হাসিনার হাঁড়িভাঙ্গায় মন ছুঁয়েছে মোদির

হাসিনার হাঁড়িভাঙ্গায় মন ছুঁয়েছে মোদির

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পাঠানো আম পেয়ে ধন্যবাদ জানান ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ছবি: দ্য হিন্দু

মোদি চিঠিতে লেখেন, ‘আম উপহারের সৌজন্যতা আমার হৃদয় ছুঁয়েছে। ঢাকা সফরকালে আমাকে যে অসাধারণ আতিথেয়তা দেয়া হয়েছিল, এ আম উপহার সেটাকে স্মরণ করিয়ে দিল।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পাঠানো উপহারের হাঁড়িভাঙ্গা আম মন ছুঁয়েছে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির।

শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানিয়ে লেখা চিঠিতে এ কথা বলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী।

মোদি চিঠিতে লেখেন, ‘আম উপহারের সৌজন্যতা আমার হৃদয় ছুঁয়েছে। ঢাকা সফরকালে আমাকে যে অসাধারণ আতিথেয়তা দেয়া হয়েছিল, এ আম উপহার সেটাকে স্মরণ করিয়ে দিল।

‘কোভিড-১৯ মহামারিকালে নানা ধরনের প্রতিবন্ধকতা থাকলেও দুই দেশের দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক আরও সমুন্নত হয়েছে। করোনাকালেও আমাদের দ্বিপক্ষীয় বিষয় এগিয়ে চলেছে, যেটা আমাদের উভয়ের জন্য ভালো।’

গত সোমবার হাসিনাকে এ চিঠি লেখেন মোদি।

কূটনৈতিক সম্পর্ক উন্নয়নে সুস্বাদু আম উপহারের ধারাবাহিকতা বজায় রেখেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তবে এবার বেড়েছে পরিসর। শুধু প্রতিবেশী রাষ্ট্র ভারত নয়, বিভিন্ন দেশের রাজা-বাদশাহ, রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রীর জন্য উপহার হিসেবে আম পাঠিয়েছেন তিনি।

আম কূটনীতির পেছনে সরকার কেবল কূটনৈতিক রীতিই নয়, বাংলাদেশের রসালো ফল-ফসলের রপ্তানির সম্ভাবনাও দেখছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন।

গত বুধবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ‘আমরা খুব ভাগ্যবান। এ বছর আমাদের আম খুব ভালো হয়েছে। হাঁড়িভাঙ্গা উন্নত মানের আম। কিন্তু এর পরিচিতি কম।

‘আর এ বছর আমাদের জন্য উল্লেখযোগ্য বছর। কারণ এ বছর আমরা স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও মুজিব শতবর্ষ পালন করেছি। এ মহামারির মধ্যে অনেক দেশের বন্ধুরা এসেছেন এবং অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছেন।

‘আমরা তাদের উপহার হিসেবে আম পাঠিয়েছি। আমাদের আনন্দ তাদের সঙ্গে ভাগ করেছি। এতে সম্পর্ক উন্নত হয়।’

মন্ত্রী বলেন, ‘ভারত ছাড়াও কয়েকটি দেশে আমরা আম দিয়েছি। বিশেষ করে যেসব দেশে আমাদের অনেক ভাইবোন থাকেন। যার মধ্যে মধ্যপ্রাচ্য রয়েছে। এত ভালো আম আমাদের, কিন্তু তারা আমাদের দেশ থেকে আম নেয় না।

‘এখন তাদের দিয়েছি, তারা খেয়ে দেখুক। ভালো মনে করলে আমাদের কাছ থেকে কিনবে। আমাদের তো অনেক আম আছে, আমের অভাব নেই।

‘কূটনৈতিক আচারে উপহার পাঠানোর রীতি আছে। এবার আমাদের ফল-ফসল পাঠাচ্ছি। আমরা আগেও অন্যদের আম দিয়েছি। নরেন্দ্র মোদি এ আম পেয়ে চিঠি লিখেছেন, ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী খুশি হয়ে আনারস পাঠাতে চেয়েছেন। আমরাও খুশি।’

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র বলছে, প্রতিবছর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমের মৌসুমে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের শীর্ষ নেতাদের আম উপহার দিয়ে থাকেন। এবারও তার ব্যতিক্রম হয়নি।

ভারতের রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দকেও আম উপহার পাঠান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

রাষ্ট্রপ্রতি ও প্রধানমন্ত্রীর পদমর্যাদার বাইরেও পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, মেঘালয়ের মুখ্যমন্ত্রী কনরাড সাংমা, ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব, আসামের মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মাকে আম উপহার পাঠান শেখ হাসিনা।

ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এস জয়শঙ্কর ও পররাষ্ট্রসচিব হর্ষ বর্ধন শ্রিংলাকেও আম পাঠানো হয়েছে।

বেনাপোল বন্দর দিয়ে ভারতের শীর্ষ নেতাদের জন্য ২ হাজার ৬০০ কেজি আম পাঠানো হয়।

এ ছাড়া ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রীর জন্য আম গেছে আখাউড়া সীমান্ত দিয়ে। তামাবিল সীমান্ত দিয়ে আম গেছে আসাম, মিজোরাম ও মেঘালয়ের মুখ্যমন্ত্রীদের জন্য।

ভুটানের রাজা জিগমে খেসার ওয়াংচুক, প্রধানমন্ত্রী লোটে শেরিং, মালদ্বীপের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম মোহাম্মদ সলিহ, শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপাকসের কাছেও প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে আম পাঠানো হয়।

মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোর মধ্যে সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, কাতার, বাহরাইন, জর্ডান ও কুয়েতে বাংলাদেশের আম গেছে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা জানান, প্রধানমন্ত্রীর দেয়া উপহারের আমের মধ্যে রয়েছে প্রধানত হাঁড়িভাঙ্গা আম। রংপুর এলাকার এ আম বেশির ভাগ শীর্ষ নেতাদের পাঠানো হয়।

রংপুর অঞ্চলের আম হওয়ায় ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এই জাতের আমকে ‘প্রধানমন্ত্রীর শ্বশুরবাড়ির আম’ হিসেবে উল্লেখ করেছে। তবে হিমসাগর, ফজলি ও ল্যাংড়া আমও প্রধানমন্ত্রীর উপহারের তালিকায় রয়েছে।

আরও পড়ুন:
জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানাতে সৌরভের বাড়িতে মমতা
প্যারিসে বাজেয়াপ্ত ভারত সরকারের ২০ সম্পত্তি
মন্ত্রিসভায় যোগ দিয়েই টুইটারকে হুঁশিয়ারি
সাতক্ষীরা সীমান্তে ভারতফেরত দুজন আটক
স্ট্যান স্বামীর মৃত্যুতে প্রশ্নবিদ্ধ ভারত

শেয়ার করুন

মন্তব্য