নেপাল-শ্রীলঙ্কায় অনুগত সরকার চায় বিজেপি: বিপ্লব

ত্রিপুরায় এক আলোচনা সভায় রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব (মাঝে)। ছবি: সংগৃহীত

নেপাল-শ্রীলঙ্কায় অনুগত সরকার চায় বিজেপি: বিপ্লব

ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার জানান, ভারতের বর্তমান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ বিজেপির সভাপতি থাকার সময় ত্রিপুরায় বলে গিয়েছিলেন, নেপাল ও শ্রীলঙ্কাতেও দলটির নেতৃত্বাধীন সরকার গড়তে চান তিনি।

ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর নেতৃত্বে ক্ষমতাসীন ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) শ্রীলঙ্কা ও নেপালে অনুগত সরকার গড়তে চায় বলে মন্তব্য করেছেন ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব।

রোববার এক অনুষ্ঠানে তিনি এমন মন্তব্য করেন।

বিতর্কিত মন্তব্য করে বিভিন্ন সময়ে আলোচিত-সমালোচিত হন বিপ্লব কুমার। অন্য দেশ নিয়ে তার এ মন্তব্যে আবার বিপাকে পড়েছে বিজেপি। সমালোচনায় সরব হয়েছে ভারতের বিরোধী দলগুলো।

ওই অনুষ্ঠানে বিপ্লব জানান, ভারতের বর্তমান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ বিজেপির সভাপতি থাকার সময় ত্রিপুরায় বলে গিয়েছিলেন, নেপাল ও শ্রীলঙ্কাতে দলটির নেতৃত্বাধীন সরকার গড়তে চান তিনি।

বিপ্লবের এ বক্তব্যর পরই শুরু হয়েছে রাজনৈতিক বিতর্ক। ভারতের অন্যতম রাজনৈতিক দল কংগ্রেস অবিলম্বে বিপ্লবকে বহিষ্কার করার দাবি জানিয়েছে। ভারতের কমিউনিস্ট পার্টি (মাক্সপন্থী) তথা সিপিএম সমালোচনায় সরব হয়েছে।

একাধিক বিজেপি নেতাও জানান, অন্য রাষ্ট্রের নাম নেয়া ঠিক হয়নি।

ত্রিপুরা কংগ্রেসের সাবেক সভাপতি গোপাল রায় নিউজবাংলাকে বলেন, ‘পাগলের প্রলাপ! অন্য রাষ্ট্রের বিষয়ে কোনো কথা বলার এখতিয়ারই নেই মুখ্যমন্ত্রীর। তাকে বহিষ্কার করুক প্রধানমন্ত্রী।’

কংগ্রেসের এ নেতার অভিযোগ, ‘পুরো ব্যর্থ বিজেপি সরকার। দিল্লিতে নরেন্দ্র মোদি আর রাজ্যে বিপ্লব দেব বাড়িয়ে চলছে মানুষের দুর্ভোগ। এখন অন্য দেশ নিয়েও কথা বলছে।’

সিপিএম নেতা ও সাবেক মন্ত্রী পবিত্র কর নিউজবাংলাকে বলেন, ‘প্রতিবেশী রাষ্ট্র নিয়ে এ ধরনের মন্তব্য করা অনুচিত। এতে ভারতের ইমেজ খারাপ হবে। প্রতিবেশীদের সঙ্গে সুসম্পর্ক ধরে রাখতে ব্যর্থ বিজেপি।’

নেপাল ও শ্রীলঙ্কা অনেক দিন ধরে ভারতের বন্ধু রাষ্ট্র মন্তব্য করে তিনি বলেন, ‘বন্ধুত্বের সম্পর্ক খারাপ হতে পারে বিজেপির এই মানসিকতার জন্য। অন্য দেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে নাক গলানো কাম্য নয়।’

আরও পড়ুন:
সোশ্যাল মিডিয়ার ব্যবহার ও শাসক দলের দ্বিচারিতা
ভারতে মাংস রপ্তানির ম্যানুয়াল থেকে ‘হালাল’ শব্দ বাদ  
স্ত্রী তৃণমূলে, বিচ্ছেদ চান বিজেপি নেতা

শেয়ার করুন

মন্তব্য

জ্বালানির দাম বাড়ায় ভারতে গভর্নরের হুশিয়ারি

জ্বালানির দাম বাড়ায় ভারতে গভর্নরের হুশিয়ারি

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্নর বললেন, জ্বালানি ও গ্যাসের আকাশছোঁয়া দামবৃদ্ধি ভারতীয় অর্থনীতিতে প্রভাব ফেলতে পারে। কেন্দ্র-রাজ্যের উচিত সমন্বয় রেখে দাম কমাতে পদক্ষেপ নেয়া।

