মোদি বিরোধী ঐক্য করতে দিল্লি যাচ্ছেন মমতা

মোদি বিরোধী ঐক্য করতে দিল্লি যাচ্ছেন মমতা

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী ও তৃণমূল কংগ্রেসের সভানেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ফাইল ছবি

তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্ব রাজ্যের বাইরে সংগঠন বাড়ানোর কাজে হাত দিয়েছে। মমতাকে মোদি বিরোধী মুখ হিসেবে তুলে ধরতে উদ্যোগ নিয়েছে তার দলটি। এবার সেই লক্ষ্যে তৃণমূল নেত্রী নিজে দিল্লি যাচ্ছেন।

আর তিন বছর পরে ২০২৪ সালে ভারতের লোকসভা ভোট। এ উপলক্ষে মোদি সরকার বিরোধী ঐক্য মজবুত করতে জুলাইয়ের শেষে দিল্লি যাচ্ছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী ও তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

২১ জুলাই তৃণমূলের ভার্চুয়াল শহিদ দিবসের সমাবেশে এ সংক্রান্ত কর্মসূচি ঘোষণা করবেন মমতা ব্যানার্জি। সূত্রের খবর, সংসদের বাদল অধিবেশন চলার সময় জুলাই মাসের শেষ সপ্তাহে দিল্লি যেতে পারেন তিনি। তিনি বেশ কয়েক দিন দিল্লিতে থাকবেন বলেও জানা গেছে।

২০২১ বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির পশ্চিমবঙ্গে সরকার গঠনের আস্ফালন ধুলিস্যাৎ করে রাজ্যে তৃতীয়বারের জন্য তৃণমূল কংগ্রেসের সরকার গঠন করে মমতা ইতোমধ্যে দেশের মোদি বিরোধীদের সমীহ পেয়েছেন।

এবারের বিধানসভা নির্বাচনের ভোট প্রচারে গিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন, উত্তর প্রদেশে মোদির বিরুদ্ধে ভোট লড়ে মোদিকে হারাতে চান। মোদিকে পশ্চিমবঙ্গে হারিয়ে এবার দিল্লি জয়ের পথে তৃণমূল।

ওই লক্ষ্যে তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্ব রাজ্যের বাইরে সংগঠন বাড়ানোর কাজে হাত দিয়েছে। তৃণমূলের অভ্যন্তরীণ সংগঠন মজবুত করতে এক ব্যক্তি, এক পদ নীতিকে ঢেলে সাজানো হচ্ছে। এ নিয়ে ভোটকুশলী প্রশান্ত কিশোরের সঙ্গে দীর্ঘ বৈঠক হয়েছে তৃণমূল নেত্রীর।

মমতাকে মোদি বিরোধী মুখ হিসেবে তুলে ধরতে উদ্যোগ নিয়েছে তার দল তৃণমূল। এবার সেই লক্ষ্যে তৃণমূল নেত্রী নিজে দিল্লি যাচ্ছেন।

মোদি বিরোধী অবিজেপি দলগুলোর নেতৃত্বের সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন তিনি। দিল্লিতে বিক্ষোভরত কৃষকদের সঙ্গেও কথা বলবেন মমতা।

দীর্ঘদিন নিজে সাংসদ এবং কেন্দ্রীয় মন্ত্রী থাকায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা দিল্লির রাজনীতিতে সবার পরিচিত। সেই যোগাযোগ সক্রিয় করতে মোদি বিরোধী ঐক্য মজবুত করতে যাচ্ছেন তিনি।

এর আগে ২১ জুলাই মমতার শহিদ দিবসের ভার্চুয়াল সমাবেশের ভাষণ সম্প্রচার হবে দিল্লিতে।

অন্যদিকে তৃণমূলের রাজ্য জয়ের অন্যতম কারিগর ভোট কুশলী প্রশান্ত কিশোর ২০২৪ লোকসভা ভোটের লক্ষ্যে বিজেপিকে হারাতে এনসিপি নেতা শরদ পাওয়ারের সঙ্গে বৈঠক করেছেন। কংগ্রেসের সোনিয়া গান্ধী এবং রাহুল গান্ধীর সঙ্গেও বৈঠক করেছেন প্রশান্ত ।

আগেই তার সংস্থা আইপ্যাকের সঙ্গে তৃণমূলের ২০২৬ সাল পর্যন্ত একসঙ্গে কাজ করার চুক্তি হয়েছে। এবার দিল্লি যাচ্ছেন মমতা। লক্ষ্য দেশের বিজেপি বিরোধী দলগুলোর ঐক্য মজবুত করে কেন্দ্রের নরেন্দ্র মোদির সরকারকে উৎখাত করা।

আরও পড়ুন:
দিল্লি জয়ের লক্ষ্যে মমতার ভার্চুয়াল ভাষণ
মমতাকে ৫ লাখ টাকা জরিমানা
বিজেপি ল্যাজ ছাড়া হনু: মমতা
কংগ্রেস ছেড়ে প্রণবপুত্র তৃণমূলে
ভোটে হেরে মমতাকে চাপে রাখতে বিজেপির যত কৌশল

শেয়ার করুন

মন্তব্য