× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট বাংলা কনভার্টার নামাজের সময়সূচি আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

স্বাস্থ্য
Efforts of stakeholders to prevent dengue disappointing TIB
google_news print-icon

ডেঙ্গু প্রতিরোধে সংশ্লিষ্টদের উদ্যোগ হতাশাজনক: টিআইবি

ডেঙ্গু-প্রতিরোধে-সংশ্লিষ্টদের-উদ্যোগ-হতাশাজনক-টিআইবি
বিবৃতিতে টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, ‘পরিস্থিতি ভয়াবহ হতে পারে, এমন সতর্কবার্তার পরও রাজধানীতে ডেঙ্গু প্রতিরোধে দুই সিটি করপোরেশনের উদ্যোগ হতাশাজনক। যেটুকু উদ্যোগ দেখা গেছে, তা পরিস্থিতি বিবেচনায় অপ্রতুল কিংবা লোক দেখানো প্রচারণার মধ্যেই সীমাবদ্ধ ছিল।’

ডেঙ্গু পরিস্থিতি ভয়াবহ হওয়ার সতর্ক বার্তার পরও ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনসহ সংশ্লিষ্টদের উদ্যোগ হতাশাজনক বলে মন্তব্য করেছে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)। সংগঠনটি বলেছে, সংশ্লিষ্ট সংস্থাগুলোর কাজে সমন্বয়হীনতা, পরিকল্পনা, পূর্বপ্রস্তুতি ও কার্যকর পদক্ষেপের ঘাটতির কারণেই ঢাকাসহ প্রায় সারা দেশে ডেঙ্গু পরিস্থিতি ভয়াবহ রূপ নিয়েছে।

শনিবার টিআইবি’র এক বিবৃতিতে এমন মন্তব্য করা হয়।

বিবৃতিতে টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, ‘পরিস্থিতি ভয়াবহ হতে পারে, এমন সতর্কবার্তা ছিল। তারপরও রাজধানীতে ডেঙ্গু প্রতিরোধে দুই সিটি করপোরেশনের উদ্যোগ হতাশাজনক। যেটুকু উদ্যোগ দেখা গেছে, তা পরিস্থিতি বিবেচনায় যে অপ্রতুল কিংবা লোক দেখানো প্রচারণার মধ্যেই সীমাবদ্ধ ছিল তা না বললেই চলে। রাজধানীতে ডেঙ্গু পরিস্থিতির অবনতি রোধ করার যে সম্ভাবনা ছিল, সেদিকে কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি বাস্তবে কতটুকু ছিল, তা প্রশ্নবিদ্ধ।’

ড. ইফতেখারুজ্জামান ডেঙ্গু পরিস্থিতিকে জরুরি জনস্বাস্থ্য সংকট ঘোষণা দিয়ে সমন্বিতভাবে কার্যকর উদ্যোগ নেয়ার আহ্বান জানান। তিনি বলেন, ‘শুধু রাজধানীই নয়, সারা দেশেই ডেঙ্গু ছড়িয়ে পড়ছে। বাড়ছে মৃত্যুর সংখ্যা। ঢাকার বাইরের সিটি করপোরেশন ও পৌরসভাগুলোতে মশক নিধনে সমন্বিত পদক্ষেপ গ্রহণে সক্ষমতার ঘাটতি জরুরিভিত্তিতে চিহ্নিত করে তা সমাধানের উদ্যোগ নিতে হবে। পাশাপাশি ডেঙ্গু প্রতিরোধে জনগণের সচেতনতা ও সম্পৃক্ততা বাড়াতে হবে।’

বিবৃতিতে বলা হয়, ২০১৯ সালের ২৫ সেপ্টেম্বর টিআইবি থেকে ‘ঢাকা শহরে এডিস মশা নিয়ন্ত্রণে সুশাসনের চ্যালেঞ্জ ও উত্তরণের উপায়’ শীর্ষক গবেষণা প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়। ওই প্রতিবেদনের ওপর ভিত্তি করে প্রণীত ১৫ দফা সুপারিশ ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনসহ সংশ্লিষ্ট সব অংশীজনের কাছে পুনরায় পাঠিয়ে জরুরিভিত্তিতে সমন্বিত রোডম্যাপ প্রণয়ন ও বাস্তবায়নের আহ্বান জানায় সংস্থাটি।