ভারতে লাগামছাড়া দাম বৃদ্ধি হচ্ছে রান্নার গ্যাসের। চলতি মাসেই পর পর তিন দফায় দাম বাড়ল রান্নার গ্যাসের। দু সপ্তাহ আগে এক লাফে বেড়েছিল ২৫ টাকা। বুধবার রাত থেকে এক লাফে আরও ২৫ টাকা দাম বাড়ল সিলিন্ডারের। অর্থাৎ ফেব্রুয়ারিতেই রান্নার গ্যাসের দাম বাড়ল মোট ১০০ টাকা।

সেই সঙ্গে পেট্রল-ডিজেলের দামও রেকর্ড উচ্চতায়। অবিলম্বে জ্বালানি ও গ্যাসের দাম না কমলে মূদ্রাস্ফীতি হতে পারে। বৃহস্পতিবার এই আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন ভারতীয় রিজার্ভ ব্যাঙ্কের গভর্নর শক্তিকান্ত দাশ।

বৃহস্পতিবার বম্বে চেম্বার অফ কমার্সের ১৮৫তম প্রতিষ্ঠা দিবস উপলক্ষে ভার্চুয়াল বক্তব্য রাখেন রিজার্ভ ব্যাঙ্কের গর্ভনর। তিনি জ্বালানি এবং গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন।

গভর্নর বলেন, ‘জ্বালানি ও গ্যাসের আকাশছোঁয়া দামবৃদ্ধি ভারতীয় অর্থনীতিতে প্রভাব ফেলতে পারে। কেন্দ্র-রাজ্যের উচিত সমন্বয় রেখে দাম কমাতে পদক্ষেপ নেয়া।’

তার পরামর্শ, ‘ডিজেল-পেট্রল-গ্যাসের ওপর ধাপে ধাপে বসানো কর কমালেই কিছুটা কমবে দাম। যেহেতু জ্বালানির ওপর কেন্দ্র ও রাজ্য উভয়েই কর বসায়, তাই দু পক্ষকে সমন্বয় করতে হবে। মনে রাখতে হবে, করোনা আবহে যে ভাবে কোষাগারে চাপ পড়েছে, সেখান থেকে আয়ের মুখ দেখা প্রয়োজন। কেন্দ্র-রাজ্যের সরকারের সেই বাধ্যবাধকতা আছে। কিন্তু এভাবে জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধি হলে মুদ্রাস্ফীতি হবে। প্রভাবিত হবে উৎপাদন শিল্প।’

তার আশা, করোনা পরবর্তী সময়ে আর্থিক সঙ্কট থেকে বেরোতে দ্রুত পদক্ষেপ নেবে ভারত। আগামী দুবছরের মধ্যে ঘুরে দাঁড়াবে ভারতীয় অর্থনীতি।

ডিসেম্বর থেকে তিন দফায় বেড়ে চলতি মাসেই সিলিন্ডারপিছু ভর্তুকিহীন গ্যাসের দাম হয় ৭৪৫ টাকা ৫০ পয়সা। ফেব্রুয়ারি মাসের প্রথম দিকে ভর্তুকিহীন ১৪ কেজি ২০০ গ্রাম এলপিজি সিলিন্ডারের দাম বেড়ে হয় ৭৪৫ টাকা ৫০ পয়সা। আগে যার দাম ছিল ৭২০ টাকা ৫০ পয়সা। গত ১৪ ফেব্রুয়ারি সিলিন্ডারপ্রতি ৫০ টাকা বাড়ে রান্নার গ্যাসের দাম। ভর্তুকিযুক্ত রান্নার গ্যাসের দাম হয় ৭৯৫ টাকা ৫০ পয়সা। ইন্ডিয়ান অয়েল করপোরেশন এখন নিয়ম করে মাসের শুরুর দিকেই রান্নার গ্যাসের দাম পর্যালোচনা করে। প্রতি মাসের শুরুতে জানিয়ে দেওয়া হয় সিলিন্ডারের নতুন দাম। অন্যদিকে, কেন্দ্রীয় পেট্রোলিয়াম মন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান পেট্রোল ও ডিজেল জিএসটির আওতায় আনলে দাম অনেকটা নিয়ন্ত্রণে থাকবে বলে সম্প্রতি মন্তব্য করেছেন।

