× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

আন্তর্জাতিক
Not using Afghanistan against China Taliban
hear-news
player
google_news print-icon

চীনের বিরুদ্ধে আফগানিস্তানকে ব্যবহার নয়: তালেবান

চীনের-বিরুদ্ধে-আফগানিস্তানকে-ব্যবহার-নয়-তালেবান
তিয়ানজিনে চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ইর সঙ্গে সফররত তালেবান প্রতিনিধি দলের প্রধান আলোচক মোল্লা বারাদার আখুন্দ। ছবি: এএফপি
আফগানিস্তানে বর্তমান সহিংস পরিস্থিতির জন্য পশ্চিমা বিশ্ব তালেবানকে দায়ী করলেও গোষ্ঠীটিকে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে স্বীকৃতি দিয়েছে চীন। চীনে তালেবানের সফরে সে স্বীকৃতি আরও জোরদার হলো বলে মত নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞদের।

কোনো শক্তিকেই চীনের বিরুদ্ধে আফগান ভূখণ্ড ব্যবহার করতে দেবে না বলে বেইজিংকে আশ্বস্ত করেছে আফগানিস্তানের ধর্মভিত্তিক সশস্ত্র রাজনৈতিক সংগঠন তালেবান।

চীন সফররত তালেবান প্রতিনিধিদের একটি দল বুধবার চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ইর সঙ্গে সাক্ষাতে এ আশ্বাস দেয়।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে জানানো হয়, বেইজিংয়ের আমন্ত্রণে তালেবানের ৯ সদস্যের দলটি দুই দিনের সফরে চীনের উত্তরাঞ্চলীয় তিয়ানজিন শহরে অবস্থান করছে। বৈঠকের আলোচ্য হলো শান্তি আলোচনা ও নিরাপত্তা ইস্যু।

তালেবানের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাঈম সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারে লিখেছেন, ‘আফগানিস্তান ও চীনের রাজনীতি, অর্থনীতি ও অন্যান্য ইস্যু, আফগানিস্তানের বর্তমান পরিস্থিতি ও শান্তি প্রক্রিয়া নিয়ে আলোচনা হয়েছে।’

নাঈম বলেন, ‘চীনের বিরুদ্ধে আফগান ভূখণ্ডকে ব্যবহার করতে দেয়া হবে না বলে চীনা সরকারকে নিশ্চিত করেছে তালেবান প্রতিনিধিদলটি। প্রতিক্রিয়ায় চীনও আফগানিস্তানের প্রতি সহযোগিতা অব্যাহত রাখার আশ্বাস দিয়েছে।’

তিনি জানান, আফগানিস্তানের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপ না করে বরং সংকট সমাধান ও শান্তি প্রতিষ্ঠায় সহযোগিতা করবে বলে জানিয়েছে বেইজিং।

তালেবানের পক্ষে প্রধান আলোচক ছিলেন তালেবানের উপপ্রধান মোল্লা বারাদার আখুন্দ। তিনি আফগানিস্তানে চীনের বিশেষ দূতের সঙ্গেও বৈঠক করেছেন।

যুক্তরাষ্ট্র ও আন্তর্জাতিক জোটের পূর্ণাঙ্গ সেনা প্রত্যাহারের মুখে চীনের সীমান্তসংলগ্ন প্রতিবেশী আফগানিস্তানের নিরাপত্তা পরিস্থিতি ক্রমেই জটিল হয়ে উঠছে। আফগানিস্তানের বিভিন্ন অঞ্চলে আগ্রাসী হয়ে উঠছে তালেবান। দখলে নিয়েছে দেশটির ৪১৯ জেলার অর্ধেকের বেশি।

ইরান, তাজিকিস্তান, পাকিস্তানসহ বিভিন্ন দেশের সঙ্গে আফগানিস্তানের গুরুত্বপূর্ণ সীমান্ত নিরাপত্তা চৌকি ও বর্ডার ক্রসিংও নিয়ন্ত্রণে নিয়েছে তালেবান।

কাতারের রাজধানী দোহায় তালেবানের সঙ্গে চলমান শান্তি আলোচনাতেও খুব একটা অগ্রগতি নেই।

চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, আফগানিস্তানে যুদ্ধে ইতি টানতে এবং দেশ পুনর্গঠনে তালেবান গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে আশাবাদী বেইজিং।

