করোনা: ফের কড়াকড়িতে ইতালি

করোনা: ফের কড়াকড়িতে ইতালি

সংক্রমণ বাড়ায় কড়াকড়ির পথে হাটছে ইতালি সরকার। ছবি: এএফপি

সোমবার থেকে দেশটির বেশির ভাগ অঞ্চলের দোকান, রেস্তোরাঁ এবং স্কুল বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ইতালি সরকার। ৫ এপ্রিল ইস্টার সানডের পরদিন পর্যন্ত এই কড়াকড়ি বহাল থাকবে।

ইতালিতে করোনাভাইরাসের বিস্তার বাড়তে থাকায় আবারও কড়াকড়ির পথে হাঁটছে দেশটির সরকার।

সোমবার থেকে দেশটির বেশির ভাগ অঞ্চলের দোকান, রেস্তোরাঁ এবং স্কুল বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ইতালি সরকার। ৫ এপ্রিল ইস্টার সানডের পরদিন পর্যন্ত এই কড়াকড়ি বহাল থাকবে।

ইস্টার সানডে ঘিরে জনসমাগম বন্ধে ৩, ৪ এবং ৫ এপ্রিল থাকবে বাড়তি কড়াকড়ি। ইস্টার সানডের দিন করোনার বিস্তারের জন্য সারা দেশ সর্বোচ্চ ঝুঁকিতে থাকবে বলে জানিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী মারিও দ্রাঘি।

‘আমি জানি এই কড়াকড়ি আপনাদের সন্তানের লেখাপড়ার ওপর প্রভাব ফেলবে। প্রভাব ফেলবে অর্থনীতিতে, আমাদের সবার মানসিক স্বাস্থ্যেও’।

কিন্তু পরিস্থিতি নাজুক হওয়ার আগেই আমাদের শক্ত পদক্ষেপ নিতে হবে, সেটা যত কঠিনই হোক না কেন।

বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, রোম, মিলানসহ গুরুত্বপূর্ণ শহরের সব স্কুল, দোকান ও রেস্তোরাঁ বন্ধ থাকবে। নাগরিকদের জরুরি প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে না বেরোনোর পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

করোনায় ইতালিতে মারা গেছেন এক লাখের বেশি মানুষ। ইউরোপের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ মৃত্যুর তালিকায় আছে দেশটি। সরবরাহ-সংকটের কারণে ইতালিতে টিকা প্রদানও দেরিতে শুরু হয়েছে। দেশটির বেশির ভাগ হাসপাতাল ও সেসবের আইসিইউ রোগীতে কানায় কানায় ভর্তি।

পরিস্থিতি এমনই হয়েছে যে অস্ট্রেলিয়াগামী অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকার আড়াই কোটি ডোজ আটকে দিয়েছে রোম।

অক্সফোর্ডের টিকা নেয়ার পর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় রক্ত জমাট বেঁধে যায় এমন আতঙ্কে বুলগেরিয়া, ডেনমার্ক এবং নরওয়েতে টিকা দেয়া বন্ধ রাখা হয়েছে। যদিও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এ গুঞ্জন উড়িয়ে দিয়েছে। টিকা প্রদান কর্মসূচি চালু রাখার পরামর্শ দিয়েছে সংস্থাটি।

ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্য অনুযায়ী, ইতালিতে করোনায় এ পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছে ৩১ লাখ ৭৫ হাজারের বেশি মানুষ। মৃত্যু এক লাখ ছাড়িয়েছে।

শেয়ার করুন

মন্তব্য