শাসকদল বিজেপির বক্তব্য: বিভিন্ন রাজ্যের বাধাতেই তা সম্ভব হচ্ছে না। কারণ, এখনকার নিয়ম মতো পেট্রল-ডিজেলের উপরে কেন্দ্র নির্দিষ্ট হারে শুল্ক নিলেও বিভিন্ন রাজ্য আলাদা আলাদা হারে ‘ভ্যালু অ্যাডেড ট্যাক্স’ (ভ্যাট) বসায়। এর ফলে বিভিন্ন রাজ্যে এই দুই জ্বালানির দাম ভিন্ন ভিন্ন হয়। যেটা সব থেকে বেশি মহারাষ্ট্রে এবং সবচেয়ে কম আন্দামান-নিকোবরে। কিন্তু জিএসটি চালু হলে দেশের সর্বত্র একই দাম থাকবে।

বিজেপি সূত্রের খবর, আগামী এপ্রিল-মে মাসে পাঁচটি রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনের দিনক্ষণ ঘোষণার আগে পেট্রল-ডিজেল জিএসটির আওতায় নেবার প্রস্তুতি নিচ্ছে সরকার।

আরও পড়ুন:
সোশ্যাল মিডিয়ার ব্যবহার ও শাসক দলের দ্বিচারিতা
ভারতে মাংস রপ্তানির ম্যানুয়াল থেকে ‘হালাল’ শব্দ বাদ  
স্ত্রী তৃণমূলে, বিচ্ছেদ চান বিজেপি নেতা

শেয়ার করুন

লাইভে কুকুরছানাকে কোলে তুললেন প্রতিবেদক

লাইভে কুকুরছানাকে কোলে তুললেন প্রতিবেদক

টেলিভিশন লাইভে কুকুরছানাকে আদর করছেন প্রতিবেদক। ছবি:এএফপি

গত শুক্রবার টেলিভিশন লাইভ করার সময় একটি কুকুরছানা দৌড়ে চলে আসে প্রতিবেদকের কাছে। লাইভেই প্রতিবেদক বার্নার্ড ছানাটিকে কোলে তুলে নেন। আর ছানাটিও বার্নার্ডকে আদর করতে শুরু করে।

তুষারপাতে নাকাল যুক্তরাষ্ট্রের ভার্জিনিয়া অঙ্গরাজ্যের উত্তরাঞ্চল। ভারী তুষারপাতের পাশাপাশি বইছে কনকনে ঠান্ডা বাতাস।

এমন পরিস্থিতিতে তুষারঝড়ের সতর্কতা জারি করেছে স্থানীয় আবহাওয়া অফিস। অতি প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের না হওয়ার নির্দেশনা জারি হয়েছে অঙ্গরাজ্যটিতে।

ফক্স৫ টেলিভিশন চ্যানেলের প্রতিবেদক অঙ্গরাজ্যের আবহাওয়ার সবশেষ পরিস্থিতি জানাতে লাইভে ছিলেন। জানাচ্ছিলেন অঞ্চলের বাসিন্দাদের দুর্ভোগের কথা। এ সময় ঘটে এমন এক ঘটনা, যা ভাইরাল হয়েছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। এরই মধ্যে ইউটিউবে এই ভিডিও দেখেছেন ১০ লাখের বেশি মানুষ।

ভিডিওতে দেখা যায়, গত শুক্রবার টেলিভিশন লাইভ করার সময় একটি কুকুরছানা দৌড়ে চলে আসে ওই প্রতিবেদকের কাছে। লাইভেই প্রতিবেদক বার্নার্ড ওই ছানাটিকে কোলে তুলে নেন। আর ছানাটিও বার্নার্ডকে আদর করতে শুরু করে।

দর্শকদের উদ্দেশে এ সময় তিনি বলেন, ‘এতক্ষণ যাদের নিয়ে কথা বলছিলাম তাদের ভুলে যান। এখন আমি কুকুরটির সম্পর্কে জানতে চাই।’

কয়েক মুহূর্ত পরে পাশের একটি বাড়ি থেকে বেরিয়ে আসেন কুকুরছানাটির মালিক। তিনি জানান, ছানাটি খুবই কৌতূহলপ্রবণ। ওর নাম পিরগি। তুষারপাত উপভোগ করতে বাড়ির দেয়াল টপকে বাইরে বেরিয়েছিল সে।

