চীনে ‘ঐশ্বরিক ক্ষমতায়’ প্রেসিডেন্ট শি

চীনে ‘ঐশ্বরিক ক্ষমতায়’ প্রেসিডেন্ট শি

মাও সেতুংয়ের পর চীনের সবচেয়ে প্রভাবশালী রাষ্ট্রপ্রধান শি চিনপিং। ফাইল ছবি/এএফপি

মাও সেতুং ও দেং শিয়াওপিংয়ের সমপর্যায়ের নেতা হিসেবে মর্যাদায় ভূষিত করা হয়েছে চিনপিংকে। প্রয়াত এই দুই নেতাও একই রকম দুটি প্রস্তাব পাসের মাধ্যমে চীনের সর্বশ্রেষ্ঠ রাষ্ট্রপ্রধান হিসেবে নিজেদের অবস্থান সুদৃঢ় করেছিলেন। যথাক্রমে ১৯৪৫ ও ১৯৮১ সালে পাস হয়েছিল প্রস্তাব দুটি।

চীনের প্রেসিডেন্ট শি চিনপিংয়ের ক্ষমতা আরও এক ধাপ বাড়িয়েছে ক্ষমতাসীন কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিসি)। কর্তৃত্ব বাড়াতে বৃহস্পতিবার বিরল প্রস্তাব পাস করে সিপিসি।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়, প্রস্তাবটি পাসের ফলে চিনপিংয়ের ক্ষমতার বলয় আরও সম্প্রসারিত ও সুদৃঢ় হবে বলে মনে করা হচ্ছে। একই সঙ্গে আগামী বছর রাষ্ট্রপ্রধান চিনপিংয়ের টানা তৃতীয় মেয়াদ নিশ্চিত হতে পারে, চীনের ইতিহাসে যা নজিরবিহীন।

সিপিসির ১০০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে দলের ‘অর্জন ও ঐতিহাসিক অভিজ্ঞতা’র কথা তুলে ধরা হয় প্রস্তাবটিতে। চার দিনের রুদ্ধদ্বার বৈঠকের শেষ দিনে প্রস্তাবটি পাস করা হয়। এতে অংশ নেন সিপিসির কেন্দ্রীয় কমিটির তিন শতাধিক শীর্ষ নেতা।

চীনের রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম সিসিটিভি জানিয়েছে, প্রস্তাবে মাও সেতুং ও দেং শিয়াওপিংয়ের সমপর্যায়ের নেতা হিসেবে মর্যাদায় ভূষিত করা হয়েছে চিনপিংকে।

প্রয়াত এই দুই নেতাও একই রকম দুটি প্রস্তাব পাসের মাধ্যমে চীনের সর্বশ্রেষ্ঠ রাষ্ট্রপ্রধান হিসেবে নিজেদের অবস্থান সুদৃঢ় করেছিলেন। যথাক্রমে ১৯৪৫ ও ১৯৮১ সালে পাস হয়েছিল প্রস্তাব দুটি।

সিক্সথ প্লেনাম হিসেবে পরিচিত চলতি সপ্তাহের বৈঠকে সিপিসি নিজেদের একটি মতাদর্শের আওতায় চিনপিংয়ের মর্যাদা উন্নীত করেছে। সরকারি নথিতে প্রথমবারের মতো ‘নতুন যুগের সূচনায় চীনা বৈশিষ্ট্যের সঙ্গে সংগতিপূর্ণ সমাজতন্ত্রের বিষয়ে শি চিনপিং ধারণা’র নেপথ্যে চিনপিংকে ‘প্রধান উদ্ভাবক’ আখ্যা দেয়া হয়েছে।

এর আগে এই মতবাদকে সিপিসি ‘দল ও জনতার অভিজ্ঞতা ও জ্ঞানের সমন্বিত’ পণ্য হিসেবে আখ্যায়িত করেছিল।