বিবৃতিতে বলা হয়, আফগানিস্তানে চলমান সংকটের শান্তিপূর্ণ সমাধান বের করতে তালেবানকে অগ্রণী ভূমিকা রাখার আহ্বান জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই।

একই সঙ্গে চীনের নিরাপত্তায় ঝুঁকি হিসেবে ইস্ট তুর্কিস্তান ইসলামিক মুভমেন্ট বিদ্রোহীদের দমনে তালেবানকে সহযোগিতারও আহ্বান জানিয়েছে বেইজিং। চীনের পশ্চিমাঞ্চলীয় জিনজিয়াং প্রদেশে সক্রিয় বিদ্রোহী সংগঠনটি।

আফগানিস্তানে বর্তমান সহিংস পরিস্থিতির জন্য পশ্চিমা বিশ্ব তালেবানকে দায়ী করলেও গোষ্ঠীটিকে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে স্বীকৃতি দিয়েছে চীন। চীনে তালেবানের সফরে সে স্বীকৃতি আরও জোরদার হলো বলে মত নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞদের।

আরও পড়ুন:
তালেবানের ‘পক্ষে বলায়’ আফগানিস্তানে ৪ সাংবাদিক গ্রেপ্তার
আফগানিস্তানে আবার যেভাবে তালেবান
আফগানিস্তানে ২ মাসে ২৪০০ জনের মৃত্যু: জাতিসংঘ
তালেবানের ভয়ে কান্দাহার ছেড়েছে দেড় লাখ মানুষ
ঈদের নামাজে হামলা: কমান্ডারসহ তালেবানের ৪ সদস্য গ্রেপ্তার

মন্তব্য

আরও পড়ুন

আন্তর্জাতিক
Modi opened his mouth about the documentary

ডকুমেন্টারি নিয়ে মুখ খুললেন মোদি

ডকুমেন্টারি নিয়ে মুখ খুললেন মোদি ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ছবি: সংগৃহীত
মোদি বলেন, ‘‌দেশে বিভেদ তৈরির প্রচেষ্টা চলছে । এরপরেও ভারতের জনগণের মধ্যে বিভেদ তৈরি হবে না।’

ভারতের গুজরাটের দাঙ্গায় দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ভূমিকা নিয়ে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি নির্মিত ডকুমেন্টারিটি দেশটিতে তুমুল বিতর্ক তৈরি করেছে। এরমধ্যেই মোদি হুঁশিয়ারি দিয়ে বললেন, ভারতে যে বিভেদ তৈরির প্রচেষ্টা চলছে তা সফল হবে না।

দিল্লি ক্যান্টনমেন্টে কারিয়াপ্পা গ্রাউন্ডে ন্যাশনাল ক্যাডেট কর্পসের (এনসিসি) এক সমাবেশে দেয়া বক্তব্যে ভারতের প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

মোদি বলেন, ‘‌দেশে বিভেদ তৈরির প্রচেষ্টা চলছে । এরপরেও ভারতের জনগণের মধ্যে বিভেদ তৈরি হবে না।’

তরুণদের উদ্দেশে ভারতের প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘‌ভারতের তরুণ সম্প্রদায়ের জন্য এটি নতুন সুযোগ নেয়ার সময়। এখন ভারতের সময়।’

অনুষ্ঠানে প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং, এনসিসির মহাপরিচালক লেফটেন্যান্ট জেনারেল গুরবিরপল সিং, ডিফেন্স স্টাফের প্রধান অনিল চৌহান, চিফ অব আর্মি স্টাফ জেনারেল মনোজ পান্ডে প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

যুক্তরাজ্য স্থানীয় সময় মঙ্গলবার ‘ইন্ডিয়া: দ্য মোদি কোশ্চেন’ নামে ডকুমেন্টারি সম্প্রচার করে বিবিসি।

ভারত সরকার ইতোমধ্যেই মোদিকে নিয়ে করা বিবিসির ডকুমেন্টারিকে ‘প্রপাগান্ডা’ হিসেবে আখ্যা দিয়েছে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এর ছড়িয়ে পড়া ঠেকাতে টুইটার ও ইউটিউবে ব্লক করার নির্দেশ দিয়েছে দেশটির কেন্দ্রীয় সরকার।