বিবৃতিতে উল্লেখ করা টিআইবির ১৫ দফা সুপারিশের মধ্যে রয়েছে- জাতীয় পর্যায়ে এডিস মশাসহ অন্যান্য মশা নিয়ন্ত্রণ ও ব্যবস্থাপনা কৌশল ‌এবং কর্মপরিকল্পনা প্রণয়ন, সংশ্লিষ্ট অংশীজনকে মশা নিধনে নিজস্ব পরিকল্পনা ও ব্যবস্থাপনা নিশ্চিত করা, বছরব্যাপী মশা নিয়ন্ত্রণে সব ধরনের পদ্ধতির ব্যবহার নিশ্চিত করা, সব সরকারি-বেসরকারি হাসপাতাল ও রোগনির্ণয় কেন্দ্রকে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালনায় একটি কেন্দ্রীয় ডেটাবেজের অধীনে নিয়ে আসা, আইইডিসিআরসহ সংশ্লিষ্ট দপ্তরের সহযোগিতায় প্রতিবছর ডেঙ্গু প্রাদুর্ভাবের শুরুতেই (মে-আগস্ট) সব হটস্পট চিহ্নিত করা, সব যোগাযোগমাধ্যমে (প্রিন্ট, ইলেক্ট্রনিক, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম) এডিস মশা ও এর লার্ভা, ডেঙ্গু রোগ নিয়ন্ত্রণ ও দ্রুত চিকিৎসার বিষয়ে সচেতনতা ও সতর্কতামূলক বার্তার কার্যকর প্রচার বাড়ানো; প্রয়োজনে এলাকাভিত্তিক মাইকিং, ধর্মীয় ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে প্রচার চালানো, এডিস মশার জরিপ কার্যক্রম ঢাকার বাইরে সম্প্রসারিত করা।

সুপারিশমালায় আরও রয়েছে- র‌্যাপিড অ্যাকশন টিম গঠন করে চিহ্নিত ঝুঁকিপূর্ণ এলাকায় নির্মাণাধীন ভবন ও প্রকল্পগুলোতে নিয়মিত নজরদারি এবং উৎস নির্মূলে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেয়া, মাঠপর্যায়ের জনবল আউটসোর্সিং করা, পর্যাপ্ত ও সুষম বাজেট বরাদ্দ দেয়া, জনপ্রতিনিধির সমন্বয়ে এলাকাভিত্তিক স্বেচ্ছাসেবক দল গঠন করা, বিশেষজ্ঞ কারিগরি কমিটি গঠন করা, কীটনাশক ক্রয় প্রক্রিয়ায় জাতীয় ক্রয় আইন ও বিধিমালা অনুসরণ করা, মশা নিধন কার্যক্রমসংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের অনিয়ম, দুর্নীতি ও দায়িত্বে অবহেলার বিষয়গুলো তদন্ত করে সংশ্লিষ্টদের শাস্তির আওতায় আনা, বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে কীটনাশক পরিবর্তন, একেক এলাকায় ভিন্ন ভিন্ন কীটনাশক ব্যবহার নিশ্চিত করা।

আরও পড়ুন:
মশার খবর দিলে ১৫ মিনিটে পৌঁছে যাবে কর্মী: মেয়র তাপস
এডিসের লার্ভা খুঁজবে ডিএনসিসির ড্রোন
রাজধানীর অর্ধেক এলাকাই ডেঙ্গুর উচ্চ ঝুঁকিতে
ডেঙ্গুতে একদিনে ৫ মৃত্যু, হাসপাতালে ভর্তি ৬৭৮
জলাবদ্ধতা ও ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে ডিএনসিসি কর্মীদের ছুটি বাতিল

মন্তব্য

আরও পড়ুন

স্বাস্থ্য
Professor Mohammad Hossain is the president of Bangladesh Society of Neurosurgeons

