× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট বাংলা কনভার্টার নামাজের সময়সূচি আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

আন্তর্জাতিক
সৌদি সেনা ঘাঁটি ও তেলের কারখানায় হামলা আগুন
google_news print-icon

সৌদি সেনা ঘাঁটি ও তেলের কারখানায় হামলা, আগুন

সৌদি-সেনা-ঘাঁটি-ও-তেলের-কারখানায়-হামলা-আগুন
সম্প্রতি সৌদি আরবের তেলের কারখানা লক্ষ্য করে হামলা জোরদার করেছে হুতিরা। ছবি: এএফপি
হুতি সেনাবাহিনীর মুখপাত্র ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ইয়াহিয়া সারি বলেন, ‘প্রতিটি লক্ষ্যে সফলভাবে আঘাত হানতে সক্ষম হয়েছি আমরা। নিশ্চিত থাকুন যে সামনের দিনগুলোতে এর চেয়েও বেশি, আরও নিষ্ঠুর সামরিক অভিযান চালানো হবে।’

সৌদি আরবের বেশ কয়েকটি সামরিক ঘাঁটি ও তেলের কারখানায় সমন্বিত হামলা চালিয়েছে ইয়েমেনের হুতি বিদ্রোহীরা।

বৃহস্পতিবার দাম্মামের কিং আব্দুলআজিজ সেনা ঘাঁটি, নাজরান ও আসির এলাকায় অবস্থিত আরও দুটি সেনা ঘাঁটি এবং রাস তানুরা, রাবিগ, ইয়ানবু ও জিজান এলাকায় সৌদি আরামকোর কয়েকটি কারখানায় একযোগে চালানো হয় হামলা।

শুক্রবার এ তথ্য নিশ্চিত করেছে ইরান সমর্থিত গোষ্ঠীটি। টেলিভিশনে সম্প্রচারিত ভাষণে হুতি সেনাবাহিনীর মুখপাত্র ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ইয়াহিয়া সারি বলেন, ‘প্রতিটি লক্ষ্যে সফলভাবে আঘাত হানতে সক্ষম হয়েছি আমরা। নিশ্চিত থাকুন যে সামনের দিনগুলোতে এর চেয়েও বেশি, আরও নিষ্ঠুর সামরিক অভিযান চালানো হবে।’

সৌদি প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, জিজানে তেল পরিশোধনাগার লক্ষ্য করে আটটি বোমারু ড্রোন ছুড়েছে হুতিরা। বৃহস্পতিবারের হামলায় অন্য সব এলাকায় ছোড়া ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানার আগেই ধ্বংস করে দেয়া হলেও, জিজানের একটি ট্যাঙ্কারে আগুন ধরে যায়। তবে কেউ হতাহত হয়নি।

বিশ্বের সর্ববৃহৎ তেলের কারখানা সৌদি আরামকোর নতুন একটি পরিশোধনাগার ও বন্দর ব্যবহারের সুবিধা আছে জিজানে। দিনে চার লাখ ব্যারেল তেল উৎপাদনের সক্ষমতা রয়েছে জিজানে অবস্থিত পরিশোধনাগারটির।

সাম্প্রতিককালে আরামকোর কারখানা লক্ষ্য করে বেশ কয়েকবার হামলার চেষ্টা করেছে হুতিরা। সোমবার সৌদি আরবের অস্ত্রবিরতির প্রস্তাব উপেক্ষা করে আক্রমণ আরও জোরদার করে হুতিরা।

সৌদি প্রেস এজেন্সি জানিয়েছে, এ অবস্থায় তেল কারখানার নিরাপত্তা জোরদারে ব্যবস্থা নেয়ার পরিকল্পনা করছে সৌদি প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়। কঠোর পদক্ষেপ নেয়া হতে পারে হুতিদের বিরুদ্ধেও।

আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় সমর্থিত ইয়েমেন সরকারের সমর্থনে সৌদি আরবের সামরিক অভিযান শুরুর ষষ্ঠ বছর পূর্ণ হয়েছে চলতি মাসে। সৌদি নেতৃত্বাধীন জোটের অভিযান ও হুতি বিদ্রোহীদের সংঘর্ষে এ পর্যন্ত প্রাণ গেছে ১ লাখ ৩০ হাজারের বেশি মানুষের; যাদের মধ্যে কমপক্ষে ১৩ হাজার বেসামরিক নাগরিক।

গৃহযুদ্ধ, সংঘাত ও বহিঃশক্তির আক্রমণে দুর্ভিক্ষের দ্বারপ্রান্তে বিশ্বের অন্যতম দরিদ্র দেশটি। অপুষ্টি ও নানা রোগে ভুগে মৃত্যুর মুখে কয়েক লাখ শিশু।

এ অবস্থায় গত মাসে ইয়েমেন ইস্যুতে সৌদি আরবকে সমর্থন ও অস্ত্র বিক্রি বন্ধ করে মিত্র যুক্তরাষ্ট্র।

মন্তব্য

আরও পড়ুন

আন্তর্জাতিক
Padma Bank Fixed Deposit Scheme Vijay 71 in just 71 days

মাত্র ৭১ দিনে পদ্মা ব্যাংকের ফিক্সড ডিপোজিট স্কিম ‘বিজয় ৭১’

মাত্র ৭১ দিনে পদ্মা ব্যাংকের ফিক্সড ডিপোজিট স্কিম ‘বিজয় ৭১’ মাত্র ৭১ দিনে পদ্মা ব্যাংকের ফিক্সড ডিপোজিট স্কিম ‘বিজয় ৭১’। ছবি: সংগৃহীত
এটিকে আরেকটি বিজয় উল্লেখ করে ব্যাংকের রিটেইল ব্যাংকিং হেড মীর শফিকুল ইসলাম বলেন, ‘বিজয় মানেই উৎসব। এত স্বল্প সময়ে ফিক্সড ডিপোজিটের কথা কিছুদিন আগেও চিন্তা করতে পারতেন না কোনো গ্রাহক। আর পদ্মা ব্যাংকের হাত ধরে সেটা এখন বাস্তব।’

মহান বিজয়ের মাসে পদ্মা ব্যাংকের জয়োৎসব শুরু হলো নতুন পণ্য বিজয় ৭১-এর মোড়ক উন্মোচনের মধ্য দিয়ে।

বিজয় আয়োজনে সবার চেতনায় ধ্বনিত হচ্ছে মুক্তিযুদ্ধের বিজয়গাঁথার স্মৃতিচারণ আর বীর শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা। তেমনি পদ্মা ব্যাংকও বিজয় উদযাপন করতে, মাত্র ৭১ দিনে ৯% হারে ফিক্সড ডিপোজিট করার সুযোগ নিয়ে এলো গ্রাহকদের জন্য।

সম্প্রতি এই স্কিমটি আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয় গুলশানের হেড অফিসে।

মাত্র ৭১ দিনে এক বছরের মুনাফা উপভোগ করবেন গ্রাহকরা। যা ব্যাংক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠানে অনন্য।

এটিকে আরেকটি বিজয় উল্লেখ করে ব্যাংকের রিটেইল ব্যাংকিং হেড মীর শফিকুল ইসলাম বলেন, ‘বিজয় মানেই উৎসব। এত স্বল্প সময়ে ফিক্সড ডিপোজিটের কথা কিছুদিন আগেও চিন্তা করতে পারতেন না কোনো গ্রাহক। আর পদ্মা ব্যাংকের হাত ধরে সেটা এখন বাস্তব।’

আগামীতে গ্রাহকদের জন্য আরও আকর্ষণীয় নানান স্কিম নিয়ে আসবে বলে ঘোষণা দেন শফিকুল ইসলাম।

