রাস্তায় কাঁড়ি কাঁড়ি ডলার, কুড়াচ্ছেন যাত্রীরা

রাস্তায় কাঁড়ি কাঁড়ি ডলার, কুড়াচ্ছেন যাত্রীরা

ক্যালিফোর্নিয়ার সান ডিয়াগোর রাস্তায় পড়ে থাকা ডলার কুড়াচ্ছেন যাত্রীরা। ছবি: টুইটার

সেগুলো চুরি করা হয়েছে উল্লেখ করে হাইওয়ে পুলিশের সার্জেন্ট কার্টিস মার্টিন বলেন, ‘যারা ডলার কুড়িয়েছেন আমি আমা করব তাদের দরজায় কড়া নাড়ার আগেই সেগুলো আমাদের ফেরত দেবেন। অন্যথায়, আমাদের হাতে ভিডিও রয়েছে; সেগুলো দেখে ব্যবস্থা নেব আমরা।’  

যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার সান ডিয়াগোর রাস্তায় কাঁড়ি কাঁড়ি ডলার পড়ে আছে। রাস্তা দিয়ে যাওয়ার সময় গাড়ি থামিয়ে সেসব ডলার কুড়িয়ে নিচ্ছেন অসংখ্য যাত্রী। অনেকেই আবার ডলার কুড়ানোর দৃশ্য ভিডিও করে সামাজিক মাধ্যমে দিতেও ব্যস্ত।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে আসে পুলিশ। ডলার না কুড়ানোর অনুরোধ জানাতে থাকে সবাইকে।

অবশ্য ততক্ষণে অনেকেই মুঠোয় মুঠোয় ডলার কুড়িয়ে নিয়ে চম্পট দিয়েছেন।

ঘটনাটি ঘটেছে গত শুক্রবার। যার কয়েকটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে ভাইরাল হয়েছে।

ভিডিওতে কয়েকজন তরুণ-তরুণীকে হুড়োহুড়ি করে ডলার কুড়াতে দেখা যায়। কয়েকজন আবার ডলার কুড়িয়ে সেটি আকাশের দিকে ছুড়ে ফেলছেন আর উল্লাস করছেন।

পুলিশের বরাত দিয়ে স্থানীয় সংবাদমাধ্যমগুলো বলছে, রাস্তা দিয়ে একটি ব্যাংকের ডলার বহনকারী গাড়ি যাওয়ার সময়, হঠাৎ তার দরজা খুলে গেলে এসব ডলার পড়তে থাকে। বিষয়টি গাড়িটিতে থাকা ব্যক্তিরা প্রথমে খেয়াল করেননি।

বিষয়টি নিয়ে পরে সংবাদ সম্মেলন করে সান ডিয়েগোর হাইওয়ে পুলিশ।

যারা ডলার কুড়িয়েছে তাদের পুলিশ স্টেশনে হাজির হয়ে সেগুলো ফেরত দেয়ার আহ্বান জানানো হয়।

সেগুলো চুরি করা হয়েছে উল্লেখ করে হাইওয়ে পুলিশের সার্জেন্ট কার্টিস মার্টিন বলেন, ‘যারা ডলার কুড়িয়েছেন আমি বা আমরা তাদের দরজায় কড়া নাড়ার আগেই সেগুলো আমাদের ফেরত দেবেন। অন্যথায় আমাদের হাতে ভিডিও রয়েছে; সেগুলো দেখে ব্যবস্থা নেব আমরা।’

এরই মধ্যে ডলার কুড়ানো দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তাদের কাছ থেকে অসংখ্য ডলার উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানানো হয়েছে।

আরও পড়ুন:
ক্রিসমাস প্যারেডে গাড়িচাপায় নিহত ৫, প্রায় অর্ধশত আহত
টাকার দরপতনে বিদেশি ঋণধারীদের মাথায় হাত
লাগামহীন ডলার, ব্যাংকগুলোই বিক্রি করছে ৯০ টাকায়
ডলারের দাম একেক জায়গায় একেক রকম কেন
বিদেশিদের ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা তুলে নিল যুক্তরাষ্ট্র

শেয়ার করুন

মন্তব্য

উসকানির মামলায় রায়ের অপেক্ষায় সু চি

উসকানির মামলায় রায়ের অপেক্ষায় সু চি

উসকানির মামলায় দোষী সাব্যস্ত হলে তিন বছর পর্যন্ত কারাদণ্ড হতে পারে অং সান সু চির। ফাইল ছবি/এএফপি

সু চির বিরুদ্ধে করা কমপক্ষে ১২টি মামলার কোনোটিরই রায় ঘোষণা করা হয়নি এখনও। এসব মামলায় দোষী সাব্যস্ত হলে কারাগারেই বাকি জীবন কাটিয়ে দিতে হতে পারে ৭৬ বছর বয়সী এ নেত্রীকে। বিশ্লেষকদের মতে, মিয়ানমারে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিত্ব সু চি। তাই দেশটিতে সামরিক শাসন অব্যাহত রাখতে তাকে সারা জীবনের জন্য রাজনীতি থেকে উৎখাত করতে চায় সেনাবাহিনী।

মিয়ানমারের ক্ষমতাচ্যুত রাষ্ট্রীয় উপদেষ্টা অং সান সু চির বিরুদ্ধে উসকানির মামলায় রায় হতে পারে মঙ্গলবার। ফলে দুই দিনের মধ্যেই স্পষ্ট হতে পারে- কী আছে গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত এ নেত্রীর ভাগ্যে।

