তৃণমূলের নেতাদের জামিন শুনানি ফের বৃহস্পতিবার

তৃণমূলের নেতাদের জামিন শুনানি ফের বৃহস্পতিবার

তৃণমূলের গ্রেপ্তার চার নেতা। ফাইল ছবি

সোমবার গ্রেপ্তার চার নেতাকে নিম্ন আদালত জামিন দেয়। সন্ধ্যার পরে সিবিআইয়ের আবেদনের ভিত্তিতে হাইকোর্টে এই মামলার শুনানি হয় এবং নিম্ন আদালতের জামিনের ওপর স্থগিতাদেশ দেয় হাইকোর্ট।

নারদা স্টিং অপারেশন কেলেংকারিতে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের ক্ষমতাসীন দল তৃণমূল কংগ্রেসের চার নেতাকে নিম্ন আদালতের দেয়া সোমবারের জামিনের ওপর হাইকোর্টের স্থগিতাদেশ পুনর্বিবেচনা শুনানি অনুষ্ঠিত হয়েছে বুধবার।

হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ আগামীকাল বৃহস্পতিবার দুপুর ২টায় ফের এই মামলার শুনানির সময় দেয়।

অতএব আপাতত তৃণমূলের গ্রেপ্তার নেতা ও পরিবহনমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম, পঞ্চায়েতমন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়, সাবেক মন্ত্রী শোভন চট্টোপাধ্যায় ও মদন মিত্রকে কারাগারেই থাকতে হচ্ছে।

সোমবার গ্রেপ্তার চার নেতাকে নিম্ন আদালত জামিন দেয়। সন্ধ্যার পরে সিবিআইয়ের আবেদনের ভিত্তিতে হাইকোর্টে এই মামলার শুনানি হয় এবং নিম্ন আদালতের জামিনের ওপর স্থগিতাদেশ দেয় হাইকোর্ট।

চার নেতার আইনজীবী ওই দিনই জামিনের স্থগিতাদেশ পুনর্বিবেচনার আবেদন জানান হাইকোর্টে। তারই আড়াই ঘণ্টা ধরে শুনানি চলে বুধবার। আবার বৃহস্পতিবার শুনানির তারিখ দেয়া হয়েছে।

সোমবার রাতে প্রেসিডেন্সি জেলে রাখা হয় গ্রেপ্তার হওয়া চারজনকে।

বর্তমানে সুব্রত মুখোপাধ্যায়, মদন মিত্র ও শোভন চট্টপাধ্যায় এসএসকেএম হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। প্রেসিডেন্সি জেলে রয়েছেন ফিরহাদ হাকিম।

২০১৪ সালে নারদা নিউজের প্রধান ম্যাথু স্যামুয়েল স্টিং অপারেশন করেন। ম্যাথুর পরিকল্পনা অনুযায়ী ইমপেক্স কনসালট্যান্সি নামে একটি কাল্পনিক সংস্থার হয়ে নারদা নিউজের লোকজন তৃণমূলের নেতা-নেত্রীদের কাছে পৌঁছান‌।

নারদা নিউজের দাবি, ওই কাল্পনিক সংস্থা রাজ্যে ব্যবসা চালানোর জন্য ৭২ লাখ টাকা ঘুষ দেয় তৃণমূলের নেতা-নেত্রীদের।

মুকুল রায়, শুভেন্দু অধিকারী, সুলতান আহমেদ, সৌগত রায়, ফিরহাদ হাকিম, সুব্রত মুখোপাধ্যায়, মদন মিত্র, শোভন চট্টোপাধ্যায়, পুলিশ কর্মকর্তা এমএইচ আহমেদের নাম জড়িয়ে যায় নারদা কেলেংকারিতে। এদের প্রত্যেককে ভিডিওতে টাকা নিতে দেখা যায়।

শেয়ার করুন

মন্তব্য