এ ছাড়াও সম্প্রতি মাসিক সেভিংস স্কিম নামে প্রতি মাসে সঞ্চয় স্কিম এনেছে পদ্মা ব্যাংক। ৫০০ টাকা থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ ২৫ হাজার টাকা কিস্তিতে তিন, পাঁচ, আট এবং দশ বছরের জন্য খোলা যাবে এই অ্যাকাউন্ট। ১১% থেকে ১৪% হারে লভ্যাংশ পাওয়া যাচ্ছে এই হিসাবে।

আরও পড়ুন:
চাকরি ইন্টার্নশিপের সুযোগ নিয়ে ড্যাফোডিল জব উৎসবে পদ্মা ব্যাংক
পদ্মা ব্যাংকের নতুন সঞ্চয়ী হিসাব: দ্বিগুণ লাভে, ডিজিটাল সেবায় গ্রাহকদের আস্থায়
প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে কম্বল দিল পদ্মা ব্যাংক

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
United Kingdoms immigration minister resigned due to disagreements

মতের দ্বন্দ্বে পদত্যাগ করলেন যুক্তরাজ্যের অভিবাসনমন্ত্রী

মতের দ্বন্দ্বে পদত্যাগ করলেন যুক্তরাজ্যের অভিবাসনমন্ত্রী যুক্তরাজ্যের অভিবাসনমন্ত্রী রবার্ট জেনরিক। ছবি: বিবিসি
এর আগে নথিপত্রবিহীন অভিবাসীপ্রত্যাশীদের রুয়ান্ডায় স্থানান্তরের জন্য দেশটির সরকারের সঙ্গে চুক্তি করে যুক্তরাজ্য। মঙ্গলবার পররাষ্ট্রমন্ত্রী ভিনসেন্ট বাইরুতার সঙ্গে এ বিষয়ক একটি চুক্তি স্বাক্ষর করেন ব্রিটেনের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জেমস ক্লেভারলি।

যুক্তরাজ্যের অভিবাসনমন্ত্রীর পদ থেকে পদত্যাগ করেছেন রবার্ট জেনরিক।

দেশটির নথিপত্রবিহীন অভিবাসনপ্রত্যাশীদের রুয়ান্ডা পাঠানোর বিষয়ে যুক্তরাজ্য সরকারের করা চুক্তিতে মতানৈক্য থাকায় তিনি বুধবার এ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে বিবিসির প্রতিবেদনে জানানো হয়।

রবার্ট জেনরিক বলেন, ‘অভিবাসন সংক্রান্ত সরকারের নীতির নির্দেশনার সঙ্গে মতানৈক্য থাকলে তিনি তার অবস্থানে থাকতে পারবেন না।’

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনাকে লেখা এক চিঠিতে তিনি বলেন, ‘আমি এমন একজন রাজনীতিবিদ হতে অস্বীকার করি, যে ব্রিটিশ জনসাধারণের কাছে অভিবাসনের বিষয়ে প্রতিশ্রুতি দিলেও সেগুলো পালন করতে পারেন না।’

এর আগে নথিপত্রবিহীন অভিবাসীপ্রত্যাশীদের রুয়ান্ডায় স্থানান্তরের জন্য দেশটির সরকারের সঙ্গে চুক্তি করে যুক্তরাজ্য। মঙ্গলবার পররাষ্ট্রমন্ত্রী ভিনসেন্ট বাইরুতার সঙ্গে এ বিষয়ক একটি চুক্তি স্বাক্ষর করেন ব্রিটেনের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জেমস ক্লেভারলি।

