যুক্তরাষ্ট্রে সাইবার হামলা: সুইডেনে বন্ধ ৮০০ সুপারশপ, রেলওয়ে

যুক্তরাষ্ট্রে সাইবার হামলা: সুইডেনে বন্ধ ৮০০ সুপারশপ, রেলওয়ে

গত কয়েক বছরের মধ্যে এটাই যুক্তরাষ্ট্রে সবচেয়ে বড় সাইবার হামলা। হামলাটি নিয়ে দেশটির প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনও উদ্বেগ প্রকাশ করে এর পিছনে কারা রয়েছে তা খুঁজে বের করার নির্দেশ দিয়েছেন।

দুই দিন পার হলেও সাইবার হামলার কূল-কিনারা করতে পারেনি যুক্তরাষ্ট্র। ফলে হামলা আরও বেড়েছে। প্রথমে ২০০ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা চালানোর কথা বলা হলেও পরে তা হাজার ছাড়ায়।

মিয়ামিভিত্তিক প্রতিষ্ঠান কাসিয়ায় সাইবার হামলা চালালে শুক্রবার সুইডেনের আট শতাধিক চেইনশপ বন্ধ করে দিতে হয়েছে।

সুইডেনের ভিসমা এসকম তাদের চেইনশপ সার্ভিস কপ-এর কার্যক্রম পরিচালনায় ব্যবহার করে কাসিয়ার সফটওয়্যার ও সিস্টেম ব্যবহার।

এ ছাড়া সুইডেনের কিছু এলাকায় রেলওয়ে সেবা ও ফার্মেসি সেবাও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলে জানায় দেশটির সংবাদমাধ্যম সুইডিস নিউজ এজেন্সি।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, কপ তাদের ৮০০টি চেইনশপ স্টোর শুক্রবার থেকেই বন্ধ করে দিয়েছে। তাদের সিস্টেম বিশেষ করে ক্যাশ রেজিস্টার কাজ না করায় সেবাটি বন্ধ করতে বাধ্য হয়েছে তারা।

প্রতিবেদনে বলা হয়, চেইনশপটিকে লক্ষ্য করে এই হামলা চালানো হয়নি। হামলা চালানো হয়েছে সফটওয়্যার প্রতিষ্ঠানে।

ভিসমা এসকমের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) ফাবিয়ান মোগরেন বলেন, তারা সাইবার হামলাটিতে বিভিন্ন ভাবে ধাক্কা খেয়েছেন।

এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়, র‍্যানসম হামলা চালানো গ্যাংটি রিভেল নামে পরিচিত। এটি কাসিয়ার ডেস্কটপ ম্যানেজমেন্ট টুল ভিএসএ এবং তাদের সিস্টেমে ভাইরাস ঢুকিয়ে দেয়। এতে হাজার হাজার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ঝুঁকিতে পড়ে যায়।

সাইবার সিকিউরিটি প্রতিষ্ঠান হান্ট্রেস ল্যাব জানিয়েছে, শুক্রবার হামলার পর শনিবারও হাজার প্রতিষ্ঠানে হামলা হয়েছে।

কাসিয়া বলছে, তাদের ৪০ গ্রাহক সরাসরি সাইবার হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তবে অন্য গ্রাহকরাও পরোক্ষভাবে ক্ষতির মুখে পড়বেন।

বিষয়টির কূল-কিনারা করতে কাসিয়া এফবিআইয়ের সঙ্গে কাজ করার কথাও জানিয়েছে।

গত কয়েক বছরের মধ্যে এটাই যুক্তরাষ্ট্রে সবচেয়ে বড় সাইবার হামলা। হামলাটি নিয়ে দেশটির প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনও উদ্বেগ প্রকাশ করে এর পিছনে কারা রয়েছে তা খুঁজে বের করার নির্দেশ দিয়েছেন।

এর আগের শুক্রবার হামলার পর যুক্তরাষ্ট্রের দিক থেকে দাবি করা হয়, সাইবার হামলাটি চালানো হয়েছে রাশিয়া সমর্থিক কোনো গ্রুপ থেকে।

যুক্তরাষ্ট্রের সাইবারসিকিউরিটি অ্যান্ড ইনফ্রাস্টাকচার সংস্থা, ফেডারেল এজেন্সি এক বিবৃতিতে বলেছে, এই হামলার আদ্যপান্ত বের করে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে তারা।

আরও পড়ুন:
শাটডাউনে ব্যাংকে সাইবার হামলার আশঙ্কায় সতর্কতা
যুক্তরাষ্ট্রের ২০০ প্রতিষ্ঠানে সাইবার হামলা
যুক্তরাষ্ট্রের ৩০ হাজার প্রতিষ্ঠানে চীনের সাইবার হামলা
সাইবার হামলা: রাশিয়াকে দুষতে নারাজ ট্রাম্প
অলিম্পিকের সাইট হ্যাক রাশিয়ার: যুক্তরাজ্য

শেয়ার করুন

মন্তব্য