লাইভের শুরুতেও মজার এক ঘটনা ঘটে প্রতিবেদক বার্নার্ডের সঙ্গে। আবহাওয়ার খবর দেয়ার সময় তুষার পরিষ্কার করার একটি ব্রাশ ছিল বার্নার্ডের হাতে। আর এতেই ঘটে বিপত্তি।

হঠাৎ বাড়ি থেকে এক লোক বেরিয়ে এসে বার্নার্ডকে ২০ ডলার দেন। বলেন, বার্নার্ড যেন তার গাড়ি থেকে তুষারগুলো পরিষ্কার করে দেন। রসিক বার্নার্ড টাকাটা পকেটে গুঁজে গাড়িটি পরিষ্কার করে দেন।

টেলিভিশন লাইভে পোষা প্রাণির আগমন এর আগেও ঘটেছে।

২০১৭ সালে রাশিয়ার সরাসরি সংবাদ প্রচারের সময় ঢুকে পড়ে একটি কুকুর

২০১৭ সালে রাশিয়ার সংবাদভিত্তিক টেলিভিশন চ্যানেল এমআইআর২৪-এর বুলেটিন চলাকালে ঢুকে পড়ে একটি কুকুর। ১৫ সেকেন্ডের ওই ভিডিও দেখেছিলেন ৩০ লাখের বেশি মানুষ।

আরও পড়ুন:
সোশ্যাল মিডিয়ার ব্যবহার ও শাসক দলের দ্বিচারিতা
ভারতে মাংস রপ্তানির ম্যানুয়াল থেকে ‘হালাল’ শব্দ বাদ  
স্ত্রী তৃণমূলে, বিচ্ছেদ চান বিজেপি নেতা

শেয়ার করুন

‘আবর্জনা’ আঁকড়ে ভেসেছিলেন ১৪ ঘণ্টা

‘আবর্জনা’ আঁকড়ে ভেসেছিলেন ১৪ ঘণ্টা

মারাট বলেন, ‘উদ্ধারের পর বাবাকে দেখে মনে হচ্ছিল, তার বয়স ২০ বছর বেড়ে গেছে। খুবই ক্লান্ত ছিলেন। কিন্তু বেঁচে ছিলেন।’

প্রশান্ত মহাসাগরে একটি কার্গো জাহাজ থেকে পড়ে যান ভিদাম পেরেভেরতিলভ। গায়ে ছিল না লাইফ জ্যাকেট। ভাসতে ভাসতে কয়েক কিলোমিটার দূরে আবর্জনার মতো দেখতে একটি বস্তু চোখে পড়ে তার।

প্রাণ বাঁচাতে সেই আবর্জনার দিকে সাঁতার কাটতে থাকেন পেরেভেরতিলভ। আবর্জনাটি আঁকড়ে ধরে প্রায় ১৪ ঘণ্টা সাগরে ভেসেছিলেন ৫২ বছর বয়সী এ ব্যক্তি।

পেরেভেরতিলভ যেটিকে আবর্জনা ভেবেছিলেন, তা আসলে ছিল পরিত্যক্ত মাছধরার বয়া। উদ্ধারের আগের মুহূর্ত পর্যন্ত তিনি ওই বয়াটি ধরেই ছিলেন।

১৬ ফেব্রুয়ারির এ ঘটনা পেরেভেরতিলভের ছেলে মারাট নিউজিল্যান্ডের সংবাদমাধ্যম স্টাফকে বলেন। বর্ণনা করেন তার বাবার অবিশ্বাস্যভাবে বেঁচে যাওয়ার কাহিনি।

মারাট বলেন, ‘উদ্ধারের পর বাবাকে দেখে মনে হচ্ছিল, তার বয়স ২০ বছর বেড়ে গেছে। খুবই ক্লান্ত ছিলেন। কিন্তু বেঁচে ছিলেন।’

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, লিথুয়ানিয়ার নাগরিক পেরেভেরতিলভ পেশায় প্রকৌশলী। ২৩ বছর আগে নির্মিত কার্গো জাহাজ সিলভার সাপোর্টারের প্রধান প্রকৌশলী তিনি। নিউজিল্যান্ডের তাউরাঙ্গা বন্দর থেকে বিচ্ছিন্ন ব্রিটিশ দ্বীপ পিটকেয়ার্নে মালামাল পরিবহন করে সিলভার সাপোর্টার।

মারাট জানান, কার্গো জাহাজটির ইঞ্জিন রুমে কাজ করছিলেন পেরেভেরতিলভ। কাজ যখন প্রায় শেষের দিকে, সে সময় গরম বোধ করছিলেন তিনি। একই সঙ্গে মাথাও ঝিমঝিম করছিল তার। ভোর ৪টার দিকে ভালো বোধ করতে জাহাজটির ডেকে এসে দাঁড়ান তিনি। ওই সময়ই সাগরে পড়ে যান।

