বৃহস্পতিবার থেকে সৌদি-কুয়েতগামীদের ফাইজারের টিকা

বৃহস্পতিবার থেকে সৌদি-কুয়েতগামীদের ফাইজারের টিকা

সৌদি ও কুয়েতগামীদের সিনোফার্মের টিকা দিতে চেয়েছিল সরকার। কিন্তু প্রবাসী কর্মীরা জানান, সৌদি সরকার চীন উদ্ভাবিত এ টিকার অনুমোদন দেয়নি। সিনোফার্মের টিকা নিলেও সৌদি বা কুয়েতে গিয়ে নিজ খরতে বাধ্যতামূলকভাবে কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। এ জন্য তাদেরকে সৌদি ও কুয়েতে অনুমোদন পাওয়া ফাইজারের টিকাই দেয়া হচ্ছে।

সৌদি আরব ও কুয়েতগামী প্রবাসী কর্মীদের করোনাভাইরাস প্রতিরোধী ফাইজারের টিকা দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। রাজধানীর সাতটি হাসপাতালে বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হবে এ টিকাদান কর্মসূচি।

মঙ্গলবার সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক।

বিদেশগামীরা অনেক দিন ধরেই টিকার জন্য দাবি জানিয়ে আসছিলেন। দাবির পরিপ্রেক্ষিতে সৌদি ও কুয়েতগামীদের ফাইজারের টিকা দেয়ার ব্যবস্থা করেছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। এই টিকা নেয়া থাকলে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ দুটিতে গিয়ে কোয়ারেন্টিনে থাকতে হয় না।

সৌদি ও কুয়েতগামীদের সিনোফার্মের টিকা দিতে চেয়েছিল সরকার। কিন্তু প্রবাসী কর্মীরা জানান, সৌদি সরকার চীন উদ্ভাবিত এ টিকার অনুমোদন দেয়নি। সিনোফার্মের টিকা নিলেও সৌদি বা কুয়েতে গিয়ে নিজ খরতে বাধ্যতামূলকভাবে কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। এ জন্য তাদেরকে সৌদি ও কুয়েতে অনুমোদন পাওয়া ফাইজারের টিকাই দেয়া হচ্ছে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘সৌদি ও কুয়েতগামীদের ফাইজারের টিকা দেয়ার ব্যবস্থা করেছি। সেটা ঢাকার সাতটি হাসপাতালে ১ তারিখ থেকে দেয়া হবে।’

তিনি জানান, হাসপাতালগুলোর মধ্যে রয়েছে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল, সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল, স্যার সলিমুল্লাহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল, মুগদা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল, শেখ রাসেল জাতীয় গ্যাস্ট্রোলিভার ইনস্টিটিউট, কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতাল।

টিকা প্রদানে প্রবাসীদের অগ্রাধিকারের কথা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও। মঙ্গলবার জাতীয় সংসদে বাজেট অধিবেশনে তিনি বলেন, ‘প্রবাসী কর্মীদের আগে টিকা দিতে ব্যবস্থা নিচ্ছি। আমি বলে দিয়েছি, ফাইজারের যে টিকাগুলো আছে, সেগুলোর দুটি ডোজই যেন প্রবাসী কর্মীদের দেয়া হয়। ওখানে (বিদেশ) গিয়ে যেন তাদের কোয়ারেন্টিন করতে না হয়। তারা যেন কর্মস্থলে যেতে পারেন সে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

পর্যায়ক্রমে দেশের ৮০ ভাগ মানুষকে টিকা কর্মসূচির আওতায় আনা হবে বলে জানান প্রধানমন্ত্রী। বলেন, ‘দেশের মোট ৮০ শতাংশ মানুষকে পর্যায়ক্রমে আমরা কোভিড-১৯ ভ্যাকসিনের আওতায় আনার পরিকল্পনা গ্রহণ করেছি।…স্কুল থেকে শুরু করে এবং উচ্চশিক্ষায় সকলে যেন ভ্যাকসিন পায়। আমরা দ্রুত যেন স্কুল বা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলতে পারি সে ব্যবস্থা নেব।’

আরও পড়ুন:
মডার্নার ২৫ লাখ টিকা আসছে ২ ও ৩ জুলাই
এবার অনুমোদন পেল মডার্নার টিকা
গোপালগঞ্জে টিকা উৎপাদনে সক্ষমতা যাচাইয়ে কমিটি
‘টিকা নিয়ে আমরা বিশ্ব রাজনীতির শিকার’
জুলাইয়ের শুরুতে আসছে সিনোফার্মের টিকা

শেয়ার করুন

মন্তব্য