ফের বাংলাদেশ সোসাইটি অফ নিউরোসার্জনসের সভাপতি অধ্যাপক মোহাম্মদ হোসেন

ফের বাংলাদেশ সোসাইটি অফ নিউরোসার্জনসের সভাপতি অধ্যাপক মোহাম্মদ হোসেন বাংলাদেশ সোসাইটি অফ নিউরোসার্জনসের কার্যনির্বাহী কমিটির নির্বাচনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের নিউরোসার্জারি বিভাগের অধ্যাপক এবং সার্জারি অনুষদের ডিন অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ হোসেন সভাপতি পদে বিপুল ভোটে পুনর্নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানানো হচ্ছে। ছবি: সংগৃহীত
নবনির্বাচিত সভাপতি অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ হোসেন বলেন, ‘বাংলাদেশের প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর নিউরোসার্জিক্যাল চিকিৎসাসেবা প্রদানের জন্য জেলা সদর হাসপাতাল এবং বিভিন্ন মেডিক্যাল কলেজে নিউরোসার্জিক্যাল সার্ভিস চালু করা, ব্রেন ও মেরুদণ্ডে আঘাতপ্রাপ্ত এবং স্ট্রোক আক্রান্ত রোগীদের জরুরি অপারেশনের জন্য পদ সৃষ্টির জন্য কাজ করব।’

বাংলাদেশ সোসাইটি অফ নিউরোসার্জনসের কার্যনির্বাহী কমিটির নির্বাচন-২০২৪ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের নিউরো সার্জারি বিভাগের লেকচার হলে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের নিউরোসার্জারি বিভাগের অধ্যাপক এবং সার্জারি অনুষদের ডিন অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ হোসেন সভাপতি পদে বিপুল ভোটে পুনর্নির্বাচিত হয়েছেন। তার প্রাপ্ত ভোট ১২৬।

মোহাম্মদ হোসেনের নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়ার প্রাপ্ত ভোট ৯৯।

বাংলাদেশ সোসাইটি অফ নিউরোসার্জনসের এ নির্বাচন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের নিউরোসার্জারি বিভাগের লেকচারার হলে শনিবার দুপুরে অনুষ্ঠিত হয়। রোববার দুপুরে বিষয়টি নিশ্চিত করেন সংগঠনের নবনির্বাচিত সভাপতি অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ হোসেন।

নির্বাচনে সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচিত হয়েছেন অধ্যাপক ডা. শফিকুল ইসলাম। এ ছাড়া কোষাধ্যক্ষ পদে নির্বাচিত হন অধ্যাপক ডা. আতিকুর রহমান।

অন্য পদসহ মোট ১৩ সদস্যের কমিটির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। সারা দেশের ২২৮ জন নিউরো সার্জন এ নির্বাচনে প্রত্যক্ষ ভোট দেন।

নবনির্বাচিত সভাপতি অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ হোসেন বলেন, ‘বাংলাদেশের প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর নিউরোসার্জিক্যাল চিকিৎসাসেবা প্রদানের জন্য জেলা সদর হাসপাতাল এবং বিভিন্ন মেডিক্যাল কলেজে নিউরোসার্জিক্যাল সার্ভিস চালু করা, ব্রেন ও মেরুদণ্ডে আঘাতপ্রাপ্ত এবং স্ট্রোক আক্রান্ত রোগীদের জরুরি অপারেশনের জন্য পদ সৃষ্টির জন্য কাজ করব।

‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার ২০৪১ সালের উন্নত, সমৃদ্ধ ও স্মার্ট বাংলাদেশের নিউরোসার্জারিকে বিশ্বমানে পরিণত করার লক্ষ্যে সোসাইটি অব নিউরোসার্জন কাজ অব্যাহত রাখবে।’

মন্তব্য

স্বাস্থ্য
ICU in district hospitals soon Health Minister

জেলা হাসপাতালগুলোতে আইসিইউ শিগগিরই: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

জেলা হাসপাতালগুলোতে আইসিইউ শিগগিরই: স্বাস্থ্যমন্ত্রী নীলফামারী সদর উপজেলার সংগলশী ইউনিয়নের দীঘলডাঙ্গি গ্রামে শনিবার সকালে সঞ্জীব-মালতী কমিউনিটি ক্লিনিকের উদ্বোধন অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. সামন্ত লাল সেন। ছবি: নিউজবাংলা
মন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, ‘নীলফামারী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের জমি অধিগ্রহণ সমস্যার সমাধান হয়েছে। খুব শিগগিরই অন্যান্য সমস্যা সমাধান করে দ্রুত নীলফামারী মেডিক্যাল কলেজকে পূর্ণাঙ্গ রূপে চালু করা হবে। সারা দেশের ৫০ শয্যা হাসপাতালগুলো ক্রমান্বয়ে ১০০ শয্যায় উন্নীত করা হবে।’

জেলা সদর হাসপাতালগুলোতে ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিট (আইসিইউ) ও কার্ডিওলজি ইউনিট স্থাপন শিগগিরই বাস্তবায়ন হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী ডা. সামন্ত লাল সেন‌।