মারাট বলেন, ‘জাহাজ থেকে একজন পড়ে গিয়েছে, এমনটি বুঝতে পারেনি জাহাজে থাকা কেউই। সূর্য ওঠা পর্যন্ত কোনোমতে ভেসে ছিলেন আমার বাবা। একসময় দিগন্তে কালো একটি কণা দেখতে পান। সেটির দিকে এগিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন তিনি।’

জাহাজের ক্রুদের প্রায় ছয় ঘণ্টা সময় লেগে যায় জানতে যে, তাদের এক সহকর্মী নিখোঁজ। জানার পর জাহাজের ক্যাপ্টেন চারদিকে পেরেভেরতিলভকে খোঁজা শুরু করেন।

১৪ ঘণ্টা পর দূরে নিজের জাহাজ দেখতে পেয়ে হাত নেড়ে চিৎকার করতে থাকেন পেরেভেরতিলভ।

মারাট বলেন, ‘বাবার বেঁচে থাকার ইচ্ছা ছিল প্রবল। তার জায়গায় আমি থাকলে হয়তো ডুবেই যেতাম।

‘বাবা সব সময় নিজেকে সুঠাম ও স্বাস্থ্যকর রাখেন। এ কারণেই মনে হয় তিনি বেঁচে ফিরতে পেরেছেন।’

আরও পড়ুন:
সোশ্যাল মিডিয়ার ব্যবহার ও শাসক দলের দ্বিচারিতা
ভারতে মাংস রপ্তানির ম্যানুয়াল থেকে ‘হালাল’ শব্দ বাদ  
স্ত্রী তৃণমূলে, বিচ্ছেদ চান বিজেপি নেতা

শেয়ার করুন

গ্রিনকার্ড আবেদনে নিষেধাজ্ঞা বাতিল বাইডেনের

গ্রিনকার্ড আবেদনে নিষেধাজ্ঞা বাতিল বাইডেনের

গ্রিন কার্ড আবেদনকারীদের ওপর নিষেধাজ্ঞা বাতিল করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। এএফপির ফাইল ছবি

বাইডেন বলেন, ট্রাম্পের নিষেধাজ্ঞার ফলে যুক্তরাষ্ট্রে বসবাস করা পরিবারের সদস্যদের থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ছেন অনেকে। এ ছাড়া এর ফলে ব্যবসা-বাণিজ্যেরও ক্ষতি হচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্রে ঢোকার ক্ষেত্রে অনেকের গ্রিনকার্ডের আবেদন বন্ধের ঘোষণা দিয়েছিলেন দেশটির সাবেক প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প। ক্ষমতা নেয়ার এক মাসের কিছু বেশি সময়ের মধ্যে সেই নিষেধাজ্ঞা তুলে নিলেন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

স্থানীয় সময় বুধবার তিনি এ নিষেধাজ্ঞা তোলেন বলে বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে।

গত বছর গ্রিনকার্ড আবেদনকারীদের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের ঘোষণা দেন ট্রাম্প। তার বক্তব্য ছিল, করোনাভাইরাস মহামারির কারণে বেকারত্বের হার বেড়ে যাওয়ায় নিজেদের শ্রমিক রক্ষায় এ নিষেধাজ্ঞার দরকার রয়েছে।

ট্রাম্পের যুক্তি নাকচ করে দিয়ে ভিসার ওপর নিষেধাজ্ঞা বাতিল করেন বাইডেন।

তিনি বলেন, ট্রাম্পের নিষেধাজ্ঞার ফলে যুক্তরাষ্ট্রে বসবাস করা পরিবারের সদস্যদের থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ছেন অনেকে। এ ছাড়া এর ফলে ব্যবসা-বাণিজ্যেরও ক্ষতি হচ্ছে।

নির্বাচনের সময় ট্রাম্পের বেশ কিছু কঠোর অভিবাসন নীতি বাতিলের অঙ্গীকার করেছিলেন বাইডেন।

অভিবাসীদের অধিকার নিয়ে কাজ করা অনেকে সম্প্রতি ভিসার ওপর নিষেধাজ্ঞা তুলে নিতে বাইডেনকে চাপ দেয়। ৩১ মার্চ এসব ভিসার মেয়াদ শেষ হচ্ছে।

