করোনায় মৃত্যু বেড়ে ৩৮, শনাক্ত হাজার

করোনায় মৃত্যু বেড়ে ৩৮, শনাক্ত হাজার

গত ২৪ ঘণ্টায় ৪৮২টি ল্যাবে ১২ হাজার ২৩০টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ৮ দশমিক ৩১ শতাংশ। মোট শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৫৭ শতাংশ।

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের মধ্যে আরও ৩৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ সময়ে ভাইরাসটি শনাক্ত হয়েছে এক হাজার ২৮ জনের দেহে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের শনিবারের বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

অধিদপ্তরের শুক্রবারের বিজ্ঞপ্তিতে আগের ২৪ ঘণ্টায় ২৬ জনের মৃত্যুর খবর জানানো হয়েছিল।

সবশেষ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, দেশে এ পর্যন্ত করোনা শনাক্ত হয়েছে ৭ লাখ ৮৭ হাজার ৭২৬ জনের দেহে। এর মধ্যে মারা গেছেন ১২ হাজার ৩৪৮ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় ৪৮২টি ল্যাবে ১২ হাজার ২৩০টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ৮ দশমিক ৩১ শতাংশ। মোট শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৫৭ শতাংশ।

করোনা থেকে গত এক দিনে সুস্থ হয়েছে আরও ৭৫৯ জন। এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছে ৭ লাখ ২৯ হাজার ৭৯৮ জন। সুস্থতার হার ৯২ দশমিক ৬৫ শতাংশ।

২৪ ঘণ্টায় মৃতদের মধ্যে ২৫ পুরুষ ও ১৩ জন নারী। তাদের মধ্যে দুই জন শিশু, বিশোর্ধ্ব দুই, ত্রিশোর্ধ্ব তিন, চল্লিশোর্ধ্ব দুই, পঞ্চাশোর্ধ্ব ১৩ ও ষাটোর্ধ্ব ১৬ জন।

বিভাগ অনুযায়ী ঢাকায় ১৬, চট্টগ্রামে সাত, রাজশাহীতে চার, খুলনায় চার, বরিশালে এক, সিলেটে চার ও রংপুরে দুইজনের মৃত্যু হয়েছে।

দেশে প্রথম করোনা সংক্রমণ ধরা পড়ে গত বছরের ৮ মার্চ। ১০ দিন পর ১৮ মার্চ প্রথম মৃত্যুর সংবাদ দেয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

এর আগে ২০১৯ সালের ৩১ ডিসেম্বর চীনের উহান শহরে করোনাভাইরাস সংক্রমণের তথ্য প্রকাশ করা হয়। ২০২০ সালের ৪ জানুয়ারি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা চীনে ভাইরাসটির প্রাদুর্ভাবের কথা ঘোষণা করে।

পরিস্থিতি বিবেচনা করে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর গত বছরের ৪ জানুয়ারি থেকেই দেশের বিমানবন্দরসহ সব স্থল ও নৌবন্দরে বিদেশ থেকে আসা যাত্রীদের স্ক্রিনিং শুরু করে। ওই বছরের ৪ মার্চ সমন্বিত করোনা কন্ট্রোল রুম চালু করা হয়।

আরও পড়ুন:
ভারতে সর্বোচ্চ পরীক্ষার দিনে শনাক্ত আড়াই লাখ
আরও ২ ধরনের করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হতে পারে মানুষ: গবেষণা
করোনায় আরও ২৬ মৃত্যু, শনাক্ত ১৫০৪
খুলনা বিদ্যুৎকেন্দ্রের ৬৬ চীনা শ্রমিকের করোনা
করোনায় মারা গেল ভারতফেরত কিশোর

শেয়ার করুন

মন্তব্য