ভারতে ২৮ হাতি ও ৯ সিংহের করোনা

ভারতে ২৮ হাতি ও ৯ সিংহের করোনা

তামিলনাড়ুর নীলগিরি জেলায় ২৮টি হাতির করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট পজিটিভ বলে খবর। মুদুমালাই টাইগার রিজার্ভের থেপ্পাকাডু এলিফ্যান্ট ক্যাম্পে হাতির কোভিড পজিটিভের খবরে চাঞ্চল্য দেখা দিয়েছে। এর আগে আটটি সিংহের করোনা পরীক্ষার প্রতিবেদন পজিটিভ এসেছিল।

ভারতে করোনার দাপটে জেরবার মানুষ। মৃত্যুর নিরিখে যুক্তরাষ্ট্র ও ব্রাজিলের পরেই ভারতের স্থান। অতিমারি পরিস্থিতিতে এক বছরের বেশি সময়ে বহু মানুষের মৃত্যু হয়েছে। মানুষের পর এবার পশুর দেহে করোনা ভাইরাসের সন্ধান পাওয়া গেল। এতে নতুন করে আতঙ্ক ছড়িয়েছে।

তামিলনাড়ুর নীলগিরি জেলায় ২৮টি হাতির করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট পজিটিভ বলে খবর। মুদুমালাই টাইগার রিজার্ভের থেপ্পাকাডু এলিফ্যান্ট ক্যাম্পে হাতির কোভিড পজিটিভের খবরে চাঞ্চল্য দেখা দিয়েছে। এর আগে আটটি সিংহের করোনা পরীক্ষার প্রতিবেদন পজিটিভ এসেছিল। এরপরেই হাতিগুলোর করোনা পরীক্ষার নির্দেশ দেন বনমন্ত্রী কে রামাচন্দ্রন।

হাতির দেহে করোনা শনাক্তের ঘটনায় ইতিমধ্যে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে সারা দেশে। পশু চিকিৎসক রাজেশ কুমার হাতির দেহ থেকে নমুনা সংগ্রহ করে উত্তরপ্রদেশে পরীক্ষার জন্য পাঠান। তারপর জানা যায়, হাতিগুলো কোভিড-১৯ আক্রান্ত। এগুলোকে বিশেষ যত্নের সঙ্গে দেখভাল করছেন ৫২ জন কর্মী।

চেন্নাইয়ের ভান্ডালুর চিড়িয়াখানায় গত সপ্তাহে মৃত্যু হয়েছে নীলা নামের এক সিংহীর। সন্দেহ এটি কোভিড আক্রান্ত ছিল। তারপর আরও ৯টি সিংহের শরীরে কোভিড শনাক্ত হয়। ভোপালের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ হাই সিকিউরিটি অ্যানিম্যাল ডিজিজেস-এ তাদের নমুনা পরীক্ষা করা হয়।

গত সপ্তাহেই রাঁচির ভগবান বীরসা বায়োলজিকাল পার্কে ১০ বছর বয়সী একটি বাঘের মৃত্যু হয় জ্বরে। যদিও পরীক্ষায় তার রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে, ভিসেরা পাঠানো হয়েছে বরেলির ভেটেরিনারি রিসার্চ ইনস্টিটিউটে।

গত বছরের ডিসেম্বরে ‘পিএলওএস কম্পিউটেশনাল বায়োলজি জার্নালে’ করোনা ভাইরাস সংক্রমণ নিয়ে একটি প্রবন্ধ ছাপা হয়। সেখানে ১০টি প্রাণীর করোনার স্পাইক প্রোটিনের প্রতি কতটা আকর্ষণ অনুভব করছে, তার চুলচেড়া বিশ্লেষণ করা হয়েছিল। কম্পিউটার মডেলিং টেস্টের মাধ্যমে গোটা কাজটা করেন গবেষকরা। কোষে মাথা গোঁজার পর কত তাড়াতাড়ি ভাইরাস বংশবৃদ্ধি করে, তার সূচক কোডন অ্যাডাপটেশন ইনডেক্স, তারও তুলনা করেন তারা। সেখানেই মাথা ঘুরিয়ে দেয়ার মতো তথ্য সামনে এসেছে। জানা গেছে, করোনা সংক্রমণের আশঙ্কার বিচারে মানুষের পরেই বিড়াল জাতীয় করেকটি প্রাণী যেমন ফেরেট, বিড়াল ও সিভেট বা গন্ধগোকুলের স্থান।

আরেকটি গবেষণায় দেখা গেছে, শিম্পাঞ্জির করোনা সংক্রমণের আশঙ্কা রীতিমতো, নীল-চোখো কালো লেমুরের সংক্রমণ-আশঙ্কা ভালোই। মাঝারি আশঙ্কা রয়েছে বিড়ালের, কুকুরের আশঙ্কা কিন্তু সে তুলনায় কম।

গত আগস্টে ইটালির বোলোনিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা ছয়টি বিড়াল ও একটি বাঘের অন্ত্রনালীর টিস্যু বিশ্লেষণ করেও তাদের সংক্রমণ-সম্ভাবনার ইঙ্গিত দেন। তবে, তারা জানাচ্ছেন, বাঘের থেকে তার মাসি বিড়ালের করোনার আশঙ্কা কিন্তু অনেকটাই বেশি।

আরও পড়ুন:
ভারতে দ্বিতীয় ঢেউয়ে ৬২৪ চিকিৎসকের মৃত্যু
ভারতে করোনায় মা-বাবা হারিয়েছে ৯৩৪৬ শিশু

শেয়ার করুন

মন্তব্য