বিশ্লেষকরা বলছেন, আগামী বছরের দ্বিতীয়ার্ধে সিপিসির দলীয় কংগ্রেসে ‘নতুন যুগের সূচনায় চীনা বৈশিষ্ট্যের সঙ্গে সংগতিপূর্ণ সমাজতন্ত্রের বিষয়ে শি চিনপিং ধারণা’ কথাটি সংক্ষিপ্ত হয়ে ‘শি চিনপিং মতবাদ’ হয়ে যেতে পারে। দেশের ইতিহাসে প্রথম রাষ্ট্রপ্রধান হিসেবে চিনপিংয়ের তৃতীয় মেয়াদ নিশ্চিতের পর ঘটতে পারে এমন কিছু।

ওয়াশিংটনভিত্তিক থিংক ট্যাংক সেন্টার ফর স্ট্র্যাটেজিক অ্যান্ড ইন্টারন্যাশনাল স্টাডিজের চীনা রাজনীতিবিষয়ক বিশেষজ্ঞ জুডি ব্ল্যানশেটের মতে, দল চিনপিংকে এক ধরনের ঐশ্বরিক আসনে বসাচ্ছে।

সিসিটিভির প্রকাশিত ফুটেজে দেখা গেছে, বৈঠকে চিনপিংয়ের দিকে মুখ করে বসা দলীয় প্রতিনিধিরা প্রস্তাবটির পক্ষে সর্বসম্মতি জানিয়ে হাত তুলেছেন।

চীনের পিকিং ইউনিভার্সিটির রাষ্ট্রবিজ্ঞানের প্রভাষক ইয়াং চাওহুই বলেন, ‘দলীয় শৃঙ্খলা ও বিশ্বস্ততার প্রতি সিপিসি যেরকম কঠোর, তাতে কোনো সদস্য প্রস্তাবে সমর্থন না দিলে তার পরিণতি খুব খারাপ হতে পারত।’

মাও সেতুংয়ের পর চীনের সবচেয়ে ক্ষমতাধর রাষ্ট্রপ্রধান মনে করা হয় শি চিনপিংকে।

আরও পড়ুন:
১০ বছরে এক হাজার পারমাণবিক অস্ত্র মজুত করবে চীন

শেয়ার করুন

মন্তব্য

যুক্তরাজ্যে করোনার নতুন ধরন ওমিক্রনে শনাক্ত ২

যুক্তরাজ্যে করোনার নতুন ধরন ওমিক্রনে শনাক্ত ২

স্বাস্থ্যমন্ত্রী সাজিদ জাভিদ বলেন, ‘গত রাতে যুক্তরাজ্যের স্বাস্থ্য নিরাপত্তা সংস্থা আমার সঙ্গে যোগাযোগ করে। তারা দেশে দুই জনের শরীরে ওমিক্রন শনাক্ত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।’

যুক্তরাজ্যে দুইজনের শরীরে করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রন শনাক্ত হয়েছে। এরা সম্প্রতি সাউথ আফ্রিকায় ভ্রমণের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন।

শনিবার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন যুক্তরাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রী সাজিদ জাভিদ।

এদিন বার্তাসংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

তিনি বলেন, ‘গত রাতে যুক্তরাজ্যের স্বাস্থ্য নিরাপত্তা সংস্থা আমার সঙ্গে যোগাযোগ করে। তারা দেশে দুই জনের শরীরে ওমিক্রন শনাক্ত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।’

আফ্রিকার দক্ষিণাঞ্চল থেকে সম্প্রতি ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ‘বি.১.১.৫২৯’ নাম দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। এখন থেকে এই ধরনটিকে ‘ওমিক্রন’ নামে ডাকা হবে। বলা হচ্ছে, করোনার এই ধরনটি খুবই উদ্বেগের ।

এই ধরন কতটা প্রাণঘাতী ও সংক্রামক সেসব জানতে কাজ করছেন বিজ্ঞানীরা। এর আগেই আফ্রিকার দেশগুলোর ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে পশ্চিমা দেশগুলো।

বিভিন্ন প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কোভিড-১৯-এর এখন পর্যন্ত যতগুলো ধরন আছে তার মধ্যে ওমিক্রন সবচেয়ে জটিল। বিশ্বজুড়ে উদ্বেগ ছড়ানো ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের মতোই।

