× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

আন্তর্জাতিক
রাজতন্ত্রের সমালোচনা করায় ৪৩ বছরের জেল
hear-news
player
google_news print-icon

রাজতন্ত্রের সমালোচনা করায় ৪৩ বছরের জেল

রাজতন্ত্রের-সমালোচনা-করায়-৪৩-বছরের-জেল
রাজতন্ত্রবিরোধী পোস্ট শেয়ার করায় ৪৩ বছরের জেল পাওয়া আনচান। ছবি: ইপিএ
আনচানের আইনজীবী রয়টার্সকে জানান, তার বিরুদ্ধে ২০১৪ এবং ২০১৫ সালে ইউটিউব ও ফেসবুকে ২৯টি পোস্ট শেয়ারের অভিযোগ আনা হয়েছে। আনচানকে ৮৭ বছরের জেল দিয়েছিল আদালত। তবে ক্ষমা চাওয়ায় এটি কমিয়ে ৪৩ বছর করা হয়েছে।

থাইল্যান্ডে রাজতন্ত্রের সমালোচনা করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পডকাস্ট শেয়ার করায় এক নারীকে ৪৩ বছরের জেল দিয়েছে আদালত।

বুধবার বিবিসির এক প্রতিবেদনে এ খবর জানানো হয়েছে।

সাজা পাওয়া নারীর নাম আনচান। তিনি সাবেক সরকারি কর্মকর্তা।

আদালতে ৬৩ বছর বয়সী আনচান জানিয়েছিলেন, তিনি যে পডকাস্টগুলো শেয়ার করেছিলনে সেগুলো তার নিজের করা নয়।

রাজতন্ত্রের সমালোচনা ঠেকাতে বিশ্বে সবচেয়ে কঠোর আইন রয়েছে থাইল্যান্ডে। জাতিসংঘের আহ্বানে বছর তিনেক আগে আইনটি স্থগিত করেছিল সরকার। সম্প্রতি রাজতন্ত্র ও সরকারবিরোধী বিক্ষোভের জের ধরে সেটি আবারও চালু করা হয়েছে।

আনচানের আইনজীবী বার্তাসংস্থা রয়টার্সকে জানিয়েছেন, তার বিরুদ্ধে ২০১৪ এবং ২০১৫ সালে ইউটিউব ও ফেসবুকে ২৯টি পোস্ট শেয়ারের অভিযোগ আনা হয়েছে।

তিনি আরও জানান, আনচানকে ৮৭ বছরের জেল দিয়েছিল আদালত। তবে ক্ষমা চাওয়ায় এটি কমিয়ে ৪৩ বছর করা হয়েছে।

আনচান যার পডকাস্ট শেয়ার করেছিলেন তিনি দুই বছর সাজা ভোগ করার পরে জেল থেকে ছাড়া পেয়েছেন।

বিবিসির সংবাদদাতা জনাথন হেডের মতে, রাজতন্ত্রের সমালোচকদের সতর্ক করে দিতে এমন সাজা দিয়েছে থাইল্যান্ডের আদালত।

২০২০ সালের ফেব্রুয়ারি থেকে থাইল্যান্ডে সরকারবিরোধী বিক্ষোভ শুরু হয়। সম্প্রতি তা রাজতন্ত্রবিরোধী বিক্ষোভে রূপ নিয়েছে।

থাইল্যান্ডের রাজা বাজিরালংকর্নের বৈধতা নিয়েও প্রশ্ন তুলছেন আন্দোলনকারীরা। রাজতন্ত্রের বর্ধিত ক্ষমতা কমাতে ও রাজ সম্পত্তিকে ব্যক্তিগত সম্পত্তি হিসেবে বাজিরালংকর্নের ঘোষণার সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ করেছেন তারা। এ সিদ্ধান্ত বাজিরালংকর্নকে দেশটির সবচেয়ে ধনী ব্যক্তিতে পরিণত করবে।

আরও পড়ুন:
থাইল্যান্ডে সেনা অভ্যুত্থানের গুজব
রাজার সমালোচনা বন্ধের আইন ফেরাল থাইল্যান্ড
বিক্ষোভকারীদের ওপর ‘সব আইন’ প্রয়োগের হুঁশিয়ারি থাই প্রধানমন্ত্রীর
বিক্ষোভে নিষেধাজ্ঞা তুলে নিল থাইল্যান্ড সরকার
থাইল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রীকে ৩ দিন সময় দিল বিক্ষোভকারীরা