দ্য গার্ডিয়ানের প্রতিবেদনে জানানো হয়, একগুচ্ছ মামলার মধ্যে উসকানির মামলায় প্রথম রায়ে দোষী সাব্যস্ত হলে তিন বছর পর্যন্ত কারাদণ্ড হতে পারে সু চির।

প্রায় ১০ মাসে সু চির বিরুদ্ধে ঔপনিবেশিক আমলের রাষ্ট্রীয় গোপনীয়তা আইন লঙ্ঘন, দুর্নীতি, প্রতারণা, করোনাভাইরাস মহামারিকালীন বিধিনিষেধ উপেক্ষা, অবৈধ ওয়াকিটকি আমদানিসহ কমপক্ষে ১২টি মামলা করেছে মিয়ানমার সেনাবাহিনী।

সবশেষ গত ১৬ নভেম্বের সু চিসহ ক্ষমতাচ্যুত সরকারের মোট ১৬ জনের বিরুদ্ধে নির্বাচনে জালিয়াতির নতুন অভিযোগ গঠন করা হয়।

এখন পর্যন্ত কোনো মামলারই রায় ঘোষণা করা হয়নি। এসব মামলায় দোষী সাব্যস্ত হলে কারাগারেই বাকি জীবন কাটিয়ে দিতে হতে পারে ৭৬ বছর বয়সী সু চিকে।

রায় ঘোষণার অপেক্ষায় থাকা প্রথম মামলায় সু চির বিরুদ্ধে অভিযোগ, মিয়ানমারের সামরিক শাসকগোষ্ঠীর বিরুদ্ধে বিদ্রোহ উসকে দিয়েছেন তিনি।

১ ফেব্রুয়ারি অভ্যুত্থানের মাধ্যমে মিয়ানমারের নির্বাচিত সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করে দেশটির সেনাবাহিনী; আটক করে শান্তিতে নোবেলজয়ী সু চি, প্রেসিডেন্ট উইন মিন্তসহ অনেককে।

এরপর থেকেই গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের দাবিতে নজিরবিহীন বিক্ষোভে উত্তাল হয়ে ওঠে মিয়ানমার। বিক্ষোভ দমনে কঠোর হয় সেনাবাহিনী।

এ পর্যন্ত ১২ শ’র বেশি মানুষকে হত্যা ও ১০ হাজারের বেশি বিক্ষোভকারীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে স্থানীয় পর্যবেক্ষক সংস্থা অ্যাসিস্ট্যান্স অ্যাসোসিয়েশন ফর পলিটিক্যাল প্রিজনার্স।

বিশ্লেষকদের মতে, মিয়ানমারে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিত্ব সু চি। তাই দেশটিতে সামরিক শাসন অব্যাহত রাখতে সু চিকে সারা জীবনের জন্য রাজনীতি থেকে উৎখাত করতে চায় সেনাবাহিনী। ফলে উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবেই এসব মামলা।

মাঝে মাঝে রাষ্ট্রদ্রোহিতার মামলা হিসেবে আখ্যায়িত উসকানির মামলাটিতে সংশ্লিষ্টদের সাক্ষ্য নিয়েছে আদালত। সু চির অপরাধ হিসেবে মিথ্যা ও বিভ্রান্তিমূলক তথ্য ছড়ানোর মাধ্যমে জনগণকে উসকানি দিয়ে দেশের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতিকে হুমকির দিকে ঠেলে দেয়ার কথা বলা হয়েছে অভিযোগপত্র।

রাজধানী নেইপিদোতে সেনাবাহিনীর গঠিত বিশেষ আদালতে সু চির বিরুদ্ধে মামলার শুনানিতে সংবাদকর্মীদের উপস্থিতি নিষিদ্ধ ছিল। সু চির আইনজীবীদেরও গণমাধ্যমে কথা বলার ওপর নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে।

সু চিকে নিয়ে মিয়ানমারের জান্তা সরকারের পরিকল্পনা স্পষ্ট নয় বলে জানিয়েছেন তার আইনজীবীরা। রায় বিলম্বিত হতে পারে বলেও শঙ্কা জানিয়েছেন তারা।

অভ্যুত্থানের কিছুদিন পর সু চির বিরুদ্ধে প্রথমে অনিবন্ধিত ওয়াকিটকি রাখা এবং ২০২০ সালের নির্বাচনের সময় মহামারিকালীন স্বাস্থ্যবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ আনে সেনাবাহিনী। এরপর ধাপে ধাপে অন্য মামলাগুলো করে জান্তা।

প্রায় প্রতিদিনই আদালতে হাজিরা দিতে দিতে সু চি অসুস্থ হয়ে পড়ছেন বলে জানিয়েছেন তার আইনজীবীরা।

সাবেক জান্তা সরকারের আমলে ইয়াঙ্গুনে ঔপনিবেশিক আমলে পারিবারিক সূত্রে প্রাপ্ত বাড়িতে অনেক বছর গৃহবন্দি ছিলেন সু চি। সে সময় বাড়ির সামনে জড়ো হওয়া লাখো জনতার সামনে মাঝে মাঝে বারান্দা দিয়ে দেখা দিতেন তিনি।

বর্তমানে অতি সুরক্ষিত রাজধানীতে অজ্ঞাত স্থানে সু চিকে বন্দি করে রেখেছে সেনাপ্রধান মিন অং হ্লাইং নেতৃত্বাধীন শাসকগোষ্ঠী। সু চির সঙ্গে আছে হাতে গোনা কয়েকজন কর্মী।