নতুন ধরনটি সাউথ আফ্রিকায় প্রথম শনাক্ত হয় বলে ২৪ নভেম্বর জানায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। বতসোয়ানা, বেলজিয়াম, হংকং ও ইসরায়েলেও এই ধরন শনাক্তের তথ্য পাওয়া গেছে।

ওমিক্রনের ভয়াবহতার শঙ্কায় আফ্রিকার দক্ষিণাঞ্চলীয় দেশগুলোর সঙ্গে এরই মধ্যে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে অনেক দেশ।

সাউথ আফ্রিকা, নামিবিয়া, জিম্বাবুয়ে, বতসোয়ানা, লেসেথোর মতো দেশগুলোর নাগরিকের ওপর ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে যুক্তরাজ্য। তবে যুক্তরাজ্য বা আয়ারল্যান্ডের নাগরিকদের ক্ষেত্রে এ নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হবে না।

আফ্রিকার এসব দেশের সঙ্গে বিমান যোগাযোগ বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত দেশগুলো। এটা কার্যকর হবে সোমবার থেকে।

আরও পড়ুন:
১০ বছরে এক হাজার পারমাণবিক অস্ত্র মজুত করবে চীন

শেয়ার করুন

খুন করে মায়ের পেট থেকে বাচ্চা চুরি

খুন করে মায়ের পেট থেকে বাচ্চা চুরি

অভিযুক্ত রোজালবা (বামে) ও গর্ভকালীন মাফরা।

ব্রাজিলের ক্যানেলিনহা শহরে ২৭ বছর বয়সী রোজালবার সঙ্গে ২৪ বছর বয়সী ফ্ল্যাভিয়া গোডিনহো মাফরার বন্ধুত্বের সম্পর্ক ছিল। খুন করার সময় ৩৬ সপ্তাহের গর্ভবতী ছিলেন মাফরা।

রোমহর্ষক এই ঘটনাটি ঘটেছে ব্রাজিলের দক্ষিণাঞ্চলীয় সান্তা ক্যাটারিনা প্রদেশের ক্যানেলিনহা শহরে। বন্ধুত্বের সুযোগ নিয়ে গর্ভবতী মাকে হত্যা করে তার পেট চিরে বাচ্চা চুরি করে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ প্রমাণিত হয়েছে আরেক নারীর বিরুদ্ধে।

শনিবার নিউ ইয়র্ক পোস্ট জানায়, অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় রোজালবা মারিয়া গ্রিম নামে ওই নারীকে ৫৭ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে ব্রাজিলের একটি আদালত।

মামলার সূত্র ধরে জানা যায়, ক্যানেলিনহা শহরে ২৭ বছর বয়সী রোজালবার সঙ্গে ২৪ বছর বয়সী ফ্ল্যাভিয়া গোডিনহো মাফরার বন্ধুত্বের সম্পর্ক ছিল। একটি স্কুলে পড়াতেন মাফরা।

২০২০ সালের ২৭ আগস্ট মাফরাকে শহরের এক প্রান্তে একটি পুরাকীর্তির স্থানে ঘুরতে যেতে প্রলুব্ধ করেন রোজালবা। সেখানে যাওয়ার পর একটি নির্জন স্থানে মাথায় একের পর এক ইটের আঘাতে মাফরাকে হত্যা করেন রোজালবা।

আঘাতের পর আঘাতে মাফরা নিস্তেজ হয়ে পড়লে একটি ধারালো ছুরি বের করেন রোজালবা। পরে এই ছুরি দিয়ে তিনি মাফরার পেট চিরে ফেলেন এবং পেটের ভেতর থেকে ৩৬ সপ্তাহের নবজাতকটিকে বের করে আনেন। পরে মাফরার মরদেহটি একটি চুল্লির ভেতর লুকিয়ে বাচ্চাটি নিয়ে পালিয়ে যান তিনি।