ক্যালিফোর্নিয়ার অভিবাসনবিষয়ক অ্যাটর্নি কার্টিস মরিসন বলেন, করোনায় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বেশির ভাগ ভিসা কার্যক্রম বন্ধ থাকায় প্রচুর গ্রিনকার্ড আবেদন জমা পড়েছে। বাইডেনকে এখন এসব আবেদনের বিষয়ে পদক্ষেপ নিতে হবে। এসব সুরাহা করতে কয়েক বছর লেগে যেতে পারে।

মরিসন বলেন, ট্রাম্পের সিদ্ধান্তের কারণে আবেদনের স্তূপ পড়েছে। অভিবাসন ব্যবস্থাকে তিনি ধ্বংস করে দিয়েছেন।

এ বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় কোনো মন্তব্য করতে রাজি হয়নি।

অবশ্য বিদেশি অস্থায়ী শ্রমিকদের একটি বড় অংশের ওপর আরোপ করা আরেকটি নিষেধাজ্ঞা এখনও বলবৎ রেখেছেন বাইডেন।

গত বছরের অক্টোবরে ওই সব বিদেশি অস্থায়ী শ্রমিকের ওপর ট্রাম্পের নিষেধাজ্ঞা ব্লক করেছিলেন ক্যালিফোর্নিয়ার কেন্দ্রীয় আদালতের এক বিচারক।

ট্রাম্পের নিষেধাজ্ঞার ফলে হাজার হাজার ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় সেসব প্রতিষ্ঠান আদালতে ওই নিষেধাজ্ঞা নীতির বিরুদ্ধে মামলা করে।

আরও পড়ুন:
সোশ্যাল মিডিয়ার ব্যবহার ও শাসক দলের দ্বিচারিতা
ভারতে মাংস রপ্তানির ম্যানুয়াল থেকে ‘হালাল’ শব্দ বাদ  
স্ত্রী তৃণমূলে, বিচ্ছেদ চান বিজেপি নেতা

শেয়ার করুন

ভূমধ্যসাগরে নৌকাডুবি, নিখোঁজ ৪১

ভূমধ্যসাগরে নৌকাডুবি, নিখোঁজ ৪১

উত্তাল ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিতে প্রায়ই নৌকাডুবি হয়। ছবি: এএফপি

১৮ ফেব্রুয়ারি লিবিয়া থেকে ১২০ অভিবাসন প্রত্যাশীকে নিয়ে যে নৌকাটি ইউরোপের উদ্দেশে যাত্রা করেছিল, এই ৪১ জন তার যাত্রী।

ভূমধ্যসাগরে নৌকা ডুবে তিন শিশু, চার নারীসহ ৪১ অভিবাসনপ্রত্যাশী নিখোঁজ হয়েছেন।

মধ্য ভূমধ্যসাগরে শনিবার এই নৌকাডুবি হয়।

জাতিসংঘের অভিবাসন ও শরণার্থীবিষয়ক সংস্থা আইওএম ও ইউএনএইচসিআরের বরাত দিয়ে এ খবর জানিয়েছে আল জাজিরা

যৌথ বিবৃতিতে বুধবার সংস্থা দুটি জানায়, ১৮ ফেব্রুয়ারি লিবিয়া থেকে ১২০ অভিবাসনপ্রত্যাশীকে নিয়ে যে নৌকাটি ইউরোপের উদ্দেশে যাত্রা করেছিল, এই ৪১ জন সেটির যাত্রী।

ইউএনএইচসিআর বলছে, ১৮ ফেব্রুয়ারি যাত্রার পর প্রায় ১৫ ঘণ্টা নৌকাটি পানিতে ভেসে ছিল। উদ্ধারকারী জাহাজ আসার আগেই ওই নৌকার ৮ আরোহীর মৃত্যু হয়।

‘১৫ ঘণ্টা পানিতে ভাসার পর নৌকার যাত্রীরা সাহায্য চাইছিলেন। এই সময়ের মধ্যে ছয়জন পানিতে ডুবে যায়। দুইজন সাঁতরে অন্য নৌকার খোঁজ করছিলেন। তারাও এক সময় ডুবে যায়।’

উদ্ধারকারী জাহাজ জীবিত ব্যক্তিদের উদ্ধার করে ইতালির বন্দর শহর পোর্তো এম্পেরেকলিতে নিয়ে যায়।