এখন বহির্বিশ্বের সঙ্গে সু চির যোগাযোগ নিজের আইনজীবীদের সঙ্গে শুনানিপূর্ব বৈঠকেই সীমিত।

সু চির দল ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্রেসির অন্য শীর্ষ পদধারী নেতাদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন মামলা শেষের দিকে। চলতি মাসেই সাবেক এক মুখ্যমন্ত্রীকে ৭৫ বছর আর সু চির এক ঘনিষ্ঠ সহযোগীকে ২০ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে জান্তা সরকার।

আরও পড়ুন:
ক্রিসমাস প্যারেডে গাড়িচাপায় নিহত ৫, প্রায় অর্ধশত আহত
টাকার দরপতনে বিদেশি ঋণধারীদের মাথায় হাত
লাগামহীন ডলার, ব্যাংকগুলোই বিক্রি করছে ৯০ টাকায়
ডলারের দাম একেক জায়গায় একেক রকম কেন
বিদেশিদের ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা তুলে নিল যুক্তরাষ্ট্র

শেয়ার করুন

যুক্তরাজ্য ইতালি জার্মানিতে ওমিক্রনের হানা

যুক্তরাজ্য ইতালি জার্মানিতে ওমিক্রনের হানা

করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রনের খবরে উদ্বেগ সৃষ্টি হয়েছে বিশ্বজুড়ে। ছবি: সংগৃহীত

দুই বছরের করোনা মহামারির কারণে বিপর্যস্ত অর্থনীতির চাকা যখন আবার সচল হচ্ছিল তখন নতুন ধরনের খবরে বিশ্বজুড়ে উদ্বেগ সৃষ্টি হয়েছে। আফ্রিকা অঞ্চলের দেশগুলোর ওপর আরোপ করা হচ্ছে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা। উড়তে থাকা পুঁজিবাজার ও জ্বালানি তেলের দামে পড়ছে ভাটার টান।

ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রন। এই ধরনটি এবার শনাক্তের খবর দিয়েছে ইউরোপের তিন প্রভাবশালী দেশ যুক্তরাজ্য, জার্মানি ও ইতালি। ওমিক্রন ঠেকাতে আফ্রিকার দক্ষিণাঞ্চলের দেশগুলোর ওপর আরও নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে অনেক দেশ।

দুই বছরের করোনা মহামারির কারণে বিপর্যস্ত অর্থনীতির চাকা যখন আবার সচল হচ্ছিল তখন নতুন ধরনের খবরে বিশ্বজুড়ে উদ্বেগ সৃষ্টি হয়েছে। আফ্রিকা অঞ্চলের দেশগুলোর ওপর আরোপ করা হচ্ছে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা। উড়তে থাকা পুঁজিবাজার ও জ্বালানি তেলের দামে পড়ছে ভাটার টান।

ওমিক্রন থেকে নিরাপদে থাকতে ভ্রমণ নিধেষাজ্ঞা আরও আঁটসাঁট করতে যাচ্ছে ইসরায়েল। দেশটির প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ১৪ দিনের নতুন বিধিনিষেধ অনুমোদনের অপেক্ষায় আছে। তাতে বলা হয়েছে, ইসরায়েলে কোনো বিদেশিকে ঢুকতে দেয়া হবে না।

কোভিডের জন্য দায়ী করোনাভাইরাস সার্স কভ টু-এর নতুন ধরন ‘ওমিক্রন’ নিয়ে উৎকণ্ঠা ছড়িয়ে পড়ছে দেশে দেশে। সতর্ক অবস্থানে আছে বাংলাদেশ, ভারত ও পাকিস্তানও।

বতসোয়ানায় প্রথম শনাক্ত হওয়া এই ভ্যারিয়েন্টের শুরুতে নাম ছিল ‘বি.১.১.৫২৯’ তবে আলোচনায় সুবিধার জন্য শুক্রবার বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এর নাম দেয় ‘ওমিক্রন’।

স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলছেন, স্পাইক প্রোটিনে ৩০ বারের বেশি মিউটেশনের মধ্য দিয়ে সার্স কভ টু ভাইরাসের নতুন ধরনটি তৈরি হয়েছে। সামগ্রিকভাবে এই ধরনটির মিউটেশন হয়েছে ৫০ বারের বেশি।

অত্যন্ত সংক্রামক ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের চেয়েও ওমিক্রনের মিউটেশন হয়েছে চার গুণ বেশি। ফলে এটি দ্রুত মানুষকে আক্রান্ত করতে সক্ষম বলে আশঙ্কা বিশেষজ্ঞদের।

এমন অবস্থায় ওমিক্রন রোধে আফ্রিকার দক্ষিণাঞ্চলের দেশগুলোর ওপর আগেভাগেই ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা দেয়ার ঘোষণা দেয় যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত দেশগুলো। এই নিষেধাজ্ঞা সোমবার থেকে কার্যকর হওয়ার কথা ছিল। এর আগেই ইউরোপের কয়েকটি দেশে ঢুকে গেল ওমিক্রন।

যুক্তরাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রী সাজিদ জাভিদ স্থানীয় সময় শনিবার জানান, তাদের দেশে করোনার নতুন ধরন ওমিক্রনে সংক্রমিত হয়েছেন এমন দুজন ব্যক্তিকে শনাক্ত করা হয়েছে।

এমন খবরে কঠোর বিধিনিষেধ আরোপের ঘোষণা দিয়েছেন যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। যারা বিদেশ থেকে আসবেন, তাদের অবশ্যই করোনা টেস্ট করাতে বলা হয়েছে। মাস্ক পরায় ফের বাধ্যবাধকতা আনা হচ্ছে।