খুন করে মায়ের পেট থেকে বাচ্চা চুরি
আদালাতে বিচারকের সামনে রোজালবা মারিয়া গ্রিম

নৃশংস এই ঘটনার পর রোজালবা তার প্রেমিককে সঙ্গে নিয়ে নবজাতকটির প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য একটি হাসপাতালে যান। এর আগে কিছুদিন আগেই প্রেমিককে রোজালবা জানিয়েছিলেন, তিনি সন্তানসম্ভবা। তাই প্রেমিকও নবজাতকটিকে নিজের সন্তান ভেবেছিলেন।

হাসপাতালে গিয়ে কর্মীদের কাছে রোজালবা দাবি করেন, একটু আগেই তিনি বাচ্চাটির জন্ম দিয়েছেন। এই বাচ্চার এখন প্রাথমিক চিকিৎসা প্রয়োজন। কিন্তু রোজালবার আচরণ ও শারীরিক সামর্থ্য দেখে সন্দেহ হয় হাসপাতালকর্মীদের। তাই তারা ঘটনাটি খতিয়ে দেখতে পুলিশকে খবর দেন।

হত্যাকাণ্ড ও বাচ্চা চুরির সঙ্গে কোনো যোগসূত্র না থাকায় সন্দেহভাজন হিসেবে গ্রেপ্তার হওয়া রোজালবার প্রেমিককে বেকসুর খালাস দিয়েছে আদালত।

১৫ ঘণ্টার শুনানিতে আদালতকে রোজালবা জানান, মাফরাকে হত্যা পরিকল্পনাই শুধু নয়, হত্যার পর বাচ্চাটিকে কীভাবে পেট থেকে বের করে আনবেন তা নিয়েও বিস্তর পড়াশোনা করেছিলেন তিনি। অপেক্ষা করছিলেন, মায়ের গর্ভে বাচ্চাটি পরিণত হওয়ার জন্য।

আরও পড়ুন:
১০ বছরে এক হাজার পারমাণবিক অস্ত্র মজুত করবে চীন

শেয়ার করুন

দুই মেয়ে ও দাদাসহ পাঁচজনকে কুপিয়ে হত্যা

দুই মেয়ে ও দাদাসহ পাঁচজনকে কুপিয়ে হত্যা

অভিযুক্ত প্রদীপকে আটকের পর পুলিশ ভ্যানে তুলে বেঁধে রাখা হয়। ছবি: সংগৃহীত

ত্রিপুরা পুলিশের ডিজিপি ভি এস যাদব বলেন, ‘রাজমিস্ত্রি প্রদীপ শাবল দিয়ে প্রথমে নিজের দুই মেয়ে ও দাদাকে হত্যা করে। এরপর এক পথচারী ও পুলিশ সদস্যের ওপর হামলা চালায়।'

ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের খোয়াই এলাকায় এক ব্যক্তি শাবল নিয়ে অতর্কিত হামলা চালিয়ে নিজ পরিবারের তিন সদস্যসহ পাঁচজনকে হত্যা করেছে। নিহত অন্য দু’জনের মধ্যে একজন পুলিশ সদস্য ও অপরজন পথচারী।

শুক্রবার রাতেই অভিযুক্ত প্রদীপ দেব রায়কে গ্রেপ্তার করেছে খোয়াই থানা পুলিশ। পেশায় রাজমিস্ত্রি এই ব্যক্তি মানসিক ভারসাম্যহীন বলে জানা গেছে।

ত্রিপুরা পুলিশের ডিজিপি ভি এস যাদব বলেন, ‘ওই রাজমিস্ত্রি হঠাৎই শাবল নিয়ে নিজের পরিবারের ওপর হামলা চালায়। প্রথমেই সে নিজের দুই মেয়ে ও দাদাকে হত্যা করে। এরপর রাস্তা দিয়ে হেঁটে যাওয়া এক ব্যক্তির ওপর চড়াও হয়। ওই পথচারীকে বাঁচাতে গিয়ে সত্যজিৎ মালিক নামে খোয়াই থানার এক পুলিশ সদস্যও নিহত হন।