চুক্তির শর্ত অনুযায়ী, নিজ দেশের অভিবাসী কেন্দ্রগুলো থেকে সব অভিবাসনপ্রত্যাশীকে রুয়ান্ডা পাঠাবে ব্রিটেন। সেই সঙ্গে ব্রিটেন থেকে যাওয়া অভিবাসীদের অন্য কোনো দেশে পাঠানো যাবে না বলে রুয়ান্ডারকে শর্ত দেয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন:
বাংলাদেশে অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন চায় যুক্তরাজ্য: হাইকমিশনার
কনটেম্পোরারি ভিজ্যুয়াল আর্ট নিয়ে যুক্তরাজ্যের ফেস্টিভ্যালে বাংলাদেশের সাদিয়া
যুক্তরাজ্যের বৈদেশিক সহায়তার বাজেট কমায় মৃত্যুঝুঁকিতে বহু অন্তঃসত্ত্বা
যুক্তরাজ্যে শিক্ষাজীবনের প্রস্তুতি বিষয়ে ব্রিটিশ কাউন্সিলের ব্রিফিং বুধবার
বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ার প্রতি সমর্থন অব্যাহত থাকবে: যুক্তরাজ্য

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Trump is predicted to get one and a half million votes

দেড় কোটি ভোট পাওয়ার ভবিষ্যদ্বাণী ট্রাম্পের

দেড় কোটি ভোট পাওয়ার ভবিষ্যদ্বাণী ট্রাম্পের যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ফাইল ছবি
ডোনাল্ড ট্রাম্প ভোটারদের আশ্বস্ত করে বলেন, ‘আমি কখনোই স্বৈরশাসক হব না।’

যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সামনের বছর অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে দেড় কোটি ভোট পাওয়ার ভবিষ্যদ্বাণী করেছেন।

রিপাবলিকান দল থেকে প্রেসিডেন্ট পদে আবারও মনোনয়নপ্রত্যাশী ট্রাম্প স্থানীয় সময় বুধবার ফক্স চ্যানেল আয়োজিত এক ইভেন্টে দর্শক-সমর্থকদের সামনে এ কথা বলেন। খবর এনডিটিবির।

তিনি সমর্থকদের উদ্দেশে বলেন, ‘আমি প্রেসিডেন্ট থাকতে আপনাদের সঙ্গে নিয়ে যা করেছি তা আর কাউকে করতে দেখিনি। আমি মনে করি ৭৫ লাখ নয়, দেড় কোটি ভোটার আমার সঙ্গে আছে।’

ট্রাম্প দর্শকদের ইঙ্গিত করে বলেন, ‘নিরাপদ সীমান্ত, শক্তিশালী সামরিক বাহিনী, কম ট্যাক্স ও কম খরচ সবারই চাওয়া, যা আমি করেছি এবং করব। আপনি নিশ্চয়ই খুব সহজে কম মূল্যে নিজের বাড়িটি কিনতে চাইবেন।’

২০২৪ এর নির্বাচনে ট্রাম জিতে গেলে যুক্তরাষ্ট্র একজন স্বৈরাচারি শাসক পাবে বলে বেশ কয়েকদিন যাবত ভোটারদের সর্তক করে আসছেন বিরোধী ডেমোক্র্যাট ও তার দলের কিছু রিপাবলিকান রাজনৈতিক কর্মী ও বিশ্লেষকরা।

এ বিষয় তিনি ভোটারদের আশ্বস্ত করে বলেন, ‘আমি কখনোই স্বৈরশাসক হব না।’

ডোনাল্ড ট্রাম্প রিপাবলিকান দলের প্রার্থী হিসেবে ২০১৭ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জয়ী হয়ে ২০২১ সাল পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন কিন্তু পরবর্তী নির্বাচনে বর্তমান প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের কাছে হেরে যান।

দেশটির আইন অনুযায়ী একজন ব্যক্তি দুই মেয়াদে প্রেসিডেন্টের দায়িত্বে থাকতে পারেন। তাই ট্রাম্পের আরও একবার এ পদে দায়িত্ব পালনের সুযোগ আছে।