জনসন এক সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, ‘যুক্তরাজ্যে প্রবেশের দুই দিনের মধ্যে যে কাউকে পিসিআর টেস্ট করাতে হবে। রেজাল্ট নেগেটিভ না পাওয়া পর্যন্ত তাকে ব্যক্তিগতভাবে আইসোলেশনে থাকতে হবে।’

জার্মানির বাভারিয়ার রাজ্যের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ও ওমিক্রনে সংক্রমিত দুই ব্যক্তির খবর দিয়েছে। বলা হয়েছে, ওই দুই ব্যক্তি ২৪ নভেম্বর মিউনিখ বিমানবন্দর দিয়ে জার্মানিতে প্রবেশ করেছিলেন।

আর ইতালির ন্যাশনাল হেলথ ইনস্টিটিউট বলছে, মিলানে এক ব্যক্তির দেহে ওমক্রিন শনাক্ত হয়েছে। ওই ব্যক্তি মোজাম্বিক থেকে এসেছেন।

চেক রিপাবলিক কর্তৃপক্ষও জানিয়েছে, তাদের ওখানে এক ব্যক্তি ওমিক্রনে সংক্রমিত হয়ে থাকতে পারেন। তার পরীক্ষা-নিরীক্ষা চলছে। ওই ব্যক্তি নামিবিয়ায় সময় কাটিয়ে এসেছেন।

নতুন ধরনটি কতটা বিপজ্জনক?

সার্স কভ টু ভাইরাসের নতুন ধরনটি নিয়ে গবেষকদের উদ্বেগের মূল কারণ, এর অনেকবারের মিউটেশন। মিউটেশন হলো এমন এক অভিযোজন কৌশল, যার মাধ্যমে ভাইরাস বিরূপ বা নতুন পরিস্থিতিতেও অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখতে পারে।

বিজ্ঞানীরা ওমিক্রনের স্পাইক প্রোটিনে ৩২টি মিউটেশন খুঁজে পেয়েছেন। অন্যদিকে অত্যন্ত সংক্রামক হিসেবে বিবেচিত ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টে মিউটেশন হয়েছে মাত্র আটবার।

স্পাইক প্রোটিনের বেশি মিউটেশন মানেই ভাইরাসটি বেশি প্রাণঘাতী, এমন মনে করার কোনো কারণ নেই। তবে বিজ্ঞানীরা বলছেন, বহুবার মিউটেশনের কারণে ওমিক্রনের সঙ্গে মানুষের দেহের প্রতিরোধ ব্যবস্থার (ইমিউনিটি সিস্টেম) লড়াই করা কঠিন হতে পারে।

ওমিক্রনের স্পাইক প্রোটিন প্রচলিত করোনাভাইরাসের স্পাইক প্রোটিনের তুলনায় অনেকটা বদলে যাওয়ায় দেহের ইমিউনিটি সিস্টেম দ্রুত একে শনাক্ত করতে পারে না, ফলে এটি সংক্রমণের হার বাড়াতে পারে। যেকোনো করোনাভাইরাস এদের স্পাইকের সাহায্যেই শ্বাসতন্ত্রের কোষে যুক্ত হয়ে কোষের ভেতরে প্রবেশ করে।

প্রাথমিক গবেষণা অনুসারে, নতুন ভ্যারিয়েন্টটি টিকার কার্যক্ষমতা ৪০ শতাংশ পর্যন্ত কমিয়ে দিতে সক্ষম।

যুক্তরাজ্যের স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলছেন, নতুন ভ্যারিয়েন্টের দুটি মিউটেশন- আর ২০৩কে এবং জি ২০৪আর ভাইরাসটি দ্রুত প্রতিলিপি তৈরি করতে সক্ষম। এ ছাড়া তিনটি মিউটেশন- এইচ৬৫৫ওয়াই, এন ৬৭৯কে এবং পি ৬৮১এইচ ভাইরাসটিকে আরও সহজে মানব কোষে প্রবেশে সাহায্য করে। তারা বলছেন, শেষ দুটি মিউটেশনের একসঙ্গে উপস্থিতি বিরল ঘটনা এবং এর ফলে ওমিক্রন টিকা প্রতিরোধী হয়ে উঠেছে।

অস্ট্রিয়ার ভিয়েনার ইনস্টিটিউট অফ মলিকুলার বায়োটেকনোলজির আণবিক জীববিজ্ঞানী ডা. উলরিচ এলিংয়ের মতে, প্রাথমিক লক্ষণ থেকে মনে হচ্ছে করোনার নতুন রূপটি ডেল্টার চেয়ে ৫০০ শতাংশ বেশি সংক্রামক হতে পারে।

অবশ্য নতুন ভ্যারিয়েন্টটি সার্স কভ টুর আগের ধরনগুলোর তুলনায় বেশি প্রাণঘাতী- এমন কোনো প্রমাণ এখনও মেলেনি। তবে এটি দ্রুত ছড়িয়ে পড়ার সক্ষমতার কারণে স্বাস্থ্যব্যবস্থাকে নতুন করে চাপে ফেলতে পারে।

আরও পড়ুন:
ক্রিসমাস প্যারেডে গাড়িচাপায় নিহত ৫, প্রায় অর্ধশত আহত
টাকার দরপতনে বিদেশি ঋণধারীদের মাথায় হাত
লাগামহীন ডলার, ব্যাংকগুলোই বিক্রি করছে ৯০ টাকায়
ডলারের দাম একেক জায়গায় একেক রকম কেন
বিদেশিদের ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা তুলে নিল যুক্তরাষ্ট্র