আরও পড়ুন:
ওড়িশার মন্ত্রীর বুকে পুলিশের গুলি
মোদির ডকুমেন্টারি দেখানো নিয়ে দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ে সংঘর্ষ
মোদিকে নিয়ে ডকুমেন্টারি ফের প্রদর্শন হায়দরাবাদ ইউনিভার্সিটিতে
গণিত শিক্ষক চাওয়া এই বিজ্ঞাপনই যেন এক জটিল প্রশ্নপত্র
নদীতে পরিবারের ৭ সদস্যের লাশ

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Police shot the minister in the chest

ওড়িশার মন্ত্রীর বুকে পুলিশের গুলি

ওড়িশার মন্ত্রীর বুকে পুলিশের গুলি
প্রত্যক্ষদর্শীর বরাত দিয়ে এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়, সহকারী উপ-পরিদর্শক(এএসআই) গোপাল দাস ওড়িশা রাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে লক্ষ্য করে দুই রাউন্ড গুলি ছোড়েন। এরমধ্যে একটি গুলি তার বুকে লাগে। অবস্থা সংকটজনক হওয়ায় আহত মন্ত্রীকে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে করে ভুবেনেশ্বরে নেয়া হয়েছে।

ভারতের ওড়িশা রাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রী নব কিশোর দাসের ওপর গুলি চালিয়েছেন এক পুলিশ কর্মকর্তা।

রাজ্যের ঝাড়সুগুদা জেলার ব্রজরাজনগরে রোববার একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিতে যাওয়ার সময় তার ওপর এ হামলার ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীর বরাত দিয়ে এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়, সহকারী উপ-পরিদর্শক(এএসআই) গোপাল দাস ওড়িশা রাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে লক্ষ্য করে দুই রাউন্ড গুলি ছোড়েন। এরমধ্যে একটি গুলি তার বুকে লাগে। অবস্থা সংকটজনক হওয়ায় আহত মন্ত্রীকে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে করে ভুবেনেশ্বরে নেয়া হয়েছে।

ব্রজরাজনগর পুলিশের কর্মকর্তা গুপ্তেশ্বর ভৈ সাংবাদিকদের বলেন, গোপালকে স্থানীয়রা ধরে পুলিশে সোপর্দ করেছে। হামলার কারণ এখনও জানা যায়নি।

এ ঘটনার কয়েকটি ভিডিওতে দেখা যায়, মন্ত্রী গাড়ি থেকে নেমে অনুষ্ঠাস্থলে যেতে গেলে অনেকেই তাকে ঘিরে ধরে আমন্ত্রণ জানাতে থাকেন। ওই সময়ই পুলিশের পোশাক পরা এক ব্যক্তি তাকে লক্ষ্য করে গুলি চালান। পুলিশের ধারণা,পুরো ঘটনাই পূর্বপরিকল্পিত ছিল।

এ ঘটনায় ইতিমধ্যেই তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন ওড়িশা মুখ্যমন্ত্রী নবীন পট্টনায়েক।

আরও পড়ুন:
রোহিত-কোহলিকে ছাড়াই কিউইদের বিপক্ষে দল ঘোষণা ভারতের
দলীয় রান ৭১৪, একাই ৫০৮ স্কুলছাত্রের
প্রেমিকের সামনেই সংঘবদ্ধ ধর্ষণ
ফুল বিক্রেতার বাড়িতে ১০০ কোটির প্রত্নসামগ্রী
পৌষ সংক্রান্তিতে উধাও পশ্চিমবঙ্গের শীত

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Grown up women should get married soon Assam CM

প্রাপ্তবয়স্ক নারীদের দ্রুত বিয়ে করার পরামর্শ আসামের মুখ্যমন্ত্রীর

প্রাপ্তবয়স্ক নারীদের দ্রুত বিয়ে করার পরামর্শ আসামের মুখ্যমন্ত্রীর আসামের মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা
মুখ্যমন্ত্রী বলেন, প্রাপ্তবয়স্ক যে নারীরা এখনও বিয়ে করেননি, তারা দ্রুত বিয়ে করে ফেলুন। মা হওয়ার সঠিক সময় ২২ থেকে ৩০ বছর। এর জন্য সঠিক সময়ে বিয়ে করা উচিত।

