ছেলে বিজেপিতে, পদ খোয়ালেন বাবা

ছেলে বিজেপিতে, পদ খোয়ালেন বাবা

শিশির অধিকারি নিজে এখনও তৃণমূলে রয়েছেন। পূর্ব মেদিনীপুর জেলায় দলের সভাপতিও তিনি। কিন্তু তাঁকে হটিয়ে আজ আরেক তৃণমূল নেতা অখিল গিরিকে মন্ত্রী পদমর্যাদার এই চেয়ারম্যান পদে নিয়োগ দেয়া হয়।

ছেলের দলত্যাগের শাস্তি ভোগ করতে হচ্ছে বাবাকে! এমনটাই ঘটেছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গে।

শুভেন্দু অধিকারী তৃণমূল ত্যাগ করায় তারা বাবা ভারতের সাবেক মন্ত্রী ও তৃণমূলের সাংসদ শিশির অধিকারীকে দীঘা শঙ্করপুর উন্নয়ন পর্ষদের চেয়ারম্যান পদ থেকে অপসারণ করা হয়েছে।

মঙ্গলবার সকালে এ ঘটনা ঘটেছে।

শিশির অধিকারি নিজে এখনও তৃণমূলে রয়েছেন। পূর্ব মেদিনীপুর জেলায় দলের সভাপতিও তিনি। কিন্তু তাঁকে হটিয়ে আজ আরেক তৃণমূল নেতা অখিল গিরিকে মন্ত্রী পদমর্যাদার এই চেয়ারম্যান পদে নিয়োগ দেয়া হয়।

তৃণমূল সূত্রের খবর, ছেলে শুভেন্দু অধিকারী দলত্যাগ করায় শিশির অধিকারীকে সরানো হলো পদ থেকে। অবশ্য তাঁর আরেক ছেলে সৌমেন অধিকারির কাঁথি পুরসভার প্রশাসক পদ আগেই কেড়ে নেয়া হয়েছে।

এক সময়ে তৃণমূলে পূর্ব মেদিনীপুরের অধিকারি পরিবারের দাপট ছিল সবচেয়ে বেশি। শিশির অধিকারি ও তাঁর ছেলে দিব্যেন্দু ভারতের লোকসভার সদস্য। আরেক ছেলে সৌমেন ছিলেন পুরসভার চেয়ারম্যান। আর শুভেন্দু তো রাজ্যের দাপুটে মন্ত্রী ছিলেন।

এখন শিশির ও দিব্যেন্দু তৃণমূলের সাংসদ থাকলেও তাঁদের গুরুত্ব অনেকটাই কমিয়ে দিয়েছেন দলনেত্রী মমতা ব্যানার্জি। এই দুজনও দলের কোনো কর্মসূচিতে অংশ নিচ্ছেন না। বিজেপি নেতাদের সঙ্গে তাঁদের যোগাযোগও সর্বজনবিদিত।

তৃণমূলের তরফে দলের এই সাংসদকেও আক্রমণ করা হচ্ছে সমানতালে। প্রবীণ সাংসদ সৌগত রায়ের মতে, এঁরা দু-জনই হলেন 'উপসর্গহীন বেইমান'।

অন্যদিকে, শুভেন্দু বিজেপিতে যোগ দিয়েই তৃণমূল নেত্রী, মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি ও তাঁর ভাইপো, সাংসদ অভিষেক ব্যানার্জির বিরুদ্ধে সমানে অভিযোগ জানিয়ে চলেছেন। দুর্নীতি আর অনুন্নয়ন এই দুটিকেই ইস্যু করছেন তিনি।

পাল্টা তাঁকেও আক্রমণ করছেন অভিষেক। মানুষের কাছে অভিষেকের প্রশ্ন, 'টিভির পর্দায় কাকে টাকা নিতে দেখেছেন আপনারা?' উল্লেখ্য, নারদা কেলেঙ্কারির স্ট্রিং অপারেশনে শুভেন্দুকে টাকা নিতে দেখা যায়।

এদিকে, টানা দেড় বছর টালবাহানার পর নিজের বান্ধবী বৈশাখীকে সঙ্গে নিয়ে বিজেপির হয়ে পথে নেমেছেন কলকাতার সাবেক মেয়র শোভন চ্যাটার্জি। পথে নেমেই মমতাকেই আক্রমণের লক্ষ্য করেন তিনি।

পাল্টা কটাক্ষ ধেয়ে আসে তাঁর দিকেও। তৃণমূলের মুখপাত্র কুনাল ঘোষ তাঁকে 'পচা মাল' বলে কটাক্ষ করেন। বৈশাখী আর শোভনের সম্পর্ক নিয়েও কটাক্ষ করেন কুনাল।

উল্লেখ্য, নিজের স্ত্রী রত্না চ্যাটার্জির সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করে দীর্ঘদিন ধরে বৈশাখীর সঙ্গেই থাকছেন শোভন। দাম্পত্য কলহের কারণেই মমতা ব্যানার্জির অত্যন্ত ঘনিষ্ট শোভন দল ও মেয়র পদ ছাড়তে বাধ্য হন। রত্না অবশ্য এখনও তৃণমূলে্ রয়েছেন।

শেয়ার করুন

মন্তব্য