কানাডায় দাবদাহে ৫ দিনে ১৩৪ মৃত্যু

কানাডায় দাবদাহে ৫ দিনে ১৩৪ মৃত্যু

প্রচণ্ড গরমে নাভিশ্বাস উঠছে কানাডার ভ্যানকুভারে। ছবি: সিবিসি

ভ্যানকুভারের প্রশান্ত মহাসাগরীয় উপকূলে কয়েক দিন ধরে তাপমাত্রা ৮৬ ডিগ্রি ফারেনহাইটের উপরে ছিল, যা চলতি মৌসুমে স্বাভাবিকের তুলনায় প্রায় ২০ ডিগ্রি বেশি। আর্দ্র বাতাসের কারণে মঙ্গলবার তাপমাত্রা অনুভূত হয় ১১১ ডিগ্রি ফারেনহাইট পর্যন্ত।

দাবদাহে কানাডায় পাঁচ দিনে প্রাণ গেছে কমপক্ষে ১৩৪ জনের। শুধু ব্রিটিশ কলাম্বিয়া প্রদেশের ভ্যানকুভার শহরেই শুক্রবার থেকে গত পাঁচ দিনে হয়েছে বিপুল এ প্রাণহানি।

ভ্যানকুভার পুলিশ বিভাগ ও রয়্যাল কানাডিয়ান মাউন্টেড পুলিশ মঙ্গলবার এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

ফ্রান্স টোয়েন্টিফোর ডটকমের প্রতিবেদনে জানানো হয়, মঙ্গলবার টানা তৃতীয় দিনের মতো এযাবৎকালের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করেছে কানাডা।

কানাডার আবহাওয়া অধিদপ্তর এনভায়রনমেন্ট কানাডা জানায়, ভ্যানকুভার থেকে ২৫০ কিলোমিটার পূর্বের লাইটনে তাপমাত্রার পারদ পৌঁছেছিল ১২১ ডিগ্রি ফারেনহাইট বা ৪৯ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসে।

ভ্যানকুভারের প্রশান্ত মহাসাগরীয় উপকূলে কয়েক দিন ধরে তাপমাত্রা ৮৬ ডিগ্রি ফারেনহাইটের উপরে ছিল, যা চলতি মৌসুমে স্বাভাবিকের তুলনায় প্রায় ২০ ডিগ্রি বেশি। আর্দ্র বাতাসের কারণে মঙ্গলবার তাপমাত্রা অনুভূত হয় ১১১ ডিগ্রি ফারেনহাইট পর্যন্ত।

বার্তা সংস্থা এএফপিকে এনভায়রনমেন্ট কানাডার জ্যেষ্ঠ আবহাওয়াবিদ ডেভিড ফিলিপস বলেন, ‘যে গরম আবহাওয়ার মধ্য দিয়ে এ মুহূর্তে আমরা যাচ্ছি, এর চেয়ে দুবাইয়ের পরিবেশও বেশি আরামদায়ক ও ঠান্ডা।’

দাবদাহের কারণে ভ্যানকুভারে সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও করোনাভাইরাস প্রতিরোধী টিকা কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে।

স্থানীয় আরও অনেক মিউনিসিপ্যালিটি থেকে গরমে অনেক মানুষের মৃত্যুর কথা জানানো হলেও সংখ্যা প্রকাশ করা হয়নি।

চলতি সপ্তাহজুড়ে ব্রিটিশ কলাম্বিয়া, অ্যালবার্টা, সাসকাচোয়ানের আংশিক, মানিটোবা, ইউকোন ও উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে বিপজ্জনক তাপমাত্রা অব্যাহত থাকবে বলে সতর্কতা জারি করেছে এনভায়রনমেন্ট কানাডা।

জলবায়ু পরিবর্তন ও বৈশ্বিক উষ্ণতা বৃদ্ধির ফলে গত কয়েক বছর ধরে সর্বোচ্চ তাপমাত্রার নতুন নতুন রেকর্ডের সাক্ষী হয়েছে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ ও অঞ্চল। এযাবৎকালের সবচেয়ে উষ্ণ পাঁচটি বছরই ছিল গত পাঁচ বছর।

উষ্ণ বাতাস প্রবাহিত হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের অরিগন অঙ্গরাজ্য থেকে কানাডার আর্কটিক অঞ্চল পর্যন্ত।

যুক্তরাষ্ট্র-কানাডায় তাপমাত্রার তীব্রতা অতীতের সব রেকর্ড ছাড়িয়ে যেতে পারে বলে শনিবারই সতর্কতা জারি করে দেশ দুটির আবহাওয়া বিভাগ।

১৯৪০-এর দশকে তাপমাত্রার রেকর্ড রাখতে শুরু করার পর অরিগন অঙ্গরাজ্যের অরিগন, পোর্টল্যান্ড ও ওয়াশিংটনের সিয়াটল শহরে চলতি সপ্তাহে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা দেখেন বাসিন্দারা।

যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় আবহাওয়া বিভাগের তথ্য অনুযায়ী, সোমবার পোর্টল্যান্ডে ১১৫ ও সিয়াটলে ১০৮ ডিগ্রি ফারেনহাইট তাপমাত্রা রেকর্ড হয়। এটি শহর দুটিতে এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ তাপমাত্রা।

গরমের কারণে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত ভবনের ভেতরে দিনের বেশিরভাগ সময় থাকতে, বাইরে যাওয়া এড়িয়ে চলতে, পর্যাপ্ত পানি পান করতে এবং পরিবার-পরিজন ও প্রতিবেশীদের খবর রাখতে পরামর্শ দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের প্রশাসন।

যুক্তরাষ্ট্র-কানাডায় গরমের কারণে জরুরি শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত কেন্দ্র স্থাপন করা হয়েছে। কর্মজীবীদের পানির বোতল ও টুপি সরবরাহ করা হচ্ছে।

উচ্চ তাপমাত্রা ও খরার তীব্রতায় দাবানল পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে বিস্তীর্ণ অঞ্চলে। একটি আগুনে এরই মধ্যে ক্যালিফোর্নিয়া-অরিগনের প্রায় দেড় হাজার একর এলাকা পুড়ে গেছে।

আরও পড়ুন:
যুক্তরাষ্ট্র-কানাডায় দাবদাহ

শেয়ার করুন

মন্তব্য