প্রাপ্তবয়স্ক নারীদের দ্রুত বিয়ে করতে ফেলার পরামর্শ দিয়েছেন ভারতের আসামের মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা।

আসামের গুয়াহাটিতে বাল্যবিয়েবিরোধী এক সরকারি অনুষ্ঠানে শনিবার তিনি এ পরামর্শ দেন বলে প্রতিবেদনে জানিয়েছে টাইমস অফ ইন্ডিয়া

মুখ্যমন্ত্রী বলেন, প্রাপ্তবয়স্ক যে নারীরা এখনও বিয়ে করেননি, তারা দ্রুত বিয়ে করে ফেলুন। মা হওয়ার সঠিক সময় ২২ থেকে ৩০ বছর। এর জন্য সঠিক সময়ে বিয়ে করা উচিত।

তিনি বলেন, ‘নারীদের মা হওয়ার জন্য খুব একটা অপেক্ষা করা ঠিক নয়। ২২ থেকে ৩০ বছরই হলো সঠিক বয়স। এর পর বিভিন্ন শারীরিক সমস্যা দেখা দিতে পারে।

‘ইদানিং দেখা যাচ্ছে নারীরা মা হতে অনেক সময় পর্যন্ত অপেক্ষা করে থাকেন। কিন্তু এটা ঠিক নয়। সব কিছুরই একটা নির্দিষ্ট সময় আছে।’

আগামী পাঁচ থেকে ছয় মাসের মধ্যে বাল্যবিয়ের অপরাধে হাজার হাজার পুরুষকে গ্রেপ্তার করা হবে জানিয়ে মুখ্যমন্ত্রীী বলেন, ১৪ বছরের কম বয়সী মেয়েদের সঙ্গে যৌন সম্পর্ক স্থাপন অপরাধ হিসাবে গণ্য করা হয়। তা সে যতই সামাজিকভাবে বিয়ে হয়ে থাকুক না কেন।

তিনি জানান, একজন নারীর বিয়ের বৈধ বয়স ১৮ বছর এবং যারা কম বয়সী মেয়েদের বিয়ে করবে তাদের যাবজ্জীবন কারাদণ্ডও হতে পারে।

অনুষ্ঠানে হিমন্ত বিশ্বশর্মা বলেন, আমরা অপ্রাপ্তবয়স্ক নারীদের মাতৃত্বের বিরুদ্ধে কথা বলেছি। কিন্তু একই সঙ্গে, নারীদের বেশিক্ষণ অপেক্ষা করা উচিত নয়, যেমন অনেকেই করে... ঈশ্বর আমাদের শরীরকে এমনভাবে তৈরি করেছেন যে সবকিছুর জন্য একটি উপযুক্ত বয়স আছে।

এর আগে গত সপ্তাহেই আসামের মন্ত্রিসভায় ১৪ বছরের কম বয়সী মেয়েদের সঙ্গে বিয়ে করা পুরুষদের বিরুদ্ধে মামলার সিদ্ধান্ত হয়। মুখ্যমন্ত্রী জানান, আসামে মা এবং শিশু মৃত্যু কমাতেই এই সিদ্ধান্ত হয়েছে।

আরও পড়ুন:
আদালত থেকে আসামি উধাও, ৭ পুলিশ প্রত্যাহার 
হাতকড়াসহ পালানো সেই আসামি গ্রেপ্তার
ধানক্ষেতে হাতকড়া, চুরির আসামি নিখোঁজ

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
24 lives fell into a bus ditch in Peru

পেরুতে বাস খাদে পড়ে গেল ২৪ প্রাণ

পেরুতে বাস খাদে পড়ে গেল ২৪ প্রাণ দুর্ঘটনাকবলিত বাস। ছবি: সংগৃহীত
পেরুর পরিবহন পর্যবেক্ষণকারী সংস্থা এসইউটিআরএএন এক বিবৃতিতে দুর্ঘটনার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। তবে হতাহতের কোনো সংখ্যা তারা উল্লেখ করেনি।

পেরুর উত্তরাঞ্চলে একটি যাত্রীবাহী বাস খাদে পড়ে অন্তত ২৪ জন নিহত হয়েছেন।

স্থানীয় সময় শনিবার দেশটির এল অলটো জেলায় পাহাড়ি রাস্তায় এ দুর্ঘটনা ঘটে বলে পুলিশের বরাত দিয়ে জানিয়েছে রয়টার্স