গৃহযুদ্ধ আর অর্থনৈতিক দুরবস্থা কাটাতে আফ্রিকা ও এশিয়ার হাজার হাজার মানুষ উত্তাল ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিয়ে ইউরোপে প্রবেশের চেষ্টা করে। আর এ কাজে তারা ব্যবহার করে রাবারের তৈরি ছোট নৌকা। এতে প্রায়ই নৌকা ডুবে প্রাণহানির ঘটনা ঘটে।

জাতিসংঘের হিসাব অনুযায়ী, ২০১৪ সাল থেকে ২০ হাজারের বেশি অভিবাসনপ্রত্যাশীর মৃত্যু হয়েছে নৌকাডুবিতে।

আরও পড়ুন:
সোশ্যাল মিডিয়ার ব্যবহার ও শাসক দলের দ্বিচারিতা
ভারতে মাংস রপ্তানির ম্যানুয়াল থেকে ‘হালাল’ শব্দ বাদ  
স্ত্রী তৃণমূলে, বিচ্ছেদ চান বিজেপি নেতা

শেয়ার করুন

জনসনের টিকার ১ ডোজই কার্যকর: এফডিএ

জনসনের টিকার ১ ডোজই কার্যকর: এফডিএ

দক্ষিণ আফ্রিকায় জনসন অ্যান্ড জনসনের টিকা নিচ্ছেন এক স্বাস্থ্যকর্মী। ছবি: এএফপি

জনসন অ্যান্ড জনসনের মালিকানাধীন বেলজিয়ামভিত্তিক ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানি জানসেনের পক্ষ থেকে বলা হয়, ডাটায় দেখা গেছে, রোগের গুরুতর অবস্থা মোকাবিলায় টিকা অত্যন্ত কার্যকর।

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক বহুজাতিক ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানি জনসন অ্যান্ড জনসন উদ্ভাবিত করোনাভাইরাসের টিকার এক ডোজই নিরাপদ ও কার্যকর বলে এক পর্যালোচনায় উঠে এসেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের খাদ্য ও ওষুধ প্রশাসনের (এফডিএ) পর্যালোচনায় বিষয়টি জানানো হয়েছে।

পর্যালোচনার বরাত দিয়ে বৃহস্পতিবার বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, ফার্মাসিউটিক্যাল আরও দুটি কোম্পানি ফাইজার ও মডার্নার টিকার চেয়ে জনসন অ্যান্ড জনসনের টিকা সাশ্রয়ী। এ ছাড়া এটি সংরক্ষণ করতে ফ্রিজারের প্রয়োজন পড়বে না। রেফ্রিজারেটরেই জনসনের টিকা সংরক্ষণ করা যাবে।

জনসন অ্যান্ড জনসনের মালিকানাধীন বেলজিয়ামভিত্তিক ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানি জানসেনের পক্ষ থেকে বলা হয়, ডাটায় দেখা গেছে, রোগের গুরুতর অবস্থা মোকাবিলায় টিকা অত্যন্ত কার্যকর।

জানসেনের ডাটার ওপর ভিত্তি করে পর্যালোচনা বিস্তারিতভাবে প্রকাশ করে এফডিএ। যুক্তরাষ্ট্রের নিয়ন্ত্রক সংস্থাটির ভাষ্য, লক্ষণগত ও গুরুতর অসুস্থতা কমাতে জনসন অ্যান্ড জনসনের টিকা ব্যবহার করে সুফল পাওয়া গেছে।

যুক্তরাষ্ট্র, দক্ষিণ আফ্রিকা ও ব্রাজিলে জনসনের টিকার ট্রায়াল হয়। এসব ট্রায়ালের ফলে দেখা যায়, করোনা রোধে টিকাটির কার্যকারিতা ‘একইভাবে বেশি’। তবে দক্ষিণ আফ্রিকা ও ব্রাজিলে ওই টিকার সামগ্রিক সুরক্ষা কম। এর কারণ দেশ দু্ইটিতে করোনার নতুন ধরন বেশ শক্তিশালী।

ডাটায় দেখা যায়, গুরুতর অসুস্থতা রোধে জনসনের টিকা ৮৫ শতাংশেরও বেশি কার্যকর। তবে সামগ্রিকভাবে এ টিকা কেবল ৬৬ শতাংশ কার্যকর। বিশেষ করে মাঝারি পর্যায়ের অসুস্থতা মোকাবিলা ও টিকাদানের কমপক্ষে ২৮ দিন পর করোনায় আক্রান্ত হওয়ার ক্ষেত্রে এর কার্যকারিতা কম দেখা গেছে।

