অভিশাপ মোচনের আরেকটি সুযোগ মেসির

অভিশাপ মোচনের আরেকটি সুযোগ মেসির

আর্জেন্টিনা জাতীয় দলের অনুশীলনে লিওনেল মেসি। ছবি: এএফপি

কোপা আমেরিকায় গ্রুপ বি-র ম্যাচে চিলির মুখোমুখি হচ্ছে আর্জেন্টিনা। রিওর অলিম্পিক স্টেডিয়ামে ম্যাচ শুরু মঙ্গলবার ভোর ৩টায়।

ফুটবলে ব্যক্তিগত অর্জন ও রেকর্ড যা আছে সবই তার নামে। সেরা গোলদাতা, সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার জিতেছেন অসংখ্য। ক্লাব ফুটবলের সম্ভাব্য সবগুলো শিরোপাই জিতেছেন একাধিকবার। সর্বকালের সেরা খেলোয়াড়দের তর্কে তার নাম থাকে পেলে-ম্যারাডোনার সঙ্গেই।

তারপরও লিওনেল মেসির ক্যারিয়ারে রয়েছে বড় এক শূন্যতা। সর্বজয়ী এই কিংবদন্তি আর্জেন্টিনার জার্সিতে এখনও জেতেননি বড় কোনো শিরোপা। ২০০৮ বেইজিং অলিম্পিক স্বর্ণই আকাশি-সাদা জার্সিতে তার সবচেয়ে বড় অর্জন।

চূড়ান্ত সাফল্যের একেবারে কাছে চলে গিয়েছিলেন ২০১৪ সালে। ব্রাজিল বিশ্বকাপের ফাইনালে জার্মানির কাছে অন্তিম মুহূর্তের গোলে হেরে যেতে হয় মেসি ও আর্জেন্টিনাকে। টুর্নামেন্টের সেরা খেলোয়াড় হলেও দলীয় শিরোপার আক্ষেপ থেকেই যায় তার।

পরের দুই বছর আসে আরও দুটি ব্যর্থতা। ২০১৫ ও ২০১৬ কোপা আমেরিকার ফাইনালে চিলির কাছে হেরে রানার্সআপ হয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয় ছয়বারের ব্যলন ডর জয়ীকে।

পরের বিশ্বকাপ ও কোপা আমেরিকায় আর্জেন্টিনাকে ফাইনালেও নিয়ে জেতে পারেননি মেসি। ফুটবল দলীয় খেলা হলেও, সর্বকালের অন্যতম সেরা ফুটবলারের ওপরই দলের ব্যর্থতার দায় চেপেছে বারবার।

খেলোয়াড় মেসির তুলনায় কিছুটা ব্যর্থ অধিনায়ক মেসি এমন সমালোচনাও হয়েছে। প্রায় একার চেষ্টাতেই বারবার দলকে ফাইনালে তোলার পরও ট্রফি না জেতার বাঁকা কথা শুনতে হচ্ছে তাকে।

৩৩ বছর বয়সী মেসি পৌঁছে গেছেন ক্যারিয়ারের সায়াহ্নে। হতে পারে এটাই তার শেষ কোপা আমেরিকা টুর্নামেন্ট। নিজের সম্ভাব্য শেষ মহাদেশীয় টুর্নামেন্টকে স্মরণীয় করে রাখতেই চাইবেন মেসি।

আর্জেন্টিনার হয়ে একটি শিরোপা জয় যে তার কাছে কতটা গুরুত্বপূর্ণ সেটা আরও একবার মনে করিয়ে দিলেন মেসি।

চিলির বিপক্ষে ম্যাচের আগে আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনে আর্জেন্টাইন অধিনায়ক বলেন, ‘আমি জাতীয় দলের জন্য সব সময়ই প্রস্তুত। আমার সবচেয়ে বড় স্বপ্ন জাতীয় দলের জার্সিতে একটা শিরোপা জেতা। খুব কাছে গিয়েছি কয়েকবার। জিততে পারিনি। কিন্তু আমি চেষ্টা চালিয়ে যাব। স্বপ্ন সত্যি করার জন্য লড়াই করে যাব।’