শেয়ার করুন

‘ওমিক্রন’ আতঙ্কে বেঙ্গালুরুর বিমানবন্দরে হুলস্থুল

‘ওমিক্রন’ আতঙ্কে বেঙ্গালুরুর বিমানবন্দরে হুলস্থুল

ভারতের বেঙ্গালুরুর কেম্পেগৌড়া আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর টার্মিনাল। ছবি: সংগৃহীত

ভারতের বেঙ্গালুরুর কেম্পেগৌড়া আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে শনিবার দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে আসা দুই যাত্রীর কোভিড রিপোর্ট পজিটিভ হওয়ার পর তারা করোনার নতুন ধরন ‘ওমিক্রন’ আক্রান্ত কিনা তা নিয়ে আতঙ্ক সৃষ্টি হয়।

করোনার সবচেয়ে মারাত্মক ধরন ‘ওমিক্রন’ নিয়ে বিশ্বজুড়ে নতুন আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। ধরনটি প্রথম শনাক্ত হয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকায়। এমনই সময়ে দক্ষিণ আফ্রিকার দুই নাগরিকের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হওয়ার পর আতঙ্ক ছড়িয়েছে ভারতের তথ্য-প্রযুক্তি শহর বেঙ্গালুরুতে।

শনিবার বেঙ্গালুরুর কেম্পেগৌড়া আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে দুই আফ্রিকানের কোভিড রিপোর্ট পজিটিভ হওয়ার পর প্রশাসনিক স্তরেও উদ্বেগ দেখা দেয়। তাদের শরীরে ‘ওমিক্রন’ মিলেছে কিনা তা নিয়ে স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষের মধ্যে তীব্র আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছে।

বলা হচ্ছে, করোনা ভাইরাসের এ পর্যন্ত যে ক’টি ধরনের খোঁজ মিলেছে তার মধ্যে ওমিক্রন সবচেয়ে দ্রুত ছড়ায়। সেই ধরনেই আফ্রিকার এই নাগরিক আক্রান্ত কীনা তা নিয়েই চাঞ্চল্য বেঙ্গালুরুতে।

বেঙ্গালুরুর কেম্পেগৌড়া বিমানবন্দরে অবতরণ করা সংশ্লিষ্ট বিমানে মোট ৫৮৪ জন যাত্রী ছিলেন। তারা সবাই দশটি ‘হাই-রিস্ক’ দেশ থেকে এসেছেন। তাদের মধ্যে শুধু দক্ষিণ আফ্রিকা থেকেই বেঙ্গালুরুতে পা রেখেছেন ৯৪ জন। ওই ১০ দেশেই করোনার ওমিক্রন ধরন শনাক্ত হয়েছে।

কর্নাটক সরকার কোভিড-১৯ আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধি এবং নতুন ধরন ‘ওমিক্রন’ নিয়ে উদ্বেগের মধ্যে বেশ কয়েকটি কঠোর সতর্কতামূলক ব্যবস্থা কার্যকর করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

শনিবার মুখ্যমন্ত্রী বাসভরাজ বোম্মাইয়ের সভাপতিত্বে একটি উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক হয়। মুখ্যমন্ত্রী বলেছেন যে সরকার বিমানবন্দরগুলোতে আন্তর্জাতিক যাত্রীদের স্ক্রিনিং জোরদার করবে এবং কেরালা ও মহারাষ্ট্র থেকে আগতদের জন্য আরটি-পিসিআর পরীক্ষার রিপোর্ট বাধ্যতামূলক করবে।

সরকারি এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে- দক্ষিণ আফ্রিকা, বতসোয়ানা ও হংকং থেকে আগতদের বাধ্যতামূলকভাবে কোভিড পরীক্ষার মধ্য দিয়ে যেতে হবে। এই দেশগুলো থেকে গত ১৫ দিনে যারা রাজ্যে প্রবেশ করেছে তাদের আবারও আরটি-পিসিআর পরীক্ষা করাতে হবে।

আরও পড়ুন:
ক্রিসমাস প্যারেডে গাড়িচাপায় নিহত ৫, প্রায় অর্ধশত আহত
টাকার দরপতনে বিদেশি ঋণধারীদের মাথায় হাত
লাগামহীন ডলার, ব্যাংকগুলোই বিক্রি করছে ৯০ টাকায়
ডলারের দাম একেক জায়গায় একেক রকম কেন
বিদেশিদের ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা তুলে নিল যুক্তরাষ্ট্র

শেয়ার করুন

যুক্তরাজ্যে করোনার নতুন ধরন ওমিক্রনে শনাক্ত ২

যুক্তরাজ্যে করোনার নতুন ধরন ওমিক্রনে শনাক্ত ২

স্বাস্থ্যমন্ত্রী সাজিদ জাভিদ বলেন, ‘গত রাতে যুক্তরাজ্যের স্বাস্থ্য নিরাপত্তা সংস্থা আমার সঙ্গে যোগাযোগ করে। তারা দেশে দুই জনের শরীরে ওমিক্রন শনাক্ত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।’

যুক্তরাজ্যে দুইজনের শরীরে করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রন শনাক্ত হয়েছে। এরা সম্প্রতি সাউথ আফ্রিকায় ভ্রমণের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন।

শনিবার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন যুক্তরাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রী সাজিদ জাভিদ।

