আরএসএস প্রধানের মন্তব্য

হিন্দু বা মুসলিমদের নয়, আধিপত্য হবে ভারতীয়দের

হিন্দু বা মুসলিমদের নয়, আধিপত্য হবে ভারতীয়দের

ভগবত বলেন, ‘কোনো বিষয়ে হিন্দু-মুসলমানের মতপার্থক্য থাকতে পারে। কিন্তু তার মানেই তারা আলাদা সমাজের নয়।’

ভারতীয় সবার ডিএনএ একই মন্তব্য করে রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘের (আরএসএস) প্রধান মোহন ভগবত বলেছেন, ভারতে হিন্দু বা মুসলিম নয়, আধিপত্য থাকবে শুধু ভারতীয়দের।

রোববার মুসলিম রাষ্ট্রীয় মঞ্চ আয়োজিত ‌‌‌‘হিন্দুস্তানি প্রথম, হিন্দুস্তান প্রথম’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে দেয়া ভাষণে তিনি এ মন্তব্য করেন।

ওই সময় তিনি ভারতে ইসলাম বিপদে রয়েছে বলে শঙ্কায় না থাকার আহ্বান জানিয়েছেন মুসলিমদের।

আরএসএসের প্রধান বলেন, কে কীভাবে উপাসনা করে তা দেখে মানুষকে আলাদা করা যায় না।

তিনি বলেন, ‌‘কোনো বিষয়ে হিন্দু-মুসলমানের মতপার্থক্য থাকতে পারে। কিন্তু তার মানেই তারা আলাদা সমাজের নয়।’

তার পর্যবেক্ষণ, রাজনীতি কখনোই মানুষকে জুড়ে রাখে না। এর মাধ্যমে মানুষের বিভাজন তৈরি হয়।

তিনি বলেন, ‌‘ভারতে ইসলামের কোনো ভয়-আশঙ্কা যে থাকতে পারে না, তা দেশের সংবিধানই প্রমাণ দেয়। সংখ্যালঘুদের নিয়ে কোনো রকম হিংসাত্মক কথা বললে, হিন্দুরাই তার বিরোধিতা করবে।’

বক্তব্যে হিন্দু-মুসলিম সম্প্রীতি-সম্পর্কের ওপর জোর দেন মোহন ভগবত। তিনি বলেন, ‘যদি কোনো হিন্দু বলেন এখানে মুসলমানের থাকার অধিকার নেই, তাহলে ওই ব্যক্তিই আসলে হিন্দু নন। গরু একটি পবিত্র প্রাণী। কিন্তু যারা গণপিটুনির মতো ঘটনাকে প্রশ্রয় দেয়, তারা আসলে হিন্দুত্বের বিরোধী। আইন কোনো কিছু না ভেবে যেন তাদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ করে।‌‌‌’

যদিও একই সঙ্গে তিনি যোগ করেন, বিভিন্ন সময় মিথ্যা ঘটনাকে গণপিটুনির নামে রটিয়ে দেয়া হয়। সেই সব মিথ্যা ঘটনা থেকে নিজেদের বাঁচিয়ে রাখতে হবে।

দেশের উন্নতি হিন্দু-মুসলমান সম্প্রীতির সম্পর্ক ছাড়া কোনোদিনই সম্ভব নয় বলে মনে করেন আরএসএসের প্রধান ভগবত।

প্রাচীন ঐতিহ্য রক্ষার খাতিরে সম্প্রীতিই দেশবাসীর জাতীয়তাবাদের ধারণা হওয়া উচিত বলে দাবি তার।

ভগবত মনে করেন, হিন্দু-মুসলমান সমস্যার সমাধানের সূত্র রয়েছে একমাত্র আলোচনায়। হিংসা, অশান্তি কখনোই কোনো সমস্যার সমাধান হতে পারে না।

তিনি বলেন,‌ ‘হিন্দু-মুসলিম সম্প্রীতি একই। আলাদা করে বললে ভুল পথে চালনা করা হবে। ধর্ম নির্বিশেষে ভারতীয়দের ডিএনএ এক। আমরা গণতান্ত্রিক দেশ। সেটা হিন্দু-মুসলিম দিয়ে চেপে দেয়া যাবে না। এখানে রাজ করবে একটাই; আমরা ভারতীয়।’

ভগবতের বক্তব্যের সমালোচনায় ওয়াইসি

আরএসএস প্রধানের ওই মন্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে পাল্টা আক্রমণ করেছেন অল ইন্ডিয়া মজলিস-ই-ইত্তেহাদুল মুসলিমিনের (এআইএমআইএম) প্রধান ও সাংসদ আসাদউদ্দিন ওয়াইসি।

মুসলিমদের ওপর অত্যাচারের বীজ গডসের হিন্দুত্ববাদের মধ্যেই নিহিত রয়েছে বলে কটাক্ষ করেন তিনি।

ওয়াইসি টুইটে লেখেন, ‌‘আরএসএসের মোহন ভগবত বলেছেন, গণপিটুনি যারা দেয়, তারা হিন্দুবিরোধী। এই অপরাধীরা গরু আর মহিষের মধ্যে ফারাক বোঝে না। অথচ খুন করার জন্য জুনাইদ, আখলাখ, পহেলু, রকবর, আলিমুদ্দিনের নামই যথেষ্ট।

‘এই হিংসা হিন্দুত্বেরই দান। এই অপরাধীদের হিন্দুত্ববাদী সরকারের শক্তিশালী আশ্রয় আছে।’

তিনি বলেন, ‌‘‘একজন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী আলিমুদ্দিনের খুনিকে ফুলের মালা পরিয়ে দেন, আখলাখের হত্যাকারীর মৃতদেহের ওপর দেশের জাতীয় পতাকা দিয়ে দেয়া হয়, আসিফের হত্যাকারীর সমর্থনে মহাপঞ্চায়েত ডাকা হয়, যেখানে বিজেপির মুখপাত্র জানতে চান, ‌‌‘আমরা কি খুনও করতে পারি না!’”

ওয়াইসি টেনে এনেছেন গডসের প্রসঙ্গও। গণপিটুনির পরিপ্রেক্ষিতে এআইএমআইএম প্রধান আরও লেখেন, ‌‌‘ভীতি প্রদর্শন, হিংসা এবং হত্যা গডসের হিন্দুত্ববাদের ভাবনারই অংশ। মুসলিমদের গণপিটুনিও এই ভাবনারই একটা বহিঃপ্রকাশ।’

আরও পড়ুন:
আরএসএস প্রধানের মুখে এবার উল্টো সুর

শেয়ার করুন

মন্তব্য