পেরুর পরিবহন পর্যবেক্ষণকারী সংস্থা এসইউটিআরএএন এক বিবৃতিতে দুর্ঘটনার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। তবে হতাহতের কোনো সংখ্যা তারা উল্লেখ করেনি।

স্থানীয় গণমাধ্যম বলছে, ৬০ জন যাত্রী নিয়ে লিমা থেকে ইকুয়েডর সীমান্তবর্তী টুম্বেসে যাচ্ছিল বাসটি। পথে এটি অরগানোস শহরের কাছে রাস্তার পাশের গভীর খাদে পড়ে যায়।

পেরুতে প্রায়ই সড়ক দুর্ঘটনা ঘটে থাকে। এসব দুর্ঘটনায় প্রাণহানির সংখ্যাও কম নয়।

আরও পড়ুন:
শ্রীমঙ্গলে অটোরিকশায় পিকআপের ধাক্কা, নিহত ২
অ্যাম্বুলেন্সচাপায় রিকশাচালক নিহত, আহত একই পরিবারের ৪ জন
সড়কে গেল পীর-মুরিদের প্রাণ

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
In the US special police units are banned for killing black people

যুক্তরাষ্ট্রে কৃষ্ণাঙ্গ হত্যার জেরে পুলিশের বিশেষ ইউনিট নিষিদ্ধ

যুক্তরাষ্ট্রে কৃষ্ণাঙ্গ হত্যার জেরে পুলিশের বিশেষ ইউনিট নিষিদ্ধ যুক্তরাষ্ট্রের মেমফিসে পুলিশের হাতে কৃষ্ণাঙ্গ যুবকের মারধরের শিকার হওয়ার ফুটেজটি শুক্রবার প্রকাশ করা হয়। ছবি: সংগৃহীত
স্থানীয় সময় ‍শুক্রবার ২৯ বছর বয়সী নিকোলসকে মারধরের ঘটনার ভিডিও প্রকাশ করে যুক্তরাষ্ট্রের মেমফিস শহর কর্তৃপক্ষ। এর এক দিন পর স্করপিয়নকে নিষিদ্ধের ঘোষণা আসে, যে ইউনিটে কর্মরত ছিলেন মারধরে অভিযুক্ত পাঁচ পুলিশ কর্মকর্তা।

যুক্তরাষ্ট্রের টেনেসি অঙ্গরাজ্যের মেমফিস শহরে কৃষ্ণাঙ্গ টায়ার নিকোলসকে পিটিয়ে হত্যার জেরে বিশেষায়িত ইউনিট ‘স্করপিয়ন’কে নিষিদ্ধ করেছে পুলিশ বিভাগ।

নিকোলস হত্যা নিয়ে ‍দেশটির বিভিন্ন শহরে বিক্ষোভের মধ্যে স্থানীয় সময় শনিবার মেমফিস পুলিশের ইউনিটটিকে নিষিদ্ধ করা হয়।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে জানানো হয়, স্থানীয় সময় ‍শুক্রবার ২৯ বছর বয়সী নিকোলসকে মারধরের ঘটনার ভিডিও প্রকাশ করে মেমফিস শহর কর্তৃপক্ষ। এর এক দিন পর স্করপিয়নকে নিষিদ্ধের ঘোষণা আসে, যে ইউনিটে কর্মরত ছিলেন মারধরে অভিযুক্ত পাঁচ পুলিশ কর্মকর্তা।

প্রকাশিত ভিডিওতে দেখা যায়, ৭ জানুয়ারি মেমফিসের অভিযুক্ত পাঁচ পুলিশ কর্মকর্তা মোটরসাইকেল আরোহী যুবককে লাথি, ঘুষি মারার পাশাপাশি লাঠিপেটা করছিলেন। ওই সময় ‘মা, মা’ বলে কাঁদছিলেন এক সন্তানের জনক নিকোলস।

পুলিশের পোশাক ও খুঁটিতে থাকা ক্যামেরায় ধারণ করা ফুটেজটি প্রকাশের আগেই পুলিশের পাঁচ কর্মকর্তার (যাদের সবাই কৃষ্ণাঙ্গ) বিরুদ্ধে ইচ্ছাকৃত হত্যা, হেনস্তা, অপহরণ, আচরণবিধি লঙ্ঘন ও নির্যাতনের অভিযোগ আনা হয়।