আরও পড়ুন

আন্তর্জাতিক
Case against Paresh Rawal for commenting on Bengali

বাঙালি নিয়ে মন্তব্যে পরেশ রাওয়ালের বিরুদ্ধে মামলা

বাঙালি নিয়ে মন্তব্যে পরেশ রাওয়ালের বিরুদ্ধে মামলা বলিউড অভিনেতা পরেশ রাওয়াল। ছবি: সংগৃহীত
তীব্র বিরোধিতার মুখে পড়ে ক্ষমা চাইতে বাধ্য হন বলিউড অভিনেতা বিজেপি সাংসদ পরেশ রাওয়াল। পরেশ রাওয়াল ক্ষমা প্রার্থনা করলেও শুক্রবার রাতে তার বিরুদ্ধে পুলিশে অভিযোগ দায়ের করেন সিপিএম নেতা সেলিম।

বিজেপির হয়ে ভারতের রাজনৈতিক প্রচারণায় গিয়ে বাঙালি নিয়ে মন্তব্য করে বিতর্কিত বলিউড অভিনেতা পরেশ রাওয়াল । ওই বিতর্কিত মন্তব্যের জন্য তার বিরুদ্ধে মামলা করেছেন পশ্চিমবঙ্গের সিপিএম রাজ্য সম্পাদক মোহাম্মদ সেলিম।

শুক্রবার রাতে কলকাতার তালতলা পুলিশ স্টেশনে এ মামলা করা হয়।

অভিযোগপত্রে সেলিম লিখেছেন, 'বাঙালিদের একটি বড় সংখ্যকই রাজ্যের বাইরে বসবাস করেন। পরেশ রাওয়ালের এই মন্তব্যের কারণে রাজ্যের বাইরে বসবাসকারী বাঙালিরা নিশানা ও প্রভাবিত হতে পারেন। ইচ্ছাকৃতভাবে অপমান, শত্রুতা ছড়ানো, জনসাধারণের মধ্যে হিংসা ছড়ানোর মতো অপরাধে পরেশ রাওয়ালের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হোক।'

বৃহস্পতিবার বিজেপির হয়ে নির্বাচনী প্রচারে গিয়ে গুজরাটের ভালসাদের এক সভায় পরেশ রাওয়াল গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধি নিয়ে বলতে গিয়ে বলেন, 'গ্যাসের দাম বাড়লে তা আবার কমে যাবে । মূল্য বৃদ্ধি হলে সেটাও লাগামের মধ্যে চলে আসবে। সকলের কর্মসংস্থানও হবে। কিন্তু দিল্লির মতো আপনাদের চারপাশে যদি রোহিঙ্গা আর বাংলাদেশি ঘুরে বেড়ায় তখন কী করবেন ? কম দামের গ্যাসে বাঙালিদের মাছ ভাজা করে খাওয়াবেন?'

পরেশ রাওয়ালের মন্তব্যে তীব্র শোরগোল পড়ে যায় রাজ্যে জুড়ে । তৃণমূল কংগ্রেসের আইটি সেলের প্রধান দেবাংশু ভট্টাচার্য বলেন, 'গ্যাসের দাম বাড়লে তার প্রভাব হিন্দু-মুসলিম সকলের ওপরেই পড়ে । পরেশ রাওয়াল নিজে ও মাই গডের মতো সিনেমায় অভিনয় করেছেন । ধর্ম নিয়ে ব্যবসা করার প্রতিবাদ করেছেন সিনেমায়। সেই তিনি দুটো ভোট পাওয়ার জন্য গুজরাটে গিয়ে এ ধরনের কথা বলছেন । এই কথাগুলো অত্যন্ত অসম্মানজনক । পরেশের মনে রাখা উচিত, বাংলাতেও তার ছবি মুক্তি পায়। সেখানে তিনি বলছেন, কম দামে গ্যাস নিয়ে বাঙালিদের মাছ রান্না করে খাওয়াবেন? নাম না করে সব বাঙালিকে অনুপ্রবেশকারী বলছেন বিজেপি সাংসদ।'