হামলার সময় বাধা দিতে গিয়ে প্রদীপ দেব রায়ের স্ত্রী মীনা দেবীও আহত হন। গুরুতর অবস্থায় তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, রাজমিস্ত্রি প্রদীপ বেশ কিছুদিন ধরে মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন। পরিবারের লোকজনের সঙ্গে কথা বলা বন্ধ করে দিয়েছিলেন। শুক্রবার রাতে তিনি হঠাৎই শাবল নিয়ে হামলা চালালে তার দুই মেয়ে ও দাদা প্রাণ হারান। এরপর বাড়ির বাইরে বেরিয়ে পাড়ার ঘরে ঘরে গিয়ে হামলা চালালে স্থানীয়রা পুলিশে খবর দেয়। এ সময় এক পথচারীকেও খুন করেন তিনি। আর পথচারীকে বাঁচাতে গিয়ে খুন হন খোয়াই থানার পুলিশকর্মী সত্যজিৎ মালিক।

পুলিশ জানায়, ‘অভিযুক্ত প্রদীপকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে মনে করা হচ্ছে, ধৃত ব্যক্তি মানসিক অবসাদের শিকার। বিষয়টি তদন্ত করছে পুলিশ।

আরও পড়ুন:
১০ বছরে এক হাজার পারমাণবিক অস্ত্র মজুত করবে চীন

শেয়ার করুন

উদ্বেগের নাম করোনার নতুন ধরন ‘ওমিক্রন’

উদ্বেগের নাম করোনার নতুন ধরন ‘ওমিক্রন’

করোনার নতুন ধরন ওমিক্রনের ভয়াবহতার খবরে আফ্রিকার দেশগুলোর ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে পশ্চিমা দেশগুলো। ছবি: সংগৃহীত

যুক্তরাজ্যের একজন স্বাস্থ্য কর্মকর্তা বলেছেন, করোনাভাইরাস প্রতিরোধী যেসব টিকা আছে নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রনের ক্ষেত্রে সেগুলো ‘অকার্যকর’ হয়ে পড়তে পারে।

আফ্রিকার দক্ষিণাঞ্চল থেকে সম্প্রতি ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ‘বি.১.১.৫২৯’ নাম দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। এখন থেকে এই ধরনটিকে ‘ওমিক্রন’ নামে ডাকা হবে। বলা হচ্ছে, করোনার এই ধরনটি খুবই উদ্বেগের ।

এই ধরন কতটা প্রাণঘাতী ও সংক্রামক সেসব জানতে কাজ করছেন বিজ্ঞানীরা। অথচ এর আগেই আফ্রিকার দেশগুলোর ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা দিয়ে বসে আছে পশ্চিমা দেশগুলো।

বিভিন্ন প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কোভিড-১৯-এর এখন পর্যন্ত যতগুলো ধরন আছে তার মধ্যে ওমিক্রন সবচেয়ে জটিল। বিশ্বজুড়ে উদ্বেগ ছড়ানো ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের মতোই।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বরাতে বিবিসি লিখেছে, ওমিক্রনের অনেকবার মিউটেশন ঘটেছে। এই ভ্যারিয়েন্টে বারংবার আক্রান্ত হওয়ারও ঝুঁকি রয়েছে।

নতুন ধরনটি সাউথ আফ্রিকায় প্রথম শনাক্ত হয় বলে ২৪ নভেম্বর জানায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। বতসোয়ানা, বেলজিয়াম, হংকং ও ইসরায়েলেও এই ধরন শনাক্তের তথ্য পাওয়া গেছে।

ওমিক্রনের ভয়াবহতার শঙ্কায় আফ্রিকার দক্ষিণাঞ্চলীয় দেশগুলোর সঙ্গে এরই মধ্যে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে অনেক দেশ।

সাউথ আফ্রিকা, নামিবিয়া, জিম্বাবুয়ে, বতসোয়ানা, লেসেথোর মতো দেশগুলোর নাগরিকের ওপর ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে যুক্তরাজ্য। তবে যুক্তরাজ্য বা আয়ারল্যান্ডের নাগরিকদের ক্ষেত্রে এ নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হবে না।