নীলফামারী সদর উপজেলার সংগলশী ইউনিয়নের দীঘলডাঙ্গি গ্রামে শনিবার সকালে সঞ্জীব-মালতী কমিউনিটি ক্লিনিকের উদ্বোধন অনুষ্ঠান শেষে তিনি সাংবাদিকদের এ কথা জানান।

এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, ‘নীলফামারী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের জমি অধিগ্রহণ সমস্যার সমাধান হয়েছে। খুব শিগগিরই অন্যান্য সমস্যা সমাধান করে দ্রুত নীলফামারী মেডিক্যাল কলেজকে পূর্ণাঙ্গ রূপে চালু করা হবে। সারা দেশের ৫০ শয্যা হাসপাতালগুলো ক্রমান্বয়ে ১০০ শয্যায় উন্নীত করা হবে।

‘২৫০ শয্যায় উন্নীত হওয়া নীলফামারী জেনারেল হাসপাতালসহ অন্যান্য হাসপাতালগুলোতে প্রয়োজনীয় চিকিৎসক, জনবল পদায়ন এবং নতুন ভবনের আসবাবপত্রের চাহিদার বিপরীতে বরাদ্দ প্রদান করা হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘কমিউনিটি ক্লিনিক মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর খুব পছন্দের। আমি আশা করি এই কমিউনিটি ক্লিনিকের মাধ্যমে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের মানুষ স্বাস্থ্যসেবা গ্রহণ করবে। আমরা সিজারিয়ান সেকশন কমানোর জন্য চেষ্টা করছি।

‘আর কমিউনিটি হেলথ কেয়ার ক্লিনিকগুলোকে যদি আমরা আরও সচল করতে পারি, তাহলে অনেক রোগ কমিউনিটি ক্লিনিকই মনিটর করতে পারবে। তাই কমিউনিটি ক্লিনিকে আপনারা আসবেন এবং সবসময় যোগাযোগ রাখবেন।’

উদ্বোধন শেষে সঞ্জীব-মালতী কমিউনিটি ক্লিনিক পরিদর্শন করে সেখানে নিজের ব্লাড প্রেশার চেক করান মন্ত্রী। পরে ক্লিনিক প্রাঙ্গণে তিনটি গাছের চারা রোপণ করেন তিনি।

আরও পড়ুন:
আরও এক সপ্তাহ স্কুল বন্ধের সিদ্ধান্ত আসছে
চিকিৎসকের ওপর হামলা বা চিকিৎসায় অবহেলা কোনোটাই মেনে নেব না: স্বাস্থ্যমন্ত্রী
‘পশুপাখির মধ্যেও অ্যান্টিবায়োটিক রেজিস্ট্যান্স বিস্তার লাভ করেছে’
ঈদের দিন আকস্মিক তিন হাসপাতাল পরিদর্শনে স্বাস্থ্যমন্ত্রী
ঈদের ছুটিতে দুই হাসপাতাল পরিদর্শন স্বাস্থ্যমন্ত্রীর

মন্তব্য

স্বাস্থ্য
Khaleda Zia was admitted to the hospital late at night

গভীর রাতে খালেদা জিয়াকে হাসপাতালে ভর্তি

গভীর রাতে খালেদা জিয়াকে হাসপাতালে ভর্তি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। ফাইল ছবি
বিএনপির ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে সোমবার ভোররাত পাঁচটা ২৮ মিনিটে দেয়া পোস্টে বলা হয়, ‘শারীরিক অসুস্থ বোধ করায় ৮ জুলাই ২০২৪, সোমবার গভীর রাতে সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে জরুরি ভিত্তিতে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে নেয়া হয়েছে।’

অসুস্থ বোধ করায় রোববার গভীর রাতে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে।

বিএনপির ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে সোমবার ভোররাত পাঁচটা ২৮ মিনিটে দেয়া পোস্টে এ তথ্য জানানো হয়।

পোস্টে বলা হয়, ‘শারীরিক অসুস্থ বোধ করায় ৮ জুলাই ২০২৪, সোমবার গভীর রাতে সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে জরুরি ভিত্তিতে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে নেয়া হয়েছে।

‘পরিবার ও দলের পক্ষ থেকে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার সুস্থতার জন্য দেশবাসীর কাছে দোয়া চাওয়া হয়েছে।’

