রাশিয়ায় ২৮ আরোহী নিয়ে নিখোঁজ বিমান

রাশিয়ায় ২৮ আরোহী নিয়ে নিখোঁজ বিমান

নিখোঁজ বিমানের আরোহীদের সন্ধানে ছুটে যাচ্ছেন উদ্ধারকর্মীরা। ছবি: ব্লুমবার্গ

কামশাতকা সরকার জানিয়েছে, পালানার স্থানীয় সরকারের প্রধান ওলগা মোখিরেভা ছিলেন বিমানটিতে। বিমান নিখোঁজের ঘটনায় তদন্ত ও ‌আরোহীদের সন্ধানে তৎপরতা চলছে। কাজ করছে দুটি হেলিকপ্টার ও আরেকটি বিমান।

রাশিয়ার পূর্বাঞ্চলীয় কামশাতকায় ২৮ আরোহীসহ একটি বিমান নিখোঁজ হয়েছে। তাদের সন্ধানে চলছে অভিযান।

বার্তা সংস্থা এপির প্রতিবেদনে জানানো হয়, ২২ যাত্রী ও ছয় ক্রু নিয়ে মঙ্গলবার যোগাযোগবিচ্ছিন্ন হয় আন্তোনোভ আন-২৬ বিমানটি।

স্থানীয় প্রশাসন জানিয়েছে, পেত্রোপাভলোভস্ক-কামশাতস্কি শহর থেকে পালানায় যাচ্ছিল বিমানটি। পথে নির্ধারিত সময়ে সেটি যোগাযোগ করেনি; অদৃশ্য হয়ে যায় রাডার থেকেও।

পালানার বিমানবন্দর থেকে ১০ কিলোমিটার দূরে থাকা অবস্থায় যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয় বিমানটি।

কামশাতকা সরকার জানিয়েছে, পালানার স্থানীয় সরকারের প্রধান ওলগা মোখিরেভা ছিলেন বিমানটিতে।

বিমান নিখোঁজের ঘটনায় তদন্ত ও ‌আরোহীদের সন্ধানে তৎপরতা চলছে। কাজ করছে দুটি হেলিকপ্টার ও আরেকটি বিমান।

সামরিক ও বেসামরিক উভয় কাজেই ব্যবহৃত হয় আন্তোনোভ আন-২৬ মডেলের বিমান।

নিখোঁজ বিমানটি কামশাতকা এভিয়েশন এন্টারপ্রাইজের মালিকানাধীন। এটি ১৯৮২ সাল থেকে ব্যবহৃত হচ্ছে বলে জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

নিখোঁজ বিমানটিতে কারিগরি কোনো ত্রুটি ছিল না বলে দাবি করেছেন কামশাতকা এভিয়েশন এন্টারপ্রাইজের পরিচালক অ্যালেক্সেই খাবারোভ।

২০১২ সালে একই প্রতিষ্ঠানের একই মডেলের একটি বিমান বিধ্বস্ত হয় পার্বত্য অঞ্চলে। সেটিও পেত্রোপাভলোভস্ক-কামশাতস্কি শহর থেকে রওনা দিয়েছিল এবং পালানায় অবতরণের আগে বিধ্বস্ত হয়েছিল।

ওই দুর্ঘটনায় ১৪ আরোহীর মধ্যে দুই বিমানচালকসহ ১০ জন নিহত হয়।

দুই বিমানচালকের মরদেহের ময়নাতদন্তে তাদের রক্তে অ্যালকোহলের উপস্থিতি পাওয়া গিয়েছিল।

আরও পড়ুন:
ফিলিপাইনে ৯২ আরোহী নিয়ে বিধ্বস্ত সামরিক বিমান
নেপাল দুর্ঘটনার পর কতটা সুরক্ষিত আকাশভ্রমণ
নেপালে সেই বিমান দুর্ঘটনা এখনও দুঃসহ স্মৃতি

শেয়ার করুন

মন্তব্য