আফ্রিকার এসব দেশের সঙ্গে বিমান যোগাযোগ বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত দেশগুলো। এটা কার্যকর হবে সোমবার থেকে।

এক বিবৃতিতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছে, শুরুর দিকে নতুন ভ্যারিয়েন্টটির নাম দেয়া হয়েছিল বি.১.১.৫২৯। এই ধরন নিয়ে আলোচনার সুবিধার জন্য নতুন নাম দেয়া হয়েছে ওমিক্রন। এটি সাউথ আফ্রিকার প্রায় সব প্রদেশেই পাওয়া গেছে।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘এই ভ্যারিয়েন্টের অনেকবার মিউটেশন ঘটেছে, এগুলোর কয়েকটির ভয়াবহতা উদ্বেগ সৃষ্টির হওয়ার মতো।’

তবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে, করোনার এই ধরনটির প্রভাব কেমন হতে পারে তা বুঝতে কয়েক সপ্তাহ সময় লাগবে। এটি কতটা ছোঁয়াছে তা বুঝতে কাজ করছেন বিজ্ঞানীরা।

যুক্তরাজ্যের একজন স্বাস্থ্য কর্মকর্তা বলেছেন, করোনাভাইরাস প্রতিরোধী যেসব টিকা আছে নতুন ভ্যারিয়েন্টটির ক্ষেত্রে সেগুলো ‘অকার্যকর’ হয়ে পড়তে পারে।

তবে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের স্ট্রাকচারাল বায়োলজিস্ট অধ্যাপক জেমস নেইস্মিথ বলেছেন, ‘এটা খারাপ একটি খবর। তবে এখানেই পৃথিবীর শেষ নয়।’

আরও পড়ুন:
১০ বছরে এক হাজার পারমাণবিক অস্ত্র মজুত করবে চীন

শেয়ার করুন

মিসরে ফের চালু ৩০০০ বছর আগের রাজপথ

মিসরে ফের চালু ৩০০০ বছর আগের রাজপথ

ফারাওদের সময়ে এই রাজপথ ধরে যে ধরনের শোভাযাত্রা বের হতো, উদ্বোধনীর দিনে সেই আদলে আয়োজন করা হয়েছে। ছবি: সংগৃহীত

‘অ্যাভিনিউ অফ স্ফিংস’ নামের এই রাজপথটি সম্প্রতি জাঁকজমকপূর্ণ অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে খুলে দেয়া হয়েছে। ফারাও যুগের রাজকীয় রথ এবং শত শত শিল্পীরা যে পথটি ব্যবহার করতেন সেটি খুঁড়ে বের করতে সময় লেগেছে কয়েক দশক।

মিসরের লাক্সর শহরে তিন হাজার বছর আগের একটি রাজপথ আবারও চালু করা হয়েছে।

‘অ্যাভিনিউ অফ স্ফিংস’ নামের এই পথটি সম্প্রতি জাঁকজমকপূর্ণ অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে খুলে দেয়া হয়েছে।

ফারাও যুগের রাজকীয় রথ এবং শত শত শিল্পীরা যে পথটি ব্যবহার করতেন সেটি খুঁড়ে বের করতে সময় লেগেছে কয়েক দশক।

বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ফারাওদের সময়ে প্রতি বছর এই সড়ক ধরে যে ধরনের শোভাযাত্রা বের হতো, উদ্বোধনীর দিনে সেই আদলে আয়োজন করা হয়েছে।

এই অনুষ্ঠানে যে সংগীত ব্যবহার করা হয় এর কথা নেয়া হয়েছে মন্দিরের দেয়ালের হায়ারোগ্লিফিকসে লেখা নানা গল্প থেকে।

মিসরে এখন চলছে করোনা মহামারি এবং নানা ধরনের রাজনৈতিক গোলমাল।

কিন্তু সরকার আশা করছে, এই নতুন দর্শনীয় স্থান দেশের মুখ থুবড়ে পড়া পর্যটন শিল্পকে চাঙ্গা করতে সাহায্য করবে।