নিকোলসকে থামানো নিয়ে শুরুতে পুলিশ বলেছিল, বেপরোয়া গতিতে বাইক চালাচ্ছিলেন যুবক, তবে মেমফিস পুলিশের প্রধান বলেছেন, থামানোর পক্ষে যথাযথ যুক্তি দেখাতে পারেননি কর্মকর্তারা।

ভিডিওতে দেখা যায়, পুলিশের ওপর ঝুঁকি সৃষ্টি হতে পারে, এমন অবস্থান থেকে অনেক ‍দূরে থাকার পরও নিকোলসকে দৃশ্যত মারধর করা হয়েছে।

মারধরের একপর্যায়ে দুই কর্মকর্তা নিকোলসকে ধরে রাখেন। অন্যজন তার মুখে ক্রমাগত ঘুষি মারতে থাকেন। বাকি পুলিশ কর্মকর্তারা তাদের না থামিয়ে নীরবে দর্শকের ভূমিকায় ছিলেন।

আরও পড়ুন:
ক্যালিফোর্নিয়ায় চীনা নববর্ষ উদযাপনে গুলি, নিহত ১০
ক্যালিফোর্নিয়ায় গুলি, হতাহতের শঙ্কা
পরিদর্শক হলেন ৮২ এসআই-সার্জেন্ট
দ্বীপটির দাম ৫ কোটি টাকা
ক্যালিফোর্নিয়ায় গুলিতে নিহত ৬

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Nepals Deputy Prime Minister lost his ministry in a dispute over citizenship

নাগরিকত্ব নিয়ে ঝামেলায় মন্ত্রিত্ব হারালেন নেপালের উপপ্রধানমন্ত্রী

নাগরিকত্ব নিয়ে ঝামেলায় মন্ত্রিত্ব হারালেন নেপালের উপপ্রধানমন্ত্রী নেপালের উপ-প্রধানমন্ত্রী রবি লামিচানে। ছবি: সংগৃহীত
নেপালের সুপ্রিমকোর্ট জানায়, অন্য দেশের নাগরিকত্ব ছাড়তে রবি যথাযথ প্রক্রিয়া মানেননি। দেশে ফেরার পর তিনি নেপালের নাগরিকত্বের জন্যও পুনরায় আবেদন করেননি। নেপাল দ্বৈত নাগরিকত্ব অনুমোদন করে না।

নাগরিকত্বের আইন ভঙ্গ করে নির্বাচনে অংশ নেয়ায় মন্ত্রিত্ব ও সংসদ সদস্যের পদ হারালেন নেপালের উপ-প্রধানমন্ত্রী রবি লামিচানে।

দেশটির সুপ্রিম কোর্ট তাকে এসব পদ থেকে শুক্রবার অব্যাহতি দেন।

আল–জাজিরার প্রতিবেদনে বলা হয়, গত ২৬ ডিসেম্বর নেপালের উপপ্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নিয়েছিলেন রবি। এ ঘটনার মাসখানেক পরই তার বিরুদ্ধে এমন রায় দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্ট।

নেপালের সুপ্রিমকোর্ট জানায়, অন্য দেশের নাগরিকত্ব ছাড়তে রবি যথাযথ প্রক্রিয়া মানেননি। দেশে ফেরার পর তিনি নেপালের নাগরিকত্বের জন্যও পুনরায় আবেদন করেননি। নেপাল দ্বৈত নাগরিকত্ব অনুমোদন করে না। এ পরিস্থিতিতে তার নির্বাচনে অংশ নেয়া, গুরুত্বপূর্ণ সরকারি পদে বসা বৈধ নয়।

নেপালের একসময়ের জনপ্রিয় টিভি উপস্থাপক রবি লামিচানে একসময় দেশ ছেড়ে স্থায়ী বসবাসের জন্য যুক্তরাষ্ট্রে পাড়ি জমান। সেখানে নাগরিকত্ব নিয়েছিলেন তিনি, তবে ২০১৮ সালে তিনি আমেরিকার নাগরিকত্ব ছেড়েছেন। পরবর্তী সময়ে দেশে ফিরে রাজনীতিতে যোগ দিয়ে সফল হন লামিচানে।

