেক্সিকোর বাজা ক্যালিফোর্নিয়ার বাসিন্দা উজেইল মার্টিনেজ। আবেগি মার্টিনেজ একদিন জানতে পারেন প্রেমিকার মা ভুগছেন কিডনি জটিলতায়।

সিদ্ধান্ত নিতে দেরি করেননি পেশায় শিক্ষক মার্টিনেজ। নিজের একটি দান করেন প্রেমিকার মাকে। জীবন ফিরে পান ওই নারী।

কিন্তু এতসব করেও প্রেমিকার মন ধরে রাখতে পারেননি তিনি। কিডনি দানের এক মাসের মধ্যে ব্রেকআপ হয়ে যায় তাদের।

মার্টিনেজের দাবি সিদ্ধান্তটা তিনি নন, নিয়েছিলেন তার প্রেমিকা। এর কিছুদিনের মধ্যে আরেক ব্যক্তির সঙ্গে বিয়ের পিঁড়িতে বসেন মার্টিনেজের সাবেক প্রেমিকা।

দ্য ফ্রি প্রেস জার্নালের খবরে বলা হয়েছে, টিকটকে কয়েকটি ভিডিও আপলোড করে নিজের অভিজ্ঞতা শেয়ার করেন মার্টিনেজ।

তিনি বলেন, 'সম্পর্কে আমার মতো ভুল যেন কেউ না করেন। মানুষের দুইটা কিডনি থাকে, আমার এখন একটা। বিষয়টা সবসময় অনুভব করি।’

মার্টিনেজের ভিডিওগুলো ভাইরাল হয়েছে। এরইমধ্যে দেখা হয়েছে ১ কোটি ৬০ লাখের বেশি। সেখানে সহমর্মিতা জানিয়েছেন অনেকেই। পরামর্শ দিয়েছেন, উপযুক্ত কাউকে বেছে নিয়ে জীবনকে এগিয়ে নিতে।

মেক্সিকোর স্থানীয় সংবাদমাধ্যমগুলোতেও ফলাও করে ছাপা হয়েছে মার্টিনেজের গল্প।

আরও পড়ুন:
সমুদ্রে বোট বিকল: ৮ দিন ভেসে থাকা ১৪ জেলে উদ্ধার
সেই ২২ জেলেকে ছাড়ল মিয়ানমার
ডিজেলের বাড়তি দামে বিপাকে উপকূলের জেলেরা

শেয়ার করুন

‘সমালোচকদের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহ আইন প্রয়োগ অন্যায়’

‘সমালোচকদের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহ আইন প্রয়োগ অন্যায়’

ভারতের সুপ্রিম কোর্টের সাবেক বিচারপতি রোহিন্টন নরিম্যান। ছবি: সংগৃহীত

ভারতের সুপ্রিম কোর্টের সাবেক বিচারপতি রোহিন্টন নরিম্যান বলেন, ‘যারা অন্যায়ের বিরুদ্ধে মত প্রকাশ করছে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর রাষ্ট্রদ্রোহ আইনে মামলা করা হচ্ছে। কিন্তু যারা অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে ঘৃণা ছড়ায় তাদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে না।’

সরকারের সমালোচকদের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহ আইন প্রয়োগের বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন ভারতের সুপ্রিম কোর্টের সাবেক বিচারপতি রোহিন্টন নরিম্যান। তিনি বলেছেন, রাষ্ট্রদ্রোহ আইন সম্পূর্ণ বাতিল করে মতপ্রকাশের স্বাধীনতা দেয়ার সময় এসেছে।

মুম্বাইয়ে ডিএম হরিশ স্কুল অফ ল’র উদ্বোধন উপলক্ষে এক অনুষ্ঠানে বক্তব্যে বিচারপতি নরিম্যান এসব কথা বলেন।

বিচারপতি নরিম্যান বলেন, ‘এটা খুবই দুর্ভাগ্যজনক যে যুবক, স্ট্যান্ড-আপ কৌতুক অভিনেতা এবং ছাত্রদের আজকের সরকারের সমালোচনা করার জন্য রাষ্ট্রদ্রোহ আইনের (ভারতীয় দণ্ডবিধির ১২৪এ ধারা) অধীনে মামলা করা হচ্ছে।

‘যারা অন্যায়ের বিরুদ্ধে মত প্রকাশ করছে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর রাষ্ট্রদ্রোহ আইনে মামলা করা হচ্ছে। কিন্তু যারা অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে ঘৃণা ছড়ায় তাদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে না।’