আরও পড়ুন:
নৌকা না পাওয়ায় ক্ষোভ, এমপির সমর্থকদের হামলায় আহত ৩
দেশি আরও ২৯ পর্যবেক্ষক সংস্থাকে নিবন্ধন দিল ইসি
প্রার্থিতা ফিরে পেতে দ্বিতীয় দিনে ইসিতে ১৪১ জনের আপিল
‘৯ হাজার ভোট পিটাইয়া দিবো’, ভিডিও ভাইরাল
‘ভোটার সমর্থন পদ্ধতি স্বতন্ত্রদের নির্বাচনের বাইরে রাখার কৌশল’

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
3 killed in Las Vegas university shooting

লাস ভেগাসে বিশ্ববিদ্যালয়ে গুলিতে নিহত ৩

লাস ভেগাসে বিশ্ববিদ্যালয়ে গুলিতে নিহত ৩
বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্টে জানায়, ক্যাম্পাসে বন্দুকধারীদের হামলার পর তা মোকাবিলা করছে পুলিশ। পরে ক্যাম্পাস পুলিশও এতে যোগ দেয়।

যুক্তরাষ্ট্রের নেভাদা অঙ্গরাজ্যে একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে বন্দুকধারীর গুলিতে তিনজন নিহত ও একজন আহত হয়েছেন।

স্থানীয় সময় বুধবার লাস ভেগাস শহরে ইউনিভার্সিটি অফ নেভাদায় এই ঘটনা ঘটে বলে পুলিশের বরাতে জানিয়েছে বিবিসি।

পুলিশ বলেছে, ওই তিনজন নিহতের পাশাপাশি সন্দেহভাজন হামলাকারীও নিহত হয়েছেন। আর যিনি আহত হয়েছেন, তার অবস্থা গুরুতর।

বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্টে জানায়, ক্যাম্পাসে বন্দুকধারীদের হামলার পর তা মোকাবিলা করছে পুলিশ। পরে ক্যাম্পাস পুলিশও এতে যোগ দেয়।

ঘটনাস্থল থেকে তিনজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানায় লাস ভেগাসের মেট্রোপলিটন পুলিশ বিভাগ।

ইউনিভার্সিটির পুলিশ প্রধান অ্যাডাম গার্সিয়া বলেছেন, ক্যাম্পাসের দুই কর্মকর্তা সন্দেহভাজন ব্যক্তিকে গুলিবিদ্ধ করে হত্যা করেছে। ওই ব্যক্তি হামলা চালিয়েছে।

তবে এই হামলার কারণ নিশ্চিত করে কিছু জানাতে পারেনি লস ভেগাস পুলিশ।

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
17 dead as bus falls into ditch in Philippines

ফিলিপাইনে বাস খাদে পড়ে নিহত ২৯

ফিলিপাইনে বাস খাদে পড়ে নিহত ২৯ ফিলিপাইনে বাস খাদে পড়ে নিহত ১৭। ছবি: সংগৃহীত
প্রাদেশিক তথ্য দপ্তরের প্রধান জুনলি সায়লো রেডিওকে দেয়া সাক্ষাৎকারে বলেন, ঘটনাস্থলেই ২৫ জন এবং স্থানীয় একটি হাসপাতালে আরও চারজন মারা গেছেন।

ফিলিপাইনের মধ্যাঞ্চলে একটি যাত্রবাহী বাস পাহাড়ি রাস্তা থেকে ছিটকে খাদে পড়ার ঘটনায় ২৯ জন নিহত হয়েছেন।

বুধবার কর্মকর্তারা এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

প্রাদেশিক দুর্যোগ সংস্থার প্রধান রডারিক ট্রেন এএফপিকে বলেন, ‘বাসটি মঙ্গলবার বিকেলে অ্যান্টিক প্রদেশের হ্যামটিক পৌরসভায় যাওয়ার সময় দুর্ঘটনার কবলে পড়ে।’