আরও পড়ুন:
খালেদা জিয়ার হৃদযন্ত্রে পেসমেকার বসানো হলো
খালেদা জিয়ার সুস্থতা কামনায় রোববার সারা দেশে বিএনপির দোয়া মাহফিল
খালেদা জিয়ার অবস্থা সংকটাপন্ন, দোয়া চেয়েছেন ফখরুল
হাসপাতালে ভর্তি খালেদা জিয়া
সরকারি হাসপাতালে বসে রোগীর কাছে টাকা দাবির অভিযোগ

মন্তব্য

স্বাস্থ্য
Father seeks help for terminally ill daughter

দুরারোগ্য রোগে আক্রান্ত পৃথির জন্য সাহায্য চান বাবা

দুরারোগ্য রোগে আক্রান্ত পৃথির জন্য সাহায্য চান বাবা সাবিকুন নাহার পৃথির নাক, কানসহ শরীরের অন্যান্য অঙ্গ দিয়ে রক্তপাত হয়। ছবি: নিউজবাংলা
চিকিৎসকরা মনে করছেন, পৃথি হয়তো বিদেশের চিকিৎসায় সুস্থ হয়ে যেতে পারেন। তার বাবাও সেটা বিশ্বাস করেন।

দুরারোগ্য রোগে দীর্ঘদিন ধরে আক্রান্ত সাবিকুন নাহার পৃথি। তার নাক, কানসহ শরীরের অন্যান্য অঙ্গ দিয়ে রক্তপাত হয়।

চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়, ইবনে সিনা হাসপাতালসহ অন্য অনেক সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েও সঠিক রোগ নির্ণয়ে ব্যর্থ হয়ে চিকিৎসকের পরামর্শে ভারতের দুরারোগ্য চিকিৎসার জন্য বিখ্যাত হাসপাতাল আর্টিমিসে নিয়ে লাখ লাখ টাকা ব্যয় করেও রোগের সঠিক নির্ণয় ও নিরাময়ে ব্যর্থ হন তার বাবা। অবশেষে এখন ঢাকায় ফেরত এসে একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে ১৮ বছরের পৃথি।

হাসপাতালের চিকিৎসক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে দ্রুত ভর্তির জন্য নির্দেশ দিয়েছেন এবং সিঙ্গাপুর অথবা থাইল্যান্ডের হাসপাতালে দ্রুত চিকিৎসা ব্যবস্থা গ্রহণের পরামর্শ দিয়েছেন।

চিকিৎসকরা মনে করছেন, পৃথি হয়তো বিদেশের চিকিৎসায় সুস্থ হয়ে যেতে পারেন। তার বাবাও সেটা বিশ্বাস করেন।

ইচ্ছা থাকা সত্ত্বেও সামর্থ্য হারিয়ে ফেলেছেন পৃথির বাবা। তাই দেশে-বিদেশে অবস্থানরত বিশিষ্ট সমাজসেবীদের কাছে সাহায্য প্রার্থনা করছেন তিনি। পৃথিকে সাহায্য পাঠানো যাবে নিচের নম্বরে।

Account Name: Md. Alamin, Account no: 0771340027137, Social Islami Bank limited.

Mobile no: 01761351181, 01986591650

আরও পড়ুন:
ভুল চিকিৎসা বলার অধিকার বিএমডিসি ছাড়া কারও নেই: স্বাস্থ্যমন্ত্রী
রোগীর প্রতি অবহেলা সহ্য করব না: স্বাস্থ্যমন্ত্রী
দাবদাহ পরিস্থিতি মোকাবিলায় সব হাসপাতাল প্রস্তুত রাখার নির্দেশ
আরও এক সপ্তাহ স্কুল বন্ধের সিদ্ধান্ত আসছে
চিকিৎসকের ওপর হামলা বা চিকিৎসায় অবহেলা কোনোটাই মেনে নেব না: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

মন্তব্য

স্বাস্থ্য
Nazirganj sub health center in danger of collapse 

ধসের ঝুঁকিতে নাজিরগঞ্জ উপস্বাস্থ্য কেন্দ্র 

ধসের ঝুঁকিতে নাজিরগঞ্জ উপস্বাস্থ্য কেন্দ্র   নেত্রকোণার আটপাড়া উপজেলায় মগড়া নদীর ভাঙনের ঝুঁকিতে রয়েছে নাজিরগঞ্জ উপস্বাস্থ্য কেন্দ্র। ছবি: নিউজবাংলা 
আটপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সাজ্জাদুল হাসান নিউজবাংলাকে বলেন, ‘নাজিরগঞ্জ উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ফার্মাসিস্ট মাসুদ রানা আমাকে অবগত করেন। আমি দ্রুত সময়ের মধ্যে নেত্রকোণা পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মহোদয়কে জানিয়েছি।’