তিনি বলেন, ‘কিছু মানুষ ঘৃণাত্মক বক্তব্য দিচ্ছেন। তারা আসলে একটি পুরো গোষ্ঠীকে গণহত্যার মাধ্যমে নিশ্চিহ্ন করার আহ্বান জানাচ্ছে। অথচ আমরা এই ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের বা ব্যবস্থা গ্রহণে কর্তৃপক্ষের খুব অনিচ্ছা দেখতে পাচ্ছি। দুর্ভাগ্যবশত ক্ষমতাসীন দলের উচ্চ পর্যায়ের নেতারা শুধু নীরব নয়, এসব বক্তব্য প্রায় সমর্থনও করছেন।’

আরও পড়ুন:
সমুদ্রে বোট বিকল: ৮ দিন ভেসে থাকা ১৪ জেলে উদ্ধার
সেই ২২ জেলেকে ছাড়ল মিয়ানমার
ডিজেলের বাড়তি দামে বিপাকে উপকূলের জেলেরা

শেয়ার করুন

কখনও নির্মূল হবে না করোনা: ফাউসি

কখনও নির্মূল হবে না করোনা: ফাউসি

ফাউসি জানিয়েছেন, করোনাভাইরাসকে গুটিবসন্তের মতো মুছে ফেলা যাবে না। ছবি: সংগৃহীত

এন্ডেমিক পর্যায়ে একটি ভাইরাস চলে যাওয়া মানে এটি এলাকাভিত্তিক সাধারণ রোগে পরিণত হওয়া। ফলে করোনায় মানুষ আক্রান্ত হবে, কিন্তু এর খুব একটা শারীরিক প্রভাব পড়বে না।

করোনাভাইরাসের ডেল্টা ও ওমিক্রন ধরন দাপিয়ে বেড়াচ্ছে বিশ্বব্যাপী। অনেক দেশ সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে নতুন করে বিধিনিষেধ জারি করেছে। করোনা প্রতিরোধী টিকা দেয়ার ক্ষেত্রেও বেড়েছে গতি। এর মাঝেই হোয়াইট হাউসের চিকিৎসা উপদেষ্টা এন্থনি ফাউসি জানিয়েছেন, করোনাভাইরাসকে গুটিবসন্তের মতো মুছে ফেলা যাবে না।

বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরামের একটি ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে ফাউসি জানান, প্রকৃত অর্থে কীভাবে মহামারির অবসান হবে তা তিনি নিশ্চিত নন।

তিনি বলেন, ‘যদি সংক্রামক রোগের ইতিহাসের দিকে তাকাই, আমরা শুধু গুটিবসন্তকেই প্রকৃতি থেকে দূর করতে পেরেছি। করোনাভাইরাসের ক্ষেত্রে এমনটি হবে না।

কিন্তু আশা করা যায় এই ভাইরাসটির সক্ষমতা কমতে কমতে এমন পর্যায়ে আসবে যখন স্বাভাবিক সামাজিক, অর্থনৈতিক ও অন্যান্য কর্মকাণ্ডের ক্ষেত্রে এটি আর বাধা প্রদান করতে পারবে না।’

এটি তখন এন্ডেমিক পর্যায়ের একটি ভাইরাসে পরিণত হতে পারে।

যদি সংক্রামক রোগের ইতিহাসের দিকে তাকাই, আমরা শুধু গুটিবসন্তকেই প্রকৃতি থেকে দূর করতে পেরেছি। করোনাভাইরাসের ক্ষেত্রে এমনটি হবে না।

এন্ডেমিক পর্যায়ে একটি ভাইরাস চলে যাওয়া মানে এটি এলাকাভিত্তিক সাধারণ রোগে পরিণত হওয়া। ফলে করোনায় মানুষ আক্রান্ত হবে কিন্তু এর খুব একটা শারীরিক প্রভাব পড়বে না। মহামারির মতো ভয়ংকর পরিস্থিতিও নিয়ে আসবে না।

ফাউসি বলেন, ওমিক্রন ধরন কি করোনাভাইরাসকে সাধারণ একটি ভাইরাসে পরিণত করতে পারবে, তা বলার সময় এখনও আসেনি।

তবে তিনি বলেন, ‘আমি আশা করি এমনটাই হবে।’