৫৩ জন যাত্রী নিয়ে বাসটি ইলোইলো সিটি থেকে প্রাচীন প্রদেশের সান জোসে দে বুয়েনাভিস্তা যাচ্ছিল। এ সময় রাস্তার কংক্রিটের বেষ্টনীর সঙ্গে ধাক্কা লেগে হ্যামটিক শহরের পাশে ১৫ মিটার গভীর খাদে পড়ে যায়।

প্রাদেশিক তথ্য দপ্তরের প্রধান জুনলি সায়লো রেডিওকে দেয়া সাক্ষাৎকারে বলেন, ঘটনাস্থলেই ২৫ জন এবং স্থানীয় একটি হাসপাতালে আরও চারজন মারা গেছেন।

স্থানীয় সংবাদ মাধ্যম এবিএস-সিবিএন জানিয়েছে, নিহতদের মধ্যে বাসচালক এবং তার সহকারীও রয়েছেন।

প্রাচীন প্রাদেশিক সরকারের বরাত দিয়ে আঞ্চলিক সংবাদপত্র পানায় নিউজ জানিয়েছে, কেনিয়ার এক ব্যক্তিসহ গুরুতর আহত দুই যাত্রীকে চিকিৎসার জন্য ইলোইলো সিটির একটি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

জরুরি কর্মীরা জীবিতদের উদ্ধার করছে এবং খাদে পড়ে থাকা লোকজনের লাশ উদ্ধার কাজ চলছে।

গভর্নর রোডোরা কাদিয়াও স্থানীয় বেতার কেন্দ্র ডিজেডআরএইচকে বলেছেন, যাত্রীর মধ্যে চারজন কেনিয়ার নাগরিক ছিল। এদের বেশিরভাগই অ্যান্টিক প্রদেশের বাসিন্দা।

আরও পড়ুন:
পাঁচ মাস পর দেশে ফিরল সেই হানিফের মরদেহ
চট্টগ্রামে ট্রাকচাপায় নানা-নাতনি নিহত
টহল পিকআপে ট্রেনের ধাক্কা, পুলিশ সদস্য নিহত
শেরপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৩
তেঁতুলিয়ায় গাড়ি খাদে পড়ে প্রকৌশলী নিহত, ইউএনওসহ আহত ৩

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
16248 dead 43000 injured including 7000 children in Gaza

গাজায় ৭ হাজার শিশুসহ নিহত ১৬২৪৮, আহত ৪৩ হাজার

গাজায় ৭ হাজার শিশুসহ নিহত ১৬২৪৮, আহত ৪৩ হাজার গাজা সীমান্তে অবস্থান নিয়ে আছে ইসরায়েলি বাহিনী। ছবি: রয়টার্স
গাজার সর্বশেষ অবস্থা জানিয়ে রয়টার্স বলছে, টানা বিমান হামলার পর দক্ষিণ গাজায় স্থলপথে অভিযান চালাচ্ছে ইসরায়েলের সেনারা। দক্ষিণ গাজার খান ইউনিসের উত্তরাঞ্চলে তিন দিনের বিমান হামলার পর এই অভিযান শুরু হয়।

ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যকায় ইসরায়েলি হামলা শুরুর পর থেকে প্রাণ গেছে ৭ হাজার শিশুসহ ১৬ হাজারের বেশি মানুষের। আহত হয়েছেন ৪৩ হাজারের ওপরে, নিখোঁজ রয়েছেন প্রায় ৮ হাজার।

গত ৭ অক্টোবর থেকে মঙ্গলবার পর্যন্ত হিসাবে অবরুদ্ধ উপত্যকাটির শাসক দল হামাসের বরাতে এ তথ্য জানিয়েছে সংবাদমাধ্যম বিবিসি।

হামাস বলছে, ইসরায়েল টানা হামলা চালাচ্ছে। এতে এখন পর্যন্ত ৭ হাজারের বেশি শিশু ও ৫ হাজারের মতো নারীসহ নিহত হয়েছেন ১৬ হাজার ২৪৮ জন।