এদিন বার্তাসংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

তিনি বলেন, ‘গত রাতে যুক্তরাজ্যের স্বাস্থ্য নিরাপত্তা সংস্থা আমার সঙ্গে যোগাযোগ করে। তারা দেশে দুই জনের শরীরে ওমিক্রন শনাক্ত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।’

আফ্রিকার দক্ষিণাঞ্চল থেকে সম্প্রতি ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ‘বি.১.১.৫২৯’ নাম দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। এখন থেকে এই ধরনটিকে ‘ওমিক্রন’ নামে ডাকা হবে। বলা হচ্ছে, করোনার এই ধরনটি খুবই উদ্বেগের ।

এই ধরন কতটা প্রাণঘাতী ও সংক্রামক সেসব জানতে কাজ করছেন বিজ্ঞানীরা। এর আগেই আফ্রিকার দেশগুলোর ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে পশ্চিমা দেশগুলো।

বিভিন্ন প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কোভিড-১৯-এর এখন পর্যন্ত যতগুলো ধরন আছে তার মধ্যে ওমিক্রন সবচেয়ে জটিল। বিশ্বজুড়ে উদ্বেগ ছড়ানো ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের মতোই।

নতুন ধরনটি সাউথ আফ্রিকায় প্রথম শনাক্ত হয় বলে ২৪ নভেম্বর জানায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। বতসোয়ানা, বেলজিয়াম, হংকং ও ইসরায়েলেও এই ধরন শনাক্তের তথ্য পাওয়া গেছে।

ওমিক্রনের ভয়াবহতার শঙ্কায় আফ্রিকার দক্ষিণাঞ্চলীয় দেশগুলোর সঙ্গে এরই মধ্যে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে অনেক দেশ।

সাউথ আফ্রিকা, নামিবিয়া, জিম্বাবুয়ে, বতসোয়ানা, লেসেথোর মতো দেশগুলোর নাগরিকের ওপর ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে যুক্তরাজ্য। তবে যুক্তরাজ্য বা আয়ারল্যান্ডের নাগরিকদের ক্ষেত্রে এ নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হবে না।

আফ্রিকার এসব দেশের সঙ্গে বিমান যোগাযোগ বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত দেশগুলো। এটা কার্যকর হবে সোমবার থেকে।

আরও পড়ুন:
ক্রিসমাস প্যারেডে গাড়িচাপায় নিহত ৫, প্রায় অর্ধশত আহত
টাকার দরপতনে বিদেশি ঋণধারীদের মাথায় হাত
লাগামহীন ডলার, ব্যাংকগুলোই বিক্রি করছে ৯০ টাকায়
ডলারের দাম একেক জায়গায় একেক রকম কেন
বিদেশিদের ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা তুলে নিল যুক্তরাষ্ট্র

শেয়ার করুন

খুন করে মায়ের পেট থেকে বাচ্চা চুরি

খুন করে মায়ের পেট থেকে বাচ্চা চুরি

অভিযুক্ত রোজালবা (বামে) ও গর্ভকালীন মাফরা।

ব্রাজিলের ক্যানেলিনহা শহরে ২৭ বছর বয়সী রোজালবার সঙ্গে ২৪ বছর বয়সী ফ্ল্যাভিয়া গোডিনহো মাফরার বন্ধুত্বের সম্পর্ক ছিল। খুন হওয়ার সময় ৩৬ সপ্তাহের গর্ভবতী ছিলেন মাফরা।

রোমহর্ষক এই ঘটনাটি ঘটেছে ব্রাজিলের দক্ষিণাঞ্চলীয় সান্তা ক্যাটারিনা প্রদেশের ক্যানেলিনহা শহরে। বন্ধুত্বের সুযোগ নিয়ে গর্ভবতী মাকে হত্যা করে তার পেট চিরে বাচ্চা চুরি করে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ প্রমাণিত হয়েছে আরেক নারীর বিরুদ্ধে।

শনিবার নিউ ইয়র্ক পোস্ট জানায়, অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় রোজালবা মারিয়া গ্রিম নামে ওই নারীকে ৫৭ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে ব্রাজিলের একটি আদালত।

মামলার সূত্র ধরে জানা যায়, ক্যানেলিনহা শহরে ২৭ বছর বয়সী রোজালবার সঙ্গে ২৪ বছর বয়সী ফ্ল্যাভিয়া গোডিনহো মাফরার বন্ধুত্বের সম্পর্ক ছিল। একটি স্কুলে পড়াতেন মাফরা।

২০২০ সালের ২৭ আগস্ট তাকে শহরের এক প্রান্তে একটি পুরাকীর্তির স্থানে ঘুরতে যেতে প্রলুব্ধ করেন রোজালবা। সেখানে যাওয়ার পর একটি নির্জন স্থানে মাথায় একের পর এক ইটের আঘাতে মাফরাকে হত্যা করেন রোজালবা।

আঘাতের পর আঘাতে মাফরা নিস্তেজ হয়ে পড়লে একটি ধারালো ছুরি বের করেন রোজালবা। পরে এই ছুরি দিয়ে তিনি মাফরার পেট চিরে ফেলেন এবং পেটের ভেতর থেকে ৩৬ সপ্তাহের নবজাতকটিকে বের করে আনেন। পরে মাফরার মরদেহটি একটি চুল্লির ভেতর লুকিয়ে বাচ্চাটি নিয়ে পালিয়ে যান তিনি।