তবে এটি শুধু তখনই ঘটবে, যখন অন্য কোনো ধরন এসে পূর্বের প্রতিরোধ ক্ষমতাকে এড়িয়ে যেতে না পারে।

এদিকে জনহপকিন্স ইউনিভারসিটি থেকে প্রাপ্ত তথ্যে জানা যায়, শুধু যুক্তরাষ্ট্রতেই সর্বশেষ ১ সপ্তাহে ৫৪ লাখ মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। বিশ্বব্যাপী মহামারি শুরু হওয়ার পর থেকে এখন পর্যন্ত ৫৫ লাখ মানুষ মারা গেছে। এর মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রেই ৮ লাখ ৫২ হাজার মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে।

আরও পড়ুন:
সমুদ্রে বোট বিকল: ৮ দিন ভেসে থাকা ১৪ জেলে উদ্ধার
সেই ২২ জেলেকে ছাড়ল মিয়ানমার
ডিজেলের বাড়তি দামে বিপাকে উপকূলের জেলেরা

শেয়ার করুন

পর্ন ভিডিওতে গড়বড় ভার্চুয়াল মিটিং

পর্ন ভিডিওতে গড়বড় ভার্চুয়াল মিটিং

জুম বৈঠকের মধ্যে এই ভিডিও চালু করেন এক আগুন্তক। ছবি: টেকস্পট

জুমে হঠাৎই ঢুকে পড়েন এক আগন্তুক। লাইভে তিনি দেখাতে থাকেন অ্যানিমেটেড অ্যাডাল্ট কনটেন্ট ফ্যান্টাসি সেভেনের ‘টিফা লকহার্টের’ ত্রিমাত্রিক ভিডিও। যেখানে দেখা যায় কনটেন্টের প্রধান চরিত্র তিফা এক ব্যক্তির সঙ্গে মিলনে ব্যস্ত।

ইতালিতে তথ্যের স্বচ্ছতা প্রশ্নে আলোচনা চলছিল দেশটির পার্লামেন্টের উচ্চকক্ষ সিনেটে। করোনার কারণে সোমবারের বৈঠকে ভার্চুয়ালি অংশ নিয়েছিলেন সিনেটররা। ফেসবুক ও স্থানীয় সেনেটাও টেলিভিশনে সরাসরি প্রচার হচ্ছিল বৈঠকটি।

আলোচনার একপর্যায়ে ঘটে অভাবিত বিপত্তি। টেকস্পটের খবরে বলা হয়েছে, বৈঠকের ৩০ মিনিটের মাথায় বক্তব্য রাখছিলেন পদার্থবিজ্ঞানে নোবেলজয়ী জর্জিও প্যারিসি।এ সময় জুমে হঠাৎ করেই ঢুকে পড়েন এক আগন্তুক।

লাইভে তিনি দেখাতে থাকেন অ্যানিমেটেড অ্যাডাল্ট কনটেন্ট ফ্যান্টাসি সেভেনের ‘টিফা লকহার্টের’ ত্রিমাত্রিক ভিডিও। যেখানে দেখা যায় কনটেন্টের প্রধান চরিত্র তিফা এক ব্যক্তির সঙ্গে মিলনে ব্যস্ত।

ফাইভ স্টার মুভমেন্টের সিনেটর মারিয়া লাউরার ৩০ সেকেন্ডের চেষ্টায় লাইভ স্টিমিং বন্ধ হলেও, নব্বইয়ের দশকে আমেরিকান কমেডি মুভির মতো মৃদু শব্দে আরও কিছুক্ষণ শোনা যায় শীৎকার।

একপর্যায়ে এসব বন্ধ হলে আলোচনায় মনোযোগী হন স্পিকার।

সিনেটর ম্যান্টোভ্যানি স্থানীয় সংবাদ সংস্থা আন্দকোনসকে জানিয়েছেন, সিনেটে বৈঠকের সময় পর্দায় পর্ন সিনেমা ভেসে উঠেছিল। অবশ্যই পুলিশের কাছে অভিযোগ করব।

তিনি বলেন, ‘খুব বাজে একটা পর্ব ছিল ওটা। অনলাইনে বৈঠক চলার সময় কেউ একজন গোপনে প্রবেশ করে এবং পর্নোগ্রাফিক ডিভিও দেখাতে থাকেন। পুলিশের কাছে অভিযোগ করা হবে, যেন তারা ওই ব্যক্তিকে শনাক্ত করে বিচারের মুখোমুখি করতে পারে।’

