করোনা

৮ জেলায় ৮২ মৃত্যু

৮ জেলায় ৮২ মৃত্যু

ফাইল ছবি

শুক্রবার ৮ জেলায় করোনা ও উপসর্গ নিয়ে ৮২ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে রাজশাহীতে ১৫ জন, খুলনা ও ময়মনসিংহে ১৩ জন করে, বরিশালে ১২, কুষ্টিয়ায় ১০, চট্টগ্রামে ৯, ঝিনাইদহে ৮ এবং নেত্রকোণায় ২ জন।

করোনা ও উপসর্গ নিয়ে রাজশাহীতে ১৫ জন, খুলনায় ১৩, ময়মনসিংহে ১৩, বরিশালে ১২, কুষ্টিয়ায় ১০, চট্টগ্রামে ৯, ঝিনাইদহে ৮ ও নেত্রকোণায় ২ জনের মৃত্যু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে শুক্রবার সকাল ৮টার মধ্যে তাদের মৃত্যু হয়।

রাজশাহী

রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের করোনা ইউনিটে করোনা শনাক্ত হয়ে ৫ ও উপসর্গ নিয়ে ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে করোনা নেগেটিভ হওয়ার পর ২ জনের মৃত্যু হয়েছে।

রামেক হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শামীম ইয়াজদানী জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় রামেক হাসপাতালে মারা যাওয়া ১৫ জনের মধ্যে রাজশাহীর ১০, নাটোরের ২, পাবনা ও নওগাঁর ১ জন করে।

এ নিয়ে চলতি মাসের ১৬ দিনে এ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ২৯১ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে করোনা পজেটিভ ছিল ৮৮ জনের আর উপসর্গ নিয়ে মৃত্যু ১৯৪ জনের।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা ইউনিটে নতুন রোগী ভর্তি হয়েছেন ৬১ জন। আর এই সময় সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র পেয়েছেন ৬২ জন।

এদিকে বৃহস্পতিবার রাজশাহীতে ১ হাজার ৪৫২টি নমুনা পরীক্ষা করে ২৭০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার ১৮ দশমিক ৫৯ ভাগ।

খুলনা

খুলনায় ৪ হাসপাতালে এক দিনে ১৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে খুলনা করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালে ৭, জেলা জেনারেল হাসপাতালে ২, গাজী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ৩ ও আবু নাসের হাসপাতালে ১ জনের মৃত্যু হয়েছে।

ডেডিকেটেড হাসপাতালের ফোকাল পারসন সুহাস রঞ্জন হালদার জানান, এ হাসপাতালে মৃতদের মধ্যে করোনা নিয়ে ৪ ও উপসর্গ নিয়ে ৩ জন মারা গেছেন। শনাক্ত হয়ে মৃতদের মধ্যে খুলনার ৩ ও সাতক্ষীরার ১ জন।

এ ছাড়া এ হাসপাতালে ২০১ জন রোগী ভর্তি রয়েছেন। যার মধ্যে রেড জোনে ১৩৪ জন, ইয়েলো জোনে ২৭ জন, এইচডিইউতে ২০ ও আইসিইউতে ১৯ জন। নতুন রোগী ভর্তি হয়েছেন ৩৮ জন। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৩৩ জন।

গাজী মেডিক্যালের স্বত্বাধিকারী গাজী মিজানুর রহমান জানান, এই হাসপাতালে মৃত ৩ জনের বাড়ি খুলনায়। হাসপাতালে ১০৮ রোগী ভর্তি রয়েছেন।

এর মধ্যে আইসিইউতে ৭ ও এইচডিইউতে ৭ জন। এক দিনে নতুন রোগী ভর্তি হয়েছেন ১৮ জন। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ২১ জন।

জেলা জেনারেল হাসপাতালের মুখপাত্র আবু রাশেদ জানান, এ হাসপাতালে ২ জনের মৃত্যু হয়েছে। খুলনার ১ ও যশোরের ১ জন।

এ হাসপাতালে মোট রোগী রয়েছেন ৬০ জন। নতুন ভর্তি হয়েছেন ৮ জন; বাড়ি ফিরেছেন ১৪ জন।

আবু নাসের হাসপাতালের মুখপাত্র প্রকাশ দেব নাথ জানান, এ হাসপাতালে নড়াইলের ১ জনের মৃত্যু হয়েছে। ৬০ রোগী ভর্তি রয়েছেন। এখানে নতুন ভর্তি হয়েছেন ৮ জন; বাড়ি ফিরেছেন ১৪ জন।

ময়মনসিংহ

ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে গত ২৪ ঘণ্টায় ৯ জন করোনা শনাক্ত হয়ে ও বাকিরা উপসর্গ নিয়ে মারা যান।

হাসপাতালের করোনা ইউনিটের ফোকাল পারসন ডা. মহিউদ্দিন খান মুন জানান, এ হাসপাতালে ৪৪০ রোগী চিকিৎসা নিচ্ছেন। এর মধ্যে আইসিইউতে ভর্তি আছেন ২১ জন। নতুন করে ভর্তি হয়েছেন ৯৩ জন। এ ছাড়া ১১৩ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন।

তিনি আরও জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় টেলিমেডিসিন সেবা নিয়েছেন ২৮ জন ও ওয়ান স্টপ ফ্লু কর্নারে ৩৫৫ জন সেবা নিয়েছেন।

