আফগান দোভাষীদের সরিয়ে নেবে যুক্তরাষ্ট্র

আফগান দোভাষীদের সরিয়ে নেবে যুক্তরাষ্ট্র

ন্যাটোভুক্ত ফরাসি সেনাদের সঙ্গে কাজ করা সাবেক আফগান দোভাষী ওয়াহিদুল্লাহ হানাফি। ছবি: এএফপি

যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাষ্ট্র নেতৃত্বাধীন জোটের সেনা প্রত্যাহারের সুযোগে আফগানিস্তানের বিভিন্ন এলাকা দখল করে নিতে শুরু করেছে দেশটির সশস্ত্র রাজনৈতিক গোষ্ঠী তালেবান। বিদেশি সেনাদের অনুপস্থিতিতে তাদের সহযোগিতা করা আফগান নাগরিকরা তালেবানের প্রতিহিংসার শিকার হতে পারে বলে শঙ্কা ঘনিয়ে উঠেছে।

আফগানিস্তানে আন্তর্জাতিক জোটকে সহযোগিতা করা আফগান দোভাষীদের নিরাপত্তা নিশ্চিতে সরিয়ে নিতে শুরু করবে যুক্তরাষ্ট্র।

হোয়াইট হাউস জানিয়েছে, এ লক্ষ্যে চলতি মাসের শেষ সপ্তাহে শুরু হবে অপারেশন অ্যালিজ রিফিউজ।

বিবিসির প্রতিবেদনে জানানো হয়, ২০০১ সালে আফগানিস্তানে যুদ্ধ শুরুর পর থেকে যুক্তরাষ্ট্র ও আন্তর্জাতিক প্রতিরক্ষা জোট ন্যাটোর সঙ্গে যেসব আফগান কাজ করেছে, তাদের বিশেষ অভিবাসন ভিসা কর্মসূচির সুবিধা দেয়া হচ্ছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক কর্মকর্তা বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে জানিয়েছেন, এ কর্মসূচির আওতায় প্রাথমিকভাবে সরিয়ে নেয়া হবে প্রায় আড়াই হাজার মানুষকে। প্রথমে তাদের আবাসনের ব্যবস্থা করা হবে বিভিন্ন সামরিক ঘাঁটিতে।

সেখানে ভিসা আবেদনের প্রক্রিয়া শেষে যুক্তরাষ্ট্র বা তৃতীয় কোনো দেশে তাদের স্থানান্তর করা হবে।

আফগানিস্তান থেকে বিদেশি সেনা প্রত্যাহারের চূড়ান্ত তারিখ এগিয়ে আসতে থাকার মধ্যেই এলো এ পদক্ষেপ। যুক্তরাষ্ট্রের ৯০ শতাংশ সেনা এরই মধ্যে আফগানিস্তান ছেড়েছে, বাকি প্রক্রিয়াও আনুষ্ঠানিকভাবে শেষ হবে আগামী ১১ সেপ্টেম্বরের মধ্যে। যদিও আফগানিস্তানে আমেরিকান দূতাবাস ও কূটনীতিকদের সুরক্ষায় ৬৫০ সেনাকে রেখে বাকিদের ৩১ আগস্টের মধ্যে দেশে ফিরিয়ে নেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

আফগানিস্তানে সন্ত্রাসবিরোধী অভিযানের অংশ হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের আড়াই থেকে সাড়ে তিন হাজার সেনা ছাড়াও মোতায়েন ছিল আন্তর্জাতিক প্রতিরক্ষা জোট ন্যাটোর আরও প্রায় সাত হাজার সেনা।

এরই মধ্যে আফগানিস্তানে মোতায়েন সেনা ও সামরিক সরঞ্জামের বড় অংশ ফিরিয়ে নিয়েছে যুক্তরাজ্যসহ ন্যাটো সদস্য বিভিন্ন দেশ। সামরিক মিশন আনুষ্ঠানিকভাবে শেষ করেছে জার্মানি ও ইতালি। শেষ সেনাকে দেশে ফিরিয়ে নিয়েছে পোল্যান্ড।

যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাষ্ট্র নেতৃত্বাধীন জোটের সেনা প্রত্যাহারের সুযোগে আফগানিস্তানের বিভিন্ন এলাকা দখল করে নিতে শুরু করেছে দেশটির সশস্ত্র রাজনৈতিক গোষ্ঠী তালেবান।

বিদেশি সেনাদের অনুপস্থিতিতে তাদের সহযোগিতা করা আফগান নাগরিকরা তালেবানের প্রতিহিংসার শিকার হতে পারে বলে শঙ্কা ঘনিয়ে উঠেছে।

আরও পড়ুন:
পাকিস্তান সীমান্তের চেকপোস্টে পতাকা ওড়াল তালেবান
আফগানিস্তান না ছাড়লে চরম পরিণতি: তুরস্ককে তালেবান
আফগানিস্তান ছেড়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ কমান্ডার
কাবুল বিমানবন্দরে ক্ষেপণাস্ত্রবিরোধী ব্যবস্থা
তালেবানের ভয়ে আফগানিস্তান থেকে কর্মকর্তা সরাল ভারত-চীন

শেয়ার করুন

মন্তব্য