আরও পড়ুন:
সমুদ্রে বোট বিকল: ৮ দিন ভেসে থাকা ১৪ জেলে উদ্ধার
সেই ২২ জেলেকে ছাড়ল মিয়ানমার
ডিজেলের বাড়তি দামে বিপাকে উপকূলের জেলেরা

শেয়ার করুন

বালি হামলা: মূল পরিকল্পনাকারীর ১৫ বছরের জেল

বালি হামলা: মূল পরিকল্পনাকারীর ১৫ বছরের জেল

২০২০ সালে বিস্ফোরণে বালিতে ২০২ জন নিহত হন। ছবি: সংগৃহীত

দণ্ডপ্রাপ্ত ব্যক্তির নাম জুলকারনায়েন। ২০২০ সালের ডিসেম্বরে গ্রেপ্তারের আগে ইন্দোনেশিয়ার মোস্ট ওয়ান্টেড তালিকায় ছিলেন তিনি। আদালতে বালি হামলার নির্দেশ দেয়ার অভিযোগ স্বীকার করেছেন জুলকারনায়েন।

ইন্দোনেশিয়ার বালিতে ২০২০ সালে সন্ত্রাসী হামলায় মূল পরিকল্পনাকারীকে ১৫ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। ওই বছরের ১২ অক্টোবর পর্যটন এলাকা কুটা জেলায় বিস্ফোরণে ২১ দেশের ২০২ জন নিহত হন।

তাদের মধ্যে ৮৮ জন অস্ট্রেলীয়, ইন্দোনেশীয় ৩৮ জন এবং ২৮ জন ব্রিটিশ নাগরিক ছিলেন। একটি ক্লাব ও একটি পানশালায় হামলা চালিয়েছিল জঙ্গিরা।

বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, জাকার্তার আদালতে বুধবার এই সাজা ঘোষণা করা হয়।

দণ্ডপ্রাপ্ত ব্যক্তির নাম জুলকারনায়েন। ২০২০ সালে ডিসেম্বরে গ্রেপ্তারের আগে ইন্দোনেশিয়ার মোস্ট ওয়ান্টেড তালিকায় ছিলেন তিনি।

বোমা হামলার ওই ঘটনায় ২০০৮ সালে তিনজনকে মৃত্যুদণ্ড দেয়া হয়েছিল। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে নিহত হয়েছেন বেশ কয়েকজন। অনেকেই আছেন জেলে।

১০ বছর কারাদণ্ড ভোগের পর গত বছর মুক্তি পান উগ্র ধর্মীয় সংগঠন জাম্মেহ ইসলামিয়ার সাবেক প্রধান আবু বকর বাইশির। অভিযোগ আছে, আল কায়েদা মতাদর্শে কার্যক্রম পরিচালনা করত সংগঠনটি।

বালি হামলা: মূল পরিকল্পনাকারীর ১৫ বছরের জেল
বালি হামলায় নিহতদের শ্রদ্ধা জানাচ্ছেন স্বজনরা। ছবি: সংগৃহীত

সরকারপক্ষের আইনজীবীরা জানিয়েছেন, আরিস সুমারসুনু নামে পরিচিত জুলকারনায়েন জাম্মেহ ইসলামিয়ার সদস্য। তার নির্দেশে বিশেষ একটি বাহিনী ২০০০ সালে ফিলিপাইন দূতাবাস ও বড়দিনের উৎসবে এবং পরের বছর নববর্ষে বোমা হামলা চালিয়েছিল। এ ছাড়া ২০০৩ সালে জাকার্তার একটি হোটেলে হামলার পরের বছর ২০০৪ সালে অস্ট্রেলিয়ান দূতাবাসে বিস্ফোরণ ঘটানো হয়। তাকে ধরিয়ে দিতে ৫০ লাখ ডলার পুরস্কার ঘোষণা করেছিল যুক্তরাষ্ট্র।

বালি হামলা প্রশ্নে আদালতকে জুলকারনায়েন বলেন, তার দলের কিছু লোক ওই হামলায় জড়িত ছিলেন। তবে বাকি হামলাগুলোয় তিনি কোনোভাবেই জড়িত না।

আরও পড়ুন:
সমুদ্রে বোট বিকল: ৮ দিন ভেসে থাকা ১৪ জেলে উদ্ধার
সেই ২২ জেলেকে ছাড়ল মিয়ানমার
ডিজেলের বাড়তি দামে বিপাকে উপকূলের জেলেরা

