পাকিস্তানে ট্রান্সজেন্ডার স্কুল চালু

ট্রান্সজেন্ডার

সরকারি অর্থায়নে এই প্রথম ট্রান্সজেন্ডার সম্প্রদায়ের জন্য স্কুল খোলে পাকিস্তান। ছবি: সংগৃহীত

পাঞ্জাব শিক্ষা অধিদপ্তরের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা হিনা চৌধুরী বলেন, ‘শিক্ষার আলো থেকে দূরে যেতে বাধ্য হওয়া শিশুদের ফের শিক্ষার সঙ্গে সম্পৃক্ত করার চেষ্টা করছি আমরা।’

কট্টর রক্ষণশীল দেশ পাকিস্তানে ট্রান্সজেন্ডার শিশুরা মূলধারার স্কুলে প্রায়ই নিপীড়নের শিকার হয়।

অনেক ট্রান্সজেন্ডার শিশুকে তাদের পরিবারের সদস্যরাই একঘরে করে। সমাজ তাদের সঙ্গ এড়িয়ে চলে।

এই শিশুদের পক্ষে স্কুলে পড়াশোনা কঠিন হয়ে পড়ে। বড় হয়ে নাচ, ভিক্ষা বা যৌন কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করতে বাধ্য হয় তারা।

এমন বাস্তবতায় পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশের শিক্ষামন্ত্রী মুরাদ রাস ট্রান্সজেন্ডার শিশুদের সহায়তায় এগিয়ে এসেছেন।

‘সবার জন্য শিক্ষা’ এই অঙ্গীকার নিয়ে পাঞ্জাবের মুলতান শহরে চলতি সপ্তাহে সরকারি অর্থায়নে ট্রান্সজেন্ডাদের জন্য একটি স্কুল চালুর ঘোষণা দিয়েছেন তিনি।

বার্তা সংস্থা এএফপির প্রতিবেদনে শুক্রবার এসব তথ্য জানানো হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ট্রান্সজেন্ডার শিক্ষকরা স্কুলটিতে পাঠদান করাচ্ছেন। সাধারণ শিক্ষার পাশাপাশি স্কুলটিতে কারিগরি শিক্ষাও দেয়া হবে।

বেবি ডল নামের স্কুলটির ২০ বছর বয়সী এক শিক্ষার্থী জানান, আগের স্কুলগুলোতে শিক্ষক ও অন্যান্য কর্মচারীদের আচরণ হতাশাজনক ছিল।

তিনি বলেন, ‘ওই স্কুলের ছেলেরা আমাদের উত্ত্যক্ত করত। প্রায়ই বাজে ব্যবহারের শিকার হতাম।’

পাঞ্জাব শিক্ষা অধিদপ্তরের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা হিনা চৌধুরী বলেন, ‘শিক্ষার আলো থেকে দূরে যেতে বাধ্য হওয়া শিশুদের ফের শিক্ষার সঙ্গে সম্পৃক্ত করার চেষ্টা করছি আমরা।’

পাকিস্তানে ট্রান্সজেন্ডার স্কুল চালু

ট্রান্সজেন্ডাদের জন্য এ ধরনের আরও স্কুল খোলার পরিকল্পনা রয়েছে পাঞ্জাব শিক্ষা অধিদপ্তরের।

পাকিস্তানে ট্রান্সজেন্ডার সম্প্রদায়ের অধিকারের জন্য সোচ্চার দেশটির অধিকারকর্মীরা।

রাজধানী ইসলামাবাদে চলতি বছরের শুরুতে ট্রান্সজেন্ডারদের জন্য প্রথম মাদ্রাসা খোলা হয়।

আরও পড়ুন:
ব্যক্তিগত অনুষ্ঠানে প্রটোকল নেব না: ইমরান
পাকিস্তানে ঢল নামতে পারে আফগান শরণার্থীর
পাকিস্তানে পশুর হাটে ব্যবসায়ীদের টিকা বাধ্যতামূলক
উইঘুর প্রশ্নে চীনের পক্ষে ইমরানের বিস্ফোরক মন্তব্য

শেয়ার করুন

মন্তব্য