রুদ্ধশ্বাস পেনাল্টি শুটআউট জিতে ফাইনালে আর্জেন্টিনা

রুদ্ধশ্বাস পেনাল্টি শুটআউট জিতে ফাইনালে আর্জেন্টিনা

কলম্বিয়ার বিপক্ষে টাইব্রেকার জেতার পর উচ্ছ্বসিত লিওনেল মেসি। ছবি: টুইটার

শেষ পর্যন্ত পেনাল্টি জুজু কাটিয়ে ফাইনালে পৌঁছেছে লিওনেল মেসির দল। নির্ধারিত সময়ে খেলা ১-১ গোলে ড্র থাকায় ম্যাচ গড়ায় টাইব্রেকে। যেখানে ৩-২ গোলে কলম্বিয়াকে হারায় আর্জেন্টিনা।

কোপা আমেরিকায় আর্জেন্টিনার পেনাল্টি ভাগ্য ভালো নয়। দুইবার পেনাল্টি শুটআউটে হেরে শিরোপা খোয়াতে হয়েছে আলবিসেলেস্তেদের।

এবারের সেমিফাইনালেও যখন কলম্বিয়ার বিপক্ষে খেলা গড়াল টাইব্রেকে, হয়তো মুষড়ে পড়েছিলেন লাখো কোটি আর্জেন্টিনা ভক্ত।

শেষ পর্যন্ত পেনাল্টি জুজু কাটিয়ে ফাইনালে পৌঁছেছে লিওনেল মেসির দল। নির্ধারিত সময়ে খেলা ১-১ গোলে ড্র থাকায় ম্যাচ গড়ায় টাইব্রেকে।

পেনাল্টি শুটআউটের টাইব্রেকে আর্জেন্টিনার জয়ের নায়ক ছিলেন এমিলিয়ানো মার্তিনেস। কলম্বিয়ার নেয়া পাঁচটির মধ্যে তিনটি শটই ঠেকিয়ে দেন আর্জেন্টিনার এই শট স্টপার।

আর লিওনেল মেসির লক্ষ্যভেদ দিয়ে টাইব্রেক শুরু করে একটিমাত্র টার্গেট হাতছাড়া করে আর্জেন্টিনা।

ফলে পেনাল্টিতে ৩-২ ব্যবধানে জিতে ব্রাজিলের বিপক্ষে ফাইনাল নিশ্চিত করে ১৪ বারের কোপা আমেরিকা বিজয়ীরা।

এর আগে ব্রাসিলিয়ার নির্ধারিত সময়ে লাউতারো মার্তিনেসের ৭ মিনিটের গোলের পর ৬২ মিনিটে কলম্বিয়ার পক্ষে সমতা ফেরান লুইস দিয়াস।

ব্রাসিলিয়ার ন্যাশনাল স্টেডিয়ামে ম্যাচের একেবারে শুরুতে গোল পেয়ে যায় আর্জেন্টিনা। কলম্বিয়ার বক্সে মেসি বল বানিয়ে দেন লাউতারো মার্তিনেসকে। কাছ থেকে ভুল করেননি ইন্টার মিলান তারকা।

পিছিয়ে পড়েও দমে যায়নি কলম্বিয়া। একের পর এক আক্রমণে তারা আতঙ্ক ছড়াতে থাকে আর্জেন্টিনার বক্সে। গোল হজমের দুই মিনিট পরই হুয়ান কুয়াদ্রাদোর শট থেকে আলবিসেলেস্তেদের সুরক্ষিত রাখেন এমিলিয়ানো মার্তিনেস।

বিরতির আগে ম্যাচে সমতা ফেরাতে পারত কলম্বিয়া। কিন্তু ৩৬ মিনিটে উইলমার বারিয়োসের নেয়া শট বারে লেগে প্রতিহত হয়।

আর বিরতির বাঁশির ঠিক আগে আর্জেন্টিনার হয়ে সুযোগ হাতছাড়া করেন নিকোলো গনসালেস। মেসির কর্নার থেকে তার নেয়া জোরালো হেড দুর্দান্ত দক্ষতায় ঠেকিয়ে দেন কলম্বিয়ার গোলকিপার দাভিদ অসপিনা।

১-০ গোলে এগিয়ে থেকেই প্রথমার্ধ শেষ করে আর্জেন্টিনা।

বিরতির পর আরও প্রবলভাবে শুরু করে কলম্বিয়া। ৬১ মিনিটে লুইস দিয়াস সমতা ফেরান অসাধারণ এক গোলের মাধ্যমে। বাঁ-প্রান্ত দিয়ে দ্রুত নেয়া ফ্রি-কিকে বল পেয়ে যান তিনি।

ঝড়ো গতিতে আর্জেন্টিনার বক্সে ঢুকে হেরমান পেসেলাকে কাটিয়ে যখন পড়ে যাচ্ছিলেন মাটিতে, সেই সময়ে অফব্যালান্স শটে বল জালে জড়ান।

এরপর ৭৪ মিনিটে গোলকিপারকে একা পেয়েও দলের লিড দ্বিগুণ করতে পারেননি লাউতারো আর ৮২ মিনিটে মেসির শট বারে লেগে প্রতিহত হয়।

রুদ্ধশ্বাস পেনাল্টি শুটআউট জিতে ফাইনালে আর্জেন্টিনা
আর্জেন্টিনার হয়ে পেনাল্টি শুটআউটে ৩টি শট ঠেকান গোলকিপার এমিলিয়ানো মার্তিনেস। ছবি: টুইটার

ফলে ১-১ স্কোরলাইনের শেষ হয় নির্ধারিত ৯০ মিনিট। কোপা আমেরিকার নিয়ম অনুযায়ী ম্যাচ এরপরই চলে যায় পেনাল্টি শুটআউটে।

যেখানে এমিলিয়ানো মার্তিনেসের অনবদ্য পারফরম্যান্স আর্জেন্টিনাকে পাঁচ বছর পর পৌঁছে দেয় কোপা আমেরিকার ফাইনালে।

১১ জুলাই রোববার রিও দি জেনেইরোর ঐতিহাসিক মারাকানা স্টেডিয়ামে শিরোপা লড়াইয়ে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ব্রাজিলের মুখোমুখি হবে আর্জেন্টিনা।

তার আগের দিন তৃতীয় স্থান নির্ধারণীতে পেরুর মোকাবিলা করবে কলম্বিয়া।

আরও পড়ুন:
ফাইনাল ও ব্রাজিল থেকে এক ম্যাচ দূরে আর্জেন্টিনা
টেকনিক্যালি মেসি আমার চেয়ে ভালো: নেইমার
‘প্রতিপক্ষও মেসির খেলা উপভোগ করে’

শেয়ার করুন

মন্তব্য