তবে লক্ষণীয় বিষয় হলো, জনসনের টিকার ট্রায়ালের সময় অংশগ্রহণকারীদের কারও মৃত্যু হয়নি। টিকা নেয়ার ২৮ দিন পর অসুস্থ হয়ে কাউকে হাসপাতালে ভর্তি হতেও হয়নি।

জনসনের টিকা বিষয়ে হোয়াইট হাউজের এক কর্মকর্তা বলেন, এফডিএ জরুরি ভিত্তিতে এ টিকা ব্যবহারের অনুমোদন দিলে আশা করা যাচ্ছে, সামনের সপ্তাহে অন্তত ৩০ লাখ ডোজ বিতরণ করা হবে।

বিবিসির প্রতিবেদনে মন্তব্য করা হয়েছে, করোনা প্রতিরোধে ফাইজার ও মডার্নার টিকার দুইটি ডোজ লাগছে। সে জায়গায় জনসনের টিকার ক্ষেত্রে শুধু একটি ডোজই লাগবে। একই সঙ্গে টিকা দিতে কম স্বাস্থ্যকর্মী লাগবে।

আরও পড়ুন:
সোশ্যাল মিডিয়ার ব্যবহার ও শাসক দলের দ্বিচারিতা
ভারতে মাংস রপ্তানির ম্যানুয়াল থেকে ‘হালাল’ শব্দ বাদ  
স্ত্রী তৃণমূলে, বিচ্ছেদ চান বিজেপি নেতা

শেয়ার করুন

অস্ট্রেলিয়ায় সংবাদ প্রকাশকদের অর্থ দিতে হবে ফেসবুক গুগলকে

অস্ট্রেলিয়ায় সংবাদ প্রকাশকদের অর্থ দিতে হবে ফেসবুক গুগলকে

ফেসবুকের সঙ্গে বিরোধ মেটাতে গত শুক্রবার থেকে কয়েক দফা আলোচনা চালায় অস্ট্রেলিয়া সরকার। এতে টেক জায়ান্টগুলো লভ্যাংশের একটা হিস্যা সংবাদ প্রকাশকদের দেয়ার বিষয়ে সমঝোতা হয়।

নিউজ কন্টেন্ট ইস্যুতে নতুন আইন পাস করল অস্ট্রেলিয়া। এখন থেকে অস্ট্রেলিয়ার সংবাদমাধ্যমের কোনো কন্টেন্ট ফেসবুক, টুইটার, গুগলের মতো সাইটে শেয়ার করা হলে সেখান থেকে যে আয় হবে তার একটি অংশ দিতে হবে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানকে।

১৭ ফেব্রুয়ারি অস্ট্রেলিয়ার পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষে পাসের পর গত বুধবার উচ্চকক্ষেও পাস হয় প্রস্তাবিত আইনটি।

শুরু থেকেই অস্ট্রেলিয়া সরকারের এই আইনের বিরোধিতা করে আসছে ফেসবুক। গত সপ্তাহে আইনটির প্রস্তাব হলে অস্ট্রেলিয়ার সব ধরনের নিউজ কন্টেন্ট ব্লক করে দেয় ফেসবুক। অবশ্য দুই দিন পর আলোচনা শুরু হলে তা আবার খুলে দেয় ফেসবুক কর্তৃপক্ষ।

টেক জায়ান্টগুলো দাবি করেছিল, ইন্টারনেট-ব্যবস্থা যেভাবে কাজ করে এই আইনে তার প্রতিফলিত হয়নি। এ ছাড়া এই আইনে অযৌক্তিকভাবে তাদের ‘জরিমানা’ করার ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।

সংকট নিরসনে ফেসবুকের সঙ্গে গত শুক্রবার থেকে কয়েক দফা আলোচনা চালায় অস্ট্রেলিয়া সরকার। এতে টেক জায়ান্টগুলো লভ্যাংশের একটা হিস্যা সংবাদ প্রকাশকদের দেবে বলে সমঝোতা হয়।

এর মধ্যে মিডিয়া মোগল রুপার্ট মারডকের প্রতিষ্ঠানগুলোর কন্টেন্ট ব্যবহারে তাদের অর্থ দেয়ার ব্যাপারে সম্মতি জানিয়েছিল গুগল।

আরও পড়ুন:
সোশ্যাল মিডিয়ার ব্যবহার ও শাসক দলের দ্বিচারিতা
ভারতে মাংস রপ্তানির ম্যানুয়াল থেকে ‘হালাল’ শব্দ বাদ  
স্ত্রী তৃণমূলে, বিচ্ছেদ চান বিজেপি নেতা

শেয়ার করুন

ad-close 103.jpg