আরও পড়ুন:
১০ বছরে এক হাজার পারমাণবিক অস্ত্র মজুত করবে চীন

শেয়ার করুন

পৌরসভা ভোটে তৃণমূলের প্রার্থী তালিকায় ফিরহাদ

পৌরসভা ভোটে তৃণমূলের প্রার্থী তালিকায় ফিরহাদ

পশ্চিমবঙ্গের পরিবহনমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। ছবি: ফেসবুক

বাবুল সুপ্রিয়কে কলকাতার মেয়র প্রার্থী করা হতে পারে বলে রাজনৈতিক মহলের জল্পনা ছিল। তবে শুক্রবারের প্রকাশিত তৃণমূলের কলকাতা পৌরসভা নির্বাচনের প্রার্থী তালিকায় বাবুলের নাম নেই। ফলে পরিবহন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমের নাম আবারও মেয়র প্রার্থী হিসেবে উঠে এসেছে।

এক ব্যক্তি এক পদ নীতি মেনে তৃণমূল এবার কলকাতা পৌরসভা ভোটের প্রার্থী দেবে এমনটাই কথা ছিল। তবে সব কথা পেরিয়ে রাজ্যের পরিবহনমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমসহ ছয়জন বিধায়ককে পৌরসভা ভোটে প্রার্থী করেছে তৃণমূল কংগ্রেস।

মেয়র পদ প্রার্থী ছাড়াই তৃণমূল তাদের প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করেছে। সম্প্রতি বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন সাবেক কেন্দ্রীয় মন্ত্রী, গায়ক, রাজনীতিক বাবুল সুপ্রিয়।

তাকে কলকাতার মেয়র প্রার্থী করা হতে পারে বলে রাজনৈতিক মহলের জল্পনা ছিল। তবে শুক্রবারের প্রকাশিত তৃণমূলের কলকাতা পৌরসভা নির্বাচনের প্রার্থী তালিকায় বাবুলের নাম নেই। ফলে পরিবহন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমের নাম আবারও মেয়র প্রার্থী হিসেবে উঠে এসেছে।

এ প্রসঙ্গে তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘ভোটের পর কাউন্সিলররা বসে সেই সিদ্ধান্ত নেবেন। এখন থেকে কিছু ঠিক করা হচ্ছে না।’

১৪৪টি কেন্দ্রে তৃণমূলের প্রার্থী চূড়ান্ত করা হয়েছে বলে ঘোষণা করেন তৃণমূল নেতা সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়। ৮৭ জন বিদায়ী কাউন্সিলরকে প্রার্থী করা হয়েছে। ৩৯ জনকে বাদ দেয়া হয়েছে। এবারের প্রার্থীদের মধ্যে ৮০ জন পুরুষ ও ৬৪ জন মহিলা রয়েছেন। অন্যান্য দলকে ছাড়া হয়েছে ১৮টি আসন। সংখ্যালঘু সম্প্রদায় থেকে ২৩ জনকে প্রার্থী করা হয়েছে।

শুক্রবার প্রার্থী তালিকা ঘোষণার আগে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দলের অন্যান্য নেতৃত্বের উপস্থিতিতে বৈঠক করেন। সেখানে উপস্থিত ছিলেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় ও তৃণমূলের ভোট কুশলী প্রশান্ত কিশোর।

দীর্ঘ বৈঠকের পর তালিকা প্রকাশ করা হয়। ফিরহাদ হাকিম ছাড়া বিধায়ক দেবাশীষ কুমার, অতীন ঘোষ, দেবব্রত মজুমদার এবং সাংসদ মালা রায়কে এবার প্রার্থী করা হয়েছে কলকাতা পৌরসভার ভোটে।

বৃহস্পতিবার নির্বাচন কমিশন ১৯ ডিসেম্বর কলকাতা পৌরসভার দিন ঘোষণা করেছে। শুক্রবার সকালে প্রথমে বামফ্রন্ট তাদের প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করে। এরপর সন্ধ্যায় তৃণমূল কংগ্রেস তাদের প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করে। বিজেপি এখনও তাদের প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করতে পারেনি।