এ ছাড়া আহত হয়েছেন ৪৩ হাজার ৬১৬ জন এবং নিখোঁজ রয়েছেন ৭ হাজার ৬০০ জনের মতো বলেও জানিয়েছে তারা।

গাজার সর্বশেষ অবস্থা জানিয়ে রয়টার্স বলছে, টানা বিমান হামলার পর দক্ষিণ গাজায় স্থলপথে অভিযান চালাচ্ছে ইসরায়েলের সেনারা। দক্ষিণ গাজার খান ইউনিসের উত্তরাঞ্চলে তিন দিনের বিমান হামলার পর এই অভিযান শুরু হয়।

ইসরায়েল কর্তৃপক্ষের ধারণা, হামাস নেতৃত্বের সদস্যরা খান ইউনিস শহরে লুকিয়ে আছে। তাদের দাবি, গাজা নগরীতে হামাসের একজন কমান্ডারকে হত্যা করা হয়েছে। ওই ব্যক্তি গত ৭ অক্টোবর ইসরায়েলে হামলার পেছনে জড়িত।

হামলায় বহু প্রাণহানির পর সাত দিনের জন্য ছিল যুদ্ধবিরতি, তবে সেই বিরতি শেষ হওয়ায় গাজায় ফের ইসরায়েলি হামলা শুরু হয় গত শুক্রবার।

উত্তর গাজায় হামলা শুরুর পর এক পর্যায়ে সাধারণ মানুষকে দক্ষিণ গাজায় চলে যেতে বলা হয়। এখন সেই দক্ষিণ গাজাতে হামলা হচ্ছে। বিমান হামলা হয়েছে খান ইউনিস শহরে, এই হামলার যে তীব্রতা; যুদ্ধ শুরুর পর তা কখনও দেখা যায়নি।

ইসরায়েলে ঢুকে হামাস গত ৭ অক্টোবর আকস্মিক হামলা চালায়। ওই হামলার প্রতিক্রিয়ায় গাজায় টানা হামলা চালাচ্ছে ইসরায়েল। হামলা শুরুর পর ৯ অক্টোবর গাজায় সর্বাত্মক অবরোধের ঘোষণা দিয়েছে দেশটি।

টানা হামলার শিকার গাজায় খাবার, পানি, ওষুধ ও জ্বালানির সংকট দেখা দিয়েছে। এ অবস্থায় কদিন আগে মিশরের রাফা ক্রসিং দিয়ে কয়েকটি ত্রাণবাহী ট্রাক ঢুকেছে ওই উপত্যকতায়।

এতদিন গাজায় জ্বালানি প্রবেশে ইসরায়েলের অনুমতি ছিল না। বিভিন্ন সংস্থা ও আন্তর্জাতিক চাপের মধ্যে সম্প্রতি শুধু হাসপাতাল ও বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থাগুলোর জন্য জ্বালানির অনুমতি দেয়া হয়। এরই পরিপ্রেক্ষিতে সেখানে ঢুকেছে কয়েকটি জ্বালানিবাহী ট্রাক।

এ অবস্থায় গাজায় জিম্মি ব্যক্তিদের মুক্তি ও ইরসায়েলের কারাগারে বন্দি ফিলিস্তিনিদের মুক্তির বিনিময়ে ও গাজায় মানবিক সহায়তায় পাঠানোর শর্তে গত ২৪ নভেম্বর প্রথম দফার যুদ্ধবিরতি শুরু হয়।

এরপর এই যুদ্ধবিরতি চলে সাত দিন। এই সাত দিনে হামাস ১১০ জনকে এবং ইসরায়েল মুক্তি দিয়েছে ২৪০ জনকে। আন্তর্জাতিক নানা মহলের চেষ্টা সত্ত্বেও শেষ পর্যন্ত এই যুদ্ধবিরতির মেয়াদ আর বাড়েনি।

