ভারতে মুঠোফোন হ্যাক, অস্বীকার করল কেন্দ্র

ভারতে মুঠোফোন হ্যাক, অস্বীকার করল কেন্দ্র

তথ্য-প্রযুক্তি মন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণব। ছবি: সংগৃহীত

‘এটি একটি স্পর্শকাতর অভিযোগ। একের পর এক ভয়ঙ্কর অভিযোগ রয়েছে এতে। কিন্তু এই অভিযোগের কোনো ভিত্তি নেই।’

পেগাসাস স্পাইওয়্যার নিয়ে ক্রমেই উত্তেজনার পারদ চড়ছে ভারতের রাজ্য-রাজনীতিতে। বিদেশি স্পাইওয়্যার দিয়ে ফোনে আড়ি পাতার অভিযোগ কেন্দ্রের বিরুদ্ধে। যার জেরে সোশ্যাল মিডিয়া থেকে শুরু করে সংসদ, সবখানেই বিরোধীদের আক্রমণের মুখে মোদি সরকার। এর ছাপ পড়েছে লোকসভার বর্ষাকালীন অধিবেশনে।

সোমবার সংসদে এই প্রসঙ্গ তুলে তথ্য-প্রযুক্তি মন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণব বলেন, ‘বর্ষাকালীন অধিবেশনের ঠিক আগের দিনই এই প্রতিবেদন প্রকাশ পাওয়ার বিষয়টি মোটেই কাকতালীয় নয়।’

অর্থাৎ এই অভিযোগে কার্যত ষড়যন্ত্রের গন্ধ পাচ্ছেন তিনি। মন্ত্রী এদিন আরও মনে করিয়ে দেন, এর আগে হোয়াটসঅ্যাপের ক্ষেত্রেও নজরদারির অভিযোগ উঠেছিল কেন্দ্রের বিরুদ্ধে। কিন্তু সুপ্রিম কোর্টে সেই অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছিল।

এই অভিযোগ পেছনে কোনো ভিত্তি নেই বলেও উল্লেখ করেন মন্ত্রী।

তিনি বলেন, ‘এটি একটি স্পর্শকাতর অভিযোগ। একের পর এক ভয়ঙ্কর অভিযোগ রয়েছে এতে। কিন্তু এই অভিযোগের কোনো ভিত্তি নেই।’

উল্লেখ্য ‘দ্য ওয়্যার’ এই সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে। যেখানে বলা হয়েছে, শিল্পপতি, ব্যবসায়ী, সরকারি আমলা, বিজ্ঞানীসহ দেশের প্রায় ৩০০ নাগরিকের টেলিফোন নম্বরে আড়ি পাতছে কেন্দ্র। ৪০ জন সাংবাদিকও রয়েছেন এই তালিকায়। রয়েছেন দুই কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর ফোন নম্বরও।

প্রতিবেদনে বলা হয়, বেশির ভাগ ফোনই ট্যাপ করা হয়েছে ২০১৮-১৯ সালের মধ্যে। ২০১৯ সালের লোকসভা ভোট পর্যন্ত ফোনে এই আড়ি পাতা চলছিল। ভারত ছাড়া আরও ৯টি দেশে আড়ি পাতা হয় বলে উল্লেখ করা হয়েছে প্রতিবেদনটিতে।

এর আগে ২০১৯ সালের নভেম্বরে পেগাসাস স্পাইওয়্যার নিয়ে এরকমই খবর প্রকাশিত হয়েছিল। সেই খবরে বলা হয়েছিল, বিশ্বজুড়ে হোয়াটস অ্যাপের এক হাজার ৪০০ গ্রাহকের ফোন হ্যাক করা হয়েছে পেগাসাস ব্যবহার করে, যাদের মধ্যে ১২১ জন ভারতীয় নাগরিক।

আরও পড়ুন:
মেয়েদের ফেসবুক আইডি হ্যাক যে কৌশলে
নারীর ফেসবুক অ্যাকাউন্ট হ্যাক করে যুবক আটক
সাইবার হামলা: চুরি হয়েছে তথ্য, অর্থ নিয়েও শঙ্কা
বাংলাদেশ ব্যাংকসহ দুই শতাধিক প্রতিষ্ঠানে সাইবার হামলা
বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইট ‘হ্যাক’, গ্রেফতার ১

শেয়ার করুন

মন্তব্য