খুন করে মায়ের পেট থেকে বাচ্চা চুরি
আদালাতে রোজালবা মারিয়া গ্রিম

নৃশংস এই ঘটনার পর রোজালবা তার প্রেমিককে সঙ্গে নিয়ে নবজাতকটির প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য একটি হাসপাতালে যান। এর আগে কিছুদিন আগেই প্রেমিককে রোজালবা জানিয়েছিলেন, তিনি সন্তানসম্ভবা। তাই প্রেমিকও নবজাতকটিকে নিজের সন্তান ভেবেছিলেন।

হাসপাতালে গিয়ে কর্মীদের কাছে রোজালবা দাবি করেন, একটু আগেই তিনি বাচ্চাটির জন্ম দিয়েছেন। এই বাচ্চার এখন প্রাথমিক চিকিৎসা প্রয়োজন। কিন্তু রোজালবার আচরণ ও শারীরিক সামর্থ্য দেখে সন্দেহ হয় হাসপাতালকর্মীদের। তাই তারা ঘটনাটি খতিয়ে দেখতে পুলিশকে খবর দেন।

সম্প্রতি হত্যাকাণ্ড ও বাচ্চা চুরির সঙ্গে কোনো যোগসূত্র না থাকায় সন্দেহভাজন হিসেবে গ্রেপ্তার হওয়া রোজালবার প্রেমিককে বেকসুর খালাস দিয়েছে আদালত।

১৫ ঘণ্টার শুনানিতে আদালতকে রোজালবা জানান, মাফরাকে হত্যা পরিকল্পনাই শুধু নয়, হত্যার পর বাচ্চাটিকে কীভাবে পেট থেকে বের করে আনবেন তা নিয়েও বিস্তর পড়াশোনা করেছিলেন তিনি। অপেক্ষা করছিলেন, মায়ের গর্ভে বাচ্চাটি পরিণত হওয়ার জন্য।

আরও পড়ুন:
ক্রিসমাস প্যারেডে গাড়িচাপায় নিহত ৫, প্রায় অর্ধশত আহত
টাকার দরপতনে বিদেশি ঋণধারীদের মাথায় হাত
লাগামহীন ডলার, ব্যাংকগুলোই বিক্রি করছে ৯০ টাকায়
ডলারের দাম একেক জায়গায় একেক রকম কেন
বিদেশিদের ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা তুলে নিল যুক্তরাষ্ট্র

শেয়ার করুন

দুই মেয়ে ও দাদাসহ পাঁচজনকে কুপিয়ে হত্যা

দুই মেয়ে ও দাদাসহ পাঁচজনকে কুপিয়ে হত্যা

অভিযুক্ত প্রদীপকে আটকের পর পুলিশ ভ্যানে তুলে বেঁধে রাখা হয়। ছবি: সংগৃহীত

ত্রিপুরা পুলিশের ডিজিপি ভি এস যাদব বলেন, ‘রাজমিস্ত্রি প্রদীপ শাবল দিয়ে প্রথমে নিজের দুই মেয়ে ও দাদাকে হত্যা করে। এরপর এক পথচারী ও পুলিশ সদস্যের ওপর হামলা চালায়।'

ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের খোয়াই এলাকায় এক ব্যক্তি শাবল নিয়ে অতর্কিত হামলা চালিয়ে নিজ পরিবারের তিন সদস্যসহ পাঁচজনকে হত্যা করেছে। নিহত অন্য দু’জনের মধ্যে একজন পুলিশ সদস্য ও অপরজন পথচারী।

শুক্রবার রাতেই অভিযুক্ত প্রদীপ দেব রায়কে গ্রেপ্তার করেছে খোয়াই থানা পুলিশ। পেশায় রাজমিস্ত্রি এই ব্যক্তি মানসিক ভারসাম্যহীন বলে জানা গেছে।

ত্রিপুরা পুলিশের ডিজিপি ভি এস যাদব বলেন, ‘ওই রাজমিস্ত্রি হঠাৎই শাবল নিয়ে নিজের পরিবারের ওপর হামলা চালায়। প্রথমেই সে নিজের দুই মেয়ে ও দাদাকে হত্যা করে। এরপর রাস্তা দিয়ে হেঁটে যাওয়া এক ব্যক্তির ওপর চড়াও হয়। ওই পথচারীকে বাঁচাতে গিয়ে সত্যজিৎ মালিক নামে খোয়াই থানার এক পুলিশ সদস্যও নিহত হন।

হামলার সময় বাধা দিতে গিয়ে প্রদীপ দেব রায়ের স্ত্রী মীনা দেবীও আহত হন। গুরুতর অবস্থায় তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, রাজমিস্ত্রি প্রদীপ বেশ কিছুদিন ধরে মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন। পরিবারের লোকজনের সঙ্গে কথা বলা বন্ধ করে দিয়েছিলেন। শুক্রবার রাতে তিনি হঠাৎই শাবল নিয়ে হামলা চালালে তার দুই মেয়ে ও দাদা প্রাণ হারান। এরপর বাড়ির বাইরে বেরিয়ে পাড়ার ঘরে ঘরে গিয়ে হামলা চালালে স্থানীয়রা পুলিশে খবর দেয়। এ সময় এক পথচারীকেও খুন করেন তিনি। আর পথচারীকে বাঁচাতে গিয়ে খুন হন খোয়াই থানার পুলিশকর্মী সত্যজিৎ মালিক।

পুলিশ জানায়, ‘অভিযুক্ত প্রদীপকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে মনে করা হচ্ছে, ধৃত ব্যক্তি মানসিক অবসাদের শিকার। বিষয়টি তদন্ত করছে পুলিশ।