আরও পড়ুন:
নেপালি বিমানবালার ভাইরাল ভিডিওটি দুর্ঘটনার আগের নয়
বিধ্বস্ত উড়োজাহাজের বাকি দুই আরোহীর খোঁজে চলছে অভিযান
ইয়েতির মালিকেরও প্রাণ যায় আকাশ পথের দুর্ঘটনায়
৬৮ মরদেহ উদ্ধার, মিলল ব্ল্যাকবক্স
নেপালে বিমান বিধ্বস্ত: জীবিত কাউকে পাননি উদ্ধারকারীরা

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
55 executions in 26 days in Iran

ইরানে ২৬ দিনে ৫৫ ফাঁসি

ইরানে ২৬ দিনে ৫৫ ফাঁসি ইরানে এক আসামির মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হচ্ছে। ছবি: সংগৃহীত
আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল জানায়, সরকারবিরোধী আন্দোলনে জড়িত থাকার দায়ে সম্প্রতি ইরানে তিন যুবকের মৃত্যুদণ্ড দেয়া হয়েছে। যাদের মধ্যে একজনের বয়স মাত্র ১৮।

ইরানে নতুন বছরের প্রথম ২৬ দিনে ৫৫ জনের ফাঁসি কার্যকরা হয়েছে বলে জানিয়েছে নরওয়েভিত্তিক মানবাধিকার সংস্থা ইরান হিউম্যান রাইটস (আইএইচআর)। সংস্থাটি বলছে, পোশাকের স্বাধীনতার দাবিতে আন্দোলনরতদের ভয় দেখাতে মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের পরিমাণ বাড়িয়ে দিয়েছে তেহরান।

এদিকে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল জানায়, সরকারবিরোধী আন্দোলনে জড়িত থাকার দায়ে সম্প্রতি ইরানে তিন যুবকের মৃত্যুদণ্ড দেয়া হয়েছে। যাদের মধ্যে একজনের বয়স মাত্র ১৮।

আইএইচআরের প্রতিবেদনে বলা হয়, বছরের প্রথম ২৬ দিনে মাদক মামলার ৩৭ আসামিকে ফাঁসিতে ঝোলানো হয়েছে। এছাড়া সরকারবিরোধী আন্দোলনের সঙ্গে জড়িত থাকার দায়ে চারজনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হয়েছে।

সংস্থাটি জানায়, পোশাকের স্বাধীনতার দাবিতে চলমান আন্দোলনের সঙ্গে জড়িত থাকার দায়ে ইরানে ১০৭ জনকে মৃত্যুদণ্ড দেয়া হয়েছে।

এ নিয়ে আইএইচআর-এর পরিচালক মাহমুদ আমিরি মোঘদ্দাম বলেন, ‘আন্দোলনকারীদের ভয় দেখাতে মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের পরিমাণ বাড়িয়ে দিয়েছে ইরান সরকার। কোনো ফাঁসি বরদাস্ত করা হবে না, তা সে রাজনৈতিক হোক বা অরাজনৈতিক।’

সঠিকভাবে হিজাব না পরার অভিযোগে ইরানের নৈতিকতা পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার কুর্দি তরুণী মাহসা আমিনির মৃত্যু হয় গত বছরের ১৬ সেপ্টেম্বর। সেদিন থেকেই প্রতিবাদ ছড়িয়ে পড়ে গোটা ইরানে।

বিক্ষোভ থামাতে আন্দোলনকারীদের বিরুদ্ধে ইরান সরকার ধরপাকড় চালায় বলে অভিযোগ ওঠে। এর মধ্যে মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের এ সংখ্যা উদ্বেগ তৈরি করেছে।

আরও পড়ুন:
ইউক্রেনের ফ্লাইটে হামলা: ইরানের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ
‘ইরানে ১০০ বিক্ষোভকারীর সামনে ফাঁসির দড়ি’
ইরানে স্টারলিংকের ১০০ স্যাটেলাইট সক্রিয়: মাস্ক
ইরানে নারীর পোশাকের স্বাধীনতা দাবির ১০০ দিন
মৃত্যুদণ্ডের বিরুদ্ধে ইরানের র‍্যাপারের আপিল গ্রহণ

মন্তব্য

p
উপরে