20201002104319.jpg
আন্দোলনের মুখে কিরগিজ প্রেসিডেন্টের পদত্যাগ

কিরগিজস্তানের প্রেসিডেন্ট সুরনবাই জেনবেকভ। ছবি: এপি

আন্দোলনের মুখে কিরগিজ প্রেসিডেন্টের পদত্যাগ

৪ অক্টোবর অনুষ্ঠিত নির্বাচনকে ঘিরে রাজনৈতিক সংকটের মুখে পড়ে কিরগিজস্তান।

বিতর্কিত সংসদ নির্বাচনের পর প্রতিবাদের মুখে পদত্যাগ করেছেন কিরগিজস্তানের প্রেসিডেন্ট সুরনবাই জেনবেকভ।

স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার প্রেসিডেন্টের ওয়েবসাইটে এ ঘোষণা দেন তিনি।

ঘোষণায় জেনবেকভ বলেন, ‘কিরগিজস্তানের শান্তি, সংহতি, জনগণের ঐক্য ও সমাজে স্থিতিশীলতা আমার কাছে সবকিছুর ঊর্ধ্বে। দেশের প্রতিটি মানুষের জীবনের চেয়ে মূল্যবান আর কিছু নেই আমার কাছে।’

তিনি বলেন, ‘ক্ষমতা আকঁড়ে ধরে থাকতে চাই না। কিরগিজস্তানের ইতিহাসে আমি সেই প্রেসিডেন্ট হিসেবে নাম লেখাতে চাই না, যে রক্ত ঝরায় ও নিজের দেশের নাগরিককে গুলি করে। তাই পদত্যাগের সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

৪ অক্টোবর অনুষ্ঠিত নির্বাচনকে ঘিরে রাজনৈতিক সংকটের মুখে পড়ে কিরগিজস্তান। ওই নির্বাচনে জেনবেকভের প্রতি অনুগত দলগুলোকে বিজয়ী ঘোষণার পরই কারচুপির অভিযোগ তোলে বিরোধী দল।

নির্বাচনের ফলাফল প্রত্যাখান করে জেনবেকভের পদত্যাগের দাবিতে দেশটির রাজধানী বিশকেকে হাজার হাজার মানুষ বিক্ষোভ শুরু করেন। ওই সময় পুলিশ ও বিক্ষোভকারীদের মধ্যে সংঘর্ষে কমপক্ষে এক জন নিহত ও এক হাজার ২০০ জনেরও বেশি মানুষ আহত হন।

প্রতিবাদকারীরা দেশটির সরকারি ভবন ভাঙচুর করে ও বিরোধী দলের আইনপ্রণেতা সাদির জারাপভকে কারাগার থেকে মুক্ত করে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে বিশকেকে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয় ও পরে জারাপভকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়।

মঙ্গলবার জেনবেকভ নবনিযুক্ত প্রধানমন্ত্রীকে প্রত্যাখান করে সংসদ সদস্যদের ফের ভোট দেয়ার আহ্বান জানান।

১৯৯১ সালে সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়ন থেকে বেরিয়ে স্বাধীনতা অর্জন করে কিরগিজস্তান। জেনবেকভসহ দেশটির তিন জন প্রেসিডেন্ট এ পর্যন্ত প্রতিবাদের মুখে পদত্যাগে বাধ্য হন।

সূত্র: সিএনএন ও দ্য গার্ডিয়ান

শেয়ার করুন

মন্তব্য