আরও পড়ুন:
ক্রিসমাস প্যারেডে গাড়িচাপায় নিহত ৫, প্রায় অর্ধশত আহত
টাকার দরপতনে বিদেশি ঋণধারীদের মাথায় হাত
লাগামহীন ডলার, ব্যাংকগুলোই বিক্রি করছে ৯০ টাকায়
ডলারের দাম একেক জায়গায় একেক রকম কেন
বিদেশিদের ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা তুলে নিল যুক্তরাষ্ট্র

শেয়ার করুন

উদ্বেগের নাম করোনার নতুন ধরন ‘ওমিক্রন’

উদ্বেগের নাম করোনার নতুন ধরন ‘ওমিক্রন’

করোনার নতুন ধরন ওমিক্রনের ভয়াবহতার খবরে আফ্রিকার দেশগুলোর ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে পশ্চিমা দেশগুলো। ছবি: সংগৃহীত

যুক্তরাজ্যের একজন স্বাস্থ্য কর্মকর্তা বলেছেন, করোনাভাইরাস প্রতিরোধী যেসব টিকা আছে নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রনের ক্ষেত্রে সেগুলো ‘অকার্যকর’ হয়ে পড়তে পারে।

আফ্রিকার দক্ষিণাঞ্চল থেকে সম্প্রতি ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ‘বি.১.১.৫২৯’ নাম দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। এখন থেকে এই ধরনটিকে ‘ওমিক্রন’ নামে ডাকা হবে। বলা হচ্ছে, করোনার এই ধরনটি খুবই উদ্বেগের ।

এই ধরন কতটা প্রাণঘাতী ও সংক্রামক সেসব জানতে কাজ করছেন বিজ্ঞানীরা। অথচ এর আগেই আফ্রিকার দেশগুলোর ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা দিয়ে বসে আছে পশ্চিমা দেশগুলো।

বিভিন্ন প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কোভিড-১৯-এর এখন পর্যন্ত যতগুলো ধরন আছে তার মধ্যে ওমিক্রন সবচেয়ে জটিল। বিশ্বজুড়ে উদ্বেগ ছড়ানো ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের মতোই।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বরাতে বিবিসি লিখেছে, ওমিক্রনের অনেকবার মিউটেশন ঘটেছে। এই ভ্যারিয়েন্টে বারংবার আক্রান্ত হওয়ারও ঝুঁকি রয়েছে।

নতুন ধরনটি সাউথ আফ্রিকায় প্রথম শনাক্ত হয় বলে ২৪ নভেম্বর জানায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। বতসোয়ানা, বেলজিয়াম, হংকং ও ইসরায়েলেও এই ধরন শনাক্তের তথ্য পাওয়া গেছে।

ওমিক্রনের ভয়াবহতার শঙ্কায় আফ্রিকার দক্ষিণাঞ্চলীয় দেশগুলোর সঙ্গে এরই মধ্যে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে অনেক দেশ।

সাউথ আফ্রিকা, নামিবিয়া, জিম্বাবুয়ে, বতসোয়ানা, লেসেথোর মতো দেশগুলোর নাগরিকের ওপর ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে যুক্তরাজ্য। তবে যুক্তরাজ্য বা আয়ারল্যান্ডের নাগরিকদের ক্ষেত্রে এ নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হবে না।

আফ্রিকার এসব দেশের সঙ্গে বিমান যোগাযোগ বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত দেশগুলো। এটা কার্যকর হবে সোমবার থেকে।

এক বিবৃতিতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছে, শুরুর দিকে নতুন ভ্যারিয়েন্টটির নাম দেয়া হয়েছিল বি.১.১.৫২৯। এই ধরন নিয়ে আলোচনার সুবিধার জন্য নতুন নাম দেয়া হয়েছে ওমিক্রন। এটি সাউথ আফ্রিকার প্রায় সব প্রদেশেই পাওয়া গেছে।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘এই ভ্যারিয়েন্টের অনেকবার মিউটেশন ঘটেছে, এগুলোর কয়েকটির ভয়াবহতা উদ্বেগ সৃষ্টির হওয়ার মতো।’

তবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে, করোনার এই ধরনটির প্রভাব কেমন হতে পারে তা বুঝতে কয়েক সপ্তাহ সময় লাগবে। এটি কতটা ছোঁয়াছে তা বুঝতে কাজ করছেন বিজ্ঞানীরা।

যুক্তরাজ্যের একজন স্বাস্থ্য কর্মকর্তা বলেছেন, করোনাভাইরাস প্রতিরোধী যেসব টিকা আছে নতুন ভ্যারিয়েন্টটির ক্ষেত্রে সেগুলো ‘অকার্যকর’ হয়ে পড়তে পারে।

তবে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের স্ট্রাকচারাল বায়োলজিস্ট অধ্যাপক জেমস নেইস্মিথ বলেছেন, ‘এটা খারাপ একটি খবর। তবে এখানেই পৃথিবীর শেষ নয়।’

আরও পড়ুন:
ক্রিসমাস প্যারেডে গাড়িচাপায় নিহত ৫, প্রায় অর্ধশত আহত
টাকার দরপতনে বিদেশি ঋণধারীদের মাথায় হাত
লাগামহীন ডলার, ব্যাংকগুলোই বিক্রি করছে ৯০ টাকায়
ডলারের দাম একেক জায়গায় একেক রকম কেন
বিদেশিদের ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা তুলে নিল যুক্তরাষ্ট্র

শেয়ার করুন