যদিও তীব্র বিরোধিতার মুখে পড়ে ক্ষমা চাইতে বাধ্য হন বলিউড অভিনেতা বিজেপি সাংসদ পরেশ রাওয়াল। শুক্রবার একটি টুইট বার্তায় তিনি বলেন, 'মাছ কথাটি এখানে প্রাসঙ্গিক নয়। গুজরাটের মানুষও মাছ রান্না করে খান। বাঙালি জাতিকে অপমান করা আমার উদ্দেশ্য ছিল না । বাঙালি বলতে, আমি বেআইনি বাংলাদেশী ও রোহিঙ্গাদের বোঝাতে চেয়েছি। তবে আমার কথায় কারও ভাবাবেগে আঘাত লাগলে ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি।'

টুইট করে পরেশ রাওয়াল ক্ষমা প্রার্থনা করলেও শুক্রবার রাতে তার বিরুদ্ধে পুলিশে অভিযোগ দায়ের করেন সিপিএম নেতা সেলিম।

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
BSF baton in meeting of two Bengals

দুই বাংলার মিলনমেলায় বিএসএফের লাঠি

দুই বাংলার মিলনমেলায় বিএসএফের লাঠি পশ্চিমবঙ্গের উত্তর দিনাজপুরের হেমতাবাদ এলাকায় বিএসএফের লাঠিচার্জ। ছবি: নিউজবাংলা
বাংলাদেশের ঠাকুরগাঁও জেলার গোবিন্দপুরে এক কালীপূজাকে কেন্দ্র করে প্রতিবছরই সীমান্তের দুপারের মানুষ কাঁটাতারের বেড়া উপেক্ষা করে জড়ো হন এক অঘোষিত মিলনমেলায় । দুদেশে থাকা প্রিয়জনদের সঙ্গে মিলিত হওয়ার সুযোগ নেন স্থানীয় লোকজন। ব্যাপক লোকসমাগম হয় এতে।

বাংলাদেশের সীমান্তঘেঁষা ভারতের পশ্চিমবঙ্গের উত্তর দিনাজপুরের হেমতাবাদ এলাকায় শুক্রবার বসে দুই বাংলার মিলনমেলা। এতে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিএসএফ) লাঠিচার্জ করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। স্থানীয়দের দাবি, এই ঘটনায় কয়েকজন আহত হয়েছেন।

বাংলাদেশের ঠাকুরগাঁও জেলার গোবিন্দপুরে এক কালীপূজাকে কেন্দ্র করে প্রতিবছরই সীমান্তের দুপারের মানুষ কাঁটাতারের বেড়া উপেক্ষা করে জড়ো হন এক অঘোষিত মিলনমেলায় । দুদেশে থাকা প্রিয়জনদের সঙ্গে মিলিত হওয়ার সুযোগ নেন স্থানীয় লোকজন। ব্যাপক লোকসমাগম হয় এতে।

স্থানীয়দের অভিযোগ, বিএসএফ আচমকা লাঠি দিয়ে কাঁটাতারের কাছে জড়ো হওয়া মানুষদের সরাতে গেলে হুড়োহুড়ি ধাক্কাধাক্কিতে কয়েকজন আহত হন। এসময় এক নাবালককে লাঠি দিয়ে মারধর করা হয়।

হেমতাবাদের মিলনমেলায় অংশ নেয়া বিমল নস্কর বলেন, 'বিএসএফ বারবার লাঠি দিয়ে তাড়া করায়, বহু মানুষ পড়ে গিয়ে আহত হয়েছেন ।' স্থানীয় বাসিন্দা মনিরুল কাজী বলেন, 'বিএসএফ নারী ও শিশুদের পর্যন্ত মারধর করেছে।'

যদিও বিএসএফের মাকড়হাট বিওপির ১৭৫ নম্বর ব্যাটালিয়ন লাঠিচার্জের ঘটনা অস্বীকার করে জানায়, সীমান্ত এলাকায় মিলন মেলার কোন অনুমতি ছিল না। সেখানে জড়ো না হওয়ার জন্য মাইকে ঘোষণাও করা হয়েছিল। কিন্তু নিষেধ না মেনে কয়েক হাজার মানুষ সীমান্তের কাঁটাতারের কাছে জড়ো হন। শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রাখতে একসময় পদক্ষেপ নিতে হয়।

রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস বিএসএফের কাজের সীমানা বৃদ্ধি নিয়ে আগেই কেন্দ্রের বিরুদ্ধে সরব হয়েছে। বিএসএফের কাজকর্ম নিয়ে বিভিন্ন সময়ে সুর চড়িয়েছে পশ্চিমবঙ্গের ক্ষমতায় থাকা এই রাজনৈতিক দলটি । হেমতাবাদের ঘটনা নিয়ে আবারও বিএসএফের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠে গেল।

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
For the first time Iran released the number of people killed in the movement

প্রথমবারের মতো আন্দোলনে নিহতের সংখ্যা প্রকাশ ইরানের

প্রথমবারের মতো আন্দোলনে নিহতের সংখ্যা প্রকাশ ইরানের ইরানে তীব্র সরকারবিরোধী আন্দোলন চলছে। ছবি: সংগৃহীত
তেহরানের নিরাপত্তা সংস্থার বিবৃতিতে আরও বলা হয়, ‘সন্ত্রাসীদের মিডিয়া গ্রুপ দ্বারা পরিচালিত একটি হাইব্রিড যুদ্ধ মোকাবিলা করছে ইরান।’

নারীর পোশাকের স্বাধীনতার দাবিতে ইরানজুড়ে চলা বিক্ষোভে ২ শতাধিক মানুষ নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে ইরানের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। ইরান সরকার এই প্রথমবারের মতো আন্দোলনে নিহতের সংখ্যা প্রকাশ করল।

শনিবার এক বিবৃতিতে ইরানের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা পরিষদ সংস্থার পক্ষ থেকে এই নিহতের সংখ্যা প্রকাশ করা হয়। এতে বিক্ষোভকে দাঙ্গা হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়েছে।

বিবৃতিতে জানানো হয়, সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড, বিদেশি মদদপুষ্ট দলের দাঙ্গা এবং বিপ্লববিরোধী বিচ্ছিন্নতাবাদী গোষ্ঠীর হামলায় নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যসহ ২ শতাধিক মানুষের মৃত্যু হয়েছে। নিরপরাধ ব্যক্তিরা নিরাপত্তা পরিস্থিতির অবনতি হওয়ায় মারা গেছে।

তবে কীভাবে তারা নিহত হয়েছে তা প্রকাশ করা হয়নি।

কয়েকদিন আগেই ইরানের ইসলামি বিপ্লবী গার্ড কোরের (আইআরজিসি) কমান্ডার আমির আলি হাজিজাদেহ জানান, ইরানে বিক্ষোভ ঘিরে অস্থিরতায় তিন শতাধিক মানুষ নিহত হয়েছেন।

তবে বিদেশি মানবাধিকার সংস্থাগুলো বলছে, এই আন্দোলনে চার শতাধিক মানুষের মৃত্যু হয়েছে।

সঠিকভাবে হিজাব না করার অভিযোগে ইরানের নৈতিকতা পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার কুর্দি তরুণী মাহসা আমিনির মৃত্যু হয় ১৬ সেপ্টেম্বর। এ ঘটনায় ক্রমান্বয়ে গোটা ইরানে প্রতিবাদ-বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে।

ইরানের অভিযোগ, যুক্তরাষ্ট্র, ইসরায়েল, যুক্তরাজ্য ও সৌদি আরবের মদদে এই অরাজক পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে।

তেহরানের নিরাপত্তা সংস্থার বিবৃতিতে আরও বলা হয়, ‘সন্ত্রাসীদের মিডিয়া গ্রুপ দ্বারা পরিচালিত একটি হাইব্রিড যুদ্ধ মোকাবিলা করছে ইরান।’

জাতিসংঘ ইরান সরকারকে বিক্ষোভকারীদের ওপর অসম শক্তি ব্যবহার না করার আহ্বান জানিয়েছে। পাশাপাশি মৃত্যুদণ্ডের বিরোধিতা করে বেশ কয়েকজন রাজনৈতিক বন্দিকে মুক্তি দেয়ার আহ্বান জানানো হয়েছে।

গত মাসে জাতিসংঘের মানবাধিকার কাউন্সিলে ভোটের পর ইরানের আন্দোলন ইস্যুতে তদন্ত কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত হয়। তবে তেহরান জানিয়ে দিয়েছে, তারা তদন্তে সহায়তা করবে না।

