উইঘুর মুসলমান নির্যাতন: পুলিৎজার পেলেন মেঘা

উইঘুর মুসলমান নির্যাতন: পুলিৎজার পেলেন মেঘা

উইঘুর নিয়ে প্রতিবেদনের জন্য পুলিৎজার পুরস্কার পান সাংবাদিক মেঘা রাজাগোপালান। ছবি: পুলিৎজার সেন্টার

শিনজিয়াং প্রদেশে উইঘুরসহ অন্যান্য সম্প্রদায়ের মুসলমানদের আটকে রাখতে গোপনে নির্মিত বন্দিশিবিরের ওপর অনুসন্ধানী সিরিজ প্রতিবেদন করেন মেঘা ও তার দুই সহযোগী। বিশ্বজুড়ে সাড়া ফেলা ওই প্রতিবেদনই তাদের এনে দিয়েছে আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি।

চীনের শিনজিয়াং প্রদেশে উইঘুর সম্প্রদায়ের ওপর দেশটির সরকারের অবর্ণনীয় নির্যাতনের ওপর অনুসন্ধানী প্রতিবেদনের জন্য পুলিৎজার পেয়েছেন ভারতীয় বংশোদ্ভূত সাংবাদিক মেঘা রাজাগোপালান। এই প্রতিবেদন তৈরিতে সহযোগিতা করায় তার সঙ্গে এই পুরস্কার পেয়েছেন আরও দুই কন্ট্রিবিউটর।

শিনজিয়াং প্রদেশে উইঘুরসহ অন্যান্য সম্প্রদায়ের মুসলমানদের আটকে রাখতে গোপনে নির্মিত বন্দিশিবিরের ওপর অনুসন্ধানী প্রতিবেদনটি করেন তারা। তাদের ওই সিরিজ প্রতিবেদনে নির্যাতনের ওই সব অবকাঠামো প্রকাশ্যে আসে।

পিটিআইয়ের প্রতিবেদনে শনিবার বলা হয়, শিনজিয়াংকে ঘিরে মেঘার সিরিজ প্রতিবেদন ইন্টারন্যাশনাল রিপোর্টিং ক্যাটাগরিতে পুলিৎজার পুরস্কার জিতে নেয়।

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক সংবাদমাধ্যম বাজফিড নিউজে কর্মরত মেঘা।

বাজফিড নিউজের পক্ষ থেকে বলা হয়, ২০১৭ সালে শিনজিয়াংয়ের বন্দিশিবিরে কয়েক হাজার মুসলমানকে আটকে রাখা শুরু করে চীন। ওই বছর মেঘাই প্রথম ওই সব শিবিরে যান। বন্দিশিবিরের অস্তিত্বের অভিযোগ সে সময় বারবার অস্বীকার করেছিল চীন।

মেঘার পুলিৎজার জেতা নিয়ে বাজফিড বলেছে, ‘চীন সরকার মেঘার অনুসন্ধানী কাজ বন্ধ করে দিতে চেয়েছিল। তার ভিসা বাতিল এবং তাকে দেশ থেকে বের করে দিতে চেয়েছিল।

‘পুরো শিনজিয়াং প্রদেশে পশ্চিমা দেশের নাগরিকসহ সাংবাদিকদের প্রবেশ বন্ধ করার উদ্যোগ নিয়েছিল চীন। তখন বন্দিদের নিয়ে প্রাথমিক তথ্য পাওয়াও কঠিন হয়ে পড়ে।’

তবে চীন সরকারের এসব বাধার সামনে দমে যাননি মেঘা। কর্মস্থল লন্ডন থেকে দুই কন্ট্রিবিউটরকে সঙ্গে নিয়ে শিনজিয়াংয়ে উইঘুর নির্যাতন নিয়ে প্রতিবেদনের কাজ অব্যাহত রাখেন তিনি।

উইঘুর মুসলমান নির্যাতন: পুলিৎজার পেলেন মেঘা

শিনজিয়াংয়ে উইঘুরদের ওপর নির্যাতনের নিন্দা জানিয়ে ইস্তাম্বুলে চীনের কনস্যুলেটের বাইরে বিক্ষোভ। ছবি: এএফপি

কন্ট্রিবিউটরদের একজন স্থপতি অ্যালিসন কিলিং। ফরেন্সিক অ্যানালাইসিস অফ আর্কিটেকচার ও স্যাটেলাইট ইমেজেস অফ বিল্ডিং বিষয়ে বিশেষজ্ঞ তিনি। অন্যজন প্রোগ্রামার ক্রিস্টো বুসচেক।

বাজফিড নিউজের প্রধান সম্পাদক মার্ক স্কুফস বলেন, ‘এ সময়ের অন্যতম ভয়াবহ মানবাধিকার লঙ্ঘনের বিষয়ে বিশ্ববাসীকে জানাতে শিনজিয়াং প্রতিবেদন খুবই দরকারী ছিল।’

পুলিৎজার পুরস্কার জয়ের পর লন্ডন থেকে মেঘা বাজফিড নিউজকে জানান, টেলিভিশনে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান দেখা হয়নি তার। কারণ পুরস্কার জিতবেন, তা তিনি আশাই করেননি। সম্পাদক স্কুফস তাকে ফোনে সুখবরটি দেন।

মেঘা বলেন, শিনজিয়াংয়ের প্রতিবেদন তৈরিতে সহযোগিতা করা পুরো দলের প্রতি গভীরভাবে কৃতজ্ঞ তিনি।

দুই কন্ট্রিবিউটর কিলিং ও বুসচেক, তার সম্পাদক অ্যালেক্স ক্যাম্পবেল, বাজফিড নিউজের জনসংযোগ বিভাগের দল, তহবিল দেয়া সংস্থা ও পুলিৎজার সেন্টারকে ধন্যবাদ জানান মেঘা।

আরও পড়ুন:
শিনজিয়াংয়ে বিভীষিকাময় পরিস্থিতি সৃষ্টি করেছে চীন
উইঘুর ট্রাইব্যুনালে গণহত্যার ইস্যুতে সাক্ষ্য গ্রহণ শুরু
উইঘুরদের ওপর নজরদারি যন্ত্রের পরীক্ষা চালাচ্ছে চীন
উইঘুরদের প্রতি চীনের আচরণ ‘মানবতাবিরোধী অপরাধ’
উইঘুর: চীনা কর্মকর্তাদের ওপর পশ্চিমা দেশগুলোর অবরোধ

শেয়ার করুন

মন্তব্য