ধসের ঝুঁকিতে আছে নেত্রকোণার আটপাড়া উপজেলার নাজিরগঞ্জ উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রটি।

সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, আটপাড়া উপজেলার সুখারী ইউনিয়নের নাজিরগঞ্জ বাজারের পাশে উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রটিতে শত শত মানুষ চিকিৎসা নেন। এটি ১০ শয্যার স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠান। সম্প্রতি পাহাড়ি ঢল, মুষলধারে বৃষ্টির পানিতে নেত্রকোণা মগড়া নদীতীরে ভাঙন দেখা দেয়। এ কারণে নাজিরগঞ্জ উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রটি আছে ধসের ঝুঁকিতে।

স্থানীয়দের ভাষ্য, যেকোনো মুহূর্তে ধসে যেতে পারে উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রটি। এতে প্রাথমিক চিকিৎসা থেকে বঞ্চিত হবেন স্থানীয় লোকজন।

নাজিরগঞ্জ উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ফার্মাসিস্ট মাসুদ রানা নিউজবাংলাকে বলেন, ‘দুই তলা বিল্ডিংয়ের ১০ শয্যা বিশিষ্ট নাজিরগঞ্জ উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রটি। আটপাড়া উপজেলার সুখারী ইউনিয়নের বেশ কয়েকটি গ্রামের শত শত মানুষ প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে থাকেন।

‘সম্প্রতি মগড়া নদীর ভাঙন শুরু হয়েছে। হুমকিতে রয়েছে উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রটি। যেকোনো মুহূর্তে ধসে যেতে পারে।’

তিনি আরও বলেন, ‘যদি উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রটি ধসে যায়, তাহলে এই ভাটি অঞ্চলের মানুষের দুর্ভোগের শিকার হতে হবে। এ নিয়ে আটপাড়া উপজেলার ইউএনও স্যারকে অবহিত করেছি।’

আটপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সাজ্জাদুল হাসান নিউজবাংলাকে বলেন, ‘নাজিরগঞ্জ উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ফার্মাসিস্ট মাসুদ রানা আমাকে অবগত করেন। আমি দ্রুত সময়ের মধ্যে নেত্রকোণা পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মহোদয়কে জানিয়েছি।

‘আমি জানতে পারলাম জেলা প্রশাসক স্যারকে পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী অবগত করেছেন, অল্প দিনের মধ্যেই নাজিরগঞ্জ উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রের পাশেই মগড়া নদীর ভাঙন রক্ষার কাজ শুরু করবেন।’

আরও পড়ুন:
মোহনগঞ্জ লোকাল ট্রেন বন্ধে দুর্ভোগে যাত্রীরা
নেত্রকোণায় ছাত্রদল নেতার রগ কাটার ঘটনায় ৪ নেতা বহিষ্কার
নেত্রকোণায় এনজিও কর্মকর্তাকে আটকে মারধরের অভিযোগ
নদী খননে পাইপলাইন লিকেজ, নেত্রকোণায় বন্ধ গ্যাস সরবরাহ
স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে উখিয়ায় নির্মিত উপ-স্বাস্থ্যকেন্দ্র হস্তান্তর

মন্তব্য

স্বাস্থ্য
Life and Health Limited and Bangkok Hospital Thailand press conference

লাইফ অ্যান্ড হেলথ লিমিটেড ও ব্যাংকক হসপিটাল থাইল্যান্ডের সংবাদ সম্মেলন

লাইফ অ্যান্ড হেলথ লিমিটেড ও ব্যাংকক হসপিটাল থাইল্যান্ডের সংবাদ সম্মেলন সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত দুই প্রতিষ্ঠানের কর্মীরা। ছবি: নিউজবাংলা
সংবাদ সম্মেলনে ব্যাংকক হসপিটালের এয়ার অ্যাম্বুলেন্স পরিষেবা নিয়ে আলোচনা করেন ব্যাংকক হসপিটালের অ্যাসিস্ট্যান্ট সিইও ডা. ধুন দামরংসাক এবং ইন্টারনাল মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ডা. শক্তি রঞ্জন পাল।