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Anthonys world record with ear hair

কানের চুলে অ্যান্তনির বিশ্বরেকর্ড

কানের চুলে অ্যান্তনির বিশ্বরেকর্ড কানের চুল দিয়ে বিশ্বরেকর্ড গড়েছেন তামিলনাড়ুর অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক অ্যান্তনি ভিক্টর। ছবি: সংগৃহীত
অ্যান্তনির কানে সবচেয়ে লম্বা যে চুলটি আছে, তার দৈর্ঘ ১৮.১ সেন্টিমিটার বা ৭.১২ ইঞ্চি। এ কারণে তার স্কুলের সহকর্মী ও ছাত্রছাত্রীরা তাকে ‘কানে চুলওয়ালা স্যার’ বলেই ডাকতেন।

গিনেস বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে কতরকম কারণেই না মানুষের নাম ওঠে । সর্বোচ্চ উচ্চতা হোক বা দীর্ঘতম চুল, গিনেস বুকে আছে এমন বহু রেকর্ড।

কিন্তু ভারতের তামিলনাড়ুর অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক অ্যান্তনি ভিক্টর যে বিশ্বরেকর্ড করলেন তা শুনে চমক উঠতে পারেন অনেকেই।

জানা গেছে, বিশ্বের দীর্ঘতম কানের চুল দিয়ে বিশ্বরেকর্ড গড়েছেন অ্যান্তনি।

গিনেস বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডের পক্ষ থেকে জানানো হয়, অ্যান্তনির কানে ৭ ইঞ্চিরও বেশি দৈর্ঘের লম্বা চুল রয়েছে। মজার কথা হলো, অ্যান্তনি এই রেকর্ড গড়েছেন সেই ২০০৭ সালে। এতদিন পরও তাকে কেউ ছাড়াতে পারেনি।

জানা গেছে, অ্যান্তনির কানে সবচেয়ে লম্বা যে চুলটি আছে তার দৈর্ঘ ১৮.১ সেন্টিমিটার বা ৭.১২ ইঞ্চি। এ কারণে তার স্কুলের সহকর্মী ও ছাত্রছাত্রীরা তাকে ‘কানে চুলওয়ালা স্যার’ বলেই ডাকতেন।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে অ্যান্তনির বিশ্বরেকর্ডের পোস্টে অভিনন্দনের বদলে হাসাহাসিই বেশি করেছে লোক। কেউ লিখেছে, ‘এমন আজব রেকর্ড কে গড়তে চায়!’ কারও বক্তব্য, ‘আমি আর কিছু শেভ করি বা না করি, এই চুল শেভ করবই।’ কেউ আবার ব্যঙ্গ করে লিখেছেন, ‘এই রেকর্ড ভাঙাই এখন আমার লক্ষ্য।’

তবে কানের চুল নিয়ে অ্যান্তনির আগেও গিনেস বুকে এই ক্যাটাগরিতে নাম তুলেছিলেন এক ভারতীয়। উত্তরপ্রদেশের মুদি ব্যবসায়ী রাধাকান্ত বাজপেয়ীর কানের চুল ছিল ১৩ দশমিক ২ সেন্টিমিটার লম্বা। ২০০৩ সালে গিনেস বুকে এ কারণে তার নাম উঠেছিল।

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
US urges China to remain silent during joint exercises

ভারতের সঙ্গে যৌথ মহড়ায় চীনকে চুপ থাকার আহ্বান যুক্তরাষ্ট্রের

ভারতের সঙ্গে যৌথ মহড়ায় চীনকে চুপ থাকার আহ্বান যুক্তরাষ্ট্রের ভারত-যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক মহড়া। ছবি: সংগৃহীত
ভারতে নিযুক্ত মার্কিন দূত এলিজাবেথ জোনস সাংবাদিকদের সঙ্গে এক গোলটেবিল বৈঠকে বলেছেন, ‘এ মহড়া নিয়ে চীনের নাক গলানোর দরকার নেই।’