শেয়ার করুন

পাহাড়ে রোগীর জন্য পালকি অ্যাম্বুলেন্স সেবা

পাহাড়ে রোগীর জন্য পালকি অ্যাম্বুলেন্স সেবা

বক্সার পাহাড়ি এলাকায় ৮ টি অ্যাম্বুলেন্স চালু করবে আলিপুরদুয়ার জেলা প্রশাসন। ছবি: নিউজ বাংলা

সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ২৬ হাজার ফুট ওপরে কেউ অসুস্থ হলে বা কোনো গর্ভবতী নারীকে চিকিৎসার জন্য সমতলে নামিয়ে আনা কষ্টসাধ্য ও বিপজ্জনক।

ভারতের আলিপুরদুয়ার বক্সার পাহাড়ের প্রত্যন্ত অঞ্চলের বাসিন্দাদের মূল সমস্যা হলো উচ্চতা। সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ২৬ হাজার ফুট ওপরে কেউ অসুস্থ হলে বা কোনো গর্ভবতী নারীকে চিকিৎসার জন্য সমতলে নামিয়ে আনা কষ্টসাধ্য ও বিপজ্জনক। তাই এখানকার বাসিন্দাদের সমস্যা সমাধানে পালকি অ্যাম্বুলেন্স সেবা চালু করেছে জেলা প্রশাসন।

আলিপুরদুয়ারের জেলা প্রশাসক সুরেন্দ্র মীনা বলেন, 'মানুষের অসুবিধার কথা ভেবে আমরা একটি পালকি অ্যাম্বুলেন্স পরীক্ষামূলকভাবে চালু করি। সেটা মানুষের কাজে আসায় আমরা বক্সার প্রত্যন্ত এলাকার জন্য অন্তত ১টি করে পালকি অ্যাম্বুলেন্স চালুর সিদ্ধান্ত নিয়েছি। শিগগিরই ৮টি পালকি অ্যাম্বুলেন্স চালু হবে।'

আলিপুরদুয়ারের কালচিনি ব্লকের বক্সার পাহাড়ের ওপর ১১টি গ্রাম রয়েছে। উচ্চতার জন্য অসুস্থ রোগী বা গর্ভবতী নারীদের সমতলের নামিয়ে এনে চিকিৎসা করানো খুবই সমস্যা সেখানে।

এত দিন বাঁশের মাচায় করে রোগীদের সমতলে নামিয়ে আনত স্থানীয়রা ও পরিবারের লোকেরা। পাহাড়ি রাস্তা দিয়ে বাঁশের মাচায় রোগী নিয়ে নামা বিপজ্জনক, প্রায়ই ঝুঁকির মুখে পড়েন সেখানকার বাসিন্দারা। এমনকি সেখানে দুর্ঘটনাও ঘটেছে।

পাহাড়ের উচ্চতায় বসবাসকারী এসব মানুষের দুর্ভোগ দূর করতে জেলা প্রশাসনের স্বাস্থ্য দপ্তর ও ফ্যামিলি প্লানিং অফ ইন্ডিয়া যৌথ উদ্যোগে পালকি অ্যাম্বুলেন্স সেবা চালু করেছে।

বক্সার ডারাগাওয়ের গ্রামের বাসিন্দা সন্তানসম্ভবা পাশালহাম ডুকপার প্রসব যন্ত্রণা উঠলে পালকি অ্যাম্বুলেন্সে তাকে কালচিনি স্বাস্থ্যকেন্দ্রে আনা হয়। সেখান থেকে তাকে সেই পালকি অ্যাম্বুলেন্সে আলিপুরদুয়ার হাসপাতালে নামিয়ে আনা হয়। সেখানে ১৪ জানুয়ারি এক পুত্রসন্তানের জন্ম দেন পাশালহাম ডুকপা।

পাশালহামের স্বামী ওয়াঙ্গেল ডুকপা জানান, পাশালহামই বক্সা পাহাড়ের প্রথম নারী, যাকে গর্ভবতী অবস্থায় পালকি অ্যাম্বুলেন্সে সমতলে নামিয়ে আনা হয়।

আরও পড়ুন:
সমুদ্রে বোট বিকল: ৮ দিন ভেসে থাকা ১৪ জেলে উদ্ধার
সেই ২২ জেলেকে ছাড়ল মিয়ানমার
ডিজেলের বাড়তি দামে বিপাকে উপকূলের জেলেরা

শেয়ার করুন