লাইফ অ্যান্ড হেলথ লিমিটেড ও থাইল্যান্ডের স্বনামধন্য ব্যাংকক হসপিটাল সোমবার যৌথভাবে সংবাদ সম্মেলন করেছে।

সংবাদ সম্মেলনে ব্যাংকক হসপিটালের এয়ার অ্যাম্বুলেন্স পরিষেবা নিয়ে আলোচনা করেন ব্যাংকক হসপিটালের অ্যাসিস্ট্যান্ট সিইও ডা. ধুন দামরংসাক এবং ইন্টারনাল মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ডা. শক্তি রঞ্জন পাল।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন লাইফ অ্যান্ড হেলথ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডা. নীলাঞ্জনা সেন এবং এয়ার অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিসের কর্ণধার ও অপারেশন্স অ্যান্ড মার্কেটিং পরিচালক মোহাম্মদ শহিদ উল্লাহ রেজওয়ান।

আরও পড়ুন:
চট্টগ্রামে বেসরকারি হাসপাতাল ও ক্লিনিকে ২৪ ঘণ্টার কর্মবিরতির ডাক
তাপপ্রবাহে মাগুরার হাসপাতালে বাড়ছে শিশু রোগীর সংখ্যা
প্রায় এক ঘণ্টা পর নিভল শিশু হাসপাতালের আগুন
রাজধানীর শিশু হাসপাতালে আগুন
পাবনায় ভুল চিকিৎসায় দুই প্রসূতির মৃত্যু, হাসপাতাল সিলগালা

মন্তব্য

স্বাস্থ্য
Khaleda Zia returned home from the hospital

হাসপাতাল থেকে বাসায় ফিরলেন খালেদা জিয়া

হাসপাতাল থেকে বাসায় ফিরলেন খালেদা জিয়া বিএনপি চেয়ারপারসনে বেগম খালেদা জিয়া। ছবি: সংগৃহীত
খালেদা জিয়ার ব্যক্তিগত চিকিৎসক অধ্যাপক এ জেড এম জাহিদ হোসেন বলেন, ‘মেডিক্যাল বোর্ডের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বিএনপি চেয়ারপারসনকে বাসায় নেয়া হয়েছে।’

টানা ১০ দিন চিকিৎসা গ্রহণ শেষে হাসপাতাল থেকে বাসায় ফিরেছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৫টায় রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতাল ত্যাগ করে গুলশানের বাসভবন ফিরোজার উদ্দেশে রওনা দেন তিনি।

খালেদা জিয়ার ব্যক্তিগত চিকিৎসক অধ্যাপক এ জেড এম জাহিদ হোসেন বলেন, ‘মেডিক্যাল বোর্ডের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বিএনপি চেয়ারপারসনকে বাসায় নেয়া হয়েছে।’

গত ২১ জুন রাত সাড়ে ৩টার দিকে শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে খালেদা জিয়াকে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এরপর দ্রুত তাকে হাসপাতালের করোনারি কেয়ার ইউনিটে (সিসিইউ) নেয়া হয়। ২৩ জুন তার হৃদযন্ত্রে পেসমেকার বসানো হয়।

৭৯ বছর বয়সী খালেদা জিয়া আর্থ্রাইটিস, হৃদ্‌রোগ, ফুসফুস, লিভার, কিডনি, ডায়াবেটিসসহ বিভিন্ন শারীরিক জটিলতায় ভুগছেন।

এর আগে গত বছরের ২৭ অক্টোবর লিভার সিরোসিসে আক্রান্ত খালেদা জিয়ার রক্তনালিতে অস্ত্রোপচার করেন যুক্তরাষ্ট্র থেকে আসা তিনজন চিকিৎসক।

আরও পড়ুন:
খালেদা জিয়াকে কেবিনে স্থানান্তর
খালেদা জিয়ার সুস্থতা কামনায় রোববার সারা দেশে বিএনপির দোয়া মাহফিল
খালেদা জিয়ার অবস্থা সংকটাপন্ন, দোয়া চেয়েছেন ফখরুল
হাসপাতাল থেকে বাসায় ফিরেছেন খালেদা জিয়া
খালেদা জিয়াকে সিসিইউ থেকে কেবিনে স্থানান্তর

মন্তব্য

p
উপরে