আরও পড়ুন:
১০ বছরে এক হাজার পারমাণবিক অস্ত্র মজুত করবে চীন

শেয়ার করুন

আফগানিস্তানে লিথিয়ামের খনি খুঁজছে চীন

আফগানিস্তানে লিথিয়ামের খনি খুঁজছে চীন

ছবি: দ্য এক্সপ্রেস ট্রিবিউন

চীন-আরব অর্থনৈতিক ও বাণিজ্যিক প্রচার কমিটির পরিচালক ইয়ো মিংগুই জানিয়েছেন, আফগান খনি মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে সমঝোতার মাধ্যমেই চীনা বিশেষজ্ঞদের একটি দল দেশটিতে পৌঁছেছে।

বর্তমান বিশ্বের অপরিহার্য উপাদান লিথিয়াম। কারণ জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় জীবাশ্ম জ্বালানির বিকল্প হিসেবে বৈদ্যুতিক শক্তিকে কাজে লাগাতে চাইছে মানুষ। অর্থাৎ তেল-কয়লার বদলে ব্যাটারিচালিত প্রযুক্তির দিকে ঝুঁকছে পৃথিবী। আর এই ব্যাটারি তৈরি করতেই প্রয়োজন লিথিয়াম ধাতুটি। বলা হচ্ছে, দুষ্প্রাপ্য এই ধাতু এখন সোনার চেয়েও দামি।

তবে ভৌগলিক অবস্থান ও ভূপ্রাকৃতিক বৈশিষ্ট্যের কারণে আফগানিস্তানের মাটিতে মহামূল্যবান এই ধাতুটির বিপুল খনি থাকার সম্ভাবনা দেখছে চীন। ধারণা করা হচ্ছে, দেশটিতে কম করে হলেও এক ট্রিলিয়ন ডলার মূল্যের লিথিয়ামের মজুদ রয়েছে।

গ্লোবাল টাইমসের বরাতে পাকিস্তানি গণমাধ্যম দ্য এক্সপ্রেস ট্রিবিউন জানিয়েছে, অন্তত পাঁচটি চীনা কোম্পানি আফগানিস্তানে লিথিয়ামের খনি অনুসন্ধান করার প্রক্রিয়া শুরু করেছে। সম্প্রতি এসব কোম্পানির প্রতিনিধিদের একটি দল বিশেষ ভিসা নিয়ে যুদ্ধ-বিধ্বস্ত আফগানিস্তানের মাটিতে পা রেখেছেন। তারা দেশটির বিভিন্ন অঞ্চলে গিয়ে লিথিয়ামের খনি অনুসন্ধান করবেন।

তবে, আফগানিস্তানে বর্তমান তালেবান সরকার যখন ক্ষমতা পাকাপোক্ত করার প্রচেষ্টা চালাচ্ছে তখন এ ধরনের অনুসন্ধান কার্যক্রমকে কিছুটা ঝুঁকিপূর্ণও মানছে চীনা কোম্পানিগুলো।

চীন-আরব অর্থনৈতিক ও বাণিজ্যিক প্রচার কমিটির পরিচালক ইয়ো মিংগুই বলেছেন, ‘আফগান খনি মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে সমঝোতার মাধ্যমেই বিশেষজ্ঞ দলটির বিশেষ ভিসা নিশ্চিত হয়েছে।’

মিংগুই জানান, নিরাপত্তার গ্যারান্টি নিয়েই চীনা বিশেষজ্ঞরা এখন আফগানিস্তানে খনির অনুসন্ধান শুরু করেছে।

তিনি বলেন, ‘কেউ কেউ বিশ্বাস করেন, চীন এবং আফগানিস্তানের মধ্যে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের ফলেই চীনা কোম্পানিগুলো তাদের অপারেশন চালানোর অনুমোদন পেয়েছে।’

আরও পড়ুন:
১০ বছরে এক হাজার পারমাণবিক অস্ত্র মজুত করবে চীন

শেয়ার করুন