ভারতের উত্তরাখন্ডের সীমান্ত এলাকায় যৌথ সেনা মহড়া চালাচ্ছে দিল্লি-ওয়াশিংটন। এ নিয়ে চীনের আপত্তির সমালোচনা করেছে যুক্তরাষ্ট্র। পাশাপাশি বেইজিংকে এ সামরিক মহড়া নিয়ে মাথা না ঘামানোর আহ্বান জানিয়েছে দেশটি।

শুক্রবার ভারতে নিযুক্ত মার্কিন দূত এলিজাবেথ জোনস সাংবাদিকদের সঙ্গে এক গোলটেবিল বৈঠকে বলেছেন, ‘এ মহড়া নিয়ে চীনের নাক গলানোর দরকার নেই।’

এ সময় ভারতের সঙ্গে বাণিজ্যকেও সর্বাধিক গুরুত্ব দেয়া হবে বলে জানান মার্কিন রাষ্ট্রদূত।

জোনস বলেন, ‘বিগত ৭ বছরে ভারতের সঙ্গে বাণিজ্য দ্বিগুণ হয়ে ১৫৭ বিলিয়ন ডলারে পৌঁছেছে। এরপর আলাদাভাবে আর ভারত-যুক্তরাষ্ট্রর মধ্যে বাণিজ্যচুক্তির কোনও প্রয়োজন নেই।’

উত্তরাখন্ড সীমান্তবর্তী আউলিতে যুদ্ধ অভ্যাস নামে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ১৮তম যৌথ সামরিক মহড়া চালাচ্ছে ভারত। যে জায়গায় মহড়া হচ্ছে সেটির অবস্থান চীন সীমান্ত থেকে প্রায় ১০০ কিলোমিটার দূরত্বে।

এ নিয়ে বৃহস্পতিবার আপত্তি জানিয়েছে বেইজিং। চীন বলছে, এই মহড়া বেইজিং ও দিল্লির মধ্যে দুটি সীমান্ত চুক্তির মূল নীতির লঙ্ঘন।

ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র অরিন্দম বাগচী জানিয়েছেন, ১৯৯৩ এবং ১৯৯৬ সালে চীনের সমঝোতা চুক্তির সঙ্গে এ যৌথ সামরিক মহড়ার সম্পর্ক নেই। উল্টো চীন এ চুক্তিগুলোর লঙ্ঘন করছে কি-না, তা নিয়ে ভাবার জন্য দেশটির প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

১৯৯৩ সালে সমঝোতা চুক্তি অনুযায়ী, প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা এবং সংলগ্ন এলাকায় শান্তি বজায় রাখার কথা বলা হয়েছে।

ভারত-চীনের সীমানা নিয়ে বিরোধ বেশ পুরোনো। ১৯৬২-র যুদ্ধের পর, ভারতের প্রায় ৩৮ হাজার বর্গকিলোমিটার অংশ জুড়ে বিস্তৃত এই অঞ্চলটি দখল করেছে চীন। সবশেষ ২০২০ সালে লাদাখে চীন ও ভারতের সেনাদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এতে উভয় পক্ষেরই বেশ কয়েকজন সেনা হতাহত হন।

আরও পড়ুন:
সাত বছর পর ঢাকায় রোহিত-কোহলিরা
বিয়ের আসর থেকে ভোটকেন্দ্রে
মোদির রাজ্যে শুরু প্রথম দফার ভোট
বৃষ্টির বাধাতেও সিরিজ নিউজিল্যান্ডের
পশ্চিমবঙ্গের নতুন জেলা সুন্দরবন

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
The West fixed the price of oil Russia is bent

তেলের দাম বেঁধে দিল পশ্চিমারা, বেঁকে বসেছে রাশিয়া

তেলের দাম বেঁধে দিল পশ্চিমারা, বেঁকে বসেছে রাশিয়া সমুদ্রপথে রাশিয়ার অপরিশোধিত তেল পরিবহন। ছবি: সংগৃহীত
যুক্তরাষ্ট্র বলছে, তেলের দাম বেঁধে দিলে আয় কমে যাবে রাশিয়ার। এই উদ্যোগ যুদ্ধে মস্কোর অর্থ ঢালার সামর্থ্যের লাগাম টেনে ধরবে।

ইউক্রেনের সঙ্গে গত ফেব্রুয়ারি থেকে যুদ্ধ চালিয়ে যাচ্ছে রাশিয়া। এমন পরিস্থিতিতে রাশিয়ার আয় কমাতে দেশটির অন্যতম রপ্তানিপণ্য জ্বালানি তেলের দাম বেঁধে দিয়েছে পশ্চিমা দেশগুলোর জোট জি-৭।