আরও পড়ুন:
হামাস-ইসরায়েল যুদ্ধে ৬৩ সাংবাদিক নিহত: সিপিজে
দক্ষিণ গাজায় ঢুকে স্থল অভিযান চালাচ্ছে ইসরায়েলি সেনারা
ইসরায়েল-হামাস যুদ্ধে নিহত ৬১ সাংবাদিক: সিপিজে

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Military drone strike accidentally kills 85 civilians in Nigeria

নাইজেরিয়ায় সামরিক ড্রোন হামলায় ‘ভুলবশত’ ৮৫ বেসামরিক নিহত

নাইজেরিয়ায় সামরিক ড্রোন হামলায় ‘ভুলবশত’ ৮৫ বেসামরিক নিহত প্রতীকী ছবি
এর আগে ২০১৪ সালের ফেব্রুয়ারিতে নাইজেরিয়ার একটি সামরিক বিমান বোর্নো রাজ্যের দাগলুনে বোমা ফেলে ২০ জন বেসামরিককে হত্যা করে।

নাইজেরিয়ায় বিদ্রোহীদের লক্ষ্য করে চালানো সামরিক ড্রোন হামলায় ভুলবশত ৮৫ বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছে।

আল জাজিরার মঙ্গলবারের প্রতিবেদনে বলা হয়, কাদুনা রাজ্যের তুদুন বিরি গ্রামে রোববার রাতে এ হামলার ঘটনা ঘটে। মুসলমানরা সেখানে ধর্মীয় উৎসবে জড়ো হয়েছিলেন।

কাদুনা গভর্নর উবা সানি বলেন, ‘সন্ত্রাসীদের লক্ষ্য করে চালানো ড্রোন হামলায় ভুলে বেসামরিকদের হত্যা করা হয়েছে। এ হামলায় অনেকে আহত হয়েছেন।’

ন্যাশনাল ইমার্জেন্সি ম্যানেজমেন্ট এজেন্সি মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে জানায়, ৮৫টি মরদেহ এখন পর্যন্ত কবর দেয়া হয়েছে। এ ঘটনায় অনুসন্ধান কাজ চলছে।

এদিকে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের নাইজেরিয়া দপ্তর ওই এলাকায় তাদের কর্মী ও স্বেচ্ছাসেবকদের বরাত দিয়ে বলছে, হামলায় অন্তত ১২০ জন নিহত হয়েছেন।

অ্যামনেস্টির নাইজেরিয়ার পরিচালক ইসা সানুসি অ্যাসোসিয়েটেড প্রেসকে জানান, নিহতদের মধ্যে অনেক শিশু রয়েছে।

নাইজেরিয়ার উপদ্রুত অঞ্চলে বাসিন্দাদের ওপর ‘ভুল’ বোমা হামলার সবশেষ ঘটনা ছিল এটি। এর আগে ২০১৪ সালের ফেব্রুয়ারিতে নাইজেরিয়ার একটি সামরিক বিমান বোর্নো রাজ্যের দাগলুনে বোমা ফেলে ২০ জন বেসামরিককে হত্যা করে ও ২০২২ সালের সেপ্টেম্বরে আবাসিক এলাকায় এই ধরনের বোমা হামলার অন্তত ১৪টি ঘটনার রেকর্ড রয়েছে।

এ হামলায় নাইজেরিয়ার উত্তর-পশ্চিম ও মধ্যাঞ্চলের কিছু অংশ বিধ্বস্ত হয়েছে।

আরও পড়ুন:
পাকিস্তানে যাত্রীবাহী বাসে বন্দুকধারীর হামলা, নিহত ৮
আইফেল টাওয়ারের কাছে হামলায় একজন নিহত
যুদ্ধবিরতির পরপরই ইসরায়েলি হামলায় নিহত শতাধিক ফিলিস্তিনি
আতঙ্কে আল-শিফা ছেড়েছে শতাধিক গাজাবাসী
হামলায় বিধ্বস্ত গাজার ৬০ মসজিদ

মন্তব্য

p
উপরে