জেলা সিভিল সার্জন নজরুল ইসলাম জানান, জেলায় নতুন ৮৫৪টি নমুনা পরীক্ষা করে ২৩২ জনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। জেলায় আক্রান্তের হার ২৭ দশমিক ১৬ শতাংশ।

ব‌রিশাল

ব‌রিশাল শের-ই বাংলা মে‌ডি‌ক্যাল ক‌লেজ হাসপাতা‌লের ক‌রোনা ইউ‌নিটে ৫ জন করোনা শনাক্ত হয়ে ও উপসর্গ নিয়ে ৭ জনের মৃত্যু হয়েছে।

এই নিয়ে বরিশাল বিভাগে করোনায় মোট মৃত্যুর সংখ্যা ৩৭৩-এ দাঁড়িয়েছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের বিভাগীয় পরিচালক বাসুদেব কুমার দাস জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ৫৩৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

এর মধ্যে বরিশালে ১৮৬, পটুয়াখালী‌তে ৪৮, ভোলায় ৭১, পি‌রোজপু‌রে ৬০, বরগুনায় ৬৬ ও ঝালকা‌ঠি‌তে ১০৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়।

এ‌দি‌কে শের-ই বাংলা মে‌ডি‌ক্যাল ক‌লেজ হাসপাতা‌লের ৩০০ শয্যাবি‌শিষ্ট ক‌রোনা ইউ‌নি‌টে শুক্রবার সকাল পর্যন্ত ৩০৩ জন ভর্তি র‌য়ে‌ছেন, যার ম‌ধ্যে ১১৫ জনের ক‌রোনা প‌জি‌টি‌ভ। গত ২৪ ঘণ্টায় এই ইউ‌নি‌টে ৪৯ নতুন রোগী ভ‌র্তি হ‌য়ে‌ছেন।

কুষ্টিয়া

কুষ্টিয়া করোনা হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডাক্তার আবদুল মোমেন জানান, মৃতদের মধ্যে ৭ জন করোনা আক্রান্ত আর ৩ জন উপর্সগ নিয়ে।

এখন করোনা পজিটিভ ২১৯ জন আর উপর্সগ নিয়ে ৬১ রোগী কুষ্টিয়ায় করোনা হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

জেলা প্রশাসনের হিসাবে জেলায় এক দিনে ৭৩৫টি নমুনা পরীক্ষা করে ২০৩ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার ২৭ দশমিক ৬১ ভাগ।

চট্টগ্রাম

চট্টগ্রামে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছে ৮০২ জনের দেহে। এই সময় মৃত্যু হয়েছে ৯ জনের।

জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, জেলার ৮টি ল্যাবে ২ হাজার ৫৪৭ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৮০২ জনের শরীরে করোনার উপস্থিতি পাওয়া গেছে। নতুন আক্রান্তদের মধ্যে ৪৫২ জন শহরের ও ৩৫০ জন গ্রামের বাসিন্দা।

জেলার ১৪টি উপজেলায় নতুন আক্রান্তদের মধ্যে সর্বোচ্চ হাটহাজারীতে ৭৬ জন ও সর্বনিম্ন আনোয়ারার ৩ জন।

ঝিনাইদহ

ঝিনাইদহে দুই হাসপাতালে করোনা ও উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন ৮ জন। এ ছাড়া নতুন করে জেলায় ২৩৬ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৩০ জন।

সিভিল সার্জন সেলিনা বেগম জানান, সদর হাসপাতালে করোনায় আক্রান্ত হয়ে ২ জন ও উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন ৪ জন। এ ছাড়া শহরের ইসলামীয়া হাসপাতালে ও চাকলাপাড়ায় উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন আরও ২ জন।

এদিকে শুক্রবার সকালে আসা ৭১০টি নমুনার ফলাফলে ২৩৬ জনের করোনা পজেটিভ আসে। আক্রান্তের হার ৩৮ দশমিক ২ ভাগ।

এ নিয়ে জেলায় মোট আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়াল ৬ হাজার ২৭৫-এ।

নেত্রকোণা

জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের মুখপাত্র উত্তম কুমার পাল জানান, জেলায় করোনা আক্রান্ত হয়ে ২ জনের মৃত্যু হয়। এ সময় জেলায় নতুন করে আরও ১১০ জন শনাক্ত হয়েছেন।

একই সময়ে ৩৮৪ জনের নমুনা পরীক্ষায় শনাক্ত হন ১১০ জন। শনাক্তের হার শতকরা ২৮ দশমিক ৬৫। হাসপাতাল ও নিজ বাড়িতে চিকিৎসাধীন আছেন এক হাজার ১৪০ জন।

আরও পড়ুন:
করোনায় চলে গেলেন রাঙ্গামাটির পুলিশ কর্মকর্তা
মেয়াদোত্তীর্ণ টিউবে করোনার নমুনা সংগ্রহ
বাগেরহাটে করোনায় এক দিনে ৪ মৃত্যু, আক্রান্ত ৮৮ 
করোনায় এক দিনে ২২৬ মৃত্যু, শনাক্ত ১২,২৩৬
মহামারির তৃতীয় ধাক্কা শুরু: ডব্লিউএইচও

শেয়ার করুন

মন্তব্য