শুক্রবার পশ্চিমা জোট জানায়, সমুদ্রপথে আসা রাশিয়ার অপরিশোধিত তেল প্রতি ব্যারেল ৬০ ডলার বা এর চেয়ে কম দামে কিনতে হবে।

সোমবার থেকে এই দাম কার্যকর হবে।

রাশিয়া বলেছে যে এই দামে তারা তেল সরবরাহ করবে না।

আর ইউক্রেন বলেছে, পশ্চিমা-প্রস্তাবিত এই দাম অর্ধেক করা উচিত।

যুক্তরাষ্ট্র বলছে, তেলের দাম বেঁধে দিলে আয় কমে যাবে রাশিয়ার। এই উদ্যোগ যুদ্ধে মস্কোর অর্থ ঢালার সামর্থ্যের লাগাম টেনে ধরবে।

বিশ্বের শীর্ষ সাত অর্থনীতির দেশের জোট জি৭-এর পক্ষ থেকে গত সেপ্টেম্বরে জানানো হয়, ডিসেম্বর মাসের মধ্যে তেলের দাম কমানোর বিষয়ে একটা সিদ্ধান্তে পৌঁছবে তারা। তারই ধারাবাহিকতায় পশ্চিমা দেশগুলো এমন উদ্যোগ নিয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের অর্থমন্ত্রী জ্যানেট ইয়েলেন বলেন, তেলের দাম বেঁধে দেয়ায় রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের আয়ের উৎস আরও সীমাবদ্ধ হয়ে পড়বে। তিনি নৃশংস যুদ্ধে অর্থায়নের জন্য যে অর্থ ব্যবহার করছেন তা সীমিত হয়ে আসবে।

সমুদ্রপথে রাশিয়ার অপরিশোধিত তেল সরবরাহে ইউরোপের নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হবে ৫ ডিসেম্বর থেকে। এর আগে এই দাম বেঁধে দেয়ার কথা জানালো জি-৭। বিশ্বব্যাপী তেলের দাম বৃদ্ধি রোধ করাও এই দাম বেঁধে দেয়ার লক্ষ্য বলে জি-৭-এর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

জি-৭ দেশগুলোর নীতিতে স্বাক্ষরকারী দেশগুলো বেঁধে দেয়া দামে কেবল সমুদ্রপথে পরিবহন করা রুশ তেল এবং পেট্রোলিয়াম-পণ্য কেনার অনুমতি পাবে। নির্ধারিত দামের চেয়ে ব্যারেলপ্রতি বেশি অর্থ প্রদান না করলে পশ্চিমা বিমা ও সামুদ্রিক পরিষেবা ব্যবহার করে রাশিয়ার অপরিশোধিত তেল আমদানি চালিয়ে যাওয়ার অনুমতি দেবে জি-৭।

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Ladens body in America is believed to be that of Omars son

লাদেনের মরদেহ আমেরিকায়, ধারণা ছেলে ওমরের

লাদেনের মরদেহ আমেরিকায়, ধারণা ছেলে ওমরের জঙ্গিগোষ্ঠী আল-কায়েদার প্রতিষ্ঠাতা ওসামা বিন লাদেন। ছবি: সংগৃহীত
যুক্তরাষ্ট্রে নাইন-ইলেভেন হামলার প্রধান পরিকল্পনাকারী হিসেবে অভিযুক্ত ছিলেন ওসামা বিন লাদেন। পাকিস্তানের অ্যাবোটাবাদে ২০১১ সালে আমেরিকান সেনাদের অভিযানে নিহত হন তিনি। এরপর লাদেনের মরদেহ সাগরে ফেলে দেয় আমেরিকান সেনারা। হোয়াইট হাউজের ওই ঘোষণা নিয়ে ধোঁয়াশায় আছেন লাদেনের ছেলে ওমর।

আল-কায়েদার প্রতিষ্ঠাতা ওসামা বিন লাদেনকে হত্যার পর তার মরদেহ সাগরে ফেলে দেয়া হয়েছিল বলে জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। তবে তার ছেলে ওমর বিন লাদেনের ধারণা, লাদেনের মরদেহ যুক্তরাষ্ট্রেই আছে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য সানকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে ওসামা বিন লাদেনের চতুর্থ ছেলে ওমর এমন ধারণা পোষণ করেছেন।

