ফের নেপালের প্রধানমন্ত্রী দেউবা

ফের নেপালের প্রধানমন্ত্রী দেউবা

আস্থা ভোটে জয়ের মাধ্যমে ফের নেপালের প্রধানমন্ত্রী হন শের বাহাদুর দেউবা। ছবি: এএফপি

রোববারের আস্থা ভোটে নেপালের ২৭৫ সদস্যের পার্লামেন্টে ১৬৫টি ভোট পান ৭৫ বছর বয়সী দেউবা। পার্লামেন্টের আস্থা অর্জনে ১৩৬টি ভোটের প্রয়োজন ছিল নেপালের নতুন প্রধানমন্ত্রীর।

নেপালের পার্লামেন্টে আস্থা ভোটে জয়ী হয়ে ফের দেশটির প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন শের বাহাদুর দেউবা।

নেপালি কংগ্রেসের প্রধান দেউবা রোববার আস্থা ভোটে জয় পান বলে এনডিটিভির প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে।

নেপালের সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে সংবিধানের ৭৬ (৫) ধারা অনুযায়ী দেউবাকে চলতি বছরের ১২ জুলাই প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়।

রোববারের আস্থা ভোটে নেপালের ২৭৫ সদস্যের পার্লামেন্টে ১৬৫টি ভোট পান ৭৫ বছর বয়সী দেউবা।

পার্লামেন্টের আস্থা অর্জনে ১৩৬টি ভোটের প্রয়োজন ছিল নেপালের নতুন প্রধানমন্ত্রীর।

পার্লামেন্টের ২৪৯ আইনপ্রণেতা ভোটে অংশ নেন। এদের মধ্যে ৮৩ আইনপ্রণেতা দেউবার বিপক্ষে ভোট দেন। আর একজন সংসদ সদস্য ভোট দেয়া থেকে বিরত ছিলেন।

ভোট গ্রহণ শেষে পার্লামেন্টের স্পিকার অগ্নি সাপকোটা বলেন, ‘নেপালের প্রধানমন্ত্রী শের বাহাদুর দেউবা সংখ্যাগরিষ্ঠ আস্থা ভোট পেয়েছেন।’

এর আগে চারবার নেপালের প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন দেউবা।

১৯৯৫ থেকে ১৯৯৭ সাল, ২০০১ থেকে ২০০২ সাল, ২০০৪ থেকে ২০০৫ সাল এবং পরে ২০১৭ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত দক্ষিণ এশিয়ার দেশটির প্রধানমন্ত্রী ছিলেন দেউবা।

দেউবার জয়ে অভিনন্দন জানিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

টুইটবার্তায় নেপালের প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শের বাহাদুর দেউবাকে অভিনন্দন ও সফল মেয়াদের জন্য শুভ কামনা।

‘সব ক্ষেত্রে আমাদের বিশেষ অংশীদারত্ব আরও জোরদারের লক্ষ্যে একসঙ্গে কাজ করার বিষয়ে আমি আগ্রহী।’

পার্লামেন্টে আস্থা ভোটে জয়ের পর দেউবা বলেন, ‘করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই নতুন সরকারের অগ্রাধিকার হবে।’

আগামী তিন মাসের মধ্যে এক-তৃতীয়াংশ জনগোষ্ঠীকে টিকার আওতায় আনার পাশাপাশি আগামী বছরের এপ্রিলের মধ্যে নেপালের সবাইকে টিকা দেয়ার অঙ্গীকার করেছে নতুন সরকার।

গত সোমবার নেপালের প্রধানমন্ত্রী কে পি শর্মা অলির জায়গায় শের বাহাদুর দেউবাকে দেশটির প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগের নির্দেশ দেয় সুপ্রিম কোর্ট।

নির্দেশে বলা হয়, তিন বছর ধরে নেপালের সরকারপ্রধানের দায়িত্ব পালন করা অলি সংসদ বিলুপ্ত করার মধ্য দিয়ে সংবিধান লঙ্ঘন করেন।

সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ সত্ত্বেও নেপালের সংবিধান অনুযায়ী পার্লামেন্টে সংখ্যাগরিষ্ঠ আস্থা ভোটের দরকার ছিল দেউবার।

আরও পড়ুন:
শের বাহাদুরকে ২ দিনের মধ্যে নেপালের প্রধানমন্ত্রী নিয়োগের নির্দেশ
‘ঘরে ফেরা এভারেস্ট জয়ের চেয়ে কঠিন’
নেপালে পার্লামেন্ট ভেঙে দিয়ে নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা
চেয়ার ফিরে পেলেন প্রধানমন্ত্রিত্ব হারানো অলি
নেপালে করোনা চিকিৎসা সরঞ্জাম পাঠাল বাংলাদেশ

শেয়ার করুন

মন্তব্য