অভিশাপ মোচনের আরেকটি সুযোগ মেসির
কোপা আমেরিকায় নিজেদের উদ্বোধনী ম্যাচের আগে অনুশীলনে ব্যস্ত আর্জেন্টিনা দল। ছবি: এএফপি



সেই লক্ষ্যে সদলবলে লিওনেল মেসি মাঠে নামছেন আরও একবার। চিলির বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে কোপা আমেরিকা অভিযান শুরু হচ্ছে আর্জেন্টিনার।

বরাবরের মতো আক্রমণভাগ নিয়ে কোনো চিন্তা নেই আলবিসেলেস্তেদের। বিশ্বসেরা মেসির সঙ্গে রয়েছেন লাউতারো মার্তিনেস, আনহেল কোরেয়া ও আনহেল দি মারিয়ার মতো ইউরোপের সেরা লিগের সেরা সব তারকা। সঙ্গে যোগ দিয়েছে একঝাঁক নতুন প্রতিভা। দলের কম্বিনেশন ভালো মানছেন মেসি।

তিনি বলেন, ‘নতুন খেলোয়াড় এলেও দল কীভাবে খেলে সে সম্পর্কে সবারই ধারণা হয়ে গেছে। সর্বশক্তি দিয়ে আঘাত করার এটাই সময়। তেমনটা করতে পারলে কাপ জয়ের জোরালো সম্ভাবনা আছে আমাদের।’

ডিফেন্স নিয়েই যত মাথাব্যাথা হেড কোচ লিওনেল স্কালোনির। নিকোলাস ওটামেন্ডি ও হারমান পাসেজার মতো অভিজ্ঞরা থাকার পরও নিরেট নয় আর্জেন্টিনার রক্ষণ। সেরি আর সেরা ডিফেন্ডার ক্রিস্টিয়ান রোমেরোই একমাত্র উজ্জ্বল ছিলেন বাছাইপর্বের শেষ দুই ম্যাচে।

চিলি ও কলম্বিয়ার সঙ্গে নিজেদের শেষ দুই ম্যাচ ড্র করে আর্জেন্টিনা। চিলির সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করার পর কলম্বিয়ার বিপক্ষে ২-০ গোলে লিড হারায় দুইবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। শেষ মুহূর্তে ম্যাচে পূর্ণ তিন পয়েন্ট হাতছাড়া হওয়ায় হতাশ হয়েছে পুরো দল জানান মেসি।

যোগ করেন, ‘কলম্বিয়ার বিপক্ষে ম্যাচ যেভাবে শেষ হয়েছে তাতে সবাই খুব অসন্তুষ্ট ছিলাম। ওই অংশটুকু বাদ দিলে ম্যাচের বাকি সময় আমরা ভালোই খেলেছি। কিছু বিষয় শুধরাতে হবে। আমরা নিজেদের আরও উন্নতি করতে চাই।’

মেসির ইতিহাস গড়তে হলে সবচেয়ে বেশি সহায়তা লাগবে ডিফেন্স লাইনের তা নিয়ে সন্দেহ নেই। না হলে রূপকথার অভিশপ্ত রাজপুত্রের মতো আরও একবার খালি হাতেই ফিরতে হবে নাম্বার টেনকে।

কোপা আমেরিকায় চিলির বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে নিজেদের ত্রুটি শুধরে নিতে চাইবে আর্জেন্টিনা। জয় দিয়ে শুরু করতে মুখিয়ে আছেন মেসি।

‘আমরা ভালো খেলছি কিন্তু একটা জয় দরকার। তিন পয়েন্ট পেয়ে শুরু করাটা সব সময়ই গুরুত্বপূর্ণ। কারণ, এটা দলকে নির্ভার রাখে। আমরা জানি, বিষয়টা কঠিন কিন্তু আশা করছি আমরা তা অর্জন করতে পারব,’ বলেন তিনি।

রিওর অলিম্পিক স্টেডিয়ামে ম্যাচ শুরু হচ্ছে বাংলাদেশ সময় মঙ্গলবার ভোর ৩টায়।

আরও পড়ুন:
রকস্টার লিওনেল মেসি
‘সর্বকালের সেরা’ মেসিকে চায় বেকহ্যামের দল
‘মেসি আগের মতো অতটা ভালো না’

শেয়ার করুন

মন্তব্য