পূর্ব জেরুজালেমে ফিলিস্তিনি উচ্ছেদ ফের শুরু

পূর্ব জেরুজালেমে ফিলিস্তিনি উচ্ছেদ ফের শুরু

পূর্ব জেরুজালেমের সিলওয়ান এলাকায় ফের ফিলিস্তিনি উচ্ছেদ শুরু করেছে ইসরায়েল। ছবি: এএফপি

মঙ্গলবার সকালে ফিলিস্তিনি-অধ্যুষিত আল-বুসতানে বুলডোজার নিয়ে প্রবেশ করে ইসরায়েলি বাহিনী। ওই সময় সেখানে এক মাংস বিক্রেতার দোকান তারা গুঁড়িয়ে দেয়।

পূর্ব জেরুজালেমের সিলওয়ান অঞ্চলে ফিলিস্তিনিদের এক দোকান ভেঙে গুঁড়িয়ে দিয়েছে ইসরায়েলের নিরাপত্তা বাহিনী।

সিলওয়ানের আল-বুসতান এলাকায় মঙ্গলবার উচ্ছেদের এ ঘটনা ঘটে বলে আল-জাজিরার প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে।

ওই দিন সকালে ফিলিস্তিনি-অধ্যুষিত আল-বুসতানে বুলডোজার নিয়ে প্রবেশ করে ইসরায়েলি বাহিনী। ওই সময় সেখানে এক মাংস বিক্রেতার দোকান তারা গুঁড়িয়ে দেয়।

দোকানটি ভাঙার সময় ঘটনাস্থল থেকে ফিলিস্তিনি ও অধিকারকর্মীদের সরাতে কাঁদানে গ্যাস ছোড়া হয়। ওই সময় তাদের লাঠিচার্জ করে ইসরায়েলি বাহিনী।

ফিলিস্তিন রেড ক্রিসেন্ট জানিয়েছে, লাঠিচার্জে কমপক্ষে চার ফিলিস্তিনি আহত হয়।

সিলওয়ান থেকে আল-জাজিরার প্রতিবেদক হ্যারি ফসেট বলেন, মঙ্গলবার সকালের দিকে ইসরায়েলের নিরাপত্তা বাহিনীর বিপুলসংখ্যক সদস্য আল-বুসতান এলাকায় বুলডোজার নিয়ে হাজির হয়।

তিনি বলেন, ‘গুঁড়িয়ে দেয়া দোকানের মালিক ও তার পরিবারের সঙ্গে কথা বলেছি। তারা জানান, কাঁদানে গ্যাস ব্যবহার করে ইসরায়েলি বাহিনী তাদের ওপর হামলা চালায়।

‘তবে এটি শুধু একটি দোকানের বিষয় নয়। এমন আরও ২০টির মতো স্থাপনা ভেঙে ফেলা হবে।’

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বাড়িঘর রক্ষার স্বার্থে মসজিদের মাইক থেকে স্থানীয় বাসিন্দাদের জড়ো হওয়ার আহ্বান জানানো হয়। ওই সময় ক্ষুব্ধ ফিলিস্তিনিদের ছত্রভঙ্গ করতে তাদের ওপর স্টিল বুলেট ছোড়ে বাহিনী।

৭ জুন আল-বুসতান এলাকার বাসিন্দাদের বেশ কয়েকটি উচ্ছেদ নোটিশ পাঠায় জেরুজালেম মিউনিসিপ্যালিটি।

নোটিশে আল-বুসতানের ১৩টি পরিবারের ১৩০ জনের মতো সদস্যকে ২১ দিন সময় দেয়া হয়। ওই সময়ের ভেতর তাদের বাড়িঘর ছেড়ে দিতে বলা হয়।

নোটিশে আরও বলা হয়, নির্দেশ অনুযায়ী কাজ না করলে মিউনিসিপ্যালিটিই ওই সব ঘর ভেঙে দেবে। পাশাপাশি উচ্ছেদ ব্যয় হিসেবে ২০ হাজার ডলার পরিবারগুলোকে দেয়া লাগবে।

ফসেট বলেন, ‘ইসরায়েল অধিকৃত জেরুজালেমে এমনই হয়। ফিলিস্তিনি পরিবারগুলোকে ২১ দিনের সময় দেয়া হয়।

‘পরিবারগুলোকে বলা হয়, তারা নিজেরাই যেন নিজেদের ঘর ভেঙে ফেলে, নয়তো ঘর ভাঙতে মিউনিসিপ্যালিটিকে যে দুর্ভোগ পোহাতে হবে, তার জন্য ২০ হাজার ডলার জরিমানা দিতে হবে।’

তিনি বলেন, এ বিষয়ে ইসরায়েল এমন একটি আইন প্রণয়ন করেছে, যার কারণে উচ্ছেদ নোটিশের বিরুদ্ধে আদালতে আবেদন করাও ফিলিস্তিনি পরিবারের জন্য কঠিন।

ইহুদি বসতি স্থাপনকারীদের (সেটেলার) সুবিধার্থে ২০০৫ সাল থেকে আল-বুসতানের ফিলিস্তিনিরা প্রায় ৯০টির মতো বাড়ি ভেঙে ফেলার নোটিশ পায়।

আরও পড়ুন:
ফিলিস্তিনি নিরাপত্তা হেফাজতে আব্বাস সমালোচকের মৃত্যু
গাজা থেকে সীমিত আকারে বাণিজ্যিক পণ্য রপ্তানির অনুমতি
মহানবী মোহাম্মদের সমর্থনে মিছিলে ইসরায়েলের হামলা
গাজায় ফের ইসরায়েলের হামলা
বেলুনবোমার জবাবে গাজায় বিমান হামলা ইসরায়েলের

শেয়ার করুন

মন্তব্য