যুক্তরাষ্ট্রে নাইন-ইলেভেন হামলার প্রধান পরিকল্পনাকারী হিসেবে অভিযুক্ত ছিলেন ওসামা বিন লাদেন। পাকিস্তানের অ্যাবোটাবাদে ২০১১ সালে আমেরিকান সেনাদের অভিযানে নিহত হন তিনি। এরপর লাদেনের মরদেহ সাগরে ফেলে দেয় আমেরিকান সেনারা। হোয়াইট হাউজের ওই ঘোষণা নিয়ে ধোঁয়াশায় আছেন ওমর।

তিনি বলেন, ‘ভালো হতো যদি আমার বাবাকে দাফন করা হতো। তবে তারা আমাদের সেই সুযোগ দেয়নি। আমি জানি না বাবার সঙ্গে কি করেছে। তারা বলেছে, মরদেহ সাগরে ফেলে দেয়া হয়েছে। তবে আমার মনে হয় মানুষকে দেখানোর জন্য বাবার মরদেহ আমেরিকাতেই রাখা হয়েছে।’

ওমর বলেন, ‘ছোটবেলায় আফগানিস্তানে থাকার সময় বিন লাদেনই তাকে আগ্নেয়াস্ত্র চালানোর প্রশিক্ষণ দিয়েছিলেন। আমাকে উনার মতোই বানাতে চাইতেন বাবা।’

স্ত্রীকে নিয়ে ওমর ফ্রান্সের নরম্যান্ডিতে থাকেন। বিশ্বকাপ উপলক্ষে এখন তিনি কাতারে অবস্থান করছেন। সেখানেই সানকে এই সাক্ষাৎকার দেন ওমর।

ওমর বলেন, ‘বাবা (লাদেন) একজন ভুক্তভোগী। অতীতের সেই দুঃসময় ভুলে যাওয়ার চেষ্টায় আছি।’

৪১ বছর বয়সী ওমর জানান, নিউইয়র্কে টুইন টাওয়ারের সন্ত্রাসী হামলার কয়েক মাস আগে আফগানিস্তান ছেড়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন তিনি।

লাদেনের কাছ থেকে বিদায় নেয়ার কথা জানাতে গিয়ে ওমর বলেন, ‘আমি বিদায় বলেছিলাম এবং তিনিও বিদায় জানান। আমি চলে যাচ্ছি জেনে তিনি খুশি ছিলেন না।’

নিজের কুকুরের ওপর রাসায়নিক অস্ত্র পরীক্ষার বর্ণনা দিতে গিয়ে ওমর বলেন, ‘আমি দেখেছিলাম। তার এক সহযোগী আমার কুকুগুলোর ওপর এটির পরীক্ষা চালিয়েছিল। আমি খুশি ছিলাম না। এটা কঠিন সময় ছিল।’

ওমর একজন চিত্রশিল্পী। পাহাড় পছন্দ করেন ভীষণ। আফগানিস্তানে পাঁচ বছর থাকার সময়েই পাহাড়ারের প্রতি তার আগ্রহের জন্ম। ওমরের হাতে আঁকা এক একটি ছবি সাড়ে আট হাজার পাউন্ডেও বিক্রি হয়েছে।

সৌদি আরবে ১৯৮১ সালের মার্চে লাদেনের প্রথম স্ত্রী নাজওয়ার ঘরে জন্ম ওমরের।

তিনি বলেন, ‘বাবা আমাকে কখনোই আল-কায়েদায় যোগ দিতে বলেননি, তবে তিনি আমাকে তার উত্তরসূরি ভাবতেন। আমি সেই জীবনের জন্য উপযুক্ত নই জানালে বাবা হতাশ হয়েছিলেন।’

বিন লাদেন কেন তাকে উত্তরসূরি হিসেবে বেছে নিতে চেয়েছিলেন এমন প্রশ্নের জবাবে ওমর বলেন, ‘আমি জানি না... হয়তো আমি বেশি বুদ্ধিমান ছিলাম। এ কারণেই আজ বেঁচে আছি।’

মন্তব্য

p
উপরে